Logo
আজঃ সোমবার ২৪ জুন 20২৪
শিরোনাম
গ্রীষ্মের রুক্ষ প্রকৃতিতে শোভা ছড়াচ্ছে সোনালু ফুল ঈদযাত্রায় সড়ক দুর্ঘটনায় ২৬২ জন নিহত মতিউর ও তার স্ত্রী-সন্তানদের বিদেশ যেতে নিষেধাজ্ঞা তরুণরাই বদলে যাওয়া বাংলাদেশকে এগিয়ে নেবে: প্রধানমন্ত্রী নতুন সেনাপ্রধানের বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন ভূয়া সৈনিক পরিচয়ে বিয়ে করে শশুড় বাড়ী শিকলবন্দী জামাই! খাগড়াছড়িতে পুনাক কমপ্লেক্স এর উদ্বোধন করলেন: পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল এিপুরা হিজবুল্লাহর সঙ্গে যুদ্ধ বাধলে ইসরায়েলকে সমর্থন দেবে যুক্তরাষ্ট্র হজ চলাকালীন ১৩০১ জন হজযাত্রীর মৃত্যু: সৌদি আরব সেতু ভেঙ্গে নয়জন নিহতের ঘটনায় দুইটি তদন্ত কমিটি গঠন, মাইক্রোবাস উদ্ধার

"নোবেলের ম্যাজিক শুধু প্রতারণা"

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৫৩৪জন দেখেছেন

Image

রমজান আলীঃ

দুনিয়ার প্রাচুর্যশালী ব্যক্তিবর্গ, সংস্থা, খ্যাতিমান,এর কীর্তি,তথ্য, উপাত্ত দিয়ে তৈরি করে বিশেষ বিবেচনার জন্য। মহৎ মানুষের গভীর ক্রন্দন থেকে সারা জীবনের সঞ্চয়ী সকল অর্থ দান করে গেলেন মানব কল্যাণার্থে। যিনি রেখে গেলেন তিনি আজ বিতর্কিত। য আলফ্রেন্ড নোবেল পৃথিবীর তাবৎ মানুষের মনের মনি কোঠায় স্থান করে রয়ে গেল এবং তার পূর্ববর্তী বা পরবর্তী প্রজন্মের চিলি কোঠায়। ভারত উপমহাদেশে প্রথম ১৯১৩ সালে সাহিত্যের এক অঙ্গে গীতাঞ্জলির জন্য রবীন্দ্রনাথ প্রথম নোবেল প্রাইজ এ নির্বাচিত হন। আমরা ভারতবাসী গভীর আপ্লুত, গর্বিত। নন্দিত নায়ক রবি ঠাকুর বাংলা ভাষাকে বিশ্ব দরবারে স্থান করে নেওয়ায় কোটি প্রণাম। বিশ্বকবি রবি ঠাকুর কবি,নাট্যকার, ছড়াকার, গীতিকার ছিলেন। উপরন্ত তাকে স্বভাব কবি ও বলা হয়। ভারত উপমহাদেশে তিনজন স্বভাব জন্মেছিলেন। তারা হলেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, কাজী নজরুল ইসলাম ও কবি গোবিন্দ্র নাথ। তারা কাগজ কলম হাতে নিলেই কলম যোদ্ধা হয়ে যান। এইজন্য এই তিনজনই স্বভাব কবি হয়েছেন। কবি কাজী নজরুল ইসলাম ২০০ কোটি মুসলিমের প্রতিনিধিত্ব করে কবিতা লিখে জেল খেটেছেন, এমন নজির পৃথিবীর ইতিহাসে আর নেই।

"রমজানের ওই রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ"এই গান টি তো শিক্ষা সংস্কৃতিতে পড়ে। ভাষার জন্য শহীদ হয়েছেন তার দৃষ্টান্ত তো পৃথিবীর ইতিহাসে আর কারো নাই। কিন্তু উনারা মুসলিম হওয়ায় তার নজর করেনি পৃথিবীর কোন সংস্থায়। নজর কারেণি বঙ্গবন্ধুর কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার জন্য। যিনি প্রায় ৪৪ বছর পর্যন্ত দলনেত্রী, পঞ্চম বারের মত একটি দেশের প্রধানমন্ত্রী যা ইন্দিরা গান্ধীর থেকেও প্রায় ১০ বছর বেশি ক্ষমতা আরোহণ করে আসছেন। কিন্তু এই বাঙালি নেত্রী নাকি বিশ্বের ২২ তম ক্ষমতাধর নারী। যদি উনি ইউরোপ বা আমেরিকার কোন অখ্যাত দেশের নেত্রী ও হতেন তাহলে একাধিকবার নোবেল পুরস্কারে ভূষিত হতেন। তবে ডক্টর ইউনুস এর জন্য তাদের দরদের কমতি নেই। যদিও আরেকবার নোবেল উপাধি দেওয়া যায় কিনা সেই ব্যাপারে তদবির করা উচিত। আমাদের সন্ত্রাসী প্রতিবেশী মিয়ানমার তারা যে নারকীয় হত্যাযজ্ঞ চালিয়েছিল তার প্রতিবাদ না করে আমাদের ধনাঢ্য প্রতিবেশীরাও কৌশলে চুপ করেছিলেন। রোহিঙ্গা মুসলিমরা দুনিয়ার কেয়ামত দেখে দিগ্বিদিক হারিয়ে এই বাংলায় আশ্রয় নিয়েছিল। ১৫ লক্ষ মুসলিমকে জীবিত অবস্থায় আশ্রয় দিয়ে যে নজির বাংলার প্রধানমন্ত্রী স্থাপন করলেন তাকে শতবার নোবেল পুরস্কারে ভূষিত করা উচিত। ৭২ টি বাংলাদেশের সমান কানাডা সেখানেও কি এই রোহিঙ্গাদের স্থান দিতে পারতো না? অথবা ৩৮ টি বাংলাদেশের সমান দেশ নিয়ে আমাজান বন সৃষ্টি সেখানে কি এই অসহায় রোহিঙ্গাদের স্থান হতো না? কারণ আশ্রয় প্রার্থীরা সবাই মুসলিম, সেজন্যই এত অবহেলা। ভাই আমরা এই বিবেকহীন বিচারকদের ঘৃণা করি। তামাশার বিচার ব্যবস্থা মানি না, ভুয়া জাতিসংঘ মানি না।


আরও খবর

ভালোবাসার দিন আজ

বুধবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




তানোরে পৃথক পৃথক ঘটনায় তিনজনের মৃত্যু

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৭৮জন দেখেছেন

Image
আব্দুস সবুর তানোর থেকে:রাজশাহীর তানোরে সংরক্ষিত মহিলা সদস্যের স্বামী পরিত্যক্ত মাটির  ঘরের তীরের সাথে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।  নিহতের নাম মুনসুর রহমান(৬৫)। সে খাপাড়া গ্রামের মৃত খোকনের পুত্র। একই দিন সকালের দিকে তানোর পৌর সদর একে সরকার সরকারি কলেজের দক্ষিণে প্রফেসর পাড়ায় পাকা দেয়ালে ইট গাঁথুনির সময় পড়ে গিয়ে শমসের নামের এক রাজমিস্ত্রীর মৃত্যু হয়েছে,এছাড়া  গুবিরপাড়া গ্রামের বিধবা রজি বেগম (৪০) নামের এক দুই সন্তানের জননী   পানিতে ডুবে মর্মান্তিক মৃত্যু বরন করেছেন। বৃহস্পতিবার সকালের দিকে ঘটে ঘটনাগুলো। এসব ঘটনায় পরিবারসহ এলাকায়  শোকের ছায়া নেমে এসেছে।   

জানা গেছে, সকালের দিকে উপজেলার সরনজাই ইউনিয়ন ইউপির মহিলা সদস্য দোলনচাঁপার স্বামী মুনসুর রহমান নিজ বাড়ির পরিত্যক্ত মাটির ঘরের তীরের সাথে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। একই দিন সকালের দিকে পৌর সদর প্রফেসর পাড়ায় প্রভাষক আশরাফুলের বাড়ির পাকা দেয়ালে ইট গাঁথুনির সময় পড়ে যান শ্রমিক রাজমিস্ত্রী শমসের আলী। সাথে সাথে অজ্ঞান অবস্থায় স্থানীয়রা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তার বাড়ি উপজেলার পাঁচন্দর ইউনিয়ন ইউপির বনকেশর গ্রামে। সে সানাউল্লাহর পুত্র। তার মৃত্যুর খবর পেয়ে স্বজনরা হাসপাতালে আহাজারি শুরু করেন। স্বজনদের  কান্নায় হাসপাতাল ভারি হয়ে উঠে।এদিকে একই দিন গুবিরপাড়া গ্রামের মৃত মাসুদের স্ত্রী রজি বেগম (৪০) বাড়ির সামনে পুকুরের পানিতে ডুবে যায়। পরিবারের লোকজন উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তার এমন মৃত্যুতে পরিবারে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। মাকে হারিয়ে  নির্বাক হয়ে পড়েছেন সন্তানেরা।   

থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি আব্দুর রহিম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, প্রতিটি ঘটনায় থানায় অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করা হয়েছে।

আরও খবর



ইনফিনিক্স স্মার্টফোন কিনে জিতুন বাইক, ঘুরে আসুন কক্সবাজার

প্রকাশিত:সোমবার ০৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১৩৬জন দেখেছেন

Image

প্রযুক্তি ডেস্ক:দরজায় কড়া নাড়ছে ঈদুল আজহা। ঈদের আনন্দ আরও বাড়িয়ে তুলতে বিশেষ ক্যাম্পেইন শুরু করেছে তরুণদের পছন্দের স্মার্টফোন ব্র্যান্ড ইনফিনিক্স। ‘ঈদ বোনানজা’ নামের এই ক্যাম্পেইনে গ্রাহকদের জন্য থাকছে কক্সবাজার ট্যুর, মোটরসাইকেল, নিশ্চিত ক্যাশব্যাকসহ আরও সব আকর্ষণীয় পুরস্কার।

ইনফিনিক্সের নির্দিষ্ট কিছু স্মার্টফোন কিনে বিশেষ মূল্যছাড়সহ এসব পুরস্কার জেতার সুযোগ পাবেন গ্রাহকরা। ক্যাম্পেইনটি চলবে ৫ জুন থেকে ২৫ জুন পর্যন্ত।

ক্যাম্পেইনে ইনফিনিক্সের নোট ৩০ এবং ৪০ সিরিজ, হট ৩০ (৪+১২৮ এবং ৮+১২৮ জিবি সংস্করণ); হট ৪০ সিরিজ এবং স্মার্ট ৮ সিরিজের স্মার্টফোনগুলো কিনলেই কেবল এই পুরস্কার পাওয়া যাবে। ক্যাম্পেইন চলাকালে অফিসিয়াল স্টোর থেকে ইনফিনিক্সের এই মডেলগুলোর যেকোনো একটি কিনলে বিশেষ পুরস্কার হিসেবে কক্সবাজার ভ্রমণ এবং একটি এক্সক্লুসিভ বাইক জেতার সুযোগ পাচ্ছেন ক্রেতারা।

বিশেষ পুরস্কার ছাড়াও ক্যাম্পেইনে অংশ নেওয়া গ্রাহকরা সর্বনিম্ন ১০০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ৫০০০ টাকা পর্যন্ত ক্যাশব্যাক জিতে নিতে পারবেন। আর স্মার্টফোন কিনলেই থাকছে ১০০ টাকার নিশ্চিত ক্যাশব্যাক। এছাড়া স্টক থাকা সাপেক্ষে নিশ্চিত উপহার হিসেবে গ্রাহকরা পেতে পারেন নেক ব্যান্ড, টি-শার্ট এবং ছাতা।

গ্রাহকদের উচ্চ মানের উদ্ভাবনী স্মার্টফোনের পাশাপাশি মূল্যবান উপহার ও সুন্দর অভিজ্ঞতা দিয়ে পুরস্কৃত করতে এই ক্যাম্পেইনের আয়োজন করেছে ইনফিনিক্স। একইসঙ্গে 'ঈদ বোনানজা' ক্যাম্পেনইটির মূল লক্ষ্য আকর্ষণীয় সব পুরস্কার জেতার মাধ্যমে গ্রাহকদের ঈদ আনন্দ দ্বিগুণ করে তোলা।

ট্রেন্ডি ব্র্যান্ড ইনফিনিক্স উদ্ভাবনী প্রযুক্তি এবং স্টাইলিশ ডিজাইনের জন্য তরুণদের কাছে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে। সম্প্রতি তাদের নোট ৪০ সিরিজে প্রথমবারের মতো ওয়্যারলেস ম্যাগচার্জ প্রযুক্তি চালু করেছে এই স্মার্টফোন কোম্পানি।


আরও খবর



দীপ্ত প্লেতে ১০ জুন থেকে অরিজিনাল ফিল্ম ‘পয়জন‘

প্রকাশিত:রবিবার ০৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১০৩জন দেখেছেন

Image

বিনোদন ডেস্ক:তিন তিনটা ফ্লপ সিনেমার পর চার নম্বর সিনেমা সুপারহিট সাথে ন্যাশনাল এওয়ার্ড! নায়িকা রূপা মীর্জা এখন টক অব দ্য শো বিজ। এই সাকসেস সেলিব্রেট করতে সে একটা পার্টি থ্রো করে। আলোকোজ্জ্বল ঐ  পার্টিতে  শুন্য থেকে শিখরে ওঠা রূপা মীর্জার অন্ধকার  অতীত সামনে চলে আসে । আপন, পর, শত্রু, মিত্র, মুখ ও মুখোশ সব যেনো এক গোলক ধাঁধা! পুরনো ক্ষত, পাপ কিংবা লোভের গল্পে রাত বাড়তে থাকে আর বাড়তে থাকে লাশ!

পরিচালক সঞ্জয় সমদ্দার বলেন, প্রয়োজনের অতিরিক্ত যে কোনো কিছু বিষ ! কিন্তু জীবনের এমনই আয়রনি যে, প্রয়োজনীয়তার সীমা আমরা প্রায়শই নির্ধারণ করতে পারি না । সেখান থেকেই জন্ম নেয় বেঁচে থাকার নানা সমীকরণ । পরিশ্রম, মেধা, কিংবা প্রতারণা নানা ভাবে জীবনের সেই সমীকরণ মেলানোর চেষ্টা  চলে কিন্তু জীবনের গল্প তো আসলে লেখে অন্য কেউ ..

প্রধান চরিত্রের তানজিন তিশা বলেন, আগামী ১০ তারিখ দীপ্ত প্লেতে আসছে ওয়েব ফিল্ম পয়জন। আমি এখানে একটা নায়িকার জীবনের গল্প উপস্থাপন করতে যাচ্ছি। এই চরিত্রে অভিনয় করার আগে আমি একজন নায়িকার জীবন যাপনও রপ্ত করেছি । আমাকে জানতে হয়েছে একজন নায়িকাকে কাজ করতে গিয়ে কি ডিল করতে হয়। আমি অনেক সিনেমা দেখেছি। যেহেতু আমি সিনেমার নায়িকা না, তাই রূপা মির্জা হতে গিয়ে একজন সিনেমার নায়িকাকে স্টাডি করতে হয়েছে। ১২ দিন যখন শুটিং করেছি তখন মনে হয়েছে আমি রূপা মির্জা ছিলাম। আশা করছি দর্শক আমার কাজ দেখে হতাশ হবেন না।

ওয়েব ফিল্মটির প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন তানজিন তিশা। এছাড়াও আরো অভিনয় করেছেন আবু হুরায়রা তানভীর, টাইগার রবি, রওনক রিপন, আব্দুল্লাহ আল সেন্টু, এ কে আজাদ সেতু, এস এম সোহাগ প্রমুখ।


আরও খবর



বরগুনায় সেতু ধসে ১০ বরযাত্রী নিহত, আহত অনেক

প্রকাশিত:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৪৬জন দেখেছেন

Image

বরগুনা প্রতিনিধি:সেতু ধসে ১০ বরযাত্রী নিহত হয়েছেন বরগুনার আমতলীতে। এতে আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন। তাৎক্ষণিকভাবে নিহতদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

শনিবার (২২ জুন) দুপুরে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, দুপুরে হলদিয়া ইউনিয়নের ঝুঁকিপূর্ণ ব্রিজ দিয়ে একটি মাইক্রোবাস ও অটোরিকশা পার হওয়ার সময় ব্রিজ ভেঙে খালে পড়ে যায়। এ সময় অটোরিকশার যাত্রীরা বের হয়ে এলেও মাইক্রোবাসের যাত্রীরা বের হতে পারেনি। স্থানীয় লোকজন ও পরবর্তীতে ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধার কর্মীরা ১০ জনের মরদেহ উদ্ধার করে আমতলী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠিয়েছেন।

আমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী শাখাওয়াত হোসেন তপু জানান, হলদিয়া এলাকায় বৌভাতে যাওয়ার সময় একটি ব্রিজ ভেঙে মাইক্রোবাস খালে পড়ে যায়। এ সময় স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধার কার্যক্রম শুরু করে। এখন পর্যন্ত ১০ জনের মরদেহ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিস। এখন পর্যন্ত নিহতদের নাম-পরিচয় পাওয়া যায়নি। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।


আরও খবর



মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ রাখাই চ্যালেঞ্জ : প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | ৯৪জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০২৪-২৫ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে রাখাকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে বর্ণনা করেছেন।

শুক্রবার (৭ জুন) বিকেলে তেজগাঁও জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে ঐতিহাসিক ৬ দফা উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সব থেকে বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে রাখা। বিশেষ করে খাদ্য মূল্য, সেখানে উৎপাদন এবং সরবরাহ বৃদ্ধি করতে হবে। বৃষ্টির কারণে যেমন আলুর বীজ নষ্ট হয়ে গেছে, তো এই রকম অনেক কিছুই আছে। আমরা এখনও উৎপাদনমুখী হলে খাদ্যে কোনো দিন অভাব হবে না। বিশ্ব পরিস্থিতি মাথায় রেখে আমাদের পরিকল্পনা নিয়ে চলতে হবে।

বাজেটে এবার মৌলিক চাহিদাকে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা বৃহস্পতিবার বাজেট দিয়েছি, বিএনপির আমলে সবশেষ বাজেট মাত্র ৬২ হাজার কোটি টাকার ছিল। আর তত্ত্বাবধায়ক সরকার দিয়েছিল ৬৮ হাজার কোটি টাকার, সেখানে আমরা ৭ লাখ ৯৮ হাজার কোটি টাকা বাজেট প্রস্তাব করেছি।

তিনি বলেন, এই বাজেটে মানুষের মৌলিক যে অধিকার, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, খাদ্য তারপর দেশীয় শিল্প, সেগুলো এবং সামাজিক নিরাপত্তা, এসব বিষয়কে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। যা মানুষের জীবনকে উন্নত করবে, নিশ্চয়তা দেবে। তার কারণ হচ্ছে, আমরা এগিয়ে যাচ্ছিলাম, কোভিড ১৯ এর অতিমারি দেখা দিয়েছিল, এই অতিমারির ফলে সারা বিশ্বে অর্থনৈতিক মন্দা হয়েছে, আমরাও সেই মন্দায় পড়ে গেলাম। সারা বিশ্বে প্রতিটি জিনিসের দাম বেড়ে গেল। এরপর আসল ইউক্রেন রাশিয়ার যুদ্ধ, এরপর স্যাংশন পাল্টা স্যাংশন, ফলে প্রত্যেকটা জিনিসের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে।

সরকারপ্রধান বলেন, আমাদের মানুষকে খাওয়াতে হবে আগে। রিজার্ভ কত আছে না আছে, সেটার চেয়ে বেশি দরকার আমার দেশের মানুষের চাহিদাটা পূরণ করা। সেদিকে লক্ষ্য রেখে আমরা পানির মতো টাকা খরচ করেছি। বাংলাদেশ একমাত্র দেশ যেটা কোনো উন্নত দেশ করেনি, বিনা পয়সায় কোভিড ১৯ এর ভ্যাকসিন দিয়েছি, বিনা পয়সায় টেস্ট করিয়েছি। সেটা করেছি কেন? মানুষকে বাঁচাতে।

মানুষের চাহিদা পূরণের ভাবনা থেকেই এই বাজেট দেওয়া হয়েছে উল্লেখ করে সরকারপ্রধান বলেন, অনেকে বসে বসে হিসাব কষে, আগে এত পার্সেন্ট বেড়েছে এবার কম পার্সেন্ট বাড়ল কেন? এখন সীমিতভাবে আমরা এগিয়ে যেতে চাই। যাতে আমাদের দেশের মানুষের কষ্ট না হয়। মানুষের যে চাহিদা সেটা যেন পূরণ করতে পারি, সেদিকে লক্ষ্য রেখেই আমরা বাজেট করেছি।

তিনি আরও বলেন, যেহেতু মূল্যস্ফীতি বেড়েছে, নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য আমরা পারিবারিক কার্ড করে দিয়েছি। যারা একেবারে হতদরিদ্র তাদের তো একেবারে বিনা পয়সায় খাবার দিচ্ছি। আর সামাজিক নিরাপত্তা তো বিনা পয়সায় দিয়ে যাচ্ছি।


আরও খবর