Logo
আজঃ রবিবার ২৬ মে ২০২৪
শিরোনাম

প্রতিশোধ নিতে সিরিয়ায় মার্কিন বিমান হামলা

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৪ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:রবিবার ২৬ মে ২০২৪ | ২০৬জন দেখেছেন

Image

অনলাইন ডেস্ক: সিরিয়ার পূর্বাঞ্চলে ইরান সমর্থিত গোষ্ঠীগুলোর ওপর একাধিক বিমান হামলা চালিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনী। ড্রোন হামলার জবাবে যুক্তরাষ্ট্র এসব হামলা চালিয়েছে বলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। খবর আল-জাজিরার।

এক বিবৃতিতে পেন্টাগন বলছে, স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার দুপুর ১ টা ৩৮ মিনিটে উত্তর-পূর্ব সিরিয়ার হাসাকেহের কাছে মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোটের একটি ঘাঁটিতে হামলার জবাবে বৃহস্পতিবার গভীর রাতে এই হামলা চালানো হয়েছে।

মার্কিন গোয়েন্দা ধারণা করছে, সিরিয়ায় তাদের নেতৃত্বাধীন জোটের ঘাঁটিতে ইরানের তৈরি ড্রোন দিয়ে হামলা করা হয়েছে। মার্কিন প্রতিরক্ষা সচিব লয়েড অস্টিন বলেছেন, পূর্ব সিরিয়ায় ইরানের ইসলামিক রেভল্যুশনারি গার্ডস কর্পসের (আইআরজিজি) সঙ্গে সংশ্লিষ্ট গোষ্ঠীগুলোকে লক্ষ্য করে হামলা চালানো হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের নির্দেশে তিনি প্রতিশোধমূলক হামলার অনুমোদন দিয়েছেন। অস্টিন বলেন, বাইডেন যেহেতু স্পষ্ট করেছেন তাই আমরা আমাদের জনগণকে রক্ষা করার জন্য প্রয়োজনীয় সমস্ত ব্যবস্থা নেব।


আরও খবর



এমপি আনার খুন : ডিবি কার্যালয়ে যা জানাল ভারতীয় পুলিশ

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৪ মে 20২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ৫৬জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) প্রধান মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ, এমপি আনোয়ারুল আজিম আনারের মরদেহ শিগগিরই উদ্ধার করতে পারবেন বলে আশা প্রকাশ করেছেন ।

বৃহস্পতিবার (২৩ মে) রাত পৌনে ১০টায় ভারত থেকে আসা চার পুলিশের সঙ্গে বৈঠক শেষে তিনি সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ তথ্য জানান।

ডিবিপ্রধান বলেন, ভারতীয় পুলিশের যে টিম ডিবিতে এসেছে তারা আমাদের হাতে গ্রেপ্তার আসামিদের সঙ্গে কথা বলেছে। আমাদের ডিবি পুলিশের কাছে আসামিরা যে তথ্যগুলো জানিয়েছিল, তারা ভারতীয় পুলিশের কাছেও একই তথ্য স্বীকার করেছে।

হারুন অর রশীদ বলেন, উভয় দেশের পুলিশ তথ্য দিয়ে একে-অপরকে সহযোগিতা করছে। এখনও কোনো সন্ধান মেলেনি। তবে তথ্যের ভিত্তিতে শিগগিরই এমপি আনারের দেহের খণ্ডিত অংশগুলো উদ্ধারের চেষ্টা চালাচ্ছে। আশা করছি দ্রুতই পেয়ে যাবে।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (২৩ মে) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ভারতীয় পুলিশের প্রতিনিধিদল ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের কার্যালয় যায়। সেখানে এই হত্যাকাণ্ডে জড়িত যে তিনজন বাংলাদেশে গ্রেপ্তার হয়েছে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করেন তারা।


আরও খবর



রবীন্দ্রনাথের সৃষ্টিকর্ম বাঙগালীকে আলোর পথ দেখায়: পরিকল্পা প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৯ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৩ মে ২০২৪ | ৮৫জন দেখেছেন

Image
নাজমুল হক নাহিদ, আত্রাই (নওগাঁ) প্রতিনিধি:পরিকল্পা প্রতিমন্ত্রী শহীদুজ্জামান সরকার বলেছেন,রবীন্দ্রনাথের সৃষ্টিকর্ম বাঙগালীকে আলোর পথ দেখায়। বিশ্বকবি পতিসর কাচারী বাড়ির আঙ্গিনায় বসে অসংখ্য সাহিত্যকর্ম সৃষ্টি করেছেন। রবীন্দ্রনাথ জমিদার হয়েও সাধারণ মানুষের কাছে নিজেকে নিবেদন করতেন। কবি সকল গুনের অধিকারী ছিলেন।

তৎকালীন সমাজের বৈষম্য ও কুসংষ্কার দূর করে স্বনির্ভর সমাজ গড়ে তোলার কাজ হাতে নিয়েছিলেন। নিজস্ব জমিদারী কালীগ্রাম পরগনা থেকেই সেই কাজ তিনি শুরু করেছিলেন। সাহিত্য রচনার পাশাপাশি কবি সকল বঞ্চনার মুক্তির পথ দেখিয়েছেন। বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৬৩ তম জন্মোৎসব অনুষ্ঠানে নওগাঁর আত্রাই উপজেলার পতিসরে এসব কথা বলেছেন তিনি।

প্রতি বছরের মত এবারো সংষ্কৃতি মন্ত্রনালয়ের সহযোগিতায় নওগাঁ জেলা প্রশাসন আলোচনা সভা ও সংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। বুধবার বিকেলে কবির নিজস্ব জমিদারী কালীগ্রাম পরগনার কবীর কাচারি বাড়ী দেবেন্দ্র মঞ্চে এই আলোচনা সভা ও সাংষ্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক ছিলেন রবীন্দ্র গবেষক ড. আশরাফুল ইসলাম। এছাড়া নওগাঁ সরকারী কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ শরীফুল ইসলাম খাঁন, কৃষি অর্থনীতি গবেষক অধ্যাপক মোজাফ্ফর হোসেন আলোচনায় অংশনেন। আলোচকরা বিশ্ব কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কর্মময় জীবনী তুলে ধরেন।

এদিন বিকেল সোয়া চারটায় অনুষ্ঠানের শুরুতেই জাতীয় পতাকা উত্তোলন, ফেষ্টুন ও পায়রা উড়িয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি পরিকল্পা প্রতিমন্ত্রী শহীদুজ্জামান সরকার ।

আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, নওগাঁ-৩ আসনের সংসদ সদস্য সৌরেনন্দ্রনাথ চক্রবর্তী, নওগাঁ- ৪ আসনের সংসদ সদস্য ব্রহানী সুলতান, নওগাঁ- ৬ আসনের সংসদ সদস্য ওমর ফারুক সুমন,অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফৌজিয়া হাবিব ও আত্রাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার সঞ্চিতা বিশ্বাস,জেলা পরিষদ সদস্য চৌধুরী গোলাম মোস্তফা বাদল। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নওগাঁর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) সোহেল রানা। আলোচনা সভা শেষে দেবেন্দ্র মঞ্চে সাংষ্কৃতিক, কবীতা আবৃতি, গান ও নৃত্য পরিবেশন করা হয়।

আরও খবর



মেহেরপুরে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন, স্বচ্ছ ব্যালট বাক্স বিতরণ, ব্যালট যাবে কাল

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ৯৩জন দেখেছেন

Image

মজনুর রহমান আকাশ,মেহেরপুর প্রতিনিধি:আগামীকাল বুধবার মেহেরপুরে সদর ও মুজিবনগর উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচন উপলক্ষে সকল কার্যক্রম সম্পন্ন করেছে জেলা নির্বাচন অফিস। আজ মঙ্গলবার সকাল ১১ টার সময় জেলা পুলিশ লাইন মাঠে আইনশৃঙ্খলা বাহীনির ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে অংশ নেয় পুলিশ, এপিবিএন ও আনছার ব্যাটলিয়নের সদস্যরা। দুপরে নির্বাচন অফিসের কার্যালয় থেকে শুরু হয় স্বচ্ছ ব্যালট বাক্স বিতরণের কাজ। দু’টি উপজেলার ১১৯ টি কেন্দ্রর প্রিজাইডিং অফিসার, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ও আইনশঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ব্যালট ব্যাক্স গ্রহণ করেন।

পুলিশ সুপার এস.এম নাজমুল হক বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু করার জন্য জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে সব ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য পুলিশ, সদস্য, এপিবিএন সদস্য, র‌্যাব, আনছার সদস্যরা কাজ করবে। পাশাপাশি সাদা পোশাকে থাকবে পুলিশ। ৪ প্লাটুন বিজিবি ও র‌্যাবের একটি দল স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে কাজ করবে। তাদের নেতৃত্বে থাকবে বেশ কয়েকজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। যে কোন মূল্যে সাধারণ মানুষকে একটি সুষ্ঠু নির্বাচন উপহার দেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

রিটানিং কর্মকর্তা ওয়ালিউল্লাহ বলেন, ব্যালট পেপার দেওয়া হবে আগামীকাল ভোর থেকে। দুরবর্তী কেন্দ্রগুলোর জন্য ৪ টি ইউনিয়নের মধ্যবর্তী একটি ইউনিয়ন পরিষদে ব্যালটবাক্সগুলো রাখা হবে। ভোরে সেখান থেকে ঐ ইউনিয়নের কেন্দ্রগুলোতে ব্যালট পেপারগুলো পৌঁছে দেওয়া হবে। সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য সব ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে তিনি জানান। 


আরও খবর



নেত্রকোনায় আচরনবিধি লংঘনের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলণ

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ৯৪জন দেখেছেন

Image

নেত্রকোনা প্রতিনিধিঃ নেত্রকোনার কলমাকান্দায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নামধারী আওয়ামী লীগ নেতার মিথ্যাচার ও নির্বাচনী আচরনবিধি লংঘনের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলণ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

উপজেলা সদরের ধানমহাল রোড এলাকায় এই সংবাদ সম্মেলণ করেন চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ রফিকুজ্জামান খোকন (কৈ মাছ প্রতীক)। এতে তার কর্মীসমর্থকসহ জেলার প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন।

এসময় তিনি বলেন আগামী ৮ মে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। কিন্তু কিছু আওয়ামী লীগ নামধারী নেতারা অন্য এক প্রার্থী আলহাজ্ব আব্দুল কদ্দুছ বাবুল মিয়ার (দোয়াতকলম প্রতীক)পক্ষে সরাসরি প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছেন।

এছাড়াও স্থানীয় সংসদ সদস্যের নাম ভাঙিয়ে ওই প্রার্থীকে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী বলে ভোটারদের নিকট বলে বেড়াচ্ছে। এরই প্রতিবাদে বিচারের দাবীতে সংবাদ সম্মেলণ করেছেন তিনি।


আরও খবর



তানোরে কৃষি প্রণোদনায় অনিয়ম, হয়না আউশ চাষ, পেল কারা?

প্রকাশিত:সোমবার ২০ মে ২০24 | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ৪৬জন দেখেছেন

Image
আব্দুস সবুর তানোর প্রতিনিধি:রাজশাহীর তানোর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সাইফুল্লাহ আহম্মেদের বিরুদ্ধে বিস্তর অভিযোগ উঠেছে। বিগত ২০২৩ সালের ২০ মার্চ সোমবার কৃষি প্রণোদনা বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি সাংসদ আলহাজ্ব ওমর ফারুক চৌধুরীর কাছে কৃষকেরা মৌখিক অভিযোগ করেন। এদিকে ২০২৪ সালের কৃষি প্রণোদনার তালিকা প্রণয়নে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। কৃষকদের অভিযোগের তীর কৃষি কর্মকর্তা সাইফুল্লাহ আহম্মেদের দিকে। তবে কৃষি কর্মকর্তা সাইফুল্লাহ আহম্মেদ কৃষকদের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। কারন উপজেলায় আউশ চাষ হয়না তাহলে কাদের দেয়া হল প্রণোদনা এমন প্রশ্ন প্রকৃত প্রান্তিক কৃষকদের। 

জানা গেছে, চলতি ২০২৩-২৪ অর্থবছরে খরিপ-১ মৌসুমে উপশী আউশ আবাদ  বৃদ্ধির লক্ষে কৃষি প্রণোদনা কর্মসূচীর আওতায় উপজেলার ৭ হাজার ৬৫০ জন ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকের  মাঝে বিনামূল্যে কৃষি প্রণোদনার সার-বীজ বিতরণ করা হয়েছে।এদিকে প্রণোদনা বঞ্চিত কৃষকদের অভিযোগ তালিকা প্রণয়নে ব্যাপক অনিয়ম করা হয়েছে। একই পরিবারের একাধিক সদস্য এমনকি জমি নাই বা কখানোই আউশের আবাদ করে না। এমন কৃষকদের প্রণোদনা দেয়া হলেও অনেক প্রকৃত আউশ চাষি প্রণোদনা সুবিধা বঞ্চিত হয়েছে। অথচ কৃষি বিভাগ থেকে তালিকা প্রণোয়নে কৃষকদের যাচাই-বাছাই করার কথা রয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে, গত ১১মে শনিবার কৃষি প্রণোদনা বিতরণ উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন ও কৃষি বিভাগের উদ্যোগে উপজেলা পরিষদ চত্বরে আলোচনা সভা আয়োজন করা হয়। এদিন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে ও কৃষি কর্মকর্তা সাইফুল্লাহ আহম্মেদের সঞ্চালনায় আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব রাখেন সাংসদ প্রতিনিধি ও উপজেলা চেয়ারম্যান লুৎফর হায়দার রশিদ ময়না। 

এদিন উপজেলার  ৭ হাজার ৬৫০ জন ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষককে ১০ কেজি ডিএপি, ১০ কেজি পটাশ ও ৫ কেজি করে উচ্চ ফলনশীল ধানবীজ দেয়া হয়েছে। কিন্ত্ত তালিকা প্রণয়নে অনিয়মের কারনে অবস্থা সম্পন্ন এবং (ভুয়া) কৃষক প্রণোদনা পেলেও প্রকৃত কৃষকেরা বঞ্চিত হয়েছে। আবার একই পরিবারের একাধিক সদস্য প্রণোদনার কৃষি উপকরণ পেয়েছে। কতিপয় কৃষি কর্মকর্তার মদদে আর্থিক সুবিধার বিনিময়ে প্রকৃত কৃষককে বঞ্চিত করে (ভুয়া) কৃষকের তালিকা করেছেন বলে কৃষকদের মাঝে আলোচনা রয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, এদিন অধিকাংশ (ভুয়া) কৃষক প্রণোদনার উপকরণ পেয়ে বাজারের এক সার ব্যবসায়ীর দোকানে বিক্রি করে দিয়েছেন। এতে সরকারের মহতী উদ্যোগ অঙ্কুরেই বিনষ্ট হতে চলেছে। কৃষকদের অভিযোগ কৃষি কর্মকর্তা সাইফুল্লাহ আহম্মেদের দায়িত্ব  অবহেলার কারণে সরকারের দেয়া সহায়তা থেকে প্রকৃত ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকেরা বঞ্চিত হচ্ছে। তিনি এখানে দায়িত্ব নেবার পর থেকে নানা অনিয়ম-দুর্নীতি ডালপালা মেলেছে। এদিকে কৃষি কর্মকর্তার কাছে প্রণোদনার কৃষকের তালিকা চাইলে তিনি সাংবাদিকের সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ করে তালিকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করেছেন। তবে এসব কৃষকের নামের তালিকা যাচাই-বাছাই করলেই তালিকা প্রণয়নে অনিয়মের সত্যতা পাওয়া যাবে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মাঠপর্যায়ের এক কর্মকর্তা বলেন, ইতিপুর্বে উপজেলায় গ্রীষ্মকালীন পেয়াঁজ চাষের জন্য ২০২১-২২ এবং ২০২২-২৩ অর্থবছরে দুই ধাপে মোট ১৫০ জন কৃষককে ৭ লাখ ৮৭ হাজার ৩৫০ টাকা প্রণোদনা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে কৃষক প্রতি নগদ ২ হাজার ৮০০ টাকা করে ৪ লাখ ২০ হাজার টাকা এবং কৃষক প্রতি উপকরণ ২ হাজার ৪৪৯ টাকা করে মোট ৩ লাখ ৬৭ হাজার ৩৫০ টাকা। কিন্ত্ত সেখানেও কৃষি কর্মকর্তা নানা অনিয়ম করেছেন বলেও গুঞ্জন রয়েছে।এসব নিয়ে গণমাধ্যমে একাধিক প্রতিবেদন প্রকাশ হয়েছিল।

উপকারভোগী একাধিক কৃষকের অভিযোগ, প্রণোদনার তালিকায় কৃষক নয় এমন ব্যক্তিসহ স্বজনপ্রীতি, এবং অল্প কিছু কৃষককে নামেমাত্র প্রণোদনা দেয়া হয়েছিল। তারা বলেন, গ্রীষ্মকালীন পেঁয়াজের প্রণোদনার প্রকল্পে যেখানে কৃষক প্রতি বরাদ্দ ছিল ৫ হাজার ২৪৯ টাকা। বরাদ্দের টাকা কৃষকদের বিকাশের মাধ্যমে পাঠানো হয়। কিন্তু প্রতিটি কৃষককে বিকাশে ২৮০০ টাকা করে পাঠানোর কথা থাকলেও তালিকার অনেক কৃষক সে টাকা পায়নি। আর তালিকায় নেই প্রকৃত কৃষক। কৃষকরা বলছেন, বরাদ্দের বাকী ২৪৪৯ টাকার মধ্যে বালাইনাশক বাবদ ২১০০ টাকা, নায়লন সুতলি বাবদ ১৫০ টাকা, অন্যান্য খরচ বাবদ ১৪৪ টাকার ভাউচার প্রদান করা হয়। প্রকৃতপক্ষে কৃষককে দেওয়া হয়, ৫০০ টাকার পলিথিন, ৮০ টাকার বালাইনাশক (৫০ গ্রাম অটোষ্টিন), ৪৫ টাকার সুতলি। প্রতিটি কৃষক পায় ৬২৫ টাকার মালামাল। বাঁকী টাকা আত্মসাৎ করেন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা টাকার পরিমাণ ২ লাখ ৭৩ হাজার ৫০০ টাকা বলেও কৃষকের মাঝে আলোচনা রয়েছে। এদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কীটনাশক ব্যবসায়ী বলেন, 

কৃষি প্রযুক্তি মেলা আয়োজনের জন্য সরকারিভাবে দুলাখ টাকা বরাদ্দ ছিল। কিন্তু তার পরেও প্রতিটি কীটনাশক ব্যবসায়ীর কাছে থেকে আনুঃপাতিকহারে চাঁদা আদায় করা হয়েছিল। অথচ তারা দায়সারা আয়োজন করে অতিথিদের নাস্তাও ছিল নিম্নমাণের যা অত্যন্ত দুঃখজনক।  এমনকি উপজেলার দায়িত্বশীল রাজনৈতিক নেতা ও জনপ্রতিনিধিদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল না।
 এছাড়াও 

অফিস সময় মেনে অফিস না করা, স্টেশনে না থাকা, সরকারি গাড়ী ব্যবহার করে রাজশাহী থেকে যাতায়াত, অফিসে এসি ব্যবহার ও বিভিন্ন ফসলের প্রদর্শনীতে নানা অনিয়ম নিয়মে পরিণত হয়েছে বলেও জনশ্রুতি রয়েছে। এবিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যান আবু বাক্কার সিদ্দিক বলেন, আমি জনগণের সরাসরি ভোটে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি, অথচ কৃষি প্রযুক্তি মেলায় আমাকে আমন্ত্রন জানানো হয়েছিল না, এটা শুধু আমাকে নয়, যারা আমাকে ভোট দিয়েছেন তাদের সকলকে অবজ্ঞার সামিল ছিলো। এবিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সাইফুল্লাহ আহম্মেদ এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, চাহিদার তুলনায় বরাদ্দ কম। তিনি বলেন, কেউ সুবিধা না পেলেই নানা অভিযোগ করেন।

আরও খবর