Logo
আজঃ বুধবার ১৯ জুন ২০২৪
শিরোনাম

Peace is elusive in Myanmar; the international community must act now

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ৫৩৬জন দেখেছেন

Image

NORTH SOUTH UNIVERSITY

Public Relations Office

Press Release

 


Date: 31 January 2023

 

Peace is elusive in Myanmar; the international community must act now

 

Dhaka, 31 January 2023: Two years after a military coup in Myanmar, prospects for a return to peace remain bleak as the military has shown no sign of relenting and has instead doubled down on its efforts to continue its rule. “Unless the international community can pressure the military to relinquish power, the prospects for peace and democracy in Myanmar remain dim” it was observed duringthe seminar.

 

Held at Syndicate Hall of North South University, the seminar on ‘Restoring Peace in Myanmar: Two Years after the Military Coup’ was organized by the Center for Peace Studies (CPS) of the South Asian Institute of Policy and Governance, NSU. Moderated by Dr. IshratZakia Sultana,  Assistant Professor of Political Science and Sociology Department, the seminar was addressed by Ambassador and former Foreign Secretary, ShahidulHaque, Professorial Fellow at SIPG, SIPG Senior Fellow and former Election Commissioner Brig. Gen. Dr. M. SakhawatHussain, a Faculty of the University of Sultan ZainalAbidin (UniSZA), Malaysia Dr. MahbubulHaque, and President of Rohingya Intellectual Community Australia and Chair of Foreign Affairs of ArakanRohingya National Organization Dr. HlaMyint.Prof. Dr. ZawWaiSoe, Minister of Health and Education, NUG of Myanmar has joined the program.

 

Brig. Gen. Dr. M. SakhawatHussain said that Rohingya crisis is already creating internal security threats and Bangladesh could become a hotbed in the future if the situation turns into a regional conflict involving India-China-the USA.

 

Observing that the country never experienced democracy in the past, Professor Shahidul urged for concerted efforts of international agencies to help various groups fighting for democracy in Myanmar.

 

Dr. MahbubulHaque suggested Myanmar democracy activists to include Rohingya issue in their ongoing movement.

 

Dr. Zaw, addressing the issue of Rohingya crisis said, “Rohingya is our people.” He further added the National Unity Government (NUG) will solve the Rohingya conflict.

 

Dr. HlaMyint said, “We the Rohingya, are the most persecuted people in the world. Leaders of the Rohingya community determine a point that it will be in the best interest of the Rohingya community to solve the Rohingya issue by unity. Therefore we have formed ArakanRohingya Alliance. The primary objective of it is to seek the right to self-determination and reach out to international actors for the interest of the Rohingya people globally and locally.”

 

Speakers accused the Myanmar military of committing human rights abuses, including extrajudicial killings, arbitrary arrests, and the use of torture. In addition, the military imposed an internet shutdown, curtailed press freedom, and conducted mass arrests of political dissidents.

 

With no end to the military’s rule, the people of Myanmar are facing an uncertain future; the discussants observed and urged the international community to take urgent action to ensure that the country can return to democracy and the rule of law and that human rights of its citizens are respected.

 

Professor Sk. Tawfique M. Haque, Director, South Asian Institute of Policy and Governance (SIPG), NSU delivered the concluding speech.

 

 

Contact:

Public Relations Office, North South University (NSU)

Dr. S.M RezwanUlAlam, Associate Professor &Director, PR Office. Phone: +8801713065012, [email protected]

Asif Bin Ali, Lecturer &Deputy Director, PR Office. Phone: +8801317531410, [email protected]

Farzana Haque, Public Relations Officer, PR Office. Phone: +8801816390519, [email protected]

 =


আরও খবর



মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ রাখাই চ্যালেঞ্জ : প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | ৮৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০২৪-২৫ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে রাখাকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে বর্ণনা করেছেন।

শুক্রবার (৭ জুন) বিকেলে তেজগাঁও জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে ঐতিহাসিক ৬ দফা উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সব থেকে বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে রাখা। বিশেষ করে খাদ্য মূল্য, সেখানে উৎপাদন এবং সরবরাহ বৃদ্ধি করতে হবে। বৃষ্টির কারণে যেমন আলুর বীজ নষ্ট হয়ে গেছে, তো এই রকম অনেক কিছুই আছে। আমরা এখনও উৎপাদনমুখী হলে খাদ্যে কোনো দিন অভাব হবে না। বিশ্ব পরিস্থিতি মাথায় রেখে আমাদের পরিকল্পনা নিয়ে চলতে হবে।

বাজেটে এবার মৌলিক চাহিদাকে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা বৃহস্পতিবার বাজেট দিয়েছি, বিএনপির আমলে সবশেষ বাজেট মাত্র ৬২ হাজার কোটি টাকার ছিল। আর তত্ত্বাবধায়ক সরকার দিয়েছিল ৬৮ হাজার কোটি টাকার, সেখানে আমরা ৭ লাখ ৯৮ হাজার কোটি টাকা বাজেট প্রস্তাব করেছি।

তিনি বলেন, এই বাজেটে মানুষের মৌলিক যে অধিকার, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, খাদ্য তারপর দেশীয় শিল্প, সেগুলো এবং সামাজিক নিরাপত্তা, এসব বিষয়কে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। যা মানুষের জীবনকে উন্নত করবে, নিশ্চয়তা দেবে। তার কারণ হচ্ছে, আমরা এগিয়ে যাচ্ছিলাম, কোভিড ১৯ এর অতিমারি দেখা দিয়েছিল, এই অতিমারির ফলে সারা বিশ্বে অর্থনৈতিক মন্দা হয়েছে, আমরাও সেই মন্দায় পড়ে গেলাম। সারা বিশ্বে প্রতিটি জিনিসের দাম বেড়ে গেল। এরপর আসল ইউক্রেন রাশিয়ার যুদ্ধ, এরপর স্যাংশন পাল্টা স্যাংশন, ফলে প্রত্যেকটা জিনিসের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে।

সরকারপ্রধান বলেন, আমাদের মানুষকে খাওয়াতে হবে আগে। রিজার্ভ কত আছে না আছে, সেটার চেয়ে বেশি দরকার আমার দেশের মানুষের চাহিদাটা পূরণ করা। সেদিকে লক্ষ্য রেখে আমরা পানির মতো টাকা খরচ করেছি। বাংলাদেশ একমাত্র দেশ যেটা কোনো উন্নত দেশ করেনি, বিনা পয়সায় কোভিড ১৯ এর ভ্যাকসিন দিয়েছি, বিনা পয়সায় টেস্ট করিয়েছি। সেটা করেছি কেন? মানুষকে বাঁচাতে।

মানুষের চাহিদা পূরণের ভাবনা থেকেই এই বাজেট দেওয়া হয়েছে উল্লেখ করে সরকারপ্রধান বলেন, অনেকে বসে বসে হিসাব কষে, আগে এত পার্সেন্ট বেড়েছে এবার কম পার্সেন্ট বাড়ল কেন? এখন সীমিতভাবে আমরা এগিয়ে যেতে চাই। যাতে আমাদের দেশের মানুষের কষ্ট না হয়। মানুষের যে চাহিদা সেটা যেন পূরণ করতে পারি, সেদিকে লক্ষ্য রেখেই আমরা বাজেট করেছি।

তিনি আরও বলেন, যেহেতু মূল্যস্ফীতি বেড়েছে, নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য আমরা পারিবারিক কার্ড করে দিয়েছি। যারা একেবারে হতদরিদ্র তাদের তো একেবারে বিনা পয়সায় খাবার দিচ্ছি। আর সামাজিক নিরাপত্তা তো বিনা পয়সায় দিয়ে যাচ্ছি।


আরও খবর



আফতাবনগরে বসানো যাবে না গরুর হাট

প্রকাশিত:সোমবার ০৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | ৮৮জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:রাজধানীর আফতাবনগরে গরুর হাট পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষ্যে বসানোর সিটি করপোরেশনের সিদ্ধান্ত স্থগিত করে হাইকোর্টের দেওয়া আদেশ বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগ। ফলে আসন্ন ঈদে আফতাবনগরে গরুর হাট বসানো যাবে না বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

সোমবার (৩ জুন) প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বে চার বিচারপতির আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে রিটের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট শাহ মঞ্জুরুল হক ও অ্যাডভোকেট এস এম শামীম হোসাইন। হাটের ইজারাদার নুরুল ইসলামের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার আজমালুল হোসেন কিউসি।

পরে আইনজীবী অ্যাডভোকেট শাহ মঞ্জুরুল হক ও অ্যাডভোকেট এস এম শামীম হোসাইন বলেন, আফতাবনগর পরিকল্পিত আবাসিক নগরী। এ বিবেচনায় আপিল বিভাগ হাইকোর্টের আদেশ বহাল রেখেছেন।

এর আগে গত ৮ মে পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষ্যে রাজধানীর আফতাবনগরে গরুর হাট বসানোর ইজারার বিজ্ঞপ্তি স্থগিত করেন হাইকোর্ট। বিচারপতি নাইমা হায়দার ও বিচারপতি কাজী জিনাত হকের হাইকোর্ট বেঞ্চ রুলসহ এ আদেশ দেন।

আফতাবনগর আবাসিক এলাকায় হওয়ায় আদালত এ আদেশ দেন। পরে এ আদেশের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে আবেদন করেন হাটের ইজারাদার নুরুল ইসলাম।

এর আগে আফতাবনগরে গরুর হাট বসানোর সিদ্ধান্ত চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট করেন জহুরুল ইসলাম সিটি সোসাইটির সভাপতি মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন ঢালী ও সাধারণ সম্পাদক এস এম কামাল।

গত ৪ এপ্রিল ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা ঈদুল আজহা ২০২৪ উপলক্ষ্যে কোরবানির পশুর হাট বসানোর জন্য ইজারা বিজ্ঞপ্তি দেন। ওই বিজ্ঞপ্তি চ্যালেঞ্জ করে রিট করা হয়।

রিটে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় সচিব, ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনসহ সংশ্লিষ্টদের বিবাদী করা হয়।

স্থানীয় সরকার (সিটি করপেরেশন) ২০০৯ আইনের ধারা ৩ (২) ও ১ম তফসিল অনুযায়ী আফতাবনগর (ইস্টার্ন হাউজিং) বাড্ডা থানার ৩৭ নং ওয়ার্ড অধীন, যা ঢাকা নর্থ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) অন্তর্ভুক্ত।


আরও খবর



ফুলবাড়ীতে বোর ধান সংগ্রহে কৃষক নির্বাচন উপলক্ষে উন্মুক্ত লটারি অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | ৯৩জন দেখেছেন

Image

আফজাল হোসেন, ফুলবাড়ী, দিনাজপুর প্রতিনিধি:দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলা সভাকক্ষে অভ্যন্তরিন বোর ধান সংগ্রহ ২০২৪ মৌসুমে কৃষক নির্বাচন উপলক্ষে উন্মুক্ত লটারি অনুষ্ঠিত। 

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টায় ফুলবাড়ী উপজেলা সভাকক্ষে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মীর মোঃ আল কামাহ তমাল এর সভাপত্বিত্বে কৃষক নির্বাচন উপলক্ষে উন্মুক্ত লটারি অনুষ্ঠিত হয়। উন্মুক্ত লটারিতে কৃষক নির্বাচন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, ফুলবাড়ী উপজেলা খাদ্যগুদামের খাদ্য পরিদর্শক ও ভারপ্রাপ্ত কর্মকতা মাহমুদ মোঃ ইমরান, খাদ্য পরিদর্শক মোঃ নাসিম আল আকতার সহ স্থানীয় কৃষকগণ উপস্থিত ছিলেন। চলতি বছর ইরি বোর ধান সংগ্রহে ৬৭৯৫ জনের আবেদন গ্রহণ করা হয়। বরাদ্দ্য রয়েছে ১ হাজার ৪শত ৪৪টন। এবার সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে লটারীর মাধ্যমে ইরি বোর ধান ক্রয় করা হবে। পরিশেষে একজন কৃষক এর মাধ্যমে লটারীর টোকন উত্তোলন করা হয়। এসময় প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রিক মিডিয়ার সাংবাদিক বৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। আয়োজনে ছিলেন সংগ্রহ ও মনিটরিং কমিটি ফুলবাড়ী, দিনাজপুর।


আরও খবর



জয়পুরহাটে সাংবাদিকদের তিন দিন ব্যাপী মোবাইল জার্নালিজম প্রশিক্ষণ শুরু

প্রকাশিত:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | ১৪৩জন দেখেছেন

Image
এস এম শফিকুল ইসলাম,জয়পুরহাট প্রতিনিধিঃসাংবাদিকদের মোবাইল ডিভাইস ব্যবহার করে প্রতিবেদন তৈরির পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষ্য নিয়ে আজ বুধবার থেকে শুরু হয়েছে তিন দিন ব্যাপী মোবাইল জার্নালিজম ট্রেনিং।

সরকারের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের অধীন প্রেস ইন্সটিটিউট বাংলাদেশ (পিআইবি) ওই প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেছে। জয়পুরহাট সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আয়োজিত তিন দিন ব্যাপী প্রশিক্ষণের উদ্বোধন করেন সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এস এম সোলায়মান আলী। পিআইবির প্রশিক্ষক মোহাম্মদ শাহ আলমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ডেফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সহযোগী অধ্যাপক ড. জামিল খান।

প্রশিক্ষণে সাংবাদিকরা মোবাইলে কনটেন্ট সংরক্ষণ ও তথ্য যাচাইকরণ, মোবাইল ক্যামেরার ফ্রেমিং এবং ভিডিও ধারণের ব্যবহারিক কৌশল সম্পর্কে ধারণা লাভ করতে সক্ষম হবেন।
জেলার দায়িত্ব পালন করা মূল স্ট্রিমের ৩০ জন সাংবাদিক ওই প্রশিক্ষণে অংশ গ্রহণ করছেন।

আরও খবর



হোমনা উপজেলা পরিষদ নির্বাচন, কেন্দ্র দখলের চেষ্টা পুুলিং এজেন্টসহ ২ জনের জরিমানা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৬ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ৫৪জন দেখেছেন

Image

শাজু, হোমনা (কুমিল্লা) প্রতিনিধি:কুমিল্লার হোমনায় চতুর্থ পর্যায়ে ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে বিভিন্ন কেন্দ্রে অধিপত্য বিস্তার ও কেন্দ্র দখলের চেষ্টা করেছে চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান পদের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর সমর্থকেরা। বেলা দুইটার দিকে উপজেলার জয়পুর ইউনিয়নের পূর্ব কাশিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দায়িত্বরত একজন পুলিং এজেন্ট ও তার বাবাকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে জরিমানা করা হয়। জরিমানপ্রাপ্তরা হলেন পুলিং এজেন্ট মো. আনোয়ার হোসেন; তাকে পনেরো হাজার টাকা জরিমানা করে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয় এবং তার বাবা মো. ধনু মিয়াকেও দশ হাজার টাকা জরিমান করা হয়। 

জানা যায়, ওই কেন্দ্রের ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর তালা প্রতীকের পুলিং এজেন্ট মো. আনোয়ার হোসেন বারবার বাইরে যেতে চাইলে ওই কক্ষের পুলিং অফিসার তাকে বারণ করেন। এতে তিনি উত্তেজিত হয়ে তার সঙ্গে তর্কাতর্কি শুরু করেন। এক পর্যায়ে কেন্দ্রের বাইরে থেকে তার বাবা ধনু মিয়া লোকজন নিয়ে কেন্দ্রে প্রবেশ করে জবর দখলের চেষ্টা চালায়। এতে পুলিং অফিসার মোরশিদা বেগম হাতে আঘাত পান। এমতাবস্থায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটসহ আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর মোবাইল টিম ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে আনোয়ার হোসেন ও তার পিতা ধনু মিয়াকে আটক করা হয়। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে পুলিং এজেন্ট আনোয়ার হোসেনকে তার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দিয়ে ১৫ হাজার টাকা এবং তার বাবা ধনু মিয়াকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। এসময় ভোটাররা হুড়োহুড়ি করে দিকবিদিক চলে গেলে কিছুক্ষণের জন্য ভোটগ্রহণ থেমে যায়। 

এ ব্যাপারে প্রিজাইডিং অফিসার মো. মহসিন বলেন, তালা প্রতীকে পুলিং এজেন্ট আনোয়ার হোসেন ও তার পিতা ধনু মিয়া কেন্দ্রে ভোট দখলের চেষ্টা চালালে ম্যাজিস্ট্রেটকে খবর দেওয়া হয়। তাদের ভ্রাম্যামাণ আদালতের মাধ্যমে জরিমান করা হয়েছে।

নির্বাহী ম্যােিজস্ট্রে মো. আশিকুর রহমান বলেন, কেন্দ্র দখলের চেষ্টা চালানোয় নির্বাচনী আচরণবিধি অনুযায়ী পুলিং এজেন্ট আনোয়ার হোসেনকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি এবং পনেরো হাজার টাকা এবং তার বাবা ধনু মিয়াকে দশ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

অপরদিকে উপজেলার মাথাভাঙা ইউনিয়নের জগন্নাথকান্দি কেন্দ্রে চেয়ারম্যান পদের আনারস ও মোটর সাইকেল প্রতীকের সমর্থকদের আধিপত্য বিস্তারের লক্ষ্যে দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। এতে মোটর সাইকেল প্রতীকের প্রার্থীর ছোট ভাই নাজিরুল হক ভূঁইয়া ও আনারস প্রতীকের সমর্থক সাজনু আহত হন। এ ঘটনায় নাজিরুল হকের ছোট ভাই জসিম উদ্দিন লিটন বাদি হয়ে সাজনু ও কাউছারসহ ৯ জনের নামে হোমনা থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। 

 হোমনায় উপজেলায় ভোটার রয়েছে ১ লাখ ৭৯ হাজার ২৪৩ জন। এদের মধ্যে পুরুষ ৯৪ হাজার ২৭৪ জন এবং মহিলা ৮৫ হাজার ৬৯ ভোট। মোট ৬১টি কেন্দে ৪১৯ টি স্থায় কক্ষ ও ৬১ টি অস্থায়ী ভোট  কক্ষে ভাটগ্রহণ চলে।


আরও খবর

ভোলায় "রাসেল ভাইপার" আতঙ্ক

বুধবার ১৯ জুন ২০২৪