Logo
আজঃ Friday ১৯ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে আবাসিকের অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন ডেমরায় প্যাকেজিং কারখানায় ভয়বহ অগ্নিকান্ড রূপগঞ্জে পুলিশের ভুয়া সাব-ইন্সপেক্টর গ্রেফতার রূপগঞ্জে সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ॥ সভা সরাইলে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ৭৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত। নারায়ণগঞ্জে পারিবারিক কলহে স্ত্রীকে পুতা দিয়ে আঘাত করে হত্যা,,স্বামী গ্রেপ্তার রূপগঞ্জ ইউএনও’র বিদায় সংবর্ধনা নাসিরনগরে স্বামীর পরকিয়ার,বলি ননদ ভাবীর বুলেটপানে আত্মহত্যা নাসিরনগরে জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭ তম শাহাদত বার্ষিকী পালিত ডেমরায় জাতীয় শোক দিবসের কর্মসুচি পালিত

রণবীরকে শ্যুটিং ফ্লোরে মারতেন, গালিগালাজও করতেন বনশালী

প্রকাশিত:Thursday ১৬ December ২০২১ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৪৬১জন দেখেছেন
Image

অনলাইন ডেস্ক: বলিউডে দেড় দশকেরও বেশি সময় কাটিয়েছেন। অভিনেতা হিসেবে প্রতিষ্ঠার পাশাপাশি তার একাধিক ছবিও প্রশংসিত হয়েছে। বলছিলাম, জনপ্রিয় অভিনেতা রণবীর কাপুরের কথা। সম্প্রতি চলচ্চিত্র পরিচালক সঞ্জয়লীলা বনশালীকে নিয়ে মুখ খুলেছেন ‘রকস্টার’ খ্যাত এই অভিনেতা। তিনি বলেছেন, শ্যুটিং ফ্লোরে বনশালী তাকে মারতেন। শুধু তাই নয়, তাকে গালিগালাজও করতেন।

ভারতের সংবাদমাধ্যম জিনিউজের এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। বলা হয়েছে, ২০০৭ সালে বনশালীর ছবির মাধ্যমেই বলিউডে হাতেখড়ি হয়েছে অভিনেতা রণবীর কাপুরের। কাজ করেছেন অভিনেত্রী সোনম কাপুর, রানি মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে ‘সাওয়ারিয়া’ ছবিতে। এরপর ‘ওয়েক আপ সিড’, ‘আজাব প্রেম কি গাজাব কাহানি’, ‘রাজনীতি’, ‘রকস্টার’-এর মতো একের পর ছবিতে কাজ করেছেন তিনি।

বাবা ঋষি কাপুর এবং মা নিতু কাপুরের নামের ঊর্ধ্বে উঠে বলিউডে নিজস্ব পরিচয় তৈরি করেছেন রণবীর। কিন্তু জানলে অবাক হবেন, ‘সাওয়ারিয়া’ এর আগেও ছবিতে কাজ করেছেন রণবীর। সেটাও সঞ্জয়লীলা বনশালীর প্রশংসিত ছবি ‘ব্ল্যাক’-এ। তবে অভিনেতা নয়, সহ-পরিচালক হিসেবে।

সম্প্রতি সাংবাদিকদের সামনে সেই ছবিতে কাজের অভিজ্ঞতা শেয়ার করেছেন রণবীর। তিনি বলেন, ‘যখন আমি ব্ল্যাক ছবিতে ওকে অ্যাসিস্ট করি...উনি কোনোদিন আমাকে অ্যাসিট্যান্ট ডিরেক্টরের চোখে দেখতেন না। ঘণ্টার পর ঘণ্টা আমাকে হাঁটু মুড়ে বসিয়ে রাখতেন, আমাকে মারতেন, গালিগালাজও করতেন।’

যদিও এরপর অভিনেতা জানান, আক্রোশের বশে তাকে বনশালী ওই শাস্তি দিতেন না। আগামীদিনের কঠিন লড়াইয়ের জন্য তাকে তৈরি করতেন। তার যাতে ভালো হয়, সেজন্যই করতেন।

উল্লেখ্য, ২০২২-এর ৯ সেপ্টেম্বর সিনেমা হলে মুক্তি পাবে রণবীর কাপুর, অমিতাভ বচ্চন এবং আলিয়া ভাট অভিনীত ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ সিনেমা। ছবিটি পরিচালনা করেছেন অয়ন মুখোপাধ্যায়।


আরও খবর

আসছে ‘গোলমাল ৫’!

Friday ১৯ August ২০২২




পদত্যাগ করলেন ইতালির প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:Thursday ২১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ১৬ August ২০২২ | ১০৮জন দেখেছেন
Image

দায়িত্ব গ্রহণের দেড় বছরের মাথায় পদত্যাগ করলেন ইতালির প্রধানমন্ত্রী মারিও দ্রাঘি। এর আগে গত ১৫ জুলাই আস্থা ভোটে জেতার পরেও পদত্যাগের ঘোষণা দেন তিনি। কিন্তু সে সময় তার সিদ্ধান্তের প্রতি সমর্থন জানাননি প্রেসিডেন্ট সার্জিও মাতারেলা।

বিস্তারিত আসছে...


আরও খবর



রাষ্ট্রপতির সঙ্গে বিইউপি উপাচার্যের সাক্ষাৎ

প্রকাশিত:Thursday ২১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ১৫ August ২০২২ | ৭০জন দেখেছেন
Image

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালস (বিইউপি) উপাচার্য মেজর জেনারেল মো. মাহবুব-উল-আলম।

বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) সন্ধ্যায় বঙ্গভবনে সাক্ষাৎকালে বিইউপি উপাচার্য বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ও অবকাঠামো উন্নয়নসহ সার্বিক কর্মকাণ্ড সম্পর্কে রাষ্ট্রপতিকে অবহিত করেন।

বিশ্বব্যাপী করোনা মহামারি প্রসঙ্গ তুলে রাষ্ট্রপতি বলেন, কোভিড-১৯ মানুষকে জীবন জীবিকা নির্বাহে নতুনভাবে ভাবাচ্ছে। এ ধরনের পরিস্থিতিতে শিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে নতুন নতুন প্রযুক্তি ও পদ্ধতি ব্যবহারে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে সক্ষমতা অর্জন করতে হবে।

বিশ্বায়নের এ যুগে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে যুগোপযোগী কারিকুলাম প্রণয়নসহ গবেষণা কার্যক্রম বাড়ানোর ওপর জোর দেন তিনি।

এ সময় রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের সচিব সম্পদ বড়ুয়া, সামরিক সচিব মেজর জেনারেল এস এম সালাহ উদ্দিন ইসলাম, রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব মো. জয়নাল আবেদীন ও সচিব (সংযুক্ত) মো. ওয়াহিদুল ইসলাম খান উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



বড় জয়ের পথে বাংলাদেশ

প্রকাশিত:Wednesday ১০ August ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ১৬ August ২০২২ | ১৭জন দেখেছেন
Image

আগের দুই ওয়ানডেতে ৩০৩ আর ২৯০ রানের পুঁজি নিয়েও পারেনি বাংলাদেশ। তবে এবার ২৫৬ রানের সংগ্রহ নিয়েই বড় জয়ের পথে আছে টাইগাররা। তাইজুল-এবাদতদের দারুণ বোলিংয়ে ৮৩ রানেই ৯ উইকেট হারিয়ে বসেছে জিম্বাবুয়ে। এখন শুধু শেষ উইকেট ফেলার অপেক্ষা। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ২৯ ওভার শেষে ৯ উইকেটে ১২৫ রান তুলেছে স্বাগতিকরা।

প্রথম ওভারেই আঘাত হানেন পেসার হাসান মাহমুদ।ডানহাতি এই পেসারের দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে এলবিডব্লিউ হয়ে সাজঘরে ফেরেন তাকুদজানাশে কাইতানো (০)।

পরের ওভারে মেহেদি হাসান মিরাজের আঘাত। তাদিওয়ানাশে মারুমানি (১) ডাউন দ্য উইকেটে খেলতে গিয়ে বলের লাইন মিস করে হারান স্টাম্প। ৭ রানে ২ উইকেট হারায় জিম্বাবুয়ে।

এবাদত হোসেন টেস্টে নিজেকে প্রমাণ করেছেন, এবার ওয়ানডে অভিষেকটাও রাঙালেন এই পেসার। প্রথম ম্যাচে উইকেটের জন্য তার অপেক্ষা করতে হলো মাত্র ৯ বল।

শুধু একটি উইকেট নয়, এক ওভারে টানা দুই বলে দুই শিকার করেন এবাদত। ইনিংসের পঞ্চম ওভারের তৃতীয় বলে এবাদতের লাফিয়ে উঠা ডেলিভারি বুঝতে না পেরে পয়েন্টে ক্যাচ তুলে দেন ওয়েসলে মাদভেরে (১)।

পরের ডেলিভারি তো ছিল রীতিমত বিস্ময়ের। দুর্দান্ত ফর্মে থাকা সিকান্দার রাজা উইকেটে আসতে না আসতেই এবাদতের দুর্দান্ত ইয়র্কারে কিছু বুঝতে না পেরে হন বোল্ড।

প্রথম ওয়ানডের সেঞ্চুরিয়ান ইনোসেন্ট কায়াকে (১০) এলবিডব্লিউ করেন তাইজুল। একটু চড়াও হতে গিয়েছিলেন টনি মুঙ্গোয়া। ১৮ বলে ১৩ রান করে তিনিও তাইজুলের টার্নে স্টাম্পিংয়ের ফাঁদে পড়েন। পঞ্চাশের আগেই (৪৯ রানে) ৬ উইকেট হারিয়ে ম্যাচ থেকে ছিটকে পড়ে জিম্বাবুয়ে।

সেখান থেকে লজ্জা এড়ানোর মিশনে নামেন লুক জঙউই আর ক্লিভ মাদান্দে। ৪৩ বল খেলে তারা গড়েন ২৮ রানের জুটি। শেষ পর্যন্ত এই জুটিটি ভাঙেন মোস্তাফিজুর রহমান। কাটার মাস্টারকে তুলে মারতে গিয়ে কভারে বিজয়ের ক্যাচ হন জঙউই (১৫)।

লেজটা ছেঁটে দিয়েছেন মোস্তাফিজিই। নিজের পরের ওভারে আরও এক সেট ব্যাটারকে আউট করেন ফিজ। ২৪ রান করা মাদান্দে টপ এজ হয়ে উইকেটরক্ষক মুশফিকের গ্লাভসবন্দী হন। ওই ওভারে লরি ইভান্সকেও (২) আউট করেন কাটার মাস্টার।

সম্মান বাঁচানোর ম্যাচ। তাতে শুরুতেই সম্মানহানি হওয়ার জোগাড় হয়েছিল। জিম্বাবুইয়ান বোলারদের তোপে ৪৭ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে বসেছিল বাংলাদেশ। সেখান থেকে এনামুল হক বিজয় আর আফিফ হোসেনের ব্যাটে চড়ে ৯ উইকেটে ২৫৬ রানের পুঁজি পেয়েছে টাইগাররা।

হারারেতে সিরিজের তৃতীয় ওয়ানডে ম্যাচে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে সাবধানী শুরুই করেছিলেন তামিম ইকবাল। ইনিংসের চতুর্থ ওভারে জোড়া বাউন্ডারি হাঁকিয়ে খোলস ছেড়ে বের হওয়ার আভাস দেন তিনি। অধিনায়কের দেখাদেখি হাত খুলে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে রানের গতি বাড়ান আরেক ওপেনার বিজয়ও।

কিন্তু ইনিংসের অষ্টম ওভারের তৃতীয় বলে হয় সর্বনাশ। অফসাইডের দিকে খেলেই সিঙ্গেলের জন্য ডাক দেন বিজয়। সাড়া দিয়ে প্রায় মাঝ পিচে চলে যান তামিম। কিন্তু স্কয়ার অঞ্চল থেকে বলটি থামিয়ে দেন ওয়েসলে মাধভের। তার থ্রো ধরে স্ট্যাম্প ভেঙে ১৯ রান করা তামিমের বিদায়ঘণ্টা বাজান এনগারাভা।

সেই ওভারেই এক্সট্রা কভারের ওপর দিয়ে দৃষ্টিনন্দন একটি ছক্কা হাঁকান বিজয়। কিন্তু পরের ওভারেই ঘটে বিপর্যয়। ওভারের প্রথম বলে কাট করতে গিয়ে পয়েন্টে ধরা পড়েন নাজমুল শান্ত। দুই বল পর আপার কাট করে থার্ড ম্যাচে এনগারাভার দুর্দান্ত ক্যাচে পরিণত হন মুশফিকুর রহিম। দুজনের কেউই রানের খাতা খুলতে পারেননি।

দুই ওভারের মধ্যে তিন উইকেট হারালেও সাহস হারাননি বিজয়। বরং যেখানে থেমেছিলেন তামিম, সেখান থেকেই দলকে এগিয়ে নিতে থাকেন এ ডানহাতি ওপেনার। পাওয়ার প্লে শেষ হওয়ার পরের ওভারেই ফাইন লেগ দিয়ে ছক্কা হাঁকান তিনি। দুই ওভার পর ব্র্যাডলি ইভান্সকে ভাসান স্কয়ার লেগের ওপর দিয়ে।

ইনিংসের ১৭তম ওভারের চতুর্থ বলে সিঙ্গেল নিয়ে ব্যক্তিগত পঞ্চাশ পূরণ করেন বিজয়। সাবলীল ব্যাটিংয়ে মাত্র ৪৮ বলে ৫ চার ও ৩ ছয়ের মারে এ রান করেন তিনি। ওয়ানডে ক্যারিয়ারে বিজয়ের এটি পঞ্চম ফিফটি, চলতি সিরিজের দ্বিতীয়। ফিফটির পরেও থামেনি বিজয়ের ব্যাট।

২১তম ওভারে ইভান্সের করা পায়ের ওপরের ডেলিভারিতে দারুণ এক ফ্লিক শটে সোজা গ্যালারির ছাদে পাঠিয়ে দেন এ ডানহাতি ওপেনার। পরের বলেই আবার হাঁকান বাউন্ডারি। অপরপ্রান্তে মাহমুদউল্লাহ ধীর ব্যাটিং করায় দলীয় শতরান পূরণ করতে খেলতে হয় এই ২১তম ওভার পর্যন্ত।

মনে হচ্ছিল প্রথম ম্যাচের না পাওয়া সেঞ্চুরিটি আজ হয়তো করে ফেলবেন বিজয়। কিন্তু লুক জঙউইর করা ২৫তম ওভারে ঘটে বিপক্ষে। অফস্ট্যাম্পের বাইরের বলে লেট কাট করতে গিয়ে উইকেটের পেছনে ধরা পড়েন বিজয়। তার ৭১ বলে ৭৬ রানের ইনিংসে ছিল ৬ চারের সঙ্গে ৪টি ছয়ের মার।

এরপর আফিফ হোসেনের সঙ্গে মাহমুদউল্লাহর ৫৭ বলে ৪৯ রানের জুটি। জুটিটি ভাঙে ধীরগতির মাহমুদউল্লাহ এনগারাভার একটি বল উইকেটে টেনে এনে বোল্ড হলে। ৬৯ বলে ৩ বাউন্ডারিতে ৩৯ রান করেন মাহমুদউল্লাহ।

এরপর মেহেদি হাসান মিরাজও ২৪ বলে ১৪ রান করে সিকান্দার রাজার বলে এলবিডব্লিউ হন। তাইজুল রানআউট হন ৫ রানে। ২২০ রানে ৭ উইকেট হারায় বাংলাদেশ।

সেখান থেকে আফিফ হোসেন ধ্রুব প্রায় একাই দলকে লড়াকু পুঁজি পর্যন্ত টেনে নিয়ে যান। ইনিংসের শেষ পর্যন্ত তিনি অপরাজিত থেকে বাংলাদেশকে এনে দেন ২৫৬ রানের সংগ্রহ। ৮১ বলে আফিফের ৮৫ রানের ইনিংসটিতে ছিল ৬ বাউন্ডারি আর ২টি ছক্কার মার।

জিম্বাবুইয়ান বোলারদের মধ্যে দুটি করে উইকেট নিয়েছেন ব্র্যাড ইভান্স আর লুক জঙউই।


আরও খবর



‘মুক্তিযুদ্ধের আদর্শকে বিনষ্ট করতেই বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা’

প্রকাশিত:Saturday ০৬ August ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ১৬ August ২০২২ | ৩৮জন দেখেছেন
Image

কৃষিমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, যে আদর্শকে বুকে নিয়ে আমরা যুদ্ধ করেছিলাম, সেই আদর্শকে বিনষ্ট করার জন্যই ঘাতকেরা বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করেছে। কারণ তারা জানতো, শেখ কামাল বেঁচে থাকলে ফিনিক্স পাখির মতো বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে ঝাঁপিয়ে পড়বে। এ পথটা রুদ্ধ করতেই তারা শেখ কামালকে হত্যা করে।

শুক্রবার (৫ আগস্ট) বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রের (টিএসসি) মিলনায়তনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জেষ্ঠ পুত্র শেখ কামালের জন্মদিন উপলক্ষে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ উপ-কমিটির উদ্যোগে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

এসময় তিনি উপস্থিত সবাইকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উজ্জীবিত হওয়ার আহ্বান জানান।

এসময় বাংলাদেশের জন্য বঙ্গবন্ধুর পরিবারের ত্যাগকে স্মরণ করে রাজনৈতিক বিশ্লেষক সুভাষ সিংহ রায় পাকিস্তানি মানবাধিকার কর্মী আহমেদ সেলিমের বরাতে বলেন, ১৯৭১ সালের ২৮ ডিসেম্বর বঙ্গবন্ধুকে জেলখানা থেকে শিহালা রেস্ট হাউজে নিয়ে যাওয়া হয়। তারপর তিনি প্রথম তিনটা পত্রিকা এবং একটা রেডিও পান। রেডিও’র নব ঘুরানোর সময় তিনি শেখ হাসিনার কণ্ঠস্বর শুনতে পান। যাতে শেখ হাসিনা বলছিলেন বাংলাদেশে পাক বাহিনীর অত্যাচারের কথা। তখন বঙ্গবন্ধু টের পান শেখ হাসিনা বেঁচে আছেন। একটা পরিবার দেশের জন্য কী পরিমাণ ত্যাগ স্বীকার করতে পারে, তা বঙ্গবন্ধুর পরিবারকে না দেখলে বোঝা যায় না।

টিএসসিতে ছাত্রলীগের করণীয় সম্পর্কে দিকনির্দেশনা প্রদান করে তিনি বলেন, মৌলবাদীরা টিএসসিতে মাঝেমধ্যে বিষাক্ত শ্বাস ফেলে। ছাত্রলীগের বন্ধুরা খেয়াল রাখবেন, যেন মৌলবাদীদের আকাঙ্ক্ষা পূরণ না হয়। তাদের অপছায়া থেকে যেন টিএসসি সবসময় মুক্ত থাকে। কারণ এই টিএসসি শেখ কামালের স্মৃতি বহন করে। এখানকার সর্বস্তরে ছড়িয়ে আছে শেখ কামালের স্মৃতি।

বেঁচে থাকলে কর্ম এবং গুণে শেখ কামাল মার্শাল টিটোকে ছাড়িয়ে যেতেন বলে উল্লেখ করেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মশিউর রহমান। তিনি বলেন, যুগোস্লাভিয়ার তৎকালীন প্রেসিডেন্ট জোসেফ টিটো শেখ কামালকে নিজের কাছে নিয়ে গিয়েছিলেন। যেন কাছ থেকে পর্যবেক্ষণ করে শেখ কামাল টিটোর মতো লড়াকু সৈনিক হতে পারে। শেখ কামাল হয়েছিলেনও তাই। কিন্তু তার এই যোগ্যতাটুকুকে হানাদাররা কাজে লাগাতে দেয়নি। কর্ম, গুণে টিটোকে ছাড়িয়ে যাবার পূর্বেই ঘাতকের বুলেটের আঘাতে প্রাণ যায় শেখ কামালের।

মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের শক্তিকে সত্য ইতিহাস সংরক্ষণের তাগিদ জানিয়ে ড. খন্দকার বজলুল হক বলেন, যারা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছে, তারা বাঙালি নয়, তারা বাংলাদেশি, তথা রূপান্তরিত পাকিস্তানি। আপনারা এদের থেকে সাবধানতা অবলম্বন করুন। নিজে ইতিহাস সৃষ্টি করুন এবং এটাকে সংরক্ষণও করুন। আমরা ইতিহাস সংরক্ষণ না করলে আমাদের শত্রুরা, মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধের শক্তি ইতিহাস বিকৃত করবে। এভাবে আমরা এগোতে পারবো না।

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য এবং বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. খন্দকার বজলুল হকের সভাপতিত্বে ও আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপ-কমিটির সম্পাদক দেলোয়ার হোসেনের সঞ্চালনায় সভায় ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আব্দুল মান্নান চৌধুরীসহ রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে আগত আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



ট্রফি প্রদানের জন্য বাফুফেকে বসুন্ধরা কিংসের আলটিমেটাম

প্রকাশিত:Saturday ২৩ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৩৫জন দেখেছেন
Image

দুই ম্যাচ হাতে রেখে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বসুন্ধরা কিংস। এটি তাদের লিগের টানা তৃতীয় শিরোপা। দুই ম্যাচ হাতে রেখে রানার্সআপ নিশ্চিত করেছে আবাহনী। রেওয়াজ অনুযায়ী চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ দলের শেষ ম্যাচে ট্রফি তুলে দেয় বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের প্রফেশনাল লিগ কমিটি।

চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংস ও রানার্সআপ আবাহনী লিগের দ্বিতীয় পর্বে মুখোমুখি হচ্ছে ২৫ জুলাই বসুন্ধরা কিংস এরেনায়। বসুন্ধরা কিংস বাফুফে বরাবর চিঠি দিয়ে ওই ম্যাচের পর তাদের ট্রফি দেওয়ার অনুরোধ জানিয়েছে।

শনিবার বাফুফেকে দেওয়া চিঠিতে বসুন্ধরা কিংস লিখেছে, যেহেতু ২৫ জুলাই চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ দলের খেলা তাদের মাঠে তাই ওই দিন ট্রফি প্রদান করা করলে সবদিক দিয়ে সুবিধা হবে। ওইদিন পুরস্কার বিতরণের আয়োজন করলে দুটি দলকেই এক সঙ্গে পাওয়া যাবে এবং বসুন্ধরা কিংস পুরস্কার আয়োজনে বাফুফেকে সব ধরনের সহযোগিতা করবে।

চিঠিতে বসুন্ধরা কিংস আলটিমেটামও দিয়েছে যে, যদি ২৫ জুলাই আবাহনীর বিপক্ষে তাদের ম্যাচের দিন পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠান আয়োজন করা না হয় তাহলে বাফুফে কর্তৃক পুরস্কার তারা গ্রহণ করবে না।

বাফুফের প্রফেশনাল লিগ কমিটি বিভাগে যোগাযোগ করে জানা গেছে, তারা চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ ট্রফি তৈরি করে রেখেছে এবং রেওয়াজ অনুযায়ী চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ দলের শেষ ম্যাচে তা প্রদানের প্রস্তুতি নিচ্ছে।


আরও খবর