Logo
আজঃ Tuesday ২৮ June ২০২২
শিরোনাম
নাসিরনগরে বন্যার্তদের মাঝে ইসলামী ফ্রন্টের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ রাজধানীর মাতুয়াইলে পদ্মাসেতু উদ্ধোধন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল রূপগঞ্জে ভূমি অফিসে চোর রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা

সরকার পতন আন্দোলনে জমিয়ত-বিএনপি ঐকমত্য

প্রকাশিত:Saturday ১৮ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৯৭জন দেখেছেন
Image

সরকার পতনের আন্দোলন নিয়ে ঐকমত্য হয়েছে জমিয়তে ওলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ ও বিএনপি।

শনিবার (১৮ জুন) সন্ধ্যায় গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে দুই দলের বৈঠকের পর বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও জমিয়তের সভাপতি মাওলানা মনসুরুল হাসান রায়পুরী সাংবাদিকদের সামনে এ কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, আমাদের যে ঘোষিত কর্মসূচি, সব রাজনৈতিক দলের সঙ্গে আলোচনা করার। সেই কর্মসূচি অনুযায়ী আজ ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরীক জমিয়তে ওলামায়ে ইসলামের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেছি। আমাদের দেশের মানুষের ওপরে যে দুঃশাসন চেপে বসে আছে, অনির্বাচিত একটি সরকার, তাদের বিরুদ্ধে সংগ্রাম করার ব্যাপারে জমিয়তে ওলামায়ে ইসলামের নেতাদের সঙ্গে আলাপ করে একমত হয়েছি।

তিনি বলেন, আমরা এ বিষয়ে একমত হয়েছি যে খালেদা জিয়া, তারেক রহমানসহ আমাদের ৩৫ লাখ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে থাকা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে। আমরা আরও একমত হয়েছি যে, এই সরকারকে পদত্যাগ করতে বাধ্য করবো। সরকার পদত্যাগ করে নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর করবে। সেই সঙ্গে সংসদ বিলুপ্ত করতে হবে। তারপরে নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে একটি নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন করে তাদের অধীনে সব দলের অংশগ্রহণে একটি নির্বাচন হবে। যে নির্বাচনের মধ্যে দিয়ে একটি নতুন পার্লামেন্ট গঠন হবে। সেই পার্লামেন্টের মাধ্যমে সব দলের মতামতের ভিত্তিতে একটি সরকার গঠন করা হবে।

তিনি বলেন, এই বিষয়গুলোতে আমরা একমত হয়েছি যে, আন্দোলনের ব্যাপারে আমরা সবাই নিজ নিজ জায়গা থেকে যুগপৎভাবে আন্দোলন শুরু করবো। আন্দোলনকে একটা সুনির্দিষ্ট পর্যায়ে অর্থাৎ এই সরকারকে পদত্যাগের মধ্যে দিয়ে আন্দোলনকে সফল করার জন্য জনগণকে সঙ্গে নিয়ে কাজ করবো।

এসময় জমিয়তের একাংশের সভাপতি মাওলানা মনসুরুল হাসান রায়পুরী বলেন, আজ আমরা একটা গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছি। বিএনপির সঙ্গে বৈঠক হয়েছে। দেশের মানুষ সুখী না। পেটের ক্ষুধায় মানুষ রাস্তাঘাটে হাহাকার করছে। বন্যার মধ্যেও সরকারের সাহায্য পর্যাপ্ত পরিমাণে যাচ্ছে না। তাছাড়া দেশের প্রধান যে জিনিসটা গণতন্ত্রকে এই সরকার শেষ করে ফেলেছে। এই সরকারকে আর টিকে থাকতে দেওয়া যায় না। অনতিবিলম্বে এই সরকারকে হটাতে হবে। সেজন্য আমাদের কোরবানির প্রয়োজন আছে, আন্দোলনের প্রয়োজন আছে। সেজন্য যা কিছু প্রয়োজন হয়, তা করতে আমরা একমত হয়েছি। বিএনপি মহাসচিব যে কথাগুলো বলেছেন, সেগুলোর সঙ্গে আমরা একমত হয়েছি।

এসময় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও ২০দলীয় জোটের সমন্বয়ক নজরুল ইসলাম খান ও জমিয়তে ওলামায়ে ইসলামের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



এক মাসে ভারতের বাণিজ্য ঘাটতি আড়াই হাজার কোটি ডলার

প্রকাশিত:Wednesday ১৫ June ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ২৬ June ২০২২ | ৪৬জন দেখেছেন
Image

চলতি বছরের মে মাসে ভারতের বাণিজ্য ঘাটতি বেড়েছে। অর্থাৎ রপ্তানির চেয়ে আমদানি বেশি হয়েছে। জানা গেছে, এসময়ে দেশটির বাণিজ্য ঘাটতি বেড়ে এক বছর আগের তুলনায় প্রায় আড়াই হাজার কোটি ডলারে দাঁড়িয়েছে। বুধবার (১৫ জুন) দেশটির সরকারি এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়। খবর দ্য ইকোনমিক টাইমসের।

ভারতের বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রণালয়ের প্রকাশিত পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, আমদানির পরিমাণ বেড়ে যাওয়ায় এ ঘাটতি তৈরি হয়েছে। বছরভিত্তিতে আমদানি ৬২ দশমিক ৮৩ শতাংশ বেড়ে ছয় হাজার তিনশ কোটি ডলারের বেশিতে দাঁড়িয়েছে। অন্যদিকে রপ্তানি ২০ দশমিক ৫৫ শতাংশ বেড়ে প্রায় চার হাজার কোটি ডলারে দাঁড়িয়েছে।

তাছাড়া মে মাসে ভরতের মার্চেন্ডাইজ রপ্তানি ২০ দশমিক ৫৫ শতাংশ বেড়ে ৩৮ দশমিক ৯৪ বিলিয়ন ডলারে দাঁড়িয়েছে। এক্ষেত্রে আমদানি ৬২ দশমিক ৮৩ শতাংশ বেড়ে ৬৩ বিলিয়ন ডলারে দাঁড়িয়েছে। ২০২১ সালের মে মাসে দেশটির বাণিজ্য ঘাটতি ছিল মাত্র সাড়ে ছয়শ কোটি ডলার।

চলমান অর্থবছরের প্রথম দুই মাসে ভারতের বাণিজ্য ঘাটতি বেড়ে ৪৪ দশমিক ৬৯ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত হয়েছে। গত বছরের একই সময়ে এই পরিমাণ ছিল ২১ দশমিক ৮২ বিলিয়ন ডলার।


আরও খবর



বান্দরবানে অস্ত্রের মুখে দুই যুবককে অপহরণের অভিযোগ

প্রকাশিত:Friday ১০ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৩৫জন দেখেছেন
Image

বান্দরবানে অস্ত্রের মুখে দুই যুবককে অপহরণের অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার (১০ জুন) বিকেলে বান্দরবান সদর থানার রাজভিলা ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের তঞ্চগ্যা পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

ওই দুই যুবক হলেন তঞ্চগ্যা পাড়ার বীরমোহন তঞ্চগ্যার ছেলে কৌকা তঞ্চগ্যা (৩৫) ও মৃত সুরামেরেয়া চাকমার ছেলে দোকানি জীবন চাকমা সুমন (৪০)।

স্থানীয়রা জানান, বিকেল ৩টার দিকে মাহিন্দ্রা গাড়িতে করে চারজন সশস্ত্র সন্ত্রাসী জীবন চাকমার দোকানে আসে। তারা এসে প্রথমে মারধর করেন ও পরে কৌকা ও জীবনকে গাড়িতে তুলে নিয়ে যান।

রাজভিলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ক্য অং প্রু বলেন, অস্ত্রের মুখে একটি পাহাড়ি সন্ত্রাসী দল দুজনকে অপহরণ করে নিয়ে গেছে বলে পাড়াবাসীরা আমাকে জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে বান্দরবান সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম বলেন, রাজভিলায় দুজনকে অপহরণের খবর শুনেছি। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। বিস্তারিত পরে জানা যাবে।


আরও খবর



হজে যাওয়ার আগে হজযাত্রীদের প্রস্তুতি

প্রকাশিত:Sunday ০৫ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৬৪জন দেখেছেন
Image

শারীরিক ও আর্থিক সামর্থবানদের ওপর ফরজ ইবাদাত হজ। মুসলমানের জীবনে সর্বোচ্চ আশা-আকাংঙ্খার কেন্দ্রবিন্দুও হজ। সে কারণেই মুমিন মুসলমান মাত্রই জীবনে একবার হলেও পবিত্র নগরী মক্কায় অবস্থিত কাবা শরিফ ও নবির শহর মদিনায় যাওয়ার আশা রাখেন। হজে যাওয়ার আগে হজ পালনেচ্ছুদের কিছু কাজ সম্পর্কে প্রস্তুতি নেওয়া জরুরি। তাহলো-

হজযাত্রার আগে করণীয়
১. সরকারি কিংবা বেসরকারিভাবে যারা হজে যাবেন; তাদের জন্য হজ এজেন্সি বা যথাযথ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখা জরুরি।
২. বেসরকারিভাবে যারা হজে যাবেন; তাদের মক্কা-মদিনায় থাকার স্থান ও হজের আনুসাঙ্গিক কাজ সম্পাদনের বিষয়গুলো দেশে থাকতেই জেনে নেওয়া জরুরি।
৩. হজ পালনকালীন সময়ে মক্কা, মিনা, আরাফা, মুজদালেফা ও অন্যান্য জিয়ারায় অভিজ্ঞ মুয়াল্লিম থাকবে কিনা তা জেনে নেওয়া। থাকলে মুয়াল্লিমের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা আবশ্যক। কারণ মুয়াল্লিমের যথাযথ তত্ত্ববধান না থাকলে হজ সম্পাদন করা অনেক কষ্টকর হবে।
৪. হজের নিয়তকারী সব মানুষই মহান আল্লাহর মেহমান। তাই মুয়াল্লিমের ওপর পুরোপুরি ভরসা না রেখে দেশে থাকতে হজের নিয়ম-কানুনগুলোর ওপর প্রশিক্ষণ নেওয়া জরুরি।
৫. সুষ্ঠুভাবে হজ সম্পাদনের জন্য হজের সফর শুরু করার আগে হজ সম্পর্কিত বই, মোবাইল অ্যাপসসহ অপর সঙ্গীদের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে হজের কাজ সম্পাদনের বিষয়ে আলোচনা করে নেওয়া।
৬. হজের সফরে হজ এজেন্সি কিংবা মুয়াল্লিমের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেলে বাংলাদেশ দূতাবাস ও হজ সম্পর্কিত যথাযথ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগের ঠিকানা, মোবাইল নম্বর বা অন্যান্য পরিচয়ের বিষয়টি সম্পর্কে খোঁজ-খবর জেনে নেওয়া আবশ্যক।

৭. হজের সফরকে জীবনের শেষ সফর মনে করে নিজের মন মানসিকতা সেভাবে তৈরি করা। বয়স্ক হাজিদের জন্য হজের বই বা গাইড এবং মক্কা-মদিনায় অবস্থানের সময় থাকার বাসা ও ঠিকানা সম্পর্কিত তথ্য নিজের সংরক্ষণে রাখা।
৮. হজে রওনা হওয়ার আগে দেশের পরিচয়পত্র, মুয়াল্লিম কার্ড, হোটেলের কার্ড, কব্জি বেল্ট এবং কোমর বেল্ট, ইহরামের কাপড়, পাসপোর্ট, বিদেশি মুদ্রা ইত্যাদি সংগ্রহ করা। এবং এগুলো ব্যবহারের প্রশিক্ষণ নেওয়া।
৯. বিমানে ওঠার আগে থেকেই আপনার হ্যান্ড ব্যাগে পাতলা জায়নামাজ এবং স্প্রে করা যায় এমন পানির বোতল সবসময় সঙ্গে রাখা। যাতে সহজে অজু এবং নামাজ আদায় করা যায়।
১০. প্রয়োজনীয় লাগেজ বা ব্যাগের গাঁয়ে বাংলাদেশের পতাকার ছাপ, বাংলা, ইংরেজি ও আরবিতে নিজের নাম, পাসপোর্ট নম্বর, মুয়াল্লিম নম্বর চোখে পড়ার মতো বড় করে মার্কার দিয়ে লেখা এবং রশি, টেপ, ড্রাই মার্কার পেন, সুঁই-সুতা ও র‌্যাপিং পেপার সঙ্গে রাখা।
১১. হাত বেল্ট বা কোমর বেল্টে বহনযোগ্য ছোট একটি ফোনবুকে দেশের ও বিদেশের এবং সফর সঙ্গীদের জরুরি প্রয়োজনীয় মোবাইল নাম্বারগুলো সংগ্রহ করে রাখা। যাতে সমস্যা বা বিপদে-আপদে সহযোগিতা নেওয়া যায়।
১২. যাওয়ার আগে নিয়মিত হাঁটা-হাঁটি ও ব্যয়ামের মাধ্যমে নিজের শারীরিক ও মানসিক অবস্থা সুদৃঢ় করার চেষ্টা করা।
হজ পালনেচ্ছু হজযাত্রীগণ যাতে সুন্দরভাবে হজের প্রস্তুতি নিতে পারেন, সেভাবে প্রস্তুতিগুলো সম্পন্ন করা জরুরি।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহর সব হজ পালনেচ্ছুদের যথাযথভাবে হজের প্রস্তুতি গ্রহণ করার তাওফিক দান করুন। হজের কাজগুলো সুন্দরভাবে সম্পাদনের মাধ্যমে তা আদায় করার তাওফিক দান করুন। আমিন।


আরও খবর



বাঁশখালীতে ভোটকেন্দ্রের পাশে মিললো বন্দুক-লাঠি-হেলমেট

প্রকাশিত:Wednesday ১৫ June ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ২৬ June ২০২২ | ৩৮জন দেখেছেন
Image

চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলার ছনুয়া ইউনিয়নের একটি ভোটকেন্দ্রের পাশ থেকে বন্দুক, লাঠি ও আটটি হেলমেট উদ্ধার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) সদস্যরা।

বুধবার (১৫ জুন) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ছনুয়া ইউনিয়নের এক নম্বর ছেলবন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রর পাশের লবন মাঠ থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় অস্ত্র ও হেলমেট উদ্ধার করা হয়। র‍্যাব-৭ এর চান্দগাঁও ক্যাম্প কমান্ডার মেজর মেহেদী হাসান বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন।

মেজর মেহেদী হাসান বলেন, সকাল সাড়ে ১১টায় ছেলবন সরকারি প্রাইমারি স্কুল কেন্দ্রের পাশে পরিত্যক্ত অবস্থায় একটি বন্দুক, ৮টি হেলমেট ও কিছু লাঠি পাওয়া গেছে। কারা এসব রেখেছে তা তদন্তসাপেক্ষে বলা যাবে। বাঁশখালী উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নে বুধবার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

নির্বাচনে শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে সকাল থেকেই র‍্যাব মাঠে রয়েছে বলে জানান তিনি।


আরও খবর



১৬ ফুট বালির নিচ থেকে উদ্ধার স্বর্ণ ব্যবসায়ীর মরদেহ, গ্রেফতার চার

প্রকাশিত:Thursday ০২ June 2০২2 | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৫৭জন দেখেছেন
Image

নয়ন মন্ডলকে (২৬) ব্যবসা করার জন্য রিপন মন্ডলের মাধ্যমে ১০ লাখ টাকা ধার দেন স্বর্ণ ব্যবসায়ী অনুপ বাউল (৩৪)। পাওনা টাকা নিয়ে দুজনের মধ্যে বিরোধের সৃষ্টি হয়। এই বিষয়কে কেন্দ্র করে অনুপ বাউলকে হত্যার পরিকল্পনা করেন নয়ন। পরিকল্পনা অনুযায়ী রিপনসহ চারজন অনুপ বাউলকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন। হত্যার পর অনুপ বাউলের মরদেহ মাটি কাটার ভেকু দিয়ে ৪ ফিট গভীর করে বালির নিচে পুঁতে রাখেন রিপন মন্ডল।

এ ঘটনার পাঁচ মাস পর নিখোঁজ স্বর্ণ ব্যবসায়ী নিহত অনুপ বাউলের মরদেহ ১৬ ফুট বালির নিচ থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। এ হত্যাকাণ্ডে জড়িত চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তারা হলেন- ভেকুর মালিক রিপন মন্ডল (২৬), নয়ন মন্ডল (২৬), পিযুষ করাতি (২৫) ও দিলীপ চন্দ্র রায়।

বৃহস্পতিবার (২ জুন) বিকেলে ধানমন্ডির পিবিআই সদরদপ্তরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন সংস্থাটির প্রধান অতিরিক্ত আইজিপি বনজ কুমার মজুমদার।

তিনি বলেন, গত জানুয়ারি মাসের ৪ তারিখ অর্থাৎ পাঁচ মাস আগে মুন্সিগঞ্জের সিরাজদী খাঁন এলাকা থেকে শ্বশুরবাড়ি মাদারীপুর যাওয়ার পথে নিখোঁজ হন স্বর্ণ ব্যবসায়ী নিহত অনুপ বাউল। এ ঘটনায় পরদিন ৫ জানুয়ারি নিখোঁজের ছোট ভাই বিপ্লব বাউল একটি জিডি করেন।

অতিরিক্ত আইজিপি বনজ কুমার মজুমদার বলেন, বিষয়টি চাঞ্চল্যকর হওয়ায় সিরাজদী খাঁন থানা পুলিশের পাশাপাশি র্যাব, ডিবি ও পিবিআই মুন্সিগঞ্জ জেলা তদন্ত শুরু করে। পিবিআই মুন্সিগঞ্জ জেলা জিডির তদন্ত করতে গিয়ে ভিকটিমের ছোট ভাই বিপ্লব বাউলকে কেরানীগঞ্জ মডেল থানায় একটি অপহরণ মামলা করার পরামর্শ দেন। পরে বিপ্লব বাউল বাদী হয়ে ৪ ফেব্রুয়ারি কেরানীগঞ্জ মডেল থানা অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে একটি অপহরণ মামলা করেন। থানা পুলিশ মামলাটি প্রায় তিন মাস তদন্ত হওয়ার পর রহস্য উদ্ঘাটন না হওয়ায় গত ২১ এপ্রিল পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের নির্দেশে মামলাটির তদন্তভার পায় পিবিআই ঢাকা জেলা।

১৬ ফুট বালির নিচ থেকে উদ্ধার স্বর্ণ ব্যবসায়ীর মরদেহ, গ্রেফতার চার

তিনি বলেন, তদন্তভার দেওয়া হয় পিবিআইয়ের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. সালে ইমরানের ওপর। তিনি প্রথমে হত্যাকাণ্ডে জড়িত রিপন ও ড্রামে করে মরদেহ বহনকারী অটোরিকশাচালককে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। তাদের থেকে প্রাপ্ত তথ্য, গোয়েন্দা তথ্য ও প্রযুক্তির সহযোগিতা নিয়ে সন্দেহভাজন হিসেবে রিপনকে চিহ্নিত করা হয়। তারপর অনেকটা নিশ্চিত হয়ে আসামি রিপন, পিযুষ, নয়ন ও দিলীপকে গ্রেফতার করা হয়।

‘তাদের দেওয়া তথ্যমতে, মরদেহ গুমের স্থান চিহ্নিত করা হয়। এরপর গতকাল বুধবার ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প (বিসিক) বোয়ালখালী সিরাজদী খাঁন এলাকায় রিপন তার নিজস্ব ভেকু চালিয়ে ১৬ ফিট গভীর বালির নিচ থেকে ভিকটিমের অনুপ বাউলের অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার করেন।

বনজ কুমার বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আসামিরা জানান, নিহত অনুপ বাউলের স্বর্ণ ব্যবসার পার্টনার নয়ন মন্ডল। তাদের দুজনের মধ্যে পাওনা টাকা নিয়ে বিরোধ ছিল। এই বিষয়কে কেন্দ্র করে নয়ন মন্ডল স্বর্ণ ব্যবসায়ী অনুপ বাউলকে খুনের পরিকল্পনা করে। নয়ন তার চাচাতো ভাই রিপন, পিযুষ ও দিলীপের সাহায্য নিয়ে অনুপ বাউলকে হত্যা করে। গত ৪ জানুয়ারি সকালে পাওনা টাকা দেওয়া ও মাদারীপুরে স্বর্ণের অর্ডার পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে অনুপ বাউলকে জয়েনপুরে ডেকে নিয়ে আসেন নয়ন মন্ডল। জয়েনপুরে রিপনের মন্ডলের গ্যারেজে আগে থেকে অপেক্ষমাণ রিপন মন্ডল, পিযুষ ও দিলীপের সঙ্গে নয়ন ও অনুপ বাউল একত্রিত হয়। ওই সময় পাওনা টাকা নিয়ে ভিকটিম অনুপ বাউলের সঙ্গে তাদের ঝগড়া শুরু হয়।

১৬ ফুট বালির নিচ থেকে উদ্ধার স্বর্ণ ব্যবসায়ীর মরদেহ, গ্রেফতার চার

তিনি আরও বলেন, একপর্যায়ে চারজন মিলে অনুপ বাউলকে গ্যারেজের খাটের মধ্যে ফেলে কাপড় দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। হত্যার পর লাশ একটি ড্রামে ভরে রাখে। পরে বিকেল ৩টায় আসামিরা অটোরিকশা করে লাশ ভর্তি ড্রামটি মুন্সিগঞ্জের সিরাজদী খান থানার বোয়ালখালীস্থ বিসিক এলাকায় বালুর মাঠের কাছে নিয়ে যান। অটোরিকশাচালক চলে গেলে আসামিরা ড্রামটিকে বালুর মাঠের ভেতরে নিয়ে যান। তারপর কাদাযুক্ত একটি স্থানে লাশ পুঁতে ফেলে আসামিরা চলে যায়।

পিবিআই প্রধান বলেন, লাশ পুঁতে রাখার পর নয়ন তার প্রতিবেশী পিংকুর বাসায় গিয়ে গোসল করেন। যেহেতু নিহত অনুপ নয়নকে নিয়ে মাদারীপুর যাওয়ার কথা ছিল, তাই নিহতের লোকজন নয়নকে অনুপের বিষয়ে বারবার জিজ্ঞাসাবাদ করে। সাক্ষাতের বিষয়টি অস্বীকার করে নিখোঁজ অনুপকে খোঁজাখুঁজিতে অংশ নেয় নয়ন। বিভিন্ন সংস্থা নয়ন ডেকে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তিনি হত্যার বিষয়টি অস্বীকার করেন।

আসামিদের আদালতে সোপর্দ করার কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন বলেও জানান পিবিআইয়ের এই কর্মকর্তা।


আরও খবর