Logo
আজঃ সোমবার ২৪ জুন 20২৪
শিরোনাম

সীতাকুণ্ডে অক্সিজেন প্ল্যান্টে বিস্ফোরণ, নিহত ৫, আহত ৩০

প্রকাশিত:শনিবার ০৪ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৪১৮জন দেখেছেন

Image

সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি: চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড উপজেলার কদমরসুলপুর এলাকায় ‘সীমা অক্সিজেন অক্সিকো লিমিটেড’ নামের একটি কারখানায় বিস্ফোরণে আন্তত পাঁচজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ৩০ জন।

আজ শনিবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে ওই অক্সিজেন প্ল্যান্টে বিস্ফোরণ হয়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ৯টি ইউনিট ঘটনাস্থলে কাজ করছে।

হতাহতের বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেন সীতাকুণ্ড উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. শাহাদৎ হোসেন।

কুমিরা ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার সুলতান মাহমুদ গণমাধ্যমকে বলেন, ‘বড় ধরনের বিস্ফোরণ হয়েছে। আমরা ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছি।

অক্সিজেন প্ল্যান্টের আশপাশের বাসিন্দারা বলছেন, অক্সিজেন প্ল্যান্টে বিকট শব্দে বিস্ফোরণ হয়। এতে প্ল্যান্টের পাশের অনেক ঘরবাড়ির দরজা-জানালার কাঁচ ভেঙে পড়ে। আতঙ্কে ঘরবাড়ি থেকে বেরিয়ে পড়ে মানুষ। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের সদস্য ও স্বেচ্ছাসেবীরা উদ্ধার কাজে অংশ নিয়েছেন।

এর আগে গত বছরের ৫ জুন চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিএম কনটেইনার ডিপোতে ভয়াবহ বিস্ফোরণ হয়। এতে ঘটনাস্থলের আশপাশের অন্তত চার বর্গকিলোমিটার এলাকা কেঁপে ওঠে। আশপাশের বাড়িঘরের জানালার কাচ ভেঙে পড়ে। এ ঘটনায় বহু হতাহত হয়।


আরও খবর



বাংলাদেশের ওপর ভিসা নিষেধাজ্ঞা তুলে নি‌ল ওমান

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | ৭৭জন দেখেছেন

Image

খবর প্রতিদিন ২৪ডেস্ক:২০২৩ সালের অক্টোবর মাসে বাংলাদেশি নাগরিকদের ওপর ভিসা নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিল ওমান। দীর্ঘ আট মাস পর কয়েক ক্যাটাগরিতে সেই নিষেধাজ্ঞা তুলে নি‌য়েছে দেশটি। বুধবার (১২ জুন) ঢাকার ওমান দূতাবাস এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ‌্য জানি‌য়ে‌ছে।

এতে বলা হয়েছে, গত বছরের অক্টোবরে বাংলাদেশি নাগরিকদের ওপর আরোপিত ভিসা নিষেধাজ্ঞা থেকে নির্দিষ্ট কিছু ক্যাটাগরিতে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। যাদের মধ্যে রয়েছে- ফ্যামিলি ভিসা, জিসিসি বা উপসাগরীয় অঞ্চলের দেশগুলোতে বসবাসরত বাংলাদেশি নাগরিকদের ভিজিট ভিসা, ডাক্তার, প্রকৌশলী, নার্স, শিক্ষক, হিসাবরক্ষক, বিনিয়োগকারী, সব ধরনের অফিসিয়াল ভিসা এবং উচ্চ-আয়ের আর্থিক ক্ষমতা সম্পন্ন পর্যটকদের ভিসা।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এসব শ্রেণিভুক্ত আবেদনকারীদের কাছ থেকে ভিসা আবেদন গ্রহণ করবে ও ভিসা ইস্যুর ব্যাপারে রয়্যাল ওমান পুলিশের সঙ্গে সমন্বয় করবে। আবেদনকৃত ভিসার পক্ষে আবেদনকারী তার যাবতীয় কাগজপত্র যথাযথ সত্যায়নপূর্বক যাচাই-বাছাইয়ের জন্য দূতাবাসে জমা দেবেন। ভিসা আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে প্রত্যেক আবেদনকারীর সরবরাহকৃত তথ্য যাচাই-বাছাইয়ের উপর নির্ভর করে এক থেকে চার সপ্তাহ সময় নির্ধারণ করা হয়েছে।

এ ছাড়া, ভিসা নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার সংক্রান্ত বিষয়ে দূতাবাস বলেছে, বাংলাদেশ সরকার ও ওমানি কর্তৃপক্ষ আন্তরিকভাবে কাজ করে যাচ্ছে এবং নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার প্রক্রিয়ার বিষয়টি ত্বরান্বিত করতে উভয় দেশের কর্তৃপক্ষ অনেক দূর এগিয়ে গেছে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, ভিসা নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি নিছক একটি অরাজনৈতিক সিদ্ধান্ত যা কৌশলগত কারণে ওমানে বিদেশি শ্রম বাজার সমীক্ষা ও পর্যালোচনার চলমান প্রক্রিয়ার অংশ। বাংলাদেশ ও ওমান উভয় দেশের বিদ্যমান দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক অত্যন্ত চমৎকার। আর এ দুই দেশের বিচক্ষণ ও সুযোগ্য নেতৃত্বের হাত ধরে এ দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের ক্ষেত্র দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে ও বহুমাত্রিক ধারায় সম্প্রসারিত হচ্ছে।


আরও খবর



বর ও কনের বাড়ীতে শোকের মাতম

প্রকাশিত:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১৬জন দেখেছেন

Image

আব্দুল্লাহ আল নোমান,আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি:ব্রীজ ভেঙ্গে বিয়ের কনের পক্ষের ৯ জন মারা যাওয়ায় বর ডাঃ সোহাগ ও কনে হুমায়রার বাড়ীতে শোকের মাতম বইছে। বরের বাড়ীতে সুনসান নিরবতা। কনের বাড়ীতে কান্নার রোল বইছে। 

জানাগেছে, আমতলী উপজেলা কাউনিয়া ই্ব্রাহিম একাডেমি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক উত্তর তক্তাবুনিয়া গ্রামের মাসুম বিল্লাহ মনিরের মেয়ে হুমায়রা আক্তারের সঙ্গে একই বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আমতলী পৌর শহরের খোন্তাকাটা এলাকার বাসিন্দা সেলিম মাহমুদের ছেলে ডাঃ সোহাগের বিয়ে হয়। গত শুক্রবার ওই কনেকে বরের বাড়ী তুলে আনেন। শনিবার মেয়ের পক্ষের লোকজন বরের বাড়ীতে মাইক্রো এবং অটো গাড়ীতে যাচ্ছিল। পথিমধ্যে হলদিয়া ব্রীজ পাড় হওয়ার সময় ব্রীজের মাঝের অংশ ভেঙ্গে যায়। এতে মাইক্রোবাস ও অটো গাড়ী নদীতে পড়ে যায়। অটোতে থাকা যাত্রীরা সকলে সাতরে কিনারে উঠতে পারলেও মাইক্রোবাসের যাত্রীরা নদীতে তলিয়ে যায়। তাৎক্ষনিক স্থানীয়রা ওই মাইক্রোতে থাকা লোকজনকে উদ্ধারের চেষ্টা চালায় বলে জানান প্রত্যক্ষদর্শী নাশির উদ্দিন। ততক্ষণে মাইক্রোবাসে থাকা কনে পক্ষের ৯ যাত্রী নিহত হয়েছে। নিহতরা হলেন রুবিয়া (৪৫), রাইতি (২২), ফাতেমা (৫৫), জাকিয়া (৩৫), রুকাইয়াত ইসলাম (৪), তাহিয়া মেহজাবিন আজাদ (৭), তাসফিয়া (১৪), ঋধি (৪) ও শাহনাজ আক্তার রুবি বেগম (৩৫)। এদের মধ্যে রুকাইয়াত ইসলাম ও জাকিয়ার বাড়ী উপজেলার দক্ষিণ তক্তাবুনিয়া গ্রামে। অপর নিহত ৭ জনের বাড়ী মাদারিপুর জেলার শিবচর উপজেলার কোকরার চর গ্রামের বাসিন্দা। এরা কনে হুমায়রার মামা বাড়ীর আত্মীয়স্বজন। এমন ঘটনায় বর ডাঃ সোহাগ ও কনের হুমায়রার বাড়ীতে শোকের মাতম বইছে। শনিবার সন্ধ্যায় সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে বর ডাঃ সোহাগের বাড়ীতে সুনসান নিরবতা। ডেক্সিভরা খাবার রয়েছে। মানুষজন নেই। কনের বাড়ীতে বইছে কান্নার মাতম। 

বরের বাবা কাউনিয়া ইব্রাহিম একাডেমি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সেলিম মাহমুদ বলেন, এমন ঘটনার আমি হতভম্ব। কনে পক্ষের লোকজনের জন্য সকল আয়োজন ছিল কিন্তু একটি ফোনে সকল কিছু ভেস্তে চলে গেল। 

কনের বাবা মাসুম বিল্লাহ মনির বলেন, আমার কিছুই বলার নেই। আমি শ্বশুর বাড়ীর মানুষকে কি জবাব দেব? আল্লায় কেন আমার উপরে এতো বড় বিপদ দিল? 


আরও খবর



জুমাবার সপ্তাহের শ্রেষ্ঠ দিন হওয়ার কারণ

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১০৪জন দেখেছেন

Image

খবর প্রতিদিন ২৪ডেস্ক:শুক্রবার বা জুমার দিন সপ্তাহের শ্রেষ্ঠ দিন। এ দিনটির মর্যাদা ও তাৎপর্য ইসলামে অনেক। জুমার দিনকে ফজিলতের কারণে সাপ্তাহিক ঈদের দিন বলা হয়ে থাকে। জুমার দিনের ফজিলত সম্পর্কে নির্ভরযোগ্য হাদিস গ্রন্থগুলোতে একাধিক হাদিস বর্ণিত হয়েছে।

প্রিয় নবী রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, নিঃসন্দেহে জুমার দিন সেরা দিন ও আল্লাহর কাছে সর্বোত্তম দিন। আল্লাহর কাছে তা ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আজহার দিনের চেয়েও উত্তম। (ইবনে মাজাহ)।

অন্য হাদিসে আছে, যেসব দিনে সূর্য উদিত হয়েছে এরমধ্যে সর্বোত্তম হলো জুমার দিন।’ জুমার দিনকে মুসলমানদের সাপ্তাহিক ঈদের দিন হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়েছে।

জুমার ফজিলত সম্পর্কে রাসূল (সা.) বলেছেন, এক জুমা থেকে অপর জুমা উভয়ের মাঝে (গোনাহের জন্য) কাফ্ফারা হয়ে যায়, যদি কবিরা গোনাহের সঙ্গে সম্পৃক্ত না হয়ে থাকে। (মুসলিম)।

পবিত্র জুমার দিন সম্পর্কে মহান আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, মনে রাখবে সপ্তাহের শ্রেষ্ঠ দিন পবিত্র জুমাবার। জুমার নামাজ আদায়ে রয়েছে অশেষ কল্যাণ।

জুমার নামাজ সম্পর্কে মহান আল্লাহর রাসূল (সা.) আরো বলেছেন, যে ব্যক্তি বিনা কারণে তিন জুমার নামাজে যাওয়ায় অবহেলা করে সে যেন ইসলামকে অবজ্ঞা করল এবং তার হৃদয়ে মরিচা পড়ে যায়।

জুমার দিন আজানের পরও মসজিদগুলো ফাঁকা থাকে। খুৎবার শেষ পর্যায়ে তড়িঘড়ি করে মুসল্লিরা মসজিদে প্রবেশ করে যা ধর্মীয় দৃষ্টিতে অপছন্দনীয়।

পবিত্র জুমা দিবসে মুসলমান ধনী-দরিদ্র, উচু-নীচু, ছোট-বড় সবাই একই কাতারে দাঁড়িয়ে জুমার নামাজ আদায় করে। কেন না মহান আল্লাহ তায়ালা পবিত্র জুমার নামাজ আমাদের ওপর অপরিহার্য করেছেন।

অনেক গুরুত্বপূর্ণ ফরজ ইবাদাত জুমার নামাজ মুসলিম উম্মাহর জন্য। আর জুমার দিনের মর্যাদা ও বৈশিষ্ট্য অন্যান্য দিনের চেয়ে অনেকগুণ বেশি। সুতরাং জুমার নামাজ এবং এ দিনের আমল বর্জন থেকে বিরত থাকা জরুরি। আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে এ দিনের নামাজ ও আমল যথাযথ পালন করার তাওফিক দান করুন। আমিন।


আরও খবর



ইনফিনিক্স স্মার্টফোন কিনে বাইক জিতলেন গাজীপুরের রাসেল

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১০১জন দেখেছেন

Image

নিউজ ডেস্ক:ঈদের আগেই ইনফিনিক্সের স্মার্টফোন কিনে প্রথম বাইক জিতে নিয়েছেন গাজীপুরের ক্রেতা রাসেল আহমেদ। ‘ঈদ বোনানজা’ ক্যাম্পেইনটিতে ইনফিনিক্স নোট ৩০ স্মার্টফোনটি কিনে এক্সক্লুসিভ বাইকটি জেতেন তিনি।

ইনফিনিক্স স্মার্টফোন কেনার পর নিয়ম অনুযায়ী এসএমএস করেন রাসেল, ফিরতি মেসেজে জানানো হয় তিনি পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন। গাজীপুরের মাওনায় অবস্থিত ইনফিনিক্স শপ ‘মাসুম টেলিকম’ থেকে নোট ৩০ ফোনটি কেনেন রাসেল।

দীর্ঘদিন ধরেই রাসেল ইনফিনিক্স স্মার্টফোনের ভক্ত বলে জানান। নোট ৩০ ডিভাইসটি কেনার আগেও তিনি কল্পনা করেননি পুরস্কার হিসেবে বাইক পাবেন। তিনি জানান, ‘মেসেজ পাওয়ার পর আমি বিশ্বাসই করতে পারছিলাম না। ফিচার আর সাশ্রয়ী দামের জন্য ইনফিনিক্স ফোন আমার সবসময়ই পছন্দের। সেই ফোন কিনে একটা বাইক জিতেছি এটা আমার কাছে অত্যন্ত আনন্দের।’

২৫ জুন পর্যন্ত ইনফিনিক্স ‘ঈদ বোনানজা’ ক্যাম্পেইন চলবে। এই সময়ের মধ্যে নির্দিষ্ট ইনফিনিক্স স্মার্টফোন কিনে ভাগ্যবান ক্রেতারা বাইক, কক্সবাজার ভ্রমণ প্যাকেজ, ১০০ থেকে ৫,০০০ টাকা পর্যন্ত নিশ্চিত ক্যাশব্যাক পাবেন। এ ছাড়া নেকব্যান্ড, টিশার্ট ও ছাতার মতো নিশ্চিত উপহারও পাবেন ক্রেতারা।

ইনফিনিক্সের উদ্দেশ্য, ক্যাম্পেইনটির মাধ্যমে ক্রেতাদের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নেওয়া। এর আওতায় নোট ৩০ ও ৪০ সিরিজ, হট ৩০ সিরিজ, হট ৪০ সিরিজ এবং স্মার্ট ৮ সিরিজসহ নির্দিষ্ট স্মার্টফোন কিনে এসব পুরস্কার জেতার সুযোগ থাকছে।

রাসেলের এই আনন্দ উল্লাস সব ক্রেতার মাঝে দেখতে চায় ইনফিনিক্স। উন্নত মানের ও স্টাইলিশ ফোনের পাশাপাশি ক্রেতাদের অবিস্মরণীয় অভিজ্ঞতা ও মূল্যবান উপহারও দিয়ে আসছে কোম্পানিটি। এভাবেই তাদের বিশ্বাস ও উৎসাহকে অনুপ্রাণিত করছে ইনফিনিক্স।

‘ঈদ বোনানজা’ ক্যাম্পেইন চলাকালীন অন্যান্য ভোক্তারাও তাদের ঈদকে স্মরণীয় করে তুলতে পারেন। এজন্য ক্রেতাকে যেকোনো অফিশিয়াল রিটেইলার স্টোর থেকে স্মার্টফোন কিনতে হবে।

সাশ্রয়ী মূল্যে গ্রাহকদের হাতে উদ্ভাবনী প্রযুক্তি তুলে দিতে ইনফিনিক্স দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। ফলে তরুণ প্রযুক্তিপ্রেমীদের মাঝে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ব্র্যান্ডটি।


আরও খবর



নওগাঁয় নিখোঁজের দুইদিন পর নদী থেকে শিশুর লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৩ জুন ২০২৪ | ৮৯জন দেখেছেন

Image

নওগাঁ প্রতিনিধি:নিখোঁজের দুইদিন পর নওগাঁর বদলগাছীর ছোট যমুনা নদী থেকে স্বাধীন নামের তিন বছর বয়সী এক শিশুর লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। শুক্রবার দুপুরে উপজেলার ডাকবাংলো মোড়ের সালকালি নামক স্থান থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। নিহত শিশু স্বাধীন পার্শ্ববর্তী ধামুইরহাট উপজেলার  ইসবপুর ইউপির চকচৈতন‍্য গ্রামের জুয়েলের ছেলে। এর আগে স্বাধীন গত বুধবার দুপুর ১টার দিকে নিখোঁজ হয়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সকাল থেকেই ভেসে থাকা লাশটিকে স্থানীয়দের অনেকেই অন্য কোনো মৃত বলে মনে করে। এরপর দুপুর ১টার দিকে এলাকার মহিলারা নদীর পাশে গেলে ভাসমান লাশটি দেখতে পায়। তাদের কথা শুনে জেলেরা সাথে সাথে নদীতে নেমে শিশুর লাশটি নদীর পাড়ে তুলে আনে। এরপর থানা পুলিশকে বিষয়টি জানালে এস আই নিহার চন্দ্র সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয় গনমাধ‍্যম কর্মীদের দ্বারা বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও আশেপাশের বিভিন্ন এলাকায়  খোঁজখবর করলে শিশুটির পরিচয় মিলে।

নিহত স্বাধীনের বাবা জুয়েল বলেন, গত বুধবার দুপুরের দিকে আমার ছেলে নিখোঁজ হয়। তার বয়স ৩ বছর ২মাস। নদীর পাশে আমার বাড়ী হওয়ায় ইসবপুর ব্রীজ পর্যন্ত অনেক বার নদীতে খুঁজেছি। না পেয়ে গত বৃহস্পতিবার এলাকায় মাইকিং করা হয়। হঠাৎ আজ বদলগাছী থেকে পরিচিত জনের মাধ্যমে জানতে পারি এখানে একটি বাচ্চার লাশ পাওয়া গিয়েছে এবং এসে দেখি আমার ছেলের লাশ।

এ ব‍্যপারে বদলগাছী ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)  মাহবুবুর রহমান বলেন, নিহত শিশুর লাশ পরিবার সনাক্ত করেছে। পরে লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য নওগাঁ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আইনগত প্রক্রিয়া শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।


আরও খবর