Logo
আজঃ রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম
মুক্তিযোদ্ধার নাতি-নাতনিরা পাবে না তো রাজাকারের নাতিরা পাবে? কর্মীদের দক্ষ করে বিদেশে পাঠাতে হবে : প্রতিমন্ত্রী বাংলাদেশকে কত বিলিয়ন অনুদান-ঋণ দেবে চীন, জানালেন প্রধানমন্ত্রী নাসিরনগরে খুনের মামলার বাদীর এখন দিন কাটছে আতংকে মধুপুরে ক্লিনিং স্যাটারডে কার্যক্রম অনুষ্ঠিত এবার কোটা আন্দোলনের পক্ষে কথা বললেন আয়মান সাদিক ভারতে পাচার হওয়া ৫ বাংলাদেশি সাজাভোগ শেষে দেশে ফিরেছে শিক্ষার্থীরাই হবে আগামী বাংলাদেশের কর্ণধার: ধর্মমন্ত্রী দেশের অর্থনীতি এখন যথেষ্ট শক্তিশালী: প্রধানমন্ত্রী বীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পরিদর্শন করলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডাঃ সামন্ত লাল সেন

ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করলেন সাময়িক বরখাস্তকৃত মাদরাসা শিক্ষক হারুন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৮ জুন ২০২৩ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | ৫৭৩জন দেখেছেন

Image

এম এম হারুন আল রশীদ হীরা নওগাঁ:ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করলেন নওগাঁর রাণীনগরের আল আমিন দাখিল মাদরাসার শরীর চর্চা বিষয়ক শিক্ষক হারুন অর রশিদ (৫০)। সম্প্রতি বিভিন্ন অনিয়মের মিথ্যা অভিযোগে মাদরাসা সুপার সাময়িক ভাবে তাকে বরখাস্ত করেন । তিনি উপজেলার দক্ষিণ রাজাপুর গ্রামের আজাহার আলী শেখের ছেলে। এ ঘটনায় মৃত ভিকটিমের পরিবার ও এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।  


বৃহস্পতিবার সকালে সান্তাহার রেলওয়ে থানার ছাতিয়ানগ্রাম রেলওয়ে স্টেশনের দক্ষিণে কলাবাড়িয়া নামক স্থানে চিলাহাটি হতে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী নতুন ডাউন চিলাহাটি এক্সপ্রেস ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দেন তিনি।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত ৩১ মে তারিখে তার বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীকে যৌন হয়রানিসহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ তুলে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে প্রতিষ্ঠান প্রধান। এরপর থেকেই তিনি মানসিক ভাবে হতাশাগ্রস্থ ছিলেন। আজ সকালে তিনি কোলাবাড়িয়া নামক স্থানে একটি চা-স্টলে পানি পান করছিলেন। এসময় ট্রেন আসা মাত্রই হাতে থাকা পানির গ্লাস নিয়েই চলন্ত ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দেন। এতে ট্রেনে কাটা পড়ে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। হতাশার কারণেই তিনি আত্মহত্যা করেছেন বলে অনেকে ধারণা করছেন। এদিকে এই ট্রেনটি উদ্বোধনের আজ প্রথম দিনে বাণিজ্যিক ভাবে চিলাহাটি থেকে সান্তাহার স্টেশন হয়ে ঢাকায় চলাচল শুরু করেছে। 
                                                                   শিক্ষকের পরিবারের দাবি, তিনি ছিলেন একজন শান্ত স্বভাবের মানুষ।  কিন্তু মিথ্যা অভিযোগের ভিত্তিতে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করার এ অপমান সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যার পথ বেছে নিতে বাধ্য হয়েছেন। এ-র দায়ভার মাদরাসা কমিটি, সুপারিন্টেন্ডেন্ট সহ এ-র সাথে জড়িত সংশ্লিষ্টরা কেউ এড়াতে পারেন না। তারা এ-র সঠিক তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে আত্মহত্যা প্ররোচনার অভিযোগ করে বিচার দাবি করেছেন। 
                                                                    সান্তাহার রেলওয়ে থানার ওসি মোক্তার হোসেন বলেন, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে নিহতের লাশ  উদ্ধার করে নওগাঁ সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো  হয়েছে। তার মৃত্যুর কারণ জানা যায়নি। ময়না তদন্ত প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু (ইউডি) মামলা দায়ের করা হয়েছে। আইনি প্রক্রিয়া শেষে লাশ পরিবারের কাছে  হস্তান্তর করা হবে বলেও জানান তিনি।


আরও খবর



নবীনগরে ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাকুট উচ্চ বিদ্যালয়ের শতবর্ষ পূর্তি উদযাপন

প্রকাশিত:রবিবার ২৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | ১০৪জন দেখেছেন

Image

মোহাম্মাদ হেদায়েতুল্লাহ্ নবীনগর ব্রাহ্মণবাড়ীয়া প্রতিনিধিঃব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগর উপজেলার ঐতিহ্যবাহী বিদ‍্যাপিট, বিদ‍্যাকুট অমর বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠার শতবর্ষ পূর্তি উৎসব উদযাপন উপলক্ষে আলোচনা সভা ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা অনুষ্ঠিত হয়েছে।শনিবার দিনব্যাপী অত্র বিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি , শিক্ষকমন্ডলী ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের এক যৌথ উদ্দ্যোগে,বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে, জেলা ও উপজেলার গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গগণের উপস্থিথিতে মনোমুগ্ধকর।

`মনোরম পরিবেশে, বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠার শতবর্ষ পূর্তি উদযাপন উপলক্ষে আলোচনা সভাও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা অনুষ্ঠিত হয়েছে।সকাল থেকে রাত পর্যন্ত নবীন- প্রবীণ ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের পদচারণে মুখরিত ছিল অত্র বিদ্যালয়ের প্রাঙ্গণ।অনুষ্ঠানে  প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য ফয়জুর রহমান বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে শতবর্ষ স্মৃতি স্তম্ভের উদ্বোধন করেন।অনুষ্ঠানের পূর্বে, আমন্ত্রিত অতিথিদেরকে প্রথমে ফুলেল শুভেচ্ছা দিয়ে বরণ করে নেয়ার পড়ে সাদা কবুতর উড়িয়ে শান্তির কামনায় অনুষ্ঠান টি সূচনা করেন।

অনুষ্ঠান চলাকালে অত্র বিদ্যালয়ের বর্তমান শিক্ষার্থীরা, প্রাক্তন সকল শিক্ষার্থীদের হাতে  রজনীগন্ধা স্টিক দিয়ে বরণ করে নেয়।উক্ত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অত্র বিদ‍্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মোহাম্মদ আবদুল আউয়ালের সভাপতিত্বে ও আব্দুল মতিন শিপনের সঞ্চালনায় এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ (নবীনগর)আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ফয়জুর রহমান বাদল।

এছাড়াও বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন নবীনগরের কৃতি সন্তান ট্যুরিস্ট পুলিশের সিলেট জোনের পুলিশ সুপার বিল্লাহ হোসেন,ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সোনাহর আলী, নবীনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জহিরউদ্দিন চৌধুরী শাহন, উপজেলা সাবেক চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউল হক সরকার, বিদ্যাকুট ইউনিয়ন পরিষদ এর চেয়ারম্যান জাকারুল হক,শিবপুর সুর সম্রাট আলাউদ্দিনের ডিগ্রী  কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ  সিরাজুল ইসলাম।

অত্র বিদ্যালয়ের সাবেক সভাপতি শফিকুর রহমান,  অত্র বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আসাদুজ্জামান সরকার, ডা. মাহবুবুর রহমান - সহ শতবর্ষ উদযাপন কমিটির সকল নেতৃবৃন্দ সহ বিভিন্ন শ্রেণীপেশার অসংখ্য অগণিত গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।আলোচনা সভা ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক সন্ধ্যায় শতবর্ষ উৎসবে চিরকুট, কনসার্ট চলে মধ্যরাত পর্যন্ত।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



বাংলাদেশের বিদায় বিশ্বকাপ থেকে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৫ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | ১৬৪জন দেখেছেন

Image

স্পোর্টস ডেস্ক:সেমিতে যেতে হলে আফগানিস্তানের দেওয়া ১১৬ রানের লক্ষ্য বাংলাদেশকে  ১২.১ ওভারের মধ্যে তাড়া করতে হতো। নাজমুল হোসেন শান্তর দল সেটা তো দূরের কথা ম্যাচই জিততে পারেনি ।  আফগানিস্তান ৮ রানের জয়ে সেমি ফাইনাল নিশ্চিত করলো। এর ফলে সুপার এইট থেকে বিদায় নিলো বাংলাদেশ ও অস্ট্রেলিয়া।

মঙ্গলবার (২৫ জুন) ওয়েস্ট ইন্ডিজের কিংস্টনে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার এইটের শেষ ম্যাচে টস জিতে আগে ব্যাট করে ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১১৫ রান করে আফগানিস্তান।

আফগানরা ১ উইকেট ৮০ রান করে ভালো পজিশনেই ছিল। এরপর রিশাদ হোসেনের লেগ স্পিন আর মোস্তাফিজুর রহমান ও তাসকিন আহমেদের গতির মুখে পরে মাত্র ১২ বলে ৯ রান তুলতেই আফগানরা হারায় ৪ উইকেট। টপাটপ উইকেট পতনের কারণে শেষ পর্যন্ত ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১১৫ রানের বেশি করতে পারেনি আফগানরা।

আফগানিস্তানের হয়ে ৫৫ বলে তিন চার আর এক ছক্কায় সর্বোচ্চ ৪৩ রান করেন ওপেনার রহমানউল্লাহ গুরবাজ। ইনিংসের একিবারে শেষ দিকে ব্যাটিংয়ে নেমে মাত্র ১০ বলে তিন ছক্কায় ১৯ রান করে অপরাজিত থাকেন রশিদ খান। এছাড়া ২৯ বলে ১৮ রান করেন ওপেনার ইব্রাহিম জাদরান।

৪ ওভারে ২৬ রানে ৩ উইকেট নেন বাংলাদেশ দলের হয়ে  লেগ স্পিনার রিশাদ হোসেন। একটি করে উইকেট নেন তাসকিন ও মোস্তাফিজ।

বাংলাদেশে ব্যাটিংয়ে নেমে নাজমুল হাসান শান্ত ৫ বলে ৫, সৌম্য সরকার ১০ বলে ১০ ও রানের খাতা খোলার আগেই আউট হন সাকিব আল হাসান। তবে একপ্রান্ত আগলে রেখে ব্যাট করতে থাকেন লিটন দাস। তবে লিটনকে সঙ্গ দিতে ব্যর্থ হন অন্য ব্যাটাররা। দ্রুতই আরও তিন উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকে বাংলাদেশ। তবে একপ্রান্ত আগলে ৪১ বলে ফিফটি তুলে নেন লিটন।

লিটন একপ্রান্ত আগলে রাখলেও অন্যপ্রান্তের তাসকিন আহমেদ ও মোস্তাফিজুর রহমানকে আউট করে আফগানদের জয় নিশ্চিত করেন নাভিন উল হক। ১৭ ওভার ৫ বলে ১০৫ রানে অলআউট হয় বাংলাদেশ। ৪৯ বলে ৫৪ রানে অপরাজিত থাকেন লিটন। আফগানদের পক্ষে নাভিন ও রশিদ খান নেন ৪টি করে উইকেট।


আরও খবর



বগুড়ায় জোড়া হত্যা মামলায়: কবির আহম্মেদ মিঠুসহ চারজনের চার দিনের রিমান্ড

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৫ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | ১৫০জন দেখেছেন

Image

লতিফ বগুড়া:রিমান্ডপ্রাপ্তরা হলেন- সৈয়দ কবির আহমেদ মিঠু (৫০), নিশিন্দারা খাঁপাড়া এলাকার আব্দুল গফুরের ছেলে শেখ রভ (২৬), একই এলাকার পুর্বপড়ার মৃত আব্দুল কুদ্দুসের ছেলে নাঈম হোসেন (২৮) ও সুলতানগঞ্জ আলী সোনার লেনের ইসমাঈল হোসেনের ছেলে আজবিন রিফাত (১৯)।

সোমবার দুপুরে বগুড়া অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক সুপান্ত সাহা এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন। 

এর আগে, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করেছিলেন।

জানা যায়, ঈদের রাতে (১৭ জুন) পূর্ব পরিকল্পনা মতে শহরের নিশিন্দারা এলাকায় পরিচিত জনকে দিয়ে ফোন করে শেখ শরিফ ও রোম্মানকে বাড়ি থেকে ডেকে আনে। এরপর দুইজনকে সামান্য দূরত্বে দুই স্থানে গুলি ও কুপিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করে পালিয়ে যায় অভিযুক্তরা। এ ঘটনায় হোসেন শেখ নামে আরেক যুবক গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত অবস্থায় শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ওই সময় ঘটনাস্থল থেকে তিন রাউন্ড গুলির খোসা উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ঘটনায় জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ কবির আহমেদ মিঠু, তার ছোট ভাই আওয়ামী লীগ নেতা সার্জিল আহমেদ টিপু, তৃতীয় বর্তমান কাউন্সিলর ও স্বেচ্ছাসেবক দলের বগুড়া শাখার সাবেক সভাপতি শাহ মেহেদী হাসান হিমু ও তাদের সহযোগী ১৩ জনের নামে ১৪-১৫ জন অজ্ঞাত আসামি করে সদর থানায় জোড়া হত্যা মামলা করেন নিহত শরিফের মা হেনা বেগম।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সদর থানার পরিদর্শক জানান, শরিফ ও রোম্মান হত্যার প্রধান আসামিসহ গ্রেফতারকৃত চারজনের বিরুদ্ধে সাত দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করা হয়েছিল। সোমবার আবেদন শুনানি শেষে চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। জোড়া হত্যা মামলার অন্য আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।


আরও খবর



ফুলবাড়ীতে খ্রীষ্টিয়ান এসোসিয়েশনের মানববন্ধন ও সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশিত:রবিবার ৩০ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | ১১৪জন দেখেছেন

Image

ফুলবাড়ী, দিনাজপুর প্রতিনিধি:দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে সংবাদ সম্মেলনের নামে খ্রীষ্টিয়ান ধর্মাবলম্বীর সাঁওতালদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত ও অপপ্রচারের প্রতিবাদে বাংলাদেশ খ্রীষ্টিয়ান এসোসিয়েশনের উদ্যোগে মানববন্ধন কর্মসূচি পালনসহ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

শনিবার সকাল ১০ টায় উপজেলা পরিষদ রোডস্থ ফুলবাড়ী প্রেসক্লাবের সম্মুখে ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন খ্রীষ্টিয়ান ধর্মাবলম্বীর বিভিন্ন বয়সী সাঁওতাল নারী-পুরুষ। 

মানবন্ধন কর্মসূচি চলাকালে বক্তব্য রাখেন উপজেলা শাখা বাংলাদেশ খ্রীষ্টিয়ান এসোসিয়েশনের সভাপতি সভাপতি সলোমন মারন্ডী, সাধারণ সম্পাদক সোম কিস্কু, সহ-সাধারণ সম্পাদক যহন টুডুু, সদস্য জুসিপিনা মার্ডী, ফ্রান্সিলিয়া মুর্মু, উপদেষ্টা ফাদার জসিম মুর্মু, কমল কিস্কু, রিন্টু সরেন, কমল হেম্বম প্রমুখ।

মানববন্ধন শেষে বেলা ১১ টায় প্রেসক্লাব সভাকক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে খ্রীষ্টিয়ান ধর্মাবলম্বীর সাঁওতালদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত ও অপপ্রচারের প্রতিবাদে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন কমল কিস্কু। এসময় অর্ধশত সাঁওতাল নারী পুরুষসহ গণমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। 

লিখিত বক্তব্যে কমল কিস্কু বলেন, গত ৭ জুন সারি ধর্ম সংগঠনের ফুলবাড়ী প্রেসক্লাব সভাকক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনের নামে খ্রীষ্টিয়ান সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে যে অপপ্রচার করা হয়েছে তার বিরুদ্ধে খ্রীষ্টিয়ান সম্প্রদায় ও খ্রীষ্টিয়ান এসোসিয়েশন প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাচ্ছে। সে সংবাদ সম্মেলনে পাঠকৃত বক্তব্য সাঁওতালদের নিয়ে মিথ্যা, বানোয়াট ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মনগড়া কাল্পনিক ঘটনার কথা। শুধুমাত্র সাঁওতাদেরকে সামাজিকভাবে বিভ্রান্তি সৃষ্টি ও হেয়প্রতিপন্ন করার উদ্দ্যেশে করা হয়েছে সংবাদ সম্মেলনটি। সেখানে বলা হয়েছিল, ‘সাঁওতাল জাতি যদি খ্রীষ্টিয়ান ধর্ম পালন বা গ্রহণ করে তাহলে তাদের জাতীয়তা বিলুপ্ত হয়ে যায় এবং তারা সাঁওতালদের কোনপ্রকার সংস্কৃতি, কৃষ্টিসহ কিছু পালন করতে পারবে না। যারা সাঁওতাল থেকে খ্রীষ্টিয়ান হয়েছে তারা খ্রীষ্টিয়ান জাতিতে রুপান্তর হয়ে যায়।’ আমরা দৃঢ়ভাবে এই যুক্তির প্রতিবাদ জানাচ্ছি যে, সাঁওতাল জাতি খ্রীষ্টিয়ান হলেও; তারা কোনভাবে কোন জাতিতে রূপান্তির হয়না। কারণ খ্রীষ্টিয়ান কোন জাতি নয়, এটি একটি ধর্ম। তাদের বিশ্বাস বা ধর্মের কর্মকা- শুধু পরিবর্তন হয়। তারা বলেছেন, ‘সাঁওতালদের ধর্মের নাম হচ্ছে সারি ধর্ম।’ কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের সাথে বলতে হচ্ছে যে, বাংলাদেশ সরকারের ধর্ম মন্ত্রণালয়ের রেকর্ডে এমন ধর্মের কোন উল্লেখ নেই। প্রাচীনকালে সাঁওতালদের নিজস্ব কোন ধর্ম গ্রন্থ ছিলনা। সাঁওতাল জাতি খ্রীষ্টিয়ান হওয়ার পূর্বে যুগ যুগ ধরে সাঁওতাল সম্প্রদায় প্রকৃতি পূজারী, অন্যদের ধর্ম অনুসরণ করে মূর্তিপূজা, মারাংবুরু, চাঁন্দু বংঙ্গাতে বিশ্বাসী হিসাবে ধর্ম-কর্ম পালন করে আসছেন। কিন্তু সারি ধর্ম বলে কোন ধর্ম ছিলো না।

তিনি বলেন, স্বাধীনতার ৫৪ বছর পর এই ধর্মের আর্বিভাব কোথায় থেকে? পূর্বে যেকোন ধর্ম পালন করুক না কেন, খ্রীষ্টিয়ান হওয়ার পর শুধু সেই ধর্মের কর্মকা-ের পরিবর্তন হয়। যারা আজকে প্রতিবাদ করছে, তারা অবশ্যই কোন না কোন মূর্তি পূজা করছে। তাহলে তাদেরকে কেন হিন্দু জাতিতে রূপান্তরিত করা হচ্ছে না? তাদেরকে কেন হিন্দু সম্প্রদায় স্বীকৃতি দিচ্ছে না? যদি কোন সাঁওতাল সারি ধর্ম পালন করে তাদের যুক্তি অনুযায়ী তারা আর সাঁওতাল জাতি হিসাবে দাবি করতে পারে না। তারা সারি জাতিতে পরিণত হয়। যারা খ্রীষ্টিয়ান ধর্ম নিয়ে সংবাদ সংম্মেলন করছে, তারা পূর্বে কি ধর্ম পালন করতো আমরা জানতে চাই? খ্রীষ্টানদের বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ নিয়ে আসা হয়েছে তাতে উল্লেখ করা হয়েছে যে, খ্রীষ্টিয়ান মিশনারীরা বিভিন্নভাবে লোভ লালসা দিয়ে সাঁওতালদেরকে খ্রীষ্টিয়ান করছে। এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা ভিত্তিহীন, বানোয়াট ও সাম্প্রদায়িক ধর্ম অনুভূতিতে আঘাতও বটে।

তিনি আরো বলেন, খ্রীষ্টিয়ান মিশনারী ফাদার, পালক, পুরোহিত ও প্রচারকদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রের কাছে অভিযোগ করা হয়েছে যে, তাদের বিরুদ্ধে যেন রাষ্ট্র ব্যবস্থাগ্রহণ করে। স্বাধীনতার পর যখন দেশ ধ্বংশের দ্বারপ্রান্তে তখন অনেক মিশনারীরা বিভিন্নভাবে জাতিকে, সরকারকে এবং পিছিয়ে পড়া জাতিকে সাহায্য ও সহযোগীতা করছে। তাদের সে সংবাদ সম্মেলন পুরোপুরিভাবে সাঁওতাল জাতির মধ্যে দাঙ্গা লাগানোর প্রচেষ্টা। 

তথাকথিত সারি ধর্ম সংগঠনের কার্যক্রম পর্যালোচনা পূর্বক বিভেদ সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে প্রশাষনিক ব্যবস্থা নিয়ে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্টি (সাঁওতাল) সম্প্রদায়ের জীবনমান রক্ষার্থে প্রশাসনের দৃষ্টি কামনা করেন তিনি। 


আরও খবর



মিয়ানমার সীমান্ত কঠোর নজরদারিতে রয়েছে: ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিত:রবিবার ১৬ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | ১৬৬জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের,বলেছেন মিয়ানমার সীমান্তে কঠোর নজরদারি করছে সরকার।

রোববার (১৬ জুন) রাজধানীর ধানমন্ডিতে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

সেতুমন্ত্রী বলেন, বিএনপি যে ব্যর্থ দল, তা তাদের কমিটি বিলুপ্ত করে নতুন কমিটি দেওয়ার মধ্যদিয়ে প্রমাণ হয়। যারা মাঠে ছিলেন, তাদের মূল্যায়ন করা হয় না বিএনপিতে। কারণ দলটির মধ্যে গণতন্ত্র নেই।

ওবায়দুল কাদের বলেন, কাউন্সিল ছাড়া দলীয় কাঠামোতে পরিবর্তন হয় না আওয়ামী লীগে। অথচ বিএনপিতে লন্ডনে বসে রিমোট কন্ট্রোলের মাধ্যমে কমিটি হয়।

তিনি বলেন, সেন্টমার্টিন পরিস্থিতি নিয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বক্তব্য দায়িত্বজ্ঞানহীন। এ পরিস্থিতি সম্পর্কে কোনো ধারণা নেই ফখরুলের।

কাদের বলেন, কয়েক দিন আগে মিয়ানমার সীমান্তরক্ষী বাহিনীর সদস্যরা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছিলেন। পরে তাদেরকে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে। এখন সেন্টমার্টিনে আমাদের খাদ্যবাহী জাহাজ নিয়মিত যাতায়াত করছে। আলোচনার মাধ্যমে আমরা সমস্যার সমাধান চাই।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপির প্ররোচনা দেওয়ার তো কোনো দরকার নেই। গায়ে পড়ে মিয়ানমারের সঙ্গে যুদ্ধ বাধানোর কোনো প্রয়োজন নেই বাংলাদেশের। সেন্টমার্টিন দখল হচ্ছে  এসব তথ্য সঠিক নয়; এসব গুজব ছড়ানো হচ্ছে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন- দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম, সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন, সুজিত রায় নন্দী, দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, উপ-দপ্তর সম্পাদক সায়েম খানসহ কেন্দ্রীয় নেতারা।


আরও খবর