Logo
আজঃ শুক্রবার ০৯ জুন ২০২৩
শিরোনাম

রূপগঞ্জে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকী উদযাপন

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৭ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৯ জুন ২০২৩ | ১৪০জন দেখেছেন

Image

আবু কাওছার মিঠু রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৩ তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে গতকাল ১৭ ই মার্চ শুক্রবার রূপগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা আওয়ামীলীগ, উপজেলা প্রেসক্লাব, তারাবো পৌরসভা সহ সামাজিক সংগঠন নানা কর্মসূচি পালন করেছে। কর্মসূচির মধ্যে ছিল জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ বিশেষ চাহিদা শিশুদের চিত্রাংকন, কবিতা আবৃত্তি রচনা প্রতিযোগিতা কেক কাটা ও আলোচনা সভা।

সরকারি মুড়াপাড়া কলেজ গাজী অডিটোরিয়ামে আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতি তো করেন রূপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফয়সাল হক সবাই বক্তব্য রাখেন বস্ত্র ও পাঠমন্ত্রী বীর প্রতীক গোলাম দস্তগীর গাজী তারাবো পৌরসভা মেয়র হাসিনা গাজী, মুড়াপাড়া ইউপি  চেয়ারম্যান  আলহাজ্ব  তোফায়েল আহমেদ আলমাছ।

রূপগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান  আলহাজ্ব চেয়ারম্যান সালাউদ্দিন ভুঁইয়া, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আমানউল্লাহ আমান আওয়ামী লীগ নেতা মশিউর রহমান তারেক, আব্দুল আজিজ, গোলাম রসুল কলি, ভিপি মনিরহোসেন, রূপগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান শাহীন,  রূপগঞ্জ উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি এম এ মোমেন, সাধারণ সম্পাদক মকবুল হোসেন প্রমুখ। পরে বিভিন্ন ইভেন্টে বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

-খবর প্রতিদিন/ সি.বা


আরও খবর



নাসিরনগরে ব্যবসায়ীর উপর সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে পিটিয়ে মারাত্বক আহত করে টাকা ছিনতাই

প্রকাশিত:শুক্রবার ১২ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ০৭ জুন ২০২৩ | ১২৪জন দেখেছেন

Image

আব্দুল হান্নান: জমি নিয়ে বিরোধ,পারিবারিক কলহ,পূর্বশত্রুতা ও মামলা মোকদ্দমার জের ধরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসির নগরে সফিকুল ইসলাম নামের এক ব্যাগ ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে মারাত্বক আহত করে তার সাথে থাকা ব্যবসার প্রায় সত্তর হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।বর্তমানে ওই ব্যবসায়ী ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পঞ্জা লড়ছে।ওই ব্যবসায়ীর বাড়ি সদর ইউনিয়নের ধনকুড়া গ্রামে।তার পিতার নাম মৃত জারু মিয়া বলে জানা গেছে।ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল অনুমান চার ঘটিকার সময় উপজেলার ফান্দাউক ইউনিয়নে সরাইল নাসিরনগর মহা সড়ককের উপর স্মশানের নিকট।

ব্যবসায়ী সফিকুল ইসলাম ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায় সদর ইউনিয়নের ধনকুড়া গ্রামে তাদের বাড়ি সংলগ্ন একটি জমি নিয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ প্রতিবেশী আওয়াল মিয়া ও তার লোকদের সাথে বিরোধ আর মামলা মোকদ্দমা চলে আসছিল।গত মঙ্গলবার রাতে আওয়াল মিয়া ও তার লোকজন মিলে সফিকুলের চাচাতো ভাই মোঃ কুতু্ব উদ্দিনের একটি জায়গার উপর অন্যায় ভাবে রাতের অন্ধকারে জোর পূর্বক একটি ঘর নির্মান করে ফেলে।পরে থানা পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে আওয়াল মিয়ার অন্যায় ভাবে নির্মিত ঘরটি সরিয়ে ফেলে বলে এস আই শ্রীবাস চন্দ্র দাস জানায়।

ওই ঘটনার পর বুধবার নাসিরনগর থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মোঃ হাবিবুল্লাহ সরকার এস আই শ্রীবাস চন্দ্র দাসের মাধ্যমে উভয় পক্ষের লোকজনকে থানায় ডেকে এনে পরবর্তীতে আর কেউ অন্যায় ভাবে কোন ঝগড়া করবেনা মর্মে উভয় পক্ষের লোকজনের কাছ থেকে মুচলেহা আদায় করে নেয়।কিন্তু আওয়াল মিয়ার লোকজন থানায় মুচলেহা দিয়েও পরবর্তীতে মুচলেহার  শর্ত ভঙ্গ করে ব্যবসায়ী সফিকুল ইসলামেনর উপর সন্ত্রাসী ভাবে হামলা চালিয়ে মারপিট করে মারাত্বক ভাবে আহত করে তার সাথে থাকা ব্যবসার প্রায় সত্তর হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

ব্যবসায়ী সফিকুল ইসলাম জানায় বৃহস্পতিবার সকালে তিনি টমটম যোগে প্রায় এক লক্ষ টাকার মাল( ব্যাগ) নিয়ে বিক্রির উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বের হয়ে পার্শ্ববরাতী লাখাই উপজেলার ভুল্লা,লাখাই,মোড়াকরি,ফান্দাউক বাজারে বিক্রি করে অনুমান সত্তর হাজার টাকা কালেকশন করে আবারা ওই টমটম যোগে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওয়ানা করেন।এ সময় ফান্দাউক স্মশানের নিকট আসা মাত্রই পূর্ব থেকে দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র ধারলো দা,লাটি, লোহার রড ইত্যাদি নিয়ে ওৎপেতে বসে থাকা মোঃ আওয়াল মিয়া,কামাল মিয়া,সুকন মিয়া,জাবেদ মিয়া,আবেদ মিয়া হেকিম মিয়া,কাউছার মিয়া,রাসেল মিয়া।

সাদেক মিয়া সহ প্রায় চৌদ্দ জন লোক তার টমটমের গতিরোধ করে হর্তকিত ভাবে হামালা চালিয়ে ধারালো দা দিয়ে কুপিয়ে সফিকুল ইসলামের মাথা ও ডান পা কুপিয়ে কেটে দেয়।তাছাড়াও রড দিয়ে পিটিয়ে বাম পা ও বাম হাত ভেঙ্গে ফেলে এবং শরীরের বিভিন্ন স্থানে মারাত্বক আঘাত করে মৃত ভেবে টাকা নিয়ে পালিয়ে যায়।পরে  টমটম চালক আর পথচারীরা মিলে সফিকুল ইসলামকে নাসিরনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎস সফিকুলকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরন করেন।সফিকুলের অবস্থা আশংকা জনক হওয়া জেলা সদর হাসপাতাল ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে প্রেরন করা হয়।বর্তমানে সফিকুল ইসলাম ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



বাতাসের গতিবেগ ১৭০ কিমি ‘মোখা’র কেন্দ্রে

প্রকাশিত:শনিবার ১৩ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ০৭ জুন ২০২৩ | ৭৫জন দেখেছেন

Image

অনলাইন ডেস্ক: পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘মোখা’ উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে একই এলাকায় অবস্থান করছে। অতি প্রবল এ ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৭৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ১৫০ কিলোমিটার, যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ১৭০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে।

আজ শনিবার আবহাওয়া অধিদপ্তরের ১৩ নম্বর বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে আরও বলা হয়েছে, ঘূর্ণিঝড়টি আজ ভোররাতে চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৮৬৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ৭৯৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে, মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ৮৩০ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ৭৯৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে অবস্থান করছিল।

‘মোখা’ আরও উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর ও ঘণীভূত হয়ে আগামীকাল রোববার সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে কক্সবাজার-উত্তর মিয়ানমার উপকূল অতিক্রম করতে পারে। আর আজ সন্ধ্যা থেকে কক্সবাজার ও তৎসংলগ্ন উপকূলীয় এলাকায় ‘মোখা’র অগ্রভাগের প্রভাব শুরু হতে পারে।

গতকাল রাত থেকেই কক্সবাজার ও চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরকে ৮ নম্বর মহাবিপদ সংকেত এবং পায়রা ও মোংলা সমুদ্রবন্দরকে ৪ নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। উপকূলীয় জেলা কক্সবাজার, চট্টগ্রাম, ফেনী, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, চাঁদপুর, ভোলা এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলোও ৮ নম্বর মহাবিপদ সংকেতের আওতায় থাকবে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, ঘূর্ণিঝড়টির অগ্রবর্তী অংশ ও বায়ুচাপ পার্থক্যের আধিক্যের প্রভাবে উপকূলীয় জেলা কক্সবাজার ও চট্টগ্রাম এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলোর নিম্নাঞ্চল স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ৮-১২ ফুট অধিক উচ্চতার বায়ুতাড়িত জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হতে পারে। একই প্রভাবে উপকূলীয় জেলা ফেনী, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, চাঁদপুর ভোলা এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলোর নিম্নাঞ্চল স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ৫-৭ ফুট অধিক উচ্চতার বায়ুতাড়িত জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হতে পারে।

উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সব মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তরের বিজ্ঞপ্তিতে।

আজ শনিবার ভারতীয় আবহাওয়া বিভাগের ১৬ নম্বর বুলেটিনে বলা হয়, বঙ্গোপসাগরের মধ্য ও দক্ষিণ-পূর্বে সৃষ্ট অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড়টি ঘণ্টায় ৮ কিলোমিটার গতিতে উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। ঘূর্ণিঝড়টি ভারতের আন্দামানের রাজধানী পোর্ট ব্লেয়ার থেকে ৫৬৫ কিলোমিটার, বাংলাদেশের কক্সবাজারের দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিম উপকূল থেকে ৭৬০ কিলোমিটার ও মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের রাজধানী সিত্তে থেকে ৬৯০ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে।


আরও খবর



আইএইচএফ চ্যালেঞ্জ ট্রফি উইমেন্স হ্যান্ডবলের শিরোপা জিতল বাংলাদেশ

প্রকাশিত:শনিবার ২০ মে ২০23 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৮ জুন ২০২৩ | ১১১জন দেখেছেন

Image

আজাদ হোসেনঃ 

আইএইচএফ চ্যালেঞ্জ ট্রফি উইমেন্স হ্যান্ডবলের অনূর্ধ্ব-১৭ বিভাগে শিরোপা জিতল বাংলাদেশ। 


পল্টনের শহীদ ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলী হ্যান্ডবল স্টেডিয়ামে বুধবার (১৭ মে) ভারতকে ৪৬-৪৩ গোলে হারিয়েছে বাংলাদেশ।  শুরু থেকে ভারতের বিপক্ষে চোখে চোখ রেখে লড়তে থাকে স্বাগতিকরা। দুই দলের প্রথমার্ধ শেষ হয় ২০-২০ সমতায়। দ্বিতীয়ার্ধে আধিপত্য করে কাঙ্ক্ষিত জয় তুলে নেয় মেয়েরা। 


দলের হয়ে সর্বোচ্চ ১৫ বার জালের দেখা পান মার্ফি; এছাড়া রুনা লায়লা ১৪টি ও তাহারা আক্তার তানিয়া ১০টি, দীপা রানী ৫টি গোল করেন। নেপালকে ৪৬-৮ গোলে হারিয়ে এই প্রতিযোগিতায় যাত্রা শুরু করেছিল মেয়েরা। নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে মালদ্বীপের বিপক্ষে জিতেছিল ৫৫-৯ ব্যবধানে। রাউন্ড রবিন লিগে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে ভারতের কাছে ৪৩-৩৩ গোলে হেরেছিল বাংলাদেশ। টানা তিন জয়ে ফাইনালের মঞ্চে আসা শক্তিশালী ভারত প্রথম হারের তেতো স্বাদ পেল। টুর্নামেন্ট শুরুর আগে অনূর্ধ্ব-১৭ দলের কোচ ডালিয়া আক্তার বলেছিলেন, ফাইনালে চমক উপহার দেওয়ার লক্ষ্য। তা পূরণ হওয়ার উচ্ছ্বাস তার চোখে-মুখে।


তিনি বলেন, টুর্নামেন্ট শুরুর আগে বলেছিলাম চমক দেখাবে আমার দল। সেটাই করে দেখিয়েছে তারা। মেয়েদের এমন পারফরম্যান্সে আমি অনেক খুশি। আমি আমার খেলোয়াড়ী জীবনে কখনও ভারতকে হারাতে পারিনি, কিন্তু প্রথমবার কোচ হয়ে সেই অর্জনে নাম লেখাতে পেরেছি। ভারতকে যে কোনো খেলায় হারানো কঠিন। হ্যান্ডবলে তো আরো কঠিন। সেই কঠিন কাজ আমার মেয়েরা করে দেখিয়েছে।


তিনি আরও বলেন, ভারতের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে গতকাল দলের ভুলগুলো নিয়ে কাজ করেছি। রাউন্ড রবিন লিগে ভারতের কাছে হেরেছিলাম। সেখানে যে ভুলগুলো মেয়েরা করেছিল; আজ সে ভুলগুলো কম করেছে। সব মিলে আমি দারুণ খুশি।


প্রতিযোগিতার অনূর্ধ্ব-১৯ বিভাগে অবশ্য পেরে ওঠেনি বাংলাদেশ। একই ভেন্যুতে হওয়া ফাইনালে ৪৮-১৭ গোলে হেরে যায় মেয়েরা।



আরও খবর



বাইরের শক্তি বিএনপিকে ব্যবহার করবে, ক্ষমতায় বসতে দেবে না: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ জুন ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৮ জুন ২০২৩ | ৮১জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:বিদেশি কোনো শক্তি বিএনপিকে ক্ষমতায় বসাবে না বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ঐতিহাসিক ৬ দফা দিবস উপলক্ষে আজ বুধবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় এ কথা বলেন তিনি।

বিএনপির উদ্দেশে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আন্দোলন-সংগ্রাম করে নাকি আমাদের সরকারকে উৎখাত করবে। তারা যদি এখন সংঘাত করে তাহলে আমেরিকাই তো তাদের ভিসা বন্ধ করে দেবে। আমি বলে দিয়েছি, তারা যেভাবে খুশি আন্দোলন করে করুক। কোনো বাধা যেন না দেওয়া হয়।’

আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, ‘তারা (বিএনপি) ভেবেছে, বিদেশিরা তাদের নাগরদোলায় করে ক্ষমতায় বসিয়ে দেবে। আসলে বাইরের শক্তি তাদের ব্যবহার করবে। কিন্তু ক্ষমতায় বসতে দেবে না। ক্ষমতায় কোনো দলকে বসাতে পারে শুধুমাত্র জনগণ।

তিনি বলেন, ‘যতই দেশি-বিদেশি চাপ আসুক, বাংলাদেশের মানুষ তাতে নতি স্বীকার করবে না। আমরাই আমাদের নাগরিকদের ভোটের অধিকারের সুরক্ষা দেব।

বিএনপির সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘বিএনপি তো ভোট চোর না, তারা ভোট ডাকাত। দুই দুইবার ভোটচুরির অপরাধে খালেদা জিয়াকে ক্ষমতা ছাড়তে হয়েছিল। শুনে আমার হাসি পায়, ওরা আবার গণতন্ত্রের কথা কয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘কোন গণতান্ত্রিক ধারায় জন্ম হয়েছিল বিএনপির? তারা এখন মুখে গণতন্ত্রের কথা বলতে বলতে অস্থির! অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে, হ্যাঁ-না ভোট করে তা বৈধ করেছিলেন জিয়াউর রহমান। ভোট কারচুপির সূচনা হয়েছে বিএনপির মাধ্যমে।

তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সবসময় জনগণের ভোটে ক্ষমতায় বসেছে। জনগণ সঙ্গে থাকলে আওয়ামী লীগ কখনো পরাজিত হয়নি।

চলমান লোডশেডিংয়ের ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমাদের দেওয়া বিদ্যুতে, ইন্টারনেটে, এসিরুমে বসে আমাদেরই সমালোচনা করা হয়। আমরা জানি কখন কোন সিদ্ধান্ত নিতে হয়। কখন কোন কথা বলতে হয়। ১০-১৫ দিনের মধ্যে পরিস্থিতির (বিদ্যুৎ) উন্নতি হবে। অতিরিক্ত গরমে মানুষের কষ্ট বুঝতে পারছি আমরা।


আরও খবর



প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে মধুপুরে বিক্ষোভ মিছিল

প্রকাশিত:সোমবার ২২ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ০৫ জুন ২০২৩ | ১৩৪জন দেখেছেন

Image

বাবুল রানা মধুপুর টাঙ্গাইল প্রতিনিধি:সফল প্রধানমন্ত্রী ও বঙ্গবন্ধুর কণ্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা কে হত্যার হুমকির দেওয়ায়, টাঙ্গাইলের মধুপুর  উপজেলা আওয়ামীলীগ ও সকল সহযোগী অঙ্গ সংগঠনের আয়োজনে  বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।সোমবার (২২ মে) বিকেলে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ছরোয়ার আলম খান আবুর নেতৃত্বে   বিক্ষোভ মিছিল বের হয়।

মিছিলটি  শহরের গুরুত্বপুর্ণ  সড়ক প্রদক্ষিণ করে থানা মোড়ে এসে কাজী ডিজিটাল হাসপাতালের সামনে এসে শেয হয়। প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান  ছরোয়ার আলম খান আবু, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি খন্দকার শফি উদ্দিন মনি, অরনখোলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আ: রহিম, বেরিবাইদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জুলহাস উদ্দিন সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর