Logo
আজঃ শনিবার ২৫ মে ২০২৪
শিরোনাম

পুলিশের পৃথক অভিযানে মাদক ও ভারতীয় গহনা উদ্ধার ৩ জন গ্রেফতার

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০২ ফেব্রুয়ারী 2০২3 | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ৩৪২জন দেখেছেন

Image

সাইদুর রহমান,মাগুরা : বুধবার ১ জানুয়ারী দুপুরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এস আই ইন্দ্রজিত রায় সঙ্গীয় ফোর্সসহ উপজেলার নাকোল ইউনিয়নের ওয়াবদা মোড় এলাকার ঢাকা – মাগুরা মহা সড়কে বেনাপোল থেকে বরিশালগামী চাকলাদার পরিবহনে অভিযান চালিয়ে মাগুরা জেলার শ্রীপুর উপজেলার রাধানগর গ্রামের তুফান সাহা পিতা মৃত নারায়ন সাহা নামে একজন যাত্রীর কাছে থাকা ব্যাগে তল্লাশি চালিয়ে ৪শত ২১ পিচ রুপার তৈরি নুপুর যার মুল্য ৫ লাক ২৫ হাজর ছয়শত টাকা। অপর অভিযানে বেনাপোল থেকে ঢাকাগামী সুন্দরবন পরিবহন থেকে মোঃ রুবেল হোসেন পিতা – ইছহাক সরদার নামে একজন যাত্রীর দেহ তল্লাশি করে ১৫০গ্রাম গাজা উদ্ধার করে ধৃত আসামী সাতক্ষীরা জেলার আশাশুনি উপজেলার কালিকাপুর গ্রামে।

এছাড়া অপর একটি অভিযানে শ্রীপুর থানার নাকোল পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এস আই মোঃ বাদশা বুলবুল এর নেতৃত্বে সঙ্গীয় ফোর্সসহ ওয়াবদা মোড় এলাকার মাঝাইল চেকপোস্টে ডিউটি করা কালীন সময় চেক পোষ্টের সামনে আব্দুল কাদেরের দেহ তল্লাশি চালিয়ে শাটের পিছনে বিশেষ ভাবে রক্ষিত ১২ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়। যার মুল্য ৩৬ হাজার টাকা। এ বিষয়ে শ্রীপুর থানা অফিসার ইনচার্জ জাব্বারুল ইসলাম জানান মাগুরার পুলিশ সুপার মশিউদ্দৌল্লা পিপি এম (সেবা) বার মহদ্বয়ের মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি ঘোষনা বাস্তবায়নের উদ্দেশ্যে তারা কাজ করছে।

ধৃত তিন জন আসামীদের বিচারের নিমির্ত্তে মাগুরা কোর্টে প্রেরণ করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মোঃ রুবেল হোসেন ও মোঃ আব্দুল কাদেরকে ও ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনের ২৫(ই) এর (A)ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

 


আরও খবর



জয়পুরহাটে কারাবন্দী জঙ্গি নেতা মন্তেজার রহমানের মৃত্যু

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৬ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৩ মে ২০২৪ | ৬০জন দেখেছেন

Image
এস এম শফিকুল ইসলাম,জয়পুরহাট প্রতিনিধিঃজয়পুরহাটের ক্ষেতলালের কারাবন্দী জঙ্গি নেতা মন্তেজার রহমান মারা গেছেন। মঙ্গলবার বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীবস্থায় তার মৃত্যু হয়।  

বুধবার (১৫ মে) বিকেলে ময়নাতদন্ত শেষে তাঁর লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয় । জয়পুরহাট  জেল সুপার রীতেশ চাকমা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জঙ্গি নেতা মন্তেজার রহমান ক্ষেতলাল উপজেলার উত্তর মহেশপুর গ্রামের বাসিন্দা। তিনি জামাআতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশের (জেএমবি) আঞ্চলিক নেতা ছিলেন।
   
জয়পুরহাট জেলা কারাগার সূত্রে জানা গেছে, জঙ্গি নেতা মন্তেজার রহমান রহমান ২০০৭ সাল থেকে কারাগারে বন্দী ছিলেন। তিনি দীর্ঘ দিন ধরে হার্ট-কিডনি-প্রেসারসহ জটিল রোগে ভূগছিলেন। গত সোমবার তিনি কারাগারে অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাঁকে দ্রুত ২৫০ শয্যার জয়পুরহাট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।  সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য  তাঁকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। কারা তত্ত্বাবধানে তাঁর চিকিৎসা চলছিল। তিনি মঙ্গলবার দুপুরে চিকিৎসাধীনবস্থায় মারা যান।

আরও খবর



ঘূর্ণিঝড় রেমাল কবে আঘাত হানবে

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৪ মে 20২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ৩৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:ঘূর্ণিঝড় রেমাল ধেয়ে আসছে। বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপটি শনিবার (২৫ মে) ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে এবং এটি পরদিন ২৬ মে (রোববার) সন্ধ্যায় ‘রেমাল’ নাম নিয়ে ঘূর্ণিঝড়টি বাংলাদেশ ও ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উপকূলীয় অঞ্চলে আঘাত হানতে পারে বলে জানিয়েছে ভারতের আবহাওয়া দপ্তর (আইএমডি)।

আঘাত হানার সময় ঘূর্ণিঝড়টির বাতাসের গতিবেগ ঘণ্টায় ১০০ থেকে ১২০ কিলোমিটার থাকবে বলে জানায় সংস্থাটি। ভারতের আবহাওয়া দপ্তর থেকে পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের উপকূলে আঘাত হানার কথা বলা হলেও আবহাওয়া বিষয়ক বিভিন্ন ওয়েবসাইটে নির্দিষ্ট করে বলা হচ্ছে এটি ভারতের ওড়িশা অথবা বাংলাদেশের উপকূলের ওপর দিয়ে যেতে পারে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর বলেছে, ঘূর্ণিঝড়টি আঘাত হানা শুরু করতে পারে রোববার (২৬ মে) বিকেল ৫টা ৩০ মিনিট থেকে ২৭ মে রাত ২টা ৩০ মিনিটের মধ্যে।

জানা গেছে, ‘রেমাল’ একটি আরবি শব্দ। যার বাংলা অর্থ বালু। নামটি দিয়েছে ওমান। বঙ্গোপসাগরে যেসব ঘূর্ণিঝড় সৃষ্টি হবে সেগুলোর নাম আগে থেকেই ঠিক করা থাকে।

২০২০ সালে ভারতের আবহাওয়া দপ্তর ১৬৯টি ঘূর্ণিঝড়ের নাম দেয়। সেখান থেকেই এবারের ঘূর্ণিঝড়টির নাম নেওয়া হবে। যখন এই ঘোষণা আসবে তখনই বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট এ নিম্নচাপটিকে ‍ঘূর্ণিঝড় রেমাল হিসেবে অভিহিত করা হবে।


আরও খবর



মহেরপুরে কলাক্ষেত কেটে তছরুপ করেছে দুর্বৃত্তরা

প্রকাশিত:রবিবার ০৫ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ১১৯জন দেখেছেন

Image

মজনুর রহমান আকাশ, মেহেরপুরঃমেহেরপুর সদর উপজেলার শ্যামপুর মাঠে ইকবাল হোসেন নামের এক বর্গা চাষির এক বিঘা কলা ক্ষেত কেটে তছরুপ করেছে দুর্বৃত্তরা। আজ রোব্বার দুপুরে প্রকাশ্য দিবালোকে এ ঘটনাটি ঘটে। এতে লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দাবী করেছেন কলাচাষি ইকবাল।

ইকবাল হোসেন জানান, তিনি গ্রামের জোবাইর হোসেনের কাছ থেকে ৬ বছরের জন্য বর্গা নিয়েছিলেন জমি। জমিতে কলা পুষ্ট হয়ে উঠেছে। সকালে তিনি জমিতে সেচ দিয়ে চলে যান। দুপুরে জোবাইর ও তার লোকজন এসে কলাক্ষেত কেটে বিনষ্ট করেন। কি কারনে কলাগাছ কেটেছেন সে ব্যাপারে কিছুই জানেন না ইকবাল হোসেন। কলাগাছ কাটার ব্যাপারে ইকবাল হোসেন থানায় অভিযোগ করবেন বলেও জানান। 


আরও খবর



মন্ত্রী-এমপির স্বজনদের বিরত রাখা দলের নীতিগত সিদ্ধান্ত: ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিত:রবিবার ০৫ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৪ মে 20২৪ | ১৭৩জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:বৈশ্বিক অর্থনৈতিক সংকটের প্রভাবে চাপে আছে সরকার,বলেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের । যুদ্ধের কারণে বিশ্বে যে অর্থনৈতিক সংকট চলছে তা বাংলাদেশেও আছে। বাংলাদেশ এ প্রভাব থেকে মুক্ত নয়। দ্রব্যমূল্যের যে চাপ তা তো অস্বীকার করার উপায় নেই।

রোববার (৫ মে) দুপুরে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক বিফ্রিংয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, স্থানীয় সরকার নির্বাচনে মন্ত্রী-এমপির স্বজনদের বিরত রাখা আওয়ামী লীগের নীতিগত সিদ্ধান্ত, এখানে আইনগত কোনো বিষয় নেই।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বিভিন্ন দেশের কর্তাব্যক্তিরা আমাদের দেশে মানবাধিকার যে চোখে দেখে, নিজের দেশে সেই দৃষ্টিতে দেখবে না কেন? আওয়ামী লীগ যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কোনো সংঘাতে নেই। তবে সত্য বললে তাদের স্বার্থে আঘাত লাগলে তো কিছু করার নেই। ভিয়েতনাম যুদ্ধের সময় যুক্তরাষ্ট্রের কলাম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিবাদ দমনে যে আচরণ করা হয়েছিল, একই রকম নির্মম আচরণ এখন করা হচ্ছে।

ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, আমাদের দেশের মানবাধিকার নিয়ে তারা কথা বলে। আমরা কি এসব নিয়ে কথা বলতে পারবো না? আমাদের দেশে তারা যে দৃষ্টিতে মানবাধিকার দেখে সে দৃষ্টিতে নিজের দেশে দেখবে না কেন? তাদের সঙ্গে আমাদের বন্ধুত্ব নেই এমন কথাতো আমরা বলিনি।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, মির্জা আজম, এসএম কামাল হোসেন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ান আব্দুস সবুর, সংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, উপ দপ্তর সম্পাদক সায়েম খান প্রমুখ।


আরও খবর



আম নিয়ে সিন্ডিকেট হতে দেয়া হবে না: গোদাগাড়ীতে কৃষিমন্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৭ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ১০৭জন দেখেছেন

Image

মুক্তার হোসেন গোদাগাড়ী(রাজশাহী)প্রতিনিধিঃকৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুস শহীদ বলেছেন, চলতি মৌসুমে রাজশাহীতে ফলন কম হওয়ায় আম নিয়ে সিন্ডিকেট হতে পারে। এ ব্যাপারে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। তিনি বলেন, আমের চাহিদা ও সরবরাহের মধ্যে যেন খুব বেশি পার্থক্য না। সেদিকেও খেয়াল রাখতে হবে। কৃষক যেন সঠিক মূল্য পান। আম নিয়ে কোন সিন্ডিকেট হতে দেব না।শুক্রবার (১৭ মে) দুপুর ১২টায় রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার কুমরপুর গ্রামে আমবাগান পরিদর্শন ও কৃষকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন তিনি। প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. আব্দুস শহীদ বলেন, ভারত, চীন, রাশিয়া ও বেলারুশ রাজশাহীর আম নিতে আগ্রহী। দ্রুতই চীনের একটি প্রতিনিধি দল রাজশাহীর আম দেখতে আসবে। আমরা বেশি পরিমাণ আম রপ্তানির চেষ্টা করছি। তাই এ দলটির সঙ্গে ঠিকমতো কথা বলে আমের সঠিক মূল্য নির্ধারণ করতে হবে। এক্ষেত্রে কিছু কর্মকর্তাকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।কৃষিমন্ত্রী আরও বলেন, আম রপ্তানির জন্য ২৫০-৩০০ কৃষককে সহায়তা করা হয়েছে। রপ্তানির জন্য রাজশাহী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জে আম গ্রেডিং শেড এবং ট্রিটমেন্ট প্লান্ট করা হচ্ছে। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন বিশ্বব্যাংকের প্রোগ্রাম ম্যানেজার মাইকেল জন ওয়েবস্টের ও কোকাকোলা বাংলাদেশ লিমিটেডের ম্যানেজিং ডিরেক্টর জু-উন নাহার চৌধুরী। এর আগে কৃষিমন্ত্রী সোনাদীঘি গ্রামের কৃষক রাতুলে ফার্মে মাটিবিহীন চারা উৎপাদন, ই-ফার্মিং, ভার্মি কম্পোস্ট, বসতবাড়ি বাগান ও কৃষিক্ষেত পরিদর্শন করেন। বাগানটিতে বিশ্ব ব্যাংক, বেসরকারি সংস্থার ডাসকো, কোকাকোলা বাংলাদেশ লিমিটেড ও সিনজেনটার সহযোগিতায় উন্নত প্রযুক্তিতে আম চাষ করা হচ্ছে। এ ছাড়া গোদাগাড়ীর বিজয়নগর এলাকায় পানি সাশ্রয়ী প্রযুক্তিতে ধান চাষও পরিদর্শন করেন। এরপর সোনাদীঘি এলাকায় নার্সারিতে উন্নত প্রযুক্তিতে চারা উৎপাদন পদ্ধতি দেখেন। এ সময় কৃষি বিভাগের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন


আরও খবর