Logo
আজঃ শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪
শিরোনাম

ডিসিদের বিদ্যুৎ-জ্বালানি ব্যবহারে সাশ্রয়ী হতে নির্দেশ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৪ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ১৪০জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক; বিদ্যুৎ ও জ্বালানি ব্যবহারে সাশ্রয়ী হওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে জেলা প্রশাসকদের (ডিসি)। আজ মঙ্গলবার রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে ডিসি সম্মেলনের প্রথম দিনে এ নির্দেশনা হয়েছে। ডিসিদের সঙ্গে অধিবেশনের পর এ তথ্য জানিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ।

প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, এ বছর সরকারের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ বিদ্যুৎ ও জ্বালানি বিষয় নিয়ে। তাই জেলা এবং উপজেলা পর্যায়ে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি ব্যবহারে সাশ্রয়ী হওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে ডিসিদের।

নসরুল হামিদ বলেন, সামনে সেচ মৌসুমে যাতে কৃষিকাজে  নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ পাওয়া যায় সে ব্যাপারে কাজ করতে জেলা প্রশাসকদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। সরকারি দপ্তরের কাছে বিদ্যুতের যেসব পাওনা আছে সেগুলো দ্রুত আদায়ের জন্য তাগাদা দেওয়া হয়েছে ডিসিদের। এছাড়া প্রত্যেকটি সরকারি ভবন এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাদে সৌর বিদ্যুৎ স্থাপনের জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 


আরও খবর



বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার পাচ্ছেন যারা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১২১জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:ঘোষণা করা হয়েছে বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার-২০২৩। এবার ১১টি ক্যাটাগরিতে মোট ১৬ গুণীজন এ পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়েছেন। অমর একুশে গ্রন্থমেলা-২০২৪-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাদের হাতে এই পুরস্কার তুলে দেবেন।

বুধবার (২৪ জানুয়ারি) রাতে বাংলা একাডেমির সচিব (অতিরিক্ত দায়িত্ব) ড. মো. হাসান কবীরের স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, ‘বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার কমিটি ২০২৩’-এর সকল সদস্যের সম্মতিক্রমে ও একাডেমির নির্বাহী পরিষদের অনুমোদনক্রমে ‘বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার ২০২৩’ ঘোষণা করা হয়েছে।

এ বছর কথাসাহিত্য, নাটক ও নাট্যসাহিত্য, মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক গবেষণা, বঙ্গবন্ধুবিষয়ক গবেষণা, ও ফোকলোর  এ ৫টি ক্যাটাগরিতে দুইজন করে বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার পেয়েছেন।

বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার ২০২৩ প্রাপ্তরা হলেন-

কবিতা: শামীম আজাদ

কথাসাহিত্য: নূরুদ্দিন জাহাঙ্গীর, সালমা বাণী

প্রবন্ধ/গবেষণা: জুলফিকার মতিন

অনুবাদ: সালেহা চৌধুরী

নাটক ও নাট্যসাহিত্য (যাত্রা/পালা নাটক/সাহিত্যনির্ভর আর্টফিল্ম বা নান্দনিক চলচ্চিত্র): মৃত্তিকা চাকমা, মাসুদ পথিক

শিশুসাহিত্য: তপংকর চক্রবর্তী

মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক গবেষণা: আফরোজা পারভীন, আসাদুজ্জামান আসাদ

বঙ্গবন্ধুবিষয়ক গবেষণা: সাইফুল্লাহ মাহমুদ দুলাল, মো. মজিবুর রহমান

বিজ্ঞান/কল্পবিজ্ঞান/পরিবেশ বিজ্ঞান: ইনাম আল হক

আত্মজীবনী/স্মৃতিকথা/ভ্রমণকাহিনি/মুক্তগদ্য: ইসহাক খান

ফোকলোর: তপন বাগচী, সুমনকুমার দাশ


আরও খবর



বইমেলার উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১৪০জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:বাংলা একাডেমি আয়োজিত ‘অমর একুশে বইমেলা ২০২৪’ উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৩টায় বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে উপস্থিত হন প্রধানমন্ত্রী। পরে বিকাল ৪টায় মেলার উদ্বোধন করেন তিনি।

এর আগে সাহিত্য বিশেষ অবদানের জন্য ১১টি ক্যাটাগরিতে ১৬ জনকে বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার-২০২৩ তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী।

মেলার মূল এবারের প্রতিপাদ্য ‘পড়ো বই গড়ো দেশ, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ’। সবমিলিয়ে বরাবরের মতো এবারো বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণ ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অংশে থাকছে মেলার আয়োজন।

জানা যায়, এবারের মেলায় ৬৩৫ প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান বরাদ্দ পেয়েছে ৯৩৭টি ইউনিট। এবার প্রকাশনা সংস্থা বেড়েছে ৩৪টি। একাডেমি প্রাঙ্গণে ১২০ প্রতিষ্ঠানকে ১৭৩টি ইউনিট এবং সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ৭৬৪ ইউনিট বরাদ্দ পেয়েছে ৫১৫ প্রতিষ্ঠান।

বইমেলার সময়সূচি:

এবারের বইমেলা অধিবর্ষের বইমেলা। ১ ফেব্রুয়ারি থেকে ২৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত মেলা অনুষ্ঠিত হবে। ছুটির দিন ছাড়া প্রতিদিন বিকেল ৩টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। তবে রাত ৮টা ৩০ মিনিটের পর নতুন করে কেউ মেলা প্রাঙ্গণে প্রবেশ করতে পারবেন না। আর ছুটির দিন বইমেলা চলবে বেলা ১১টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত।

তবে ২১ ফেব্রুয়ারি মহান শহীদ দিবস এবং আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের দিন মেলা সকাল ৮টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত চলবে বলেও জানান তিনি।


আরও খবর



হিলি সীমান্তে দুই বাংলার আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

প্রকাশিত:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ২৯জন দেখেছেন

Image

মাসুদুল হক রুবেল,হিলি (দিনাজপুর) প্রতিনিধি:পুস্পস্তবক বিনিময়ের মাধ্যমে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে দিনাজপুরের হিলি সীমান্তের শুন্য রেখায় জড়ো হয়েছিলেন দু’দেশের বাংলাভাষীরা।একে অপরকে ফুলের স্তবক দিয়ে জানান শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা। তারা একে অপরের সাথে পুস্পস্তাবক অর্পনের পাশাপাশি কুশল বিনিময় করেন। এপারে বাংলা ওপারে বাংলা। মাঝখানে বাঁধা শুধু কাটা তারের বেড়া। ২০১৫ সাল থেকে প্রতিবছর ২১ শে ফেব্রুয়ারিতে দু’দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে দেখতে আসেন বাংলাভাষা প্রেমীরা। এবারও তার ব্যতিক্রম ঘটেনি। সীমান্তের দু’পাশে শত শত মানুষ তা উপভোগ করেন।

আজ বুধবার সকাল ১১ টায় হিলি সীমান্তের জিরো পয়েন্টের শুন্যরেখায় ভারতের পক্ষে বালুরঘাট উজ্জীবন সোসাইটি ও বালুরঘাট টু বাংলাদেশ ভায়া মেঘালয় করিডোর কমিমি,বাংলাদেশের হাকিমপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ও সাপ্তাহিক আলোকিত সীমান্ত পত্রিকার সম্পাদকের কাছে ফুলের স্তবক হস্তান্তর করেন। পক্ষান্তরে বাংলাদেশের হিলি মুক্তিযোদ্ধা সংসদ,মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড এবং সাপ্তাহিক আলোকিত সীমান্ত ভারতের ওই সংগঠনের কাছে ফুলের স্তবক হস্তান্তর করেন। এরপর তারা নিজ নিজ দেশের শহীদ বেদীতে ফুলের স্তবকগুলি অর্পন করা হয়।

এসময় সেখানে ভারতের বালুরঘাট টু বাংলাদেশ ভায়া মেঘালয় করিডোর কমিটির আহবায়ক নবকুমার দাশ, উজ্জীবন সোসাইটির সম্পাদক সুরুজ দাশ,বাংলাদেশের হাকিমপুর পৌর মেয়র জামিল হোসেন চলন্ত,উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহীনুর রেজা শাহিন,সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার লিয়াকত আলী,সাপ্তাহিক আলোকিত সীমান্ত পত্রিকার প্রকাশক ও প্রেসক্লাবের সভাপতি মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন বুলু ও মুক্তিযোদ্ধাসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন। আয়োজকরা জানান,দুই বাংলার মধ্যে সৌহাদ্য,ম্প্রীতিসহ ভাষাপ্রেমীদের মেলবন্ধন অটুট রাখতে ২০১৫ সাল থেকে হিলি সীমান্তে দুই বাংলার উদ্যোগে এমন আয়োজন করে আসছে। সামনের দিনে আরো বড় পরিসরে রাষ্ট্রীয় ভাবে সীমান্তের শুন্যরেখায় এই অনুষ্ঠানের আয়োজনের কথা জনানা তারা।


আরও খবর



সংরক্ষিত আসনের মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে বোর্ডের সিদ্ধান্তে: ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৮৪জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, জানিয়েছেন সংসদীয় বোর্ডের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সংরক্ষিত আসনের মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে বলে।

ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে বৃহস্পতিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে তিনি এ কথা বলেন।

বিএনপি মহাসচিবের জামিন বা বিচারের সব সিদ্ধান্ত আদালতের বিষয়, তা সরকারের বিষয় না, বলেন ওবায়দুল কাদের ।

এক প্রশ্নে জবাবে তিনি বলেন, দলের স্বার্থেই পরাজিত প্রার্থীকে সংরক্ষিত আসনে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে।

এ সময় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক শামসুন্নাহার চাপা, উপদপ্তর সায়েম খান, কার্যনির্বাহী সদস্য সাহাবুদ্দিন ফরাজী ও আনোয়ার হোসেন উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



পুলিশ সুপার মুক্তাধর কানে পরিয়ে দিলেন শ্রবণশক্তি বৃদ্ধি যন্ত্র “হিয়ারিং এইড”

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৮৯জন দেখেছেন

Image
জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল :প্রতিনিধি:খাগড়াছড়ি পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতি (পুনাক) এর সভাপতি ওখাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার মুক্তা ধর পিপিএম (বার) এর মানবিক সহযোগিতায় রহিমা বেগম (৫১),নামের এক ভিক্ষুক নারীকে নিজ হাতে তার কানে পরিয়ে দিলেন শ্রবণশক্তি বৃদ্ধি সহায়ক যন্ত্র “হিয়ারিং এইড”।

সোমবার (২৯ জানুয়ারি)বিকালের দিকে খাগড়াছড়ি পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতি পুনাক 
উদ্যােগে পুনাক সভাপতি ওখাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার মুক্তা ধর পিপিএম (বার) খাগড়াছড়ি জেলার শাপলা চত্তরে অবস্থিত মানবতার দেয়াল খ্যাত মুক্ত মঞ্চে রহিমা বেগম (৫১) কে নিজ হাতে তার কানে পরিয়ে দিলেন শ্রবণশক্তি বৃদ্ধি সহায়ক যন্ত্র “হিয়ারিং এইড”।

জানা গেছে গত ১৭ডিসেম্বর  চিকিৎসা সেবা নিতে এসেছিলেন রহিমা বেগম (৫১), পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতি (পুনাক), খাগড়াছড়ি এর উদ্যােগে  খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার  পুলিশ সুপার মুক্তাধর পিপিএম (বার)  সভাপতিত্বে খাগড়াছড়ি জেলার শাপলা চত্তরে অবস্থিত মুক্ত মঞ্চে দিনব্যপি ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্পের আয়োজন করা হয়। পুনাকের এই সেবামূলক কার্যক্রমের মাধ্যমে প্রায় চার শতাধিক অসহায় মানুষ বিভিন্ন রোগের অভিজ্ঞ ডাক্তারদের নিকট থেকে ফ্রি চিকিৎসা সেবা গ্রহণ করেছিলেন। সেখান চিকিৎসা সেবা নিতে এসেছিলেন রহিমা বেগম (৫১)তিনি মূলত একজন শ্রবণ শক্তিহীন বধির হতদরিদ্র মহিলা। পেশায় তিনি একজন ভিক্ষুক। তিনি কারও কথা কানে শুনতে পান না। বিষয়টি নজরে আসে খাগড়াছড়ি জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার জনাব মুক্তাধর পিপিএম (বার) মহোদয়ের। পুলিশ সুপার মহোদয় সেদিন রহিমা বেগম (৫১) কে কথা দিয়েছিলেন তাকে একটি “হিয়ারিং এইড” শ্রবনশক্তি বৃদ্ধি সহায়ক যন্ত্র কিনে দিবেন। 

তিনি মূলত একজন শ্রবণ শক্তিহীন বধির হতদরিদ্র মহিলা। পেশায় তিনি একজন ভিক্ষুক। তিনি কারও কথা কানে শুনতে পান না। বিষয়টি নজরে আসে খাগড়াছড়ি জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার জনাব মুক্তাধর পিপিএম (বার) মহোদয়ের। পুলিশ সুপার মহোদয় সেদিন রহিমা বেগম (৫১) কে কথা দিয়েছিলেন তাকে একটি “হিয়ারিং এইড” শ্রবনশক্তি বৃদ্ধি সহায়ক যন্ত্র কিনে দিবেন। 

পুলিশ সুপার মহোদয়ের নিকট থেকে রহিমা বেগম (৫১) “হিয়ারিং এইড” যন্ত্রটি পেয়ে আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন। এসময় তিনি পুলিশ সুপার মুক্তা ধর পিপিএম (বার)কে জড়িয়ে ধরে কান্না করেন। তিনি বলেন যে, “সমাজে অনেক বিত্তশালী মানুষ আছেন কিন্তু কেউ তাকে এভাবে সাহায্য করেন নাই। কিন্তু আমার এই দুর্দশা দেখে পুলিশ আমার পাশে দাড়িয়েছেন”। তিনি পুলিশ সুপার  মুক্তাধর পিপিএম (বার)  সহ বাংলাদেশ পুলিশের প্রতি ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন এবং পুলিশ সুপার মুক্তা ধর পিপিএম (বার)এর দীর্ঘায়ু কামন করেন। এসময় তিনি দুহাত তুলে দোয়া করেন যে, “স্যারের মত প্রতিটি জেলায় এরকমের অফিসার জন্ম নেন”।

আরও খবর