Logo
আজঃ সোমবার ২৪ জুন 20২৪
শিরোনাম

সাংবাদিক শামসুজ্জামানের নামে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা

প্রকাশিত:বুধবার ২৯ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৩৭১জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকার সাভারে কর্মরত দৈনিক প্রথম আলোর নিজস্ব প্রতিবেদক সামসুজ্জামানের নামে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে। আজ বুধবার দুপুর সোয়া ২টায় মামলাটি করেন সৈয়দ মো. গোলাম কিবরিয়া নামের এক যুবলীগ নেতা। কিবরিয়া ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগের ১১ নম্বর ওয়ার্ডের সাধারণ সম্পাদক বলে জানা গেছে। 

মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তেজগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অপূর্ব হাসান। 

আজ দুপুরে সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান জানিয়েছিলেন সাংবাদিক শামসুজ্জামানের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। তিনি বলেন, ‘আইন কিন্তু নিজস্ব গতিতে চলে। আইন অনুযায়ী, সমস্ত কিছু চলে। কেউ যদি সংক্ষুব্ধ হয়ে বিচার চায়, সংক্ষুব্ধ হয়ে থানায় মামলা করে, সেই অনুযায়ী পুলিশ কিন্তু ব্যবস্থা নিতেই পারে। আমি যতটুকু জানি, একটা মামলা রুজু হয়েছে।’

এর আগে আজ ভোর ৪টার দিকে শামসুজ্জামানকে তার বাসা থেকে তুলে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) বিরুদ্ধে। শামসুজ্জামান জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশে আমবাগান এলাকায় থাকতেন। ঘটনার সময় সিআইডি পরিচয় দেওয়া ব্যক্তিরা সাধারণ পোশাকে ছিলেন বলে জানা গেছে।

দুজন প্রত্যক্ষদর্শী জানান, বুধবার ভোর ৪টার দিকে তিনটি গাড়িতে প্রায় ১৪–১৫ জন শামসুজ্জামানের বাসার সামনে যান। তাদের সাত থেকে আটজন বাসায় ঢোকেন। একজন শামসুজ্জামানের থাকার কক্ষ তল্লাশি করে তার ব্যবহৃত একটি ল্যাপটপ, দুটি মুঠোফোন ও একটি পোর্টেবল হার্ডডিস্ক নিয়ে যান। ১০ থেকে ১৫ মিনিট পর ওই ব্যক্তিরা শামসুজ্জামানকে নিয়ে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলায় যান।

ঘটনার সময় শামসুজ্জামানের বাসায় ছিলেন স্থানীয় এক সাংবাদিক। তিনি বলেন, ‘ভোর পৌনে ৫টার দিকে শামসুজ্জামানকে সঙ্গে নিয়ে আবার তার বাসায় যান সিআইডি পরিচয় দেওয়া ব্যক্তিরা। দ্বিতীয়বার বাসায় যাওয়ার সময় আশুলিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) রাজু মণ্ডলকে দেখা গেছে।

তবে এ বিষয়ে এখনো কিছু জানেন না বলেই জানিয়েছেন আশুলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস এম কামরুজ্জামান।

উল্লেখ্য, শামসুজ্জামান ২০১৬ সালের ১ জুলাই ঢাকার হলি আর্টিজান রেস্তোরাঁয় জঙ্গিদের হামলায় নিহত ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) তৎকালীন সহকারী কমিশনার (এসি) রবিউল করিমের ছোট ভাই।


আরও খবর



১৭ গুন বেশি দামে খতিবের প্রকল্পে ক্রয়কৃত জমিতে নির্মিত প্রবীন নিবাস পড়ে আছে অলস

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৩ জুন ২০২৪ | ৮২জন দেখেছেন

Image
সাইদুর রহমান মাগুরা থেকে:মাগুরা-নড়াইল আঞ্চলিক সড়কের পাশে নবগঙ্গা নদীর তীরে গড়ে উঠেছে প্রফুল্ল-প্রতিভা প্রবীণ নিবাস, এতিমখানা এবং বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন ব্যক্তিদের সাহায্যকেন্দ্র। 

১৭ গুণ বেশি দামে জমি কেনা জমির ওপর নির্মিত হয়েছে পাঁচতলা বিশিষ্ট সুদৃশ্য দুটি ভবন। সাবেক এক অতিরিক্ত সচিব মাগুরায় নিজের মা–বাবার নামে ট্রাস্ট গঠন করে প্রবীণ নিবাস ও এতিমখানার জন্য ভবন দুটি নির্মাণ করেছেন। ১২ মাস আগে ভবনগুলোর কাজ শেষ হলেও এখনো অব্যবহৃত পড়ে আছে। 

প্রফুল্ল-প্রতিভা ট্রাস্ট ও সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের যৌথ অর্থায়নে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হচ্ছে। এর প্রাক্কলন ব্যয় ধরা হয়েছিল ২৮ কোটি টাকা। প্রকল্প ব্যয়ের ২০ শতাংশ, অর্থাৎ ৫ কোটি ৬৪ লাখ টাকা ট্রাস্টের দেওয়ার কথা। বাকি ২২ কোটি ৩৬ লাখ টাকা সরকার দিয়েছে। কিন্তু কাজের শুরুতে জমি কেনার নামে প্রতারণার আশ্রয় নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। 

সাবেক ওই অতিরিক্ত সচিবের নাম স্বপন কুমার ঘোষ (৬২)। সমাজসেবা অধিদপ্তরের প্রকল্প দেখভাল করতে পরিকল্পনা কমিশনের যে আর্থসামাজিক শাখা আছে, ২০২০ সালের মার্চে তিনি ওই শাখার প্রধান হিসেবে দায়িত্ব নেন। পরে নিজ জেলা মাগুরার সদর উপজেলার শত্রুজিৎপুর ইউনিয়নের পয়ারী গ্রামে মা–বাবার নামে প্রফুল্ল-প্রতিভা প্রবীণ নিবাস, এতিমখানা এবং বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন ব্যক্তিদের সাহায্য কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করেন।

প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে প্রফুল্ল-প্রতিভা ট্রাস্ট। স্বপন কুমার ঘোষ ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান এবং তাঁর স্ত্রী ছবি রানী কর ট্রাস্টের পাঁচ সদস্যের একজন। প্রকল্পের আওতায় দুটি পাঁচতলা ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। যেখানে একটি ভবনে ৫০ এতিম ও আরেক ভবনে ৫০ জন প্রবীণ ও বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন ব্যক্তি থাকতে পারবেন। গত ২৩ সালের জুনে ভবন নির্মাণসহ প্রকল্পের বেশির ভাগ কাজ সম্পন্ন হলেও চলতি জজুনেও চালু হয়নি।

প্রকল্প প্রস্তাবে উল্লেখ করা হয়, প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করতে শত্রুজিৎপুর ইউনিয়নের পয়ারী গ্রামের ১৭৭ নম্বর মৌজায় ১২৭ শতক জমি দেওয়ার কথা প্রফুল্ল-প্রতিভা ট্রাস্টের। প্রকল্প পরিচালকের ভাষ্য অনুযায়ী, প্রতি শতক জমির দাম ৩ লাখ ৭৫ হাজার টাকা ধরে ১২৭ শতক জমির জন্য ৪ কোটি ৭৬ লাখ টাকা পরিশোধ করা হয়েছে। আদতে ওই এলাকায় জমির দাম অনেক কম। 

শত্রুজিৎপুর ইউনিয়ন ভূমি কার্যালয় সূত্র জানায়, প্রকল্পের ১২৭ শতক জমির মধ্যে বাগান শ্রেণীর ১১১ শতক। সরকারি মৌজা মূল্য হিসেবে ওই এলাকায় বাগান শ্রেণীর প্রতি শতক জমির সর্বনিম্ন মূল্য ২৩ হাজার ৪৬ টাকা। এই হিসেবে ১১১ শতক জমির মূল্য ২৫ লাখ ৫৮ হাজার ১০৬ টাকা। আর ১৬ শতক জমি আছে ডাঙ্গা শ্রেণীর। সরকারি মৌজা মূল্য হিসেবে ওই এলাকায় ডাঙ্গা শ্রেণীর প্রতি শতক সর্বনিম্ন মূল্য ১৪ হাজার ৮০০ টাকা। সেই হিসেবে ১৬ শতক জমির মূল্য ২ লাখ ৩৬ হাজার ৮০০ টাকা। সব মিলিয়ে ১২৭ শতক জমির দাম দাঁড়ায় ২৭ লাখ ৯৪ হাজার ৯০৬ টাকা। কিন্তু এই দামের চেয়ে ১৭ গুণ বেশি দামে ৪ কোটি ৭৬ লাখ টাকায় কেনা হয়েছে ওই জমি।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে প্রকল্প পরিচালক মো. জাহিদুল আলম  বলেন, তিনি বেশীদিন প্রকল্পের দ্বায়িত্ব পাননি।

মাগুরা শহর থেকে পয়ারী গ্রামের দূরত্ব আনুমানিক ১৫ কিলোমিটার। শহর থেকে নড়াইল আঞ্চলিক সড়ক ধরে গেলে চোখে পড়ে প্রথমে শত্রুজিৎপুর বাজার । বাজার থেকে প্রায় দেড় কিলোমিটার রাস্তা পার হলে চোখে পড়ে এ প্রবীন নিবাস। পাশাপাশি দুটি নতুন ভবন। এর একপাশে মাগুরা-নড়াইল আঞ্চলিক সড়ক, অন্যপাশে নবগঙ্গা নদী।
 ভেতরে ঢুকে পাঁচতলা দুটি ভবন চোখে পড়ে। ভবন দুটির ফটকে তালা। তবে কোথাও প্রকল্পের নির্মাণ–সংক্রান্ত তথ্যবোর্ড চোখে পড়েনি। প্রকল্পের অংশ হিসেবে নবগঙ্গা নদীতে নামার জন্য বড় একটি ঘাট করা হয়েছে। বিকেলে সেখানে বসে স্থানীয় বাসিন্দারা সময় কাটান।

জানতে চাইলে ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান স্বপন কুমার ঘোষ মুঠোফোনে  বলেন,শতবার এসব প্রশ্নের জবাব দিয়েছি। ডিপিপি আছে। ওখানে সব লেখা আছে। কী উপকার হবে, কীভাবে হয়েছে আমি আর বলতে পারব না।’

ভবনের পাশের বাসিন্দারা জানান,  শুরু থেকে ওখানে কোনো বৃদ্ধ বা এতিম নিবাসীকে  থাকতে দেখেননি কেউই। 

মাগুরার এই ট্রাস্ট নিয়ে তাঁরা বলেন, প্রবীণ নিবাসে মানুষ থাকতে চায় না। শহরের বাইরে মানুষ যাবে কি না সেটাও বড় প্রশ্ন। প্রকল্পে ক্ষমতার অপব্যবহার হয়েছে কি না সরকারের গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করা উচিত।

আরও খবর



ডিপজলের বড় ভাই মারা গেছেন

প্রকাশিত:শনিবার ১৫ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৮৩জন দেখেছেন

Image

বিনোদন ডেস্ক:চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মনোয়ার হোসেন ডিপজলের বড় ভাই হাজী মোহাম্মদ শাহাদাৎ হোসেন ওরফে বাদশা মারা গেছেন।

শনিবার (১৫ জুন) দুপুরে রাজধানীর শ্যামলীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। এ খবর নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগর।

হাজী মোহাম্মদ শাহাদাৎ হোসেন চলচ্চিত্র প্রযোজক, পরিচালক, প্রদর্শক এবং বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক পরিবেশক সমিতির সাবেক সভাপতি ছিলেন।

জানা গেছে, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে শুক্রবার (১৪ জুন) ভোর ৩টায় হাসপাতালে ভর্তি হন ডিপজলের বড় ভাই শাহাদাৎ। এরপর তার শারীরিক অবস্থা খারাপের দিকে এগোলে তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখার সিদ্ধান্ত নেন চিকিৎসকরা। ভাইয়ের সুস্থতার জন্য সবার কাছে ফেসবুকে দোয়াও চেয়েছিলেন ডিপজল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত মায়ার বন্ধন ছিন্ন করে দুপুরে পরপারে পাড়ি জমান ডিপজলের বড় ভাই। তার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি। শোকাহত পরিবার, ভক্ত ও শুভাকাঙ্ক্ষিরা।


আরও খবর



পত্নীতলায় উন্মুক্ত বাজেট সভা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:সোমবার ২৭ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | ১৩৮জন দেখেছেন

Image
দিলিপ চৌহান, পত্নীতলা (নওগাঁ) প্রতিনিধি:পত্নীতলায় উপজেলার কৃষ্ণপুর ইউনিয়ন পরিষদের উন্মুক্ত বাজেট সভা রবিবার ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

উক্ত উন্মুক্ত বাজেট সভায় কৃষ্ণপুর ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে ইউনিয়ন পরিষদের অন্যান্য সদস্যবর্গ এবং উক্ত ইউনিয়নের গনমান্য ব্যাক্তিবর্গ সহ উপস্থিত ছিলেন দি হাঙ্গার প্রজেক্ট বাংলাদেশ এর ইউনিয়ন সমন্বয়কারী হামিদুল ইসলাম প্রমুখ।

এসময় ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম উপস্থিত জনতার সামনে ইউনিয়নে ২০২৪-২৫ অর্থ বছরে যে কাজগুলো বাস্তবায়ন হয়েছে সেগুলো উপস্থাপন করেন। তিনি বলেন ২০২৪-২৫ অর্থ-বছরের রাজস্ব আয় মোট অনুদান প্রাপ্তি ৪২ লক্ষ ৭৭ হাজার ৭২২, মোট রাজস্ব ব্যায় ৪২ লক্ষ ৭৭ হাজার ৭২২ এবং উন্নয়ন হিসাব প্রাপ্ত আয় ২ কোটি ৯১ লক্ষ ১৮ হাজার ৭০০ ও উন্নয়ন হিসাব প্রাপ্ত ব্যায় ২ কোটি ৯১ লক্ষ ১৮ হাজার ৭০০।

আরও খবর



শ্বাসরুদ্ধ ম্যাচে ২ উইকেটে জয় পেল বাংলাদেশ

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১২৪জন দেখেছেন

Image

স্পোর্টস ডেস্ক:বাংলাদেশ অবশেষে জয়ের দেখা পেল। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে এর আগে দুইবার শ্রীলঙ্কার মুখোমুখি হয়ে টাইগাররা জয়ের দেখা পায়নি। আজও লঙ্কানদের বিপক্ষে ম্যাচটা কঠিন করে তুলেছিল টপ অর্ডাররা। শেষ মুহূর্তে মাহমুদউল্লাহর ব্যাটে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে বাংলাদেশ। ২ উইকেটে জয় পেল বাংলাদেশ।

মুস্তাফিজুর রহমান ও রিশাদ হোসেন ডালাসের গ্র্যান্ড প্রেইরি স্টেডিয়ামে আগে ব্যাট করা শ্রীলঙ্কাকে দারুণ আক্রমণের মুখে ফেলে দেন। নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের পাশাপাশি দুজনই তিনটি করে উইকেট নিয়েছেন। ফলে সর্বসাকুল্যে ৯ উইকেটে মাত্র ১২৪ রানের পুঁজি দাঁড় করায় ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গার দল। সেই রানের চাপও শুরুতে নিতে পারেননি টপ অর্ডারে নামা সৌম্য সরকার, তানজিদ হাসান তামিম ও অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত।

তিন উইকেট ৩০ রানে হারানো বাংলাদেশ পথ খুঁজে পায় তাওহীদ হৃদয়ের কল্যাণে। তিনি যখন ফিরছেন তখন জয় পেতে আর ৫০ বলে ৩৪ রান দরকার টাইগারদের। সেই ম্যাচটাই কিনা কঠিন বানিয়ে ফেলেন সাকিব আল হাসান ও রিশাদ হোসেনরা। মাহমাহমুদউল্লাহ মাঠে নেমে খেলাকে জেতার লড়াইকে সহজ করে তোলেন। প্রথম বলকে ছক্কা হাঁকিয়ে ম্যাচকে নিজেদের দিকে টেনে নেন মিস্টার সাইলেন্ট কিলার। পরের বলে এক রান নিয়ে সাকিবকে স্ট্রাইক দেন। এক বল ডট দিয়ে পরের বলে এক রান নিয়ে মাহমুদউল্লাহকে স্টাইক দেন। পঞ্চম বল থেকে ডট আদায় করে নেন দাশুন শানাকা। ষষ্ঠ বলে মাহমুদউল্লাহকে আউটের জন্য রিভিউ নেয় শ্রীলঙ্কা। উল্টো রিভিউ থেকে সেই বলকে ওয়াইড ঘোষণা করেন থার্ড আম্পায়ার। যার ফলে ৭ বলে বাংলাদেশের প্রয়োজন পড়ে ২ রান। ১৯তম ওভারের শেষ বলে ২ রান নিয়ে এক ওভার হাতে থাকতেই বাংলাদেশের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়েন মাহমুদউল্লাহ ও তানজিম সাকিব।


আরও খবর



এমপি আনার হত্যা: আ. লীগ নেতা মিন্টু ৮ দিনের রিমান্ডে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১১৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইদুল করিম মিন্টুর ৮ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত, ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনারকে হত্যার উদ্দেশ্যে অপহরণের মামলায়।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) তাকে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করে পুলিশ। এরপর মামলার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য তাকে ১০ দিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করেন ডিবি পুলিশের সিনিয়র সহকারী কমিশনার মাহফুজুর রহমান। শুনানি শেষে ঢাকার অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট তোফাজ্জল হোসেন তার এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে গত ২৩ মে সৈয়দ আমানুল্লাহ আমান ওরফে শিমুল ভূঁইয়া, ফয়সাল আলী সাজী ওরফে তানভীর ভূঁইয়া ও সিলিস্তি রহমানকে এ মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়। দুই দফায় তাদের ১৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। তারা তিনজনই ঘটনার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন। বর্তমানে তারা কারাগারে রয়েছেন।

মূল ঘাতক শিমুল ভূঁইয়াসহ তিনজনের দেওয়া জবানবন্দিতে নাম এসেছে ‘গ্যাস বাবুর’। গ্যাস বাবুকের গ্রেপ্তারের পর তার দেওয়া তথ্যে ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মিন্টুর নাম আসে বলে জানান ডিবি প্রধান হারুন অর রশিদ।

এরপর মঙ্গলবার (১১ জুন) বিকেলে ধানমন্ডি থেকে তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে ডিবি পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদে এ ঘটনায় তার সম্পৃক্ততা পাওয়ায় এ মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

গত ১২ মে চিকিৎসার জন্য ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ থেকে ভারতে যান এমপি আনার। ওঠেন পশ্চিমবঙ্গে বরাহনগর থানার মণ্ডলপাড়া লেনে গোপাল বিশ্বাস নামে এক বন্ধুর বাড়িতে। পরদিন চিকিৎসক দেখানোর কথা বলে বাড়ি থেকে বের হন তিনি। এরপর থেকেই রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হন আনোয়ারুল আজীম।

বাড়ি থেকে বেরোনোর পাঁচদিন পর ১৮ মে বরাহনগর থানায় আনোয়ারুল আজীম নিখোঁজের বিষয়ে একটি জিডি করেন বন্ধু গোপাল বিশ্বাস। এরপরও খোঁজ মেলে না তিনবারের এই সংসদ সদস্যের। ২২ মে হঠাৎ খবর ছড়ায়, কলকাতার পার্শ্ববর্তী নিউটাউন এলাকায় সঞ্জীবা গার্ডেনস নামে এক ভবনের বিইউ ৫৬ নম্বর রুমে আনোয়ারুল আজীম খুন হয়েছেন। ঘরের ভেতর পাওয়া গেছে রক্তের ছাপ। তবে ঘরে মেলেনি মরদেহ।

এ ঘটনায় ২২ মে ঢাকার শেরেবাংলা নগর থানায় মামলা করেন তার মেয়ে মুমতারিন ফেরদৌস ডরিন।


আরও খবর