Logo
আজঃ রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম
মুক্তিযোদ্ধার নাতি-নাতনিরা পাবে না তো রাজাকারের নাতিরা পাবে? কর্মীদের দক্ষ করে বিদেশে পাঠাতে হবে : প্রতিমন্ত্রী বাংলাদেশকে কত বিলিয়ন অনুদান-ঋণ দেবে চীন, জানালেন প্রধানমন্ত্রী নাসিরনগরে খুনের মামলার বাদীর এখন দিন কাটছে আতংকে মধুপুরে ক্লিনিং স্যাটারডে কার্যক্রম অনুষ্ঠিত এবার কোটা আন্দোলনের পক্ষে কথা বললেন আয়মান সাদিক ভারতে পাচার হওয়া ৫ বাংলাদেশি সাজাভোগ শেষে দেশে ফিরেছে শিক্ষার্থীরাই হবে আগামী বাংলাদেশের কর্ণধার: ধর্মমন্ত্রী দেশের অর্থনীতি এখন যথেষ্ট শক্তিশালী: প্রধানমন্ত্রী বীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পরিদর্শন করলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডাঃ সামন্ত লাল সেন

রূপগঞ্জে উপ-নির্বাচনে প্রচারণায় ব্যস্ত প্রার্থীরা

প্রকাশিত:বুধবার ৩১ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | ৩০৩জন দেখেছেন

Image

আবু কাওছার মিঠু রূপগঞ্জ,নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধিঃআগামী ১২ জুন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে নারায়ণগঞ্জ জেলার রূপগঞ্জ উপজেলার কায়েতপাড়া ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের উপ-নির্বাচন। সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত ইভিএম এর মাধ্যমে ভোট গ্রহণ করা হবে। নির্বাচনকে ঘিরে ব্যস্ত সময় পার করছেন এ ওয়ার্ডের প্রার্থীরা।


এ  ওয়ার্ডে ১৬ জন  প্রার্থী  থাকলেও নির্বাচনে লড়াই হবে ভ্যান গাড়ী প্রতীকের শাহাবুদ্দিন, হাতি প্রতীকের সমসের খান, লাটিম প্রতীকের জয়নাল আবেদীন, হাঁস প্রতীকের রবিন ও টিউবওয়েল প্রতীকের মোঃ নূর আলম মুন। তবে প্রচারণার শীর্ষে রয়েছে ভ্যান গাড়ী প্রতীকের শাহাবুদ্দিন। তিনি সকাল থেকে রাত পর্যন্ত এ ওয়ার্ডের প্রতিটি অলিতে গলিতে নির্বাচনী প্রচার প্রচারণা ও উঠান বৈঠকের মাধ্যমে ভোটারদের কাছে ভ্যান গাড়ী প্রতীকে ভোট চেয়ে বেড়াচ্ছেন।

সাংবাদিকদের একান্ত স্বাক্ষাতকারে ভ্যান গাড়ী প্রতীকে প্রার্থী শাহাবুদ্দিন বলেন, তিনি এ নির্বাচনে জয় লাভ করলে তার প্রথম কাজ হবে এলাকায় মাদক নির্মুল করা। ওয়ার্ডের অসমাপ্ত কাজগুলো সমাপ্ত করা। এ ওয়ার্ডকে একটি স্মার্ট ওয়ার্ড হিসেবে গড়ে তুলবে বলেও তিনি প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন। 

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



নেপালকে হারিয়ে সুপার এইটে বাংলাদেশ

প্রকাশিত:সোমবার ১৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | ১৫৮জন দেখেছেন

Image

স্পোর্টস ডেস্ক:দেশবাসীকে ঈদের আনন্দ আরো বাড়িয়ে দিলো বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। নেপালকে হারিয়ে সুপার এইট নিশ্চিত করেছে টাইগাররা। ‘ডি’ গ্রুপ থেকে দক্ষিণ আফ্রিকার পর সুপার এইটে গেল চন্ডিকা হাথুরুসিংহের শিষ্যরা।

নেপালের মতো আইসিসির সহযোগি সদস্য দেশ বেশ ভয় ধরিয়ে দিয়েছিল। বিশেষ করে বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ে। সেন্ট ভিনসেন্টের অ্যারোনেস ভ্যালে স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নেপালি বোলারদের সাঁড়াসি আক্রমণে বাংলাদেশ অলআউট হয়েছিলো ১০৬ রানে।

শুরুতে তানজিম সাকিবের দুর্দান্ত পেসে কাঁপন ধরলেও মিডল অর্ডারে রীতিমত জয়ের রাস্তায় চলে গিয়েছিলো নেপালিরা। মিডল অর্ডার কুশল মাল্লা এবং দিপেন্দ্র সিং আইরি মিলে ৫২ রানের জুটি গড়ে ভয় ধরিয়ে দিয়েছিলো টাইগারদের।

কিন্তু তাসকিন আহমেদ আর মোস্তাফিজুর রহমান তুনের শেষ তীরটা বের করেন শেষ মুহূর্তে এসে। ১৯তম ওভার মেডেন উইকেট নেন মোস্তাফিজ। শেষ পর্যন্ত ১৯.২ ওভারে ৮৫ রানেই অলআউট হয়ে যায় নেপাল। বাংলাদেশ জয় পেলো ২১ রানে। সে সঙ্গে অন্য কোনো সমীকরণ ছাড়াই শেষ দল হিসেবে সুপার এইট নিশ্চিত করল বাংলাদেশ।

১০৬ রান হওয়ার পর লো স্কোরিং উইকেটে জয়ের আশা জাগে বাংলাদেশের। কারণ, বোলারদের ওপর আস্থা ছিল। সেই আস্থার প্রতিদান দিয়ে ইনিংসের শুরুতেই আগুন ঝরাতে থাকেন তানজিম হাসান সাকিব। ৪ ওভারে মাত্র ৭ রান দিয়ে ৪ উইকেট নেন এই ডানহাতি পেসার। তবে কুশল মাল্লা এবং দিপেন্দ্র সিং আইরি মিলে ৫২ রানের জুটি গড়লে কিছুটা শঙ্কা দেখা দেয়।

তবে ১৭তম ওভারে মোস্তাফিজের বলে এই জুটি ভাঙলে নেপালের আশা শেষ হয়ে যায়। ৪০ বলে ২৭ রান করে আউট হন কুশল মাল্লা। দিপেন্দ্র সিং আইরি ইনিংস ধরে রাখলেও ১৯তম ওভারে এসে মোস্তাফিজের বলেই আউট হতেবাধ্য হন। তিনি করেন ২৫ রান। এরপরের চার ব্যাটার ছিলেন রানশূন্য। তাসকিন একটি এবং সাকিব আল হাসান দুটি উইকেট নিলে শেষ হয়ে যায় নেপালের ইনিংস। ৭ রান দিয়ে ৪ উইকেট নিয়ে ম্যাচ সেরার পুরস্কার জেতেন তানজিম সাকিব।


আরও খবর



ইসলামপুর পৌরসভার মেয়র পদশূন্য ঘোষণা উপ-নির্বাচনের নির্দেশ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৫ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ | ১২৫জন দেখেছেন

Image

লিয়াকত হোসাইন লায়ন,ইসলামপুর(জামালপুর) প্রতিনিধি:জামালপুরের ইসলামপুর পৌরসভার মেয়রের পদশূন্য ঘোষণা করেছে স্থানীয় সরকার বিভাগ। পাশাপাশি ওই পৌর সভায় মেয়র পদ উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠানেরও নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হয়েছে।

রোববার (২৩ জুন) স্থানীয় সরকার বিভাগের উপসচিব মোঃ আব্দুর রহমান স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানা গেছে ।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয় ইসলামপুর পৌর মেয়র আব্দুল কাদের সেখ। মেয়র দায়িত্ব পালনকালে তাঁর বিরুদ্ধে উক্ত পৌরসভার ১১ জন কাউন্সিলর বিভিন্ন অভিযোগে আনীত অনাস্থা প্রস্তাব গৃহীত হওয়ায় সরকার তথা স্থানীয় সরকার বিভাগ কর্তৃক স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) আইন, ২০০৯ এর ধারা ৩৮ (১২) মোতাবেক জামালপুর জেলার ইসলামপুর পৌরসভার মেয়র এর আসনটি সূত্রোক্ত প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী ২৩ জুন ২০২৪ খ্রি: তারিখ হতে শূন্য ঘোষণা করা হয়।

এমতাবস্থায়, “স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) আইন, ২০০৯ এর ৩৩ (২) ধারা এর বিধান মতে জামালপুর জেলার ইসলামপুর পৌরসভার মেয়র-এর শূন্য পদে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠানের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হয়।

মেয়রের পদশূন্য ঘোষণার পর পরই উপ-নির্বাচনে মেয়র পদে একাধিক প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার গুঞ্জন উঠেছে। 


আরও খবর



ভোলার দৌলতখানে জমি নিয়ে বিরোধ, বসত ঘরের বারান্দায় বৃদ্ধাকে দাফন

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৫ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ | ৯৮জন দেখেছেন

Image

শরীফ হোসাইন, ভোলা বিশেষ প্রতিনিধি:ভোলার দৌলতখানে জমি জমা বিরোধের জের ধরে জোবেদা খাতুন (৫৫) নামে এক বৃদ্ধা নারীকে তার বসত ঘরের বারেন্দার মধ্যে দাফন করা হয়েছে। বুধবার ঘটনাটি ঘটেছে দৌলতখানের দক্ষিণ জয়নগর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের সর্দার বাড়িতে।

স্থানীয়সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘ দেড় বছর পূর্বে জোবেদা খাতুনের স্বামী আব্দুর রশিদ মৃত্যুবরণ করেন। তখন তাকে দাফন করা হয়েছিল তার ভাতিজা রফিক এর জায়গায়। পারিবারিক কলহের জের ধরে ঐ কবরের উপরে রফিকের স্ত্রী তাসনুর বেগম ঝাড়ু দিয়ে কবরকে অসম্মান করায় জোবেদা খাতুন তার ছেলে-মেয়েকে মৃত্যুর আগে অছিয়ত করেছিল তাকে যেন মৃত্যুর পর কারো জায়গায় দাফন না করা হয়। প্রয়োজনে তার ঘরের মধ্যে দাফন করতে বলেছেন।

মৃত জোবেদা খাতুনের বড় ছেলে রফিজল জানান, তাদের বাড়িতে সাড়ে ৫ শতক জমি রয়েছে। ঘরের ভিটায় আড়াই শতক এবং বাকি ৩ শতক জমি তার চাচাতো ভাই রফিক দখল করে বিল্ডিং নির্মাণ করিতেছেন। ঘরের ভিতর তার মাকে দাফন না করলে হয়তো এক সময় তাঁর চাচাতো ভাই রফিক বাকি জমি জবর দখল করে নিয়ে যাবে। তিনি আরো বলেন, এক দিকে মায়ের কবর হলো; অন্যদিকে তাদের ঘর ভিটা তাদের নিয়ন্ত্রণে রহিলো। রফিকের বিল্ডিংয়ের দরজার সামনেই জোবেদা খাতুনকে কবর দেয়া হয়েছে। পরে এলাকাবাসী জোবেদা খাতুনের কবরটি ইট দিয়ে পাকা করে দিয়েছে। যাতে করে রফিক ভবিষ্যতে জোবেদা খাতুনের কবরসহ ঘর ভিটা দখল করতে না পারে। রফিকের বাবার সাথে কথা বললে তিনি জানান, এ বাড়িতে সব জমি আমার। এখানে অন্য কারো জমি নেই।


আরও খবর



আ.লীগের অবদান রয়েছে দেশের প্রতিটা অর্জনে: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:রবিবার ২৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ | ১২২জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:আওয়ামী লীগকে বারবার নিশ্চিহ্ন করার চেষ্টা করা হয়েছে। বারবার আঘাতের পরও ফিনিক্স পাখির মতো আবারও জেগে উঠেছে দলটি, বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।রোববার (২৩ জুন) রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সমাবেশে এ কথা বলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশের প্রতিটি অর্জনে আওয়ামী লীগের অবদান রয়েছে। আওয়ামী লীগের নেতৃত্বেই স্বাধীনতা অর্জিত হয়।সরকারপ্রধান বলেন, আওয়ামী লীগ এদেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন করেছে। এদেশের মানুষকে ক্ষুধা, দারিদ্র্যমুক্ত, উন্নত-সমৃদ্ধ সোনার বাংলা অবশ্যই দেবে। স্মার্ট সোনার বাংলা ইনশাআল্লাহ আমরা গড়ে তুলবো।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠা হয়েছেই তো বাংলার মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনের জন্য। যা আমরা প্রমাণ করেছি। ৭৫-এর আগস্টের পর বারবার ক্ষমতা বদল হয়েছে। কিন্তু ক্ষমতা বদল হয়েছে অস্ত্রের মাধ্যমে এবং ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে। জনগণের গণতান্ত্রিক অধিকার ছিল না, মানুষের মৌলিক অধিকার ছিল না। মানুষের ভাগ্যের কোনো পরিবর্তনই তারা করতে পারেনি।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, আওয়ামী লীগ ছাড়া যারা ক্ষমতায় এসেছে তারা দুর্নীতি করেছে। তারা জনগণের শক্তি ভুলে গিয়েছিল। আওয়ামী লীগ জনগণের শক্তিতে বিশ্বাস করে।


আরও খবর



কালিয়াকৈরে শিয়ালের কামড়ে আহত-১৫ আতঙ্কিত গ্রামবাসী, শিয়াল পিটিয়ে হত্যা

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | ১৩৫জন দেখেছেন

Image

সাগর আহম্মেদ,কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি:গাজীপুরের কালিয়াকৈরে পাশাপাশি পৃথক দুটি গ্রামে দুই দিনে শিয়ালের কামড়ে শিশু-নারীসহ কমপক্ষে ১৫ জন আহত হয়েছেন। এক শিয়াল পিটিয়ে হত্যা করলেও বাকী শিয়ালের আক্রমণ আতঙ্কে লাঠিসোটা নিয়ে পাহাড়া দিচ্ছেন আতঙ্কিত গ্রামবাসী। এদিকে আহতরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গেলে ভ্যাকসিন না পেয়ে দুর্ভোগে পড়েছেন ভুক্তভোগী পরিবার।

এলাকাবাসী ও ভুক্তভোগী পরিবার সূত্রে জানা গেছে, কালিয়াকৈর পৌরসভার টানকালিয়াকৈর এলাকায় বৃহস্পতিবার ভোরে স্থানীয় রতন মিয়া ও তার স্ত্রী হনুফা বেগমকে একটি শিয়াল আক্রমণ করে এবং তাদের কামড়ে দেয়। এসময় স্থানীয় লোকজন ওই শিয়ালকে লাঠিসোটা দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করে। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় তাদের স্বামী-স্ত্রীকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে ঠিকমতো ভ্যাকসিন না পেয়ে তাদের ঢাকা মহাখালী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এর আগে গত বুধবার বিকেলে ওই এলাকায় শিয়ালের কামড়ে নেওলা হকের ছেলে শামসুল হক(৫০), নজরুল ইসলামের ছেলে উসমান গণি (১০), কবির মিয়ার ছেলে আফনান হোসেন (১০), নুর আলমের স্ত্রী নাসিমা বেগম (৫০), আফসার আলীর ছেলে মেহমিত (৭), জলিল হোসেনের ছেলে শওকত হোসেন (৪০), শামসুল ইসলামের স্ত্রী হামিদা বেগম (৬০), জব্বার মিয়া (৪০) এবং ওইদিন সন্ধ্যায় পাশের জানেরচালা গ্রামের শাজাহান মিয়ার স্ত্রী বৃষ্টি বেগম (৩৫) ও তার নাতিন স্বর্ণা আক্তার (৬)সহ কমপক্ষে ১৫ জনকে আহত হন। আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান তাদের পরিবারের সদস্যরা। ওই হাসপাতালে ভ্যাকসিন না পেয়ে আহতরা পার্শ্ববর্তী টাঙ্গাইলের মির্জাপুর কুমুদিনী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও ঢাকা মহাখালীতে যান। দুদিনে শিশু ও নারীসহ ১৫জন শিয়ালের কামড়ে আহত হওয়ার ঘটনায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন গ্রামবাসী। এছাড়াও আতঙ্কে লাঠি নিয়ে যাতায়াত করছেন শিশুরাও। এদিকে এক শিয়াল পিটিয়ে হত্যা করলেও বাকী শিয়ালের আক্রমণ আতঙ্কে ওই ঘটনার পর স্থানীয় যুবকরা লাঠিসোটা নিয়ে গত বুধবার সন্ধ্যা থেকে গভীর রাত ও পরের দিন বৃহস্পতিবারও পাহাড়া অব্যাহত রেখেছে। তারা ক্ষিপ্ত হয়ে আগুন জ¦ালিয়ে দিয়েছেন কয়েকটি শিয়ালের গর্তেও।

স্থানীয় শাহিনুর ইসলাম বলেন, কয়েকটি শিয়াল পাগলা হয়ে গেছে। তাই সে সবাইকে কামড়ে দিয়েছে। আরো যাতে কামড়ে দিতে না পারে সেজন্য আমরা পাহাড়া দিচ্ছি। মুদি দোকানদার আজিজুল হক বলেন, সবাই এখন পাগলা শিয়ালের আতঙ্কে আছি। এই বুঝি শিয়াল এসে কামড়ে দিলো। হেলাল পারভেজ বলেন, আমার মেয়েও এখন লাঠি নিয়ে চলাচল করে। আর শিয়াল আতঙ্কে আমার মেয়ের মতো অন্যান্য শিশুরাও লাঠি নিয়ে চলে। কিন্তু বেশির ভাগ শিশুরা ভয়ে বাড়ির বাইরে যাচ্ছে না। তবে সংশিষ্টদের প্রতি তাদের দাবী অতিদ্রুত পাগলা শিয়ালগুলোর বন্য আইন অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হোক।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা লুৎফর রহমান জানান, শিয়ালে কামড়ে দিলে কয়েকজন হাসপাতালে আসে। কিন্তু এর ভ্যাকসিন সদর হাসপাতাল ও মহাখালীতে থাকে। একারণে আহতদের সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এব্যাপারে কালিয়াকৈর রেঞ্জ কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম জানান, আমাদের বনবিভাগের আরো একটি শাখা রয়েছে। তাদের কাজ হচ্ছে বন্যপ্রাণী উদ্ধার করা। তবে ওই শাখায় যোগাযোগ করা হলে তারা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।


আরও খবর