Logo
আজঃ শনিবার ২৫ মে ২০২৪
শিরোনাম

রূপগঞ্জে ভূমি ও গৃহহীন পরিবারের মাঝে জমি ও ঘর হস্তান্তর

প্রকাশিত:বুধবার ২২ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ২২৯জন দেখেছেন

Image

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি:মোঃআবু কাওছার মিঠু 

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজলোর বিভিন্ন এলাকার হিজড়া, বিধবা, স্বামী  পরিত্যক্তা, দুস্থ:, অসহায়, ভূমিহীন ও গৃহহীন  ৪০ পরিবারের মাঝে জমি সহ ঘর হস্তান্তর করা হয়ছে। গতকাল ২২মার্চ বুধবার প্রধানমন্ত্রীর র্কাযালয়ের আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় চর্তুথ পর্যায়ে এ সকল ঘর ও জমি বিতরণ করা হয়।রূপগঞ্জ উপজলো মিলনায়তনে আয়োজিত এ বিতরণী সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফয়সাল হক।


সভায় বক্তব্য রাখনে নারায়ণগঞ্জ জেলা ম্যাজিস্ট্রেট  মৌসুমী বাইন হীরা, রূপগঞ্জ উপজলো পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ শাহজাহান ভুঁইয়া, রূপগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কামরুল হাসান মারুফ, মুড়াপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব তোফায়েল আহমেদ আলমাছ, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন র্কমর্কতা মো: আরিফুল হাসান, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আমান উল্লাহ।


রূপগঞ্জ উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি এম এ মোমেন ও সুবিধাভোগী নুরুল ইসলামসহ আরো অনেকে।পরে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের মাঝে জমির দলিল ও ঘরের চাবি হস্তান্তর করা হয়।উল্লেখ্য রূপগঞ্জে ৪১৫টি ঘরের মধ্যে গতকাল বুধবার পর্যন্ত ৩৯২ টি ঘর জমি সহ ভূমিহীন ও গৃহহীনদের মাঝে জমির দলিল ও ঘরের চাবি হস্তান্তর করা হয়।

-খবর প্রতিদিন/ সি.বা


আরও খবর



গ্রামাঞ্চলে লোডশেডিং না করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

প্রকাশিত:সোমবার ০৬ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ১১১জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশনা দিয়েছেন গ্রামাঞ্চলে লোডশেডিং না করে যত দ্রুত পারা যায় নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুতের ব্যবস্থা করতে। সোমবার (০৬ মে) বিকেলে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ এ তথ্য জানান।

লোডশেডিং প্রসঙ্গে প্রতিমন্ত্রী বলেন, সারা বাংলাদেশে কিছু কিছু অঞ্চলে আমাদের কিছুটা লোডশেডিং দিতে হচ্ছে। বিশেষ করে গ্রামাঞ্চলে অনেক জায়গাতে। এটা আমরা গত এক মাস যাবৎ পর্যবেক্ষণ করছি।

তিনি বলেন, আমাদের বেশ কিছু পাওয়ার প্ল্যান্ট, বিশেষ করে ওয়েল বেইজড পাওয়ার প্ল্যান্টগুলো বন্ধ আছে। সেগুলো আমরা ধীরে ধীরে চালু করতেছি। তেলের স্বল্পতা ছিল, আর্থিক স্বল্পতা ছিল- এ বিষয়গুলোকে নজরদারি করে আমরা এখন একটা ভালো পরিস্থিতিতে আছি।

নসরুল হামিদ আরও বলেন, এ বিষয়গুলো সংসদে আলোচনা হয়েছে। সার্বিকভাবে সবাই, যারা সংসদ সদস্য, প্রধানমন্ত্রীও এটা ওয়াকিবহাল রয়েছেন। তিনি আমাদের নির্দেশনা দিয়েছেন যাতে গ্রামাঞ্চলে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ ব্যবস্থা করতে। আমরা সেটাই ব্যবস্থা করে এখন একটা ভালো অবস্থায় আছি।

গ্রামে লোডশেডিং প্রসঙ্গে প্রতিমন্ত্রী বলেন, এখন (লোডশেডিং) কমে গেছে। কারণ, আমি তো প্রতিদিন নিউজ পাচ্ছি। আজকে যদি দেখেন জিরো লোডশেডিং।

তেলের যে সমস্যা ছিল সেটি কেটেছে কিনা- প্রশ্নে তিনি বলেন, আমরা চেষ্টা করছি, আমাদের নিজেদের কাছ থেকে তেল দেওয়ার। বিপিসি থেকে তেল দেওয়ার। এখন সেটাই ব্যবস্থা চলছে।

উৎপাদনের সর্বোচ্চ রেকর্ডের পরও লোডশেডিং প্রসঙ্গে প্রতিমন্ত্রী বলেন, উৎপাদনের সর্বোচ্চ রেকর্ড আবার সর্বোচ্চ চাহিদাও আছে। সেটার মধ্যে তো একটা পার্থক্য আছে। কারণ এবার আপনারা দেখেছেন বিগত ৫০ বছরের ইতিহাসে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল। সেই তাপমাত্রার জন্য তো আমরা কেউ প্রস্তুত ছিলাম না।

তিনি আরও বলেন, আমরা যতটুকু প্রস্তুত ছিলাম সে পর্যন্ত আমরা গেছি। তার ওপরে যাওয়ার জন্য আমাদের চেষ্টা ছিল। আমরা করতে পারতাম। কিন্তু মুশকিলটা হলো অর্থ এবং তেলের সংস্থাপন। তবে সার্বিকভাবে এখন পরিস্থিতি আগের থেকে ভালো।গ্রামাঞ্চলে লোডশেডিং না করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

গ্রামাঞ্চলে লোডশেডিং না করে যত দ্রুত পারা যায় নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুতের ব্যবস্থা করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশনা দিয়েছেন। সোমবার (০৬ মে) বিকেলে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ এ তথ্য জানান।

লোডশেডিং প্রসঙ্গে প্রতিমন্ত্রী বলেন, সারা বাংলাদেশে কিছু কিছু অঞ্চলে আমাদের কিছুটা লোডশেডিং দিতে হচ্ছে। বিশেষ করে গ্রামাঞ্চলে অনেক জায়গাতে। এটা আমরা গত এক মাস যাবৎ পর্যবেক্ষণ করছি।

তিনি বলেন, আমাদের বেশ কিছু পাওয়ার প্ল্যান্ট, বিশেষ করে ওয়েল বেইজড পাওয়ার প্ল্যান্টগুলো বন্ধ আছে। সেগুলো আমরা ধীরে ধীরে চালু করতেছি। তেলের স্বল্পতা ছিল, আর্থিক স্বল্পতা ছিল- এ বিষয়গুলোকে নজরদারি করে আমরা এখন একটা ভালো পরিস্থিতিতে আছি।

নসরুল হামিদ আরও বলেন, এ বিষয়গুলো সংসদে আলোচনা হয়েছে। সার্বিকভাবে সবাই, যারা সংসদ সদস্য, প্রধানমন্ত্রীও এটা ওয়াকিবহাল রয়েছেন। তিনি আমাদের নির্দেশনা দিয়েছেন যাতে গ্রামাঞ্চলে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ ব্যবস্থা করতে। আমরা সেটাই ব্যবস্থা করে এখন একটা ভালো অবস্থায় আছি।

গ্রামে লোডশেডিং প্রসঙ্গে প্রতিমন্ত্রী বলেন, এখন (লোডশেডিং) কমে গেছে। কারণ, আমি তো প্রতিদিন নিউজ পাচ্ছি। আজকে যদি দেখেন জিরো লোডশেডিং।

তেলের যে সমস্যা ছিল সেটি কেটেছে কিনা- প্রশ্নে তিনি বলেন, আমরা চেষ্টা করছি, আমাদের নিজেদের কাছ থেকে তেল দেওয়ার। বিপিসি থেকে তেল দেওয়ার। এখন সেটাই ব্যবস্থা চলছে।

উৎপাদনের সর্বোচ্চ রেকর্ডের পরও লোডশেডিং প্রসঙ্গে প্রতিমন্ত্রী বলেন, উৎপাদনের সর্বোচ্চ রেকর্ড আবার সর্বোচ্চ চাহিদাও আছে। সেটার মধ্যে তো একটা পার্থক্য আছে। কারণ এবার আপনারা দেখেছেন বিগত ৫০ বছরের ইতিহাসে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল। সেই তাপমাত্রার জন্য তো আমরা কেউ প্রস্তুত ছিলাম না।

তিনি আরও বলেন, আমরা যতটুকু প্রস্তুত ছিলাম সে পর্যন্ত আমরা গেছি। তার ওপরে যাওয়ার জন্য আমাদের চেষ্টা ছিল। আমরা করতে পারতাম। কিন্তু মুশকিলটা হলো অর্থ এবং তেলের সংস্থাপন। তবে সার্বিকভাবে এখন পরিস্থিতি আগের থেকে ভালো।


আরও খবর



খাগড়াছড়িতে আচরণবিধি প্রতিপালন সংক্রান্ত বিষয়ে প্রার্থীদের সাথে মতবিনিময়

প্রকাশিত:রবিবার ০৫ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৪ মে 20২৪ | ৯৬জন দেখেছেন

Image
জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল  প্রতিনিধি:খাগড়াছড়িতে ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন-২০২৪ উপলক্ষ্যে আচরণবিধি প্রতিপালন সংক্রান্ত বিষয়ে প্রার্থীদের সাথে মতবিনিময় সভা করেন খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, জেলা নির্বাচন অফিসার।

শুক্রবার (৩ মে,) বিকাল ৩টার দিকে  খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন-২০২৪ উপলক্ষ্যে আচরণবিধি প্রতিপালন সংক্রান্ত বিষয়ে প্রার্থীদের সাথে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়  সভায় সভাপতিত্ব করেন খাগড়াছড়ি জেলার জেলা প্রশাসক ও জেলা এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট  মো.সহিদুজ্জামান ।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন খাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার মুক্তা ধর পিপিএম (বার),৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন এর প্রথম ধাপের রির্টানিং অফিসার মোহাম্মদ কামরুল আলম,। 

এসময় দ্বিতীয় ধাপে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের রির্টানিং অফিসার ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) জুনায়েদ কবীর সোহাগ, খাগড়াছড়ি অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. নজরুল ইসলাম, খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাঈমা ইসলাম সহ ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

নির্বাচনের প্রার্থীগণ তাদের বিভিন্ন সমস্যার কথা উল্লেখ করে বক্তব্য প্রদান করলে জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও জেলা নির্বাচন অফিসার তাদের চাহিদামত বিভিন্ন তথ্য প্রকাশ করেন এবং একটি অবাধ, সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হওয়ার আশ্বাস প্রদান করেন। 

খাগড়াছড়ি জেলার পুলিশ সুপার মুক্তা ধর পিপিএম (বার) বলেন, ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন- ২০২৪ খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশ আইনশৃঙ্খলা রক্ষার্থে সার্বিক কার্যক্রম হাতে নিয়েছেন। প্রার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন নির্বাচন কমিশন কর্তৃক প্রদত্ত নির্বাচন সংক্রান্ত  আচরণ বিধিমালার মধ্যে থেকে প্রত্যেক প্রাপ্তিকে তাদের নির্বাচনী কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করতে হবে, একটি অবাধ, সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশ  নির্বাচন সংক্রান্ত সকল কার্যক্রমে সর্বোচ্চ সহযোগিতা করনের জন্য প্রস্তুত রয়েছে।

সভাপতি,র বক্তব্যে খাগড়াছড়ি জেলার জেলা প্রশাসক ও জেলা এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট  মো.সহিদুজ্জামান  বলেন, আগামী ৮ মে অনুষ্ঠিতব্য ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ 
নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে জেলা প্রশাসন ও রিটার্নিং অফিসারের পক্ষ থেকে জিরো টলারেন্স নীতি অবলম্বন করা হয়েছে। তিনি বলেন যে কোন মূল্যে ভোটারদের নির্বিগ্নে ভোট কেন্দ্রে এসে ভোটাধিকার প্রয়োগের ব্যবস্থা করা হয়েছে।কেন্দ্রে কোন ধরনে সমস্যা দেখা দিলে সাথে সাথে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে অবহিত করার জন্য আহবান জানান।

আরও খবর



কুষ্টিয়ায় অদৃশ্য শক্তির আঘাতে অনেকেই আহত !

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৪ মে 20২৪ | ১০০জন দেখেছেন

Image
কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধিঃকুষ্টিয়া সদর উপজেলার উজানগ্রাম ইউনিয়নের উজানগ্রাম - দেড়িপাড়া জিকে ক্যানালের সেট নামক স্থানে দিনের আলোতে চড়, থাপ্পর,সেইকেল থেকে মাটিতে ফেলে দেওয়া সহ মারধরের ঘটনা ঘটছে নিয়মিত। প্রতিদিন এমন ঘটনা ঘটে চলেছে,যাদের সাথে এমন ঘটনা ঘটছে তারা সবাই কৃষক ও কিছু পথচারি।এই অদৃশ্য শক্তির হাত থেকে বাচার জন্য গত শুক্রবার সেখানে মিলাদ মাহাফিলের ব্যবস্থা করলেও থেমে নেই অদৃশ্য শক্তির থাবা। এইদিকে গতকাল উজানগ্রাম হিসাব নামের একজন যুবক সেখানে ধানে পানি নিতে গেলে তার সাথে এমন ঘটনা ঘটে,মাথায় আঘাত পেয়ে গুরুতর ভাবে অসুস্থ। এমন ঘটনা নিয়মিত ঘটছে বলে ভয়ে রয়েছে এলাকার কৃষকেরা।তবে এর আগেও ওখানে এমন ঘটনা কমবেশী ঘটেছে বলা জানা যায়।তবে এই বিষয় নিয়ে এলাকার চায়ের দোকান গুলোতে বেশ সরগরম রয়েছে।তবে অনেকেই বলছে সেখানে জনসমাগম কম থাকার কারনে ভৌতিকের একটা বিষয় আছে।

আরও খবর



ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা চালু রাখার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ২০ মে ২০24 | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ৬৭জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন নিম্ন আয়ের মানুষের কষ্টের কথা চিন্তা করে ঢাকা শহরে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা চলাচলের অনুমতি দিতে।

সোমবার (২০ মে) মন্ত্রিসভার অনির্ধারিত আলোচনায় তিনি এ সংক্রান্ত নির্দেশনা দেন। পরে দুপুরে বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ওলামা লীগের প্রথম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ঢাকা সিটিতে ব্যাটারিচালিত তিন চাকার গাড়ি চলাচল নিষিদ্ধের সিদ্ধান্ত ছিল। কিন্তু আজকে মন্ত্রিসভার বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা চলাচলের অনুমতি দিতে বলেছেন। তবে ২২টি মহাসড়কে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা চলাচল বন্ধ থাকবে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, দ্রব্যমূল্যের বাজারে মেহেনতি মানুষের দুঃখ-দুর্দশা বিবেচনা করে বর্তমান বিশ্ব পরিস্থিতিতে সিটি এলাকায় ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা চালু রাখার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সম্প্রতি রাজধানীতে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা চলাচল বন্ধ করতে নির্দেশনা দিয়েছিলেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী। এরপর বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ) এ বিষয়ে কড়াকড়ি ব্যবস্থা নেয়। যার বিরুদ্ধে দু’দিন ধরে আন্দোলন করেন অটোরিকশা চালকরা।


আরও খবর



ডেমরায় ট্রাফিক ব্যবস্থা বাস্তবায়নে অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন টিআই মৃদুল পাল

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ১৩৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ 

ডিএমপি'র ট্রাফিক ওয়ারী বিভাগ ডেমরা জোনের অন্তর্ভুক্ত ডেমরা, ষ্টাফ কোয়াটার, সুলতানা কামাল সেতু সহ আশেপাশের গুরুত্বপূর্ণ সড়কের নিরাপত্তায় নিয়োজিত ট্রাফিক ইন্সপেক্টর (টিআই) মৃদুল পাল ট্রাফিক ব্যবস্থা বাস্তবায়নে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে টিআই মৃদুল পাল এলাকায় যুগান্তকারী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। অবৈধ ব্যাটারী চালিত অটো রিকশা, নসিমন করিমন, ভটভটি,রুট পারমিট বিহীন মেয়াদোত্তীর্ণ গাড়ি চলাচল কঠোর হস্তে দমন এবং নিয়মিত অবৈধ পার্কিং বন্ধে কাজ করে যাচ্ছেন। টিআই মৃদুল পাল একজন মানবিক পুলিশ কর্মকর্তা হিসেবে পরিচিত।গত কয়েক দিন পূর্বে তীব্র দাবদাহের সময় ডিএমপি কমিশনারের নির্দেশনায় এবং ট্রাফিক ওয়ারী বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ আশরাফ ইমাম এর তত্ত্বাবধানে ডেমরা ষ্টাফ কোয়াটার এলাকার পথচারী,যাত্রী,গাড়ির চালক-হেলপার সহ সর্বসাধারণের মাঝে বোতল পানি ও খাবার স্যালাইন বিতরণ করেন । অল্প সময়ে ডেমরা ষ্টাফ কোয়াটার এলাকার সড়কগুলো যানজট মুক্ত করায় জনসাধারণের দূর্ভোগ লাঘব হয়েছে অনেকটাই।

সড়কের পাশে বসা বিভিন্ন ভ্রাম্যমাণ  দোকান উচ্ছেদ করেছেন। ফুটপাত থেকে অবৈধ দোকান উচ্ছেদ করে পথচারীদের নির্বিঘ্নে চলাচল স্বাভাবিক রেখছেন। কোথাও এখন আর যানবাহনের জটলা নেই আগের মতো।তিনচাকার ব্যাটারি চালিত অটোরিক্সা হাইওয়ে রোডে প্রবেশ করে যেন যানজট স্বৃষ্টি করতে না পারে সেজন্য নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। মৃদুল পাল এর নিষ্ঠা এবং কর্তব্য পরায়ণতার কারণে এলাকার সড়কে চলাচল কারী অফিসগামী মানুষ নিয়মিত কর্মস্থলে পৌঁছতে পারছেন, স্কুল কলেজ গামী শিক্ষার্থীরা সময়মতো ক্লাস করতে পারছেন।

তার অধীনস্থ ট্রাফিক সার্জেন্ট এবং কনষ্টেবলদের সার্বক্ষণিক সড়কে শৃঙ্খলা রক্ষায় কাজ করতে নির্দেশনা দেয়ার পাশাপাশি নিজেও কাজ করছেন।

ডেমরা ষ্টাফ কোয়াটার এলাকার ট্রাফিক ইন্সপেক্টর টিআই মৃদুল পাল বলেন, "সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে ও ট্রাফিক ব্যবস্থা বাস্তবায়নে আমার যা যা করতে হয় আমি করবো"। 

ডেমরা এলাকায় যানজট নিরসনে প্রতিদিন দুই শিফটে ৩৫/৩৬ জন ট্রাফিক পুলিশ ও অফিসার কাজ করেন। নিয়মিত চারটি পোস্টে যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হয়। কখনো কখনো পাঁচটি পোস্ট পরিচালনা করা হয়। প্রতিটি পোস্টে একজন টিএসআই/এটিএসআই/ এএসআই, কনস্টেবল থাকে।


ট্রাফিক সার্জেন্ট আল মামুন জানান,টিআই স্যারের নেতৃত্বে ডেমরা সড়কে দুর্ঘটনা এড়াতে এবং সাধারন মানুষের সুবিধার জন্য কাজ করে যাচ্ছি, দিনরাত রাস্তায় থেকে সাধারণ মানুষদেরকে সেবা দেওয়ার জন্য কাজ করছি।বেপরোয়া গতিতে কেউ যেন গাড়ী না চালায় বাস,ট্রাক,কভার্ড ভ্যান গতি সীমা অতিক্রম না করে, ব্যাটারি চালিত অটো রিক্সা, সিএনজি, মহাসড়কে না ওঠে তা খেয়াল রাখছি।যে সব মোটরসাইকেলের নাম্বার নেই, গাড়ীর কাগজ পত্র ঠিক নেই, যারা হেলমেট ছাড়া মোটরসাইকেল চালান তাদের প্রতি কঠোর হচ্ছে ট্রাফিক পুলিশ।এর পরও যদি কেউ এ আইন অমান্য করে তাহলে তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হয়। 


টিআই মৃদুল পাল ডিএমপির অন্যতম একজন চৌকস পুলিশ কর্মকর্তা হিসেবে দীর্ঘ বছর যাবত কর্মরত রয়েছেন। গাজীপুর এলাকার কৃতি সন্তান অত্যন্ত সদালাপি মিষ্টভাষী সাদা মনের মানুষ তিনি। গাজীপুর, কালিয়াকৈর থেকে এসএসসি,এইচএসসি ও মির্জাপুর ডিগ্রী কলেজ থেকে বিএসসি পাশ করে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে গণিতে মাস্টার্স করেছেন। তিনি পুলিশ বাহিনীর চাকরির সুবাদে  থাইল্যান্ড থেকে ট্যুরিজম সিকিউরিটি এর উপর প্রশিক্ষণ নিয়েছেন।



 


আরও খবর