Logo
আজঃ Tuesday ২৪ May ২০২২
শিরোনাম

প্রাকৃতিক উপায়ে ঘরে বসে সাদা চুল কালো করুন

প্রকাশিত:Saturday ০৯ April ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৪ May ২০২২ | ১৮৯জন দেখেছেন
Image

খবর প্রতিদিন ডেস্কঃ

বয়সের সঙ্গে সঙ্গে আমাদের প্রিয় ঝলমলে কালো চুলগুলো যখন সাদা হতে শুরু করে, এটা মেনে নিতে বেশ কষ্ট হয়। কেনা কলপে চুল পছন্দের রং করে নেওয়া যায়।


তবে এতে অনেকের অ্যালার্জি বা আরও বেশি চুল পেকে যাওয়ার মতো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায়।

সাদা চুল প্রাকৃতিক উপায়ে ঘরেই কালো করতে পারেন। কীভাবে? জেনে নিন-


আমলকি ও হেনা

চুলের যত্নে যে প্রশাধনী ব্যবহার  করা হয়, তার বেশির ভাগেরই প্রধান উপাদান হলো আমলকি। ঘরোয়া উপায়ে পাকা চুল কালো করতে চুলের লেন্থ অনুযায়ী হেনা পাউডার গরম পানিতে ভিজিয়ে পেস্ট করে নিন। এবার পেস্টে আমলকি পাউডার ও অল্প কফি মিশিয়ে মিশ্রণটি ভালো করে চুলে লাগিয়ে নিন। ১ ঘণ্টা রেখে চুল ভালো করে শ্যাম্পু করে ধুয়ে নিন।


মেথি ও নারকেল তেল

অ্যামিনো অ্যাসিড ও লিকিথিন সমৃদ্ধ মেথি আমাদের চুল সাদা হওয়া রোধ করে। নারকেল তেল গরম তাতে মেথি দানা দিয়ে ১০ মিনিট ফুটিয়ে নিন। এবার উষ্ণ গরম অবস্থায় মেথি ছেঁকে নিয়ে স্কাল্প ও চুলের গোঁড়ায় ভালো করে মালিশ করুন। রাতে ঘুমানোর আগে মালিশ করে পরদিন সকালে উঠে শ্যাম্পু করে নিলে সব থেকে ভালো ফল পাওয়া যাবে।


চা পাতা

এছাড়াও চা পাতার পাউডার – ২ চামচ, মেহেদি পাউডার – ২ চামচ, মধু – ১ চামচ , লেবুর রস – ১ চামচ। বাটিতে সব উপকরণ একসঙ্গে ভালো করে মিশিয়ে নিন। এবার পরিমাণমতো গরম পানি দিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। পুরো চুলে মিশ্রণটি ভালো করে লাগিয়ে আধাঘণ্টা রেখে শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে নিন।


ওপরের যেকোনো প্যাক ব্যবহারের আগে চুল শ্যাম্পু দিয়ে পরিষ্কার করে নিন। নিয়মিত এসব প্যাক ব্যবহারে সাদা চুল কালো হবে, সেই সঙ্গে থাকবে মজবুত, সিল্কি ও সুপার সফট।



আরও খবর



কাশিমপুর কারাগারে বন্দীর সাথে বাদির বিয়ে

কারাগারে বন্দি আসামির সাথে মামলার বাদীর বিয়ে

প্রকাশিত:Saturday ২১ May ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৪ May ২০২২ | ৮৩জন দেখেছেন
Image

নাজমুল হাসানঃ

কারাগারে থাকা অবস্থায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে করা মামলায় কাশিমপুর কারাগারের আসামির সঙ্গে ওই মামলার বাদীর বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে।


উচ্চ আদালতের আদেশে শুক্রবার (২০ মে) বিকেলে বাদী ও আসামিপক্ষের স্বজন এবং আইনজীবীদের উপস্থিতিতে বিয়ে সম্পন্ন হয়।



গাজীপুরের কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-১ এ ওই বিয়ে সম্পন্ন হয়। বরের নাম নাঈম মিয়া (২৩)। তার বাড়ি কিশোরগঞ্জের অষ্টগ্রাম উপজেলায়। কনের (১৯) বাড়িও একই জেলায়।


কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-১ এর জেলার রীতীশ চাকমা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।



তিনি জানান, শুক্রবার বিকেল ৫টার দিকে কারাগারের অফিস রুমে উভয় পরিবারের স্বজন ও আইনজীবীদের উপস্থিতিতে বিয়ে সম্পন্ন হয়। বিয়ের পর বরের স্বজনদের সঙ্গে কনে শ্বশুরবাড়ি চলে যান।


জেলার আরও জানান, রাজধানীর মিরপুর থানায় করা মামলায় গ্রেফতারের পর নাঈমকে ২০২০ সালে ঢাকা থেকে কাশিমপুর কারাগারে আনা হয়।


আরও খবর



ভারত থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে

সিলেটে ১৫ লাখ মানুষ পানিবন্দী

প্রকাশিত:Wednesday ১৮ May ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৪ May ২০২২ | ১১৭জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

ভারত থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে সিলেট নগরসহ পুরো জেলায় বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়েছে। সুরমা নদী উপচে সিলেট নগরেই হাঁটু সমান পানি হয়েছে।

বাসাবাড়ি ও ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানেও পানি উঠছে। বন্যায় সিলেট জেলা ও মহানগরের প্রায় ১৫ লাখ মানুষ পানিবন্দি রয়েছেন।


এসব মানুষের জন্য মোট ২১৫টি আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে। এরমধ্যে ১৯৯টি জেলা প্রশাসন ও ১৬টি আশ্রয়কেন্দ্র সিলেট সিটি করপোরেশন খুলেছে।



সিলেট আবহাওয়া অধিদপ্তরে জ্যেষ্ঠ আবহাওয়াবিদ সাঈদ আহমদ চৌধুরী বলেন, সিলেটে ও এর উজানে আগামী ২৩ জুন পর্যন্ত বৃষ্টি অব্যাহত থাকতে পারে। এ কারণে বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।



গত সোমবার (১৬ মে) দুপুর ১২টা থেকে সিলেট নগরের নিম্নাঞ্চলগুলোতে পানি প্রবেশ করতে শুরু করে। মঙ্গলবার নগরের প্রায় অর্ধেকেরও বেশি এলাকা পানির নিচে চলে গেছে। দ্রুত পানি বাড়ায় বিপাকে পড়েছেন সাধারণ মানুষজন।


বন্যার পানি বাড়া অব্যাহত থাকায় যত সময় যাচ্ছে ততই সিলেট নগরের নতুন নতুন এলাকার বাসাবাড়ি ও ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান, রাস্তাঘাট তলিয়ে যাচ্ছে।

সিলেট সিটি করপোরেশনের প্রথম মেয়র মরহুম বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের নগরের ছড়ারপারস্থ বাসভবনসহ নগরের প্রায় ৬০ ভাগ বাসাবাড়ি ও দোকানে বন্যার পানিতে হাঁটুজল দেখা দিয়েছে। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন নগরবাসী।



আরও খবর



সুন্দরবন পৌঁছেছেন ডেনমার্কের রাজকুমারী ম্যারি এলিজাবেথ ডোনাল্ডসন

প্রকাশিত:Wednesday ২৭ April ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৩ May ২০২২ | ১০৭জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

বুধবার (২৭ এপ্রিল) সকাল ১০টা ১২ মিনিটে তাকে বহনকারী বিমানবাহিনীর একটি হেলিকপ্টার শ্যামনগর উপজেলার মুন্সিগঞ্জ ইউনিয়নের ধানখালীতে নির্মিত হ্যালিপ্যাডে অবতরণ করে সেখান থেকে রাজকুমারীগাড়িতে করে সুশীলনের টাইগার পয়েন্ট হয়ে মুন্সিগঞ্জ থেকে তিন কিলোমিটার দূরে কুলতী গ্রামে যান।


একই সঙ্গে তিনি জলবায়ু ঝুঁকিপূর্ণ জনগোষ্ঠীর বসবাসের এলাকা, সাইক্লোন সেন্টার ও বেড়িবাঁধ পরিদর্শন করবেন।


এসময় ডেনমার্কের রাজকুমারী ম্যারি এলিজাবেথ ডোনাল্ডসন বাঁধের পাশে বসবাসকারী প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত লোকজনের সঙ্গে কথা বলবেন।


দুপুরে রাজকুমারী স্থানীয় বরসা রিসোর্টে মধ্যাহ্নভোজে অংশ নেবেন।এছাড়ারাজকুমারী সুন্দরবন ভ্রমণ ও বনবিভাগের লোকজনের সঙ্গেও কথা বলবেন।  


আরও খবর



তিস্তার বাঁধ ধসে হুমকির মুখে হাজারও বসতঘর

প্রকাশিত:Tuesday ১০ May ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৩ May ২০২২ | ৭৮জন দেখেছেন
Image

লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ

সরকারী উদ্যোগে  গত বছর সংস্কার করা বাঁধ চলতি বছর বন্যার আগেই ধসে গিয়ে হুমকির মুখে পড়েছে লালমনিরহাটের ভূমি অফিসসহ তিস্তাপাড়ের হাজারও বসতবাড়ি।


জানা গেছে, ভারতের সিকিম ও পশ্চিমবঙ্গের ওপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ার পর নীলফামারীর কালীগঞ্জ সীমান্ত হয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করে ঐতিহাসিক তিস্তা নদী।


যা লালমনিরহাট, নীলফামারী, রংপুর ও গাইবান্ধা জেলার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়ে কুড়িগ্রাম জেলার চিলমারী বন্দর হয়ে ব্রহ্মপুত্র নদের সঙ্গে মিশে যায়। দৈর্ঘ্য প্রায় ৩১৫ কিলোমিটার হলেও বাংলাদেশ অংশে রয়েছে প্রায় ১২৫ কিলোমিটার।  

ভারতের গজলডোবায় বাঁধ নির্মাণের মাধ্যমে ভারত সরকার একতরফা তিস্তার পানি নিয়ন্ত্রণ করায় শীতের আগেই বাংলাদেশ অংশে তিস্তা মরুভূমিতে পরিণত হয়। বর্ষা মৌসুমে অতিরিক্ত পানি প্রবাহের ফলে বাংলাদেশ অংশে ভয়াবহ বন্যার সৃষ্ট হয়। বন্যায় সব থেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় তিস্তার বাম তীরের জেলা লালমনিরহাট।


তিস্তা নদী জন্মলগ্ন থেকে খনন না করায় পলি পড়ে ভরাট হয়েছে নদীর তলদেশ। ফলে পানি প্রবাহের পথ না পেয়ে বর্ষাকালে উজানের ঢেউয়ে লালমনিরহাটসহ পাঁচটি জেলায় ভয়াবহ বন্যার সৃষ্টি করে। এ সময় নদী ভাঙনও বেড়ে যায় কয়েকগুণ। প্রতি বছর শুষ্ক মৌসুমে নদীর বুকে চর জেগে উঠে। আর বর্ষায় লোকালয় ভেঙ্গে তিস্তার পানি প্রবাহিত হয়। ফলে বসতভিটা ও স্থাপনাসহ ফসলি জমি নদী গর্ভে বিলিন হচ্ছে। নিঃস্ব হচ্ছে তিস্তাপাড়ের মানুষ।


পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) লালমনিরহাট প্রতি বছর বাঁধ নির্মাণ ও সংস্কারের নামে বরাদ্দ দিলেও কাজ শুরু করেন বর্ষাকালে। যা সামান্যতে পানির স্রোতে হারিয়ে যাচ্ছে। বর্ষার অথৈ পানিতে জরুরি কাজের নামে বরাদ্দ দেওয়া এসব সরকারি অর্থ কোনো কাজে আসছে না নদীপাড়ের মানুষের।


গত বছর বন্যার সময় লালমনিরহাট সদর উপজেলার খুনিয়াগাছ গ্রামে নির্মিত বাঁধ সংস্কার করতে জিও ব্যাগ (বালি ভতি বিশেষ ব্যাগ) ডাম্পিং করে পাউবো। যা গত বন্যা পরবর্তীকালে কাজটি সমাপ্ত করা হয়। চলতি বছর বন্যা আসার আগেই গত ০৬ মে মধ্য রাতে ৩০ মিটার বাঁধ ধসে যায়। পরে স্থানীয়রা বালুর বস্তা ফেলে কোনো রকম রক্ষা করে।


স্থানীয়রা জানান, গত বছর বন্যার শেষ দিকে পাঁচ হাজার জিও ব্যাগ প্রস্তুত করলেও তাড়াহুড়ো করে মাত্র চার হাজার জিও ব্যাগ ডাম্পিং করে। বাকিসব জিও ব্যাগ তিস্তার চরাঞ্চলেই বালুচাপা পড়ে রয়েছে। রাতে আঁধারে জরুরি কাজের অজুহাতে নামমাত্র কাজ করে চলে যায় পাউবো। ফলে এ বছর বন্যা না আসতেই বাঁধটি প্রায় ৩০-৪০ মিটার এলাকা ধসে যায়। 


আরও খবর



নাসিরনগরে শিক্ষার্থীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে বই বিক্রেতা জেলহাজতে

প্রকাশিত:Tuesday ১০ May ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৪ May ২০২২ | ৩৫৬জন দেখেছেন
Image


নাসিরনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) সংবাদদাতাঃ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর নগর উপজেলার ফান্দাউক ইউনিয়নের ফান্দাউক বাজারে আঁখি লাইব্রেরীর ভেতরে এক তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে লাইব্রেরীর মালিক মোঃতাহের মিয়া (৪৪) নামে একজনকে আটক করেছে পুলিশ।সোমবার গ্রেপ্তারকৃত আসামি তাহের মিয়াকে আদালতের  মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।


জানা গেছে রোববার বিকেলে উপজেলার ফান্দাউক ইউনিয়নের ফান্দাউক বাজারে আঁখি লাইব্রেরীর ভেতরে এ ঘটনা ঘটে। পরে ওই দিন রাতেই শিশুটির বাবা বাদী হয়ে নাসিরনগর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করেন।


পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, অভিযুক্ত তাহের ফান্দাউক বাজারে আঁখি লাইব্রেরির মালিক।সে উপজেলার ফান্দাউক ইউনিয়নের ফান্দাউক গ্রামের মোঃ জয়নাল আবেদিনের ছেলে। রোববার রাত ৯টার দিকে তাহের কে ফান্দাউক বাজারে আঁখি লাইব্রেতে অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। 


মামলার এজাহার ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে অভিযুক্ত তাহের দীর্ঘদিন ধরে ফান্দাউক বাজারে লাইব্রেরির ব্যবসা করে আসছেন। ভুক্তভোগী শিশুটিকে প্রায় সময়ই তাহের তাঁর লাইব্রেরির পেছনে নিয়ে যৌন হয়রানি করতেন। ঘটনার দিন বিকেলে ওই শিশুটি একটি কলম কেনার জন্য তাহেরের দোকানে যায়। সে সময় তাহের  শিশুটিকে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে ও ফুসলিয়ে তার দোকানের পেছনে নিয়ে শিশুটিকে যৌন হয়রানি করে। পরে শিশুটি কান্না করে বাড়িতে চলে গিয়ে তার মাকে বিষয়টি জানায়। 


বিষয়টি জানাজানির পর তার বাবা স্থানীয়দের সঙ্গে আলোচনা করে নাসিরনগর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখীল করেন।শিশুর বাবার অভিযোগের প্রেক্ষিতে ওই দিনই রাত ৯ঘটিকার সময় অভিযান পরিচালনা করে তাহেরকে লাইব্রেরী থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ 


জানতে চাইলে নাসিরনগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. হাবিবুল্লাহ সরকার বলেন, ‘শিশুটিকে যৌন নির্যাতনের ঘটনায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা হয়েছে। অভিযুক্ত আসামী তাহের কে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। 



আরও খবর