Logo
আজঃ বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম
নিলয় কোটা আন্দোলনকারীদের পক্ষ নিয়ে কী বললেন স্থগিত ১৮ জুলাইয়ের এইচএসসি পরীক্ষা দেশের সব স্কুল-কলেজ বন্ধ ঘোষণা তিতাসের অভিযানে নারায়ণগঞ্জের ২ শিল্প কারখানার অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন হিলি দিয়ে কাঁচা মরিচ আমদানি বাড়ায় বন্দরের পাইকারী বাজারে কেজিতে দাম কমেছে ৩০ টাকা জয়পুরহাটে ডাকাতির পর প্রতুল হত্যা মামলায় ৬ জনের যাবজ্জীবন রিয়েলমি সার্ভিস ডে: ফোন রিপেয়ারে খরচ বাঁচান ৬০% পর্যন্ত, উপভোগ করুন ফ্রি সার্ভিস সুনামগঞ্জে ইয়াবাসহ ২জন গ্রেফতার: কোটিপতি সোর্স ও গডফাদার অধরা কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে ৩ দিনে ৩ খুন, আইনশৃংখলার অবনতি জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ভারত-কানাডা সম্পর্কের অবিনতি, দুই দেশের কূটনীতিক বহিষ্কার

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ২১৬জন দেখেছেন

Image

খবর প্রতিদিন ২৪ডেস্ক :শিখ নেতা হরদীপ সিং নিজ্জরের হত্যাকাণ্ডকে কেন্দ্র করে ভারত ও কানাডার মধ্যে সম্পর্কের অবনতি হয়েছে। চলতি বছরের জুনে শিখ নেতা হত্যাকাণ্ডে ভারত জড়িত, এমন অভিযোগ এনে সে দেশের এক কূটনীতিককে সোমবার বহিষ্কার করেছে কানাডা। পাল্টা ভারতও বহিষ্কার করেছে দিল্লিতে নিযুক্ত কানাডার এক কূটনীতিককে।

মঙ্গলবার (১৯ সেপ্টেম্বর) ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য দেওয়া হয়েছে। তবে জ্যেষ্ঠ কূটনীতিকের নাম প্রকাশ করা হয়নি। তাকে ভারত ছাড়ার জন্য পাঁচ দিন সময় দেওয়া হয়েছে।

সোমবার কানাডার পার্লামেন্টে ট্রুডো অভিযোগ করেন, হরদীপ সিংকে খুনের পেছনে ভারতের হাত থাকার নির্দিষ্ট প্রমাণ তার সরকারের কাছে রয়েছে। তাদের কাছে সেই প্রমাণ যথেষ্ট বিশ্বাসযোগ্যও। ট্রুডো বলেছেন, দেশের অভ্যন্তরে কানাডার এক নাগরিককে এভাবে হত্যা করা, বিদেশিদের এমন প্রত্যক্ষ যোগসাজশ কানাডার সার্বভৌমত্ব লঙ্ঘন করেছে।

ওই অভিযোগের পরই কানাডায় অবস্থানরত এক ভারতীয় কূটনীতিককে বহিষ্কারের কথা জানান দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেলানিয়া জোলি। তবে কোন কর্মকর্তাকে বহিষ্কার করা হয়েছে, কানাডা তা জানায়নি। তবে মেলানিয়া জোলি এটুকু বলেন, যাকে বহিষ্কার করা হয়েছে, তিনি ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা ‘রিসার্চ অ্যান্ড অ্যানালিটিক্যাল উইং’-এর (র) প্রধান ছিলেন।

অন্যদিকে কানাডার সব অভিযোগ অস্বীকার করে বিবৃতি দিয়েছে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, কানাডার প্রধানমন্ত্রী সে দেশের পার্লামেন্টে যা বলেছেন, তা ‘অবাস্তব ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত’। শুধু প্রতিবাদই নয়, ভারতে নিযুক্ত কানাডার হাইকমিশনার ক্যামেরুন ম্যাককে তলব করে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। তাকে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রীর অভিযোগ শুধু অসত্যই নয়, দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের ক্ষেত্রেও ক্ষতিকর। সে দেশের এক শীর্ষ কূটনীতিককে বহিষ্কার করার সিদ্ধান্তের কথাও হাইকমিশনারকে জানিয়ে দেওয়া হয়।

পরে ভারতের মন্ত্রণালয় বিবৃতি দিয়ে জানায়, সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাকে পাঁচ দিনের মধ্যে ভারত ছেড়ে চলে যেতে বলা হয়েছে। ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে কানাডার কূটনীতিকের অযথা হস্তক্ষেপ উদ্বেগজনক। তাদের ভারত বিরোধিতা বরদাশত করা যায় না।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়, ভারত একটি গণতান্ত্রিক দেশ। এই দেশে আইনের শাসন আছে। এই ধরনের অপ্রমাণিত অভিযোগের মূল লক্ষ্য খালিস্তানি চরমপন্থী ও সন্ত্রাসবাদীদের দিক থেকে চোখ ফেরানো। এই জঙ্গিদের কানাডা আশ্রয় দিয়েছে। তারা ভারতের সার্বভৌমত্ব ও অখণ্ডতাকে হুমকির মুখে ফেলেছে। অথচ কানাডা সরকার নিষ্ক্রিয়। বিষয়টি যথেষ্ট উদ্বেগের।

হরদীপ সিং নিজ্জর কানাডায় বসবাসকারী শিখ নেতা। গত জুনে তিনি ভ্যাঙ্কুভারে এক গুরুদ্বারের কাছে আততায়ীর গুলিতে নিহত হন। তিনি ভারতের পাঞ্জাবের জলন্ধর থেকে সে দেশে গিয়েছিলেন ১৯৭৭ সালে। ভারতের অভিযোগ, হরদীপ সিং ছিলেন সশস্ত্র বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন ‘খালিস্তানি টাইগার ফোর্স’ ও ভারতে নিষিদ্ধ ‘শিখস ফর জাস্টিস’-এর কানাডা শাখার নেতা। ভারতের চোখে তিনি অপরাধী ও ‘ফেরার’। তাকে দেশে ফেরত আনতে আগ্রহী ছিল ভারত।

হরদীপ সিং বরাবর স্বাধীন শিখ রাষ্ট্র খালিস্তান প্রতিষ্ঠার পক্ষে ছিলেন। ভারতের অভিযোগ, সেই লক্ষ্যে তিনি ভারতে বেশ কয়েকটি সন্ত্রাসবাদী হামলাও চালিয়েছেন। যদিও হরদীপ সেই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।


আরও খবর



মুক্তিযোদ্ধার নাতি-নাতনিরা পাবে না তো রাজাকারের নাতিরা পাবে?

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ৮০জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রশ্ন তুলেছেন,সরকারি চাকরিতে বীর মুক্তিযোদ্ধার নাতি-নাতনিরা কোটা সুবিধা পাবে না, তাহলে কি রাজাকারের নাতি-নাতনিরা কোটা সুবিধা পাবে?।

রোববার (১৪ জুলাই) বিকেলে চীন সফর নিয়ে গণভবনে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধ ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বিরুদ্ধে এত ক্ষোভ কেন? মুক্তিযোদ্ধার নাতি-নাতনিরা কোটা পাবে না, তাহলে কি রাজাকারের নাতিরা কোটা পাবে? তা তো আমরা দিতে পারি না।

সরকারপ্রধান বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বিরুদ্ধে কথা বলার অধিকার তাদের কে দিয়েছে? তারা দেশ স্বাধীন করার জন্য জীবনপণ লড়েছেন। তাদের বিরুদ্ধে কথা বলার সাহস পায় কীভাবে? মুক্তিযুদ্ধ তাদের এখন ভালো লাগে না।

এর আগে এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী জানান, ২০১৮ সালে আন্দোলন ও সহিংসতার ঘটনায় বিরক্ত হয়ে তিনি কোটা বাতিল করেছিলেন।

তিনি বলেন, একবার তারা এ ধরনের আন্দোলন করেছিল। আন্দোলন তো না সহিংসতা। ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ করেছিল। তখন আমি বিরক্ত হয়ে বলেছিলাম সব কোটা বাদ দিয়ে দিলাম। তখনই বলেছিলাম যে কোটা বাদ দিলে দেখেন কী অবস্থা হয়। এখন দেখেন কী অবস্থা তৈরি হয়েছে?

-খবর প্রতিদিন/ সি.


আরও খবর



পোরশায় পুনর্ভবা নদী থেকে অজ্ঞাত ব্যক্তির ভাসমান লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত:শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ৪১জন দেখেছেন

Image

ডিএম রাশেদ,পোরশা (নওগাঁ) প্রতিনিধি:নওগাঁর পোরশা সীমান্তের পুনর্ভবা নদী থেকে এক অজ্ঞাত ব্যক্তির ভাসমান লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। শুক্রবার সন্ধায় নদীর টেকঠা ঘাট নামক এলাকা থেকে ঐ লাশ উদ্ধার করে পোরশা থানা পুলিশ।

জানা গেছে, শুক্রবার সন্ধার আগে স্থানীয়রা নদীতে ভাসমান অবস্থায় এক ব্যক্তির লাশ দেখতে পেয়ে থানায় খবর দিলে সন্ধায় থানা পুলিশ এসে লাশটি উদ্ধার করেন।

আনুমানিক ৪০ বছর বয়সের ওই ব্যক্তির শরীরে কাল চেক শার্ট ও কাল প্যান্ট পরা ছিলেন। 

পোরশা থানার অফিসার ইনচার্জ আতিয়ার রহমান জানান, উদ্ধার করা অজ্ঞাত ঐ ব্যক্তির পরিচয় পাওয়া যায়নি। লাশটি মর্গে প্রেরন করা হয়েছে বলেও তিনি জানান।

-খবর প্রতিদিন/ সি.

আরও খবর



পরিবেশবান্ধব ডেলিভারি জোরদারে আরএফএল’র সাথে ফুডপ্যান্ডার চুক্তি

প্রকাশিত:সোমবার ০১ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৪৭জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:পরিবেশবান্ধব ডেলিভারি ও রাইডারদের সার্বিক কল্যাণ নিশ্চিতের লক্ষ্যে সম্প্রতি আরএফএল গ্রুপের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান দুরন্ত বাইসাইকেলের সাথে একটি চুক্তি সই করেছে দেশের শীর্ষস্থানীয় অনলাইন ফুড ও গ্রোসারি ডেলিভারি প্ল্যাটফর্ম ফুডপ্যান্ডা। এ চুক্তির ফলে দুরন্ত বাইসাইকেল কিনলে ১৫ শতাংশ ছাড় পাবেন ফুডপ্যান্ডার রাইডাররা।

রাজধানীর গুলশানে ফুডপ্যান্ডার প্রধান কার্যালয়ে এ চুক্তি স্বাক্ষর হয়। ফুডপ্যান্ডার ফাইন্যান্স ডিরেক্টর জামাল ইউসুফ জুবেরি এবং দুরন্ত’র (আরএফএল গ্রুপ) করপোরেট সেলসের জেনারেল ম্যানেজার মো. তৌহিদুল ইসলাম ভূইয়া নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে এ চুক্তি স্বাক্ষর করেন। এ সময় উভয় প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

এ চুক্তি প্রসঙ্গে ফুডপ্যান্ডা বাংলাদেশের ফাইন্যান্স ডিরেক্টর জামাল ইউসুফ জুবেরি বলেন, “এখন ফুডপ্যান্ডার ৯০ শতাংশের বেশি রাইডার সাইকেল ও ই-বাইক এর মতো পরিবেশবান্ধব বাহন ব্যবহার করে গ্রাহকের দোরগোড়ায় খাবার ও গ্রোসারি পৌঁছে দেন। এ চুক্তির ফলে সারাদেশের রাইডার পার্টনাররা আরও সহজে ছাড়কৃত মূল্যে পরিবেশবান্ধব বাহন সাইকেল কেনার সুযোগ পাবেন।”ফুডপ্যান্ডার রাইডার পার্টনাররা রাইডারশপ ওয়েবসাইট থেকে নিজেদের পছন্দের মডেলের বাইসাইকেল কিনতে পারবেন। এরপর রাইডারদের ঠিকানায় বিনামূল্যে বাইসাইকেল পৌঁছে দেবে দুরন্ত।

উল্লেখ্য, জীবিকা নির্বাহের সুযোগ তৈরির পাশাপাশি স্বাস্থ্যসেবা সহায়তা, বিমা ও দক্ষতা উন্নয়নে অনলাইন শিক্ষার সুযোগ তৈরির মাধ্যমে রাইডারদের কল্যাণের জন্য নিবেদিতভাবে কাজ করে আসছে ফুডপ্যান্ডা৷


আরও খবর



বাংলাদেশ থেকে ট্যাক্সি ও মোটরসাইকেল চালক নেবে দুবাই

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১৩১জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:বাংলাদেশ থেকে চলতি বছর ১৩০০ ট্যাক্সি ও মোটরসাইকেল চালক নেবে সংযুক্ত আরব আমিরাত। এরমধ্যে ১ হাজার মোটরসাইকেল এবং ৩০০ ট্যাক্সি চালক। এছাড়া আগামী বছর থেকে নেওয়া হবে ২ হাজার করে।

বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ে দুবাই ট্যাক্সি করপোরেশনের পরিচালকের সঙ্গে বৈঠকের পর এ তথ্য জানান প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী শফিকুর রহমান চৌধুরী।

প্রতিমন্ত্রী জানান, এ বছর ১ হাজার ৩০০নেবে। এরমধ্যে এক হাজার মোটর সাইকেল চালক রয়েছে, প্রতি মাসে ২০০ করে এ পাঁচ মাসে। আর ৩০০ হলো ট্যাক্সি চালক যাবে। কমপক্ষে প্রতি বছর ২ হাজার করে মোটর সাইকেল ও ট্যাক্সি চালক যাবে। এ সংখ্যাটা আরও বাড়বে।

এসময় আমিরাতের রাষ্ট্রদূত আব্দুল্লাহ আলি আল হামুদি জানান, আমি এখানে দুবাইয়ের ট্যাক্সি কোম্পানিকে নিয়ে এসেছি। দুবাইয়ে বাংলাদেশি ট্যাক্সি চালকের চাহিদা রয়েছে। সম্প্রতি এ দুই সেক্টরে বাংলাদেশ থেকে ৫০০ লোকের কর্মসংস্থান হয়েছে। প্রতিদিন প্রায় শ’খানেক লোক নেওয়া হচ্ছে বাংলাদেশ থেকে।

তিনি আরও জানান, এ বছর প্রায় ১ হাজার ট্যাক্সি ও মোটর সাইকেল চালক নিয়োগ করা হবে। এ সংখ্যাটা সামনে বাড়বে। পরবর্তী বছরগুলোতে এই সংখ্যাটি ২ হাজারে উন্নীত করার পরিকল্পনা রয়েছে। গত বছর দুবাই ট্যাক্সি কোম্পানি বাংলাদেশ থেকে ২ হাজার ১০০ কর্মীর কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেছে। আমরা অন্যান্য সেক্টরে বাংলাদেশ থেকে কর্মী নিচ্ছি-নিরাপত্তা কর্মী, আতিথেয়তার জন্য কর্মী নিচ্ছি।

ট্যাক্সি ও মোটর সাইকেল চালকদের বেতন জানতে চাইলে আল হামুদি বলেন, এই কর্মীরা সংযুক্ত আরব আমিরাতের শ্রম আইন অনুযায়ী বেতন পাবেন। বাজারের চাহিদা এবং সরবরাহের উপর নির্ভর করবে কতদিন এ দুই খাতে কর্মী যাবে।

বৈঠকে দুবাই ট্যাক্সি কর্পোরেশনের পরিচালক নাসের মোহাম্মদ মুদাইফাসহ একটি প্রতিনিধিদল উপস্থি ছিলেন।


আরও খবর



পার্বত্য চট্টগ্রাম কমপ্লেক্স দেশের মানুষের কৃষ্টি সংস্কৃতির কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত করা হবে: পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ৬৪জন দেখেছেন

Image
জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী  কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি বলেছেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অপার সৌন্দর্যের লীলাভূমি পার্বত্য চট্টগ্রাম ও এ অঞ্চলের মানুষদের তাঁর ভালোবাসার উপহার স্বরূপ রাজধানীর বেইলি রোডে দৃষ্টিনন্দন পার্বত্য চট্টগ্রাম কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণ করে দিয়েছেন। পার্বত্য চট্টগ্রাম  কমপ্লেক্স ভবনটি পার্বত্য চট্টগ্রামবাসীদের জন্যই শুধু নয়, দেশের মানুষের কৃষ্টি সংস্কৃতির অন্যতম আকর্ষণের  কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত করা হবে বলে মন্তব্য করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী   জনাব কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি।

গতকাল রাজধানীর বেইলি রোডে শেখ হাসিনা পার্বত্য  চট্টগ্রাম ঐতিহ্য সংরক্ষণ ও গবেষণা কেন্দ্রের মাল্টিপারপাস হল রুমে পাহাড়ি ফল মেলা-২০২৪ এর সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি এসব কথা বলেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব তোফাজ্জল হোসেন মিয়া বলেন, আওয়ামীলীগ সরকার দেশের মানুষের কথা ভাবে, দেশের মানুষের শান্তির কথা ভাবে বলেই পার্বত্য অঞ্চলে দীর্ঘদিনের সাম্প্রদায়িক সংঘাত বন্ধ হয়েছে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে পার্বত্য চট্টগ্রামে শান্তি সম্প্রীতি ও উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকবে। আগামী ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে স্মার্ট বাংলাদেশে পরিণত করার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব  এ কে এম শামিমুল হক ছিদ্দিকী-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব   তোফাজ্জল হোসেন মিয়া। 
অন্যানের মাঝে পার্বত্য চট্টগ্রাম উপজাতীয় শরণার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্সের চেয়ারম্যান  সুদত্ত চাকমা, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান  সুপ্রদীপ চাকমা, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান  ক্য শৈ হ্লা, রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান  অংসুই প্রু চৌধুরী ও খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান  মংসুইপ্রু চৌধুরী অপু উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে পার্বত্য চট্রগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের  প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি বলেন,  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা  তাঁর অসাধারণ প্রজ্ঞা ও মেধা দিয়ে দেশ পরিচালনা করে যাচ্ছেন। তিনি আরো বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামের যেসব জায়গা একসময় অন্ধকারে নিমজ্জিত ছিল, সে জায়গাগুলোকে তিনি উন্নয়নের আলোয় ভরিয়ে দিয়েছেন জানিয়ে তিনি আরো বলেন, রাজধানীতে পাহাড়ি ফল মেলা পার্বত্য অঞ্চলের সাথে সমতলের মানুষের মধ্যে একটি সুন্দর যোগাযোগের ক্ষেত্র তৈরি করেছে। প্রতিমন্ত্রী বলেন,  আমাদের সকল সংস্কৃতির মধ্যে ঐক্যের বন্ধন গড়ে তুলতে চাই। দেশের সকল সংস্কৃতির মাঝে যদি আমরা ঐক্যের বন্ধন সৃষ্টি করতে পারি তাহলে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে তোলা সম্ভব হবে বলে মন্তব্য করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী  কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি।

-খবর প্রতিদিন/ সি.


আরও খবর