Logo
আজঃ সোমবার ২৪ জুন 20২৪
শিরোনাম

শুক্রবার মার্কেট ও দোকানপাট ঢাকার যেসব এলাকায় বন্ধ

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ জুন ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১০১৪জন দেখেছেন

Image

খবর প্রতিদিন ২৪ডেস্ক :রাজধানী ঢাকায় সপ্তাহের একেক দিন একেক এলাকার মার্কেট, দোকানপাট বন্ধ থাকে। আপনি হয়তো প্রস্তুতি নিচ্ছেন আপনার পছন্দের কোন মার্কেটে যাবেন আজ। কিন্তু সেই মার্কেট খোলা আছে কিনা তা হয়তো জানেন না। তাই আগে জেনে নিন ঢাকার কোন মার্কেট আজ বন্ধ এবং খোলা রয়েছে। না হলে কষ্ট করে গিয়ে ফিরে আসতে হতে পারে।

মনে রাখাতে হবে সপ্তাহের ভিন্ন ভিন্ন দিনে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকার মার্কেট, দোকানপাট বন্ধ থাকে।

আসুন জেনে নেওয়া যাক শুক্রবার রাজধানীর কোন কোন এলাকার দোকানপাট, মার্কেট বন্ধ থাকে।

যেসব এলাকার দোকানপাট বন্ধ থাকবে:
বাংলাবাজার, পাটুয়াটুলী, ফরাশগঞ্জ, শ্যামবাজার, জুরাইন, করিমউল্লাহবাগ, পোস্তগোলা, শ্যামপুর, মীরহাজীরবাগ, দোলাইপাড়, টিপু সুলতান রোড, ধূপখোলা, গেণ্ডারিয়া, দয়াগঞ্জ, স্বামীবাগ, ধোলাইখাল, জয়কালী মন্দির, যাত্রাবাড়ীর দক্ষিণ-পশ্চিম অংশ, ওয়ারী, আহসান মঞ্জিল, লালবাগ, কোতোয়ালি থানা, বংশাল, নবাবপুর, সদরঘাট, তাঁতীবাজার, লক্ষ্মীবাজার, শাঁখারী বাজার, চাঁনখারপুল, গুলিস্তানের দক্ষিণ অংশ।

যেসব এলাকার মার্কেট বন্ধ থাকবে:

আজিমপুর সুপার মার্কেট, গুলিস্তান হকার্স মার্কেট, ফরাশগঞ্জ টিম্বার মার্কেট, শ্যামবাজার পাইকারি দোকান, সামাদ সুপার মার্কেট, রহমানিয়া সুপার মার্কেট, ইদ্রিস সুপার মার্কেট, দয়াগঞ্জ বাজার, ধূপখোলা মাঠ বাজার, চকবাজার, বাবুবাজার, নয়াবাজার, কাপ্তানবাজার, রাজধানী সুপার মার্কেট, দয়াগঞ্জ সিটি করপোরেশন মার্কেট, ইসলামপুর কাপড়ের দোকান, ছোট কাঁটারা, বড় কাঁটারা হোলসেল মার্কেট, শারিফ ম্যানসন, ফুলবাড়িয়া মার্কেট, সান্দ্রা সুপার মার্কেট।


আরও খবর

"নোবেলের ম্যাজিক শুধু প্রতারণা"

মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24




গোদাগাড়ীতে রিইব-এর তথ্য অধিকার আইন বিষয়ক ক্যাম্পেইন

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৮১জন দেখেছেন

Image

মুক্তার হোসেন,গোদাগাড়ী(রাজশাহী)প্রতিনিধিঃরাজশাহীর গোদাগাড়ীতে তথ্য অধিকার আইন বিষয়ক ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত। শনিবার (৮ জুন)রিসার্চ ইনিশিয়েটিভস বাংলাদেশ (রিইব)-এর উদ্যোগে উপজেলার কাকনহাট রিইব অফিসে হয়। রিইব-এর মাঠ সমন্বয়কারী বাবুল চন্দ্র সূত্রধরের সভাপতিত্বে

 বক্তব্য রাখেন আদিবাসী নেতা নীরেন খালেেকা, গণেশ মার্ডি, সুবোধ মাহাতো, সুধীর চন্দ্র ওরাওঁ, সুসেন শ্যামদুয়ার, সমাজকর্মী আনোয়ার হোসেন, সামিউল বাসির, চন্দনা রাণী, মিনতী রাণী প্রমুখ। কর্মসূচীতে গণগবেষণা দলের সদস্যদের মধ্য থেকে তথ্য অধিকার চর্চার অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন ইতি টুডু (সাঁওতাল), প্রতিমা রাণী (মাহাতো) রিনা খাখা (ওরাওঁ) ও মণিবালা (মূলধারা)।

 কর্মসূচীর সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ছিলেন লিপি টুডু ও সুধা টপ্প্য। ক্যাম্পেইনটি সঞ্চালনা করেন নৃপেন্দ্রনাথ মাঝি। 

বক্তারা বলেন,তথ্য অধিকার আইনের যথাযথ চর্চা করে জীবনমানের উন্নয়নের জন্য সকলকে উৎসাহিত করতে হবে এবং জ্ঞান ও কর্মতৎপরতা হল সবচেয়ে বড় সম্পদ, এ সম্পদের মালিক হতে পারলে সরকার কেন, কারো দিকেই তাকিয়ে থাকতে হবে না। আর এজন্যে সবচেয়ে টেকসই হাতিয়ার হল শিক্ষা। উল্লেখ্য, গত ৭ জুন এলাকার বিভিন্ন কলেজের ১৮ জন ছাত্রছাত্রী নিয়ে অনুরূপ ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হয়েছে। 


আরও খবর



প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নরেন্দ্র মোদিকে বাংলাদেশে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ১০ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | ৮৭জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ জানিয়েছে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ভারতে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মুস্তাফিজুর রহমান এবং প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব নাঈমুল ইসলাম খান এ সময় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন।

ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লির আইটিসি মৌর্য হোটেলে রোববার রাতে মন্ত্রী হাছান সাংবাদিকদের বলেন, পরপর তৃতীয়বারের মতো ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নরেন্দ্র মোদির শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান শেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার সাথে একান্ত সাক্ষাতে মিলিত হন। এ সময় তিনি নরেন্দ্র মোদি এবং এনডিএ জোটকে নির্বাচনে বিজয়ের জন্য আবারও অভিনন্দন দেন এবং প্রধানমন্ত্রী মোদিকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান।

রাষ্ট্রপতি ভবনে এ সাক্ষাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দু‘দেশের বন্ধনকে আরও দৃঢ় করতে নরেন্দ্র মোদির নতুন সরকারের সঙ্গে কাজ করার আন্তরিক আগ্রহ ব্যক্ত করেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক নতুন উচ্চতায় উন্নীত হয়েছে এবং নিকটতম প্রতিবেশী হিসেবে বাংলাদেশ ও ভারতের অনেক কাজের সুযোগ রয়েছে। মানুষে মানুষে সংযোগ বৃদ্ধিতে যোগাযোগ অবকাঠামো উন্নয়নসহ উভয় দেশের আরও উন্নতিকল্পে আমাদের একযোগে কাজ করে যেতে হবে, বলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

এর আগে ভারতের পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ লোকসভার ১৮তম নির্বাচনে ৫৪৩ আসনের ২৯৩টিতে বিজয়ী এনডিএ জোটের নেতা নরেন্দ্র মোদির পরপর তৃতীয়বারের মতো ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে অন্যতম শীর্ষ বিশ্বনেতা হিসেবে আমন্ত্রিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শনিবার বিকেলে দিল্লি পৌঁছান।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব (ওভারসিজ ইন্ডিয়ান এফেয়ার্স) রাষ্ট্রদূত মুক্তেশ পরদেশী বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে অভ্যর্থনা জানান।

রোববার (৯ জুন) সন্ধ্যায় রাষ্ট্রপতি ভবনে সারাবিশ্ব থেকে আগত প্রায় ৮ হাজার অতিথির সঙ্গে শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী। তার কন্যা ও বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার আঞ্চলিক পরিচালক সায়মা ওয়াজেদ, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এবং প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান ফজলুর রহমান এ সময় তার সাথে ছিলেন।

সোমবার (১০ জনু) অপরাহ্নে প্রধানমন্ত্রীর দিল্লি থেকে ঢাকা রওনা হওয়ার কথা রয়েছে।



আরও খবর



ঘূর্ণিঝড় রেমালের তান্ডবে ভোলায় ৫ জনের মৃত্যু, পানিবন্দি লক্ষাধিক মানুষ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১২৭জন দেখেছেন

Image

শরীফ হোসাইন, ভোলা বিশেষ প্রতিনিধি:ঘূর্ণিঝড় রেমালের তান্ডবে ভোলায় গাছ চাঁপা পড়ে মারা গেছেন ৫ জন। পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন লক্ষাধিক মানুষ। শহর রক্ষা বাঁধ ধসে প্লাবিত হয়েছে গ্রামের পর গ্রাম। সদর উপজেলার রামদাসপুর, চটকিমারা, মাঝের চর, বোরহানউদ্দিন, মদনপুর, নেয়ামতপুর, চরফ্যাশনের ঢালচর, চরকুকরি-মুকরি, মনপুরাসহ অনেক এলাকায় বন্যার পানি বিপদ সীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ায় এ সব এালাকার প্রায় লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্ধি হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন। এখনো পর্যাপ্ত ত্রাণ পৌছেনি ঐ দুর্গত এলাকায়। এদিকে ঘূর্ণিঝর রিমালের প্রভাবে ভোলার ২০ লক্ষ মানুষ বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পরেছে। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে জেলা-উপজেলার শহর রক্ষা বাঁধ, ফসলের মাঠ, পুকুরের মাছ, গোয়ালের গবাদিপশু, পানিতে তলিয়ে গেছে বহু শিক্ষালয়। 

খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, ভোলা সদর উপজেলার ভেদুরিয়া ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের মাঝির হাট এলাকার তোফাজ্জল হাজারির ছেলে ওমর ফারুক (৪০) সোমবার বিকাল ৫টার সময় বসত ঘরে গাছ চাঁপায় মারা যান। দৌলতখাঁনে ঘরের ভেতর গাছ চাঁপায় মাইশা (৪) নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। সোমবার (২৭ মে) ভোর ৪টার দিকে পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে। নিহত মাইশা পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের মনির হোসেনের মেয়ে। একই উপজেলার চরপাতা ইউনিয়নের কাশেম নামের এক যুবক ঘর চাঁপায় নিহত হন। 

শিশুর বাবা মনির জানান, রবিবার রাতের খাবার খেয়ে ঘুমিয়ে পড়ি সবাই। ভোর ৪টার দিকে হঠাৎ একটি গাছ আমার ঘরের ওপর চাঁপা দেয়। এতে টিনের চাল আমাদের ওপর এসে পড়লে মাইশা মারা যায়। আমিও চাঁপা পড়েছিলাম, স্থানীয়রা এসে উদ্ধার করেছে।

এর আগে ভোরে ঘূর্ণিঝড় রিমালের প্রভাবে লালমোহনের চর উমেদ গ্রামের বাসিন্দা আব্দুল কাদেরের স্ত্রী মনেজা খাতুন (৫০) নামে এক নারীর মৃত্যু হয়। স্থানীয়রা জানান, মনেজা খাতুন গতকাল রাতে তার এক নাতিকে নিয়ে ঘরে ঘুমিয়ে ছিলেন। ভোরে ঝড়ো বাতাসের কারণে একটি গাছ তার বসত ঘরের উপর এসে পড়ে। ঘটনাস্থলেই মনেজা খাতুন মারা গেলেও অক্ষত আছে তার নাতি।

এছাড়া জেলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার সাচড়া ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের পঞ্চায়েত বাড়ির জাহাঙ্গীর পঞ্চায়েত (৪৮) এর শরীরের উপর একটি গাছের ডাল ভেঙ্গে পড়ে। এতে গাছের ডালটি ভেঙ্গে পেটের মধ্যে ঢুকে পড়লে হাসপাতালে নেয়ার পথে তিনি মারাযান। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জেলা ত্রাণ কর্মকর্তা দেলোয়ার হোসেন। তিনি আরো জানান ঝড়ো বাতাসের কারণে এখন সবদিক থেকে খবর নেয়া সম্ভব হচ্ছেনা। ঝড় থেমে গেলে প্রকৃত ক্ষয়ক্ষতির পরিমান নিরুপন করা সম্ভব হবে।

অপরদিকে, ঝড়, বৃষ্টি ও জোয়ারের পানিতে হয়েছে জেলার উপকূলীয় অঞ্চল। উপকূলের লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে প্রতিটি উপজেলার শহর রক্ষা বাঁধ, ফসলের মাঠ, পুকুরের মাছ, গোয়ালের গবাদিপশু ভেসে গেছে। বহু শিক্ষালয় পানিতে ডুবে গেছে।

মনপুরা উপজেলা হাজিরহাটের ইউপি চেয়ারম্যান নিজাম উদ্দিন হাওলাদার জানান, হাজিরহাটের পূর্ব পাশে চার কিলোমিটার বেড়িবাঁধের ক্ষয়ক্ষতি হওয়ায় জোয়ারের পানি ঢুকে পড়ে। পানি উন্নয়ন বোর্ডকে (পাউবো) জিও ব্যাগ ফেলে বাঁধ রক্ষার জন্য বলা হয়েছে।

চরফ্যাশন উপজেলার ঢালচর ইউনিয়নের ঢালচর ও চরনিজামে বন্যা-জলোচ্ছ্বাস নিয়ন্ত্রণ বাঁধ নেই। এ কারণে বাসিন্দারা ঘর ছেড়ে, গবাদিপশু রেখেই নিরাপদ আশ্রয়ে গেছে। ঢালচর ইউপির চেয়ারম্যান মো. আবদুস সালাম জানান, সকালের জোয়ারে ইউনিয়নের সব এলাকা পাঁচ ফুট পানির নিচে তলিয়ে গেছে। ওই পানি কমতে না কমতে আবার রাতের জোয়ার আসবে। এখানে প্রায় ১২ হাজার মানুষ পানিবন্দী রয়েছে। তাদের নিরাপদ আশ্রয়ে নিতে ইউনিয়নের গ্রাম পুলিশসহ ইউপি সদস্যদের মানুষের বাড়ি বাড়ি পাঠানো হচ্ছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড ডিভিশন-২-এর নির্বাহী প্রকৌশলী হাসান মাহমুদ জানান, ভোলা সদর, মনপুরা, লালমোহন, তজুমদ্দিন ও চরফ্যাশন উপজেলায় মোট ১০টি স্থানে বেড়িবাঁধ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আমরা অচিরেই ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধ সংরক্ষেনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। ভোলার জেলা প্রশাসন মোঃ আরিফুজ্জামান বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের জন্য আমরা জেলা প্রশাসন সবধরনের সহযোগিতার ব্যবস্থা করবো।


আরও খবর



তিতাস গ্যাস আর্দশ উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন ভবন, কম্পিউটার ল্যাব উদ্বোধন

প্রকাশিত:বুধবার ১২ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | ১৩৫জন দেখেছেন

Image

নাজমুল হাসানঃতিতাস গ্যাস আর্দশ উচ্চ বিদ্যালয়ের সম্প্রসারিত ভবন (৪র্থ তলা পূর্বাংশ) ও কম্পিউটার ল্যাব-এর শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।বুধবার১২ জুন ডেমরাস্থ তিতাস গ্যাস আর্দশ উচ্চ বিদ্যালয়ের সম্প্রসারিত ভবন (৪র্থ তলা পূর্বাংশ) ও কম্পিউটার ল্যাব -এর শুভ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিসন এন্ড ডিস্ট্রিবিউশন পিএলসি'র ব্যবস্থাপনা পরিচালক,প্রকৌঃ মোঃ হারুনুর রশীদ মোল্লাহ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কোম্পানির মহাব্যবস্থাপক/উপ-ব্যাবস্থাপনা পরিচালক (ডিএমডি) রাজীব কুমার সাহা,মহাব্যবস্থাপক (অতিরিক্ত দায়িত্ব) তওহিদুল ইসলাম, মহাব্যবস্থাপক  (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন ডিভিশন) সত্যজিৎ ঘোষ, মহাব্যবস্থাপক/উপ-ব্যাবস্থাপনা পরিচালক (ডিএমডি) প্রকৌশলী মোঃ আনিসুর রহমান, মহা ব্যবস্থাপক (আইসিটি) মোঃ তারিক আনিস খান। 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিতাস গ্যাসের ব্যাবস্থাপনা পরিচালক হারুনুর রশিদ মোল্লাহ বলেন, "শিক্ষার্থীরা যেন এই বিশ্বায়নের যুগে তথ্যপ্রযুক্তির জ্ঞানের আলোয় আলোকিত হয়ে মাননীয়  প্রধানমন্ত্রী  ঘোষিত ২০৪১ সালের স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণের সহযোদ্ধা হতে পারে সেজন্য তিতাস গ্যাস আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে কম্পিউটার ল্যাব চালু করে প্রতিটি কম্পিউটারের সঙ্গে  ইন্টারনেট সংযোগ দেয়া হয়েছে, নিজস্ব ওয়েব সাইট চালু করা হয়েছে এবং  ল্যাব চালাতে যা দরকার এজন্য জিএম আইসিটি কে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। স্মার্ট জাতি গঠনে কম্পিউটার ল্যাব জরুরি। আমরা সেটা বাস্তবায়ন করলাম। এখন স্মার্ট নাগরিক তৈরি করার দায়িত্ব অত্র প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকগনের।আশা করি তারা সেটা পারবেন।"

এ সময় তিতাসের এমডি শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে আরো দিকনির্দেশনা মূলক বক্তব্য রাখেন।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন তিতাস গ্যাস আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোঃ ওবায়দুল ইসলাম সহ কোম্পানির উর্ধ্বতন কর্মকর্তা-শিক্ষকবৃন্দ ও তিতাস গ্যাস আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা পরিষদের সদস্য এবং শিক্ষার্থীরা।উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে দোয়া ও মোনাজাত করা হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন বিদ্যালয়ের সিনিয়র ধর্মীয় শিক্ষক হাফেজ মোঃ নুরুল হক।


আরও খবর



কুষ্টিয়ায় নিরাপদ খাদ্য বিষয়ক জনসচেতনতামূলক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | ৭৬জন দেখেছেন

Image
কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি:চাল নিয়ে চালবাজির চালকল মালিকদের সাথে নিরাপদ খাদ্য বিষয়ক সচেতনতামূলক বিভাগীয় কর্মশালায় ‘উপরিভাগের আবরণ ছেটে ফেলা’ সরু মিনিকেট চাল নিয়ে তুমুল আলোচনা হয়েছে। কুষ্টিয়া শিল্পকলায় সোমবার বেলা ১১টায় শুরু হওয়া এ কর্মশালায় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ এমপিসহ কুষ্টিয়ার চার এমপি, সরকারি শীর্ষ কর্মকর্তা, বিভিন্ন পর্যায়ের জনপ্রতিনিধি ও সকল শ্রেনি পেশার মানুষ এতে অংশ নেন। নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের সদস্য আবু নূর মো. শামসুজ্জামান এক অংশে বলেন, মিনিকেট নামে কোনো ধান নেই। মেশিনের মাধ্যমে চালের আবরণ ছেটে ফেলে সরু ও চকচকে করে মিনিকেট নামে বাজারজাত করা হচ্ছে। এতে ভিটামিন, খনিজ দ্রব্য, প্রোটিন ও শর্করা বের হয়ে যাচ্ছে পলিশের নামে। কমে যাচ্ছে পুষ্টিগুণ। এই চাল অস্বাস্থ্যকর। তিনি বলেন, এতে বছরে ১৮ লক্ষ মেট্রিক টন চাল অপচয় হচ্ছে। কর্মশালায় মুক্ত আলোচনা পর্বে মিনিকেট ধান-চাল ও পলিশ নিয়ে এসব কথার প্রতিবাদ জানান অটোমেটিক চালকল দেশ এগ্রোর মালিক আব্দুল খালেক। তিনি বলেন, দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল ও উত্তরাঞ্চলে কৃষকরা মিনিকেট নামে যে ধান চাষ করছেন তার কি হবে? এসব ধান কি আমরা ফেলে দেবো, না বস্তার গায়ে জাতের নাম হিসেবে কি লিখবো? এসব প্রশ্ন আমরা সরকারকে বলেছি, কোন উত্তর মেলেনি। খালেক দাবি করেন, চাল ছেটে সরু করা হয় না। মানুষের চাহিদার কথা চিন্তা করে উপরের আবরণ পলিশ করে সিল্কি করা হয়। জবাবে নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান জাকারিয়া বলেন, চালের উপরের আবরণ ফেলে দেয়ায় শুধু কর্বোহাইড্রেড থাকছে। অন্য জরুরি উপাদান বাদ চলে যাচ্ছে। তাই এ খাবারের খাদ্যমান নষ্ট হচ্ছে। এ বিষয়ে কুষ্টিয়া-২ আসনের সংসদ সদস্য কামারুল আরেফিন বলেন, মিনিকেট নামে কোনো ধান নেই। কিন্তু চাল আছে। মিনিকেট এখানে আবিস্কার করা হয়েছে। আব্দুর রশিদকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, মিনিকেটের নামে চাল খাইয়ে তিনি মানুষের চরম ক্ষতি করেছেন। মিনিকেটের ওই জনকের অভিশাপ লেগে গেছে। কুষ্টিয়ার মানুষ সবাই জানেন তার আজ কি অবস্থা। তাই খালেক ভাইসহ চালকল মালিকদের আহ্বান জানাবো মানুষের উপকার হয় ভালো প্রজন্ম গড়ে উঠতে পারে তেমন কাজ করুন। ভালো পুষ্টিকর খাবার খাওয়ান মানুষকে। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ এমপি বলেন, পলিশ করা চাল খাদ্য হিসেবে নিরাপদ হলেও স্বাস্থ্যসম্মত নয়। 

আরও খবর