Logo
আজঃ সোমবার ২৪ জুন 20২৪
শিরোনাম

শাহজালালে ১১ কোটি টাকার কোকেনসহ ভারতীয় নাগরিক আটক

প্রকাশিত:শনিবার ১০ জুন ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ২৪৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:রাজধানীর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ১ হাজার ৮০০ গ্রাম কোকেনসহ এক ভারতীয় নাগরিককে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃত এসব কোকেনের বর্তমান বাজারমূল্য প্রায় ১১ কোটি টাকা।

আজ শনিবার সকালে ভারতীয় নাগরিককে আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ফখরুল আলম।

তিনি জানান, শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এয়ারফ্রেইট সার্কেল এলাকা থেকে ১ হাজার ৮০০ গ্রাম কোকেনসহ ভারতীয় নাগরিককে আটক করেছে কাস্টমস গোয়েন্দা।

এ বিষয়ে বিস্তারিত জানাতে আজ বেলা সাড়ে ১১টায় প্রেস কনফারেন্স করা হবে বলেও জানান কাস্টমস গোয়েন্দার এই কর্মকর্তা।


আরও খবর



জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে খালেদা জিয়া: মির্জা ফখরুল

প্রকাশিত:রবিবার ২৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৩৩জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে রয়েছেন,বলেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর । আজকে খালেদা জিয়া অত্যন্ত কষ্ট করছেন। তিনি জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে। সবাই তার জন্য প্রাণখুলে দোয়া করবেন। আল্লাহ যেন তাকে সুস্থ অবস্থায় আমাদের মধ্যে ফিরিয়ে দেন।

রোববার (২৩ জানুয়ারি) নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক দোয়া মাহফিলে এসব কথা বলেন তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, বর্তমান ফ্যাসিস্ট সরকারের রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় দেশনেত্রী খালেদা জিয়া দীর্ঘকাল ধরে বন্দি রয়েছেন। সম্পূর্ণ মিথ্যা মামলায় তাকে সাজা দিয়ে রাজনীতি থেকে দূরে সরিয়ে দিতে কারাগারে আটক রাখা হয়েছিল। তাকে বাসায় থাকতে সুযোগ দেওয়া হলেও তিনি প্রকৃতপক্ষে পুরোপুরি অবরুদ্ধ হয়ে আছেন।

অবরুদ্ধ অবস্থায় খালেদা জিয়া কারাগারে থেকে অসুস্থ হয়েছেন বলে উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, কারাগারে তার কোনও সুচিকিৎসা হয়নি। তখন তিনি বারবার অসুস্থতা নিয়ে কারা কর্তৃপক্ষকে জানালেও তৎকালীন সরকার তা শুনে নাই। তার চিকিৎসা করে নাই। পরবর্তীকালে তাকে যখন হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছে, সেখানেও তার সুচিকিৎসা হয়নি।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার এভার কেয়ার হাসপাতালের মেডিকেল বোর্ড বারবার বলেছেন ম্যাডামের যে অসুখ তার চিকিৎসা এখানে সম্ভব নয়। কারণ তার যে বহু রোগ আছে, সেটার চিকিৎসা করতে হলে উন্নত দেশের উন্নত মাল্টি সেন্টারের প্রয়োজন।

মির্জা ফখরুল আরও বলেন, দলের পক্ষ থেকে, সুশীল সমাজের পক্ষ থেকে, এমনকি বিদেশি মিশনগুলোর পক্ষ থেকে ম্যাডামকে উন্নত চিকিৎসার জন্য পাঠাতে বলা হচ্ছে। কিন্তু তাকে চিকিৎসার সুযোগ দেওয়া থেকে বঞ্চিত করে রেখেছে। মুক্তি পেয়ে বাসায় আসার পর তাকে শর্ত দেওয়া হয়েছে তিনি চিকিৎসার জন্য বিদেশে যেতে পারবেন না।


আরও খবর



ডোমারে সড়ক দূর্ঘটনা প্রতিরোধে অটো চালকদের নিয়ে সচেতনতা মূলক কার্যক্রম

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৭৪জন দেখেছেন

Image

মানিক, ডোমার (নীলফামারী) প্রতিনিধি:“চালাবো গাড়ী সাবধানে, বাঁচবে সবাই প্রাণে, আইন মেনে চালাবো গাড়ী, নিরাপদে ফিরবো বাড়ী” এই প্রতিপদ্যকে সামনে রেখে  নীলফামারী ডোমারে সড়ক দূর্ঘটনা প্রতিরোধে অটো চালকদের নিয়ে সচেতনতা মূলক কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়েছে। 

ডোমার ট্রাফিক শাখা আয়োজিত রোববার সকাল ১০ থেকে শুরু করে বিকাল পর্যন্ত ডোমার বাসষ্ট্যান্ডসহ পৌর এলাকার বিভিন্ন পয়েন্টে  ট্রাফিক ইন্সপেক্টর মিজানুর রহমান মন্ডল এবং এটিএসআই পারভেজ মিয়ার নিজস্ব উদ্যোগে অটো রিক্সার ডানদিকে যাত্রী উঠোনামা করা বন্ধ করে দেয়। এ ছাড়াও গাড়ীর প্রয়োজনীয় কাগজপত্র, ড্রাইভিং, রেজিষ্ট্রেশন বিহীন মটরসাইকেল এবং হেলমেট পরিধান বিষয়ে বিশেষ কার্যক্রম পরিচালনা করেন।  ডোমার ট্রাফিক শাখার ইন্সপেক্টর মিজানুর রহমান মন্ডল বলেন, অটো রিক্সার ডান দিকের দরজা দিয়ে যাত্রী উঠানমা করায় অনেক সময় দূর্ঘটনার কবলে পড়তে হয়। হেলমেট ছাড়া মটরসাইকেল চালালে যে কোনো সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনা সহ জীবনহানি হতে পারে। সে সাথে গুরুত্বরভাবে অঙ্গহানিও হতে পারে। তাই পুলিশের ভয়ে নয়, নিজের সুরক্ষা এবং পরিবারের নিকট সুস্থভাবে ফেরার জন্য মটরসাইকেল চালক এবং আরোহীদের হেলমেট পরিধান সহ ভারী যানবাহনের চালকদের সিটবেল ব্যবহার ট্রাফিক ও সড়ক আইনের নিয়মকানুন মেনে চলার পরামর্শ প্রদান করেন তিনি।


আরও খবর



তিতাস গ্যাসের জিএম ফয়জুল বারীর বিদায় সংবর্ধনা

প্রকাশিত:সোমবার ০৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০24 | ১১৪জন দেখেছেন

Image

নাজমুল হাসানঃতিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন এন্ড ডিস্ট্রিবিউশন পিএলসি'র জিএম ফয়জুল বারীর অবসর জনিত বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়েছে। তিতাস গ্যাসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উপস্থিতিতে আবেগঘন পরিবেশের মধ্য দিয়ে এই বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়। রবিবার ২ জুন সকালে তিতাস গ্যাসের প্রধান কার্যালয়ে এই সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয় । এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন এন্ড ডিস্ট্রিবিউশন পিএলসি'র ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) হারুনুর রশিদ মোল্লাহ।

এ সময় বিদায়ী জিএম আবেগঘন এক বার্তায় জানান, " সুস্থ ও স্বাভাবিক নিয়মে চাকুরী থেকে অবসর গ্রহন। গত ৩১শে মে২০২৪  ছিল আমার 

শেষ কর্মদিবস। ১লা জুন থেকে শুরু হলো অবসরোত্তর ছুটি,২ জুন তারিখে আমাকে দেয়া হলো আনুষ্ঠানিক বিদায়, সকল মহাব্যবস্থাপক, উপমহাব্যবস্থাপক,ব্যবস্থাপক,অফিসার 

ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন,তিতাস গ্যাস কর্মচারী ইউনিয়ন(সিবিএ)এর নেত্রীবৃন্দসহ সকল পর্যায়ের কর্মকর্তা কর্মচারী উপস্হিত ছিলেন।বিপনণ ডিভিশন মেট্রো ঢাকা-উত্তর,ঢাকা-দক্ষিন,আইসিটি,

রাজস্ব, অর্থ,ভিজিল্যান্স সহ সকল ডিভিশনের প্রতি আমি চির কৃতজ্ঞ থাকব।আমার এবং আমার পরিবারের জন্য সবার কাছে দোয়া চাই।মহান আল্লাহ সবাইকে হেফাজত করুন।



আরও খবর



‘পাপের ফল ভোগ করছেন ড. ইউনূস ’

প্রকাশিত:সোমবার ০৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১৫১জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:গ্রামীণ ব্যাংকের ১ কোটি ৫ লাখ সদস্যের সঙ্গে প্রতারণার অভিশাপ ভোগ করছেন ড. মুহাম্মদ ইউনূস,বলেছেন গ্রামীণ ব্যাংকের প্রধান আইন উপদেষ্টা মাসুদ আখতার । গ্রামীণ ব্যাংকের গ্রাহকদের সঙ্গে তিনি প্রতারণা করেছেন। সেই পাপের ফলাফল তিনি ভোগ করছেন।

সোমবার (৩ জুন) সুপ্রিম কোর্টের এনেক্স ভবনের সামনে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি।

মাসুদ আখতার বলেন, কোনো দেব-দেবীর অভিশাপ নয়, বরং গ্রামীণ ব্যাংকের ১ কোটি ৫ লাখ সদস্যের সঙ্গে প্রতারণার অভিশাপ ভোগ করছেন ড. মুহাম্মদ ইউনূস। উনি নিজের ও পারিবারিক কোনো সুবিধা নেননি। কিন্তু, উনি প্রিন্টিং প্রেসের জন্য ওনার প্রতিষ্ঠানকে শতকোটি টাকার ওয়ার্ক অর্ডার দিয়েছেন এবং তা ৩০ থেকে ৪০ শতাংশের বেশি দরে দিয়েছেন।

তিনি বলেন, ওনার এক জিএম এসবের প্রতিবাদ করেছেন, তাকে উনি নির্যাতন করেছেন। গৃহবন্দি করেছেন। ড. মুহাম্মদ ইউনূসের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ ৯৭ সাল থেকে। ড. মুহাম্মদ ইউনূস ১১ সালে ব্যাংক ছাড়লেও, পরবর্তীতে তিনি তার দুর্নীতি ফাঁস করতে দেননি। কারণ এরপর তার লোকজনই গ্রামীণ ব্যাংক চালিয়েছেন। তবে, ২০২০ সালে এক অডিটে ভয়াবহ দুর্নীতির কথা উঠে আসে। আমাদের হাতে এগুলো আসে ২০২৩ সালে। আরও আসছে।

মাসুদ আখতার আরও বলেন, ব্যক্তি ইউনূসের সঙ্গে আমাদের কোনো ব্যক্তিগত আক্রোশ নেই। তার কর্মকাণ্ড, অপকর্মের, পারিবারিক সুবিধা দিয়েছেন তা নিয়ে আমাদের অভিযোগ। ড. ইউনূস অর্থলোভী। আমাদের কোনো কিছু বানোয়াট নয়। গ্রামীণ ব্যাংকের গ্রাহকদের সঙ্গে তিনি প্রতারণা করেছেন। সেই পাপের ফল তিনি ভোগ করছেন।


আরও খবর



খাগড়াছড়িতে পুলিশের সপ্তাহব্যাপী দক্ষতা উন্নয়ন কোর্সের উদ্বোধন করেন-পুলিশ সুপার মুক্তা ধর

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১২০জন দেখেছেন

Image
জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর দক্ষতা উন্নয়ন কোর্স  প্রফেশনালিজম বাড়ানো, সেবা মান উন্নত করা, এবং সামাজিক বিশ্বাস ও নিরাপত্তা বজায় রাখার লক্ষে খাগড়াছড়িতে  সপ্তাহব্যাপী  পুলিশের সকল সদস্যের পদমর্যাদাভিত্তিক ১৭ তম ব্যাচের  দক্ষতা উন্নয়ন কোর্সের উদ্বোধন করা হয়েছে।

শনিবার (২৫  মে,)  খাগড়াছড়ি জেলার  পুলিশ লাইন্স, ড্রিল শেডে সপ্তাহব্যাপী বাংলাদেশ পুলিশের সকল সদস্যের পদমর্যাদাভিত্তিক  ১৭ তম ব্যাচের  দক্ষতা উন্নয়ন কোর্সের উদ্বোধন করেন  খাগড়াছড়ি জেলার পুলিশ সুপার  মুক্তা ধর পিপিএম (বার)  

খাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার মুক্তা ধর পিপিএম (বার) প্রশিক্ষণার্থী পুলিশ সদস্যদের উদ্দেশ্যে  বলেন , পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা দক্ষতা উন্নয়ন কোর্সের মাধ্যমে পেশাদারিত্বের উচ্চতর মান অর্জন করতে সক্ষম হন। এতে করে তাদের কাজের গুণমান এবং নির্ভুলতা বৃদ্ধি পায়। আইনি জ্ঞানের উন্নতি হয়, যা পুলিশকে ন্যায়বিচার প্রদানে আরও দক্ষ করে তোলে। তারা আইন অনুযায়ী কাজ করতে আরও সচেতন এবং সক্ষম হয়। মানবাধিকার সচেতনতা বৃদ্ধির ফলে পুলিশ নাগরিকদের অধিকার লঙ্ঘন করার পরিবর্তে তাদের অধিকার রক্ষায় আরও বেশি মনোযোগী হয়। প্রযুক্তির প্রয়োগ এবং দক্ষতায় উন্নতির ফলে পুলিশ অপরাধ অনুসন্ধানে আরও দক্ষ হয়। তারা সহজেই তথ্য সংগ্রহ এবং বিশ্লেষণ করতে পারে, যা অপরাধ প্রতিরোধ ও অনুসন্ধানে সাহায্য করে। শারীরিক ফিটনেস এবং মানসিক দৃঢ়তা বৃদ্ধির মাধ্যমে পুলিশ সদস্যরা কঠিন পরিস্থিতি এবং চাপ সামলানোর ক্ষমতা অর্জন করে।বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক ব্যাকগ্রাউন্ডের লোকজনের সাথে কাজ করার দক্ষতা অর্জনের ফলে পুলিশ আরও সহানুভূতিশীল এবং কার্যকর হয়। উন্নত দক্ষতা এবং পেশাদারিত্ব জনগণের মধ্যে পুলিশের প্রতি আস্থা ও বিশ্বাস বৃদ্ধি করে।

এসময় খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশের পদস্থ কর্মকর্তা বৃন্দ সহ অন্যান্য পদমর্যাদার পুলিশ সদস্যরা  উপস্থিত ছিলেন।

আরও খবর