Logo
আজঃ Tuesday ২৮ June ২০২২
শিরোনাম
নাসিরনগরে বন্যার্তদের মাঝে ইসলামী ফ্রন্টের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ রাজধানীর মাতুয়াইলে পদ্মাসেতু উদ্ধোধন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল রূপগঞ্জে ভূমি অফিসে চোর রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা
মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনা

সড়ক দুর্ঘটনায় সাংবাদিক এস কে সবুজ ও তার স্ত্রী আহত

প্রকাশিত:Sunday ১২ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ১৪৯জন দেখেছেন
Image

সোহরাওয়ার্দীঃ

রাজধানীতে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন দৈনিক সবুজ বাংলাদেশ পত্রিকার জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক এস কে সবুজ ও তার স্ত্রী।


শুক্রবার (১০ জুন) সন্ধ্যায় দিকে সবুজ ও তার স্ত্রী মোটরসাইকেল নিয়ে বাসা থেকে পোস্তগোলা উদ্দেশে রওনা হন। মোটরসাইকেলটি পোস্তগোলার সামনে এলে অপর একটি মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

তারা রাস্তায় পড়ে যান। আহত অবস্থায় তাদের প্রথমে স্থানীয় হাসপাতালে ও পরে ঢাকা মেডিক‌্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেওয়া হয়।

সবুজ কে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হলেও তার স্ত্রী গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় চিকিৎসাধীন আছেন। হাত-পা, পিঠসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম হওয়ায় সবুজের স্ত্রীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ  হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।


পুর্বাঞ্চল সাংবাদিক ইউনিটি এক বিজ্ঞপ্তিতে আহত সাংবাদিক ও তার স্ত্রীর দ্রুত সুস্থতার জন‌্য সবার দোয়া চেয়েছে। এস কে সবুজ পূর্বাঞ্চল সাংবাদিক ইউনিটির প্রচার সম্পাদক।



আরও খবর



নিরাপদ দূরত্বে সরানো হচ্ছে অরক্ষিত কনটেইনার

প্রকাশিত:Sunday ০৫ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৬৮জন দেখেছেন
Image

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিএম কনটেইনার ডিপোর হাজার হাজার টনের অরক্ষিত সব কনটেইনার নিরাপদ দূরত্বে সরিয়ে নেওয়ার কাজ শুরু করেছে ফায়ার সার্ভিস আ্যন্ড সিভিল ডিফেন্স। আগুন জ্বলছে এখনো বেশ কিছু বড় কনটেইনারে। নেভানোর পাশাপাশি সরানো সম্ভব এমন কনটেইনারগুলোর সুরক্ষায় নিরাপদ দূরত্বে নেওয়া হচ্ছে।

রোববার (৫ জুন) দুপুর ২টা থেকে কনটেইনার অপসারণ করা হয় বলে জাগো নিউজকে জানান চট্টগ্রাম ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের সহকারী পরিচালক মো. ফারুক হোসেন সিকদার।

তিনি বলেন, সীতাকুণ্ডের বিএম কনটেইনার ডিপোতে এখনো বেশ কয়েকটি কনটেইনারে আগুন জ্বলছে। এর আশপাশে যে অরক্ষিত কনটেইনার রয়েছে সেগুলো স্নোর্কেল যন্ত্রের সাহায্যে নিরাপদ দূরত্বে নেওয়া হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, যেসব কেমিক্যাল যুক্ত বড় কনটেইনারে এখনো আগুন জ্বলছে সেগুলো নির্দিষ্ট করে আগুন নেভানোর কাজ শুরু হবে। আপাতত ছোট কনটেইনারের আগুন নেভানো হচ্ছে।

jagonews24

সরেজমিনে দেখা যায়, ডিপোতে আগুন এখনো জ্বলছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে হিমশিম খাচ্ছেন ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। কেমিক্যাল পোড়ার ধোঁয়ায় পরিবেশ আরও কঠিন হয়ে পড়েছে। সেখানে থাকা যাচ্ছে না বেশিক্ষণ। চোখ জ্বালাপোড়া করছে।

রাত থেকে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করা ফায়ার সার্ভিসের কর্মী জাবেদ আহমেদ বলেন, এখনো কাজ করে যাচ্ছি। কিন্তু আগুন নিয়ন্ত্রণ আনা যাচ্ছে না। এখানে প্রধান সমস্যা অক্সিজেন ও ধোঁয়া।

এদিকে ডিপোর গেটের সামনে ভিড় করেছেন অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় নিখোঁজদের স্বজনরা। তারা খুঁজে ফিরছেন প্রিয়জনকে। কেউ কেউ আবার চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে স্বজনকে না পেয়ে ডিপোর সামনে এসে অপেক্ষা করছেন। এসময় তাদের আহাজারিতে ভারি হয়ে উঠেছে চারপাশ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ডিপোতে প্রায় ৫০ হাজার কনটেইনার ছিল। সেখানে থাকা দাহ্য পদার্থ থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে। ডিপো এলাকায় রয়েছে পানি স্বল্পতা।

ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার মো. মাইন উদ্দিন বলেন, যেহেতু দীর্ঘক্ষণ ধরে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসছে না, সে কারণে ফায়ার সার্ভিসের বিশেষায়িত ‘হাজমত টিম’ঢাকা থেকে আনা হচ্ছে। এই টিম বিদেশে প্রশিক্ষিত ও তারা আগুনের মধ্যেও কাজ করতে পারে। বর্তমানে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিসের ২৫টি ইউনিট।

তিনি বলেন, এই ডিপোতে হাইড্রোজেন পার অক্সাইড ছিল। এখানে ক্ষণে ক্ষণে এখনো বিস্ফোরণ হচ্ছে। কেমিক্যালের জন্য আগুন নেভানো যাচ্ছে না। আমি পরিদর্শনকালে ছয়টি বিস্ফোরণ দেখেছি।

ঘটনাস্থলে থাকা চট্টগ্রাম সেনাবাহিনীর ব্যাটালিয়ন-১ এর লেফটেন্যান্ট কর্নেল মনিরা সুলতানা জাগো নিউজকে বলেন, কেমিক্যাল যাতে ড্রেনের মাধ্যমে সমুদ্রে না ছড়াতে পারে, সেজন্য সেনাবাহিনীর বিশেষ ইঞ্জিনিয়ারিং টিম ড্রেনেজ ব্যবস্থা বন্ধ করতে যাচ্ছে। ড্রেনেজ ব্যবস্থা থাকলে কেমিক্যাল সমুদ্রে ছড়াতে পারে। এতে সমুদ্রের পানি এবং মৎস্য ও জলজ ক্ষতির আশঙ্কা রয়েছে।

jagonews24

এর আগে শনিবার (৪ জুন) রাত ১১টার দিকে বিএম কনটেইনার ডিপোতে আগুনের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় ফায়ার সার্ভিস। এরপর তারা আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ শুরু করে। এসময় এক কনটেইনার থেকে অন্য কনটেইনারে ছড়িয়ে পড়তে থাকে আগুন। কিছু কনটেইনারে রাসায়নিক থাকায় বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। বিস্ফোরণে ঘটনাস্থল থেকে অন্তত চার কিলোমিটার এলাকা কেঁপে ওঠে। ভেঙে পড়ে আশপাশের বাড়িঘরের জানালার কাচ।

রোববার (৫ জুন) দুপুর ৩টা পর্যন্ত ৪২ জন নিহত হওয়ার খবর মিলেছে। এর মধ্যে আটজন ফায়ার সার্ভিস কর্মী। আহত আছেন কয়েকশ। ডিপোটিতে ১২শ কনটেইনার ছিল বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। প্রাথমিকভাবে এ আগুনে নয়শ কোটি টাকার বেশি ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।


আরও খবর



পদ্মা সেতু দক্ষিণ থানায় প্রথম গ্রেফতার আবুবকর

প্রকাশিত:Friday ২৪ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ২৮জন দেখেছেন
Image

পদ্মা সেতু দক্ষিণ থানায় প্রথম এক আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার (২২ জুন) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার মিনাকান্দি চৌরাস্তা এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতার আসামির নাম আবুবকর সিদ্দিক (৩৭)। তিনি সাতক্ষীরার শ্যামনগর থানার চণ্ডীপুর এলাকার কেছের আলীর ছেলে। হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত কয়েদি হয়ে কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২-এ ছিলেন।

থানা সূত্র জানায়, একটি হত্যা মামলার আসামি হন আবুবকর। সেই মামলায় তাকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছিল। পরে আপিল করলে সাজা কমিয়ে যাবজ্জীবন দেন আদালত। ২০১২ সাল থেকে আবুবকর গাজীপুরের কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২-এ ছিলেন।

২০২০ সালের ৬ আগস্ট কারাগার থেকে মই বেয়ে পালিয়ে যান তিনি। ওই ঘটনায় কারাগারের দুই কর্মকর্তা ও চার কারারক্ষীর বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয় কর্তৃপক্ষ। পালানোর ঘটনায় তখন আবুবকরের বিরুদ্ধে আরেকটি মামলা করা হয়।

পদ্মা সেতু দক্ষিণ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান জানান, পদ্মা সেতু দক্ষিণ থানার মিনাকান্দি চৌরাস্তা এলাকায় বুধবার ঘোরাফেরা করছিলেন আবুবকর। ওই এলাকায় পদ্মা সেতু উদ্বোধন অনুষ্ঠানের নিরাপত্তা রক্ষায় পুলিশ দায়িত্বপালন করছিল। বকরের চলাফেরা সন্দেহজনক হলে তাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে কাশিমপুর কারাগার থেকে পালিয়ে যাওয়ার কথা স্বীকার করেন আবুবকর। তখন তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়।

ওসি আরও জানান, আবুবকর পদ্মা সেতু দক্ষিণ থানার প্রথম গ্রেফতার আসামি। তাকে শরীয়তপুরের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। আদালতের আদেশ অনুযায়ী পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তবে আবুবকর ওই এলাকায় কেন আসেন তা এখনো জানা যায়নি বলে জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা।


আরও খবর



চলছে জনশুমারি, সাড়ে ৪ লাখ তরুণের সাময়িক কর্মসংস্থান

প্রকাশিত:Wednesday ১৫ June ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ২৬ June ২০২২ | ৩৭জন দেখেছেন
Image

করোনাভাইরাস মহামারিসহ বিভিন্ন কারণে কয়েক দফা পেছানোর পর অবশেষে শুরু হয়েছে কাঙ্ক্ষিত ‘জনশুমারি ও গৃহগণনা ২০২২’। এটি দেশের ষষ্ঠ জনশুমারি। সপ্তাহব্যাপী এ শুমারি চলবে আগামী ২১ জুন পর্যন্ত। আর চলমান এ শুমারিতে সাময়িকভাবে কলেজ অথবা অনার্স পড়ুয়া প্রায় সাড়ে চার লাখ তরুণ-তরুণীর কর্মসংস্থানের সুযোগ হয়েছে।

এবারই প্রথম ডিজিটাল পদ্ধতিতে জনশুমারি কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। আর এ কার্যক্রমে শুমারি কর্মী হিসেবে সারাদেশে প্রায় ৩ লাখ ৭০ হাজার গণনাকারী তথ্য নিচ্ছেন। সাতদিনের এ কর্মসূচির জন্য প্রত্যেক গণনাকারী পাবেন ১০ হাজার ৫০০ টাকা করে। এছাড়া জনশুমারিতে দেশব্যাপী কাজ করছেন ৬৪ হাজার সুপারভাইজার, যারা পাবেন ১১ হাজার টাকা করে।

এছাড়া বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) সাড়ে ৪ হাজারের অধিক কর্মচারী এ প্রক্রিয়ার সঙ্গে সরাসরি সম্পৃক্ত রয়েছেন। পাশাপাশি বিবিএস বহির্ভূত বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের প্রায় ৯০০ জন কর্মচারী জোনাল অফিসার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

গণনাকারীদের জন্য মোট ব্যয় হবে ৩৯০ কোটি টাকা এবং সুপারভাইজারদের জন্য ৭৭ কোটি টাকা। দুই খাত মিলিয়ে মোট ব্যয়ের পরিমাণ ৪৬৭ কোটি টাকা। তথ্য সংগ্রহের জন্য সব গণনাকারীদের হাতে একটি করে ট্যাব দেওয়া হয়েছে। তথ্য সংগ্রহকারী ও সুপারভাইজারদের সুরক্ষায় তাদের একটি করে ছাতাও দেওয়া হয়েছে।

তথ্য সংগ্রহকারী ও সুপারভাইজারদের সব তথ্য বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর ডাটা সেন্টারে সিস্টেম অনুযায়ী আপলোড করা আছে। এছাড়া তাদের সবার বিকাশ অ্যাকাউন্ট নম্বরও নেওয়া হয়েছে। শুমারি শেষ হওয়ার পর ট্যাব ও ছাতা বুঝে পাওয়ার পর এক ক্লিকেই সবার কাছে চলে যাবে সম্মানী।

এ বিষয়ে জনশুমারি প্রকল্পের পরিচালক মোহাম্মদ দিলদার হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, জনশুমারির মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহকারী ও সুপারভাইজার মিলিয়ে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নরত প্রায় সাড়ে চার লাখ তরুণ-তরুণীর কর্মসংস্থান হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, আমাদের দেশের তরুণ-তরুণীরা চমৎকার মেধাবী। সবাই নিষ্ঠার সঙ্গে বাড়ি বাড়ি গিয়ে তথ্য সংগ্রহ করছেন। সবাই কিন্তু তরুণ, কেউ কলেজে পড়ে, কেউবা হয়তো মাত্রই অনার্সে উঠলো। তাই সবাইকে বলবো, তথ্য সংগ্রহকারীদের নিজেদের সন্তান মনে করে তথ্য দিয়ে সহায়তা করুন এবং দেশের সঠিক পরিকল্পনা প্রণয়নে অংশ নিন। কারণ সঠিক জনশুমারি ছাড়া কোনো পরিকল্পনারই সঠিক বাস্তবায়ন হবে না।

মূলত দেশের বর্তমান মোট জনসংখ্যা কত- সেটি জানতেই রেলস্টেশন, লঞ্চ টার্মিনাল ও বাসস্ট্যান্ডসহ সব স্থানে ভাসমান মানুষ গণনাসহ তাদের সম্পর্কে মৌলিক জনমিতিক, আর্থ-সামাজিক ও বাসগৃহসংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহের মধ্যদিয়ে শুরু হয়েছে এ জনশুমারি।

এর আগে, বুধবার (১৫ জুন) সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবনে এক অনুষ্ঠানে বহুল প্রতীক্ষিত ষষ্ঠ ‘জনশুমারি ও গৃহগণনা ২০২২’র উদ্বোধন করেন।


আরও খবর



পদ্মা সেতুতে জন্মদিনের কেক কাটলেন ফরিদপুরের মেশকাত

প্রকাশিত:Sunday ২৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ২০জন দেখেছেন
Image

রোববার ভোর থেকে সর্বসাধারণের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছে পদ্মা সেতু। এরপর বিভিন্ন জেলা থেকে সেতু দেখতে আসেন সাধারণ মানুষ। দেশের সবচেয়ে বড় এই সেতুতে ফরিদপুর থেকে এসে নিজের জন্মদিন পালন করেন মেশকাত। বন্ধুদের সঙ্গে এসে রোববার (২৬ জুন) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় মাঝসেতুতে নিজের জন্মদিনের কেক কাটেন তিনি।

রোববার (২৬ জুন) জাজিরা প্রান্ত থেকে সেতুর মাঝখানে এসে এমন চিত্র চোখে পড়ে।

মেশকাতের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ফরিদপুর থেকে বন্ধুরা জন্মদিনের কেক কাটতে পদ্মা সেতুতে নিয়ে আসে। তারা কেকও নিয়ে আসে। ১০-১২ জন বন্ধু সঙ্গে ছিল।

মেশকাত জাগো নিউজকে বলেন, জন্মদিনে বন্ধুরা চমক দিতেই পদ্মা সেতুতে নিয়ে আসছে। স্মরণীয় করে রাখতেই এ কাজ করেছে তারা।

jagonews24

তিনি বলেন, আমাদের এলাকার মানুষের জন্য পদ্মা সেতু আবেগ ও ভালোবাসার। এতে যে কত উপকার হয়েছে তা বলে বোঝানো যাবে না। পদ্মা সেতুতে এসে কেক কাটলাম। এটি নিঃসন্দেহে সারাজীবন মনে থাকবে।

পদ্মা সেতু চালুর পর থেকেই ছবি তোলাসহ নানান অনিয়ম আলোচনায় এসেছে। পদ্মা সেতু পারাপারে যেসব নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে তা মানছেন না অনেকেই। রোববার (২৬ জুন) ভোর থেকে যাতায়াতকারীদের অনেকেই সেতুতে নেমে ছবি তুলেছেন। ভিডিও করতেও দেখা গেছে অনেককে। এসবই ছিল নিষিদ্ধ।

এসব নির্দেশনা অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে অ্যাকশন নিতে শুরু করেছে স্থানীয় প্রশাসন। কয়েকজনকে জরিমানাও করা হয়েছে। যদিও আগামীকাল (সোমবার) থেকে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা ছিল।

এদিকে পদ্মা সেতুর রেলিংয়ের নাট-বল্টু খুলে নিয়ে টিকটক ভিডিও আপলোড করেন এক যুবক। তাকেও আটক করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। আটক যুবকের নাম বায়েজিদ।


আরও খবর



শুরুতে ঊর্ধ্বমুখী শেয়ারবাজার

প্রকাশিত:Wednesday ১৫ June ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ২৬ June ২০২২ | ৩৭জন দেখেছেন
Image

টানা চার কার্যদিবস দরপতনের পর বুধবার (১৫ জুন) লেনদেনের শুরুতে শেয়ারবাজারে বড় ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা দেখা দিয়েছে। লেনদেনে অংশ নেয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বাড়ার পাশাপাশি লেনদেনের ভালো গতি দেখা যাচ্ছে।

প্রথম আধাঘণ্টার লেনদেনে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান মূল্যসূচক ৪০ পয়েন্ট বেড়ে গেছে। আর লেনদেনে দেড়শ কোটি টাকা হয়ে গেছে।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) পাশাপাশি অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই) লেনদেনে অংশ নেওয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দাম বাড়ার তালিকায় স্থান করে নিয়েছে। সেইসঙ্গে বড় ঊত্থান হয়েছে মূল্যসূচকের।

এদিন ডিএসইতে লেনদেন শুরু হয় বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বাড়ার মাধ্যমে। ফলে লেনদেন শুরু হতেই ডিএসইর প্রধান সূচক ১০ পয়েন্ট বেড়ে যায়।

লেনদেনের সময় গড়ানোর সঙ্গে সূচকের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা বাড়তে দেখা যাচ্ছে। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত সকাল ১০টা ৪২ মিনিটে ডিএসইর প্রধান সূচক ৪০ পয়েন্ট বেড়ে গেছে। অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসই ৩০ সূচক বেড়েছে ১২ পয়েন্ট। আর ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক ৫ পয়েন্ট বেড়েছে।

এ সময় পর্যন্ত ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেওয়া ২৬১টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ৫৬টির। দাম অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৬টির। লেনদেন হয়েছে ১৭০ কোটি ৭১ লাখ টাকা।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৬৩ পয়েন্ট বেড়েছে। লেনদেন হয়েছে ৩ কোটি ৬ লাখ টাকা। লেনদেন অংশ নেওয়া ১২২ প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দাম বেড়েছে ৫৫টির, কমেছে ৪৫টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২২টির।


আরও খবর