Logo
আজঃ Wednesday ১০ August ২০২২
শিরোনাম
নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে ২৪৩৫ লিটার চোরাই জ্বালানি তেলসহ আটক-২ নাসিরনগরে বঙ্গ মাতার জন্ম বার্ষিকি পালিত রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড

সঙ্গী মানসিকভাবে নির্যাতন করছে কি না বুঝে নিন ৪ লক্ষণে

প্রকাশিত:Friday ০৩ June ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১০ August ২০২২ | ৭৬জন দেখেছেন
Image

দাম্পত্য সম্পর্ক টিকিয়ে রাখার দায়িত্ব নারী-পুরুষ উভয়ের উপরই বর্তায়। তবে বিভিন্ন কারণে দাম্পত্য কলহের সৃষ্টি হয়। যদি দাম্পত কলহ কখনো কখনো সম্পর্ক মধুর করে তোলে আবার কখনো বিচ্ছেদের কারণ হয়েও দাঁড়ায়।

অনেক প্রেমিক-প্রেমিকা কিংবা স্বামী-স্ত্রী আছে যারা সঙ্গীর প্রতি একটু বেশিই সতর্ক থাকেন। তারা সঙ্গীকে কোনো বিষয়েই ছাড় দিতে চান না। আর এ কারণে সমস্যা দেখা দেয় দাম্পত্যে।

অন্যজন ভেবে অবাক হয়ে যান কেন তার সঙ্গী এমন ব্যবহার কেন করছেন? কখনো কারও সঙ্গে কথা বলা নিয়ে সন্দেহ করেন সঙ্গী তো আবার কোথায় যাওয়ার বিষয়ে কৈফিয়ত দিতে হয়। এসব কারণে অন্য সঙ্গী মানসিকভাবে নির্যাতনের শিকার হন।

যদিও এমন বিষয়কে বেশিরভাগ মানুষই অতিরিক্ত ভালোবাসার নমুনা হিসেবে বিবেচনা করেন। তবে সঙ্গীর এমন ব্যবহার অন্যজনের মানসিক নির্যাতনের কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

কয়েকটি লক্ষণ আছে যার মাধ্যমে বুঝতে পারবেন সঙ্গী দ্বারা আপনি মানসিকভাবে নির্যাতিত বা অত্যাচারের শিকার হচ্ছেন কি না। চলুন তা চেনে নেওয়া যাক-

>> একটি সম্পর্ক টিকিয়ে রাখতে একে অন্যের প্রতি সম্মান রাখা জরুরি। যখনই দাম্পতির মধ্যে সম্মান কমে যাবে তখন ভালোবাসাতেও ভাটা পড়বে।

আপনি যদি সঙ্গীর কাছ থেকে কথায় কথায় অপমানিত হন তাহলে সতর্ক হয়ে যান। একবার বা দুবার এমন ঘটনা ঘটলে বারবার তিনি আপনাকে ছোট করার সাহস পেয়ে যাবেন। এটি একসময় আপনার মানসিক নির্যাতনের কারণ হয়ে দাঁড়াবে।

>> কিছু মানুষ আছেন যারা বিভিন্ন বিষয়ে অন্যের খুঁত ও ভুলত্রুটি খুঁজে বের করেন। সব বিষয়েই এমন মানুষেরা সঙ্গীর বিষয়ে অভিযোগ রাখেন। আপনার সঙ্গীও যদি এমন স্বভাবের হন তাহলে বুঝবেন তিনি মানসিকভাবে আপনাকে টর্চার করছেন।

>> মানুষ বিভিন্ন টানাপোড়েনের মধ্য দিয়ে যান। তাই বলে কোনো বিষয়ে সঙ্গীকে অবহেলা করা বা এড়িয়ে চলা উচিত নয়। আপনি বিভিন্ন কারণে দুশ্চিন্তায় থাকতেই পারেন তাই বলে সঙ্গীর সঙ্গে বাজে ব্যবহার কিংবা তা পাত্তা না দেওয়ার বিষয়টি মোটেও সুবিধাপজনক নয়।

আপনার সঙ্গীও যদি মাঝে মধ্যেই এমন করেন তাহলে বুঝবেন তিনি আপনাকে মানসিকভাবে নির্যাতন করছেন। এসব বিষয় নিয়ে খোলাখুলি কথা বলুন।

>> দু’জনের মধ্যে কথায় কথায় ঝামেলা হওয়ার মানে হলো, আপনাদের সম্পর্ক ভালো নেই। যদি আপনার সঙ্গী এমনই মনোভাবের হন তাহলে সাবধান থাকুন।

এ মানুষগুলো কারণে ও অকারণে ঝামেলা করেন। এবার এই মানুষগুলোর থেকে তো আপনাকে অবশ্যই বেঁচে থাকতে হবে। কারণ এটা আপনাকে ছোট করা ছাড়া আর কিছু নয়।

আপনার সঙ্গে এমন হলে কী করবেন?

সঙ্গী আপনার সঙ্গে এই ব্যবহার করতে শুরু করলে অবশ্যই সতর্ক হয়ে যাবেন। এসব বিষয় মুখ বুজে সহ্য করবেন না কিংবা মেনেও নেবেন না। সঙ্গী যদি বুঝতে পারে যে আপনাকে কাবু করা কঠিন তাহলে আর তিনি এমন ট্রিকস খাটাবেন না।


আরও খবর



দেশে বাসগৃহের সংখ্যা সাড়ে ৩ কোটির বেশি

প্রকাশিত:Wednesday ২৭ July ২০২২ | হালনাগাদ:Saturday ০৬ August ২০২২ | ২৪জন দেখেছেন
Image

দেশে সাড়ে তিন কোটির বেশি বাসগৃহ রয়েছে। এর মধ্যে পল্লি এলাকায় ২ কোটি ৭৮ লাখ ১১ হাজার ৬৬৭ ও শহর এলাকায় ৮১ লাখ ৭৯ হাজার ২৮৪টি। সর্বাধিক বাসগৃহের সংখ্যা ঢাকা বিভাগে, ৮১ লাখ ১৯ হাজার ২০৫টি। সর্বনিম্ন সিলেট বিভাগে ১৮ লাখ ৮৫ হাজার ১৭টি।

বুধবার (২৭ জুলাই) নগরীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের আওতায় বিবিএস-এর মাধ্যমে বাস্তবায়িত প্রথম ডিজিটাল জনশুমারি ও গৃহগণনা ২০২২ এর প্রাথমিক প্রতিবেদন প্রকাশনা অনুষ্ঠানে এ তথ্য তুলে ধরা হয়।

পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত আছেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী, জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন, পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম প্রমুখ। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব ড. শাহনাজ আরেফিন। প্রাথমিক প্রতিবেদন বিষয়ক উপস্থাপনা করেন প্রকল্প পরিচালক মো. দিলদার হোসেন।

পরিসংখ্যানে দেখা যায়, বিভাগওয়ারি দেশে পল্লি ও শহরভিত্তিক মোট বাসগৃহের সংখ্যা উপস্থাপন করা হয়েছে। সে হিসাবে দেশে মোট বাসগৃহের সংখ্যা ৩ কোটি ৫৯ লাখ ৯০ হাজার ৯৫১টি। এর মধ্যে পল্লি এলাকায় ২ কোটি ৭৮ লাখ ১১ হাজার ৬৬৭টি এবং শহর এলাকায় ৮১ লাখ ৭৯ হাজার ২৮৪টি। এসবের মধ্যে সর্বাধিক বাসগৃহ ঢাকায়। এর সংখ্যা ৮১ লাখ ১৯ হাজার ২০৫টি। আর সর্বনিম্ন সিলেট বিভাগে ১৮ লাখ ৮৫ হাজার ১৭টি।

এছাড়া বরিশাল বিভাগে ২০ লাখ ৩৪ হাজার ৬৩৮টি। এর মধ্যে পল্লি এলাকায় ১৫ লাখ ৮৫ হাজার ৪৫১টি আর শহরে ৪ লাখ ৪৯ হাজার ১৮৭টি। চট্টগ্রামে ৬৪ লাখ ৫০ হাজার ১৩৩টির মধ্যে পল্লিতে ৪৭ লাখ ৯৮ হাজার ৭৫৫টি, শহরে ১৬ লাখ ৫১ হাজার ৩৭৮টি। ঢাকা বিভাগে ৮১ লাখ ১৯ হাজার ২০৫টির মধ্যে পল্লিতে ৫৭ লাখ ৯৯ হাজার ৯৯৮টি আর শহরে ২৩ লাখ ১৯ হাজার ২০৭টি। খুলনায় ৪৩ লাখ ৩ হাজার ৫৬৩টির মধ্যে পল্লিতে ৩৪ লাখ ৭ হাজার ৫৯টি আর শহরে ৬ লাখ ৯৬ হাজার ৫০৪টি।

এদিকে ময়মনসিংহে ৩০ লাখ ৬২ হাজার ৩৭৮টির মধ্যে পল্লিতে ২৪ লাখ ৭৩ হাজার ৭৮৬টি আর শহরে ৫ লাখ ৮৮ হাজার ৫৯২টি। রাজশাহীতে ৫১ লাখ ২৮ হাজার ৮৬১টির মধ্যে পল্লিতে ৪১ লাখ ৭ হাজার ৯৬৪টি, শহরে ১০ লাখ ২০ হাজার ৮৯৭টি। রংপুরে ৫০ লাখ ৭ হাজার ১৫৬টির মধ্যে পল্লিতে ৪০ লাখ ৪৯ হাজার ৮৮৭টি, শহরে ৯ লাখ ৫৭ হাজার ২৬৯টি এবং সিলেট বিভাগে ১৮ লাখ ৮৫ হাজার ১৭টির মধ্যে পল্লিতে ১৫ লাখ ৮৮ হাজার ৭৬৭টি আর শহরে ২ লাখ ৯৬ হাজার ২৫০টি বাসগৃহ রয়েছে।

খানার (যারা একই পাতিলে খাবার খায়) সংখ্যা বাড়ছে। ১৯৮১ সালে মোট খানার সংখ্যা ছিল ১ কোটি ৫০ লাখ ৭৫ হাজার ৮৮৫টি। যা ২ দশমিক ৭২ গুণ বেড়ে ২০২২ সালে দাঁড়িয়েছে ৪ কোটি ১০ লাখ ১০ হাজার ৫১টি।


আরও খবর



খরায় চা বাগানে রেড স্পাইডারের সংক্রমণ

প্রকাশিত:Tuesday ১৯ July ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১০ August ২০২২ | ৪৯জন দেখেছেন
Image

প্রচণ্ড খরায় চা বাগানে ছড়িয়ে পড়েছে রেড স্পাইডারের সংক্রমণ। ভাইরাসজনিত এ রোগে চা গাছের পাতা লাল হয়ে যায়। আক্রান্ত এলাকা থেকে চা পাতা উত্তোলন বন্ধ থাকে। এতে কাঙ্খিত লক্ষ্যমাত্রা অর্জন নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন চা বাগান সংশ্লিষ্টরা।

চা বাগান সূত্রে জানা গেছে, মৌলভীবাজারের প্রায় বাগানেই এ রোগ ছড়িয়ে পড়েছে। কর্তৃপক্ষ যথাযথভাবে কীটনাশক প্রয়োগ করছে। কিন্তু অব্যাহত দাবদাহে রেড স্পাইডারের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আসছে না।

jagonews24

চলতি বছরে চা উৎপাদনের ভরা মৌসুমে অতিবৃষ্টি ও প্রচণ্ড খরা বয়ে যাচ্ছে। এতে উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা সীমিত পর্যায়ে রয়েছে বলে বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন।

বিভিন্ন চা বাগান ঘুরে দেখা যায়, সবুজ চা পাতা লাল বর্ণ ধারণ করেছে।

কথা হলে মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলার মাথিউরা চা বাগানের ব্যবস্থাপক মো. সিরাজুদ্দৌলা জাগো নিউজকে বলেন, প্রচণ্ড খরায় রেড স্পাইডারের সংক্রমণ দ্রুত ছড়াচ্ছে। আমরা নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য কীটনাশক স্পে করছি। আবহাওয়ার পরিবর্তন না আসলে এ ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে আসবে না। প্রচণ্ড খরায় ব্যাপক হারে রেড স্পাইডারের বংশবৃদ্ধি হচ্ছে।

jagonews24

মৌলভীবাজার রাজনগরের ইটা চা বাগানের সহকারী ব্যবস্থাপক আদিল আহমেদ জাগো নিউজকে বলেন, চা উৎপাদনের জন্য বছরের শুরুটা ভালোই ছিল। কিন্তু জুন মাসের শুরুতে অতিবৃষ্টিতে চা উৎপাদনে বিপর্যয় নেমে আসে। আবার জুলাই মাসে প্রচণ্ড খরা দেখা দেয়। আবহাওয়ার দু’ধরনের এই বিরূপ প্রভাবে চা উৎপাদনে প্রতিকূল অবস্থা বিরাজ করছে।

শ্রীমঙ্গল ভারাউড়া চা বাগানের ব্যবস্থাপক চা বিশেষজ্ঞ জি এম শিবলী বলেন, তীব্র রোদে চা গাছের কচি পাতা গজাচ্ছে না। যেটুকু কুঁড়ি গজাচ্ছে তা লাল মাকড়সা চুষে খেয়ে ফেলছে। এছাড়াও তীব্র খরায় চা গাছের সবুজ পাতা লাল বর্ণ ধারণ করেছে। লাল মাকড়সা ও হেলোফিলিটস রোগ প্রতিরোধে কীটনাশক ব্যবহার করেও কোনো সুফল পাওয়া যাচ্ছে না। প্রথমে দু’একটি বাগানে এ রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দিলেও এখন অনেক বাগানে ছড়িয়ে পড়েছে। এতে চায়ের উৎপাদন ব্যাহত হবে।

jagonews24'

মৌলভীবাজারের লংলাভ্যালীর চেয়ারম্যান রাজনগর চানভাগ চা বাগানের ব্যবস্থাপক মো. মুজিবুর রহমান জাগো নিউজকে বলেন, লংলাভ্যালীর ২২টি বাগানের মধ্যে অর্ধেক বাগানেই রেড স্পাইডারের সংক্রমণ রয়েছে। যে সব বাগানে গরু ছাড়া হয় সেখানেই এই রোগের প্রাদুর্ভাব বেশি দেখা দেয়। গরুর মাধ্যমে রেড স্পাইডার দ্রুত ছড়ায়। রোগ দমনে কীটনাশক ব্যবহার করা হচ্ছে। রেড স্পাইডারে আক্রান্ত বাগানের সংখ্যা ও ক্ষতির পরিমাণের হিসাব মাঠ থেকে না আসলে আমরা সঠিক তথ্য দিতে পারব না।


আরও খবর



নিজস্ব পোর্টফোলিওতে ১০ শতাংশ নতুন বিনিয়োগ করবে মার্চেন্ট ব্যাংক

প্রকাশিত:Tuesday ০২ August 2০২2 | হালনাগাদ:Wednesday ১০ August ২০২২ | ২৯জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব পোর্টফোলিওতে প্রত্যেক মার্চেন্ট ব্যাংক কমপক্ষে ১০ শতাংশ নতুন বিনিয়োগ করবে। নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) এবং বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমবিএ) মধ্যে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বিএসইসির কমিশনার ড. শেখ শামসুদ্দিন আহমদের সভাপতিত্বে মঙ্গলবার বিএসইসির কার্যালয়ে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠক শেষে বিএসইসি থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বৈঠকে বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মোহাম্মদ রেজাউল করিম এবং এমএসআই বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। বিএমবিএর সভাপতি সায়েদুর রাহমানের নেতৃত্বে সংগঠনটির প্রতিনিধিরা বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন।

পুঁজিবাজারে তারল্য বৃদ্ধি, বিনিয়োগকারীদের আস্থা তৈরি বিষয়ে বৈঠকে আলোচনা করে কয়েকটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এরমধ্যে রয়েছে-

>> বিগত সময়ে কিছু মার্চেন্ট ব্যাংক ও পোর্টফোলিও ম্যানেজার নিজস্ব পোর্টফোলিও হিসাব থেকে কিছুটা বিক্রয় চাপ ছিল। ফলে তাদের হিসাবে বর্তমানে কিছুটা বিনিয়োগ যোগ্য তহবিল রয়েছে, তা থেকে প্রত্যেক মার্চেন্ট ব্যাংকারদের নিজস্ব পোর্টফোলিওতে কমপক্ষে ১০ শতাংশ নতুন বিনিয়োগ পুঁজিবাজারে আনার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এটি বাজারে চাহিদা ও তারল্য বৃদ্ধির মাধ্যমে পুঁজিবাজারকে গতিশীল করতে সহায়ক হবে।

>> বিগত সময়ে শেয়ার বিক্রির ফলে অনেক বিনিয়োগকারীর হিসাবে অলস তহবিল পড়ে আছে, যারা বর্তমানে নিষ্ক্রিয় অবস্থায় রয়েছে। এসব বিনিয়োগকারীদের উদ্বুদ্ধকরণের মাধ্যমে পুঁজিবাজারে পুনরায় বিনিয়োগের ব্যাপারে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে। এটি বাজারে চাহিদা ও তারল্য বৃদ্ধির মাধ্যমে পুঁজিবাজারকে গতিশীল করতে সহায়ক হবে।

>> মার্চেন্ট ব্যাংকগুলোর ক্লায়েন্ট সাইজ অনেক বড়। তাদের মধ্যে অনেক ইন-অ্যাকটিভ অ্যাকউন্ট আছে, যাদের সঙ্গে কার্যকর যোগাযোগসহ উদ্বুদ্ধকরণের মাধ্যমে পুঁজিবাজারে নতুন বিনিয়োগের ব্যাপারে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে। এক্ষেত্রে মার্চেন্ট ব্যাংক ও পোর্টফোলিও ম্যানেজারের কর্মকর্তারা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

>> পুঁজিবাজারে সাধারণ বিনিয়োগকারীর তুলনায় প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীর সংখ্যা অনেক কম। এ সংখ্যা বৃদ্ধির মাধ্যমে পুঁজিবাজারে স্থিতিশীলতা আনতে মার্চেন্ট ব্যাংক ও পোর্টফোলিও ম্যানেজাররা প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করবে।


আরও খবর



শরীরের কোন অংশের ব্রণ কোন সমস্যার ইঙ্গিত দেয়?

প্রকাশিত:Tuesday ০২ August 2০২2 | হালনাগাদ:Tuesday ০৯ August ২০২২ | ৩২জন দেখেছেন
Image

মুখের ব্রণ নিয়ে কমবেশি সবাই দুশ্চিন্তায় থাকেন। কারণ ব্রণ ত্বকের সৌন্দর্য নষ্ট করে। শুধু মুখেই কেন শরীরের বিভিন্ন স্থানেও ব্রণ দেখা যায় অনেক সময়। কারও নাকের উপর, কারও আবার চোয়ালে, ঘাড়ে, বুকে, পিঠে কিংবা হাঁটুতে।

তবে শরীরের কোন স্থানে ঠিক কী কারণে ব্রণ হচ্ছে সে বিষয়ে কেউই তেমন জানেন না। চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক শরীরের কোন অংশের ব্রণ কোন সমস্যার ইঙ্গিত দেয়-

মুখে

মুখে কমবেশি সবাই ব্রণের সমস্যায় ভোগেন। মুখের ত্বক অনেক সংবেদনশীল হওয়ায় ঘন ঘন স্পর্শ করার কারণেও ব্রণের সৃষ্টি হতে পারে। মুখের ত্বক ব্রণ হয় মূলত হরমোন ও জেনেটিক্সের কারণে।

তবে যদি প্রায়ই ত্বকে ব্রণের সমস্যায় ভোগেন তাহলে অবশ্যই একজন চর্মরোগ বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিতে হবে। এর পাশাপাশি দিনে দুবার মৃদু বা হালকা ক্লিনজার দিয়ে ত্বক পরিষ্কার করুন, নন-কমেডোজেনিক ও অয়েল ফ্রি প্রসাধনী ব্যবহার করুন।

jagonews24

নাকের উপর

নাকের ত্বকের ছিদ্রগুলো সাধারণত বড় হয়। ফলে ময়লা বা ব্যাকটেরিয়া সহজেই আটকে থাকে। আবার নাকের ত্বকও বেশি তৈলাক্ত হওয়ায় সেখানে ব্রণ হওয়ার ঝুঁকি বেশি।

ডায়েট, স্ট্রেস ও কিছু ওষুধের কারণেও নাকে ব্রণ হতে পারে। কখনো কখনো এটি আরও গুরুতর স্বাস্থ্য সমস্যার লক্ষণ হতে পারে। এক্ষেত্রে টি ট্রি অয়েল যোগ ব্যবহার করুন।

কপালে

চুল তৈলাক্ত হলে কপালে ব্রণ হওয়ার ঝুঁকি বাড়ে। এজন্য চুল নিয়মিত শ্যাম্পু করতে হবে। পোমেড, জেল ও মোমযুক্ত প্রসাধনীতে কোকো বাটার বা নারকেল তেল থাকে যা পরে ত্বককে অতিরিক্ত তৈলাক্ত করে দেয়। এসব ব্যবহারেও সতর্ক থাকুন।

চোয়াল ও ঘাড়

হরমোনের ভারসাম্যহীনতার কারণে এন্ড্রোজেন বেড়ে গেলে চোয়াল ও ঘাড়ে ব্রণ হতে পারে। বেশিরভাগ নারীর ক্ষেত্রে এটি মাসিকচক্রের সময় ওঠানামার কারণে হয়। আবার জন্মনিয়ন্ত্রণের মতো ওষুধ খাওয়ার কারণেও এটি হতে পারে।

jagonews24

গালে

গালে ব্রণ হওয়ার অন্যতম কারণ হলো ফোন ব্যবহার করা। ফোনে কথোপকথনের মাধ্যমে গালের ত্বকে ব্যাকটেরিয়া ছড়ায়, ফলে ব্রণের সৃষ্টি হয়। এছাড়া নোংরা বালিশ ও চাদরে থাকা বিভিন্ন জীবাণুও গালের ব্রণের কারণ হতে পারে।

পিঠে

পিঠের ব্রণ হওয়ার কারণ হতে পারে বডি ক্রিম, ম্যাসাজ অয়েল বা ওয়াক্সের অ্যালার্জি কারণে। আবার অতিরিক্ত ঘামের কারণেও হতে পারে। ঘাম, ত্বকে তেল ও বিষাক্ত পদার্থ একসঙ্গে মিশে লোমকূপের ছিদ্র বন্ধ করে দেয়।
ফলে ব্রণ হতে পারে। অনেকেই আবার গোসলের সময় ভালোভাবে পিঠ পরিষ্কার করেন না। এ কারণে পিঠের ব্রণ বাড়তে থাকে। এছাড়া নোংরা জামাকাপড়, কম্বল, বিছানার চাদর, খুব আঁটসাঁট পোশাকের কারণেও পিঠে ব্রণ হতে পারে।

পায়ে

ব্যাকটেরিয়া, সিবাম ও ত্বকের মৃত কোষ লোমকূপে আটকা পড়ে। ফলে ত্বকের ছিদ্র আটকে ব্রণের সৃষ্টি হয়। অপরিষ্কার পা ও দীর্ঘক্ষণ একই জুতা পরে থাকার কারণে পায়ে ব্রণ হতে পারে।

এছাড়া ফলিকুলাইটিস, একজিমা বা কেরাটোসিস পিলারিসের মতো সমস্যার কারণেও পায়ে ব্রণ হতে পারে। তবে ব্রণে যদি চুলকানি বা ব্যথা হয় তাহলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

বুকে

খুব আঁটসাঁট পোশাক পরার কারণেই বেশিরভাগ সময় বুকে ব্রণ হতে পারে। আবার কিছু নির্দিষ্ট বডি লোশন ব্যবহারের ফলেও বুকে ব্রণ হতে পারে।


আরও খবর



ফুটবল খেলা দেখার সময় মাটি ধসে স্কুলছাত্রের মৃত্যু

প্রকাশিত:Thursday ২৮ July ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১০ August ২০২২ | ১৯জন দেখেছেন
Image

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে ফুটবল খেলা দেখার সময় মাটি ধসে তানভির হোসেন (১১) নামের এক স্কুলছাত্রের মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) সন্ধ্যায় উপজেলার বাতিসা ইউনিয়নের লুদিয়ারা গ্রামে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত তানভির হোসেন বাতিসা ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য (মেম্বার) মো. হেলাল উদ্দিনের ছেলে। সে স্থানীয় লুদিয়ার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

স্থানীয় যুবলীগ নেতা মো. কাজী মানিক সন্ধ্যায় জাগো নিউজকে জানান, স্থানীয় ছেলেরা বিকেলে ননুজুড়ি খালের পাশে একটি জমিতে ফুটবল খেলছিল। তানভির খালের পাড়ে বসে খেলা দেখছিল। হঠাৎ পাড়ের মাটি ধসে তানভির খালের মধ্যে পড়ে পানিতে ডুবে যায়। উপস্থিত স্থানীয়রা দ্রুত তাকে উদ্ধার করে চৌদ্দগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

চৌদ্দগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শুভ রঞ্জন চাকমা জাগো নিউজকে বলেন, লোক মারফতে শুনেছি হেলাল মেম্বারের ছেলে মারা গেছে। বিস্তারিত খোঁজ নেওয়ার চেষ্টা করছি।


আরও খবর