Logo
আজঃ শনিবার ২৫ মে ২০২৪
শিরোনাম

শীর্ষ জলদস্যুর প্রধান ও তার দুই সহযোগী আটক,০৮টি আগ্নেয়াস্ত্র এবং ২২ রাউন্ড গুলি উদ্ধার

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০২ ফেব্রুয়ারী 2০২3 | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ৩০৮জন দেখেছেন

Image

 গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার

অধিনায়কের কার্যালয়

র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-৭

পতেঙ্গা, চট্টগ্রাম

স্মারক নং-৭৩১৬/লিগ্যাল এন্ড মিডিয়া/র‌্যাব-৭/০২ তারিখঃ   ১৯ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ                                ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ খ্রিঃ

প্রতি,

সম্পাদক/ব্যুরো চীফ/ষ্টাফ রিপোর্টার/রিপোর্টার/প্রতিনিধি

সকল পত্রিকা/টিভি চ্যানেল/মিডিয়া


প্রেস বিজ্ঞপ্তি 


র‌্যাব-৭, চট্টগ্রামের বিশেষ অভিযানে কক্সবাজারের কুতুবদিয়া হতে ০৮টি আগ্নেয়াস্ত্র এবং ২২ রাউন্ড গুলি উদ্ধারসহ শীর্ষ জলদস্যু মোশারফ বাহিনীর প্রধান মোশারফ হোসেন ও তার দুই সহযোগী আটক।


১। “বাংলাদেশ আমার অহংকার” এই স্লোগান নিয়ে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে বিভিন্ন ধরণের অপরাধীদের গ্রেফতারের ক্ষেত্রে জোরালো ভূমিকা পালন করে আসছে। র‌্যাব সৃষ্টিকাল থেকে সমাজের বিভিন্ন অপরাধ এর উৎস উদঘাটন, অপরাধীদের গ্রেফতারসহ আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির সার্বিক উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে চলেছে। র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম অস্ত্রধারী সস্ত্রাসী, ডাকাত, ধর্ষক, দুর্ধষ চাঁদাবাজ, সন্ত্রাসী, খুনি, ছিনতাইকারী, অপহরণকারী ও প্রতারকদের গ্রেফতার এবং বিপুল পরিমাণ অবৈধ অস্ত্র, গোলাবারুদ ও মাদক উদ্ধারের ক্ষেত্রে জিরো টলারেন্স নীতি অবলম্বন করায় সাধারণ জনগনের মনে আস্থা ও বিশ্বাস অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে।


২। এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে, কতিপয় জলদস্যু অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী কক্সবাজার জেলার কুতুবদিয়া থানাধীন বড়খোপ এলাকায় মুক্তমঞ্চ সংলগ্ন ঝাউ গাছের নিচে কতিপয় জলদস্যু অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী অস্ত্রশস্ত্র সহ একত্রিত হয়ে অপরাধ সংঘটন করার জন্য সলাপরামর্শ ও প্রস্তুতি গ্রহন করছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে গত ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ইং তারিখ ১১০০ ঘটিকায় র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম এর একটি আভিযানিক দল বর্ণিত এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে আসামী ০১। মোশারফ হোসেন(২৮), পিতা- শাহাবুদ্দিন, সাং-আব্দুল হাদী শিকদার পাড়া, থানা-কুতুবদিয়া, জেলা-কক্সবাজার, ০২। মোঃ আজিজ(২৩), পিতা-নুরুল আবছার, সাং-সন্দীপ পাড়া, থানা-কুতুবদিয়া, জেলা-কক্সবাজার এবং ০৩। মোঃ রবিউল হাসান(২০), পিতা- মোঃ জাবেদ আহম্মেদ, সাং-আব্দুল হাদী শিকদার পাড়া, থানা-কুতুবদিয়া, জেলা- কক্সবাজার’দেরকে আটক করতে সক্ষম হয়। গ্রেফতারকালীন সময়ে ১নং আসামী মোশারফ হোসেন এর কোমড়ে গোজানো অবস্থা হতে আসামীর নিজ হাতে বের করে দেয়া মতে দেশীয় তৈরী একটি পিস্তল উদ্ধার করা হয়। 



৩। গ্রেপ্তারকৃত আসামীদেরকে জিজ্ঞাসাবাদের জানা যায়, তারা এলাকায় প্রভাব বিস্তার করে লবণ চাষীদের কাছ থেকে নিয়মিত চাঁদাবাজি করে আসছে। এলাকায় প্রভাব বিস্তার করে চাঁদাবাজি করার লক্ষ্যে তাদের কাছে আরো অস্ত্র-সস্ত্র রয়েছে। পরবর্তীতে আসামীদের দেয়া তথ্য অনুযায়ী গ্রেফতাকৃত আসামীদের সাথে নিয়ে কক্সবাজার জেলার কুতুবদিয়া থানাধীন শিকদার পাড়া এলাকায় একটি ছাপড়া ঘরের ভেতর হতে আসামীদের দেখানো ও নিজ বের করে দেয়া মতে ০১টি প্লাষ্টিকের বস্তার ভিতর হতে ৩টি এসবিবিএল, ০৪টি এলজি এবং ২২ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়। 


৪। গ্রেপ্তারকৃত আসামীদের জিজ্ঞাসাবাদে অকপটে স্বীকার করে যে, জব্দকৃত অস্ত্র-সস্ত্র দ্বারা তারা এলাকায় প্রভাব বিস্তার করে লবণ চাষীদের কাছ থেকে নিয়মিত চাঁদা আদায় ও ডাকাতি করে আসছে। 


৫। উল্লেখ্য, সিডিএমএস পর্যালোচনা করে ধৃত ০১নং আসামী শীর্ষ জলদস্যু মোশারফ হোসেন এর নামে কক্সবাজার জেলার কুতুবদিয়া এবং  চট্টগ্রাম জেলার পাঁচলাইশ থানায় সরকারী সম্পত্তি আত্মসাধ, সস্ত্রাসী, ডাকাতি, দুর্ধষ চাঁদাবাজী, হত্যাচেষ্টা এবং মাদক সংক্রান্তে ০৬টি মামলা পাওয়া যায়।


৬। গ্রেফতারকৃত আসামী এবং উদ্ধারকৃত অস্ত্র ও গোলাবারুদ সংক্রান্তে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের নিমিত্তে সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।



--স্বাক্ষরিত--

মোঃ নূরুল আবছার

সিনিয়র সহকারী পরিচালক

সিনিয়র সহকারী পরিচালক (মিডিয়া)

পক্ষে অধিনায়ক

টেলিফোনঃ ০৩১-২৫০০৪১৭




আরও খবর



কালিয়াকৈরে গাছের চাপায় পড়ে স্বামী নিহত,আহত স্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ২০ মে ২০24 | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৪ মে 20২৪ | ২৯জন দেখেছেন

Image

সাগর আহম্মেদ, কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি:গাজীপুরের কালিয়াকৈরে ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্থ গাছ কাটতে গিয়ে গাছের নিচে চাপা পড়ে স্বামী নিহত হয়েছেন। এসময় আহত হয়েছেন তার স্ত্রী। রোববার সকালে উপজেলার গাবতলী এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। 

নিহত হলেন, কালিয়াকৈর উপজেলার শ্রীফলতলী ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের গাবতলী এলাকার খালেক সরকারের ছেলে জসিম উদ্দিন (৪৫)। আহত হলেন, তার স্ত্রী বিনা বেগম (৪০)।

এলাকাবাসী ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, জসিম উদ্দিন কালিয়াকৈর উপজেলার বাইপাস এলাকার সিকদার মেডিকেল হাসপাতাল নামে একটি ক্লিনিকে মার্কেটিংয়ের কাজ করতেন। রোববার সকালে জসিম তার গাবতলী এলাকার বাড়ির উঠানে ঝড়ের ক্ষতিগ্রস্থ একটি গাছ কাটতে যান। কিন্তু গাছটি কাটার এক পর্যায় সকাল সাড়ে ১১টার দিকে হঠাৎ করে গাছের নিচে চাপা পড়ে জসিম। এসময় তাকে উদ্ধার করতে গিয়ে তার স্ত্রী বিনা বেগম আহত হন। তার ডাক-চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে গিয়ে গাছের নিচ তাদের উদ্ধার করে। আহতদের মধ্যে স্ত্রী বিনা বেগমকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হলেও গুরুতর আহত অবস্থায় জসিমকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায় এলাকাবাসী। এসময় ওই হাসপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসক জসিমকে মৃত ঘোষণা করেন।

স্থানীয় ইউপি সদস্য (মেম্বার) আমিরুল ইসলাম ঘটনাটি নিশ্চিত করে জানান, বাদ মাগরিব নিহতের নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হবে।


আরও খবর



আক্কেলপুরে আগুনে পুড়ে যাওয়া জরাজীর্ণ ঘরেই দুর্বিষহ জীবন যাপন করছে রেজাউল

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ১২৫জন দেখেছেন

Image
আক্কেলপুর(জয়পুরহাট) প্রতিনিধি:জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে আগুনে পুড়ে যাওয়া বাড়িতেই পরিবারের সদস্য নিয়ে কষ্টে বসবাস করছেন দিনমজুর রেজাউল করিম। গত শুক্রবার দুপুরে পৌর এলাকার গুরকী গ্রামে তার বসতবাড়িতে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। এতে তার ঘরের টিনের ছাউনি, কিছু আসবাবপত্র পুড়ে যায়। পুড়ে যাওয়া ঘর পুনরায় সংস্কার করা তার পক্ষে অসম্ভব হয়ে পড়েছে। এ কারনে তিনি আর্থিক সহযোগীতা প্রত্যাশা করেছেন।

রোববার সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, দিনমুজর রেজাউলের ঘরের মাটির তালা কয়লায় পরিপূর্ণ হয়ে আছে। টিনের ছাউনি আগুনে পুড়ে ফায়ার সার্ভিসের পানির চাপে ঘরের চারদিকে এলোমেলো পরে রয়েছে। বাড়ির ভিতর ও বাহিরে রাখা আছে আগুনে পুড়ে যাওয়া আসবাবপত্র, টিন ও অন্যান্য তৈজসপত্র। বাড়ির দুটি কক্ষে গাদাগাদি করে রাখা আছে বেঁচে যাওয়া অন্যান্য আসবাবপত্র।

আগুনে ক্ষতিগ্রস্থ্য ওই বাড়িতেই পরিবারের দুই মেয়ে, দুই নাতি ও রেজাউল দম্পতির বসবাস। ওই পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি দিনমজুর রেজাউল হওয়াই তাদের পক্ষে ওই বাড়িটি মেরামত করা সম্ভব হয়নি। একারণে ঘরের উপরে ছাউনি না থাকায় ঝুঁকি নিয়ে প্রচন্ড তাপদাহে কষ্ট করে সেখানেই অবস্থান করছেন তারা। যে কোন সময় ঝড় বা বৃষ্টি হলে পরিবারটি পরতে পারে মহা বিপদে। 

ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা গেছে, গত শুক্রবার দুপুরে পৌর এলাকার গুরকী গ্রামে দিনমজুর রেজাউলের বাড়িতে গোয়াল ঘরে চুলার কয়লার আগুন থেকে আগুনের সূত্র পাত হয়। মূহুর্তের মধ্যে সাড়া বাড়িতে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। এতে তার বাড়ির টিনের চালা, ঘরের মাটির তালাতে রাখা খরকুটো সহ অন্যান্য কিছু আসবাব পুড়ে যায়। খবর পেয়ে আক্কেলপুর ফায়ার সার্ভিস সদস্যরা ঘটনা স্থলে পৌঁছে পৌনে এক ঘন্টা ব্যাপী প্রচেষ্টা চালিয়ে আগুন নিভিয়ে ফেলে। এ ঘটনায় ওই পরিবারের আনুমানিক ৫০ হাজার টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে ফায়ার সার্ভিস জানিয়েছে।

দিনমজুর রেজাউল করিম বলেন, এনজিও থেকে কিস্তির টাকা নিয়ে আমার বাড়ির টিনের ছাউনী দিয়েছিলাম। কিস্তি পরিশোধের আগেই আগুনে পুড়ে অনেক ক্ষতি হয়েছে। পোড়া বাড়িতেই প্রচন্ড গরমের মধ্যে পরিবার নিয়ে আছি। বর্তমানে এটা ছাড়া আমার থাকার মতো কোন পথ নাই। আমি অন্যের বাড়িতে কামলা দিয়ে জীবিকা নির্বাহ করি। এখন আমার অন্যের সহযোগীতা প্রয়োজন।

আক্কেলপুর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের স্টেশন অফিসার আব্দুল কাদের বলেন, খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে পৌনে এক ঘন্টা প্রচেষ্টা করে আগুন নিয়ন্ত্রন করা হয়। গোয়াল ঘরের পাশের চুলার জ¦লন্ত কয়লার আগুন থেকে অগ্নিকান্ড ঘটেছে বলে ধারনা করা হচ্ছে।পৌর মেয়র শহীদুল আলম চৌধুরী বলেন, দিনমজুর রেজাউলকে পৌরসভার পক্ষ থেকে আর্থিক সাহায্য করা হবে। তার বিষয়ে খোঁজ খবর নেওয়া হচ্ছে।

আরও খবর



একসঙ্গে এসএসসি পাস করলেন নাসিরনগরের মা ও মেয়ে৷

প্রকাশিত:সোমবার ১৩ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ১৮৩জন দেখেছেন

Image

মোহাম্মদ হেদায়েতুল্লাহ  নবীনগর(ব্রাহ্মণবাড়িয়া)প্রতিনিধি:ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর উপজেলার চাতলপাড় ইউনিয়ন পরিষদের ১,২,৩ ওয়ার্ডের সংরক্ষিত সদস্য (মেম্বার) ৪৪ বছর বয়সে পরীক্ষা দিয়ে এসএসসি পাশ করেছেন। এমন খবর জেনে খোঁজ নিতে গিয়ে ফোন করতেই বেশ খুশি নিয়ে বললেন আমার মেয়েও পাশ করেছেন। মা ও মেয়ের একসঙ্গে পাশ করার ঘটনা এলাকায় বেশ আলোচনার জন্ম দিয়েছেন। সবাই ইউনিয়ন পরিষদ মেম্বার নুরুন্নাহার বেগমের প্রশংসা করছেন। নুরুন্নাহারের পরিবারেও বইছে আনন্দের বন্যা। স্বজনরা ছুটে আসছেন তাঁর বাড়িতে।

নুরুন্নাহার বেগম জানান, তিনি আরো পড়তে চান। অনেক বিপত্তি পেরিয়ে তার এই এগিয়ে চলা। নিজের দুইসন্তান কেও পড়ালেখা শিখিয়ে মানুষের মতো মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন তিনি। পড়া শুনার কোনো বয়স নেই বলে তিনি মনে করেন। মানুরুন্নাহার বেগমও মেয়ে নাসরিন আক্তার নাসিরনগর উপজেলার চাতলপাড়া ওয়াজ উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাশ করেন।

মা কারিগরি বিভাগ থেকে ও মেয়ে স্কুল থেকে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেন। নুরুন্নাহার বেগম জিপিএ ৪.৫৪ ও মেয়ে নাসরিন জিপিএ ২.৬৭ পেয়েছেন। নুরুন্নাহার বেগমের বয়স ৪৪ বছর ও নাসরিনের বয়স ১৮ বছর। কথা হলে নুরুন্নাহার বলেন, ‘অষ্টম শ্রেণিতে পড়ার সময় বিয়ে হয়ে যায়। শশুর বাড়ির লোক জন ছিলেন রক্ষণশীল। এ অবস্থায় পড়াশুনা চালিয়ে যেতে পারিনি। এক পর্যায়ে মেম্বার নির্বাচিতহই। এ নিয়ে দুইবার মেম্বার। সবার অনুমতি নিয়ে আবার পড়াশুনা করি। কেননা, লেখাপড়ার কোনো বিকল্প নেই বলে মনেকরি।

নুরুন্নাহারের ছোট ভাই স্বপন আহমেদ এ বিষয়ে অনুভুতি ব্যক্ত করতে গিয়ে আপ্লুত হয়ে পড়েন। বোনের পাস করার খবরে কি যে খুশি হয়েছিতা বলে বুঝানো যাবেনা। একই সঙ্গে ভাগ্নি পাস করলেও তার খবরটি নাদিয়ে ফেসবুকে বোনের রেজাল্টের স্ট্যাটাস দিয়েছি।

  -খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



হাতে লেখা বিশ্বের সর্ববৃহৎ আল-কুরআনের মোড়ক উন্মোচন করেন ধর্মমন্ত্রী

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ৪১জন দেখেছেন

Image
লিয়াকত হোসাইন লায়ন,জামালপুর থেকে:হাতে লেখা বিশ্বের সর্ববৃহৎ পবিত্র আল-কুরআনের মোড়ক উন্মোচন করা হয়েছে। ২৩মে বৃহস্পতিবার বিকেলে ঢাকায় জাতীয় প্রেসক্লাবে আব্দুস সালাম হলে মোড়ক উন্মোচন করেন ধর্মমন্ত্রী মোঃ ফরিদুল হক খান ।

ধর্মমন্ত্রী বলেন, বিশ্বে আমাদের ব্যতিক্রমী বেশকিছু পরিচয় রয়েছে। সারাবিশ্বে আমরাই একমাত্র জাতি যারা মায়ের ভাষার জন্য প্রাণ উৎসর্গ করেছি। আমরা দেশ মাতৃকার মুক্তির জন্য ৩০ লাখ প্রাণ বিসর্জন দিয়েছি। স্বাধীনতার ৫৩ বছরে উন্নয়ন ও উৎপাদনের বিভিন্ন সূচকে বিশ্বের ১০টি দেশের মধ্যে স্থান করে নিয়েছি। হাতে লেখা পৃথিবীর সর্ববৃহৎ পবিত্র কুরআন শরীফ নিঃসন্দেহে একটি ব্যতিক্রমী উদ্যোগ। প্রতিটি ইতিবাচক ও ব্যতিক্রমী উদ্যোগই দেশ-জাতির জন্য সম্মান বয়ে আনে। আজকের এই মহতী কাজটিও দেশের জন্য সম্মান বয়ে আনবে। 

ধর্মমন্ত্রী আরো বলেন, বর্তমান সরকার ইসলাম ও মুসলমানদের খেদমতে নিবেদিত হয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। সর্বকালের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ইসলামিক ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে এদেশে ইসলাম প্রচার ও প্রসারের দ্বার উন্মোচন করে গেছেন। তাঁর সেই পথ অনুসরণ করেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইসলামের খেদমত করে যাচ্ছেন। সম্পূর্ন সরকারি অর্থায়নে ৯ হাজার ৪৩৫ কোটি টাকা ব্যয়ে ৫৬৪টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপন করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে ৩০০ টির নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেগুলোর উদ্বোধন করেছেন। এটিও মুসলিম বিশ্বে একটি ব্যতিক্রমী ও অনন্য নজির। তিনি আয়োজক সংস্থার দাবী যাচাই-বাছাই করে তাদের কাজে যথাযথ মূল্যায়ন ও স্বীকৃতি দেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট সংস্থাকে অনুরোধ জানান।

হাফেজ আবদুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে জাতীয় হৃদরোগ ইনষ্টিটিউট ও হাসপাতাল জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব মাওলানা মোহাম্মদ কামাল হোসেন, ক্বারী শায়েখ আহমদ বিন ইউসুফ আল আজহারী, হাতে লেখা পৃথিবীর সর্ববৃহৎ পবিত্র আল-কুরআন প্রদর্শন আয়োজক কমিটির সভাপতি স. ম. ইফতেখার মাহমুদ বক্তব্য প্রদান করেন। 

উল্লেখ্য, হাতে লেখা পৃথিবীর সর্ববৃহৎ পবিত্র আল-কুরআন প্রদর্শন আয়োজক কমিটি রচিত এই আল-কুরআনের দৈর্ঘ্য ও প্রস্থ যথাক্রমে ১৪ ফুট ও ১২ ফুট। এতে মোট ২০০টি পৃষ্ঠা রয়েছে। এর ওজন প্রায় ৮০০ কেজি। হাতে তৈরি বাঁশের কলম ও দোয়াত কালি দিয়ে এটি লেখা হয়েছে।

আরও খবর



জয়পুরহাটে সাংবাদিকের ওপর হামলা, হত্যার হুমকি, থানায় জিডি

প্রকাশিত:শনিবার ১৮ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ১৫১জন দেখেছেন

Image
এস এম শফিকুল ইসলাম,জয়পুরহাট প্রতিনিধিঃজয়পুরহাটে জেএমবি’র সাজাপ্রাপ্ত নেতা মন্তেজার রহমানের মৃত্যু ও মরদেহ দাফনের ছবি নিতে গেলে যমুনা টিভির সিনিয়র রিপোর্টার আব্দুল আলীমের ওপর হামলা ও হত্যার হুমকি দেয়া হয়। এ বিষয়ে শুক্রবার (১৭ মে) বিকেলে ক্ষেতলাল থানায় জিডি করা হয়েছে।

জিডি সুত্রে জানা যায়, ২০০৬ সালে পুলিশের উপর জেএমবির হামলার ঘটনায় আসামি হয়ে ২০০৭ সাল থেকে কারাগারে থাকা মন্তেজার মঙ্গলবার চিকিৎসাধীন অবস্থায় বগুড়ায় মারা যান। গত বুধবার (১৫ মে) বিকেলে তার মরদেহ বাড়িতে আনা হলে উৎসুক জনতা ভিড় করে।
সেখানে যমুনা টিভির রিপোর্টার আব্দুল আলীম ও নাগরিক টিভির প্রতিনিধি মাহফুজার রহমান সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে তাদের বাঁধা দেয়া হয়। একপর্যায়ে সাংবাদিক হিসেবে পরিচয় দেন আব্দুল আলীম। তবে পরিচয় দেয়ার পরেও তার ওপর আক্রমন করা হয়। এসময় কয়েকজন গালিগালাজ করে তাকে হত্যার হুমকি দেয়। এ ঘটনায় ওই রিপোর্টার ক্ষেতলাল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন।

ক্ষেতলাল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) ইমায়েদুল জাহেদী বলেন, সাংবাদিককে হত্যা ও হুমকির জিডি গ্রহণ করা হয়েছে। ঘটনা তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উল্লেখ্য, মন্তেজার জেএমবির শীর্ষ নেতা শায়খ আ. রহমান ওরফে বাংলা ভাইয়ের অন্যতম সহযোগী ছিলেন। ২০০৬ সালে পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় সে এতদিন জেলে ছিল।

আরও খবর