Logo
আজঃ শনিবার ২৫ মে ২০২৪
শিরোনাম

ভবন ঝুঁকিপূর্ণ যথেষ্ট প্রস্তুতি নিয়ে পরবর্তী কার্যক্রম: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ০৮ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ১৫২জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ভবনের বেসমেন্ট এবং নিচতলা যথেষ্ট ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এটি এখন ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। তাই যথেষ্ট প্রিপারেশন (প্রস্তুতি) নিয়ে পরবর্তী কার্যক্রম করা হয়েছে।

আজ বুধবার দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছি। পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে বিস্ফোরণের মূল কারণ জানা যাবে। ঘটনাস্থলে কাজ শুরু করেছে র‍্যাবের বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট ও ডগ স্কোয়াড। উদ্ধার অভিযানে ফায়ার সার্ভিসকে সহযোগিতা করছে পুলিশ, আর্মি ও রাজউকের বিশেষজ্ঞরা।

ভবন নির্মাণের ক্ষেত্রে সব ধরনের নিয়ম মানতে এবং ফায়ার সার্ভিসের ছাড়পত্র নেওয়ার জন্য জনসাধারণের উদ্দেশে আহ্বান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। 

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার বিকেল পৌনে পাঁচটার দিকে গুলিস্তানে বিআরটিসির বাস কাউন্টারের কাছে সিদ্দিকবাজারে ভয়াবহ বিস্ফোরণ ঘটে। এতে পাশাপাশি দুটি বহুতল ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়। একটি ভবন সাততলা, আরেকটি পাঁচতলা। এর মধ্যে সাততলা ভবনের বেসমেন্ট, প্রথম ও দ্বিতীয় তলা বিধ্বস্ত হয়েছে। আর পাঁচতলা ভবনের নিচতলা বিধ্বস্ত হয়েছে।

বিস্ফোরণে এখন পর্যন্ত ১৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ছাড়া শতাধিক আহত হয়েছেন। তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে বেশ কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। মারা যাওয়া ১৮ জনের মধ্যে ১৬ জনের মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।  এখনো তিনজন নিখোঁজ রয়েছেন।

এদিকে ঘটনায় তদন্তে ফায়ার সার্ভিসের পরিচালক (অপারেশনস অ্যান্ড মেইনটেইন্যান্স) লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম চৌধুরীকে প্রধান করে  চার সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিকে আগামী ৫ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।


আরও খবর



বিরামপুরে ধান-চাল সংগ্রহের শুভ উদ্বোধন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ৬৯জন দেখেছেন

Image

মিজান, বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃদিনাজপুর জেলার বিরামপুর সরকারি খাদ্য গুদামে চলতি মৌসুমের বোরো ধান, চাল ও গম সংগ্রহ অভিযানের শুভ বভউদ্বোধন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২১ মে) সকালে চলতি মৌসুমের বোরো ধান, চাল ও গম সংগ্রহ অভিযানের শুভ উদ্বোধন করেন, দিনাজপুর-৬ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য শিবলী সাদিক এমপি ।

সরকারি খাদ্য গুদামে ধান, চাল ও গম সংগ্রহের সময় উপস্থিত ছিলেন, বিরামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সুব্রত কুমার সরকার, উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা মঈন উদ্দিন, বিরামপুর (চরকাই) খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা লুৎফর রহমান খন্দকার, বিরামপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও দৈনিক জনকণ্ঠ পত্রিকার নিজস্ব প্রতিনিধি আকরাম হোসেন, বিরামপুর  প্রেসক্লাবের আহবায়ক সহকারী অধ্যাপক মশিহুর রহমান, যুগ্ম-আহবায়ক হাফিজ উদ্দিন সরকার, চাউল কল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক হবিবর রহমান, সরকারি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ অদৈত কুমার অপু, মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ মেজবাউল হক প্রমূখ।

বিরামপুর (চরকাই) খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা লুৎফর রহমান খন্দকার জানান, চলতি মৌসুমের বিরামপুর (চরকাই) খাদ্য গুদামে ৩২ টাকা কেজি দরে ১ হাজার ৫৮১ মেট্রিক টন ধান, ৪৫ টাকা কেজি দরে ৪ হাজার ৭৪০ মেট্রিক টন চাল ও ৩৪ টাকা কেজি দরে ২০ মেট্রিক টন গম ক্রয়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে।


আরও খবর



মিল্টন সমাদ্দার গ্রেপ্তার

প্রকাশিত:বুধবার ০১ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৩ মে ২০২৪ | ১২২জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ‘চাইল্ড অ্যান্ড ওল্ড এইজ কেয়ার’ আশ্রমের চেয়ারম্যান মিল্টন সমাদ্দারকে গ্রেপ্তার করেছে। বুধবার (১ মে) রাতে রাজধানীর মিরপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (গোয়েন্দা) মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, দক্ষিণ পাইকপাড়ার আশ্রম থেকে মিল্টন সমাদ্দারকে আটক করা হয়েছে। ওই আশ্রমে এখনও অভিযান চলছে। ‘চাইল্ড অ্যান্ড ওল্ড এইজ কেয়ার’ নামক বৃদ্ধাশ্রমের আড়ালে মিল্টন সমাদ্দারের নানা অপকর্ম নিয়ে একটি জাতীয় দৈনিকে সংবাদ প্রকাশের পর দেশব্যাপী তুমুল সমালোচনার ঝড় ওঠে। যদিও কয়েকটি গণমাধ্যমে সাক্ষাৎকার দিয়ে তার বিরুদ্ধে ওঠা সব অভিযোগ অস্বীকার করেন মিল্টন সমাদ্দার। নিজের পক্ষে কিছু তথ্যপ্রমাণ ও যুক্তিও তুলে ধরেন। কিন্তু তার দাবি এবং উপস্থাপিত তথ্যপ্রমাণ বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, মিল্টনের দেওয়া বেশিরভাগ তথ্যই ছিল মিথ্যা।


আরও খবর



রুয়েট ও আহসানুল্লাহ বিশ্ববিদ্যালয়ে হুয়াওয়ের ক্যাম্পাস রিক্রুটমেন্ট

প্রকাশিত:বুধবার ০১ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৪ মে 20২৪ | ১৩৪জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (রুয়েট) এবং আহ্ছানউল্লা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (আবিপ্রবি) ক্যাম্পাস রিক্রুটমেন্ট আয়োজন করেছে হুয়াওয়ে। এই আয়োজনে বিশ্ববিদ্যালয় দুইটি থেকে প্রায় ৩০০ জন শিক্ষার্থী এমসিকিউ এবং লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। নির্বাচিত শিক্ষার্থীরা হুয়াওয়ের সাথে কাজ করার সুযোগ পাবেন।

সম্প্রতি অনুষ্ঠিত এই রিক্রুটমেন্ট ইভেন্ট পরিচালনা করেন হুয়াওয়ের সিনিয়র ম্যানেজার মো. সাইফুল আলম, এইচআর ম্যানেজার ওমর হায়দার মাশফিক আহমেদ, অ্যাসিসট্যান্ট এইচআর ম্যানেজার মো. শরিফুল ইসলাম, সিনিয়র লিডার গাও জিয়ানগাও, সিনিয়র এইচআর ম্যানেজার মো. ফারা নেওয়াজ এবং এইচআর এক্সিকিউটিভ মো. খালিদ হোসেন।

হুয়াওয়ের সিনিয়র এইচআর ম্যানেজার মো. ফারা নেওয়াজ বলেন, ”বাংলাদেশের তরুণ প্রজন্মের সম্ভাবনা অনেক। তাদের মেধাকে সঠিকভাবে পরিচর্যা করা প্রয়োজন। হুয়াওয়ে দেশের এই তরুণদের জন্য কর্মক্ষেত্রে সুযোগ তৈরিতে মনোযোগী যাতে তারা সঠিক দক্ষতা, কর্মপরিবেশ ও সুযোগ-সুবিধা পেয়ে নিজেদের মেধাকে আরও বিকশিত করতে পারে। সম্পূর্ণভাবে সংযুক্ত ও বুদ্ধিবৃত্তিক বাংলাদেশ গড়ার যে লক্ষ্য হুয়াওয়ের রয়েছে, তা এই তরুণরা সামনে এগিয়ে নিয়ে যাবে। বাংলাদেশের তরুণদের জন্য আমরা এই ধরনের কাজের সুযোগ সৃষ্টি করতে থাকবো।”

রুয়েটের কম্পিউটার সায়েন্স ও ইন্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. নজরুল ইসলাম মণ্ডল বলেন, ”কর্মক্ষেত্রে নতুন এসব শিক্ষার্থীদের মধ্যে অনেক আশা ও আকাঙ্খা রয়েছে। রুয়েট ক্যাম্পাসে গুরুত্বপূর্ণ এই আয়োজন করায় আমি হুয়াওয়ে বাংলাদেশকে ধন্যবাদ জানাই। এমন আয়োজন শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ সুন্দর করে তুলবে।”

আবিপ্রবির ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. তারেক আজিজ বলেন, ”দেশের উন্নয়নে হুয়াওয়ে বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ অবদান রয়েছে। এই কারণে যখন দেখি আমাদের শিক্ষার্থীরা সেখানে কাজ করছে, আমরা গর্ববোধ করি। পেশাগত লক্ষ্য অর্জনের  জন্য হুয়াওয়েতে ভালো কর্মপরিবেশ থাকায় আমাদের শিক্ষার্থীরাও অনেক খুশি। হুয়াওয়ের ধারাবাহিক এই আয়োজনকে সাধুবাদ জানাই। একই সঙ্গে আবিপ্রবিতে ক্যাম্পাস ‍রিক্রুটমেন্ট আয়োজন আমাদের প্রতি হুয়াওয়েরও আস্থার প্রতীক।”

দেশের আইসিটি খাতে মেধার উন্নয়নে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হুয়াওয়ে কর্মক্ষেত্রে নতুন শিক্ষার্থীদেরকে বিভিন্ন সুযোগ দিচ্ছে। দেশের অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতেও ধারাবাহিকভাবে এই ধরনের আয়োজন করে যাবে হুয়াওয়ে।


আরও খবর



গোদাগাড়ীতে ৩ হাজার ৩০০ ঝুঁকিপূর্ণ শিশুদের মাঝে মশারী ও টুথপেষ্ট বিতরণ

প্রকাশিত:সোমবার ১৩ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৩ মে ২০২৪ | ৬৩জন দেখেছেন

Image

মুকতার হোসেন,গোদাগাড়ী(রাজশাহী)প্রতিনিধিঃ"১৮'র আগে বিয়ে নয় তবেই মেয়ের জীবনে সুখের হাওয়া বয় ১৮'র আগে বিয়ে দুখের হাওয়া বয় জীবনে"বাল্য বিয়েকে না বলুন এই স্লোগানে রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে স্পনসর ড ও নন-স্পনসর ড ৩ হাজার ৩০০জনকে ঝুঁকিপূর্ণ শিশুদের মাঝে মশারী ও টুথপেষ্ট বিতরণ করেছে ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ,গোদাগাড়ী এপি।সোমবার বেলা সাড়ে ১০টায়

উপজেলা শিশু নিকেতন মাঠে।ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ, গোদাগাড়ী এপি ম্যানেজার প্রেরণা চিশিমের সভাপতিত্বে ঝুঁকিপূর্ণ শিশুদের মাঝে মশারী ও টুথপেষ্ট বিতরণ সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আতিকুল ইসলাম।বিশেষ অতিথি ছিলেন শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক এস এম বরজাহান পিন্টু,গোদাগাড়ী শিশু নিকেতনের প্রধান শিক্ষক আবু বাক্কার সিদ্দিক। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ সিনিয়র প্রোগ্রাম অফিসার এন্ড্রিকা সমুর্মু ও প্রোগ্রাম অফিসার সন্তোষমিত্র প্রমূখ।বাল্যবিবাহ সম্পর্কে সচেতনা মূলক ম্যাসেজ প্রদান করা হয়। বক্তারা বলেন, বাল্যবিবাহ নিরোধে মূল্যবান মতামত তুলে ধরেন। তারা বলেন যে, উক্ত বিষয়ে যে কোন ধরণের সহযোগীতা প্রদান করবেন। উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত শিশুরা অতিথিদের কাছে প্রতিজ্ঞা করেন যে, তারা নিজেরা কেউ বাল্যবিবাহ করবে না এবং অন্যদের বিয়েও শক্তহাতে প্রতিহত করবে। উপস্থাপনা করেন গোদাগাড়ী এপির উপজেলাযুব ফোরাম সভাপতি মনিরা খাতুন। উল্লেখ্য যে গোদাগাড়ী উপজেলা ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ গোদাগাড়ী এপির স্পনসর ড শিশু ৩হাজার ও নন-স্পনসর ড ৩০০জনকে একটি করে মশারী ও একটি করে টুথ পেষ্টতুলা দেয়া হয়। আলোচনা সভায় স্পনসর ড ও নন-স্পনসর ড ঝুঁকিপূর্ণ শিশু ও অভিভাবকরা উপস্থিত ছিলেন।



আরও খবর



মির্জাপুরে প্রতীক পাওয়ার পর থেকেই প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণা শুরু, ভোট ৫ জুন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ৫৫জন দেখেছেন

Image

মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি:টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলা পরিষদ ২০২৪ এর চতুর্থ ধাপের নির্বাচনের প্রচার প্রচারণা শুরু হয়ে গেছে। ২০ মে সোমবার সকালে টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) ও রিটার্নিং কর্মকর্তা হোসাইন মোহাম্মদ হাই জকী টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসকের মিলনায়তনে প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ করেন।মির্জাপুরের ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মোট ৯ জন প্রার্থী ভোট যুদ্ধে অংশগ্রহণ করছে। তাদের মধ্যে চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হলেন, মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম মনির প্রতীক-কাপ পিরিচ, মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক, মির্জাপুরের সাবেক এমপি প্রয়াত  একাব্বর হোসেনের ছেলে ব্যারিস্টার তাহরীম হোসেন সীমান্ত প্রতীক-আনারস, টাঙ্গাইল জেলা বিএনপির সাবেক সদস্য ফিরোজ হায়দার খান প্রতীক-মোটরসাইকেল। মির্জাপুরের প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতা শিল্পপতি নুরুল ইসলাম নুরুর ছোট ভাই রেজাউল করিম বাবুল ঋণ খেলাপির দায়ে উচ্চ আদালতে মামলা চলমান থাকায় প্রতীক বরাদ্দ পাননি।

ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী হলেন, আওয়ামী লীগ নেতা ও ব্যবসায়ী মোঃ শওকত মিয়া প্রতীক- টিউবওয়েল এবং বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান আজহারুল ইসলাম প্রতীক-তালা।
মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হলেন, বর্তমান উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মীর্জা শামীমা আক্তার শিফা প্রতীক-ফুটবল, বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগের সদস্য এবং অভিনেতা ডি এ তায়েবের সহধর্মিনী মাহবুবা শাহরীন প্রতীক- কলস, অপরজন হলেন, টাঙ্গাইল মহিলা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক চাঁদ সুলতানা প্রতীক-হাঁস। ইতিমধ্যে আরেক প্রার্থী জি এস সেলিম এর সহধর্মিনী রুবি আক্তার কনা ১৯ তারিখে মাহবুবা শাহরীনকে সমর্থন জানিয়ে নিজের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। আগামী ৫ জুন বুধবার প্রার্থীরা ভোট যুদ্ধে শরিক হবেন।


আরও খবর