Logo
আজঃ সোমবার ২৪ জুন 20২৪
শিরোনাম

পেরুতে ভয়াবহ বাস দুর্ঘটনা নিহত ২৪

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ২১২জন দেখেছেন

Image

আন্তর্জতিক ডেস্ক:পেরুতে ভয়াবহ বাস দুর্ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত ২৪ জন নিহত হয়েছে। দেশটির কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে আজ মঙ্গলবার এ তথ্য জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাসটি আয়াচুচো থেকে দেশটির উত্তরে যাচ্ছিল। গতকাল সোমবার স্থানীয় সময় রাত দেড়টায় পাহাড়ি রাস্তা থেকে খাদে পড়ে যায়। স্থানীয় মিডিয়ার খবরে বলা হয়েছে, বাসটি হুয়ানকাভেলিকা এলাকায় দুর্গম পাহাড়ি ভূখণ্ডে আছড়ে পড়ার সময় বেশ কয়েকবার উল্টে যায়।

আঙ্কো জেলার মেয়র ম্যানুয়েল জেভালোস পাচেচো আরপিপি সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, বাসটি অন্তত ১৫০ মিটার নিচে পড়ে যায়। আঞ্চলিক গভর্নর জানান, আহত ১১ জন যাত্রীকে হুয়ান্তা সাপোর্ট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।তবে লা রিপাবলিকা পত্রিকার খবরে বলা হয়েছে, দুর্ঘটনায় অন্তত ৩৬ জন আহত হয়েছে। 

পেরুর পরিবহত কর্তৃপক্ষ হতাহতদের পরিবারের প্রতি শোক প্রকাশ করেছে। সেইসঙ্গে কী কারণে দুর্ঘটনা ঘটেছে তা খতিয়ে দেখার অঙ্গীকার করেছে। 


আরও খবর



ভারী বৃষ্টিতে ডুবল সিলেট, ম্লান ঈদ আনন্দ

প্রকাশিত:সোমবার ১৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৯৯জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:ঈদের দিন ভোর থেকে সাড়ে ৪ ঘণ্টার ভারী বৃষ্টিতে তলিয়ে গেছে মহানগরসহ সিলেট জেলার বিভিন্ন উপজেলার ঈদগাহ ও সড়ক। পাহাড়ি ঢলে বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে সুরমা ও কুশিয়ারা নদীর পানি। প্রায় ৬ লাখ মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। এতে ঈদুল আজহার আনন্দ অনেকটাই মাটি হয়েছে। বৃষ্টির পানিতে ঈদগাহ ও মসজিদ ভেসে যাওয়ায় অনেকে ঈদের নামাজ আদায় করতে পারেননি। এমনকি পশু কোরবানি করা নিয়েও অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে।

সোমবার দেশের বিভিন্ন জেলায় ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস ছিল। এদিন সিলেটে ভোর ৪টা থেকে সকাল সাড়ে ৮টা পর্যন্ত টানা বর্ষণ চলে।

সরেজমিনে দেখা যায়, নগরীর প্রধান প্রধান সড়কের উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। অনেকের বাসাবাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে পানি ঢুকেছে। আবার শুকনা স্থান না পাওয়ার ফলে অনেকেই কোরবানির গরু-ছাগল পানির মধ্যে বেঁধে রেখেছেন। এ ছাড়া জেলার বিভিন্ন উপজেলায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে।

ইতোমধ্যে বন্যা আক্রান্তদের জন্য ৪৪৯টি আশ্রয়কেন্দ্র খোলা হয়েছে। জানা গেছে, আজ সকাল পর্যন্ত কোম্পানীগঞ্জ, গোয়ানঘাট, কানাইঘাটসহ কয়েকটি উপজেলায় ১০ হাজারের মতো মানুষ আশ্রয়কেন্দ্রে উঠেছেন।

এদিকে সকাল ৮টায় ভারী বৃষ্টি মাথায় নিয়েই শাহী ঈদগাহে সিলেটে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিবছর এই জামাতে লক্ষাধিক মুসল্লি অংশ নিলেও এবার ব্যতিক্রম ছিল। শুধু শাহী ঈদগাহ নয়, প্রতিটি মসজিদ ও ঈদগাহের একই অবস্থা ছিল। সকাল ৮টায় পুলিশ লাইন জামে মসজিদে পানি প্রবেশ করায় একাংশে নামাজ আদায় করতে দেখা গেছে মুসল্লিদের।

একইভাবে মেজরটিলা, কদমতলী, বিমানবন্দর সড়ক, উপশহর, সুবহানিঘাটসহ বেশ কয়েকটি এলাকার ঈদগাহ ও মসজিদে পানি প্রবেশ করায় নামাজ আদায়ে ব্যাঘাত ঘটে।


আরও খবর



ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে চেয়ারম্যান সহ ১২ সদস্যের অনাস্থা

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৩১৯জন দেখেছেন

Image

মোঃ আব্দুল হান্নান, নাসিরনগর,ব্রাহ্মণবাড়িয়া:- ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার  নাসিরনগর উপজেলার কুন্ডা ইউনিয়ন পরিষদের ৩ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য  হীরন মোল্লার  বিরুদ্ধে অনাস্থা কার্যকরের দাবি জানিয়েছেন ইউপি চেয়ারম্যান সহ  পরিষদের ১২  সদস্য,নাসিরনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন।


লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, হিরন মোল্লা একজন সন্ত্রাসী ও সক্রিয় চোর, ডাকাত দলের সদস্য। তার বিরুদ্ধে থানায় একাধিক চুরি -ডাকাতির মামলা রয়েছে।

ইউপি সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে সে বিভিন্ন সময় নির্বাচিত  চেয়ারম্যান ও সদস্যদের সাথে অসদাচরন করে আসছেন।


ঘটনার দিন বৃহস্পতিবার ২৩ মে ২০২৪ দুপুরে পরিষদের সভা শুরুর পর উপস্থিত চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্যদের সম্মুখে কুন্ডা ইউনিয়নের ৭,৮,৯ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত ইউপি সদস্য জাকিয়া খাতুনের সাথে বাক বিতন্ডা শুরু করে। এ সময় অন্যরা তাকে থামাতে  চাইলে, সে আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। এক পর্যায়ে সবার সম্মুখে সংরক্ষিত  ইউপি সদস্য জাকিয়া খাতুন কে হত্যার উদ্দ্যশ্যে মারধর করে গুরুতর জখম করে।


প্রাথমিক চিকিৎসা জন্য তাকে নাসিরনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

পরবর্তীতে এই ঘটনার রেশ ধরে মো. হিরন মোল্লা কুন্ডা ইউপির চেয়ারম্যান নাসির উদ্দিন ভূঁইয়া কে হত্যার হুমকি প্রদান করে পরিষদ ত্যাগ করেন।


এ ঘটনার প্রতিবাদস্বরূপ ইউপি সদস্য হিরন মোল্লা'র  বিরুদ্ধে অনাস্থা আনাসহ তার অপসারণ দাবি করে কুন্ডা ইউপি চেয়ারম্যান এডঃ মোঃ নাছির উদ্দিন ভূঁইয়া সহ সংরক্ষিত আসনের  ইউপি সদস্য মোছা. তাহেরা বেগম, মোছা. তাছলিমা বেগম,জাকিয়া খাতুন, জজ মিয়া,শাহাজাহান মিয়া,সুশান্ত দাশ,কাইযূম মিয়া,মো. জিল্লুর রহমান,নবী হোসেন,আজিজুর রহমান ভূঁইয়া ও মোঃজামাল মিয়া।


অভিযুক্ত ইউপি সদস্য হিরন মোল্লার সাথে বেশ কয়েকবার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও  তিনি ফোন ধরেনি।

এ বিষয়ে মোবাইল  ইউপি সদস্য এডঃ মোঃ নাসির উদ্দিন ভূঁইয়া'র সাথে কথা বলে জানতে চাইলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন।

  -খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



৫% মুক্তিযোদ্ধা কোটা/বিনাবেতনে অধ্যয়নে সব বেসরকারি কলেজে চিঠি দিলেন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্ম সভাপতি তুষার

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১৫৭জন দেখেছেন

Image

কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধিঃনটরডেম, আদমজী ও ভিকারুননিসা-সহ সব বেসরকারি কলেজে মুক্তিযোদ্ধা কোটা অনুসরণ করাতে চায় মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্ম, কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের সভাপতি অহিদুল ইসলাম তুষার। এজন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি নীতিমালা-২০২৪ অনুযায়ী চলতি শিক্ষাবর্ষ থেকে যথাযথ ভাবে ৫% মুক্তিযোদ্ধা কোটা অনুসরণ এবং শিক্ষা ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের পরিপত্র বা আদেশ অনুযায়ী ভর্তিকৃত মুক্তিযোদ্ধা কোটার প্রার্থীদের বিনাবেতনে অধ্যয়নের বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে প্রাথমিক ভাবে দেশসেরা নিম্নোক্ত ১৫ বেসরকারি নটরডেম কলেজ,আদমজী ক্যান্টনমেন্ট কলেজ, ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজ, ভিকারুননিসা নূন স্কুল এন্ড কলেজ,হলি ক্রস কলেজ, সেন্ট যোসেফ হায়ার সেকেন্ডারি স্কুল, রাজউক উত্তরা মডেল কলেজ, মাইলস্টোন কলেজ, আইডিয়াল কলেজ,নৌবাহিনী কলেজ, ন্যাশনাল আইডিয়াল কলেজ,ঢাকা সিটি কলেজ,বিএএফ শাহীন কলেজ,নটরডেম কলেজ ময়মনসিংহ, শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম কলেজ,ময়মনসিংহকে ২৩ মে ২০২৪ ইং বৃহস্পতিবার চিঠি দেন “মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্ম, কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের সভাপতি অহিদুল ইসলাম তুষার”।

 তিনি সাংবাদিকদের বলেন, চলতি শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে ৫% মুক্তিযোদ্ধা কোটা অনুসরণ এবং বিনা বেতনে অধ্যয়নের সুবিধা দিতে প্রাথমিক ভাবে ১৫টি বেসরকারি কলেজকে চিঠি দিয়ে অবহিত করেছি এবং পর্যায়ক্রমে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে দেওয়া হবে। যদি কর্তৃপক্ষ যথাযথ ভাবে ৫% মুক্তিযোদ্ধা কোটা অনুসরণ এবং বিনাবেতন অধ্যয়নের সুযোগ প্রদান না করে থাকে তাহলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে উক্ত প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে নিবন্ধন বাতিলের জন্য আবেদন করবো। অপর এক প্রশ্নের জবাবে অহিদুল ইসলাম তুষার বলেন, একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি নীতিমালা-২০২৪ এর ৩.২ অনুচ্ছেদে যথাযথ ভাবে সরকারি ও বেসরকারি কলেজে ৫% মুক্তিযোদ্ধা কোটা অনুসরণের কথা বলা হয়েছে এবং ২০০৫ সালে শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও ২০০৮/ ২০২৩ সালে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের একাদিক আদেশে ৫% কোটা ও বিনা বেতনে অধ্যয়নের কথা বলা হয়েছে কিন্তু দীর্ঘদিন ধরেই বেসরকারি স্কুল ও কলেজ কর্তৃপক্ষ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারকে সুযোগ সুবিধা দিতে অনিহা, তারা এ সংস্কৃতি থেকে অনেক দূরে। চলতি শিক্ষাবর্ষ থেকে একাদশ শ্রেণিতে ৫% মুক্তিযোদ্ধা কোটা যথাযথ ভাবে অনুসরণ করছে কিনা দেশের প্রতিটি জেলা - উপজেলার বীর মুক্তিযোদ্ধা / সন্তান ও প্রজন্মকে খোঁজ খবর রাখার অনুরোধ করেন অহিদুল ইসলাম তুষার এবং কোথাও যদি তার ব্যত্যয় ঘটে তাহলে মাননীয় শিক্ষা মন্ত্রী এবং শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মহোদয় বরাবর কলেজের অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করার অনুরোধ করেন তিনি ।নিশ্চিত মৃত্যু জেনেও মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেওয়া বীর মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যদের রাষ্ট্র প্রদত্ত সুবিধা দিতে অনিহা দুঃখজনক এবং রাষ্ট্রের আইনকানুন নীতিমালা না মেনে যেসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চলছে তাদের বিরুদ্ধে এবার লিখিত অভিযোগ দিবো , মি. অহিদুল ইসলাম তুষার যোগ করেন।

আরও খবর



ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সরকারি চাকরির শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ পরিসংখ্যান সহকারীর বিরুদ্ধে

প্রকাশিত:শনিবার ১৫ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | ৭৭জন দেখেছেন

Image

স্টাফ রিপোর্টার:ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সরাইল উপজেলার শোলাবাড়ি গ্রামের মৃত শাহজাহান মিয়ার ছেলে বদিউজ্জামান বাদল ওরফে মোঃ বাদল মিয়া (৪২) এর বিরুদ্ধে সরকারি চাকরি শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ করেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার  মো: ফয়সাল হোসেন।

দূর্নীতি দমন কমিশন ও জন প্রশাসন মন্ত্রনালয়ে করা অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, মোঃ বাদল মিয়া বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো এর ব্রাহ্মণবাড়িয়া কার্যালয়ের পরিসংখ্যান সহকারী পদে চাকরিতে কর্মরত আছে। বাদল মিয়া রাজনীতি করে পূর্ব থেকেই। সে চাকরি পাওয়ার পরেও পূর্বের ন্যায় রাজনীতিতে সক্রিয় আছে। রাজনীতির সকল অনুষ্ঠানে সে সবসময় উপস্থিত থাকে। যে কোন নির্বাচনে বাদল মিয়া সরাসরি কোন প্রার্থীর পক্ষে নিয়ে নির্বাচনের মাঠে ভোট নিয়ে প্রার্থীর পক্ষে কাজ করে। ভোটারদের কাছে ভোট চায়।

সম্প্রতি বাদল মিয়া পানিশ্বর ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করবে বলে প্রচার করতাছে। সে তার শুভাকাঙ্ক্ষীদেরকে দিয়ে ফেইসবুকে এ বিষয়ে পোস্ট দেওয়াচ্ছেন। আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন বলে ঘোষণা করেছেন।

অভিযোগ, বাদল মিয়া চাকরি করে অবৈধভাবে অঢেল সম্পদের মালিক হয়েছেন। বাদল মিয়ার ফেইসবুক আইডি ঘুরলে দেখা যায় সে বর্তমানে রাজনীতিতে সক্রিয় ভাবে জড়িত আছে। নির্বাচনে ভোটারদের কাছে প্রার্থীর জন্য ভোট চাচ্ছেন। আগামী নির্বাচনে ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করবে প্রচার করছেন ফেইসবুকে।

সরকারি কর্মচারী ( আচরণ) বিধিমালা – ১৯৭৯ এর ২৫ নম্বর ধারা অনুযায়ী কর্মকর্তা – কর্মচারীরা কোন রাজনৈতিক দল বা অঙ্গসংগঠনের সদস্য হতে পারবে না। রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ বা কোনো ধরনের সহায়তা করতে পারবে না।২০০৮ সালের সংসদ নির্বাচনে রাজনৈতিক দল ও প্রার্থীর আচরণ বিধিমালায় ও সরকারি চাকরিজীবীদের ভোটের প্রার্থীর অংশগ্রহণ বা সহায়তা করার বিষয়ে নিষেধ রয়েছে। এছাড়া নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের` গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ `- এর ২০২১ সালের ২৮ জুন জারি করা প্রজ্ঞাপনের(চ) ধারায় বলা হয়েছে, সরকারি চাকরি থেকে অবসরের পর তিন বছর পর না হওয়া পর্যন্ত কোনো সরকারি কর্মকর্তা – কর্মচারী কোনো ধরনের নির্বাচন বা রাজনৈতিক দলের সদস্য নির্বাচিত হতে পারবেন না।

এ বিষয়ে, সুশাসনের জন্য নাগরিকের (সুজন) সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার বলেন, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের এমন আচরণ চাকরিবিধির সুস্পষ্ট লঙ্ঘন। তাঁরা জনগণের কাছ থেকে বেতন-ভাতা পেয়ে থাকেন এবং তাঁরা কোনো দলের কর্মী নন।

এ বিষয়ে মোবাইল ফোনে বাদল মিয়ার সাথে কথা বলে জানতে চাইলে,তিনি বলেন একজনের ব্যাক্তি পছন্দ থাকতেই পারে।অনেক সরকারী কর্মকর্তা কর্মচারীর ফেসবুকেই এমন পোষ্ট দেখতে পাবেন।চেয়ারম্যানের বিষয় হয়তো আমার শুভাকাঙ্খিরা পোষ্ট করেছেন।তবে এমন সিদ্বান্ত নিলে চাকুরী ছেড়েই নেব বলে জানান বাদল মিয়া।

      -খবর প্রতিদিন/ সি.ব

আরও খবর



হামিদপুর ইউনিয়নে বাল্যবিবাহ

প্রকাশিত:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ২১জন দেখেছেন

Image

আফজাল হোসেন, ফুলবাড়ী, দিনাজপুর প্রতিনিধি:দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুর উপজেলার ৯নং হামিদপুর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের শাহাগ্রামে নাবালক পুত্র আরহাম আল মুক্তাক্তীর বাল্য বিবাহ হয়। পার্বতীপুর উপজেলার ৯নং হামিদপুর ইউপির শাহাগ্রামের মোঃ গোলাম রব্বানীর পুত্র আরহাম আল মুক্তাক্তীর সাথে বগুড়া জেলার ধুনট উপজেলার চৌকিবাড়ী গ্রামের মোঃ রফিকুল ইসলামের কন্যা মোছাঃ রাফিয়া নূর নিলা এর সাথে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক এর মাধ্যমে পরিচয় হলে তাকে সেখান থেকে গত ১৮/০৬/২০২৪ ইং তারিখে পালিয়ে এলে আরহাম আল মুক্তাক্তীর পিতা মোঃ গোলাম রব্বানীর উপস্থিতিতে গত ২০/০৬/২০২৪ইং তারিখে কোট এফিডেভিটের মাধ্যমে পুত্রকে বিবাহ দেন। উল্লেখ্য যে, পুত্র মোঃ আরহাম আল মুক্তাক্তীর জন্ম তারিখ- ০৯/০৭/২০০৮ইং। তার বর্তমান বয়স ১৫ বছর ১১ মাস ১৪দিন। তার এখনও পরিপূর্ণ বিবাহের বয়স হয়নি। সেদিকে লক্ষ্য রেখে ঐ বিবাহ বাল্য বিবাহ হয়। মেয়ের বয়স দেখা যায় যে, জন্ম তারিখ ১৭/০৬/২০০৬ইং তারিখ থেকে বর্তমান বয়স ১৮ বছর ০০ মাস ০৬ দিন। এই বিবাহটি একেবারে বাল্য বিবাহের মধ্যে পড়ে। এই ঘটনায় নাবালকের পুত্রের বাবা বাল্য বিবাহ কিভাবে দেয় এলাকাবাসীর প্রশ্ন? ২০১৭ সালের বাল্য বিবাহ নিরোধ আইনে ৭(১) ও ৮ ধারামতে শাস্তিযোগ্য অপরাধ করেছে। এই ঘটনায় এলাকাবাসী দিনাজপুর জেলা প্রশাসকের কাছে বাল্য বিবাহ রোধ কল্পে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির প্রতিকার চেয়ে আবেদন করেছেন। এ ব্যাপারে এলাকাবাসী তদন্তস্বাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে আইন প্রয়োগ কারী সংস্থার হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।


আরও খবর