Logo
আজঃ Friday ১৯ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে আবাসিকের অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন ডেমরায় প্যাকেজিং কারখানায় ভয়বহ অগ্নিকান্ড রূপগঞ্জে পুলিশের ভুয়া সাব-ইন্সপেক্টর গ্রেফতার রূপগঞ্জে সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ॥ সভা সরাইলে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ৭৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত। নারায়ণগঞ্জে পারিবারিক কলহে স্ত্রীকে পুতা দিয়ে আঘাত করে হত্যা,,স্বামী গ্রেপ্তার রূপগঞ্জ ইউএনও’র বিদায় সংবর্ধনা নাসিরনগরে স্বামীর পরকিয়ার,বলি ননদ ভাবীর বুলেটপানে আত্মহত্যা নাসিরনগরে জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭ তম শাহাদত বার্ষিকী পালিত ডেমরায় জাতীয় শোক দিবসের কর্মসুচি পালিত

রাজনৈতিক কঠিন চাপে রয়েছেন মেয়র আরিফুল

প্রকাশিত:Sunday ১২ December ২০২১ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৩৬৮জন দেখেছেন
Image

এখনো বছর দেড়েক বাকি। ভাঙা-গড়ার উন্নয়ন নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন ‘কাজের মেয়র’ হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়া বিএনপি নেতা আরিফুল হক চৌধুরী। টানা দুই মেয়াদে নগরকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে রাজনৈতিক পরিচয়ের বাইরে সব দলের সঙ্গে সমন্বয়ের একটি মধ্যপন্থা বেছে নিয়েছেন তিনি। রাজনৈতিক হত্যা মামলার আসামি হয়ে জেলে-আদালতে অনেকটা সময় কাটিয়েও তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্ত আরিফুল হক চৌধুরী দাপটের সঙ্গে শাসন করছেন সিলেট নগর। বর্তমান সরকারের আমলে ব্যাপক উন্নয়ন বরাদ্দের সুবাদে প্রকল্পের পর প্রকল্প নিচ্ছেন। সুনাম কুড়াচ্ছেন ‘করিৎকর্মা’ মেয়র হিসেবে। তবে খেয়ালখুশি মতো প্রকল্প নেওয়া, উন্নয়নকাজের দীর্ঘসূত্রতা, নগরজুড়ে অপরিকল্পিত খোঁড়াখুড়িসহ স্বেচ্ছাচারিতার বহু অভিযোগ তার দিকে। সম্প্রতি উঠেছে হোল্ডিং ট্যাক্স ও পানির দাম বৃদ্ধির অভিযোগও।

বিএনপি নেতা হলেও সরকারের মন্ত্রী-এমপিদের সঙ্গে সুসম্পর্ক আরিফের। কিন্তু আওয়ামী লীগ আমলে বিএনপি নেতা হিসেবে নগরকর্তার চেয়ারে বসে থাকা আরিফুল হক শুরু থেকেই সরকারি দলের স্থানীয় নেতাদের চক্ষুশূল। এতদিন তার একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা প্রয়াত বদর উদ্দিন আহমদ কামরান। করোনায় আক্রান্ত হয়ে তার আকস্মিক মৃত্যু আরও নির্ভার করেছেন আরিফুল হক চৌধুরীকে। এত সবের পরও আসন্ন সিটি নির্বাচনে তার আসন টলে যেতে পারে বলে মনে করছেন আওয়ামী লীগ নেতারা। তবে এ জন্য পরিশুদ্ধ করতে হবে আওয়ামী লীগের নিজের ঘর। কেননা স্থানীয় সরকার নির্বাচনে আওয়ামী লীগের একের পর এক ধরা খাওয়ার শুরুটা হয়েছিল সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে স্রেফ কোন্দলের কারণে নিশ্চিত জয় হাতছাড়ার করার মধ্য দিয়ে।

আওয়ামী লীগ নেতারা স্বীকার করছেন, দল না গোছালে ফল পাওয়া যাবে না কিছুতেই। তারা বলছেন, ভূইফোঁড় আওয়ামী লীগার আর ঘরে ঘরে নেতা বনে যাওয়ার কারণে নগরকর্তার আসনে বসে আওয়ামী লীগ সরকারের ঘি খাচ্ছেন বিএনপির একজন নেতা। প্রচার হচ্ছে বিএনপির। সরকারি বরাদ্দের উন্নয়নে নিজের গদি পোক্ত করে তিনি আবার সভা-সমাবেশে সরকারের বিরুদ্ধেই কথা বলছেন। অথচ নগরীর প্রায় পুরো উন্নয়ন কার্যক্রমই হচ্ছে সরকারের টাকায়। সিটি করপোরেশনের নিজস্ব আয়ে কোনো রকমফের নেই।


আরও খবর



এবার জাতীয় লিগ শুরু হবে টি টোয়েন্টি দিয়ে!

প্রকাশিত:Wednesday ১৭ August ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৩৫জন দেখেছেন
Image

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ সামনে রেখে এবার জাতীয় লিগে (এনসিএল) টি-টোয়েন্টি ফরম্যাট চালুর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। সবকিছু ঠিক থাকলে এবার ৪ দিনের খেলা শুরুর আগে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাট আয়োজনের সিদ্ধান্ত একরকম চূড়ান্ত।

শুরুর আগে কিছু ধাপ-পর্যায় আছে। ক্রিকেটারদের ফিটনেস ট্রেনিং, ফিটনেস টেস্ট, ব্লিপ টেস্ট হবে। সেগুলো অতিক্রমের পর বল গড়াবে ২২ গজের পিচে।

তাই প্রাথমিক প্রস্তুতি আগেভাগে শুরু হলেও এবারের জাতীয় লিগ শুরুর সম্ভাব্য তারিখ ১০ অক্টোবর। তবে অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে, এই সময়টা এক সপ্তাহ কিংবা দিন দশেক এগিয়ে আসতে পারে।

বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেটে আসর শুরুর আগে কয়েক দফা তারিখ পাল্টায় এবং বেশিরভাগ সময় শুরু হয় পিছিয়ে। সেখানে আসর এগিয়ে আসার কথা শুনে নিশ্চয়ই অবাক হচ্ছেন? অবাক হবারই কথা!

মূলত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপকে সামনে রেখে এবং ক্রিকেটাররা যাতে দেশ ছাড়ার আগে টি-টোয়েন্টি খেলে যেতে পারেন, সেই চিন্তায় এবার জাতীয় লিগ টি-টোয়েন্টি ফরম্যাট দিয়ে শুরুর উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। যদিও আনুষ্ঠানিক ঘোষণা এখনও আসেনি।

আজ (বুধবার) জাতীয় ক্রিকেট লিগ আয়োজন নিয়ে বিসিবির টুর্নামেন্ট কমিটির সভা হয়েছে। জানা গেছে, সেখানেই এমন কথা হয়েছে। আগামী ২০-২১ আগস্ট নাগাদ সব কিছু চূড়ান্ত হবে বলে সূত্র জানিয়েছে।


আরও খবর



টি-২০তে বাংলাদেশি ব্যাটারদের আগে স্কটল্যান্ড-পাপুয়া নিউগিনিও

প্রকাশিত:Thursday ০৪ August ২০২২ | হালনাগাদ:Thursday ১৮ August ২০২২ | ৩৭জন দেখেছেন
Image

টি-টোয়েন্টি ব্যাটারদের খেলা। চার-ছক্কাই যার মূল বিনোদন। অথচ বাংলাদেশের ব্যাটাররা এই ফরম্যাটে খেলতে গেলে চার-ছক্কা মারতেই যেন ভুলে যান!

জিম্বাবুয়ের মতো দলের বিপক্ষেও টি-টোয়েন্টিতে ধুঁকতে হয় বাংলাদেশকে। পারফরম্যান্সের এই দুর্দশার ছাপ দেখা যাচ্ছে আইসিসির র্যাংকিংয়েও। মঙ্গলবার আইসিসি সর্বশেষ যে র্যাংকিং দিয়েছে, তাতে সেরা ৩৬ জন ব্যাটারের মধ্যেও নেই বাংলাদেশের কেউ।

বাংলাদেশের ব্যাটারদের আগে র্যাংকিংয়ে আফগানিস্তান, স্কটল্যান্ড, আয়ারল্যান্ড তো বটেই, পাপুয়া নিউগিনির ব্যাটারও আছেন। টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে টাইগাররা কোথায় দাঁড়িয়ে, বোঝা যাচ্ছে এই র্যাংকিংয়েই।

বাংলাদেশের ব্যাটারদের মধ্যে এই ফরম্যাটে সেরা অবস্থান নাইম শেখের। জাতীয় দলের বাইরে থাকা এই ওপেনার এক ধাপ নেমে এখন ৩৭ নম্বরে।

এক ধাপ এগিয়ে মাহমুদউল্লাহর অবস্থান ৪২ নম্বরে। এক ধাপ নেমে লিটন দাস আছেন ৪৯তম অবস্থানে। চার ধাপ এগিয়েছেন আফিফ হোসেন। এখন তিনি ৫৪ নম্বরে।

বোলিং র্যাংকিংয়ে অবশ্য সেরা বিশের মধ্যে আছেন বাংলাদেশের শেখ মেহেদি হাসান। তিনি আগের মতোই ১৪ নম্বর অবস্থানে আছেন। পাঁচ ধাপ নেমে নাসুম আহমেদ এখন ২১ নম্বরে। তিন ধাপ নেমে সাকিব আল হাসান ২৭ আর দুই ধাপ এগিয়ে মোস্তাফিজুর রহমান আছেন ৩১তম অবস্থানে।

অলরাউন্ডার র্যাংকিংয়ে যথারীতি সাকিব দুই নম্বরে। এই ক্যাটাগরিতে বাংলাদেশের একমাত্র প্রতিনিধি তিনিই।


আরও খবর



বিজয়-আফিফের ব্যাটে বাংলাদেশের সম্মানজনক পুঁজি

প্রকাশিত:Wednesday ১০ August ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ১৬ August ২০২২ | ১০জন দেখেছেন
Image

সম্মান বাঁচানোর ম্যাচ। তাতে শুরুতেই সম্মানহানি হওয়ার জোগাড় হয়েছিল। জিম্বাবুইয়ান বোলারদের তোপে ৪৭ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে বসেছিল বাংলাদেশ। সেখান থেকে এনামুল হক বিজয় আর আফিফ হোসেনের ব্যাটে চড়ে ৯ উইকেটে ২৫৬ রানের পুঁজি পেয়েছে টাইগাররা।

হারারেতে সিরিজের তৃতীয় ওয়ানডে ম্যাচে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে সাবধানী শুরুই করেছিলেন তামিম ইকবাল। ইনিংসের চতুর্থ ওভারে জোড়া বাউন্ডারি হাঁকিয়ে খোলস ছেড়ে বের হওয়ার আভাস দেন তিনি। অধিনায়কের দেখাদেখি হাত খুলে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে রানের গতি বাড়ান আরেক ওপেনার বিজয়ও।

কিন্তু ইনিংসের অষ্টম ওভারের তৃতীয় বলে হয় সর্বনাশ। অফসাইডের দিকে খেলেই সিঙ্গেলের জন্য ডাক দেন বিজয়। সাড়া দিয়ে প্রায় মাঝ পিচে চলে যান তামিম। কিন্তু স্কয়ার অঞ্চল থেকে বলটি থামিয়ে দেন ওয়েসলে মাধভের। তার থ্রো ধরে স্ট্যাম্প ভেঙে ১৯ রান করা তামিমের বিদায়ঘণ্টা বাজান এনগারাভা।

সেই ওভারেই এক্সট্রা কভারের ওপর দিয়ে দৃষ্টিনন্দন একটি ছক্কা হাঁকান বিজয়। কিন্তু পরের ওভারেই ঘটে বিপর্যয়। ওভারের প্রথম বলে কাট করতে গিয়ে পয়েন্টে ধরা পড়েন নাজমুল শান্ত। দুই বল পর আপার কাট করে থার্ড ম্যাচে এনগারাভার দুর্দান্ত ক্যাচে পরিণত হন মুশফিকুর রহিম। দুজনের কেউই রানের খাতা খুলতে পারেননি।

দুই ওভারের মধ্যে তিন উইকেট হারালেও সাহস হারাননি বিজয়। বরং যেখানে থেমেছিলেন তামিম, সেখান থেকেই দলকে এগিয়ে নিতে থাকেন এ ডানহাতি ওপেনার। পাওয়ার প্লে শেষ হওয়ার পরের ওভারেই ফাইন লেগ দিয়ে ছক্কা হাঁকান তিনি। দুই ওভার পর ব্র্যাডলি ইভান্সকে ভাসান স্কয়ার লেগের ওপর দিয়ে।

ইনিংসের ১৭তম ওভারের চতুর্থ বলে সিঙ্গেল নিয়ে ব্যক্তিগত পঞ্চাশ পূরণ করেন বিজয়। সাবলীল ব্যাটিংয়ে মাত্র ৪৮ বলে ৫ চার ও ৩ ছয়ের মারে এ রান করেন তিনি। ওয়ানডে ক্যারিয়ারে বিজয়ের এটি পঞ্চম ফিফটি, চলতি সিরিজের দ্বিতীয়। ফিফটির পরেও থামেনি বিজয়ের ব্যাট।

২১তম ওভারে ইভান্সের করা পায়ের ওপরের ডেলিভারিতে দারুণ এক ফ্লিক শটে সোজা গ্যালারির ছাদে পাঠিয়ে দেন এ ডানহাতি ওপেনার। পরের বলেই আবার হাঁকান বাউন্ডারি। অপরপ্রান্তে মাহমুদউল্লাহ ধীর ব্যাটিং করায় দলীয় শতরান পূরণ করতে খেলতে হয় এই ২১তম ওভার পর্যন্ত।

মনে হচ্ছিল প্রথম ম্যাচের না পাওয়া সেঞ্চুরিটি আজ হয়তো করে ফেলবেন বিজয়। কিন্তু লুক জঙউইর করা ২৫তম ওভারে ঘটে বিপক্ষে। অফস্ট্যাম্পের বাইরের বলে লেট কাট করতে গিয়ে উইকেটের পেছনে ধরা পড়েন বিজয়। তার ৭১ বলে ৭৬ রানের ইনিংসে ছিল ৬ চারের সঙ্গে ৪টি ছয়ের মার।

এরপর আফিফ হোসেনের সঙ্গে মাহমুদউল্লাহর ৫৭ বলে ৪৯ রানের জুটি। জুটিটি ভাঙে ধীরগতির মাহমুদউল্লাহ এনগারাভার একটি বল উইকেটে টেনে এনে বোল্ড হলে। ৬৯ বলে ৩ বাউন্ডারিতে ৩৯ রান করেন মাহমুদউল্লাহ।

এরপর মেহেদি হাসান মিরাজও ২৪ বলে ১৪ রান করে সিকান্দার রাজার বলে এলবিডব্লিউ হন। তাইজুল রানআউট হন ৫ রানে। ২২০ রানে ৭ উইকেট হারায় বাংলাদেশ।

সেখান থেকে আফিফ হোসেন ধ্রুব প্রায় একাই দলকে লড়াকু পুঁজি পর্যন্ত টেনে নিয়ে যান। ইনিংসের শেষ পর্যন্ত তিনি অপরাজিত থেকে বাংলাদেশকে এনে দেন ২৫৬ রানের সংগ্রহ। ৮১ বলে আফিফের ৮৫ রানের ইনিংসটিতে ছিল ৬ বাউন্ডারি আর ২টি ছক্কার মার।

জিম্বাবুইয়ান বোলারদের মধ্যে দুটি করে উইকেট নিয়েছেন ব্র্যাড ইভান্স আর লুক জঙউই।


আরও খবর



নিত্যপণ্যের কারখানায় লোডশেডিং না করার সুপারিশ

প্রকাশিত:Monday ০১ August ২০২২ | হালনাগাদ:Thursday ১৮ August ২০২২ | ৩০জন দেখেছেন
Image

উৎপাদন ও সরবরাহ চেইন স্থিতিশীল রাখতে ভোজ্যতেলসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য উৎপাদনকারী সব প্রতিষ্ঠানকে লোডশেডিংয়ের আওতার বাইরে রাখতে বিদ্যুৎ বিভাগের কাছে সুপারিশ করেছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

সম্প্রতি মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব খন্দকার নুরুল হক স্বাক্ষরিত এ সুপারিশ সংক্রান্ত একটি চিঠি বিদ্যুৎ সচিব মো. হাবিবুর রহমানের কাছে পাঠানো হয়েছে।

চিঠিতে বলা হয়, সম্প্রতি সরকার বিদ্যুৎ এবং জ্বালানি সাশ্রয়ের লক্ষ্যে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। তারই ধারাবাহিকতায় ঢাকাসহ সারাদেশে প্রতিদিন এক ঘণ্টা লোডশেডিং করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব তপন কান্তি ঘোষের সভাপতিত্বে গত ১৯ জুলাই দ্রব্যমূল্য ও বাজার পরিস্থিতি পর্যালোচনা সংক্রান্ত টাস্কফোর্স কমিটির তৃতীয় সভা অনুষ্ঠিত হয়। নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যসমূহ উৎপাদনে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহে বিঘ্ন সৃষ্টি হলে উৎপাদন হ্রাস পাবে এবং সময়মতো বাজারে পণ্য সরবরাহে ঘাটতি দেখা দিতে পারে। ফলে বাজারে অত্যাবশ্যকীয় পণ্য সরবরাহে সংকটের আশঙ্কা রয়েছে।

গৃহীত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আশু সংকট মোকাবিলার লক্ষ্যে এবং ভোক্তার মধ্যে স্বস্তি ফেরাতে ভোজ্যতেলসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য উৎপাদনকারী গ্রাহকদের প্রতিষ্ঠানে লোডশেডিং না করে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ অব্যাহত রাখার জন্য চিঠিতে নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হয়।

প্রসঙ্গত সম্প্রতি সরকার বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সাশ্রয়ের লক্ষ্যে বিভিন্ন ব্যয় সংকোচনমূলক পদক্ষেপ নিয়েছে। এর ধারাবাহিকতায় ঢাকাসহ সারাদেশে প্রতিদিন শিডিউল করে শোডশেডিং করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।


আরও খবর



‘সেচের পানি না পেয়ে আত্মহত্যা করা দুই কৃষকের পরিবার এখনো আতঙ্কে’

প্রকাশিত:Thursday ২১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ১৫ August ২০২২ | ৪৬জন দেখেছেন
Image

রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে সেচের পানি না পেয়ে আত্মহত্যা করা দুই কৃষকের পরিবারের সদস্যরা এখনো আতঙ্কে আছেন। বাইরে থেকে কেউ খোঁজ-খবর নিতে গেলেও ভয়ে তারা কথা বলতে পারেন না। বাইরের লোকজন দেখলে তারা বাড়ি ছেড়েই পালিয়ে যান। প্রভাবশালী মহলের চাপে থাকার কারণে গ্রহণ করতে পারেন না কোনো সামাজিক সহায়তাও।

বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) গোদাগাড়ীর নিমঘুটু গ্রাম ঘুরে এসে সাংবাদিকদের এমন তথ্য জানিয়েছে একটি নাগরিক পর্যবেক্ষক দল। সকালে ১১ সদস্যের একটি দল আত্মহত্যা করা কৃষক অভিনাথ মারান্ডি ও রবি মারান্ডির বাড়ি যান। বিকেলে এক মতবিনিময় সভায় তারা সাংবাদিকদের সার্বিক পরিস্থিতি জানান। অ্যাকশনএইড ও বেসরকারি সংস্থা পরিবর্তনের সহযোগিতায় খাদ্য নিরাপত্তা নেটওয়ার্ক (খানি) নগরীর একটি হোটেলে এ সভার আয়োজন করে।

সভায় সভাপতিত্ব করেন মহিলা পরিষদের জেলার সভাপতি কল্পনা রায়। পরিচালনায় ছিলেন পরিবর্তনের নির্বাহী পরিচালক রাশেদ রিপন।

সভায় রুলফাওয়ের পরিচালক আফজাল হোসেন বলেন, ঘটনার পাঁচ মাস পরেও পরিবার দুটি ভীত। কথা বলতে তাদের জড়তা রয়েছে। ভয়ে তারা কথা বলতে চায় না। ভয়ভীতি দেখিয়ে তাদের মুখ বন্ধ রাখা হচ্ছে। তাদের অধিকার হরণ করা হচ্ছে। দ্রুতই এ পরিস্থিতির অবসান হওয়া প্রয়োজন।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃ-বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক বখতিয়ার আহমেদ বলেন, গভীর উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ্য করলাম, স্থানীয় ক্ষমতাচক্র এখনো পরিবার দুটিকে ভীতিকর পরিস্থিতির মধ্যে রেখেছে। সামাজিক সহায়তা পর্যন্ত গ্রহণ করতে তারা ভয় পাচ্ছে। একটা উন্নয়ন সংস্থা পর্যন্ত ক্ষমতার হিসেব-নিকেশের মধ্যে যুক্ত হয়ে পরিবার দুটিকে ভীতিকর পরিস্থিতির মধ্যে রেখেছে। পরিবার দুটিকে নিরাপত্তা দেওয়া যাদের দায়িত্ব তারা ব্যর্থ হয়েছে।

খানির কোষাধ্যক্ষ মুশফিক আহমেদ বলেন, দুই কৃষকের আত্মহত্যার ঘটনায় বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিএমডিএ) গভীর নলকূপ অপারেটর সাখাওয়াত হোসেনের বিরুদ্ধে আত্মহত্যার প্ররোচনার মামলার অভিযোগপত্র হয়েছে। কিন্তু যে পরিস্থিতি তাতে পরিবার দুটি বিচার পাবে কী না তা নিয়ে আশঙ্কা রয়েছে। সরকারকে এই বিচার নিশ্চিত করতে হবে।

কালের কণ্ঠের খুলনা ব্যুরো প্রধান ও খানির সদস্য গৌরাঙ্গ নন্দী বলেন, গ্রামে যাওয়ার পর আমরা পরিবার দুটির অনেককেই পাইনি। ভয়ে তারা কথা বলতে পারে না। এই ভয় কারা সৃষ্টি করে রেখেছে তা প্রশাসনকে খতিয়ে দেখতে হবে।

খানির সদস্য ও সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী আব্দুল্লাহ আল নোমান বলেন, কৃষকের সঙ্গে বসে সেচের নীতিমালা করা হয়নি বলে এমন ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনার দায় এড়াতে পারে না বিএমডিএ। কারণ, তারা কৃষককে সেচের প্রতিশ্রুতি দিয়ে চাষাবাদে নামিয়ে পানি দিতে পারেনি। প্ররোচনার মামলায় বিএমডিএকেও অভিযুক্ত করা উচিত ছিল। এর সুযোগও ছিল। কিন্তু তা করা হয়নি।

জাতীয় আদিবাসী পরিষদের জেলার সভাপতি বিমল চন্দ্র রাজোয়াড় বলেন, আজ আমরা নিমঘুটু যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে রবির মা বাড়িতে তালা দিয়ে অন্যত্র সরে গেলেন। অভিনাথের স্ত্রী রোজিনা হেমব্রমও চলে যাচ্ছিলেন। আমরা তাকে থামিয়ে কথা বলেছি। তিনি ভয়ে থাকার কথা জানিয়েছেন। ভয় কারা দেখাচ্ছেন তাও ভয়ে বলতে চাননি তিনি।

এই মতবিনিময় সভা থেকে পরিবার দুটির নিরাপত্তা নিশ্চিত, দুই কৃষকের আত্মহত্যার প্ররোচনার বিচার নিশ্চিত, পানি কমিশন গঠন এবং বরেন্দ্র অঞ্চলের কৃষকদের বিনামূল্যে সেচ সুবিধা দেওয়ার দাবি জানানো হয়। একইসঙ্গে যত্রতত্র ভূ-গর্ভস্থ পানি তোলা বন্ধ করে ভূ-উপরিস্থ উৎস থেকে পানি দিয়ে কৃষকের সেচ সুবিধা নিশ্চিত করার দাবি জানানো হয়।

বিএমডিএর গভীর নলকূপে দিনের পর দিন ঘুরেও বোরো ধানের খেতে পানি না পেয়ে গত মার্চে সাঁওতাল কৃষক অভিনাথ মারান্ডি ও তার চাচাতো ভাই রবি মারান্ডি বিষপান করেন। এতে তাদের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় দুই পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় দুটি আত্মহত্যার প্ররোচনার মামলা করা হয়। বিভিন্ন মহল থেকে প্রথমে ঘটনা ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা হলেও শেষ পর্যন্ত পুলিশের তদন্তে বেরিয়ে এসেছে যে পানির জন্যই বিষপান করেছিলেন দুই কৃষক। পুলিশ বিএমডিএর গভীর নলকূপ অপারেটর ও ওয়ার্ড কৃষক লীগের সভাপতি সাখাওয়াত হোসেনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দিয়েছে। তিনি এখন কারাগারে।


আরও খবর