Logo
আজঃ সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

রাশিয়াকে অবশ্যই শাস্তি পেতে হবে, জোটদের হুঁশিয়ারি

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৩ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ২১১জন দেখেছেন

Image

অনলাইন ডেস্ক: ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিতে জি-টুয়েন্টি জোটভুক্ত দেশগুলোর পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সম্মেলন যৌথ ঘোষণা ছাড়াই শেষ হয়েছে। এবারের যৌথ বিবৃতি ইউক্রেন থেকে রাশিয়ার প্রতি নিঃশর্তভাবে পুরোপুরি সেনা প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়ে তৈরি করা হয়। কিন্তু রাশিয়ার আপত্তিতে চীন সমর্থন জানানোয় তা শেষপর্যন্ত আলোর মুখ দেখেনি। 

তবে ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসনের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্র দেশগুলো ঠিকই হুঁশিয়ারি বার্তা দিয়েছে। আজ শুক্রবার কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বৈঠকের পর এক বিবৃতিতে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন ও তার ভারত, জাপান ও অস্ট্রেলিয়ার সমকক্ষরা বলেছেন, ইউক্রেনে যুদ্ধের জন্য রাশিয়াকে অবশ্যই শাস্তি পেতে হবে।

চার দেশ নিয়ে গঠিত এই কোয়াড জোট আরও বলেছে, ইউক্রেনে পারমাণবিক অস্ত্রের ব্যবহার বা ব্যবহারের হুমকি অগ্রহণযোগ্য।

গত বছরের বছরের ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে সামরিক অভিযানের ঘোষণা দেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। এরপর আজ পর্যন্ত টানা ৩৭৩ দিনের মতো চলছে দেশ দুইটির সংঘাত। এতে দুই পক্ষের বহু হতাহতের খবর পাওয়া যাচ্ছে তবে যুদ্ধ বন্ধে এখন পর্যন্ত কোনও লক্ষণ নেই।


আরও খবর



কালিয়াকৈরে সেচ্ছায় বনের জমি ছাড়লো এপেক্স পোশাক কারখানা

প্রকাশিত:বুধবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ১৫২জন দেখেছেন

Image

সাগর আহম্মেদ,কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি:গাজীপুরের কালিয়াকৈরে সেচ্ছায় বন বিভাগের জমি ছেড়ে দিলো একটি পোশাক কারখানার কতৃপক্ষ। বুধবার দুপুরে ওই কারখানা কর্তৃপক্ষ স্থানীয় বন কর্মকর্তাদের ডেকে নিয়ে ওই জমি বুঝিয়ে দেন। তবে আশপাশের বনের জমি দখল মুক্ত না করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয়রা।

এলাকাবাসী, কারখানা ও বন বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, কালিয়াকৈর রেঞ্জ অফিসের আওতায় প্রায় ২১ হাজার একর বনভূমি রয়েছে। কিন্তু বিভিন্ন শিল্প কারখানা, বিনোদন পার্কসহ বিভিন্ন অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করে বনের জমি দখলে রেখেছে প্রভাবশালীরা। তারা ওই অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করে রমরমা ব্যবসা বাণিজ্য করে আসছে। এদের মধ্যে এপেক্স হোল্ডিং লিমিটেড নামে তৈরি পোশাক কারখানা নিলো ভিন্ন উদ্যোগ। গত কয়েক দিন আগে সীমানা নির্ধারণ করে ওই কারখানা কর্তৃপক্ষ। বুধবার দুপুরে স্থানীয় বনবিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীদেও ডাকেন ওই কারখানা কর্তৃপক্ষ। পরে কারখানা কর্তৃপক্ষ ও বনবিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা যৌথভাবে সীমানা পিলার দিয়ে প্রায় দেড় শতাংশ বনের জমি ছেড়ে দেওয়া হয়। যার আনুমানিক মূল্য প্রায় ৫০ লক্ষ টাকা। বনের জমি সেচ্ছায় ছেড়ে দেওয়ায় প্রশংসায় ভাসছেন ওই কারখানার মালিক। সেই সাথে বনবিভাগের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয়রা। তারা বলছেন, এ উপজেলায় সর্ব প্রথম স্থাপিত ওই কারখানায় কাজ প্রায় ১৮ হাজার শ্রমিক কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছে। তারপরও কারখনার মালিক ওই বনের জমি সেচ্ছায় ছেড়ে দিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন। কিন্তু কারখানার আশপাশে যারা বনের জমি দখল করে রমরমা বাণিজ্য করছে। মাসোয়ারা নিয়ে সেসব অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে স্থানীয় বন বিভাগ কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না। তবে সেসব অবৈধ স্থাপনা দখল মুক্ত করার দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা। এদিকে ওই কারখানার এমন মহতি উদ্যোগে উপস্থিত ছিলেন- ওই কারখানার ডিজিএম রহমত-এ খোদা, কালিয়াকৈর রেঞ্জ কর্মকর্তা মনিরুল করিম, কালিয়াকৈর পৌরসভা প্যানেল মেয়র খাত্তাব মোল্লা, ৭নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর সামসুল হক, স্থানীয় মহিলা কাউন্সিলর নাজমা বেগম, ওই কারখানার হেড অব অপারেশন হুমায়ুন কবির, হেড-অব সিভিল ইঞ্জিনিয়ার রাকিব হাসানসহ বন বিভাগ ও কারখানার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

ওই কারখানার ডিজিএম রহমতে-এ খোদা জানান, আমাদের কোম্পানী স্থানীয় হাবু মাতাব্বরের কাছ থেকে জমি কিনেন। কিন্তু তিনি প্রতারনার মাধ্যমে রেকর্ডীয়সহ কিছু বনের জমি কৌশলে বুঝিয়ে দেন। আমরা সেটা জানতে পেরে মালিকের নির্দেশে ওই বনের জমি সেচ্ছায় ছেড়ে দিয়েছি।

কালিয়াকৈর রেঞ্জ কর্মকর্তা মনিরুল করিম জানান, ওই কারখানা কর্তৃপক্ষ সেচ্ছায় বনের জমি ছেড়ে দিয়ে প্রশংসার কাজ করেছেন। তবে খুব শিগ্রই অভিযান চালিয়ে পর্যায় ক্রমে অন্যান্য কারখানা ও বিনোদন পার্কসহ বিভিন্ন দখলকৃত জমি উদ্ধার করা হবে।


আরও খবর



"ভারত-বাংলাদেশ মিয়ানমার ইস্যুতে একযোগে কাজ করবে"

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১০৯জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ জানিয়েছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এস জয়শঙ্করের সঙ্গে মিয়ানমারের চলমান পরিস্থিতি নিয়ে একযোগে কাজ করার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে, বলে।

বুধবার (৭ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় দিল্লির হায়দরাবাদ হাউজে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এস জয়শঙ্করের সঙ্গে প্রথমে একান্ত ও পরে আনুষ্ঠানিক দ্বিপাক্ষীয় বৈঠক শেষে তিনি এ কথা বলেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেনে, বৈঠকে অত্যন্ত আন্তরিক পরিবেশে খোলামেলা ও বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে। তিনি বলেন, সীমান্তে হত্যা নয় সৌহার্দ্য বজায় রাখা, আন্তঃদেশীয় যোগাযোগ বৃদ্ধিতে চট্টগ্রাম ও মংলা বন্দরকে ভারতের ব্যবহারের কার্যকর সূচনা, বিদ্যুৎ শক্তির উৎসজনিত সহায়তার বিষয়সমূহের পাশাপাশি রোহিঙ্গাদের পূর্ণ অধিকারসহ তাদের নিজ দেশ মিয়ানমারে প্রত্যাবাসন এবং মিয়ানমারের চলমান পরিস্থিতি নিয়ে একযোগে কাজ করার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে দু'দেশের পারস্পরিক সম্পর্ক যে নতুন উচ্চতায় উঠেছে, সেটিকে আরও ঘনিষ্ঠ ও গভীর করার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।

আনুষ্ঠানিক বৈঠক পর্বে বাংলাদেশের হাইকমিশনার মো. মুস্তাফিজুর রহমান, ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব স্মিতা পান্ট এবং দু'দেশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



তানোরে ফসলী জমিতে বিষ প্রয়োগ! নষ্ট

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ২৪জন দেখেছেন

Image
আব্দুস সবুর তানোর থেকে:রাজশাহীর তানোরে ফসলী জমিতে বিষ প্রয়োগ করে ফসল হানি করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এঘটনায় জমির মালিক নজরুল বাদি হয়ে কালিগঞ্জ এলাকার আনারুল কে বিবাদী করে থানায় লিখিত অভিযোগ দেন। কিন্তু অভিযোগের দুই সপ্তাহে অতিবাহিত হলেও রহস্য জনক কারনে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। চলতি মাসের ৬ ফেব্রুয়ারী রাতে ঘটে বিষ দেয়ার ঘটনাটি। এঘটনায় কৃষক নজরুল ইসলাম চরমভাবে হতাশ হয়ে পড়েছেন।  
জানা গেছে তানোর পৌর এলাকার কালিগঞ্জ স্বাস্থ্য কেন্দ্রের পিছনে ৩০ কাঠা জমিতে পিয়াজ, গম ও আলু রোপন করা ছিল। সম্প্রতি জমি থেকে ফসল উত্তোলন হত। কিন্তু বিষ প্রয়োগ করে সব ফসল নষ্ট করে দেয়া হয়েছে। কৃষক নজরুল জানান, চলতি মাসের ৭ ফেব্রুয়ারী জমির ফসল দেখতে যায়। গিয়ে দেখি সব গাছ মরে পড়ে আছে। হয়তো দু তিন আগে বিষ প্রয়োগ করেছে। এজন্য গাছ মরে লালচে হয়ে মাটির সাথে মিশে গেছে। তিল পরিমান ফসল ঘরে উঠবেনা। থানায় অভিযোগ দেয়ার পরও কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। আমি এর ক্ষতি পুরুনসহ ন্যায্য বিচার চায়। যাতে করে কেউ ফসলের সাথে শত্রুতা করতে না পারে।তবে অভিযুক্ত আনোয়ার বলেন, আমাকে ফাঁসাতে মিথ্যা অভিযোগ করা হয়েছে। 

স্থানীয়রা জানান,  গত  দুই আড়াই মাসে পূর্বে নজরুল ইসলাম নিজ  ৩০কাঠা  জমিতে পেঁয়াজ,আলু ও গম  রোপণ করেন। দুই সপ্তাহ পর পেঁয়াজ ও আলু  তোলার সময় হতো। কিন্তু কে বা কারা আক্রোশ মুলুক ভাবে বিষ প্রয়োগ করে পুরো জমির ফসল নষ্ট করে দিয়েছে। এটা অমানবিক কাজ। নজরুল অপরাধী হতে পারে, তাই বলে ফসল নষ্ট করতে হবে। যারাই এধরণের কাজ করবে, তাদেরকে আইনের আওতায় এনে চরম শাস্তি দেয়া প্রয়োজন। তাহলে ফসলের সাথে এমন শুক্রতা করতে সাহস পাবেনা।

থানার অফিসার ইনচার্জ ওসির সরকারি মোবাইলে কথা বলা হলে এসআই আনোয়ার রিসিভ করলে জানতে চাওয়া হয় গত ৭ ফেব্রুয়ারী অভিযোগ হয়েছে, কিন্তু কোন ব্যবস্থা হয়নি,তিনি জানান বিষয় টি গুরুত্ব সহকারে দেখা হবে।

আরও খবর



প্রধানমন্ত্রী ও মার্ক রুটের দ্বিপাক্ষিক বৈঠক

প্রকাশিত:শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৭৩জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও নেদারল্যান্ডসের প্রধানমন্ত্রী মার্ক রুটের দ্বিপাক্ষিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) সকালে দেশেটির কনফারেন্স ভেন্যু হোটেল বেইরিশায় এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠকে উভয় নেতা বিদ্যমান দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ককে নতুন উচ্চতায় উন্নীত করার বিষয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন। তারা পারস্পরিক ও বৈশ্বিক স্বার্থের অন্যান্য বিষয় নিয়েও আলোচনা করেন।

এ বৈঠকে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মাসুদ বিন মোমেন উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শুক্রবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) কাতার ও ডেনমার্কের প্রধানমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক করেন।

শেখ হাসিনা মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলন ২০২৪-এ যোগ দিতে তিন দিনের সরকারি সফরে ১৫ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় জামার্নির মিউনিখে পৌঁছান। সফর শেষে রোববার (১৮ ফেব্রুয়ারি) রাতে মিউনিখ ত্যাগ করবেন এবং ১৯ ফেব্রুয়ারি সকালে ঢাকায় পৌঁছাবেন বলে জানা গেছে।


আরও খবর



কুড়িগ্রামের রৌমারী জুতা পায়ে শহিদ মিনারে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ইমান আলী

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ৩৮জন দেখেছেন

Image

রৌমারী কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃভাষা শহিদরা আমাদের আদর্শ হবে এটাই স্বাভাবিক। বিশ্বে আমরা একমাত্র বাঙ্গালি জাতি, যারা ভাষার জন্য রক্ত দিয়েছে। শহিদ মিনার নির্মাণ করা হয়েছে ভাষা শহিদদের অবদানের কথা স্মরণীয় করে রাখার জন্য। কিন্তু আমরা যেন সেই সব কথা ভুলে গেছি। শহিদ মিনারের অমর্যাদা করা হচ্ছে প্রতিনিয়ত। কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলার যাদুরচর ইউনিয়নের কোমড়ভাঙ্গি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে শহিদ মিনার অবমাননা ও অমর্যাদা করা হয়েছে। শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারি বিকালের দিকে উপজেলার যাদুরচর ইউনিয়নের কোমড়ভাঙ্গি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে সায়দাবাদ নতুন কুড়ি স্পোর্টিং ক্লাব এর আয়োজনে এই ভলিবল খেলা অনুষ্ঠিত হয়। খেলাটি উপভোগ করার জন্য শহিদ মিনারে খেলার অনুষ্ঠানের মঞ্চ বানানো হয়। যেখানে ফুল দিয়ে শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয় ।

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ইমান আলী, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহমুদা আকতার স্মৃতি, ভাইস চেয়ারম্যান মোজাফ্ধসঢ়;ফর হোসেন, যাদুরচর ইউনিয়ন আ,লীগের সভাপতি সাখওয়াত হোসেন সবুজ, যাদুরচর ডিগ্রি মডেল কলেজ এর অধ্যক্ষ সুরুজ্জামান মুকুল, যাদুরচর ইউপি চেয়ারম্যান সরবেশ আলী, সদস্য জিয়াউর রহমান জিয়া সহ স্থানীয় গণমান্য ব্যক্তিবর্গ। সেখানে উপস্থিত সকলেই জুতা ও সেন্ডেল পায়ে দিয়ে শহিদ মিনারে সাজানো মঞ্চে উঠেন এবং অনুষ্ঠান উপভোগ করেন।বীরমুক্তিযোদ্ধা আজিজুর রহমান দুঃখ প্রকাশ করে বলেন,যারা দেশের জন্য বুকের তাজা রক্ত ঢেলে দিয়ে বাংলা ভাষাকে ইংরেজদের কাছ থেকে ছিনিয়ে নিয়েছেন,অথচ তাদের স্বরণের শহিদ মিনারটি অবমাননা কার মোটেও ঠিক করেননি।

কোমড়ভাঙ্গি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমান বলেন, আমার কাছে শুধু ভলিবল খেলার জন্য মাঠের অনুমিত নিয়েছে,তবে শহিদ মিনারের বিষয়টি আমি জানিনা। ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি সাখওয়াত হোসেন সবুজ জানান, শহিদ মিনারে মঞ্চ করেছে এটা আমি খেয়াল করিনি। তবে ঘটনাটি দুঃখজনক।

যাদুরচর ইউপি চেয়ারম্যান সরবেশ আলীর সাথে একাধীকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও কথা বলা সম্ভব হয়নি।মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহমুদা আকতার স্মৃতির বলেন, এটা আমাদের ভুল হয়েছে।উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ইমান আলীকে একাধীকবার তার ফোন নম্বরে কল দিলেও তিনি কল কেটে দেন।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বদরুল ইসলাম বলেন, এবিষয়ে আমি কিছু জানিনা। উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাহিদ হাসান খান বলেন, শহিদ মিনারে জুতা পায়ে দিয়ে ঊঠা ঠিক হয়নি। শহিদদের অসম্মান করা হয়েছে। বিষয়টি আমি দেখতেছি।কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসক সাইদুল আরীফ জানান, যদি এরকম হয়ে থাকে তাহলে দ্রুত তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আরও খবর