Logo
আজঃ Wednesday ১০ August ২০২২
শিরোনাম
নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে ২৪৩৫ লিটার চোরাই জ্বালানি তেলসহ আটক-২ নাসিরনগরে বঙ্গ মাতার জন্ম বার্ষিকি পালিত রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড

সুকুমার রায়ের মজার গল্প: দানের হিসাব

প্রকাশিত:Monday ০৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১০ August ২০২২ | ৮৭জন দেখেছেন
Image

এক ছিল রাজা। রাজা জাঁকজমকে পোশাক পরিচ্ছদে লাখ লাখ টাকা ব্যয় করেন, কিন্তু দানের বেলায় তার হাত খোলে না। রাজার সভায় হোমরা-চোমরা পাত্র-মিত্র সবাই আসে, কিন্তু গরিব-দুঃখী পণ্ডিত-সজ্জন এরা কেউ আসেন না। কারণ সেখানে গুণীর আদর নাই, একটি পয়সা ভিক্ষা পাবার আশা নাই।

রাজার রাজ্যে দুর্ভিক্ষ লাগল, পূর্ব সীমানার লোকেরা অনাহারে মরতে বসল। রাজার কাছে খবর এলো, রাজা বললেন, এ সমস্ত দৈবে ঘটায়, এর উপর আমার কোন হাত নেই। লোকেরা বলল, রাজভাণ্ডার থেকে সাহায্য করতে হুকুম হোক, আমরা দূর থেকে চাল কিনে এনে এ যাত্রা রক্ষা পেয়ে যাই। রাজা বললেন, আজ তোমাদের দুর্ভিক্ষ, কাল শুনব আর এক জায়গায় ভূমিকম্প, পরশু শুনব অমুক লোকেরা ভারি গরিব, ভুবেলা খেতে পায় না। সবাইকে সাহায্য করতে হলে রাজভাণ্ডার উজাড় করে রাজাকে ফতুর হতে হয়! শুনে সবাই নিরাশ হয়ে ফিরে গেল।

ওদিকে দুর্ভিক্ষ বেড়েই চলেছে। দলে দলে লোক অনাহারে মরতে শুরু করেছে। আবার দূত এসে রাজার কাছে হাজির। সে রাজসভায় হত্যা দিয়ে পড়ে বললো, দোহাই মহারাজ, আর বেশি কিছু চাই না, দশটি হাজার টাকা দিলে লোকগুলো আধপেটা খেয়ে বাঁচে।

রাজা বললেন, অত কষ্ট করে বেঁচেই বা লাভ কি? আর দশটি হাজার টাকা বুঝি বড় সহজ মনে করেছ? দূত বললো, দেবতার কৃপায় কত কোটি টাকা রাজভাণ্ডারে মজুত রয়েছে, যেন টাকার সমুদ্র! তার থেকে এক-আধ ঘটি তুললেই বা মহারাজের ক্ষতি কি? রাজা বললেন, দেদার টাকা থাকলেই কি দেদার খরচ করতে হবে? দূত বললো, প্রতিদিন আতরে, সুগন্ধে, পোশাকে, আমোদে, আর প্রাসাদের সাজসজ্জায় যে টাকা বেরিয়ে যায়, তারই খানিকটা পেলে লোকগুলো প্রাণে বাঁচে। শুনে রাজা রেগে বললেন, ভিখারি হয়ে আবার উপদেশ শোনাতে এসেছ? মানে সরে পড়। দূত বেগতিক দেখে সরে পড়ল।

রাজা হেসে বললেন, যত বড় মুখ নয় তত বড় কথা! দুশো পাঁচশো হত, তবু না হয় বুঝতাম; দারোয়ানগুলোর খোরাক থেকে দু চারদিন কিছু কেটে রাখলেই টাকাটা উঠে যেত। কিন্তু তাতে তো ওদের পেট ভরবে না, একেবারে দশ হাজার টাকা হেঁকে বসলো! ছোটলোকের একশেষ! শুনে পাত্রমিত্র সবাই মুখে হুঁ-হুঁ করলেও মনে মনে সবাই বললো, ছি, ছি কাজটা অতি খারাপ হলো!

দিন দুই বাদে কোথা থেকে এক বুড়ো সন্ন্যাসী এসে রাজসভায় হাজির। সন্ন্যাসী এসেই রাজাকে আশীর্বাদ করে বললেন, দাতাকর্ণ মহারাজ! ফকিরের ভিক্ষা পূর্ণ করতে হবে! রাজা বললেন, ভিক্ষার বহরটা আগে শুনি। কিছু কমসম করে বললে হয়তো বা পেতেও পারেন। সন্ন্যাসী বললেন, আমি ফকির মানুষ, আমার বেশি দিয়ে দরকার কি? আমি অতি যৎকিঞ্চিৎ সামান্য ভিক্ষা একটি মাস ধরে প্রতিদিন রাজভাণ্ডারে পেতে চাই। আমার ভিক্ষা নেবার নিয়ম এই, প্রথম দিন যা নিই, দ্বিতীয় দিন নিই তার দ্বিগুণ, তৃতীয় দিনে তারও দ্বিগুণ আবার চতুর্থ দিনে তৃতীয় দিনের দ্বিগুণ। এমনি করে প্রতিদিন দ্বিগুণ করে নিই, এই আমার ভিক্ষার রীতি।

রাজা বললেন, তা তো বেশ বুঝলাম। কিন্তু প্রথম দিন কত চান সেইটাই হলো আসল কথা। দু' চার টাকায় পেট ভরে তো ভালো কথা, নইলে একেবারে বিশ পঞ্চাশ হেঁকে বসলে সে যে অনেক টাকার মামলায় গিয়ে পড়তে হয়!

সন্ন্যাসী একগাল হেসে বললেন, মহারাজ, ফকিরের কি লোভ থাকে? আমি বিশ পঞ্চাশও চাইনে, দু' চার টাকাও চাইনে। আজ আমায় একটি পয়সা দিন, তারপর ঊনত্রিশ দিন দ্বিগুণ করে দেবার হুকুম দিন। শুনে রাজা মন্ত্রী পাত্রমিত্র সবাই প্রকাণ্ড দীর্ঘনিশ্বাস ফেলে হাঁপ ছেড়ে বাঁচল। তখন চটপট হুকুম হয়ে গেল, সন্ন্যাসী ঠাকুরের হিসাব মত রাজভাণ্ডার থেকে এক মাস তাকে ভিক্ষা দেওয়া হোক। সন্ন্যাসী ঠাকুর মহারাজের জয়-জয়কার করে বাড়ি ফিরলেন।

রাজার হুকুমমতো রাজ-ভাণ্ডারী প্রতিদিন হিসাব করে সন্ন্যাসীকে ভিক্ষা দেয়। এমনি করে দুদিন যায়, দশদিন যায়। দু' সপ্তাহ ভিক্ষা দেবার পর ভাণ্ডারী হিসাব করে দেখল ভিক্ষাতে অনেক টাকা বেরিয়ে যাচ্ছে। দেখে তার মন খুঁৎ খুঁৎ করতে লাগল। রাজামশাই তো কখনো এত টাকা দান করেন না! সে গিয়ে মন্ত্রীকে খবর দিল।

মন্ত্রী বললেন, তাইতো হে, এটা তো আগে খেয়াল হয় নি। তা এখন তো আর উপায় নেই, মহারাজের হুকুম নড়চড় হতে পারে না!

তারপর আবার কয়েকদিন গেল। ভাণ্ডারী আবার মহাব্যস্ত হয়ে মন্ত্রীর কাছে হিসাব শোনাতে চললো। হিসাব শুনে মন্ত্রীমশায়ের মুখের তালু শুকিয়ে গেল। তিনি ঘাম মুছে, মাথা চুলকিয়ে, দাড়ি হাতড়িয়ে বললেন, বল কি হে! এখন এত? তাহলে মাসের শেষে কত দাঁড়াবে?

ভাণ্ডারী বললো, আজ্ঞে তা তো হিসাব করা হয় নি! মন্ত্রী বললেন, দৌড়ে যাও, এখনি খাজাঞ্চিকে দিয়ে একটা পুরো হিসাব করিয়ে আন। ভাণ্ডারী হাঁপাতে হাঁপাতে ছুটে চললো; মন্ত্রীমশাই মাথায় বরফ জলের পট্টি দিয়ে ঘন ঘন হাওয়া খেতে লাগলেন।

আধঘণ্টা যেতে না যেতেই ভাণ্ডারী কাঁপতে কাঁপতে হিসাব নিয়ে এসে হাজির। মন্ত্রী বললেন, সবশুদ্ধ কত হয়? ভাণ্ডারী হাত জোড় করে বললো, আজ্ঞে এক কোটি সাতষট্টি লাখ সাতাত্তর হাজার দুশো পনের টাকা পনের আনা তিন পয়সা। মন্ত্রী চটে গিয়ে বললেন, তামাশা করছ নাকি? ভাণ্ডারী বললো, আজ্ঞে তামাশা করব কেন? আপনিই হিসাবটা দেখে নিন! এই বলে সে হিসাবের কাগজখানা মন্ত্রীর হাতে দিল। মন্ত্রীমশাই হিসাব পড়ে, চোখ উলটিয়ে মূর্ছা যান আর কি! সবাই ধরাধরি করে অনেক কষ্টে তাকে রাজার কাছে নিয়ে হাজির করল।

রাজা বললেন, ব্যাপার কি? মন্ত্রী বললেন, মহারাজ, রাজকোষের প্রায় দু' কোটি টাকা লোকসান হতে যাচ্ছে! রাজা বললেন, সে কি রকম? মন্ত্রী বললেন, মহারাজ, সন্ন্যাসী ঠাকুরকে যে ভিক্ষা দেবার হুকুম দিয়েছেন, এখন দেখছি তাতে ঠাকুর রাজভাণ্ডারের প্রায় দু কোটি টাকা বের করে নেবার ফিকির করেছে! রাজা বললেন, এত টাকা দেবার তো হুকুম হয় নি! তবে এ রকম বে-হুকুম কাজ করছে কেন? বোলাও ভাণ্ডারীকে। মন্ত্রী বললেন, আজ্ঞে, সমস্তই হুকুমমত হয়েছে! এই দেখুন না দানের হিসাব।

রাজামশাই একবার দেখলেন, দুবার দেখলেন, তারপর ধড়ফড় করে অজ্ঞান হয়ে পড়লেন! অনেক কষ্টে তার জ্ঞান হলে পর লোকজন ছুটে গিয়ে সন্ন্যাসী ঠাকুরকে ডেকে আনল। ১ম দিন ৫ এক পয়সা, ২য় দিন ১০, এভাবে ৩০ তম দিনে তা হলো ৮৩ লাখ ৮৮ হাজার ৬০৮ টাকা। মোট ১ কোটি ৬৭ লাখ ৭৭ হাজার ২১৫ টাকা ১৫ আনা ৩ পয়সা।

ঠাকুর আসতেই রাজামশাই কেঁদে তার পায়ে পড়লেন। বললেন, দোহাই ঠাকুর, আমায় ধনে-প্রাণে মারবেন না। যা হয় একটা রফা করে আমার কথা আমায় ফিরিয়ে নিতে দিন। সন্ন্যাসী ঠাকুর গম্ভীর হয়ে বললেন, রাজ্যের লোক দুর্ভিক্ষে মরে, তাদের জন্য পঞ্চাশ হাজার টাকা চাই। সেই টাকা নগদ হাতে হাতে পেলে আমার ভিক্ষা পূর্ণ হয়েছে মনে করব।

রাজা বললেন, সেদিন একজন এসেছিল, সে বলেছিল দশ হাজার টাকা হলেই চলবে! সন্ন্যাসী বললেন, আজ আমি বলছি পঞ্চাশ হাজারের এক পয়সা কম হলেও চলবে না! রাজা কাঁদলেন, মন্ত্রী কাঁদলেন, উজির-নাজির সবাই কাঁদল। চোখের জলে ঘর ভেসে গেল, কিন্তু ঠাকুরের কথা যেমন ছিল তেমনি রইল। শেষে অগত্যা রাজভাণ্ডার থেকে পঞ্চাশ হাজার টাকা গুণে ঠকুরের সঙ্গে দিয়ে রাজামশাই নিষ্কৃতি পেলেন।

দেশময় রটে গেল দুর্ভিক্ষে রাজকোষ থেকে পঞ্চাশ হাজার টাকা দান করা হয়েছে। সবাই বললে, ‘দাতাকর্ণ মহারাজ!’

লেখা: সংগৃহীত
ছবি: সংগৃহীত

প্রিয় পাঠক, আপনিও অংশ নিতে পারেন আমাদের এ আয়োজনে। আপনার মজার (রম্য) গল্পটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়। লেখা মনোনীত হলেই যে কোনো শুক্রবার প্রকাশিত হবে।


আরও খবর



বাংলাদেশের বিশ্বস্ত দ্বিপাক্ষিক উন্নয়ন সহযোগী জাপান: অর্থমন্ত্রী

প্রকাশিত:Tuesday ২৬ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ৪১জন দেখেছেন
Image

বাংলাদেশের সঙ্গে জাপানের সম্পর্ক অনন্য উচ্চতায় পৌঁছেছে বলে মন্তব্য করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

মন্ত্রী বলেন, ‘স্বাধীনতার পরপরই ১৯৭২ সালের ফেব্রুয়ারিতে বাংলাদেশকে স্বাধীন দেশ হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া প্রথম দেশগুলোর মধ্যে জাপান অন্যতম। তারপর থেকেই জাপান আমাদের সবচেয়ে বিশ্বস্ত দ্বিপাক্ষিক উন্নয়ন সহযোগী ও সময়ের পরীক্ষিত বন্ধু।’

সোমবার (২৪ জুলাই) সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে জাইকা প্রেসিডেন্ট আকি হিকো তানাকা সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। এসময় অর্থমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

অর্থমন্ত্রী জাইকা প্রেসিডেন্টকে সব বাংলাদেশির পক্ষ থেকে স্বাগত জানান। পাশাপাশি মন্ত্রী বাংলাদেশ-জাপান সম্পর্কের ভিত্তি হিসেবে উল্লেখ করে ১৯৭৩ সালের অক্টোবরের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জাপান সফরের কথা স্মরণ করেন।

jagonews24

বাংলাদেশকে অব্যাহত সমর্থন ও উন্নয়ন প্রচেষ্টায় দৃঢ় প্রতিশ্রুতির জন্য জাপান সরকার, বিশেষ করে জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সির (জাইকা) প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন অর্থমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে সম্প্রতি বাংলাদেশ-জাপানের সম্পর্ক অনন্য উচ্চতায় পৌঁছেছে। প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার ২০১৪ ও ২০১৯ সালের জাপান সফর এটিকে আরও বেগবান করেছে।’

পাশাপাশি অর্থমন্ত্রী জাপানের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবের ২০১৪ সালে বাংলাদেশ সফরের বিষয়টিও উল্লেখ করেন। বাংলাদেশের মহান বন্ধু আবের দুঃখজনক মৃত্যুতে আন্তরিক সমবেদনা ও জঘন্য হত্যাকাণ্ডের নিন্দা জানান।

করোনাভাইরাস মহামারির শুরুতে বাংলাদেশকে জাপান যে বাজেট সহায়তা দিয়েছে, তা উভয় দেশের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো বাজেট সহায়তা হিসেবে উল্লেখ করেন মুস্তফা কামাল।

তিনি বলেন, ‘এটি কোভিড-১৯ মহামারির নেতিবাচক প্রভাব প্রশমিত করতে ও রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধে সৃষ্ট সংকট মোকাবিলায়ও সাহায্য করেছে। দিনে দিনে জাপান বাংলাদেশের একক বৃহত্তম দ্বিপাক্ষিক উন্নয়ন সহযোগী হয়ে উঠেছে।’

অর্থমন্ত্রী আরও বলেন, ‘আমার বিশ্বাস, জাইকা ভবিষ্যতের বৈশ্বিক অনিশ্চয়তা বিবেচনা করে প্রয়োজনীয় বাজেট সহায়তাসহ গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য আরও অর্থায়ন বাড়াবে।’

জবাবে আকি হিকো তানাকা বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতির ভূয়সী প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, ‘জাইকার সহযোগিতার ক্ষেত্রে বাংলাদেশ একটি গুরুত্বপূর্ণ দেশ। বাংলাদেশ বিভিন্ন অর্থনৈতিক ও সামাজিক সূচকে প্রতিবেশী দেশের থেকে অনেক এগিয়ে রয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘সহযোগিতার সফল বাস্তবায়নের কারণে এ মুহূর্তে জাপানের সরকারি উন্নয়ন সহযোগিতার তালিকায় থাকা দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশর অবস্থান অন্যতম। বিভিন্ন সামাজিক সূচকে অগ্রগতি অর্জনের মাধ্যমে উন্নয়নের একটি নতুন পর্যায়ে উন্নীত হয়েছে বাংলাদেশ। এ সফরে বাংলাদেশের উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রার চিত্রটা নিজের চোখে দেখেছে এবং উপলব্ধি করেছি।’

জাইকা প্রেসিডেন্ট আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃঢ় নেতৃত্বে নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু সারা বিশ্বকে অবাক করে দিয়েছে। ২০১৪ সালে আমি বাংলাদেশে এসেছিলাম। তবে এবারের সফরে যে বাংলাদেশকে দেখেছি, তাতে আমি অভিভূত।’

সভায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের সচিব শরিফা খান, জাপানের রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি ও জাইকার আবাসিক প্রতিনিধি ইয়ো হায়াকাওয়াসহ জাইকা ও অর্থ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা।


আরও খবর



ফুডপান্ডায় ম্যানেজার পদে চাকরির সুযোগ

প্রকাশিত:Thursday ০৪ August ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ১৮জন দেখেছেন
Image

অনলাইনভিত্তিক খাবার ডেলেভারি প্রতিষ্ঠান ফুডপান্ডা বাংলাদেশ লিমিটেডে ‘বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার’ পদে জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আগামী ১০ আগস্ট পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন।

প্রতিষ্ঠানের নাম: ফুডপান্ডা বাংলাদেশ লিমিটেড

পদের নাম: বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার
পদসংখ্যা: নির্ধারিত নয়
শিক্ষাগত যোগ্যতা: স্নাতক
অভিজ্ঞতা: ০২ বছর
বেতন: আলোচনা সাপেক্ষে

চাকরির ধরন: ফুল টাইম
প্রার্থীর ধরন: নারী-পুরুষ
বয়স: নির্ধারিত নয়
কর্মস্থল: যে কোনো স্থান

আবেদনের নিয়ম: আগ্রহীরা jobs.bdjobs.com এর মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন।

আবেদনের শেষ সময়: ১০ আগস্ট ২০২২

সূত্র: বিডিজবস ডটকম


আরও খবর



আন্ডারওয়ার্ল্ডের গল্পে নতুন ধারাবাহিক ‘মুসা’

প্রকাশিত:Monday ০১ August ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ০৯ August ২০২২ | ৩২জন দেখেছেন
Image

ঢাকার আন্ডারওয়ার্ল্ডের গল্প নিয়ে নির্মিত হয়েছে নতুন তারকাবহুল দীর্ঘ ধারাবাহিক নাটক ‘মুসা’। সাজ্জাদ হোসেন দোদুল পরিচালিত নাটকটির নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছেন আবু হুরায়রা তানভীর।

সম্প্রতি ঢাকার বিভিন্ন লোকেশনে নতুন এই ধারাবাহিকের শুটিং পর্ব সম্পন্ন হয়েছে। তানভীর ছাড়াও এর বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন শিল্পী সরকার অপু, শম্পা রেজা, শামীমা নাজনীন, সুব্রত, মিলন ভট্টাচার্য, ইমতু রাতিশ, সাব্বির আহমেদ, নাইরুজ সিফাত, জেবা জান্নাত প্রমুখ। একটি বিশেষ চরিত্রে রয়েছে নির্মাতা নিজেও।

নতুন ধারাবাহিক নিয়ে সাজ্জাদ হোসেন দোদুল বলেন, ঢাকা শহরে প্রতিনিয়ত বিভিন্ন অপরাধ সংগঠিত হচ্ছে। মুসা সব অনিয়ম রুখতে গিয়ে নিজেই হয়ে যান গ্যাংস্টারে। শুরু হয় রাজধানী দখলের খেলা। সবাই এখানে খেলোয়াড়। হারতে চায় না কেউ-ই, সবাই চায় জয়ী হতে। ঢাকার মানচিত্র টুকরো টুকরো হয়ে যায়। ঢাকার এমন অস্বাভাবিক খেলা নিয়েই তৈরি হয়েছে ‘মুসা’। আশা করি, ব্যতিক্রম গল্পের নতুন এই ধারাবাহিক নাটকটি সবার ভালো লাগবে।

জানা গেছে, আগমীকাল মঙ্গলবার (২ আগস্ট) থেকে ধারাবাহিক নাটক ‘মুসা’ বৈশাখী টিভিতে প্রতি মঙ্গল, বুধ ও বৃহস্পতিবার রাত ৯টা ২০ মিনিটে প্রচার হবে। 


আরও খবর



সংবাদ সংগ্রহে গিয়ে মারধরের শিকার সাংবাদিক, আটক ৮

প্রকাশিত:Tuesday ০২ August 2০২2 | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ২৫জন দেখেছেন
Image

রাজধানীর তালতলা এলাকায় ভিক্টর ট্রেডিং কর্পোরেশনে মেডিকেলের যন্ত্রাংশ কেনাকাটায় অনিয়ম ও দুর্নীতির সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে মারধরের শিকার হয়েছেন বেসরকারি টেলিভিশন ডিবিসি নিউজের স্টাফ রিপোর্টার সাইফুল ইসলাম জুয়েল ও ভিডিওগ্রাফার আজাদ আহমেদ।

মঙ্গলবার (২ আগস্ট) দুপুরে তাদের ওপর এ হামলা চালানো হয়। এ সময় ক্যামেরা ভাঙচুর ও ফুটেজ ডিলিট করে দেয় হামলাকারীরা।

ওই প্রতিষ্ঠানের সত্ত্বাধিকারী কাওছার ভুইয়া ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী এই হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগীরা।

সংবাদ সংগ্রহে গিয়ে মারধরের শিকার সাংবাদিক

এ ঘটনায় শেরেবাংলা নগর পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে আট হামলাকারীকে আটক করে থানায় নিয়েছে।

এ বিষয়ে আহত সাংবাদিক সাইফুল জুয়েল বলেন, সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে প্রথমে ডিবিসির ক্যামেরাপারসন আজাদ আহমেদকে মারধর ও ক্যামেরা ভাঙচুর করে ভিডিও ফুটেজ ডিলিট করে দেওয়া হয়। পরে ক্যামেরা ফেরত চাইলে কাওছারের ১০-১২ জন সন্ত্রাসী আমার ও আজাদের ওপর এলোপাতাড়ি মারধর চালায়। এতে আমরা দুজনেই মারাত্মক আহত হই।

ডিবিসি নিউজের স্টাফ রিপোর্টার আবু দাউদ খান বলেন, হাসপাতালের সরঞ্জাম কেনাকেটার অনিয়মের অভিযোগের বিষয়ে রিপোর্ট করতে গেলে ডিবিসি নিউজের দুই সাংবাদিকের ওপর হামলা চালায় ভিক্টর ট্রেডিং কর্পোরেশনের সত্ত্বাধিকারী কাওসার ভূঁইয়া ও তার সহযোগীরা। এ সময় রিপোর্টার সাইফুল জুয়েল ও ভিডিওগ্রাফার আজাদকে রুমে আটকে রেখে মারধর করা হয়। এছাড়াও ক্যামেরার সব ছবি ডিলিট করতে বাধ্য করে প্রতিষ্ঠানটি।

সংবাদ সংগ্রহে গিয়ে মারধরের শিকার সাংবাদিক

ভিক্টর ট্রেডিং কর্পোরেশন জাতীয় নাক, কান ও গলা ইনস্টিটিউটের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। তাদের বিরুদ্ধে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ পাওয়ায় অনুসন্ধানে যায় ডিবিসি নিউজ।

শেরেবাংলা নগর থানার ভারপাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) উৎপল বড়ুয়া জাগো নিউজকে বলেন, এ ঘটনায় বেশ কয়েকজনকে আটক করে থানায় আনা হয়েছে। ভুক্তভোগী সাংবাদিক বাদী হয়ে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন। এ বিষয়ে পরবর্তীতে মামলা হবে।

এদিকে, বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের (ক্র্যাব) সভাপতি মির্জা মেহেদী তমাল ও সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান বিকুসহ কার্যনির্বাহী কমিটির নেতারা এক বিবৃতিতে সাংবাদিক জুয়েলের ওপর হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। পাশাপাশি সাংবাদিকদের পেশাগত কাজে বাধা দেওয়ায় সংশ্লিষ্টদের অবিলম্বে আইনের আওতায় আনা ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে সরকারের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তারা।


আরও খবর



ম্যানেজার পদে চাকরি দেবে বাংলালিংক

প্রকাশিত:Sunday ৩১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ০৯ August ২০২২ | ২০জন দেখেছেন
Image

বেসরকারি টেলিযোগাযোগ প্রতিষ্ঠান বাংলালিংকে ‘কমার্শিয়াল স্ট্র্যাটেজি ম্যানেজার’ পদে জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আগামী ০৩ আগস্ট পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন।

প্রতিষ্ঠানের নাম: বাংলালিংক

পদের নাম: কমার্শিয়াল স্ট্র্যাটেজি ম্যানেজার
পদসংখ্যা: নির্ধারিত নয়
শিক্ষাগত যোগ্যতা: বিবিএ/বিএসসি/বিএসএস/এমবিএ/এমএসএস/এমএসসি
অভিজ্ঞতা: ০৩-০৫ বছর
বেতন: আলোচনা সাপেক্ষে

চাকরির ধরন: ফুল টাইম
প্রার্থীর ধরন: নারী-পুরুষ
বয়স: নির্ধারিত নয়
কর্মস্থল: যে কোনো স্থান

আবেদনের নিয়ম: আগ্রহীরা banglalink.bdjobs.com এর মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন।

আবেদনের শেষ সময়: ০৩ আগস্ট ২০২২

সূত্র: বিডিজবস ডটকম


আরও খবর