Logo
আজঃ সোমবার ২৪ জুন 20২৪
শিরোনাম
মতিউর ও তার স্ত্রী-সন্তানদের বিদেশ যেতে নিষেধাজ্ঞা তরুণরাই বদলে যাওয়া বাংলাদেশকে এগিয়ে নেবে: প্রধানমন্ত্রী নতুন সেনাপ্রধানের বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন ভূয়া সৈনিক পরিচয়ে বিয়ে করে শশুড় বাড়ী শিকলবন্দী জামাই! খাগড়াছড়িতে পুনাক কমপ্লেক্স এর উদ্বোধন করলেন: পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল এিপুরা হিজবুল্লাহর সঙ্গে যুদ্ধ বাধলে ইসরায়েলকে সমর্থন দেবে যুক্তরাষ্ট্র হজ চলাকালীন ১৩০১ জন হজযাত্রীর মৃত্যু: সৌদি আরব সেতু ভেঙ্গে নয়জন নিহতের ঘটনায় দুইটি তদন্ত কমিটি গঠন, মাইক্রোবাস উদ্ধার বর ও কনের বাড়ীতে শোকের মাতম রাশিয়ায় বন্দুকধারীদের ভয়াবহ হামলায় ১৫ পুলিশ সদস্য নিহত

সবাইকে ডেঙ্গু প্রতিরোধে কাজ করতে হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ১৫ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৩৬৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:কারো যাতে ডেঙ্গু না হয় সেজন্য সবাইকে কাজ করতে হবে, বলেছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী সামন্ত লাল সেন।

সোমবার (১৫ এপ্রিল) সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ে নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা হাসপাতালগুলোকে বলে রেখেছি। এখন চিকিৎসকরা ডেঙ্গু চিকিৎসা সম্পর্কে ভালোভাবে জানেন। স্যালাইনের যে সংকটের কথা ভাবা হয়েছে, সেটা নিয়েও আমি বৈঠক করেছি। স্যালাইনের কোনো সংকট হবে না। তবে ডেঙ্গু না হোক; সেটা আমাদের সবার প্রার্থনা। বিপর্যয় না হওয়ার জন্য কী করতে হয়; সেটা আপনারা ভালো করে জানেন।

তিনি বলেন, বাসাবাড়ি সব কিছু পরিষ্কার রাখতে হবে। অসুখ হলে তখন চিকিৎসা করতে হয়। কিন্তু কারো যাতে ডেঙ্গু না হয়; সেজন্য আমাদের কাজ করতে হবে। ঈদের ছুটিতে চিকিৎসকদের দায়িত্ব নিয়ে আমি ঢালাওভাবে বলতে চাই না। আমি কী করেছি আপনারা নিজেরাই বলবেন। আমরা কতটা মনিটরিং করতে পেরেছি তা আপনারাই দেখছেন। যতটুকু সম্ভব যথাসাধ্য চেষ্টা আমি ঈদের সময়ে করেছি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন, মন্ত্রী হওয়ার আগেও এমন কোনো ঈদ নেই, যেদিন আমি হাসপাতালে যাইনি। এমন কোনো দুর্গাপূজা নেই যেদিন হাসপাতালে যাইনি। আগে হাসপাতালে যেতাম, তারপরে উৎসবে যেতাম। ওই চিন্তা করে এবারও সেই ধারা বজায় রেখেছি। আগে আমি একটা হাসপাতালে যেতাম, এবার অনেকগুলো হাসপাতালে গিয়েছি। আমার উদ্দেশ্য হচ্ছে, দায়িত্বরত চিকিৎসক ও নার্সদের উৎসাহ দেওয়া। তারা যাতে ঠিকমতো কাজ করেন। এছাড়া সবকিছু ঠিকমতো হচ্ছে কিনা; তাও দেখতে গিয়েছি।

তিনি বলেন, আমি এবার না বলেই হাসপাতালে গিয়েছি। ঈদের আগের দিন যে কয়েকটি হাসপাতালে গিয়েছিলাম, আমি কাউকে বলেনি। সেখানে গিয়ে চিকিৎসকদের উপস্থিত দেখতে পেয়েছি। সিনিয়র ও জুনিয়র সব চিকিৎসক ছিলেন। ঈদ উদযাপন ও নববর্ষের ছুটিতে হাসপাতালের কার্যক্রম সব ভালোভাবে চলেছে।


আরও খবর



নিরাপত্তা বিশ্লেষক মেজর জেনারেল (অব.) আব্দুর রশীদ মারা গেছেন

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৪ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৩ জুন ২০২৪ | ৯৭জন দেখেছেন

Image
অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল আব্দুর রশীদ (ফাইল ছবি)

নিজস্ব প্রতিবেদক:শুক্রবার (১৪ জুন) ভোরে ঢাকা সেনানিবাসের সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন অবস্থায়, নিরাপত্তা বিশ্লেষক অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল আব্দুর রশীদ ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭০ বছর। তিনি স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়েসহ অসংখ্য আত্মীয় স্বজন এবং গুণগ্রাহী রেখে গিয়েছেন। আজ বাদ জুমা মিরপুর ডিওএইচএস কেন্দ্রীয় মসজিদে তার জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। পরে আর্মি কবরস্থানে তাকে সমাহিত করা হবে।

পরিবারের সদস্যরা জানায়, গত দুমাস ধরে মেজর জেনারেল আব্দুর রশীদ সিএমএইচে চিকিৎসাধীন ছিলেন। এর আগে তিনি চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুর যান। সেখান থেকে দেশে ফেরার পর তার স্বাস্থ্যের অবনতি ঘটলে সিএমএইচে ভর্তি করা হয়।

উল্লেখ্য, সেনাবাহিনীতে চাকরির সময় অতি মেধাবী অফিসার হিসেবে পরিচিত মেজর জেনারেল (অব.) আব্দুর রশীদ। বিভিন্ন টকশোতে একজন স্পষ্টভাষী ও নির্ভীক বক্তা হিসেবে অংশ নেন এবং তার লেখা কলাম বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় নিয়মিত প্রকাশিত হয়।


আরও খবর



দু’দিনের ব্যবধানে হিলিতে দেশীয় পেঁয়াজ কেজিতে বেড়েছে ১০ টাকা

প্রকাশিত:সোমবার ০৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১১৭জন দেখেছেন

Image

মাসুদুল হক রুবেল,হিলি (দিনাজপুর) প্রতিনিধি:আর মাত্র বাঁকি ১৩ দিন কোরবানী ঈদ। দিনাজপুরের হিলিতে দুদিনের ব্যবধানে দেশীয় পেঁয়াজ কেজিতে দাম বেড়েছে ১০ টাকা। দু’দিন আগে শনিবার (১ জুন) প্রতিকেজি পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ৭০ টাকা দরে। আর সোমবার (৩ জুন) প্রতিকেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৮০ টাকা দরে। এতে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন ক্রেতারা। ক্রেতরা বলছেন,ঈদুল আজহার আগে ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট করে পেঁয়াজের দাম বাড়িয়ে দিয়েছেন। ব্যবসায়ীরা বলছেন,সরবরাহ কমে যাওয়ায় মোকামগুলোতেই দাম বেশি। এদিকে প্রায় ৫ মাস ৬ দিন বন্ধ থাকার পর ভারত সরকার পেঁয়াজ রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। তবে রফতানিতে ৪০ শতাংশ শুল্ক আরোপ করায় পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ করে রেখেছেন বন্দররের আমদানিকারকরা। 

আজ সোমবার (৩ জুন) দুপুরে হিলি বাজার ঘুরে দেখা গেছে, দুই দিন আগে দেশীয় পেঁয়াজ ৭০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে। এর দু’দিন যেতে না যেতেই তা বেড়ে দেশীয় পেঁয়াজের দাম ৮০ টাকা কেজিতে ওঠেছে। এখন সেই পেঁয়াজ কেজিতে ১০ টাকা বেড়ে ৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এদিকে গেলো মাসের (১৪ মে) বিকেল ৬ টায় ভারতীয় একটি   ট্রাকে ৩০ মেট্রিকটন পেঁয়াজ আমদানি করা হয়। ব্যবসায়ীরা জানান, ৫৫০ মার্কিন ডলার রপ্তানীমূল্য ও ৪০ শতাংশ শুল্ক হার নির্ধারণ করেছে। এতে আমদানি করে লোশানের গুনতে হচ্ছে। তাই গত মাসের ৫ তারিখে আমদানির অনুমতি মিললেও আমদানি বন্ধ করে রাখা হয়েছে। 

হিলি বাজারের খুচরা পেঁয়াজ বিক্রেতা আবু তাহের বলেন, বেশি কিছু দিন আগে আমদানির খবরে দেশীয় পেঁয়াজের মোকামগুলোতে দাম ওঠা নামা করেছে। গতকাল রোববার (২ জুন) মোকামে পাইকারী পেঁয়াজ কিনেছি ৩ হাজার টাকা মন। এতে মোকামে কিনতেই ৭৫ টাকা কেজিতে পড়েছে। এরপর পরিবহন খরচ আছে। আজকে আমি ৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করছি দেশীয় পেঁয়াজ। আর ভারত থেকে এক গাড়ি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছিল না। সেই পেঁয়াজগুলো আমরা ৬২ টাকা কেজি দরে কিনে খুচরা ৬৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি করছি। 

হিলি বাজারে পেঁয়াজ কিনতে আসা ফরহাদ আলী বলেন,২ দিন আগেই  ৭০ টাকা কেজি দরে কিনেছি দেশীয় পেঁয়াজ। আর আজ কিনলাম ৮০ টাকা কেজি দরে। মাত্র দুদিনের ব্যবধানেই প্রতিকেজি পেঁয়াজের দাম বেড়েছে ১০ টাকা।

তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন,ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট করে পেঁয়াজের দাম বাড়িয়ে দিচ্ছে। ভারত থেকে পেঁয়াজ না আসার সুযোগে তারা দেশি পেঁয়াজের দাম ইচ্ছে মতো বাড়াচ্ছেন। দুই সপ্তাহ আগেও প্রকিকেজি পেঁয়াজ ৬০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। এরপর ভারত থেকে একদিন পেঁয়াজ এলে তারা দাম কমিয়ে ৫০ থেকে ৫৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি করেন। 

হিলি স্থলবন্দর পেঁয়াজ আমদানিকারকরা জানান, ভারত সরকার পেঁয়াজ রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নেওয়ার পর  ইতিমধ্যেই ২০ জন আমদানিকারক নতুন করে ২৭ হাজার টন পেঁয়াজ আমদানির অনুমতি পেয়েছেন। পেঁয়াজ রফতানিতে ভারত সরকারের আরোপ করা ৪০ শতাংশ শুল্ক এখনও অব্যাহত আছে। ৪০ শতাংশ শুল্ক প্রত্যাহার না করলে পেঁয়াজ আমদানি করা সম্ভব হবে না। ৪০ শতাংশ শুল্ক পরিশোধ করে প্রতি কেজি পেঁয়াজ আমদানিতে অতিরিক্ত ২৫ টাকা গুনতে হবে। এতে করে বন্দরের চার্জসহ সব খরচ দিয়ে কেজি প্রতি পেঁয়াজের দাম পড়বে ৭০ টাকার ওপরে। বর্তমান দেশের বাজার অনুযায়ী ওই দামে পেঁয়াজ আমদানি করলে লোকসানের মুখে পড়তে হবে আমদানিকারদের। পেঁয়াজ আমদানি করলে ট্রাক প্রতি সাড়ে ৬ লাখ টাকার মতো লোকসান গুনতে হবে। তাই ক্ষতির আশঙ্কায় আমদানিকারকরা পেঁয়াজ আমদানিতে আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছে। 

আামদানিকারকরা আরও জানান,ভারত থেকে এক গাড়ি পেঁয়াজ আমদানি করে ক্রেতা না পাওয়ায় স্থানীয় বাজারের খুচরা বিক্রেতাদের কাছে ৬২ টাকা কেজি দরে বিক্রি করা হয়েছে। এতে অনেক টাকা লোকশান গুনতে হয়েছে।


আরও খবর



ছাত্রলীগ নেতা হত্যাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর: মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ১০ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৩৭২জন দেখেছেন

Image

সাগর আহম্মেদ,কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি:মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আলহাজ¦ এ্যাড. আ. ক. ম মোজাম্মেল হক (এমপি) বলেছেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বাবা, মা, ভাইসহ তাঁর পরিবারের ১৮জনকে হত্যা করা হয়েছে। হত্যা হলে পরিবারের কি কষ্ট লাগে তাঁর চেয়ে বেশি কেউ বুঝে না।কাজেই তিনি ছাত্রলীগ নেতা হত্যার ঘটনা জানেন। ভারতে যাওয়ার সময় এ বিষয় নিয়ে আমারও উনার সঙ্গে কথা হয়েছে। তিনিও পুলিশ প্রধানকে এ হত্যাকান্ডের হত্যাকারীদের খুজে সর্বোচ্চ শাস্তির ব্যবস্থা করতে বলেছেন।

তিনি সোমবার সকালে গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলা পরিষদের হলরুমে উপজেলা প্রকৌশলী অধিদপ্তর কর্তৃক আয়োজিত অনুষ্ঠানে আরইআরএমপি-৩ প্রকল্পের আওতায় নারীকর্মীদের সঞ্চয়ের চেক হস্তান্তর করেন। ওই অনুষ্ঠান শেষে ছাত্রলীগ নেতা আল আমিন হত্যাকারীদের শাস্তির দাবীতে পরিবার ও এলাকাবাসী ছুটে এলে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন- গাজীপুর জেলা নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ কামরুজ্জামান, কালিয়াকৈর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাউছার আহাম্মেদ, উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান সেলিম আজাদ, উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি রজত বিশ্বাস, উপজেলা প্রকৌশলী বিপ্লব পাল, কালিয়াকৈর থানার তদন্ত ওসি তরিকুল ইসলাম, ভাইস চেয়ারম্যান মনোয়ার হোসেন শাহীন, সংরক্ষিত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শরিফা আক্তারসহ আরো অনেকে।

মন্ত্রী আরো বলেন, আমাদের দলের ছাত্রনেতা ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু সরকারী কলেজের দ্বাদশ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি আল আমিনকে অত্যান্ত নির্মম নিষ্ঠুরভাবে হত্যা করেছে ছাত্রলীগ নামধারী কিছু নেতাকর্মী। সেটা আমরা সরেজমিনে না দেখলেও ভিডিও মাধ্যমে দেশবাসী দেখেছেন। কাজেই কে তাকে মেরেছে? সমস্ত তথ্য প্রমাণ প্রশাসনের সর্বোচ্চ স্তরেই আছে। হত্যাকারী যে দলেরই হোক তাদের ঘৃণা করি, নিন্দা জানাই। আর প্রশাসনকে আগেও বলেছি, এখনো বলছি। যেহেতু খুনিরা বাংলাদেশের অভ্যন্তরেই আছে, যেভাবেই হোক তাদের খোঁজে সর্বোচ্চ শাস্তির ব্যবস্থা করা হোক।

তিনি বলেন, আপনারা দেখেছেন আমাদের সরকার পুলিশ বাহিনীর প্রধান ছিলেন তার অপকর্মের বিরুদ্ধে কিভাবে ব্যবস্থা নিচ্ছে।সেনাবাহিনীর প্রধান যারা অন্যায় অপকর্ম বেআইনি কাজ করেছে, তারাই ছাড় পায়নি। সেখানে ছাত্রলীগ নেতা আল আমিন হত্যাকারীরা তো ছাড় পাওয়ার প্রশ্নই উঠে না। এই খুনের বিচার না হলে খুনিদের সাহস বেড়ে যাবে, আরো খুন-খারাপি হবে।মানুষ তো ফেরত দেওয়া যাবে না জানিয়ে এই খুনের হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমুলক বিচারের নিশ্চয়তা দিলেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী।

এর আগে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী ওই অনুষ্ঠানে আরইআরএম পি-৩ প্রকল্পের আওতায় এ উপজেলার ৯১ জন নারী কর্মীর প্রত্যেককে ১ লক্ষ ২০ হাজার ৫০৫ টাকার করে চেক প্রদান করেন। এছাড়াও উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় দিনব্যাপী বিভিন্ন উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করেন মন্ত্রী।


আরও খবর



কোরবানির পশু কাটার জন্য সৈয়দপুরের কসাই ঢাকা যাওয়ার প্রস্তুতি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | ১০০জন দেখেছেন

Image

জহুরুল ইসলাম খোকন সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:ঈদ উল আজহায় কোরবানির পশু কাটার জন্য সৈয়দপুর থেকে শতাধিক কসাই ঢাকা যাওয়ার প্রস্তুতি নিয়েছেন।ট্রেন ও বাসে করে এযাবৎ অর্ধশতাধিক কসাই ঢাকা পৌঁছেছেন। কোরবানির তিন দিনে অন্তত ২০ লাখ টাকাও বেশি আয় করবেন বলে জানিয়েছেন তারা।

কসাইরা জানান, কুরবানী ঈদ এর মাস খানিক আগেই ঢাকার অনেকেই সৈয়দপুরের কসাই বুকিং দিয়ে রেখেছেন। একারনে ঈদের ২/৩ দিন আগেই ঢাকায় সব কসাইকে পৌঁছাতে হবে।কন্ট্রাক হয়েছে হাজারে ৩০০ টাকা দিতে হবে কসাইদের। সে হিসেবে এক লাখ টাকার একটি গরুতে কসাইকে দিতে হবে ৩০ হাজার টাকা।

কাল্লু নামের এক কসাই জানান, এবারে শতাধিক কসাই ঈদে ঢাকায় গিয়ে কোরবানির পশুর মাংস কাটার কাজ করবেন। চারজন  করে একটি গ্রুপে পশু কাটার  কাজটি করবেন তারা। তিনদিনে একেকটি গ্রুপ কমপক্ষে ১৬টি গরু কাটতে পারবেন। এতে করে একেকটি গ্রুপ ৪ লাখ টাকা আয় করতে পারবেন।

মজ্নু নামের অপর এক কসাই জানান,১৫ জুন রাতে বাসে করে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিবেন। অনেকে  আবার ১৬ জুন সকালে যাবেন ঢাকায়। কেউ কেউ ঈদের আগের দিন রাতে বিমানে ঢাকায় পৌঁছাবেন।

নাদের এন্টারপ্রাইজ এর সুপারভাইজার আলমগীর বলেন, আমার কাছে ১৫-২০ জন কসাই ঢাকা যাওয়ার জন্য টিকেট চেয়েছেন। এদের মধ্যে কেউ কেউ টিকেট নিয়ে গেছেন। সৈয়দপুর থেকে অনেক কসাই ঈদের আগের দিন বিমানযোগে ঢাকায় যাবেন বলে জানান বিমানের টিকেট বিক্রেতারা ।

রাজধানীর উত্তরায় থাকেন তারেক নামের এক অবসর প্রাপ্ত বিমান কর্মকর্তা। চাকরির সুবাদে তিনি সৈয়দপুরে ছিলেন দীর্ঘদিন। একারনে এশহরের অনেকেই তাঁর পরিচিত। ঈদে কুরবানির মাংস কাটতে মোবাইলে সৈয়দপুরের একজন কসাইয়ের সঙ্গে চুক্তি হয়েছে তার। ঈদের দিন সকালে উত্তরার বাসায় গিয়ে কোরবানির গরুর মাংস কাটতে হবে। বিনিময়ে ২০ হাজার টাকা নিবেন কসাইকে।

সৈয়দপুর কসাই সমিতির সভাপতি মোঃ নাদিম ওরফে ছোটুয়া বলেন, ঢাকার মানুষরা তাদের কুরবানির পশু কাটাতে হাজারে ৩০০ টাকা দেয়ার কারনে ঈদের আগে কসাই শুন্য হয়ে যাবে সৈয়দপুর। এশহরের মানুষ তাদের পশু কার দ্বারা কাটবেন বুঝতে পারছি না। সৈয়দপুরের মানুষ যদি হাজারে ১৫০ টাকা মাংস কাটা বাবদ দিতেন তাহলে অর্ধেক কসাই ঢাকায় যেতো না। তিনি আরো বলেন, কসাইদের ও উচিত ঈদের শুধু নিজের স্বার্থ না দেখে সৈয়দপুর বাসীর পাশে থাকা। নিজের স্বার্থ হাসিল করতে সৈয়দপুর বাসীকে বিপদে ফেলে ঢাকায় যাওয়া ঠিক হচ্ছে না বলে জানান তিনি। 


আরও খবর



স্ত্রী-সন্তানসহ বেনজীরকে দুদকে তলব

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১৬১জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক (আইজিপি) বেনজীর আহমেদকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য স্ত্রী ও দুই মেয়েসহ তলব করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

মঙ্গলবার (২৮ মে) দুদকের প্রধান কার্যালয় থেকে পাঠানো এক নোটিশে বেনজীর আহমেদকে আগামী ৬ জুন দুদকে হাজির হয়ে বক্তব্য দেওয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। পৃথক একটি নোটিশে বেনজীরের স্ত্রী ও সন্তানদেরও আগামী ৯ জুন হাজির হতে বলেছে দুদক।

এর আগে মঙ্গলবার (২৮ মে) দুপুরে বেনজীর আহমেদ, তার স্ত্রী জিশান মির্জা ও ছোট মেয়ে তাহসিন রাইসা বিনতে বেনজীরের নামে থাকা শেয়ার বাজারের সব বেনিফিশিয়ারি ওনার্স অ্যাকাউন্ট বা বিও হিসাব অবরুদ্ধ (ফ্রিজ) করে রাখার নির্দেশ দেয় বাংলাদেশ সিকিউরিটি অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। সে অনুযায়ী সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা সেগুলো ফ্রিজ করেন।

গত ২৩ ও ২৬ মে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকা মেট্রোপলিটন সিনিয়র স্পেশাল জজ মোহাম্মদ আসসামছ জগলুল হোসেনের আদালত বেনজীর আহমেদ এবং তার স্ত্রী জিশান মির্জা, বড় মেয়ে ফারহিন রিশতা বিনতে বেনজীর ও ছোট মেয়ে তাহসিন রাইসা বিনতে বেনজীরের নামে বিভিন্ন সম্পত্তির দলিল, ঢাকায় ফ্ল্যাট ও কোম্পানির শেয়ার জব্দের নির্দেশ দেন।

আদলত থেকে বেনজীর আহমেদ এবং তার পরিবারের সদস্যদের নামে বিভিন্ন সম্পত্তির দলিল, ঢাকায় ফ্ল্যাট ও কোম্পানির শেয়ার জব্দের (ক্রোক) নির্দেশ দেওয়ার পর এ পদক্ষেপ নিলো পুঁজিবাজারের নিয়ন্ত্রক সংস্থা।


আরও খবর