Logo
আজঃ মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪
শিরোনাম

ডাকাতির ঘটনায় আন্ত:জেলা ডাকাত সর্দারসহ ৬ ডাকাত আটক

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪ | ১২৩জন দেখেছেন

Image

মাসুদুল হক রুবেল,হিলি (দিনাজপুর) প্রতিনিধি:দিনাজপুরের সীমান্তবর্তী হিলিতে ইউনাইটেড রাইস মিলে দূধর্ষ ডাকাতির ঘটনায় ৬ দিন পর আন্ত:জেলা ডাকাত সর্দারসহ ৬ ডাকাতকে আটক করেছে। দিনাজপুর ডিবি পুলিশ ও হাকিমপুর থানা পুলিশের যৌথ অভিযানে বুধবার রাতভার জেলার ফুলবাড়ি,চিরিরবন্দর, খানসামা ও হাকিমপুরে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। এসময় ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত একটি চাইনিজ কুড়াল, একটি গ্রিল কাটার যন্ত্র। দুইটি টর্চ লাইট, দুইটি ট্রাভেল ব্যাগ, তিনটি মোবাইল ফোন ও ৯ হাজার ৩শ’ টাকা উদ্ধার করা হয়।

আটককৃতরা হলেন, ডাকাত সর্দার আলিম হোসেন (৪০)। সে হাকিমপুর উপজেলার মধ্যবাসুদেবপুর মহল্লার ইমান আলীর ছেলে। দিনাজপুরে সদরের করিমুল্লাপুর মহল্লার রিয়াজ উদ্দিনের ছেলে আব্দুর রহিম (৬৮), নিউটাউন উপশহরের দুলাল মিয়ার ছেলে শামিম ওরফে পবন (৩০), কসবা (পুলহাট) মহল্লার আব্দুস জব্বারের ছেলে আব্দুস সোহগ (৩৪), নিমনগড় মহল্লার কান্দু মাসুদের ছেলে বকুল হোসেন (৫০) এবং জেলার চিরিরবন্দর উপজেলার ভাবকি গ্রামের আব্দুল জলিলের ছেলে ফরিদুল ইসলাম (৪৫)।

হাকিমপুর থানা ওসি দুলাল হোসেন জানান, আটককৃত ডাকাত সদস্যরাসহ অন্তত ১২-১৫ জনের একটি ডাকাত দল গত ১৫ ফেব্রুয়ারি (বৃহস্পতিবার ) গভীর রাতে সীমান্তবর্তী হিলির মধ্যবাসুদেবপুরে অবস্থিত ইউনাইটেড রাইসমিলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পরিচয় দিয়ে প্রবেশ করে। এরপর নৈশ্য প্রহরীর হাত-পা ও চোখ বেঁধে অফিসের দরজা ভেঙে প্রবেশ করে। সেভানে ঘুমন্ত কর্মচারীকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে লকার ভেঙে ৪ লাখ টাকা লুট করে নিয়ে যায়। এরপর তথ্য প্রযুক্তির সহযোগীতায় তাদের আটক করা হয়। বাকিদের আটকের চেষ্টা চলছে।


আরও খবর



মাহে রমজানের পবিত্রতা রক্ষার্থে একদিনেই সমাপ্ত লালন শাহ এঁর স্মরণোৎসব ২০২৪

প্রকাশিত:সোমবার ২৫ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪ | ৯৭জন দেখেছেন

Image
হাবিবুর রহমান কুষ্টিয়া:২৪ মার্চ ২০২৪ তারিখ রবিবার রাতে কুষ্টিয়ার ছেঁউড়িয়ায় বাউল সম্রাট ফকির লালন শাহ এঁর স্মরণোৎসব ২০২৪ উদযাপন উপলক্ষ্যে লালন একাডেমি অডিটোরিয়াম এ আয়োজিত হয় আলোচনা সভা। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য, কুষ্টিয়া-৩ ও যুগ্ম - সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মো: মাহবুবউল আলম হানিফ। এছাড়া বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য, কুষ্টিয়া-৪ বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুর রউফ, পুলিশ সুপার কুষ্টিয়া এ এইচ এম আবদুর রকিব, বিপিএএ, বিপিএম, পিপিএম(বার), চেয়ারম্যান, জেলা পরিষদ ও সভাপতি, জেলা আওয়ামী লীগ, কুষ্টিয়া মো: সদর উদ্দিন খান এবং সাধারণ সম্পাদক, জেলা আওয়ামী লীগ, কুষ্টিয়া মো: আজগর আলী। উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক, কুষ্টিয়া ও সভাপতি, লালন একাডেমি, কুষ্টিয়া মো: এহেতেশাম রেজা। উল্লেখ্য পবিত্র মাহে রমজানের কারনে লালন উৎসব ১ দিনের ছোট্র পরিসরে শেষ হয় ।

আরও খবর



ঈদযাত্রা ট্রেনে নির্বিঘ্ন করতে সব পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে: মন্ত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ০৩ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪ | ১১০জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:রেলমন্ত্রী জিল্লুল হাকিম জানিয়েছেন ঈদুল ফিতরে ঘরমুখো মানুষের ট্রেনযাত্রা নির্বিঘ্ন করতে সব ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে । বুধবার (৩ এপ্রিল) দুপুর ২টার দিকে কমলাপুর রেলস্টেশন পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

জিল্লুল হাকিম বলেন, বিনা টিকিটে যাতে কেউ রেল ভ্রমণ করতে না পারে তা তদারকি করতে কঠোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চত করতেও রেলের আইন শৃঙ্খলারক্ষাকারী বাহিনীকে আরও সতর্ক ও তৎপর থাকতে বলা হয়েছে। বিভিন্ন গন্তব্য যাতে সময় মতো ট্রেন চলাচল করে সেজন্যও আগে থেকেই নেওয়া হয়েছে নানা উদ্যোগ। ফিরতি যাত্রাও যাতে নিরাপদ ও আরামদায়ক হয় সে পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।

এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, রেলের যাত্রী পরিবহন সক্ষমতা বৃদ্ধির উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। আগামী এক বছরের মধ্যে পরিস্থিতির অনেক উন্নতি হবে আশা করছি।

প্রসঙ্গত, বুধবার থেকে বিভিন্ন গন্তব্যে রেল যাত্রীদের ঈদযাত্রা শুরু হয়ছে। সকালের দিকে যাত্রীদের ভিড় স্বাভাবিক সময়ের মতো হলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ঘরমুখো যাত্রীর চাপ বাড়তে থাকে। তবে ঈদ যতই ঘনিয়ে আসবে ততই যাত্রীর ভিড় বাড়বে বলে জানিয়েছেন রেলওেয়ের কর্মকর্তারা।


আরও খবর



২৩ নাবিক জিম্মি অবস্থা থেকে মুক্ত, বিস্তারিত জানাল মালিকপক্ষ

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪ | ৬০জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:বাংলাদেশি জাহাজ এমভি আবদুল্লাহ ভারত মহাসাগরে জলদস্যুদের কবলে পড়ার পর নানা আলোচনা চলছিল বিভিন্ন মহলে। এতে জাহাজের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েও প্রশ্ন ওঠে। তবে নানা দেনদরবার শেষে দস্যুদের সঙ্গে সমঝোতা হয় জাহাজের মালিকপক্ষের। এরপর মুক্ত হয় জাহাজ ও ২৩ বাংলাদেশি নাবিক।

বাংলাদেশ সময় শনিবার (১৩ এপ্রিল) দিবাগত রাত ৩টা ৮ মিনিটের দিকে জাহাজ থেকে নেমে যায় দস্যুরা। এরপর জাহাজ সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ের আল হারমিয়া বন্দরের উদ্দেশ্যে রওনা দেয়।

এ নিয়ে রোববার (১৪ এপ্রিল) চট্টগ্রামের আগ্রাবাদ এলাকায় কেএসআরএমের করপোরেট কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে জাহাজে অস্ত্রধারী গার্ড না থাকার বিষয়ে ব্যাখ্যা দেন কেএসআরএম গ্রুপের উপব্যবস্থাপনা পরিচালক শাহরিয়ার জাহান।

তিনি বলেন, একটা কথা বার বার আসছে, কেন আমরা আর্মড গার্ড নেইনি। এটার কারণ হচ্ছে আমরা হাই রিস্ক অ্যারিয়ার বাইরে ছিলাম। সাধারণত ২০০ নটিক্যাল মাইলের ভেতর হাইরিস্ক অ্যারিয়া হিসেব করা হয়। কিন্তু আমরা যাচ্ছিলাম মোটামুটি ৬০০ নটিক্যাল মাইল দূরে দিয়ে। গত ৮-৯ বছরে ওই এলাকায় এরকম কোনো ঘটনা ঘটেনি, যেখানে আর্মড গার্ড নিতে হয়। একারণে আমরা আর্মড গার্ড নেইনি।

জানা গেছে, জলদস্যুদের দাবি অনুযায়ী মুক্তিপণ নিয়ে একটি উড়োজাহাজ বাংলাদেশ সময় শনিবার বিকেলে জিম্মি জাহাজের ওপর চক্কর দেয়। এসময় জাহাজের ওপরে ২৩ নাবিক অক্ষত থাকার বিষয়টি নিশ্চিত হয়। এরপর বিমান থেকে ডলারভর্তি তিনটি ব্যাগ সাগরে ফেলা হয়। স্পিডবোট দিয়ে এসব ব্যাগ জলদস্যুরা কুড়িয়ে নেয়। জাহাজে উঠে দাবি অনুয়ায়ী মুক্তিপণ গুনে নেয় জলদস্যুরা।

মুক্ত হয়ে বাংলাদেশ সময় শনিবার মধ্যরাতে ২৩ নাবিক নিয়ে সংযুক্ত আরব আমিরাতের উদ্দেশ্যে রওনা দেয় এমভি আবদুল্লাহ। যদিও মুক্তিপণ কত এবং কীভাবে দেওয়া হয়েছে সেটি নিয়ে মন্তব্য করতে রাজি হননি জাহাজের মালিকপক্ষের কোনো কর্মকর্তা।

এর আগে গত ১২ মার্চ দুপুরে কেএসআরএমের মালিকানাধীন এসআর শিপিংয়ের জাহাজটি জিম্মি করে সোমালিয়ান দস্যুরা। সেখানে থাকা ২৩ নাবিককে একটি কেবিনে আটকে রাখা হয়। আটকের পর জাহাজটিকে সোমালিয়ার উপকূলে নিয়ে যাওয়া হয়। ৫৮ হাজার মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে ৪ মার্চ আফ্রিকার মোজাম্বিকের মাপুতো বন্দর থেকে যাত্রা শুরু করে এমভি আবদুল্লাহ। ১৯ মার্চ সেটি সংযুক্ত আরব আমিরাতের হামরিয়াহ বন্দরে পৌঁছানোর কথা ছিল।


আরও খবর



জলঢাকা পৌরসভার উপ -নির্বাচনে মেয়র পদে ৬ জনের মনোনয়নপত্র দাখিল

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৯ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪ | ৬৫জন দেখেছেন

Image
জলঢাকা (নীলফামারী) প্রতিনিধিঃনীলফামারীর জলঢাকায় আসন্ন ২৮ এপ্রিল পৌরসভার উপ-নির্বাচনে মেয়র পদে ৬ জনের মনোনয়ন পত্র দাখিল করা হয়েছে। মনোনয়ন পত্র দাখিলের শেষ দিন ছিল  ২৮ মার্চ। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই প্রার্থীরা তাদের কর্মী সমর্থকদের নিয়ে উপজেলা পরিষদে এসে নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয়ে নিজ নিজ মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। এদের মধ্যে দু'জন জন নারী প্রার্থীও রয়েছে। মনোনয়ন পত্র জমা দান কারীরা হলেন, প্রয়াত মেয়র ইলিয়াস হোসেন বাবলু'র ছেলে নাসিব সাদিক হোসেন (নোভা) ও তাঁর   মা নাজনীন চৌধুরী এবং সাবেক মেয়র ফাহমিদ ফয়সাল চৌধুরী কমেট ও তাঁর  সহধর্মিণী ইফফাত আরা জান্নাত। এছাড়াও সমাজসেবক শিক্ষানুরাগী  প্রভাষক সাদের হোসেন ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা গোলাম আজম প্রমুখ মনোনয়ন জমা করেছেন।

পৌরসভাটির ৯টি ওয়ার্ডে ১৮টি ভোটকেন্দ্রে এবারে মোট ভোট সংখ্যা ৩৭,১৯১ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১৮,৭৭৪ জন ও মহিলা ভোটার সংখ্যা ১৮,৪১৭ জন। 

নীলফামারী জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন জানান,  পৌরসভার মেয়র  এর মৃত্যুতে এটি শুন্য ঘোষণা করা হয়। আগামী ২৮ এপ্রিল উপ -নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। আজকে ছিল মনোনয়নপত্র জমা দানের শেষদিন। আশা করি এ নির্বাচন অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হবে এটা আমাদের নির্বাচন কমিশনের কমিটমেন্ট।  উল্লেখ্য, মেয়র ইলিয়াস হোসেন বাবলু গত ১৯ জানুয়ারি ২০২৪ রাতে  হৃদ রোগে আক্রান্ত হয়ে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

আরও খবর



জমে উঠেছে আমতলীর ঈদ বাজার

প্রকাশিত:শনিবার ৩০ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪ | ৬৭জন দেখেছেন

Image

আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি:জমে উঠেছে আমতলীর ঈদ বাজার। শিশু, নারী-পুরুষের পদচারনায় সরগরম বিপণি বিতানগুলো। সবচেয়ে কদর বেশী ইন্ডিয়ান-পাকিস্তানী পোষাকের। ক্রেতারা তাদের পছন্দ মত জামা-জুতা পোশাক-প্রসাধনী ঈদপন্য কিনছেন। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চলছে কেনাবেচা। ঈদ যত ঘনিয়ে আসছে বাজারে ক্রেতাদের ভিড়ও তত বাড়ছে। এছাড়া পোশাক তৈরিতে ব্যস্ত টেইলার্স কারিগড়রা। রাত জেগে তারা কাজ করছে।

জানাগেছে, এ বছর ১৫ রোজা থেকে আমতলীর ঈদ বাজার জমে উঠেছে।সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত চলে বেচাকেনা। ঈদ বাজারে ইন্ডিয়ান ও পাকিস্তানী পোশাকের চাহিদা বেশী। ইন্ডিয়ান লং ফ্রোগের চাহিদা বেশী।

প্রতিপ্রিস ফ্রোগ চার হাজার থেকে ছয় হাজার পাচ’শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। অরগাঞ্চা ডিজিটাল প্রিন্ট শাড়ীর প্রতি গৃহবধুদের আকর্ষণ বেশী। এ শাড়ী ৪ হাজার পাচ’শ থেকে ১২ হাজার পাচ’শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া আমতলীর বাজারে ধুপিয়ানা, কাঞ্চিভরাম কাতান ও প্রিন্ট কাতান এবং ভিপুল, পাকিস্তানী তাওয়াক্কাল, আয়রা, মাসাল, তাওয়াক্কাল, দিল্লি বুটিক্স ও লরস থ্রি পিস বেশী বিক্রি হচ্ছে। প্রকার ভেদে এ সকল থ্রি পিস ও শাড়ী ২ হাজার ৫’শ থেকে ১২ হাজার ৫’শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

নিউ মাতৃছোয়া বস্ত্রালয়ের সেলসম্যান বাসু ও মোশাররফ হোসেন বলেন, ইন্ডিয়ান লং ফ্রোগের চাহিদা বেশী। প্রতিপ্রিস ফ্রোগ চার হাজার থেকে ছয় হাজার পাচ’শ টাকায় বিক্রি করছি। অরগাঞ্চা ডিজিটাল প্রিন্ট শাড়ীর প্রতি গৃহবধুদের আকর্ষণ বেশী। এ শাড়ী ৪ হাজার পাচ’শ থেকে ১২ হাজার পাচ’শ টাকায় বিক্রি করছি। তারা আরো বলেন, ধুপিয়ানা, কাঞ্চিভরাম কাতান ও প্রিন্ট কাতান এবং ভিপুল, পাকিস্তানী তাওয়াক্কাল, আয়রা, মাসাল, তাওয়াক্কাল, দিল্লি বুটিক্স ও লরস থ্রিপিস বেশী বিক্রি হচ্ছে।

বাজার ঘুরে দেখাগেছে, ইন্ডিয়ান লং ফ্রোগ চার হাজার থেকে ছয় হাজার পাচ’শ, অরগাঞ্চা ডিজিটাল প্রিন্ট শাড়ী ৪ হাজার পাচ’শ থেকে ১২ হাজার পাচ’শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ধুপিয়ান শাড়ী ৭ হাজার ৫’শ থেকে ৮ হাজার, কাঞ্চিভরাম কাতান ৩ হাজার ৫’শ থেকে ৭ হাজার ৫’শ ও প্রিন্ট কাতান শাড়ী ৬ হাজার ৫’শ থেকে ১০ হাজার ৫’শ এবং ভিপুল থ্রিপিস ২ হাজার ৫’শ থেকে ৫ হাজার ৫’শ, পাকিস্তানী তাওয়াক্কাল ৬ হাজার ৫’শ থেকে ১২ হাজার ৫’শ, আয়রা ৩ হাজার ৫’শ থেকে ৭ হাজার ৫’শ, মাসাল ৩ হাজার ২’শ থেকে ৫ হাজার ৫’শ, দিল্লি বুটিক্স ৬ হাজার থেকে ১৫ হাজার, তাওয়াক্কাল ৬ হাজার ৫’শ থেকে ১২ হাজার ও লরস ৬ হাজার ৫’শ থেকে ৮ হাজার ৫’শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

আমতলী পৌর শহরের তানিয়া বলেন, এ বছর পোশাকের ধরন বদলে গেছে এবং দামও একটু বেশী। ইন্ডিয়ান লং ফ্রোগ ৬ হাজার টাকায় ক্রয় করেছি। তিনি আরো বলেন, দাম একটু বেশী হলেও ভালো মানের পোশাক পাওয়া যাচ্ছে। ক্রেতা মরিয়াম ও পূর্ণতা বলেন, নিউ মাতৃছোয়া বস্ত্রালয় থেকে পোশাক ক্রয় করেছি। চাহিদামত মালামাল পাওয়া যায়। নিউ মাতৃছোয়া বস্ত্রালয়ের পরিচালক জিএম মুছা বলেন, ঈদকে সামনে রেখে বিক্রি অনেক ভালো। সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত চলে বেচাকেনা। সেলসম্যানদের ক্রেতাদের সামলাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার আমতলী পৌর শহরের আকন বস্ত্রালয়, মদনমোহন বস্ত্রালয়, সিরাজ উদ্দিন মৃধা বস্ত্রালয়,ইসলামিয়া বস্ত্রালয়, আকন টাওয়ার, সাকিব প্লাজা, আব্দুল্লাহ মার্কেট ও সুমাইয়া কমপ্লেক্স, ঘুরে দেখা গেছে ক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড়। নারী ও পুরুষরা মিলে পছন্দের পোশাক ক্রয় করছে।

আমতলী থানার ওসি কাজী সাখাওয়াত হোসেন তপু বলেন, ঈদকে সামনে রেখে বাজারে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোড়দার করা হয়েছে। গভীর রাত পর্যন্ত কেনাকাটা করে মানুষের বাড়ী ফিরে যেতে যেন সমস্যা না হয়।


আরও খবর