Logo
আজঃ মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪
শিরোনাম

ভারতকে হারাল বাংলাদেশের মেয়েরা

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৪ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪ | ২৯৬জন দেখেছেন

Image

স্পোর্টস ডেস্ক: সাফ অনূর্ধ্ব-১৭ নারী চ্যাম্পিয়নশিপে শক্তিশালী ভারতকে ১-০ গোলে হারিয়েছে বাংলাদেশ। যদিও আত্মঘাতী গোলে কপাল পুড়েছে ভারতের।

আজ শুক্রবার ভারতে বিপক্ষে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে মাঠে নামে বাংলাদেশ কোচ গোলাম রব্বানী ছোটনের দল। কমলাপুর বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে ম্যাচের ৫ মিনিটেই স্বাগতিকরা দারুণ সুযোগ পেয়েছে। কিন্তু বক্সের ডানপ্রান্ত থেকে পূজা দাসের ক্রসে সুলতানা আক্তারের মাটি কামড়ানো শট চলে যায় পোস্টের বাইরে দিয়ে।

তারপর অল্পের জন্য রক্ষণের ভুলে স্বাগতিক দল গোল হজম করতে বসেছিল। ১৬ মিনিটে অধিনায়ক রুমা আক্তার বক্সের বাইরে থেকে বল বিপদমুক্ত করতে ব্যর্থ হলে শট নিয়েছিলেন ভারতীয় ফরোয়ার্ড পূজা। স্বাগতিকদের ভাগ্য ভালো, সেই শট লক্ষ্যে থাকেনি।

প্রথমার্ধের শেষ দিকে এক মিনিটে বাংলাদেশের দুবার সুযোগ নষ্ট হয়েছে। ৪০ মিনিটে বক্সের মুখ থেকে জয়নব বিবির শট ঠেকিয়ে দেন ভারতীয় গোলরক্ষক খুশি কুমারী।

খেলার ৫৪ মিনিটে আবারও সুযোগ নষ্ট করে স্বাগতিকরা। ৩৫ গজ দূর থেকে জয়নব বিবির বাতাসে বাড়ানো বল সাগরিকা ফাঁকায় পেয়েছিলেন। কিন্তু তার দুর্বল হেড হতাশ করে দলকে।

ম্যাচের ৬৮ মিনিটে পাল্টা আক্রমণে বাংলাদেশের রক্ষণকে ভারত কাঁপিয়েও দিয়েছিল। ফাঁকায় দাঁড়ানো ললিতা বয়পাই কর্নার থেকে পাওয়া বলে জোরালো শট নিলেও তা লক্ষ্যে থাকেনি।

তবে ৭৫ মিনিটে বাংলাদেশের ভাগ্য সুপ্রসন্ন বলতে হয়। নাদিয়া আক্তার জুথির ক্রস ক্লিয়ার করতে গিয়ে আখিলা রাজন হেড করে নিজেদের জালেই বল জড়িয়ে দেন। ম্যাচ শেষে ১-০ ব্যবধানে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে বাংলাদেশ।

টুর্নামেন্টে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ভুটানকে ৮-১ গোলে হারিয়ে দুর্দান্ত সূচনা করে বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ম্যাচে রাশিয়ার কাছে ৩-০ ব্যবধানে হেরে যায় গোলাম রব্বানী ছোটনের দল।


আরও খবর



৩ অঞ্চলে ঝড়ের শঙ্কা দুপুরের মধ্যে

প্রকাশিত:রবিবার ২৪ মার্চ 20২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪ | ১২৩জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:দুপুর ১টার মধ্যে ৬০ কিলোমিটার বেগে চট্টগ্রামসহ দেশের ৩ অঞ্চলে ঝড়ের পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস। সেইসঙ্গে বজ্রসহ বৃষ্টিও হতে পারে বলে জানানো হয়েছে।

রোববার (২৪ মার্চ) দুপুর ১টা পর্যন্ত দেশের অভ্যন্তরীণ নদীবন্দরগুলোর জন্য দেওয়া পূর্বাভাসে এসব তথ্য জানানো হয়। আবহাওয়াবিদ মো. মনোয়ার হোসেন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, কুমিল্লা, নোয়াখারী ও চট্টগ্রাম অঞ্চলের ওপর দিয়ে পশ্চিম অথবা উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এ সময় বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। তাই এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। এদিকে, আবহাওয়া অফিসের অপর এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, সন্ধ্যা পর্যন্ত রংপুর, ঢাকা, ময়মনসিংহ, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের দুয়েক জায়গায় অস্থায়ী দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেইসঙ্গে সারা দেশেই বাড়বে তাপমাত্রা।


আরও খবর



বৃহত্তর উত্তরাস্থ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা কল্যাণ সমিতির ইফতার ও দোয়া মাহফিল ব্যাপক পরিসরে অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:সোমবার ২৫ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১৫ এপ্রিল ২০২৪ | ১৪৩জন দেখেছেন

Image

মোহাম্মদ হেদায়েতুল্লাহ  নবীনগর(ব্রাহ্মণবাড়িয়া)প্রতিনিধিঃ-

হৃদয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া,মননে ব্রাহ্মণবাড়িয়া।যেথায় মোরা রইবো,একে অপরের প্রতি ভালোবাসায় শ্রদ্ধা সম্প্রীতির বন্ধনে আবদ্ধ থাকবো এমন প্রত্যয়ে প্রতি বছরের ন্যায় এবারও ব্যাপক পরিসরে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল বৃহত্তর উত্তরাস্থ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা কল্যাণ সমিতি ঢাকার ইফতার ও দোয়া মাহফিল।আজ শনিবার বিকালে রাজধানীর উত্তরার ১৩ নাম্বার সেক্টরে জমজম টাওয়ার এর ১২ ও ১৩ তলায় আলোচনা সভা মিলাদ মাহফিল ও দোয়ার মাধ্যমে সাজানো অনুষ্টানটি শেষে সকলের মধ্যে ইফতারি বিতরণ করা হয়।


সংগঠনের নব নির্বাচিত সভাপতি আনোয়ার হোসেন এর সভাপতিত্বে সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব আনিসুর রহমান ভুঁইয়ার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠনের নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক মোঃ বিল্লাল হোসেন।উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন বৃহত্তর উত্তরাস্থ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা কল্যাণ সমিতির উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য সাবেক এমপি বিএম ফরহাদ হোসেন সংগ্রাম,সাবেক এমপি অবসরপ্রাপ্ত ডিআইজি খালেক, সাবেক এমপি এডঃ শাহ আলম,এডঃ কামরুজ্জামান আনছারী,সাবেক সভাপতি মামুনুর রশিদ।


ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা যুবলীগের সভাপতি এডভোকেট সিরাজুল ইসলাম ফেরদৌস,সাইফুল ইসলাম ভূঁইয়া প্রমুখ।এছাড়াও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন,বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ আলহাজ্ব সেলিম মাষ্টার,ডুয়েট এর প্রো ভিসি অধ্যাপক ডঃ আব্দুর রশিদ,ইউনিসেফ এর কান্ট্রি ডিরেক্টর শফিকুল ইসলাম,সাবেক অতিরিক্ত সচিব সাফিজ উদ্দিন আহমেদ,এটিএম জাকির হোসেন,সাবেক যুগ্ম সচিব জাফর সিদ্দিকী,খুরশিদ আলম,উপ সচিব শফিকুল ইসলাম, নবীনগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ মনিরুজ্জামান, রাজনীতিবিদ আরিফুল ইসলাম ভূঁইয়া।


কমিটির সকল নেতৃবৃন্দ সহ বিভিন্ন শ্রেণীপেশার অসংখ্য অগণিত গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।এসময় উপস্থিত অতিথিরা বৃহত্তর উত্তরাস্থ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা কল্যাণ সমিতির সকল কর্মকান্ডের ভূয়সী প্রশংসা করেন।উক্ত কল্যাণ সমিতির নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক মোঃ বিল্লাল হোসেন বলেন, সকলের আন্তরিক দায়িত্ব ও সহযোগিতা থাকলে এ কল্যাণ সমিতিটি দিনে  দিনে  আমরা নানা কর্মসূচি পালন করতে পারবো। এই সমিতিটি আমাদদের প্রাণের স্পন্দন ব্রাহ্মণবাড়িয়া বাসীর গর্ব।


কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব আনিসুর রহমান ভুঁইয়ার বলেন আমরা সবাইকে নিয়ে আগামী দিনে বৃহত্তর উত্তরাস্থ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা কল্যাণ সমিতির উন্নয়নে কাজ করে যাবো। তিনি বৃহত্তর উত্তরাস্থ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা কল্যাণ সমিতির  আগামীর পথচলা আরো বেগবান ও শক্তিশালী করার দৃঢ়প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।ইফতারের পূর্বে দেশ, জাতি ও ঢাকাস্থ নবীনগর উপজেলা কল্যাণ সমিতির সাফল্য কামনায় মিলাদ শেষে মোনাজাত পরিচালনা করেন সংগঠনের সাবেক ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হযরত মাওলানা মাহাবুব আল হাদী। এই ইফতার মাহফিলে অংশ গ্রহণ করেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা বিভিন্ন উপজেলার প্রায় দেড় হাজার মানুষ সবার মাঝে ইফতার বিতরণ করা হয়।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



মধুপুরে আওয়ামীলীগের উদ্যোগে নির্বাচনী মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:সোমবার ১৮ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১৮ মার্চ ২০২৪ | জন দেখেছেন

Image

বাবুল রানা মধুপুর টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃ-

আসন্ন  উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে টাঙ্গাইলের মধুপুর   উপজেলার আউশনারা  ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের উদ্যোগে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচনে এডভোকেট ইয়াকুব আলী এর নির্বাচনী মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।সোমবার  (১৮ মার্চ) বিকেলে আউশনারা  ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. শহীদুর রহমান  শিবাস এর  সভাপতিত্বে আউশনারা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এ মতবিনিময সভা অনুষ্ঠিত হয়।


উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক কৃষি মন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক এমপি।নির্বাচনী মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র  সহ-সভাপতি ও আওয়ামী লীগ সমর্থিত উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী এডভোকেট ইয়াকুব আলী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি কাজী মোতালেব হোসেন।


সহ সভাপতি আবুসাইদ তালুকদার দুলাল, পৌর মেয়র আলহাজ্ব মো. সিদ্দিক হোসেন খান, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক সাদিকুল ইসলাম সাদিক, আউশনারা ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা, আউশনারা কলেজের অধ্যক্ষ কামরুজ্জামান জুয়েল প্রমুখ। মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ বিভিন্ন এলাকা থেকে আগত আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



ঈদে সবার জীবনে সুখ-শান্তি নেমে আসুক: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১১ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১৫ এপ্রিল ২০২৪ | ৪৪জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:ঈদে সবার জীবনে আনাবিল সুখ-শান্তি নেমে আসুক,বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আগামী দিনগুলো আরও সুন্দরভাবে যাক সেটাই কামনা করি।

বৃহস্পতিবার (১১ এপ্রিল) গণভবনে দলীয় নেতাকর্মী, বিচারক ও বিদেশি কূটনীতিকসহ সর্বস্তরের জনগণের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময়কালে এ কথা বলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা দেখেছি অনেকে গর্ব করে বলে, এক হাজারের ওপর ইফতার পার্টি করেছে। যারা ইফতার পার্টি হাজারের ওপরে করে, ইফতার খেয়েছে। আর আওয়ামী লীগ মানুষকে দেয়। আওয়ামী লীগ খেতে আসে না, দিতে আসে। আওয়ামী লীগ মানুষের পাশে থাকে, মানুষের কল্যাণে কাজ করে।

শুরুতে শেখ হাসিনা বলেন, আমি আজকের দিনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা জানাই। ১৯৭৫ এর ১৫ আগস্ট বাবা, মা, ভাই-বোন সব হারিয়েছি। তাদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করি। শ্রদ্ধা জানাই ৩০ লক্ষ শহিদের প্রতি। শ্রদ্ধা জানায় জাতীয় চার নেতার প্রতি।

তিনি বলেন, জাতির পিতা স্বাধীনতা দিয়েছেন দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে। আজকে আমরা দারিদ্রের হার কমাতে পেরেছি। কিন্তু এখনো যেটুকু দারিদ্র রয়েছে, আমারা আগামীতে ইনশাল্লাহ অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা, চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে পারব। এটাই আমাদের প্রতীজ্ঞা। পবিত্র ঈদ সামনে রেখে আমরা সেটাই চাচ্ছি।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, আমি আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই, কৃতজ্ঞতা জানাই আমাদের আওয়ামী লীগের অগনিত নেতাকর্মী, সংসদ সদস্যসহ, সামরিক-অসামরিক, জনপ্রশাসনসহ অন্যান্য সংগঠনকে। আমি যখন বলেছি ইফতার পার্টি করব না। মানুষের মাঝে ইফতার বিলিয়ে দেব, মানুষের পাশে দাাঁড়াব। সেই নির্দেশ পাওয়ার পর সবাই যার যার অবস্থান থেকে মানুষকে ইফতার দিয়েছেন। যারা সাধারণ মানুষ, নিম্নবিত্ত মানুষ তাদের কাছে ইফতার পৌঁছে দেওয়া অত্যান্ত পবিত্র কাজ, আপনারা করেছেন।


আরও খবর



মঙ্গল শোভাযাত্রা তিমির বিনাশের প্রত্যয়ে

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪ | ৭৩জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:বাংলা ১৪৩১ সনের মঙ্গল শোভাযাত্রা। ‘আমরা তো তিমিরবিনাশী’ স্লোগানের এই শোভাযাত্রায় অংশ নেন কয়েক হাজার মানুষ।

রোববার (১৪ এপ্রিল) সকাল সোয়া ৯টায় শোভাযাত্রাটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা ইনস্টিটিউটের সামনে থেকে শুরু হয়। এর পর শাহবাগের ঢাকা ক্লাবের সামনে দিয়ে ঘুরে টিএসসি মোড় হয়ে ফের চারুকলার সামনে গিয়ে পৌনে ১০টার দিকে শেষ হয় শোভাযাত্রা।

অসাম্প্রদায়িক চেতনার প্রাণের উৎসব বর্ষবরণ। বাংলা নববর্ষ বরণে বাঙালির নানা আয়োজনের মধ্যে মঙ্গল শোভাযাত্রা অন্যতম।

এ বছর বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখের মঙ্গল শোভাযাত্রার ৩৫ বছর পূর্তি হয়েছে। এবারের শোভাযাত্রার স্লোগানটি কবি জীবনানন্দ দাশের ‘সাতটি তারার তিমির’ কাব্যগ্রন্থের ‘তিমিরহননের গান’ কবিতা থেকে নেওয়া।

এবারের শোভাযাত্রার শিল্প-কাঠামোগুলোর মধ্যে ছিল ময়ূর, হাতি, গন্ধগোকুল, টেপা পুতুল, মাছ, রাজা-রানির মুখোশ। শোভাযাত্রায় আরও ছিল মা ও শিশু এবং বাঘের মুখোশ।

শোভাযাত্রার উদ্বোধন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এ এস এম মাকসুদ কামাল। শোভাযাত্রায় সমাজকল্যাণমন্ত্রী দীপু মনি, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম, প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা ও সাংস্কৃতিকবিষয়ক উপদেষ্টা কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ সব শ্রেণি-পেশার মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশ নেন।

ঢাক-ঢোলের বাদ্যের তালে তালে তরুণ-তরুণীদের নৃত্য, হৈ-হুল্লোড় আর আনন্দ-উল্লাস মাতিয়ে রেখেছিল পুরো শোভাযাত্রা। শোভাযাত্রা উপলক্ষে সকাল থেকেই টিএসসি, দোয়েল চত্বর, শাহবাগ ও এর আশপাশের এলাকায় মানুষ জড়ো হতে থাকে। সকাল ৯টার মধ্যেই পুরো এলাকা লোকে লোকারণ্য হয়ে যায়। লাল-সাদা পোশাকে উচ্ছল নারীদের মাথায় শোভা পায় নানান রঙের ফুলের টায়রা। তরুণদের পরনে ছিল লাল-সাদা পাঞ্জাবি।

শোভাযাত্রা উপলক্ষে নিরাপত্তার চাদরে মোড়ানো ছিল পুরো এলাকা। শোভাযাত্রা ঘিরে ছিল কয়েক স্তরের নিরাপত্তা। পুলিশ, র‌্যাবের সঙ্গে ছিল সোয়াত সদস্যরা। সাদা পোশাকে গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরাও তৎপর ছিলেন। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীগুলোকে ড্রোনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানস্থল পর্যবেক্ষণ করতে দেখা গেছে।

পথিমধ্যে কেউ মঙ্গল শোভাযাত্রায় অংশ নিতে পারেননি। কারণ, চতুর্দিকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের সমন্বয়ে মানবপ্রাচীর গঠন করা হয়। নিরাপত্তার জন্য বন্ধ রাখা হয় রমনা পার্ক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ আশপাশের এলাকা ও কেন্দ্রীয় রাস্তা।


আরও খবর