Logo
আজঃ Friday ১৯ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে আবাসিকের অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন ডেমরায় প্যাকেজিং কারখানায় ভয়বহ অগ্নিকান্ড রূপগঞ্জে পুলিশের ভুয়া সাব-ইন্সপেক্টর গ্রেফতার রূপগঞ্জে সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ॥ সভা সরাইলে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ৭৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত। নারায়ণগঞ্জে পারিবারিক কলহে স্ত্রীকে পুতা দিয়ে আঘাত করে হত্যা,,স্বামী গ্রেপ্তার রূপগঞ্জ ইউএনও’র বিদায় সংবর্ধনা নাসিরনগরে স্বামীর পরকিয়ার,বলি ননদ ভাবীর বুলেটপানে আত্মহত্যা নাসিরনগরে জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭ তম শাহাদত বার্ষিকী পালিত ডেমরায় জাতীয় শোক দিবসের কর্মসুচি পালিত
হাজার হাজার শৌখিন মৎস শিকারিদের আনা গোনায় রহুল বিল

পলো উৎসবে মাছ ধরায় মেতেছে মানুষ, চির চেনা বাংলা

প্রকাশিত:Saturday ২৭ November ২০২১ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৫৯৬জন দেখেছেন
ডেস্ক এডিটর

Image


 

মাছ ধরা বা মাছ শিকার করা বিলাঞ্চলের মানুষদের আজন্ম শখ। বিশেষ করে চলন বিল এলাকায় বর্ষা মৌসুমে নিম্নাঞ্চলের খাস বা সরকারি জলাভূমিতে পানি অল্প থাকাকালে মাছ শিকারিরা দল বদ্ধ হয়ে পলো, ছোট জাল নিয়ে একটি নিদিষ্ট দিনে মাছ শিকার করে থাকে। এলাকায় এটি পলো উৎসব বা বাউত উৎসব নামের পরিচিত।

 

শনিবার পাবনার ভাঙ্গুড়ার উপজেলার পারভাঙ্গুড়া ইউপির বিল রুহুলে এমনই এক শৌখিন মাছ শিকারিদের মিলন মেলা হয়েছে। এতে সবার কাছে মাছ ধরা পড়ুক বা না পড়ুক এক সঙ্গে বছরের এই দিনে মাছ ধরতে আসার মজাই যেন অন্য রকম।

 

সরেজমিন শনিবার উপজেলার বিল রুহুল এলাকা ঘুরে দেখা যায় , পাবনাসহ পার্শ্ববর্তী জেলাগুলো থেকে শৌখিন মাছ শিকারিরা ভোর বেলার কুয়াশা ভেদ করেই বিভিন্ন যানবাহন বাস, নছিমন, আটো ভ্যান, ভটভটি যোগে এই বিল পাড়ে আসতে থাকে। তাদের হাতে পলো, জাল ঠেলাজাল, ধর্মখরাসহ মাছ ধরার বিভিন্ন উপকরণ নিয়ে বিলের পাড়ে এসে হাজির হয়ে এক সঙ্গে মাছ ধরতে পানিতে নামে। তারা মাছ ধরার সময় বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকে। কেউ মাছ পেলে সবাই মিলে তাকে আরো উৎসাহ দিতে থাকে।

 

এদিনে মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে বিলপাড়ে বিস্কুট রুটি ও চায়ের দোকান নিয়েও বসেছে। মাৎস শিকারিদের কেউ কেউ পেয়েছে সোল, বোয়াল, রুই, গজার । আবার অনেকেই মাছ পায় নি। তবে প্রায় সবার মুখেই ছিল মাছ ধরতে আসতে পারায় আনন্দের ছোয়া।

শিশু, কিশোর, যুবক, বৃদ্ধসহ সব ধরণের হাজার হাজার শৌখিন মৎস শিকারিদের আনা গোনায় রহুল বিল ছিল কানায় কানায় পরিপূর্ণ।

জানা গেছে, ভাঙ্গুড়া উপজেলার পারভাঙ্গুড়া ইউপি ও পার্শ্ববর্তী চাটমোহর উপজেলার পার্শ্বডাঙ্গা ইউপির কিছু অংশ নিয়ে কয়েক হাজার একর জমি নিয়ে রয়েছে রুহুল বিল। বিশেষত বর্ষার পানি চলে যাওয়ার পর কয়েক শ’ একর জমিতে বিভিন্ন গভীরতায় পানি থাকে। সেখানে বর্ষার পানিতে আটকে থাকা বোয়াল, সোল, গজার, পুঁটি, সিং সহ দেশীয় প্রজাতির বিভিন্ন মাছ।

 

বছরের একটি নিদিষ্ট দিনে একে অন্যেরে সঙ্গে মোবাইল ফোন ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যোগাযোগ করে নাটোর, পাবনা, সিরাজগঞ্জ, টাঙ্গাইল থেকে বাস, ভটভটি, নছিমন যোগে ভোরে এই বিলে মাছ ধরার জন্য এসে হাজির হয়। এদিনে তাদের হাতে ধরা পড়ে নানা ধরণের মাছ। বেলা বাড়ার  সঙ্গে সঙ্গে মাছ শিকারির সংখ্যাও কমতে থাকে।

মাছ ধরতে আসা নাটোরের পঞ্চাশোর্ধ আলম হোসেন বলেন, এই দিনটিতে রহুল বিলে মাছ ধরার জন্য প্রতি বছর অপেক্ষা করে থাকি। লোক মুখে খবর পেয়ে মাছ ধরতে এসেছি।

টাঙ্গাইলের বাছের উদ্দীন বলেন, সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে মাছ ধরার খবর পেয়ে তারা একাধিক বাস রিজার্ভ করে পলো ও মাছ ধরার উপকরণ নিয়ে কয়েকশ শৌখিন মাৎস শিকারি মাছ ধরতে এসেছেন।

 

-খবর প্রতিদিন/ সি.বা 


আরও খবর



৫ কোটির বাড়ি, কোটি টাকার গাড়ি আছে দিশার

প্রকাশিত:Friday ০৫ August ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৪৬জন দেখেছেন
Image

বলিউড সেনশেসন দিশা পাটনির ক্যারিয়ার শুরু ২০১৫ সালে পুরি জগন্নাথ পরিচালিত তেলুগু ‘লোফার’ সিনেমার মধ্য দিয়ে। ২০১৮ সালে ‘বাগী ২’ ছবিতে নেহা রাওয়াত চরিত্রে অভিনয় করে আলোচনায় আসেন। এরপর আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি।

যদিও এর আগেই ‘এম.এস. ধোনি: দ্য আনটোল্ড স্টোরি’ ছবির মাধ্যমে বলিউডে তার অভিষেক হয়। বলিউডে প্রথম ছবি দিয়েই তিনি সাফল্যের শিখরে পৌঁছান। সালমান খানের সঙ্গে স্ক্রিন শেয়ার করেন ‘ভারত’ সিনেমায়ও। ২০২০ সালে একই বছর ‘মালাং’ ও ‘বাগী ৩’ ছবিতে বাজিমাত করেন দিশা।

এরইমধ্যে বাগী ২’র নায়ক টাইগার শ্রফের সঙ্গে তার ব্যক্তিগত জীবনে মন বিনিময়ের খবরও অনেকটা ওপেন সিক্রেট। টাইগার-দিশা অভিনয়ের পাশাপাশি নানা সময়ে প্রেমের সম্পর্ক নিয়েও আলোচনায় আসেন। বলা যায়, দিশা তার ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই টাইগারের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ান। যদিও ইদানিং তাদের সম্পর্কে ভাটা পড়েছে বলে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর খবর।

সে যা হোক, অর্ধযুগের ক্যারিয়ারে নিজের সিন্দুকটা কতটা ভারী করতে পেরেছেন দিশা, এ নিয়েও রয়েছে ভক্ত-দর্শকদের কৌতুহল। কত টাকার মালিক এ অভিনেত্রী? ব্যাংক-ব্যালেন্সইবা কী?

বলিউডে বেশি উপার্জন করা শীর্ষ ২০ জন অভিনেত্রীর মধ্যে দিশা পাটনির নাম রয়েছে। বর্তমানে ৮০ কোটি টাকার মালকিন তিনি। পারিশ্রমিক হিসাবে ছবি পিছু ছ’কোটি টাকা পর্যন্ত উপার্জন করেন দিশা। শুধু বড়পর্দাতেই নয়, দেশি বিদেশি বিভিন্ন নামী ব্র্যান্ডের বিজ্ঞাপন প্রচারের মুখও তিনি।

প্রতি মাসে ছটি বিজ্ঞাপনে কাজ করেন এ অভিনেত্রী। প্রতিটি বিজ্ঞাপনের জন্য তিনি নেন দেড় কোটি টাকা পর্যন্ত। ‘কেলভিন ক্লেইন’র ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর হিসাবে বহুল প্রচলিত হলেও ‘পেপসি’, ‘ম্যাক’, ‘অরেলিয়া’ প্রভৃতি ব্র্যান্ডের বিজ্ঞাপনেও অভিনেত্রী কাজ করেছেন।

jagonews24

বলিউডে প্রথম সিনেমার সাফল্যের পর মুম্বাইয়ের বান্দ্রায় পাঁচ কোটি টাকা মূল্যের একটি বিলাসবহুল বাড়ি কিনেছিলেন দিশা। মাঝেমধ্যেই তার ছবিতে বান্দ্রার বাড়ি দেখা যায়। এ ছাড়াও খার এলাকায় তিনি আরও একটি বিলাসবহুল অ্যাপার্টমেন্ট কিনেছেন। মুম্বইয়ের বিত্তশালীদের জন্য এই এলাকার নাম প্রচলিত। এই অ্যাপার্টমেন্ট কিনতে মোট ৫ দশমিক ৯ কোটি টাকা খরচ করেছেন অভিনেত্রী। ওই একই আবাসনে অভিনেত্রী রানি মুখার্জিও একটি অ্যাপার্টমেন্ট কিনেছেন বলে সূত্রের খবর।

দিশার শখ নামি ব্র্যান্ডের গাড়ি গ্রাউন্ডে রাখা। তার সংগ্রহে রয়েছে মার্সিডিজ থেকে শুরু করে জাগুয়ারের মতো বহু দামি গাড়ি। সম্প্রতি অভিনেত্রী তার সংগ্রহে এক কোটি টাকা মূল্যের রেঞ্জ রোভার স্পোর্ট যুক্ত করেছেন। এছাড়া তার সংগ্রহে রয়েছে ৪৯ দশমিক ৯৩ লাখ টাকার মার্সিডিজ সি-২০০, ৬৫ লাখ টাকা মূল্যের জাগুয়ার এফ-পেস। তবে অভিনেত্রী প্রথম কিনেছিলেন হন্ডা সিভিক গাড়িটি। বর্তমানে ভারতীয় মুদ্রা অনুযায়ী, এই গাড়িটির মূল্য প্রায় সাড়ে ২২ লাখ লাখ টাকা।

পছন্দের গাড়ি কেনা ছাড়াও দিশার আরও একটি শখ হলো ডিজাইনার ব্যাগ ব্যবহার করা। পোশাকের সঙ্গে মানানসই ডিজাইনে ব্যাগ ব্যবহার করতে দেখা যায় তাকে। তার সংগ্রহে পাঁচ লাখ টাকা দামের একটি শ্যানেল ব্যাগ রয়েছে।

জানা যায়, দিশা পাটনির মাসিক উপার্জন প্রায় এক কোটি টাকা। ফোর্বসের তথ্য, দিশার উপার্জনের পরিমাণ প্রতি বছর ছয় শতাংশ হারে বাড়ছে। শিশু কল্যাণ বিষয়ক সামাজিক কাজে দিশা তার পারিশ্রমিকের একটি অংশ দান করেন।


আরও খবর



‘ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে বিটিআরসি নিরলস কাজ করছে’

প্রকাশিত:Monday ২৫ July ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১৭ August ২০২২ | ৩০জন দেখেছেন
Image

ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন কমিশনের চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার।

সোমবার (২৫ জুলাই) বিকেলে বিটিআরসি থেকে প্রথমবারের মতো প্রকাশিত ত্রৈমাসিক (জানুয়ারি-মার্চ) নিউজলেটার ‘টেলিযোগাযোগ তথ্য কণিকা’র মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি। বিটিআরসির প্রধান সম্মেলন কক্ষে কমিশনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে মোড়ক উন্মোচন হয়।

এসময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিটিআরসি চেয়ারম্যান বলেন, প্রতি তিন মাস পর পর প্রকাশিত নিউজলেটারে কমিশন থেকে গৃহীত বিভিন্ন কার্যক্রম, অর্জন, সাফল্যের সংক্ষিপ্ত বিবরণ ও ভবিষ্যত কর্মপরিকল্পনার বিষয়াবলি তুলে ধরা হবে। এতে জনগণ ও খাতসংশ্লিষ্টরা টেলিযোগাযোগ খাতের সার্বিক কার্যক্রম ও অগ্রগতি সর্ম্পকে জানার সুযোগ পাবে।

তিনি আরও বলেন, বিটিআরসির থেকে প্রকাশিত ত্রৈমাসিক প্রকাশনা টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি খাতের অগ্রগতির হালনাগাদ তথ্যচিত্র এবং দৈনন্দিন জীবনে প্রযুক্তির ব্যবহার সর্ম্পকে সময়োপযোগী দিক নির্দেশনা দিতে সক্ষম হবে।

অনুষ্ঠানে অন্যদের উপস্থিত ছিলেন, কমিশনের ভাইস চেয়ারম্যান সুব্রত রায় মৈত্র, কমিশনার (ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড অপারেশনস) প্রকৈাশলী মো. মহিউদ্দিন আহমেদ, কমিশনার (লিগ্যাল অ্যান্ড লাইসেন্সিং) আবু সৈয়দ দিলজার হোসেন, মহাপরিচালক (প্রশাসন) মো. দেলোয়ার হোসাইন, মহাপরিচালক (সিস্টেমস অ্যান্ড সার্ভিসেস) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. নাসিম পারভেজ, মহাপরিচালক (স্পেকক্ট্রাম) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান জুয়েল, মহাপরিচালক (লিগ্যাল অ্যান্ড লাইসেন্সিং) আশীষ কুমার কুন্ডু, মহাপরিচালক (অর্থ, হিসাব ও রাজস্ব) প্রকৌশলী মো. মেসবাহুজ্জামান, সচিব (বিটিআরসি) মো. নূরুল হাফিজসহ আরও অনেকে।


আরও খবর



সারের কৃত্রিম সংকট তৈরি, তিন প্রতিষ্ঠানকে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা

প্রকাশিত:Tuesday ০২ August 2০২2 | হালনাগাদ:Wednesday ১৭ August ২০২২ | ৩২জন দেখেছেন
Image

সারের কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি ও পণ্যের মূল্য ভাউচার সংরক্ষণ না করার অপরাধে দিনাজপুরের হাকিমপুরে তিন কীটনাশক ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানকে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

মঙ্গলবার (২ আগস্ট) বিকেলে পৌরশহরসহ উপজেলার কয়েকটি বাজারে অভিযান চালিয়ে এ দণ্ড দেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নুরে আলম।

উপজেলার হরিহরপুর মিজান ট্রেডার্স ১০ হাজার, বোয়ালদাড় এ ইলিয়াস ট্রেডার্সকে ১০ হাজার এবং পৌরসভার জোয়ার্দার ট্রেডার্সকে ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেওয়া হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জানান, চলমান বিদ্যুৎ সমস্যায় ফায়দা হাসিলের উদ্দেশ্যে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী গ্রাহকের কাছ থেকে মূল্যের অতিরিক্ত অর্থ আদায় করছেন। কয়েকদিন থেকে এমন অভিযোগ আসায় ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে অভিযান চালানো হয়। এ সময় তিন কীটনাশকের দোকানে সারের কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি ও পণ্যের মূল্য ভাউচার সংরক্ষণ না করার অপরাধে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।


আরও খবর



উচ্চ রক্তচাপের কারণে খেলতেই পারলেন না বাংলাদেশের বক্সার

প্রকাশিত:Friday ২৯ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ১৫ August ২০২২ | ২২জন দেখেছেন
Image

ইংল্যান্ডের বার্মিংহামে শুরু হয়েছে ২২তম কমনওয়েলথ গেমস। বৃহস্পতিবার রাতে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের পর শুক্রবার থেকে শুরু হয়েছে প্রতিযোগীদের লড়াই। প্রথম দিনই বাংলাদেশের খেলা চার ডিসিপ্লিনে।

এর মধ্যে প্রথম হতাশার খবর পাঠিয়েছেন বক্সার সুরকৃষ্ণ চাকমা। এ সময়ের দেশের অন্যতম সেরা বক্সারের শুক্রবার খেলার কথা ছিল ফিজির প্রতিযোগীর বিপক্ষে। তবে সকালে তার রক্তচাপ বেড়ে যাওয়ায় খেলতেই পারেননি।

বার্মিংহাম থেকে বাংলাদেশ কন্টিনজেন্টের শেফ দ্য মিশন অ্যাডভোকেট আবদুর রকিব মন্টু জাগো নিউজকে বলেছেন, ‘খেলার আগে নিয়মমাফিক তার ফিজিক্যাল চেকের সময় অতিরিক্ত রক্তচাপ ধরা পড়ে। একটু পর রক্তচাপ স্বাভাবিক হলেও তাকে খেলতে দেওয়া হয়নি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে মেডিক্যাল চেকআপে উত্তীর্ণ না হতে পারায়।’


আরও খবর



জ্বালানির দাম ৮০ টাকার নিচে আনার দাবিতে অনশনে শিক্ষার্থী

প্রকাশিত:Thursday ১৮ August ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ১৩জন দেখেছেন
Image

জ্বালানি তেলের দাম ৮০ টাকার নিচে নামিয়ে আনতে তিনদিন ধরে অনশন করছেন মিরপুর বাঙলা কলেজের শিক্ষার্থী আল আমিন আটিয়া। দাবি পূরণ ও মৃত্যু না হওয়া পর্যন্ত অনশন চালিয়ে যাবেন বলে জানান তিনি।

বৃহস্পতিবার (১৮ আগস্ট) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে একটি মাদুরে বসে, সামনে কিছু ফেস্টুন নিয়ে অনশন পালন করতে দেখা যায় এ যুবককে।

জানা যায়, মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট) বেলা ১১টা থেকে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অনশন কর্মসূচি পালন করছেন আল-আমিন। টানা তিনদিন কিছু না খাওয়ায় তার শারীরিক অবস্থা ক্রমেই খারাপের দিকে। এমনকি শোয়া থেকে উঠে দাঁড়াতেও কষ্ট হচ্ছে তার।

আল-আমিন বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দাম বারবার নিম্নমুখী হওয়ার পরও আমাদের দেশে দাম বেড়েই চলছে। এ কারণে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম জনসাধারণের নাগালের বাইরে চলে গেছে।

তিনি আরও বলেন, করোনার সময় থেকেই দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে সাধারণ মানুষের জীবনে নাভিশ্বাস উঠে গেছে। সে রেশ না কাটতেই বিভিন্ন দোহাই দিয়ে বারবার নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বাড়ানো হচ্ছে। খরচ ব্যাপকভাবে বেড়ে যাওয়ায় সাধারণ শিক্ষার্থীদের পরিবারের পক্ষে পুষ্টিকর খাবার কেনা তো দূরের কথা, শিক্ষার স্বাভাবিক খরচ মেটাতেই হিমশিম খাচ্ছে।

এ শিক্ষার্থী বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে জ্বালানি তেলের দাম সমন্বয় করে লিটারপ্রতি ৮০ টাকার নিচে নামিয়ে আনতে হবে। প্রয়োজনে জনগণের ভ্যাট-ট্যাক্সের টাকা থেকে ভর্তুকি দিতে হবে।

‘রাষ্ট্রের কল্যাণে কাজ করার জন্য জনগণ যদি রাষ্ট্রকে ভ্যাট-ট্যাক্স দিতে পারে, তাহলে অবশ্যই রাষ্ট্রকে এ সিদ্ধান্ত নিতে হবে।’

জাতীয় প্রেস ক্লাবের নিরাপত্তারক্ষী হারুনুর রশীদ জাগো ‍নিউজকে বলেন, আল-আমিন তিনদিন ধরে কিছু খাননি। আমরা জোর করে পানি খাওয়াতে চাইলেও তিনি খাচ্ছেন না।


আরও খবর