Logo
আজঃ রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম
মুক্তিযোদ্ধার নাতি-নাতনিরা পাবে না তো রাজাকারের নাতিরা পাবে? কর্মীদের দক্ষ করে বিদেশে পাঠাতে হবে : প্রতিমন্ত্রী বাংলাদেশকে কত বিলিয়ন অনুদান-ঋণ দেবে চীন, জানালেন প্রধানমন্ত্রী নাসিরনগরে খুনের মামলার বাদীর এখন দিন কাটছে আতংকে মধুপুরে ক্লিনিং স্যাটারডে কার্যক্রম অনুষ্ঠিত এবার কোটা আন্দোলনের পক্ষে কথা বললেন আয়মান সাদিক ভারতে পাচার হওয়া ৫ বাংলাদেশি সাজাভোগ শেষে দেশে ফিরেছে শিক্ষার্থীরাই হবে আগামী বাংলাদেশের কর্ণধার: ধর্মমন্ত্রী দেশের অর্থনীতি এখন যথেষ্ট শক্তিশালী: প্রধানমন্ত্রী বীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পরিদর্শন করলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডাঃ সামন্ত লাল সেন

দেশে ১৭ দিনে রেমিট্যান্স এলাে ১৩১২৪ কোটি টাকা

প্রকাশিত:সোমবার ২০ নভেম্বর ২০23 | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | ২৬৮জন দেখেছেন

Image

খবর প্রতিদিন ২৪ডেস্ক :প্রবাসীরা নভেম্বর মাসের ১৭ দিনে ব্যাংকিং চ্যানেলে (বৈধ পথে) দেশে পাঠিয়েছেন ১১৮ কোটি ৭৭ লাখ মার্কিন ডলার, যা বাংলাদেশি মুদ্রায় ১৩ হাজার ১২৪ কোটি টাকা (প্রতি ডলার ১১০ টাকা ৫০ পয়সা ধরে)।

এরমধ্যে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে এসেছে ৭ কোটি ৮৫ লাখ ২০ হাজার মার্কিন ডলার, কৃষি ব্যাংকের মাধ্যমে এসেছে ৩ কোটি ৫১ লাখ ৭০ হাজার মার্কিন ডলার, বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে এসেছে ১০৭ কোট ৪ লাখ ১০ হাজার মার্কিন ডলার এবং দেশে কর্মরত বিদেশি বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে এসেছে ৩৬ লাখ মার্কিন ডলার।

রোববার (১৯ নভেম্বর) বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদনে এসব তথ্য তুলে ধরা হয়।

বাণিজ্যিক ব্যাংকের সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের বিভিন্ন ধরনের উদ্যোগের ফলে হুন্ডির দাপট কমছে, বাড়ছে বৈধ পথে প্রবাসী আয়।

তথ্য অনুযায়ী, চলতি নভেম্বরে প্রতিদিন প্রবাসীরা দেশে পাঠিয়েছেন প্রায় ৬ কোটি ৯৮ লাখ ৬৫ হাজার মার্কিন ডলার। আগের বছরের নভেম্বর মাসে প্রবাসীরা প্রতিদিন দেশে পাঠিয়েছিলেন প্রায় ৫ কোটি ৩২ লাখ ডলার। আর চলতি বছরের অক্টোবরে প্রবাসীরা প্রতিদিন বৈধ পথে ব্যাংকিং চ্যানেলে দেশে পাঠিয়েছিলেন প্রায় ৬ কোটি ৫৯ লাখ ১৯ হাজার মার্কিন ডলার। সে হিসাবে নভেম্বর মাসে প্রবাসী আয়ের ইতিবাচক ধারা অব্যাহত আছে। প্রণোদনা বৃদ্ধিসহ নানা রকম উদ্যোগের ফলে বৈধ পথে ব্যাংকিং চ্যানেলে প্রবাসী বাড়ছে।


আরও খবর



ফুলবাড়ী থানায় ৩ জনের বিরুদ্ধে ১৮ লক্ষ টাকার প্রতারণা মামলা দায়ের

প্রকাশিত:বুধবার ০৩ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | ৫৪জন দেখেছেন

Image

ফুলবাড়ী, দিনাজপুর প্রতিনিধি:দিনাজপুরের ফুলবাড়ী থানায় ৩ জনের বিরুদ্ধে ১৮ লক্ষ টাকার প্রতারণার মামলা দায়ের। ফুলবাড়ী উপজেলার সুজাপুর গ্রামের মৃত কায়েম উদ্দিন এর পুত্র মোঃ মোকলেছার রহমান ফুলবাড়ী থানায় দায়েরকৃত এজাহার সূত্রে জানা যায়, ফয়সাল মোঃ আব্দুল আজিজ (২৮), পিতা- মৃত আব্দুল কাদের, মোছাঃ ফরিদা ইয়াসমিন (৫০), স্বামী- মৃত আব্দুল কাদের, উভয়ের সাং- রামডুবি, বর্তমান সাং- নিমনগর শেখপুরা, মোঃ মোরশেল হক চৌধুরী রক্তিম (২৯), পিতা- মোকাম্মেল হক চৌধুরী, সাং-ঘাসিপাড়া, দিনাজপুর। উক্ত ব্যক্তিগণ প্রতারক এবং অর্থলোভী। গত ০৮/০১/২০২৪ইং তারিখে মোকলেছার রহমান এর কন্যা তাসনিমা তাবাচ্ছুম (মারজানা), ¯œাতকোত্তর পর্যায়ে রাজশাহী কলেজে অধ্যয়নরত। তার সাথে ফয়সাল মোঃ আব্দুল আজিজ এর আনুষ্ঠানিকভাবে বিবাহ হয়। বিবাহের পর ফয়সাল মোঃ আব্দুল আজিজ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে একটি স্বনামধন্য বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রকৌশল বিদ্যা বিষয়ে উচ্চতর শিক্ষার জন্য স্কলারশীপ ভিসা পেয়েছেন মর্মে শীঘ্রই ফয়সাল আব্দুল আজিজ স্বস্ত্রীক তার মেয়েকে নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে যাবেন। তিনি বাড়ি ভাড়াও করেছেন। উক্ত ব্যক্তি যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার জন্য বিমানভাড়া সহ আনুষ্ঠানিক কিছু খরচ আছে বলে মকলেছার রহমানকে জানান সরল বিশ্বাসে ১৮/০১/২০২৪ ইং তারিখে সোনালী ব্যাংক লিমিটেড শেখপুরা শাখায় ফয়সাল আব্দুল আজিজ এর নামীয় একাউন্ট নং ১৮২৭৫০০১০১৩৪৬৮ এ ১ লক্ষ টাকা ফুলবাড়ী সোনালী ব্যাংক শাখা থেকে প্রেরণ করেন। ২২/০১/২০২৪ ইং তারিখে ব্র্যাক ব্যাংক এজেন্ট ব্যাংকিং শাখা হতে তার নিজ একাউন্ট ২৮৮২৫০৬৪৪৯২২ তে ৪ লক্ষ টাকা, গত ২৯/০১/২০২৪ ইং তারিখে ব্র্যাক ব্যাংক এজেন্ট ব্যাংকিং শাখা ফুলবাড়ী হতে ৯০ হাজার ১শত টাকা, আব্দুল আজিজ এর নামীয় ডাচ বাংলা ব্যাংক লিমিটেড তার নিজ নামীয় একাউন্ট ১৭২১৫১০৩৫২৫৯৭ তে গত ১৮/০২/২০২৪ ইং তারিখ ২ লক্ষ টাকা, ২৮/০৩/২০২৪ ইং তারিখে তার নামে হিসাব নং ১০৫৩১৫২১১০০০১ এ ৩ লক্ষ টাকা প্রদান করেন। তার মেয়ের ইসলামি ব্যাংকের মাধ্যমে ০১/০২/২০২৪ ইং তারিখে ৯৫ হাজার টাকা, ১০/০৩/২০২৪ ইং তারিখে ৯৫ হাজার টাকা, ১৫/০২/২০২৪ ইং তারিখে ডাচ বাংলা ব্যাংকের মাধ্যমে ১ লক্ষ টাকা, গত ০৫/০৩/২০২৪ ইং তারিখে ২৫ হাজার টাকা, গত ১০/০৩/২০২৪ ইং তারিখে ১ লক্ষ ৫ হাজার টাকা, ২৪/০৩/২০২৪ ইং তারিখে ২০ হাজার টাকা ০৪/০৪/২০২৪ ইং তারিখে ২৫ হাজার টাকা ও এটিএম কার্ড ব্যবহার করে ১২/০৩/২০২৪ ইং তারিখে ৬০ হাজার টাকা, ১৩/০৩/২০২৪ ইং তারিখে ৫০ হাজার টাকা, ১৮/০৩/২০২৪ ইং তারিখে ২০ হাজার টাকা, ২১/০৩/২০২৪ ইং তারিখে ৪০ হাজার টাকা প্রতারক ফয়সাল ্আব্দুল আজিজ গ্রহণ করেন। এছাড়া তার কন্যা ফয়সাল মোঃ আব্দুল আজিজকে স্বর্ণের ২টি আংটি যার মূল্য ৯৫ হাজার টাকা প্রদান করেন। তার সাথে আনুষ্ঠানিক বিবাহ হওয়ার পর থেকে তার মেয়ের সাথে ফয়সাল মোঃ আব্দুল আজিজ খারাপ আচরণ করতে থাকেন। প্রতারক বিবাহের পর থেকে বিভিন্নভাবে মকলেছার রহমান এর কাছ থেকে এবং তার কন্যার নিকট থেকে ১৮ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেন। এই ঘটনায় মেয়ের পিতা মোঃ মোকলেছার রহমান গত ২৭ জুন ২০২৪ ইং তারিখে ৩ জনকে আসামি করে ফুলবাড়ী থানায় একটি প্রতারণা মামলা দায়ের করেন। যাহার মামলা নং- ১৫/৯৭, তারিখ:-২৭/০৬/২০২৪ইং। এদিকে মামলার আসামি ফয়সাল মোঃ আব্দুল আজিজ ও ফরিদা ইয়াসমিন লাভলী পলাতক রয়েছেন।


আরও খবর



ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের ১০ সমঝোতা স্মারক সই

প্রকাশিত:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১০ জুলাই ২০২৪ | ১২৯জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা  দ্বিপাক্ষিক বৈঠকের পর ১০টি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে। যার মধ্যে ৩টি সমঝোতা নবায়ন করা হয়েছে।

শনিবার (২২ জুন) স্থানীয় সময় দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বৈঠকে বসেন শেখ হাসিনা ও নরেন্দ্র মোদি। দিল্লির হায়দরাবাদ হাউসে অনুষ্ঠিত দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে এসব সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়।

‘ডিজিটাল অংশীদারত্ব’ এবং ‘টেকসই ভবিষ্যতের জন্য সবুজ অংশীদারত্ব’ বিষয়ক দুটি সমন্বিত রূপকল্পকে সামনে রেখে কাজ করবে ভারত এবং বাংলাদেশ। এ লক্ষ্যে দুই যৌথ কার্যক্রমের নথি সই করে বাংলাদেশ।

এ দুটি হলো-বাংলাদেশ-ভারত ডিজিটাল অংশীদারত্বের বিষয়ে অভিন্ন লক্ষ্যমাত্রা এবং টেকসই ভবিষ্যতের জন্য বাংলাদেশ-ভারত সবুজ অংশীদারত্বের বিষয়ে অভিন্ন লক্ষ্যমাত্রা বিষয়ক নথি সই।

নতুন পাঁচটি সমঝোতা স্মারক হলো-বঙ্গোপসাগর ও ভারত মহাসাগরের সুনীল অর্থনীতি এবং সমুদ্র সহযোগিতার বিষয়ে দুদেশের মধ্যে সমঝোতা স্মারক; ভারত মহাসাগরের ওশানোগ্রাফির ওপর যৌথ গবেষণা ও দক্ষতা উন্নয়ন বিষয়ে বাংলাদেশের বিওআরআই ও ভারতের সিএসআইআরের মধ্যে সমঝোতা স্মারক; বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে রেল যোগাযোগের ওপর সমঝোতা স্মারক; যৌথ ছোট স্যাটেলাইট প্রকল্পে সহযোগিতার জন্য বাংলাদেশ সরকারের ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে ভারতের ন্যাশনাল স্পেস প্রোমোশন অ্যান্ড অথোরাইজেশন সেন্টারের মধ্যে সমঝোতা স্মারক এবং ডিফেন্স স্টাফ কলেজের মধ্যে একাডেমিক সহযোগিতা বিষয়ে সমঝোতা স্মারক।

নবায়নকৃত তিন সমঝোতা স্মারক হলো-মৎস্যসম্পদ সহযোগিতা বিষয়ক সমঝোতা স্মারক; দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিষয়ক সমঝোতা স্মারক এবং স্বাস্থ্য ও ওষুধ খাতে সহযোগিতা বিষয়ক সমঝোতা স্মারক।

এর আগে সকাল ৯টায় রাষ্ট্রপতি ভবনে যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেখানে তাকে স্বাগত জানান ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সুসজ্জিত অশ্বারোহী দল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মোটর বহরকে পাহারা দিয়ে রাষ্ট্রপতি ভবনের গেট থেকে ফোরকোর্টে নিয়ে যায়।

এরপর এখানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে লাল গালিচা সংবর্ধনা ও গার্ড অব অনার দেওয়া হয়। এ সময় বাংলাদেশ ও ভারতের জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়। সশস্ত্র সালাম গ্রহণের পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গার্ড অব অনার পরিদর্শন করেন।

পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি লাইন অব প্রেজেন্টেশনে দুদেশের মন্ত্রিপরিষদের সদস্য, ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও বিশিষ্ট ব্যক্তিদের পরিচয় করিয়ে দেন।

রাষ্ট্রপতি ভবনের এ কর্মসূচি শেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারতের জাতির পিতা মহাত্মা গান্ধীর প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে রাজঘাট যান। সেখানে তিনি মহাত্মা গান্ধীর সমাধিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

পরে শেখ হাসিনা হায়দ্রাবাদ হাউসে যান। সেখানে তিনি ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে সৌজন্য স্বাক্ষাৎ ও দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করেন।


আরও খবর



জয়পুরহাটে ট্রাকের চাপায় নারী পথচারীর মৃত্যু

প্রকাশিত:রবিবার ০৭ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | ৭৭জন দেখেছেন

Image
এস এম শফিকুল ইসলাম,জয়পুরহাট প্রতিনিধিঃজয়পুরহাটে ট্রাকের  চাপায় রাবেয়া  (৬০) নামে এক পথচারী নারীর মৃত্যু হয়েছে। আজ শনিবার (৬ জুলাই)  বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে   সদর উপজেলার হিচমী  এলাকার জয়পুরহাট -বগুড়া মহাসড়কে ট্রাকটি তাকে চাপা দেয়।

জয়পুরহাট সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি হুমায়ূন কবির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

নিহত নারী পথচারী রাবেয়া বেগম  জয়পুরহাট সদর উপজেলার পাইকড় গ্রামের শামসুল হকের স্ত্রী।ওসি হুমায়ূন কবির জানান, রাবেয়া বেগম  পায়ে হেঁটে হিচমী  বাজারে যাচ্ছিলেন। পথে হিচমী মোড়ে  জয়পুরহাট শহরগামী   একটি দ্রুতগামী ট্রাক তাকে চাপা দেয়। এতে রাবেয়া বেগম গুরুতর আহত হন।  তাকে উদ্ধার করে জয়পুরহাট  ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল  হাসপাতালে নিয়ে গেলে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত্যু ঘোষণা করেন।

-খবর প্রতিদিন/ সি.

আরও খবর



ভারত-চীন-রাশিয়া থেকে সমরাস্ত্র কেনা হচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ২৬ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১১ জুলাই ২০২৪ | ১১৮জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:সশস্ত্র বাহিনীর উন্নয়নকল্পে ফোর্সেস গোল-২০৩০ এর আলোকে ভারত-চীন-রাশিয়াসহ সমরাস্ত্র শিল্পে উন্নত বিভিন্ন দেশ থেকে সমরাস্ত্র ক্রয় কার্যক্রম চলমান রয়েছে, বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। যা ভবিষ্যতে সশস্ত্র বাহিনীর সক্ষমতা বাড়াতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

বুধবার (২৬ জুন) জাতীয় সংসদের অধিবেশনে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য হাবিবুর রহমানের এক লিখিত প্রশ্নের উত্তরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ সব কথা জানান। এ সময় স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাহিনীগুলোর গঠন ও উন্নয়ন এর ক্ষেত্রে ফোর্সেস গোল-২০৩০ প্রণয়ন একটি যুগোপযোগী পদক্ষেপ। বর্তমানে ফোর্সেস গোল-২০৩০ এর বাস্তবায়ন কার্যক্রম চলমান রয়েছে। ফোর্সেস গোল-২০৩০ এর আলোকে সরকার রাশিয়া, চীন, তুরস্ক, ভারতসহ সমরাস্ত্র শিল্পে উন্নত বিভিন্ন দেশ হতে সমরাস্ত্র ক্রয় কার্যক্রম চলমান রয়েছে। যা ভবিষ্যতে আমাদের সশস্ত্র বাহিনীর সক্ষমতা বাড়াতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকার ২০০৯ সালে ক্ষমতা গ্রহণের পর থেকে সশস্ত্র বাহিনীর উন্নয়নের জন্য যথাসম্ভব সব বাস্তবমুখী কার্যক্রম হাতে নিয়েছে। এখন পর্যন্ত সেনাবাহিনীর জন্য ক্রয় করা বিভিন্ন উন্নত সরঞ্জামাদির মধ্যে কাসা ইউটিলিটি বিমান, ডলফিন ইউরোকপ্টার, ডায়মন্ড প্রশিক্ষণ বিমান, এমবিটি-২০০০ ট্যাংক, ভিটি-ফাইভ লাইট ট্যাংক, আর্মার্ড রিকোভারি ভেহিক্যাল, সেলফ প্রপেল্ড (এসপি) কামান, এন্টি ট্যাংক গাইডেড উইপন, শর্ট রেঞ্জ এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম, মাইন রেজিস্ট্যান্ট অ্যাম্বুশ প্রটেক্টেড ভেহিক্যাল (এমআরএপি), আনম্যানড এরিয়াল ভেহিক্যাল, সার্ফেস টু এয়ার মিসাইল সিস্টেম, আর্মার্ড পার্সোনেল ক্যারিয়ার, র‌্যাডার কন্ট্রোল এয়ার ডিফেন্স গান সিস্টেম, নাইট ভিশন মনোকুলার, অত্যাধুনিক সমরাস্ত্র, আধুনিক যোগাযোগ সরঞ্জামাদি ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য।

সরকার প্রধান জানান, দেশের সমুদ্র নিরাপত্তা এবং সম্পদ রক্ষার বিষয়ে সরকারের প্রথম মেয়াদ থেকে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা প্রণয়ন করা হয়েছে। দেশের সমুদ্র এলাকায় বহিঃশত্রুর মোকাবিলা ছাড়াও জলদস্যুতা, মাদক-অস্ত্র-মানব চোরাচালান প্রতিরোধ, সামুদ্রিক দূষণরোধ এবং মৎস্য ও খনিজ সম্পদের সুরক্ষা ও যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করতে একটি শক্তিশালী নৌ-শক্তি গড়ে তোলার কার্যক্রম চলমান রয়েছে। এই লক্ষ্যে ইতোমধ্যে অত্যাধুনিক সাবমেরিন, ক্যাসল ক্লাস জাহাজ, ফ্রিগেড, করভেট, সমুদ্র জরিপ জাহাজ, লার্জ পেট্রোল ক্রাফট, মেরিটাইম পেট্রোল এয়ার ক্রাফট এবং মেরিটাইম হেলিকপ্টারসহ অত্যাধুনিক নৌযুদ্ধ সরঞ্জাম বাংলাদেশ নৌবাহিনীতে সংযোজিত হয়েছে।

একইসঙ্গে নৌবাহিনীর আধুনিকায়নের জন্য ডাইভিং বোট, ল্যান্ডিং ক্রাফট ইউটিলিটি, রিমোট কন্ট্রোল গান, আনম্যানড এয়ারক্রাফট সিস্টেম ইত্যাদিসহ বিভিন্ন আধুনিক যন্ত্রপাতি, নেটওয়ার্ক হাব স্টেশন, টেকটিক্যাল ফায়ারিং রেঞ্জ, লং রেঞ্জ এয়ার ডিফেন্স ও সার্ভিলেন্স র‌্যাডার, বিভিন্ন সরঞ্জাম ও অস্ত্র ক্রয় করা হয়েছে। এছাড়া সশস্ত্র বাহিনীর জন্য আইএফএফ সেন্টার গঠনের প্রক্রিয়া বাংলাদেশ নৌবাহিনীর অধীনে পরিচালিত হচ্ছে।

সরকার প্রধান জানান, বাংলাদেশ বিমান বাহিনীকে আধুনিকায়ন করার লক্ষ্যে বর্তমান সরকারের বিভিন্ন যুগোপযোগী কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। এ যাবৎকালে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর জন্য মিগ-২৯, ইয়াক-১৩০ এবং এফ-৭ ইএ-১ যুদ্ধ বিমান, সি-১৩০ জে এবং কে-৮ বিমান, মি-১৭১ হেলিকপ্টারসহ অত্যাধুনিক আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ক্রয় করা হয়েছে। এ সব আধুনিকায়নের ফলে বাংলাদেশ বিমান বাহিনী আজ একটি আধুনিক ও চৌকস বাহিনীতে পরিণত হয়েছে।

এছাড়া বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর উন্নয়নে র‌্যাডার, আনম্যানড এরিয়াল ভেহিক্যাল, ট্রান্সপোর্ট ট্রেইনার এয়ারক্রাফট এবং সিমুলেটর, লং ও শর্ট রেঞ্জ এয়ার ডিফেন্স ও সার্ভিলেন্স র‌্যাডার, হেলিকপ্টারে নাইট ভিশন সিস্টেম স্থাপন, মেরিটাইম সার্চ অ্যান্ড রেসকিউ হেলিকপ্টার ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য সরঞ্জাম ক্রয় করা হয়েছে। যা সার্বিকভাবে বাহিনীর মান উন্নয়ন ও আধুনিকায়নে সরাসরি ভূমিকা রেখেছে বলে প্রতীয়মান।


আরও খবর



অবশেষে চলচ্চিত্র পরিচালক মোঃ তারিকুল ইসলাম ভুঁইয়া (সায়মন তারিক) গ্রেফতার

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৫ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | ২৪৪জন দেখেছেন

Image

বিনোদন প্রতিবেদকঃজলপনা কল্পনার  অবসান ঘটিয়ে  সাভার  থানা পুলিশের  সহায়তা  একটি  বিশেষ  টিম  চিহ্নিত  সন্রাসী চলচ্চিত্র পরিচালক মোঃ তারিকুল ইসলাম ভুঁইয়া সায়মন তারিক উরফে কাটা  লিটন  ২৫ মিনিটের  অভিযানে  মাধ্যমে  গ্রেফতার  করা হয় এবং  তার অন্যান্য সহযোগীরা পালিয়ে  যায়।

তবে তার এক বিশ্বস্ত সঙ্গী কানা নুরুকে গ্রেফতার করার জন্য  অন্য  পথ বেছে নেয়া  হয়েছে বলে  জানা যায়।যাই হোক  শেষমেষ নুরু গ্রেফতার হওয়ার মাধ্যমে  এই নাটকের  ইতি হয়নি।ইহা একটি  বাস্তব জীবনের ঘটনা  নিয়ে  নির্মিত হয়েছে  ATN এ প্রচারিত ক্রাইম পেট্রোল  নাটকের  মাধ্যমে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর