Logo
আজঃ সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

সোহেল খান কে ৬৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে দেখতে চায় নেতা-কর্মীরা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১১ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৬৮১জন দেখেছেন

Image

আর হানিফ: যাত্রাবাড়ী থানা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ঘিরে তৃণমূলের নেতাকর্মীদের মাঝে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা বিরাজ করছে। এবারের সম্মেলনে তৃণমূল তাদের পছন্দের নেতা হিসেবে ৬৪ নং ওয়ার্ডে সোহেল খান কে সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত করতে তৃণমূলের ব্যাপক তোড়জোড় লক্ষ্য করা গেছে।বিভিন্ন গনমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই নেতার ভূয়সী প্রসংশা করে অনেক প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।তার নেতৃত্ব গুনের কারনেই তিনি ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন এর ৬৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হবেন এমনটাই প্রত্যাশা স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা-কর্মীদের। সোহেল খান জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অকুতোভয় বীর যোদ্ধা।

আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ত্যাগী নেতা কর্মীদের মূল্যায়ন করতে চায় আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ।দুর্দিনে যারা অনেক ত্যাগ-তিতিক্ষা স্বীকার করে দলে কাজ করেছিলেন সেইসব নেতাদের এবারে ওয়ার্ড কমিটিতে গুরুত্বপুর্ন পদে অন্তর্ভুক্ত করতে চান।যাত্রাবাড়ি থানা আওয়ামীলীগের এি-বার্ষিক সম্মেলনকে ঘিরে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন এর ৬৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী জনপ্রিয়তা শীর্ষে সাবেক তুঁখোড় সাহসী ছাএনেতা বৃহত্তর মাতুয়াইল ইউনিয়ন ছাএলীগের তৎকালীন ২০০২ হতে ২০১৩ পর্যন্ত সফল দায়িত্ব প্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক জননেতা সোহেল খানঁ।গত ২০১৭ সালে বৃহত্তর মাতুয়াইল ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগের সহ-সভাপতি হিসেবে সফলতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করেন। ঢাকা-০৫ আসন উপ-নির্বাচনে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন ৬৪ নং ওয়ার্ড নির্বাচনী পরিচালনা কমিটির যুগ্ন-সদস্য সচিব এর দায়িত্ব পালন করেন।সর্বশেষ ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন মেয়র নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী ব্যারিস্টার ফজলে নুর তাপসকে বিজয়ী করতে সর্বাত্মক ভুমিকা পালন করেন।এছাড়াও ,তিনি করোনা মহামারী দুর্যোগ এর সময় ৬৪ নং ওয়ার্ড এলাকায় নিরীহ মানুষ ব্যাপক সাহায্যে সহযোগিতা করেছেন।তিনি বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত আছেন।

ডিএসিসির ৬৪ নং ওয়ার্ডের সাবেক সফল ছাএনেতা সোহেল খাঁন এর এলাকায় ব্যাপক সুনাম রয়েছে।দলের দুঃসময়ে যখন কাউকে খুঁজে পাওয়া যায়নি, তখন নির্যাতিত নেতা-কর্মীরা সোহেল খান এর  কাছে আশ্রয় পেয়েছিলেন।সাবেক ছাএনেতা সোহেল খাঁন ২০০৪ সালে তৎকালীন বিএনপি-জামাত জোট সরকারের আমলে মিথ্যা হত্যা মামলার শিকার হয়ে দীর্ঘ তিন মাস কারাবরণ করেছিলেন।যার মামলা নং-৪৪১/২০০৪।এছাড়াও তৎকালীন সময়ে মাতুয়াইল ইউনিয়ন ছাএলীগ সংগঠন ছিলো বৃহওর ডেমরা থানা শক্তিশালী সংগঠন।তিনি জোট সরকারের বিরুদ্ধে রাজপথে আন্দোলনরত অবস্থায় একাধিকবার জেল-জুলুম নির্যাতনের শিকার হয়েছিলেন।সাবেক আওয়ামী লীগের নেতা শরীফ মোজাম্মেল হত্যার প্রতিবাদ সমাবেশে তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেএী বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে রাজধানী জুরাইনে সমাবেশ সফল করে বাড়ী ফিরে আসার সময়ে পথিমধ্যে তৎকালীন সরকারী পেটোয়া বাহিনীর হাতে গ্রেফতার হয়ে দীর্ঘদিন কারাবন্দী ছিলেন।

গত ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি নির্বাচন পরবর্তী সময়ে স্বাধীনতা বিরোধীদে বিএনপি-জামাতের আগুন সন্ত্রাস,গাড়িতে পেট্রোল বোমা নিক্ষেপসহ  জ্বালাও পোড়াঁও আন্দোলনে কোনাপাড়া কাঠের পুল এলাকায় নিরীহ বাস যাএীদের উপর পেট্রোল বোমা নিক্ষেপে গুরুতর আহত যাএীদের দ্রুত হাসপাতালে নেওয়া সু চিকিৎসা নিশ্চিত করতে গিয়ে সেচ্ছাসেবীর ভূমিকা পালন করেন তিনি। 

এবং ব্যাক্তিগত ভাবে দূস্কৃতিকারীদের প্রতিহত করতে গিয়ে গুরুতরভাবে আহত হন। সরকার বিরোধী সড়যন্ত্র প্রতিহত করতে বিএনপি-জামাত কর্তৃক জ্বালাও পোড়াও কর্মসূচি প্রতিবাদ করতে গিয়ে রাজপথে বহু বার শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়ে হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন।ডিএসসিসির ৬৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগকে বর্তমানে সুসংগঠিত রেখেছেন সোহেল খাঁন।তার নেতৃত্ব এই অঞ্চলের আওয়ামীলীগ নেতা--কর্মীদের মাঝে প্রানচাঞ্চল্য ফিরে  এসেছে।দলের জন্য সদা-সর্বদা নিবেদিত সক্রিয় নেতার ভুমিকা পালন করে আসছেন তিনি।সোহেল  খান আওয়ামী লীগের একজন দক্ষ রাজনৈতিক নেতা,তার চৌকস নেতৃত্বের কারনে বিএনপি-জামাত এই অঞ্চলে নাশকতামুলক কর্মকান্ড করার আগে অন্তত দশবার চিন্তা করে।

ডিএসসিসি ৬৪ নং ওয়ার্ড জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি নয়ন মোল্লা বলেন,স্থানীয় আওয়ামীলীগকে সংগঠিত করতে সোহেল খান যে গুরুত্বপুর্ন ভূমিকা পালন করে আসছেন তা অতুলনীয়,তার মতো যোগ্য ব্যাক্তি ৬৪ নং ওয়ার্ড  আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত হলে দল আগামীতে আরো গতিশীল হবে।

সর্বোপরি সবদিক বিবেচনায় ডিএসসিসির ৬৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক পদে ত্যাগী নেতা হিসেবে যোগ্যতার মুল্যায়ন হিসেবে সোহেল খান কে নির্বাচিত করলে নেতা-কর্মীদের আশা আকাঙ্খার প্রতিফলন ঘটবে।


আরও খবর



ঢাকায় আসতে পারেন শাহরুখ খান

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ১৪০জন দেখেছেন

Image

বিনোদন ডেস্ক:২০১০ সালে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে আগমন করেছিলেন বলিউড বাদশাহ শাহরুখ খান। ১৪ বছর পর আবারও ঢাকায় পা রাখতে পারেন এই নায়ক। সম্প্রতি গণমাধ্যমে শাহরুখকে নিয়ে আসার ব্যাপারে আশা ব্যক্ত করেছেন অন্তর শোবিজের কর্ণধার স্বপন চৌধুরী। তার হাত ধরেই প্রথমবারের মতো বাংলাদেশের মাটিতে পা রেখেছিলেন কিং খান। সেই স্বপন চৌধুরী চাইছেন ২০২৪ সালেই শাহরুখকে আবারও বাংলাদেশে নিয়ে আসতে।

এ বিষয়ে অন্তর শোবিজের কর্ণধার বলেন, ‘শাহরুখ খানকে বাংলাদেশে আমরাই নিয়ে এসেছিলাম। তার সঙ্গে আমাদের পারিবারিক সম্পর্ক রয়েছে। যেহেতু তিনি খুবই ব্যস্ত তারকা, আশা করছি তার শিডিউল মিললে চলতি বছরই তাকে ঢাকায় দেখতে পাবেন ভক্তরা।

স্বপন চৌধুরী মনে করেন, বর্তমানে শাহরুখ খানের গ্রহণযোগ্যতা আরও বেড়েছে। বিশেষ করে তার পরপর তিনটি সিনেমা সুপারহিট তকমা পাওয়ায় বাংলাদেশেও কিং খানকে ঘিরে এক ধরনের উন্মাদনা তৈরি হয়েছে। সে কারণে চলতি বছরেই বলিউড বাদশাহকে বাংলাদেশে নিয়ে আসার পরিকল্পনা করা হচ্ছে। তবে শাহরুখ খানের তরফ থেকে এ বিষয়ে কোনো বিবৃতি বা বক্তব্য নিশ্চিত করা যায়নি।

উল্লেখ্য, ২০১০ সালে লাইভ কনসার্টে অংশ নিতে ঢাকায় আসেন শাহরুখ। সে সময় এই তারকার সঙ্গে ছিলেন রানি মুখার্জি, অর্জুন রামপালসহ অনেকেই। প্রায় কয়েক ঘণ্টার স্টেজ পারফরম্যান্সে ঢাকা মাতিয়ে যান বলিউড বাদশাহ।


আরও খবর

ধ্রুব মিউজিক স্টেশনের ৭ম বর্ষপূর্তি

শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪




তানোরে ছুরিকাঘাত ও জবাই করে হত্যা; শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে লাশ হলেন

প্রকাশিত:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৩৫জন দেখেছেন

Image
আব্দুস সবুর তানোর থেকে:রাজশাহীর তানোরে শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে বাড়ী যাওয়ার সময় এক আওয়ামী লীগ কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে  নিশ্চিত হওয়া গেছে। মঙ্গলবার  রাতে উপজেলা পরিষদ চত্বরের শহিদ মিনারে ফুল দিয়ে বাড়ি ফেরার সময় ছুরিকাঘাত ও এলোপাতাড়ি কোপে হত্যা করা হয় জিয়ারুল হক নামের এক যুবককে। তার বাড়ি  তালন্দ ইউনিয়নের বিলশহর গ্রামে। সে মৃত মোহর মন্ডলের পুত্র।   

বুধবার ভোরে গ্রামের একটি সড়কের প্রান্ত থেকে তার ক্ষতবিক্ষত লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশ কে খবর দিলে উদ্ধার করে পুলিশ। ময়নাতদন্তের জন্য জিয়ারুলের লাশ রাজশাহী মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়েছে। জিয়ারুলের মৃত্যুর খবরে স্ত্রী সহ পরিবারে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। স্ত্রী সন্তানরা জ্ঞান হারিয়ে ফেলছেন, আর চিৎকার দিয়ে মাটিতে নুয়ে পড়ছেন। সকাল থেকেই কয়েকগ্রামের মানুষ বিলশহরগ্রামে উপস্থিত হয়ে পরিবারের লোকজন দের সান্ত্বনা দিচ্ছেন।
এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার দিবাগত গভীর রাতে তানোর উপজেলা সদরে দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে শহিদ মিনারে ফুল দিয়ে নিজের মোটরসাইকেলে করে পাঁচ কিলোমিটার দূরে নিজ বাড়ি বিলশহর গ্রামের দিকে চলে যান জিয়ারুল। বুধবার ভোরের দিকে পুকুরে মাছ ধরতে যাওয়া লোকজন সড়কের পার্শ্ববর্তী একটি জায়গায় জিয়ারুলের লাশ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেন। সকাল ৮টায় পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে জিয়ারুলের মরদেহ উদ্ধার করে। জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, জিয়ারুলকে শক্ত কোনো বস্তু দিয়ে প্রথমে মাথায় আঘাত করা হয়েছে। এরপর মাথায় ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো অস্ত্র দিয়ে উপর্যুপরি আঘাত করার পর পেটে কয়েকবার ছুরিকাঘাত করা হয়েছে। অন্য কোথাও হত্যা করে জিয়ারুলের মরদেহ বিলশহর গ্রামের উত্তরপ্রান্তে ফেলে দেওয়া হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

জানা গেছে, নিহত জিয়ারুল হক তালন্দ ইউনিয়নের বিলশহর গ্রামের মোহর আলির ছেলে। জিয়ারুল রাজশাহী-১ (গোদাগাড়ী-তানোর) আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি গোলাম রাব্বানীর চাচাতো ভাই। 

গোলাম রাব্বানী অভিযোগে বলেছেন, গত ৭ জানুয়ারির সংসদ নির্বাচনে জিয়ারুল তার পক্ষে ব্যাপকভাবে কাজ করেন। ওই নির্বাচনে জিয়ারুলের ব্যাপক ভূমিকার কারণে লালপুর স্কুল ভোটকেন্দ্রে স্বতন্ত্র প্রার্থীর কাঁচি প্রতীক, নৌকা প্রতীকের চেয়ে ছয় শতাধিক ভোট বেশি পেয়েছিল। ভোটের পর থেকে প্রতিপক্ষরা ব্যাপক হুমকি ধামকি দিয়ে আসছিলে । স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে কাজ করায় প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসীরা জিয়ারুলকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে বলে দাবি করেছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী গোলাম রাব্বানী। 

এদিকে এলাকাবাসী ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, গত সংসদ নির্বাচনে তালন্দ ইউপি চেয়ারম্যান নাজিমুদ্দিন বাবু ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসান মেম্বারের কর্মী সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা চলে আসছে। নিহত জিয়ারুল ছিলেন বাবু চেয়ারম্যানের পক্ষের লোক। গত সংসদ নির্বাচনে বাবু চেয়ারম্যানসহ তার পক্ষের নেতাকর্মীরা স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে কাজ করেন। গত ৭ জানুয়ারি ভোটের ফলাফল প্রকাশের পরদিন এলাকার সংসদ সদস্য ওমর ফারুক চৌধুরীর ঘনিষ্ঠ হাসান মেম্বারের নির্দেশে নিহত জিয়ারুলের একটি গভীর নলকূপে তালা মেরে দেন। গত কয়েকদিন আগে নিহত জিয়ারুলের একটি কাঁচামালের গুদামে অগ্নিসংযোগ করা হয়। জিয়ারুলকে এলাকা ত্যাগের জন্য হুমকি দিয়ে যাচ্ছিল হাসান মেম্বারের ক্যাডাররা। জিয়ারুল তার নিরাপত্তাহীনতার কথা থানা পুলিশকেও জানিয়েছিলেন।
এদিকে গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে হাসান মেম্বারের কীটনাশকের দোকানে আগুন দেয় দূর্বৃত্তরা। এরপর থেকে ওই এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছিল।

এলাকাবাসী আরও জানায়, গত কিছুদিন ধরে হাসান মেম্বারের সশস্ত্র ক্যাডার ফরহাদ, শাওন, মিঠু, ও হাসান মেম্বারের ভাই হাকিম বাবুসহ ক্যাডাররা নিহত জিয়ারুলকে নারায়ণপুর বাজার মোড়ে ঘেরাও করেছিল। কিন্তু জিয়ারুল দ্রুত মোটরসাইকেলে চড়ে স্থান ত্যাগ করায় ওইদিন প্রাণে বেঁচে যান। বুধবার ভোরে পুলিশ ফরহাদ, রাসেল ও হাসান মেম্বারের দ্বিতীয় স্ত্রী তারাবানুকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে থানায় নিয়ে আসেন পুলিশ । অন্যদিকে আওয়ামী লীগ নেতা হাসান মেম্বারসহ তার ক্যাডাররা ঘটনার পর থেকে  এলাকা ছেড়ে পালিয়েছেন।হাসান মেম্বারের মোবাইলে ফোন দেয়া হলে বন্ধ পাওয়া যায়।নিহত জিয়ারুলের স্বজনরা জানায়, তার তিন ছেলে সন্তান রয়েছে। বড় ছেলে আওতা অনার্সে পড়ে,  মেজো ছেলে অলি ৪র্থ শ্রেণীতে পড়ে এবং জিহানের বয়স চার বছর।  

ঘটনার বিষয়ে জানতে  থানার ওসির মোবাইলে কল করা হলে এসআই আনোয়ার  বলেন, জিয়ারুল হত্যায় জড়িত সন্দেহে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিনজনকে আটক করা হয়েছে। পুলিশ হত্যাকাণ্ডের তদন্ত শুরু করেছে এবং লাশ ময়না তদন্তের জন্য রামেক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আরও খবর



ঢাকা-১৭ আসনের সকল নাগরিক সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দিলেন আরাফাত

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১০১জন দেখেছেন

Image
মারুফ সরকার, স্টাফ রিপোর্টার: তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ আলী আরাফাত আজ বলেছেন, তিনি ঢাকা-১৭ আসনের বাসিন্দাদের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখবেন এবং তাদের ভোটে নির্বাচিত একজন সংসদ সদস্য হিসেবে তাদের সমস্যা সমাধানে তার প্রচেষ্টা থাকবে।
তিনি বলেন, ‘আমি এই নির্বাচনী এলাকার প্রতিটি ওয়ার্ডের এমনকি প্রতিটি মানুষের কাছ থেকে  আপনাদের কথা শুনব এবং আপনাদের পক্ষে কাজ করব। ’

রাজধানীর বনানী বিদ্যানিকেতন স্কুল এন্ড কলেজ মাঠে ঢাকা-১১-এর সংসদ সদস্য মো. ওয়াকিল উদ্দিনকে দেওয়া সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আরাফাত এসব কথা বলেন।তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী এবং এ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ায় আরাফাতের জন্য  ঢাকা মহানগর উত্তরের ১৯ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ এ সম্বর্ধনার আয়োজন করে।বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার অঙ্গীকারও করেন আরাফাত।তিনি বলেন, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন গণতন্ত্রকে রক্ষা করেছে এবং দেশে গণতান্ত্রিক চর্চা নিশ্চিত করেছে।

এ নির্বাচন শুধু সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার জন্য নয় বরং  যারা নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দিয়েছিল  এটা তাদের জন্য যথার্থ জবাব বলেও  উল্লেখ করেন প্রতিমন্ত্রী ।
নির্বাচন কমিশনের ঘোষণা অনুযায়ী ভোটার উপস্থিতি ৪১ দশমিক ৮ শতাংশ ছিল উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী  বলেন দেশে বসবাস করছেন না  এবং দেশের মধ্যেও এক স্থান থেকে  অন্য স্থানে চলে  গেছেন  তাদেরটা হিসেব করা হয়নি।

প্রায় ১.২৭ কোটি ভোটার অর্থাৎ আমাদের দেশের ১০ শতাংশ ভোটার দেশে থাকেন না এবং ১০-১৫ শতাংশ ভোটার দেশের  মধ্যেই স্থান পরিবর্তন  করেছেন,  কিন্তু তারা নির্বাচন কমিশনকে অবহিত করেন না।সুতরাং, আমরা যদি ভোটারের প্রকৃত হার নির্ধারন  করতে চাই তবে আমাদেরকে ৭৫ শতাংশ ভোটারের মধ্যে গণনা করতে হবে।  কারণ আপনি প্রতিটি আসনে গড়ে ২৫ শতাংশ ভোটার খুঁজে পাবেন না। সুতরাং, আমরা বলতে পারি প্রায় ৬০ শতাংশ ভোটার নির্বাচনে তাদের ভোট দিয়েছেন। একই সমস্যা তার নির্বাচনী এলাকায়ও রয়েছে।

নির্বাচন নিয়ে স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিএনপি ও তাদের দোসরদের ভোট বর্জনের  আহ্বান ও হুমকির মধ্যেও জনগণ ভোট দিয়ে নির্বাচন সফল করেছে।
তিনি বলেন, বিএনপি ও তাদের মিত্ররা নির্বাচন বানচাল করতে হরতাল, অবরোধ ইত্যাদি ডেকে বাস, ট্রেনের  কোচে আগুন দেওয়াসহ নাশকতামূলক কর্মকান্ড চালালেও জনগণ নির্বাচনে ভোট দিয়ে তাদের যথাযথ  জবাব দেওয়ায় তারা ব্যর্থ হয়েছে।

১৯ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ  সভাপতি ও ওয়ার্ড কাউন্সিলর বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. মফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ বজলুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক এস এম মান্নান কচি এবং আওয়ামী লীগের ঢাকা মহানগর উত্তর শাখার সহ-সভাপতি ওয়াকিল উদ্দিন এমপি  প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য গোলাম রব্বানী চিনু, বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শবনম জাহান শিলা, বনানী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা এ কে এম জসিম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক মীর মোশাররফ হোসেন প্রমুখ।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের পর বর্ণাঢ্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

আরও খবর



গোদাগাড়ীতে চীনের বর্ষবরণ পালিত

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৯৬জন দেখেছেন

Image

রাজশাহী গোদাগাড়ী প্রতিনিধিঃরাজশাহীর গোদাগাড়ীতে উৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে চীনের বর্ষবরণ পালিত হয়েছে।শনিবার(৩ রা ফেব্রয়ারী) বিকাল ৩টা থেকে গভীর রাত পর্যন্ত ব্যাপক আয়োজনে চীনা বর্ষবরণ করে ওয়াসার ভুউপরিস্থ পানি সরবারহ প্রকল্পর কাজে নিয়োজিত চীনের ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান হুনান নির্মাণ ইঞ্জিনিয়ারিং গ্রুপ কোং, লিমিটেড। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন রাজশাহী ওয়াসার উপ মহাব্যবস্থাপক(যুগ্ন সচিব) এস এম তুহিনুর আলম,উপমহাব্যবস্থাপক মোঃ আল্লাহ হাফিজ,প্রকল্প পরিচালক পারভেজ মাবুদ,চীনা ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের প্রধান প্রকৌশলী মিঃ ফান জিং।অনুষ্ঠানে খেলাধুলা ও সাংষ্কৃতিক অনৃষ্ঠানে বিভিন্ন পরিবেশনা করেন চীনা নাগরিকরা।অনুষ্ঠানটি সার্বিকভাবে তত¦বাধায়ন করেন,প্রকল।সহকারী কর্মাশিয়াল ম্যানেজার প্রকৌশলী আবু রুবায়েত।অনুষ্ঠানটি উপস্থপনা করেন,চীনের নারী ঝুকুইয়ুয়ান।


আরও খবর



ফুলবাড়ী থানা প্রেসক্লাবের ত্রি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৮৫জন দেখেছেন

Image

ফুলবাড়ী, দিনাজপুর প্রতিনিধি:দিনাজপুরের ফুলবাড়ী থানা প্রেসক্লাবের ত্রি-বার্ষিক নির্বাচনে সভাপতি মোঃ আফজাল হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ ফিজারুল ইসলাম ভুট্ট নির্বাচীত হন।রবিবার দুপুর ১২টায় ফুলবাড়ী থানা প্রেসক্লাবে ফুলবাড়ী থানা প্রেসক্লাবের ত্রি-বার্ষিক নির্বাচন ৩০ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন হয়। এতে সহ-সভাপতি মোঃ আশরাফুল আলম, মোঃ মোশারফ হোসেন, মোঃ আসাদুজ্জামান আসাদ, সহ-সাধারণ সম্পাদক মোঃ জাহিদুল ইসলাম জাহিদ, সঞ্জয় কুমার, মোঃ এমরান হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আল আমিন বিন আমজাদ, কোষাধ্যক্ষ সোহাগ কিবরিয়া, প্রচার সম্পাদক আরিফুল ইসলাম আরিফ, দপ্তর সম্পাদক মোরশেদুল রহমান, সাহিত্য সম্পাদক এসএম জাকির হায়দার, সাংস্কৃতিক সম্পাদক লিটন হায়দার, ক্রীড়া সম্পাদক হাফিজুর রহমান,সমাজকল্যান সম্পাদক ফয়জার রহমান ও সদস্য শ্রী প্রবীর গাঙ্গুলী, রাফিউল ইসলাম, শফিকুল ইসলাম জুয়েল, লাতু খান, বীরেন্দ্রনাথ শর্মা কৈলাশ, মোঃ নূর ইসলাম, শাহানুর রহমান শাওন, শাহাজালাল, রবিউল ইসলাম, জাহেদুল ইসলাম, আরিফুল ইসলাম, অরুন কুমার, মোঃ আবু হেলাল সরকার ও মেহেদী হাসান রুবেল। ফুলবাড়ী থানা প্রেসক্লাবের ত্রি- বার্ষিক নির্বাচনে ৩০ সদস্য বিশিষ্ট্য কমিটি গঠন করা হয়। এ সময় ফুলবাড়ী থানা প্রেস ক্লাবের নব-নির্বাচিত কমিটির সকল সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর