Logo
আজঃ সোমবার ২৪ জুন 20২৪
শিরোনাম
মতিউর ও তার স্ত্রী-সন্তানদের বিদেশ যেতে নিষেধাজ্ঞা তরুণরাই বদলে যাওয়া বাংলাদেশকে এগিয়ে নেবে: প্রধানমন্ত্রী নতুন সেনাপ্রধানের বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন ভূয়া সৈনিক পরিচয়ে বিয়ে করে শশুড় বাড়ী শিকলবন্দী জামাই! খাগড়াছড়িতে পুনাক কমপ্লেক্স এর উদ্বোধন করলেন: পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল এিপুরা হিজবুল্লাহর সঙ্গে যুদ্ধ বাধলে ইসরায়েলকে সমর্থন দেবে যুক্তরাষ্ট্র হজ চলাকালীন ১৩০১ জন হজযাত্রীর মৃত্যু: সৌদি আরব সেতু ভেঙ্গে নয়জন নিহতের ঘটনায় দুইটি তদন্ত কমিটি গঠন, মাইক্রোবাস উদ্ধার বর ও কনের বাড়ীতে শোকের মাতম রাশিয়ায় বন্দুকধারীদের ভয়াবহ হামলায় ১৫ পুলিশ সদস্য নিহত

ব্যালট ছিনতাই ও পুলিশের মামলায় খোকন-কাজলসহ ১৩ আইনজীবীর জামিন

প্রকাশিত:সোমবার ২০ মার্চ ২০23 | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ২৪৯জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক ;সুপ্রিম কোর্ট বার সমিতির নির্বাচনে ব্যালট পেপার ছিনতাই এবং পুলিশের কর্তব্য-কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে শাহবাগ থানায় দায়ের করা তিন মামলায় ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন ও ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজলসহ ১৩ আইনজীবীকে আগাম জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট।

আজ বিচারপতি মো. সেলিম ও বিচারপতি মো. বজলুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ তাদের আট সপ্তাহের আগাম জামিন দেন। নির্বাচনে বিএনপি প্যানেলের সভাপতি প্রার্থী ছিলেন ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন এবং ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল ছিলেন সম্পাদক প্রার্থী।

আদালতে বিএনপির আইনজীবীদের পক্ষে শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী, অ্যাডভোকেকেট জয়নুল আবেদীন, ব্যারিস্টার কায়সার কামাল।

এর আগে গত ১৫ মার্চ সুপ্রিম কোর্ট বার সমিতির নির্বাচনে ব্যালট ছিনতাই ও হট্টগোলের ঘটনায় বিএনপির শতাধিক আইনজীবীর বিরুদ্ধে শাহবাগ থানায় মামলা করে আওয়ামী লীগের মনোনীত নির্বাচন পরিচালনা কমিটির প্রধান অ্যাডভোকেট মো. মনিরুজ্জামান।

একই অভিযোগে সুপ্রিম কোর্টের প্রশাসনিক কর্মকর্তা রবিউল ইসলাম মিল্টন আরেকটি মামলা দায়ের করেনে। পরে পুলিশের কর্তব্য-কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে পুলিশ বাদী হয়ে শাহবাগ থানায় মামলা দায়ের করে।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (১৬ মার্চ) বিকেল ৫টায় সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি নির্বাচনের দুই দিনব্যাপী ভোটগ্রহণ শেষ হয়। প্রথম দিনের মতো দ্বিতীয় দিনেও বিএনপি ও আওয়ামীপন্থী আইনজীবীদের পাল্টাপাল্টি মিছিল ও হট্টগোলের জেরে উত্তপ্ত ছিল সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণ।

নির্বাচনে আওয়ামীপন্থী আইনজীবীরা ভোটাধিকার প্রয়োগ করলেও বিএনপি সমর্থক আইনজীবীরা ভোট দান থেকে বিরত থেকেছেন। তারা নতুন নির্বাচন পরিচালনা কমিটি গঠন করে তাদের মাধ্যমে ভোট গ্রহণের দাবি জানান।


আরও খবর



সৈয়দপুরে সামান্য বৃষ্টিতেই জলাবদ্ধতা,দুর্ভোগ

প্রকাশিত:রবিবার ২৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১৯জন দেখেছেন

Image

জহুরুল ইসলাম খোকন সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:সৈয়দপুর শহরে বর্ষা মানেই জলাবদ্ধতা। আষাঢ় মাসের গোড়ার দিকে এক দফা জলাবদ্ধতার শিকার হয়েছেন শহরবাসী। গত ১৫ জুন ২ ঘণ্টার বৃষ্টিপাতে শহরের মুন্সীপাড়া, নতুনবাবুপাড়া, পুরাতন বাবুপাড়া, বাঁশবাড়ী, মিস্ত্রিপাড়া, বাংগালিপুর নীজপাড়াসহ নিচু এলাকার মানুষ জলাবদ্ধতার কবলে পড়েছেন। এসব এলাকার প্রায় ৮০ ভাগ মানুষের ঘরবাড়ি ছিল ৩ ফুট পানির নিচে। প্রতিবছরই সামন্য বৃষ্টিপাতেই শহরজুড়ে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হচ্ছে।

শহরবাসীর অভিযোগ, সৈয়দপুর পৌরসভার মেয়র পৌরবাসীর সমস্যা সমাধানের জন্য কোন উদ্যোগই নেন না। কাউন্সিল ও পৌর মেয়রের পক্ষ থেকে বান ভাসিরা কোনো সহযোগিতাও পান না বলে অভিযোগ দীর্ঘদিনের

সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগে আছেন ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের শহীদ নূর মোহাম্মদ স্ট্রিটের উভয় পাশের মানুষ, মুন্সীপাড়া, বাঁশবাড়ির সাদরা লেন এলাকাসহ ৮ নম্বর ওয়ার্ডের শত শত পরিবার। এছাড়া শহরের শহীদ ডাক্তার জিকরুল হক সড়কে জলাবদ্ধতার কারনে ব্যবসায়িরা বিপাকে পড়ে যান। মাত্র ১ ঘণ্টার বৃষ্টিতে তলিয়ে যায় পুরো এলাকা। বৃষ্টির পানি নালা-নর্দমা দিয়ে বেরিয়ে যাওয়ার আউটলেট সুবিধা না থাকায় সামান্য বৃষ্টিতে ড্রেনের পানি উপচে ঢুকে যায় ব্যবসায়ির ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ও শহর ও গ্রামে বসবাস কারী মানুষের ঘরে ঘরে।

শহরের বাংগালীপুর নিজ পাড়ার (৮ নম্বর ওয়ার্ডের) কৃষি অধিদপ্তরের সাবেক কর্মকর্তা আলতাব হোসেন ও পান দোকানদার মনসুর আলী বলেন, পুরো বর্ষাকাল এখানকার হাজারো পরিবারকে জলাবদ্ধতার কারণে পানিবন্দি হয়ে থাকতে হয়। জলাবদ্ধতা যেন আমাদের বিধিলিপিতে পরিণত হয়েছে। বর্তমান মেয়র ও কাউন্সিলের কাছে আমরা একটি মাস্টার ড্রেনের জন্য বহুবার ধরনা দিয়েছি।প্রতিবারই তিনি সমস্যা সমাধানে শুধু আশ্বাসই দিয়েছেন কিন্তু কোনো পদক্ষেপ নেননি। যার কারণে সামান্য বৃষ্টিতেই ড্রেনের পানি উপচে তলিয়ে যাচ্ছে রাস্তাঘাট ও ঘরবাড়ি।

একই অবস্থা বিরাজ করছে ১ নম্বর রেলগেট থেকে হাতিখানা কবরস্থান যাওয়ার রাস্তাটি। ওই এলাকার ফল ব্যবসায়ী ও বাসিন্দারা ওই রাস্তাটি একাধিকবার উঁচু করার চেষ্টা করেছেন। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয়নি। ফল ব্যবসায়ী বাদশা বলেন, আমাদের সমস্যার কথা পৌর কর্তৃপক্ষকে বলে-বলে বিরক্ত হয়ে গেছি। তাই নিজেরাই সমস্যা সমাধানের জন্য মাটি দিয়ে উচু করার চেষ্টা করেছি। তিনি বলেন, নির্বাচনের সময় মেয়র  ফল মার্কের সড়ক সহ সৈয়দপুর শহরকে মডেল শহরে রুপান্তরিত করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, কিন্তু মেয়র নির্বাচিত হয়ে তিনি প্রায় ৪ বছর ক্ষমতায় আছেন, এই ৪ বছরে তিনি শুধু নিজের কথা ভেবেছেন, শহর উন্নয়নে তার কোন মাথা ব্যথাই লক্ষ্য করা যায় নি। অথচ প্রতিবছরই শহর উন্নয়নে ১০০ কোটি টাকারও বেশি বাজেট ঘোষণা করা  হয়েছে সৈয়দপুর পৌরসভায়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন পৌর কাউন্সিলর বলেন, সৈয়দপুর পৌর শহরের দুষিত পনি নিস্কাশনের নালাগুলোতে পলিথিনসহ নানা কিছু আটকে থাকে। পরিস্কারও করা হয় না মাসের পর মাস, ফলে পানি তাৎক্ষণিক নামে না। এ ছাড়া পৌর এলাকার রেলওয়ে আবাসিক ও বাণিজ্যিক এলাকার নালা-নর্দমা দখল করে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করায় সেগুলো নিয়মিত পরিষ্কার করতে ব্যর্থ হয় পৌরকর্তৃপক্ষ। যার ফলে মাত্র ১ ঘন্টা বৃষ্টিতেই সৈয়দপুর শহর তলিয়ে যায় ২/৩ ফুট পানির নিচে।

পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী সহিদুল ইসলাম বলেন, জলাবদ্ধতা নিরসনে আমাদের নিজস্ব টিম আছে, কিন্তু মাস্টার ড্রেন নির্মাণ বা সংস্কার করতে বাজেট ঘাটতি থাকায় ইচ্ছে থাকা সত্ত্বেও অনেক কিছুই সম্ভব হয়নি।

সৈয়দপুর পৌর আওয়ামী লীগ নেতা রফিকুল ইসলাম বলেন, পৌর মেয়র দায়িত্বে আছেন প্রায় ৪ বছর। এই ৪ বছরে সময় তিনি সৈয়দপুরের উন্নয়নে কোন কাজই করেননি। তিনি যদি শহরের প্রধান ৩টি সড়কও সংস্কারও করতেন, তাহলে শহরবাসীর কাছে মাথা উঁচু করে কথা বলতে পারতেন।

পৌর মেয়রের সঙ্গে বারবার যোগাযোগ করা হলেও তিনি প্রথম দিকে সাংবাদিকে সাথে কথা বলতে চাননি পরে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে জলাবদ্ধতা নিয়ে কোন কথাই বলবেন না বলে জানান।


আরও খবর



কঙ্গোতে নৌকা ডুবে ৮০ জনের বেশি নিহত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১০৪জন দেখেছেন

Image

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:ডেমোক্রেটিক রিপাবলিক অব কঙ্গোতে (ডিআরসি) একটি নৌকাডুবির ঘটনায় ৮০ জনের বেশি মানুষ প্রাণ হারিয়েছে। দেশটির প্রেসিডেন্ট ফেলিক্স শিসেকেদি এক ঘোষণায় এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মাই-এনডোম্বে প্রদেশের মুশি শহর থেকে প্রায় ৭০ কিলোমিটার (৪৩ মাইল) দূরের কোয়া নদীতে ওই দুর্ঘটনা ঘটেছে বুধবার (১২ জুন) ।

প্রেসিডেন্টের কার্যালয় থেকে সামাজিক মাধ্যমে এক পোস্টে বলা হয়েছে, ভবিষ্যতে যেন এ ধরনের বিপর্যয় আর না ঘটে সেজন্য এসব ঘটনার পেছনের প্রকৃত কারণ তদন্তের জন্য আহ্বান জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ফেলিক্স।

ভুক্তভোগীদের পরিবার এবং প্রিয়জনদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন তিনি। একই সঙ্গে স্থানীয় কর্তৃপক্ষকে প্রয়োজনীয় সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ এবং ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তার নির্দেশ দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ফেলিক্স।

রাতে যাত্রার সময় ওই দুর্ঘটনা ঘটেছে। ধারণা করা হচ্ছে, অন্ধকারে কিছু দেখা না যাওয়ায় এমন দুর্ঘটনা ঘটেছে। মাই-এনডম্বে প্রদেশের গভর্নর রিটা বোলা দুলা বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন, এই দুর্ঘটনার কারণ জানতে তদন্ত অব্যাহত রয়েছে।

কঙ্গোতে নৌকাডুবির ঘটনা যেন সাধারণ হয়ে উঠেছে। সেখানে ছোটবড় নৌকা এবং জাহাজে ধারণক্ষমতার বেশি যাত্রী বহন করার কারণেই বিভিন্ন সময় দুর্ঘটনা ঘটে। মধ্য আফ্রিকার দেশটির বিস্তীর্ণ বনাঞ্চলজুড়ে অল্প কিছু পাকা রাস্তা রয়েছে। সেখানে বেশিরভাগ মানুষ নদীপথেই যাতায়াত করে থাকে।

খবর আল জাজিরার।


আরও খবর



নাসিরনগর চাতলপাড়ে কাজী নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ

প্রকাশিত:শনিবার ১৫ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১৪৬জন দেখেছেন

Image

মোঃ আব্দুল হান্নান,নাসিরনগরব্রাহ্মণবাড়িয়াঃ- জেলার নাসিরনগর নগর উপজেলার চাতলপার ইউনিয়নে কাজী নিয়োগের বিষয়ে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে।তা নিয়ে সামাজিক যোযাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়াচ্ছে লোকজন।সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে জানা গেছে।


ইউনিয়নে সাতাইশ জন প্রার্থী থাকলেও একটি রাজাকার পরিবারের  তিন জনকে ডিওলেটার দিয়েছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য বলে জানা গেছে।তার সত্যতা যাচাই করতে স্থানীয় সংসদ সদস্য সৈয়দ একরামুজ্জামানের সাথে কথা হয়। তিনি কারো জন্য বিশেষ সুপারিশ করবেন না বলে জানিয়েছেন। যোগ্যতার ভিত্তিতে নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্নের প্রতি জোর দেন তিনি।

জানা  এক বিএনপি নেতা জোর পূর্বক উক্ত পদটি ভাগিয়ে দখলে নেয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে।সেই জন্য তার নিজস্ব তিনজন লোকের নামে তিনটি ডিও লেটারও নিয়ে নিচ্ছে।প্রার্থী মাজহারুল করিমের শিক্ষাগত যোগ্যতা সম্পর্কেও সন্দেহ পোষণ করছেন অনেকেই।

চাতলপার ইউনিয়নের চেয়ারম্যানসহ সর্বস্তরের মানুষের একটাই দাবি- কাজী নিয়োগটি যেন স্বচ্ছতার ভিত্তিতে হয়।বলপ্রয়োগ করে যেন কেউ প্রশাসনের স্বাভাবিক কাজে বাধা সৃষ্টি  না করতে পারে।

        -খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



প্রকাশ্যে 'তুফান' ট্রেলার, গ্যাংস্টার শাকিব যেন ওয়ান ম্যান আর্মি

প্রকাশিত:রবিবার ১৬ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১০১জন দেখেছেন

Image

বিনোদন ডেস্ক:ট্রেলার মুক্তি পেয়েছে মেগাস্টার শাকিব খানের নতুন সিনেমা তুফান। ২ মিনিট ৫০ সেকেন্ডের ট্রেলারে দেখানো হয়েছে কিশোরের গ্যাংস্টার হয়ে ওঠার গল্প।

শনিবার (১৫ জুন) রাত ৮টায় চরকি ও এসভিএফের ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশ্যে আসে ট্রেলারটি। শাকিবের সঙ্গে সিনেমায় রয়েছে মিমি চক্রবর্তী, মাসুমা রহমান নাবিলা, ফজলুর রহমান বাবু, শহিদুজ্জামান সেলিম, গাজী রাকায়েত, মিশা সওদাগর, চঞ্চল চৌধুরীসহ আরও অনেকে।

তুফান মানুষ নয়, আবার পশুও নয়, তুফান যা হতে চেয়েছিল তাই হয়েছে, রাক্ষস। ‘তুফান’-এর সঙ্গে ঠিক এভাবেই পরিচয় হলো দর্শকদের। কিন্তু কে এই ‘তুফান’?

ট্রেলারের শুরুতে একজনকে মেশিনগান চালাতে দেখা গেল। সে এক ভয়ঙ্কর মুহূর্ত। এরপরই দেখা মিলল কাঙ্ক্ষিত তুফানের। ইনি আর কেউ নন, শাকিব খান। তাকে বলতে শোনা গেল, বাশির ভাই জানত না, আমি একদিন ন্যাশনাল লেভেলে খেলব।’ ফের বললেন, ‘তুফান হতে অ্যটিটিউড লাগে, চোখের দৃষ্টি লাগে, অ্যাকশন, স্পিচ সব লাগে। এই বাশির ভাই চরিত্রে সিনেমায় রয়েছেন মিশা সওদাগর।

পুরো ট্রেলারে শাকিব খান ছিলেন ফুল অন অ্যাকশন। তবে শুধু অ্যাকশনই নয়, রয়েছে প্রেমও। আর এরপরই তুফান-এর ‘দুষ্টু কোকিল’ হয়ে ধরা পড়লেন মিমি চক্রবর্তী। তাকে প্রেম নিবেদনও করতে দেখা গেল শাকিবকে।

তবে ট্রেলারে তুফান-এর সঙ্গে খেলার যিনি পরামর্শ দিলেন তিনি আর কেউ নন অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী। তার সাফ কথা তুফান-এর সঙ্গে খেলতে হবে মাথা দিয়ে। এদিকে শাকিব তখন বলছেন, ‘তুফান পোষ মানে না, পোষ মানায়’। ট্রেলারে শেষে শাকিবকে যখন প্রশ্ন করা হল, সে কী চায়? উত্তর এল ‘পুরো দেশ’।

ঈদুল আজহায় মুক্তি পাচ্ছে শাকিব-মিমি’র তুফান। ঈদের পর ২৮ জুন ভারতে এরপর যুক্তরাষ্ট্র, কানাডাসহ অন্যান্য দেশেও মুক্তি পাবে রায়হার রাফি পরিচালিত এই ছবি।


আরও খবর



ড. মুহাম্মদ ইউনূস আদালতের সহানুভূতি পাচ্ছেন: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ০৫ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১৩০জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:ড. মুহাম্মদ ইউনূস আদালতের সহানুভূতি পাচ্ছেন বলে মন্তব্য করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। বুধবার (৫ জুন) মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপের সময় তিনি এ মন্তব্য করেন। ড. ইউনূসের বিচার যথাযথ প্রক্রিয়ায় আইনগতভাবে হবে বলে যোগ করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

ড. মুহম্মদ ইউনূসের বিচার প্রক্রিয়া নিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উদ্বেগের বিষয়ে মন্তব্য জানতে চাইলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ড. ইউনূসের বিচার আদালত করছে। তার বিচার প্রক্রিয়া যথাযথ আইনগতভাবে হবে। এছাড়া তিনি আদালতের সহানুভূতিও পাচ্ছেন।

ভারত ও চীনের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে হাছান মাহমুদ বলেন, ভারতের সঙ্গে আমাদের চমৎকার সম্পর্ক। মুক্তিযুদ্ধের মধ্যে দিয়ে ভারতের সঙ্গে আমরা রক্তের বন্ধনে আবদ্ধ। অপরদিকে চীন আমাদের উন্নয়ন অংশীদার। উভয় দেশের সঙ্গেই আমাদের সম্পর্ক খুব ভালো। এছাড়া এক দেশের সঙ্গে সম্পর্ক আরেক দেশের সম্পর্কে প্রভাব ফেলে না।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও জানান, নেপাল থেকে বাংলাদেশ জলবিদ্যুৎ আনছে। তবে ১০ বছর আগে এটা নিয়ে অনেকের কনসার্ন থাকলেও আজ বাস্তবতা। আগামী দিনেও এমন অনেক বাস্তবতার বিষয়গুলো দেখা যাবে।


আরও খবর