Logo
আজঃ Tuesday ২৮ June ২০২২
শিরোনাম
নাসিরনগরে বন্যার্তদের মাঝে ইসলামী ফ্রন্টের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ রাজধানীর মাতুয়াইলে পদ্মাসেতু উদ্ধোধন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল রূপগঞ্জে ভূমি অফিসে চোর রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা

রূপগঞ্জের কাঞ্চন পৌরসভায় বইছে উন্নয়নের ছোঁয়া

প্রকাশিত:Monday ২০ June ২০22 | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ১২৫জন দেখেছেন
Image


রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি: মোঃ আবু কাওছার মিঠু 


বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে জননেত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্ন পূরণে বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী (বীরপ্রতীক) এম.পি’র উন্নয়নের অগ্রযাত্রার অংশ হিসেবে অবহেলিত কাঞ্চন পৌরএলাকা এখন উন্নয়নশীল এলাকা হিসেবে গড়ে উঠছে। 


মেয়র রফিক জনগণের ধারে ধারে ঘুরে, জনগণের প্রাপ্য অধিকার প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে জনগণের মনে জায়গা করে নিয়েছেন। পৌর এলাকার পাড়া মহল্লার রাস্তাঘাট, বিশুদ্ধ পানি, মসজিদ মাদ্রাসা, স্কুল-কলেজ, মন্দিরের উন্নয়ন, বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, প্রতিবন্ধিদের ভাতাসহ পৌরসভার সকল কার্যক্রমগুলো নিজ দায়িত্বে করে থাকেন। ইতিমধ্যে পৌরএলাকার জলাবদ্ধতার পানি নিষ্কাশনের জন্য স্থায়ী ড্রেনেজ ব্যবস্থা চালু করেছেন। অসহায় ও গরিব মানুষদের সব সময় সাহায্য সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন। কাঞ্চনবাসীর জীবন-যাত্রার মান উন্নয়নের লক্ষ্যে রাত দিন কাজ করে যাচ্ছেন এবং মাদক নির্মূলের জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপসহ আইনি কঠোর ব্যবস্থা জোরদার করেছেন।


কাঞ্চন পৌর এলাকাকে সবুজ-শ্যামল গড়ার লক্ষ্যে বৃক্ষরোপণে বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছেন। ভেজালযুক্ত খাবার যেনো জনগণের কাছে বিক্রি না হয়, সে জন্য তিনি প্রায় প্রায়ই স্থানীয় এলাকার হাট-বাজারগুলো পরিদর্শন করেন। শিক্ষার মান বৃদ্ধির জন্য শিক্ষার্থীদের সুন্দর ভবিষ্যত গড়ে তোলার লক্ষ্যে শিক্ষার প্রতি বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছেন। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিজে উপস্থিত হয়ে শিক্ষার্থীদের প্রয়োজনের কথা শুনে থাকেন এবং প্রয়োজন পূরণে বিভিন্ন রকমের ব্যবস্থা গ্রহণ করে থাকেন। 


বর্তমানে পৌর এলাকার তারাইল, বিরাব, রাণীপুরা, মায়ারবাড়ী, কেন্দুয়া, কেরাব, কেন্দুয়াটেকসহ পৌরসভার প্রত্যেকটি এলাকার রাস্তাগুলো আরসিসি, কার্পেটিং, সলিং রাস্তা ও  ড্রেন করা হয়েছে।


এদিকে  রাণীপুরা মাদ্রাসার ২য় তলার ছাদ, মায়ারবাড়ী টেক জামে মসজিদের ছাদ, কেন্দুয়া বেপারীপাড়া জামে মসজিদের টয়লেট ও অযুখানা নির্মাণ। কেন্দুয়াপাড়া জামে মসজিদের সীমানা প্রাচীর নির্মাণ।


কলাতলী দক্ষিণ বায়তুল জান্নাত জামে মসজিদের টিনের সেড নির্মাণ। খা পাড়া কবরস্থানে মাটি ভরাট করন। পূর্ব কালাদি এলাকায় কালভাট। খা-পাড়া এলাকার প্যালাসাইডিংসহ মাটি ভরাট করন। পশ্চিম কালাদি এলাকায়  ড্রেন নির্মাণ। নাথপাড়া এলাকায় আরসিসি পাইপ লাইন স্থাপন করন। কলাতলী থেকে মাটিয়াহাড়ি এলকায় রাস্তার পুকুর পাড়ে প্যালাসাইডিং সহ মাটি ভরাট করণ। কাঞ্চন বাজার কিচেন মার্কেটের দোকান সংখ্যা বৃদ্ধিসহ উন্নয়ণ। পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডে সাব-মারসিবল পাম্প স্থাপন করা হয়েছে।  


মেয়র রফিক বলেন, আমাদের কাঞ্চন পৌরসভায় বর্তমানে ২৫ কোটি টাকার কাজ চলমান। কাঞ্চন রোডস এন্ড হাইওয়ে চরপাড়া হইতে কাঞ্চন বাজার চৌরাস্তার ড্রেন এবং চৌদ্দ ফিট রাস্তা হচ্ছে। আর সিসি এবং বিশাল আকারে ড্রেন হচ্ছে। পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডে ১৬ ফিট আরসিসি রাস্তা এবং  ড্রেনের কাজ চলমান।  আমাদের পৌরএলাকায় কালভার্ট, কার্পেটিং রোড ও আর সিসি রোড, ড্রেন সহ ২৫ কোটি টাকার কাজ চলমান আছে। 


তিনি আরো বলেন এই জুনে আবার নতুন বাজেট আসতেছে । এ বাজেটে আমরা কাঞ্চন পৌরসবাসীকে ভালো কিছু দিতে পারবো। কাঞ্চন পৌরসভাকে একটি আধুনিক মডেল  পৌরসভা হিসেবে গড়ে তোলবো ইন্শাল্লাহ। 


এদিকে রোডস এন্ড হাইওয়ের কাজের জন্য পৌরএলাকায় যে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। পৌরসভার ৬, ৭ ও ৯ নং ওয়ার্ড মিলিয়ে যে ড্রেনটি হচ্ছে ।  ড্রেনের কাজ শেষ হলে এ জলাবদ্ধতা  নিরসন হবে। 


আরও খবর



সীতাকুণ্ডে বিস্ফোরণে ৮ ফায়ার কর্মী নিহত, হাসপাতালে ১৫

প্রকাশিত:Sunday ০৫ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৭৫জন দেখেছেন
Image

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিএম কনটেইনার ডিপোর বিস্ফোরণে ফায়ার সার্ভিসের নিহত কর্মীর সংখ্যা বেড়ে আটজন হয়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে নিহতদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

এছাড়া অসুস্থ অবস্থায় চট্টগ্রাম সিএমএইচে ভর্তি হয়েছেন ফায়ার সার্ভিসের আরও ১৫ জন। এদের মধ্যে দুইজনকে গুরুতর অবস্থায় এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে ঢাকায় পাঠানো হচ্ছে।

রোববার (৫ জুন) এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার মো. মাইন উদ্দিন।

এদিকে আগুনে এখন পর্যন্ত ৪২ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে হাসপাতাল সূত্র।

ফায়ার সার্ভিসের মহাপরিচালক বলেন, এই ডিপোতে হাইড্রোজেন পার অক্সাইড ছিল। এখানে ক্ষণে ক্ষণে এখনো বিস্ফোরণ হচ্ছে। কেমিক্যালের জন্য আগুন নেভানো যাচ্ছে না। আমি পরিদর্শনকালে ছয়টি বিস্ফোরণ দেখেছি।

এর আগে শনিবার (৪ জুন) রাত ১১টার দিকে বিএম কনটেইনার ডিপোতে আগুনের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় ফায়ার সার্ভিস। এরপর তারা আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ শুরু করে। এসময় এক কনটেইনার থেকে অন্য কনটেইনারে ছড়িয়ে পড়ে আগুন। একটি কনটেইনারে রাসায়নিক থাকায় বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। বিস্ফোরণে ঘটনাস্থল থেকে অন্তত চার কিলোমিটার এলাকা কেঁপে ওঠে। ভেঙে পড়ে আশপাশের বাড়িঘরের জানালার কাচ।


আরও খবর



হোমিওপ্যাথি চিকিৎসার মানোন্নয়নে আলাদা মন্ত্রণালয় গঠনের দাবি

প্রকাশিত:Friday ১৭ June ২০২২ | হালনাগাদ:Saturday ২৫ June ২০২২ | ৩০জন দেখেছেন
Image

হোমিওপ্যাথি চিকিৎসার মানোন্নয়নে আলাদা মন্ত্রণালয় গঠন এবং এ বিষয়ে উচ্চতর গবেষণার জন্য মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনসহ ১১ দফা দাবি জানিয়েছেন হোমিওপ্যাথি চিকিৎসকরা।

শুক্রবার (১৭ জুন) জাতীয় প্রেস ক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক পরিষদ আয়োজিত আলোচনা সভায় তারা এসব দাবি করেন।

তাদের অনান্য দাবিগুলো হলো- হোমিওপ্যাথি চিকিৎসকের নামের পূর্বে ডাক্তার উপাধি লেখার ব্যবস্থা রাখা, হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা আইন ২০২১ শিগগির পাশ করা, জাতীয় রাজস্ব বাজেটের ২৫ শতাংশ হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা উন্নয়নে বরাদ্দ দেওয়া, হোমিওপ্যাথি কাউন্সিল গঠন, আমদানিকৃত ওষুধ ও কাঁচামালের ওপর ভ্যাট-ট্যাক্স বাতিল করা।

এছাড়াও তারা আরও দাবি জানান, ডিএইচএমএস কোর্সের মান নির্ধারণ এবং উন্নত শিক্ষার ব্যবস্থা করা, ডিএইচএমএস এবং বিএইচএমএস চিকিৎসকদের বিসিএস পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ দেওয়া, প্রতিটি বিভাগে সরকারিভাবে হোমিওপ্যাথি কলেজ ও হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা করাসহ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের উচ্চ পর্যায়ে হোমিওপ্যাথি চিকিৎসকদের নিয়োগের দাবি জানান তারা।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথি বোর্ড গঠন করেন এবং এই খাতে আর্থিক বরাদ্দ প্রদান করেন। কিন্তু হোমিওপ্যাথি চিকিৎসার উন্নয়নের পথে বেশ কিছু সমস্যা বাধা হয়ে আছে। এসব সমস্যা সমাধানের জন্য হোমিওপ্যাথি চিকিৎসার সঙ্গে সম্পর্কিত বিভিন্ন সংগঠন দাবি জানিয়ে আসছে। তাদের দাবিসমূহ বাস্তবায়ন হলে হোমিওপ্যাথি চিকিৎসার উন্নয়ন হবে। স্বল্পমূল্যে মানুষ সুচিকিৎসা পাবে। একইসঙ্গে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাস্তবায়ন হবে।

ডা. মো. নজরুল ইসলাম খানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন, ডা. শেখ ফারুখ এলাহী, ডা. এ কে এম শহীদ উল্লাহ্, ডা. রফিকুল ইসলাম ভূঁইয়া, ডা. মো. তাজুল ইসলাম প্রমুখ।


আরও খবর



মালয়েশিয়ায় দলের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন সুফিল

প্রকাশিত:Friday ০৩ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৬০জন দেখেছেন
Image

হ্যাভিয়ের ক্যাবরেরার ২৩ জনের স্কোয়াডে থাকলেও ভিসা জটিলতার কারণে ইন্দোনেশিয়া যেতে পারেননি মাহবুবুর রহমান সুফিল। আগে থেকেই ঠিকঠাক ছিল বাংলাদেশ দল ইন্দোনেশিয়া থেকে মালয়েশিয়া পৌঁছানোর পর সুফিল সরাসরি সেখানে গিয়ে যোগ দেবেন।

শুক্রবার সকালে তিনি কুয়ালালামুপরে গিয়ে দলের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন। মালয়েশিয়া থেকে জাতীয় দলের ম্যানেজার ইকবাল হোসেন জাগো নিউজকে জানিয়েছেন, ‘সুফিল সকালে এসে দলের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন।’

এদিকে খেলোয়াড়দের জন্য শুক্রবার কোন অনুশীলন রাখেননি কোচ। ‘সকালে সবাই সুইমিংয়ে রিকভারি করেছেন। এরপর জুমার নামাজ পড়েছেন। বিকেলে কোনো অনুশীলন নেই। শনিবার থেকে আমাদের অনুশীলন শুরু হবে’-বলেছেন ম্যানেজার ইকবাল হোসেন।

বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল বুধবার ইন্দোনেশিয়ার বান্দুংয়ে স্বাগতিকদের সঙ্গে ফিফা ফ্রেন্ডলি খেলে গোলশূন্য ড্র করেছে। এখন মিশন এশিয়ান কাপ বাছাই। ৮ জুন শুরু হবে এশিয়ান কাপ বাছাইয়ের ‘ই’ গ্রুপের খেলা। বাংলাদেশের গ্রুপ প্রতিপক্ষ বাহরাইন, তুর্কমেনিস্তান ও মালয়েশিয়া।


আরও খবর



নওগাঁর আম ব্র্যান্ডিং হিসেবে পরিচিতি পাবে: খাদ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:Friday ০৩ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৮৫জন দেখেছেন
Image

নওগাঁর আমের প্রশংসা করে খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, এ আম সারাদেশে ব্র্যান্ডিং হিসেবে পরিচিতি লাভ করবে।

তিনি বলেন, সীমান্তবর্তী উপজেলা সাপাহার বরেন্দ্রভূমি হওয়ায় আম অনেক সুস্বাদু ও মিষ্টি। এখানে বিষমুক্ত ও নিরাপদ আম উৎপাদন হয়ে থাকে। বিদেশেও এ আম রপ্তানি হয়।

শুক্রবার (৩ জুন) বিকেলে নওগাঁর সাপাহার উপজেলার গোডাউনপাড়া বাবু চৌধুরীর আমবাগানে আম পাড়া উদ্বোধন শেষে খাদ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

আম উৎপাদন করে এ অঞ্চল অর্থনীতিতে শক্তিশালী অবদান রাখবে মন্তব্য করে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, বরেন্দ্র এলাকা সাপাহার, পোরশা ও নিয়ামতপুর উপজেলায় একসময় কৃষকরা ধান ও গম চাষ করতেন। আমচাষ লাভজনক হওয়ায় চাষিরা এখন ধানচাষ ছেড়ে দিয়েছেন।

মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাপাহারে একটি ইকোনমিক জোন স্থাপনের ঘোষণা করেছেন। এ অঞ্চলে আম প্রসেসিং থেকে শুরু করে জুস তৈরির কলকারখানা স্থাপনের জন্য এরই মধ্যে বিভিন্ন কোম্পানি আমাদের প্রস্তাব দিয়েছে। আমি মনে করি এখানে ইকোনমিক জোন হলে আমচাষিরা আরও বেশি লাভবান হবেন।

এ সময় জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক সামছুল ওয়াদুদ, সাপাহার উপজেলা চেয়ারম্যান শাহ্জাহান হোসেন, নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল্যাহ আল মামুনসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের তথ্যমতে, জেলার ১১টি উপজেলায় ২৯ হাজার ৪৭৫ হেক্টর জমিতে আমবাগান রয়েছে। গতবছরের চেয়ে এবছর প্রায় তিন হাজার ৬২৫ হেক্টর জমিতে বেশি বাগান গড়ে উঠেছে। পাঁচ হাজার ৮০০ আমচাষির প্রায় সাড়ে ৯ হাজার বাগান রয়েছে।

চলতি মৌসুমে সম্ভাব্য আম উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে প্রায় ৩ লাখ ৬৮ হাজার ৪৩৫ মেট্রিন টন। যেখানে প্রতি হেক্টর জমিতে আম উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ১২ দশমিক ৫০ মেট্রিক টন।

পোরশা উপজেলায় ১০ হাজার ৫২০ হেক্টর, সাপাহারে ১০ হাজার হেক্টর, পত্নীতলায় ৪ হাজার ৮৬৫ হেক্টর, নিয়ামতপুরে ১ হাজার ১৩৫ হেক্টর, সদর উপজেলায় ৪৪৫ হেক্টর, রানীনগরে ১১০ হেক্টর, আত্রাইয়ে ১২০ হেক্টর, বদলগাছীতে ৫২৫ হেক্টর, মহাদেবপুরে ৬৮০ হেক্টর, মান্দায় ৪০০ হেক্টর এবং ধামইরহাটে ৬৭৫ হেক্টর জমিতে আমবাগান রয়েছে।


আরও খবর



এ বছর থেকেই রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু করতে চায় সরকার

প্রকাশিত:Tuesday ১৪ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৫১জন দেখেছেন
Image

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে এর আগে কয়েক দফা উদ্যোগ নেওয়া হলেও তা নিষ্ফল হয়েছে। মিয়ানমারের জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের দেশটিতে ফেরত পাঠাতে আবারও তৎপরতা শুরু হয়েছে। সরকার চায়, সীমিত আকারে হলেও এ বছর থেকে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া শুরু হোক।

মঙ্গলবার (১৪ জুন) রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন সংক্রান্ত যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের পঞ্চম সভায় এ বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, রোহিঙ্গাদের নিরাপদ, সম্মানজনক ও টেকসই প্রত্যাবাসনের জন্য দুই পক্ষ আলোচনা করেছে। যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপ এবং টেকনিক্যাল ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠক নিয়মিতভাবে করার বিষয়েও উভয়পক্ষ একমত হয়েছে।

যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের পঞ্চম সভায় বাংলাদেশের পক্ষে বৈঠকে নেতৃত্ব দেন পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন। বৈঠকের পর তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা এ বছর প্রত্যাবাসন শুরু করতে চাই। এ বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।’

দুদেশের মধ্যে অনেকদিন পর দ্বিপক্ষীয় আলোচনা হয়েছে এবং আগামী দিনে এটি অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

বৈঠকে দ্রুত প্রত্যাবাসন শুরু, রোহিঙ্গাদের পরিচয় যাচাই-বাছাই প্রক্রিয়া দ্রুত নিষ্পত্তিকরণ এবং যারা ফেরত যাবে তাদের নিরাপত্তা ও জীবিকা নিশ্চিত করার ওপর বাংলাদেশের পক্ষ থেকে জোর দেওয়া হয়।

২০১৯ সালে মিয়ানমারের নেপিদোতে যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের চতুর্থ সভা অনুষ্ঠিত হয়। দেশটির অনাগ্রহের কারণে গত তিন বছরে এ বৈঠক হয়নি এবং প্রত্যাবাসনও শুরু করা যায়নি।


আরও খবর