Logo
আজঃ বুধবার ১৯ জুন ২০২৪
শিরোনাম

রূপগঞ্জে এসএসসি পরিক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন করলেন বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ০৩ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ২৫৭জন দেখেছেন

Image

মোঃআবু কাওছার মিঠু রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি:

২০২৩ সালের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন করলেন বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীক।

গতকাল ৩ মে বুধবার  সকাল ১০টায় উপজেলার ভোলাবো এলাকার গণবাংলা উচ্চ বিদ্যালয়, কাঞ্চন  হাজী রফিজুদ্দিন ভুইয়া বালিকা  উচ্চ বিদ্যালয়, কাঞ্চন ভারতচন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয়, কালাদী দাখিল মাদ্রাসা,  জনতা উচ্চ বিদ্যালয় ও হাজী এখলাছ উদ্দিন ভুইয়া স্কুল এন্ড কলেজে এসএসসি পরিক্ষা কেন্দ্র মন্ত্রী পরিদর্শন করে।


এ বছর রূপগঞ্জ উপজেলায় এসএসসি পরিক্ষার ৯টি কেন্দ্রে  সাধারণ শিক্ষা বোর্ড অধীন এসএসসি, মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের অধীন দাখিল এবং কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীন এসএসসি ও দাখিল (ভোকেশনাল) পরীক্ষায় এ বছর মোট পরীক্ষার্থী ৫ হাজার ৮শত ২৬ জন। 


এদের মধ্যে ছাত্র ২৩৩৭ জন ছাত্র এবং ছাত্রী ২৬৭৯  জন। মাদরাসা ও কারিগরি  শিক্ষা বোর্ডের অধীনে  ৮২০ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেয়। এদের মধ্যে ৩৬৩ জন ছাত্র এবং ৪৫৭ জন ছাত্রী।

 ২০২৩ এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা পুনর্বিন্যাসকৃত সিলেবাসে পূর্ণ নম্বরের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্সের মাসিক সমন্বয় সভা ও বীমাদাবীর চেক হস্তান্তর

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | ১২৯জন দেখেছেন

Image

এস এম শফিকুল ইসলাম, জয়পুরহাট প্রতিনিধিঃপপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের  উন্নয়ন কর্মকর্তাদের নিয়ে মাসিক সমন্বয় সভা  ও বীমাদাবীর চেক হস্তান্তর  অনুষ্ঠিত হয়েছে।

গতকাল সকালে ঢাকায় মতিঝিলে কোম্পানীর প্রধান কার্যালয়ে মিটিং রুমে এ মাসিক সমন্বয় সভা ও বীমাদাবীর চেক হস্তান্তর অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক বি এম শওকত আলীর  সভাপতিত্বে মেয়াদ উত্তীর্ণ বীমাদাবীর চেক হস্তান্তর ও সমন্বয় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য  রাখেন পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও, বাংলাদেশ ইনস্যুরেন্স ফোরামের প্রেসিডেন্ট ও বাংলাদেশ ইনস্যুরেন্স অ্যাসোসিয়েশনের কার্য নির্বাহী সদস্য  বি এম ইউসুফ আলী। 

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের একক বীমা প্রকল্পের  উর্দ্ধতন  উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক (ব্রাঞ্চ কন্ট্রোল) সৈয়দ মোতাহার হোসেন, উর্দ্ধতন  উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক ( উন্নয়ন প্রশাসন) নওশের আলী নাঈম, উর্দ্ধতন  উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক হাবিবুর রহমান, আল আমিন বীমা প্রকল্পের উর্দ্ধতন  উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবু তাহের, জনপ্রিয় বীমা প্রকল্পের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক কামাল হোসেন মহসিন,  ইসলামী ডিপিএস প্রকল্পের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক খলিলুর রহমান দুলাল,  আল বারাকা ইসলামী বীমা প্রকল্পের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ সুলতান মাহমুদ।

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, আল বারাকাহ ইসলামী ডিপিএস প্রকল্পের উর্দ্ধতন নির্বাহী পরিচালক ও প্রকল্প  পরিচালক সেলিম মিয়া, জনপ্রিয় একক বীমা প্রকল্পের  উর্দ্ধতন নির্বাহী পরিচালক ও প্রকল্প পরিচালক জাহাঙ্গীর হোসেন, পপুলার ডিপিএস  প্রকল্পের নির্বাহী পরিচালক ও প্রকল্প পরিচালক আবু মঈদ শাহীন, আল বারাকাহ ইসলামী একক বীমা প্রকল্পের উর্দ্ধতন নির্বাহী পরিচালক ও প্রকল্প  পরিচালক  মোহাম্মদ এনামুল হক, আল আমিন বীমা প্রকল্পের নির্বাহী পরিচালক ও প্রকল্প পরিচালক মোখলেছুর রহমান, আল বারাকা ইসলামী একক বীমা প্রকল্পের নির্বাহী পরিচালক ও প্রকল্প পরিচালক মাহাবুবুর রহমান।

প্রশিক্ষণ  কর্মশালা শেষে মেয়াদ উত্তীর্ণ বীমা গ্রাহকের হাতে বীমাদাবীর চেক হস্তান্তর করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি কোম্পানীর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও বি এম ইউসুফ আলী।


আরও খবর

ভোলায় "রাসেল ভাইপার" আতঙ্ক

বুধবার ১৯ জুন ২০২৪




তাহিরপুর সীমান্তে বেড়েছে চোরাচালান: নেই অভিযান

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | ৭৪জন দেখেছেন

Image

মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া-সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার বিভিন্ন সীমান্তে ব্যাপক ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে চোরাচালান। চোরাকারবারীরা প্রতিদিন সরকারের কোটি টাকা রাজস্ব ফাঁকি অবৈধ ভাবে ভারত থেকে অবাধে পাচাঁর করছে গরু, ঘোড়া, ছাগল, মহিষ, মদ, গাঁজা, ইয়াবা, নাসির উদ্দিন বিড়ি, কয়লা, চুনাপাথর, চিনি, সুপারী ও পেয়াজসহ বিভিন্ন প্রকার পণ্য সামগ্রী। আর গত ২দিনে উপজেলার ৬ সীমান্তে পথে প্রায় ৫ কোটি টাকার মালামাল পাচাঁর করা হচ্ছে বলে খবর পাওয়া গেছে।   

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে- গত ৫ বছর আগে সুনামগঞ্জে পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান ও তাহিরপুর থানায় ওসি আব্দুল লতিফ তরফদার থাকাকালীন সময় সীমান্ত এলাকায় অভিযান চালিয়ে চোরাচালানীদের গডফাদার তোতলা আজাদের অর্ধশতাধিক সদস্যকে গ্রেফতার করে মামলা দিয়ে জেল হাজতে পাঠানোসহ জব্দ করা হয়েছিল তাদেও কোটি টাকার অবৈধ কয়লা, চুনাপাথর ও বালি বোঝাই ইঞ্জিনের নৌকা। এছাড়াও উপজেলার কামড়াবন্দ, লাউড়গড়, শিমুলতলা, বিন্নাকুলি, বালিজুরী ও তাহিরপুর সদরসহ একাধিক স্থানে অভিযান চালিয়ে ইয়াবা, মদ, গাঁজা ও নাসির উদ্দিন বিড়িসহ জুয়ার বোর্ড থেকে তোতলা আজাদের শতাধিক লোকজনকে গ্রেফতার করা হয়। কিন্তু তারা দুই অন্যত্র বদলি হয়ে যাওয়ার পর সবকিছু যেন উন্মুক্ত হয়ে যায়। বেড়ে গডফাদার তোতলা আজাদ ও তার সোর্স বাহিনীর দাপট। তারা ভারত থেকে অবৈধ ভাবে বিভিন্ন মালামাল পাচাঁরের পর সাংবাদিক, পুলিশ ও বিজিবির নাম ভাংগিয়ে চাঁদাবাজি বর্তমানে কোটিকোটি টাকার মালিক। কিন্তু তাদের বিরুদ্ধে আজ পর্যন্ত নেওয়া হয়নি আইনগত কোন পদক্ষেপ। অন্যদিকে সীমান্তের বীরেন্দ্রনগর বিজিবি ক্যাম্পে হাজী মোজাম্মেল, চারাগাঁও বিজিবি ক্যাম্পে খাদিমুল ইসলাম, বিল্লাল, আইয়ুব খান, মোনায়েম খান, বালিয়াঘাট সীমান্তে হাবিলদার শাজাহান, টেকেরঘাট সীমান্তে সাইদুর রহমান, চাঁনপুর সীমান্তে মোহাম্মদ আলী ও লাউড়গড় বিজিবি ক্যাম্পে মোহাম্মদ হেসেনের মতো কমান্ডাররা কর্তরত থাকাকালীন সময় অভিযান চালিয়ে মাদকদ্রব্য, বিড়ি, কয়লা, চুনাপাথর, কাঠ, গাছ, গরু, ঘোড়া ও বালি জব্দ করাসহ আটক করা হয়েছিল বারকি নৌকা, স্টিলবডি, ঠেলাগাড়ি, মোটর সাইকেল, পিকআপ ভ্যানসহ বিভিন্ন যানবাহন। কিন্তু বর্তমানে তেমন কোন অভিযানের খবর পাওয়া যায়না।   

এলাবাসী সূত্রে জানা যায়- বর্তমানে গডফাদার তোতলা আজাদের নেতৃত্বে লাউড়গড় সীমান্তে সোর্স পরিচয়ধারী জসিম মিয়া, বায়েজিদ মিয়া, নুরু মিয়া, রফিকগং, চাঁনপুর সীমান্তে সাহিবুর মিয়া, জম্মত আলী, রফিকুল, বুটকুন মিয়া, জামাল মিয়া, নজরুল মিয়া, নজির মিয়া, রুসম মিয়াগং, টেকেরঘাট সীমান্তে আক্কল আলী, রুবেল মিয়া, মহিবুর মিয়া, কামাল মিয়া, সাইদুল মিয়াগং, বালিয়াঘাট সীমান্তে রতন মহলদার, কামরুল মিয়া, হোসেন আলী, বাবুল মিয়া ও ইয়াবা কালামগং, চারাগাঁও সীমান্তে রফ মিয়া, আইনাল মিয়া, রিপন মিয়া, সাইফুল মিয়া, বাবুল মিয়া, আনোয়ার হোসেন বাবলু, সোহেল মিয়া, দীপক মিয়াগং ও বীরেন্দ্রনগর সীমান্তে লেংড়া জামাল, হযরত আলী, গোলাম মস্তোফাগং প্রতিদিন রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে বিভিন্ন মালামাল পাচাঁর করছে। তাদের নেতৃত্বে চোরাচালান করতে গিয়ে এপর্যন্ত চারাগাঁও সীমান্তে ১২জন, বালিয়াঘাট সীমান্তে ৩৩জন, টেকেরঘাট সীমান্তে ১৫জন, চাঁনপুর সীমান্তে ৮জন ও লাউড়গড় সীমান্তে ৪৮জনের মৃত্যু হয়েছে। তারপরও গডফাদার ও সোর্স রয়েগেছে অধরা।

এব্যাপারে উপজেলার উত্তর বড়দল ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার ও আওয়ামীলীগ নেতা কফিল উদ্দিন বলেন- চাঁনপুর সীমান্ত দিয়ে প্রতিদিন গরু,  কয়লা ও চুনাপাথরসহ বিভিন্ন প্রকার মাদকদ্রব্য ওপেন পাচাঁর করা হচ্ছে। কিন্তু বিজিবি ও পুলিশ এব্যাপারে কোন পদক্ষেপ নেয়না। বড়ছড়া কয়লা ও চুনাপাথর আমদানী কারক সমিতির আর্ন্তজাতিক বিষয়ক সম্পাদক আবুল খায়ের বলেন- সীমান্ত চোরাচালানের কারণে একদিকে সরকার রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে, অন্যদিকে আমরা হাজার হাজার বৈধ ব্যবসায়ীরা সীমাহীন ক্ষতিগ্রস্থ্য হচ্ছি। এব্যাপারে বিজিবি ও পুলিশ প্রশাসনের স্থানীয় কর্মকর্তাদেরকে বারবার অবগত করার পরও তারা চোরাচালান বন্ধের জন্য কোন পদক্ষেপ নেয়না। সুনামগঞ্জ জেলার সিনিয়র সাংবাদিক মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া বলেন- বিভিন্ন সীমান্ত দিয়ে অবৈধ ভাবে ভারত থেকে বিভিন্ন মালামাল পাচাঁর করার খবর পাওয়ার সাথে সাথে বিজিবি ক্যাম্প গুলোতে ফোন করে জানানোর পরও তারা কোন পদক্ষেপ নেয়না। তাই সীমান্ত গডফাদার ও তার সোর্স বাহিনীকে গ্রেফতারের জন্য সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের উপরস্থ কর্মকর্তাদের সহযোগীতা জরুরী প্রয়োজন। তাহিরপুর থানার ওসি কাজী নাজিম উদ্দিন বলেন- থানা পুলিশের কোন সোর্স নাই, সীমান্ত চোরাচালান বন্ধের দায়িত্ব বিজিবির। এব্যাপারে চাঁনপুর বিজিবি ক্যাম্প কমান্ডার আব্বাস বলেন- কোন কিছু পাচাঁর হলে আমাকে জানাবেন ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সুনামগঞ্জে টেকেরঘাট কোম্পানী কমান্ডার নায়েব সুবেদার দিলীপ বলেন- সীমান্ত দিয়ে কোন কিছু পাওয়া খবর আমরা পাইনা, পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আরও খবর



ট্রেনের ১৪ জুনের টিকিট আজ দেওয়া হচ্ছে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | ৯১জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:ট্রেনের অগ্রিম টিকিট ঈদুল আজহা উপলক্ষে বিক্রি শুরু করেছে বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। যাত্রীদের অনলাইনে টিকিট ক্রয় করতে হচ্ছে। আজ বিক্রি হচ্ছে ১৪ জুনের টিকিট।

মঙ্গলবার (৪ জুন) সকাল ৮টায় টিকিট বিক্রি শুরু হয়। রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, যাত্রী সাধারণের টিকিট কেনা সহজলভ্য করার জন্য পশ্চিমাঞ্চলে চলাচলরত সব আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট বিক্রি সকাল ৮টায় শুরু হয়েছে। আর পূর্বাঞ্চলে চলাচলরত সব ট্রেনের টিকিট দুপুর ২টা থেকে বিক্রি শুরু হবে।

মঙ্গলবার যারা টিকিট ক্রয় করছেন তারা আগামী ১৪ জুন ভ্রমণ করতে পারবেন। একজন যাত্রী ঈদের আগে যাত্রা ও ফিরতিতে সর্বোচ্চ একবার টিকিট ক্রয় করতে পারবেন এবং সর্বাধিক ৪টি আসনের টিকিট ক্রয় করতে পারবেন। এক্ষেত্রে যাত্রীর সর্বোচ্চ এই ৪টি টিকিট ক্রয়ের ক্ষেত্রে সহযাত্রীদের নাম সংযুক্ত করে দেওয়ার ব্যবস্থা আছে। ঈদযাত্রার এই টিকিট রিফান্ড করা যাবে না।

ঈদের চাঁদ দেখার ওপর নির্ভর করে ১৭, ১৮ ও ১৯ জুনের টিকিট বিক্রি করা হবে। ঈদযাত্রার ফিরতি টিকিট বিক্রি শুরু হবে ১০ জুন। ১০ থেকে ১৪ জুন পর্যন্ত ২০ থেকে ২৪ জুনের ফিরতি অগ্রিম টিকিট বিক্রি করা হবে।

২০ জুনের অগ্রিম টিকিট দেওয়া হবে ১০ জুন। ২১ জুনের টিকিট দেওয়া হবে ১১ জুন। ২২ জুনের টিকিট দেওয়া হবে ১২ জুন। ২৩ জুনের টিকিট দেওয়া হবে ১৩ জুন। আর ২৪ জুনের টিকিট দেওয়া হবে ১৪ জুন।


আরও খবর



সুন্দরগঞ্জে রেইন্সপ্রকল্পে কৃষক প্রশিক্ষন অনুষ্টিত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ৭৪জন দেখেছেন

Image

একেএম শামছুল হক,সুন্দরগঞ্জ প্রতিনিধিঃগাইবান্ধর সুন্দরগঞ্জ উপজেলার  ইউনিয়নের মাটপর্যায়ে সব্জিচাষিদের নিয়ে কৃষক প্রশিক্ষণ অনুষ্টিত হয়েছে।

সোমবার উপজেলার ধোপাডাঙ্গা ইউনিয়নের দক্ষিণ ধোপাডাঙ্গা কুঠিপাড়া গ্রামে কৃষাণি মরিয়মের বাড়িতে   Sacp Rains প্রকল্পে অর্থায়নে অনুষ্টিত প্রশিক্ষণে ৩০ জন কৃষক/কৃষাণী অংশগ্রহণ করেন।

এতে প্রধান প্রশিক্ষক হিসেবে প্রশিক্ষন প্রদান করেন রেইন্স প্রকল্পের প্রশিক্ষক উপ-সহকারি কৃর্ষি অফিসার,  মোঃশাকিল আহমে্মদ, , উপ-সহকারি কৃষি অফিসার মোঃ শামছুল হক,আলী আজম,সুন্দরগঞ্জ প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি সাংবাদিক একেএম শামছুল হক প্রমুখ।

আরও খবর



ফুলবাড়ীতে বোর ধান সংগ্রহে কৃষক নির্বাচন উপলক্ষে উন্মুক্ত লটারি অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | ৯৩জন দেখেছেন

Image

আফজাল হোসেন, ফুলবাড়ী, দিনাজপুর প্রতিনিধি:দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলা সভাকক্ষে অভ্যন্তরিন বোর ধান সংগ্রহ ২০২৪ মৌসুমে কৃষক নির্বাচন উপলক্ষে উন্মুক্ত লটারি অনুষ্ঠিত। 

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টায় ফুলবাড়ী উপজেলা সভাকক্ষে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মীর মোঃ আল কামাহ তমাল এর সভাপত্বিত্বে কৃষক নির্বাচন উপলক্ষে উন্মুক্ত লটারি অনুষ্ঠিত হয়। উন্মুক্ত লটারিতে কৃষক নির্বাচন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, ফুলবাড়ী উপজেলা খাদ্যগুদামের খাদ্য পরিদর্শক ও ভারপ্রাপ্ত কর্মকতা মাহমুদ মোঃ ইমরান, খাদ্য পরিদর্শক মোঃ নাসিম আল আকতার সহ স্থানীয় কৃষকগণ উপস্থিত ছিলেন। চলতি বছর ইরি বোর ধান সংগ্রহে ৬৭৯৫ জনের আবেদন গ্রহণ করা হয়। বরাদ্দ্য রয়েছে ১ হাজার ৪শত ৪৪টন। এবার সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে লটারীর মাধ্যমে ইরি বোর ধান ক্রয় করা হবে। পরিশেষে একজন কৃষক এর মাধ্যমে লটারীর টোকন উত্তোলন করা হয়। এসময় প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রিক মিডিয়ার সাংবাদিক বৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। আয়োজনে ছিলেন সংগ্রহ ও মনিটরিং কমিটি ফুলবাড়ী, দিনাজপুর।


আরও খবর