Logo
আজঃ বুধবার ১৯ জুন ২০২৪
শিরোনাম

পবিত্র শবেবরাত আজ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ৩২৬জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক: আরবি ‘শাবান’ মাস একটি মোবারক মাস। হজরত রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এ মাসে বেশি বেশি নফল রোজা রাখতেন। রমজানের প্রস্তুতির মাস হিসেবে তিনি এ মাসকে পালন করতেন। এ মাসের একটি রাতকে মুসলমানরা বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে থাকেন, মধ্য শাবানের এই রাত আমাদের এই জনপদে ‘শবেবরাত’ হিসেবে পরিচিত। আজ সেই মহিমান্বিত রাত।

পবিত্র শবেবরাত উপলক্ষে আজ মঙ্গলবার ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে ওয়াজ, দোয়া মাহফিল, কোরআন তেলাওয়াত, হামদ-নাতসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। গতকাল ইসলামিক ফাউন্ডেশনের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, সন্ধ্যা ৬টা ৪০ মিনিটে পবিত্র শবেবরাতের ফজিলত ও তাৎপর্য নিয়ে ওয়াজ করবেন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের খতিব হাফেজ মুফতি মাওলানা মোহাম্মদ রুহুল আমীন। রাত ৮টা ৫০ মিনিটে পবিত্র কোরআন ও হাদিসের আলোকে লাইলাতুল বরাতের শিক্ষা ও করণীয় নিয়ে ওয়াজ করবেন মহাখালী গাউসুল আজম জামে মসজিদের খতিব মাওলানা আব্দুর রাজ্জাক আযহারী। রাত সাড়ে ১২টায় নফল ইবাদতের গুরুত্ব ও ফজিলত নিয়ে ওয়াজ করবেন রাজধানীর বাদামতলী শাহজাদা লেন জামে মসজিদের খতিব শায়খুল হাদিস মুফতি নজরুল ইসলাম কাসেমী। রাত সোয়া ৩টায় তাহাজ্জদ নামাজের গুরুত্ব ও ফজিলত নিয়ে ওয়াজ করবেন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম হাফেজ মুফতি মিজানুর রহমান। ভোর সাড়ে ৫টায় আখেরি মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে বলেও জানিয়েছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন।

ফারসি ‘শব’ শব্দের অর্থ রাত এবং ‘বরাত’ অর্থ সৌভাগ্য। এ দুটি শব্দ নিয়ে ‘শবেবরাত’, অর্থাৎ সৌভাগ্যের রজনী। আরবিতে একে বলে ‘লাইলাতুল বরাত’। আজ ১৪ শাবান মঙ্গলবার দিবাগত রাতটিই পবিত্র শবেবরাত। আল্লাহতায়ালা এ রাতে বান্দাদের জন্য তার অশেষ রহমতের দরজা খুলে দেন। মহিমান্বিত এ রাতে ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা বিগত জীবনের সব ভুলভ্রান্তি ও পাপতাপের জন্য গভীর অনুশোচনায় আল্লাহর দরবারে সকাতরে ক্ষমা প্রার্থনা করেন। ভারতীয় উপমহাদেশ বিশেষ করে বাংলাদেশে শবেবরাতকে ‘ভাগ্যরজনী’ হিসেবেও অভিহিত করা হয়।

মুসলমানরা শবেবরাতে নফল নামাজ, জিকির-আসকার, পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মধ্য দিয়ে বিনিদ্র রাত কাটায় ও আল্লাহতায়ালার কাছে বিনম্র প্রার্থনা করেন ভবিষ্যৎ জীবনে পাপ-পঙ্কিলতা পরিহার করে পরিশুদ্ধ জীবনযাপনের জন্য। একই সঙ্গে মৃত আত্মীয়স্বজনের কবর জিয়ারত করে তাদের রুহের মাগফিরাত কামনা করে দোয়া করেন। পাড়া-মহল্লার মসজিদগুলোতে সন্ধ্যার পর থেকেই ওয়াজ-নসিহত, মিলাদ মাহফিল ও বিশেষ মোনাজাতের আয়োজন করা হয়। অনেকে গভীর রাত অবধি ইবাদত-বন্দেগিতে মশগুল থেকে শেষ রাতে সেহরি খেয়ে পরদিন নফল রোজা রাখেন।

বাঙালি মুসলিম সমাজে শবেবরাতের একটি আনন্দঘন সামাজিক দিকও রয়েছে। এদিন মুসলমানদের বাড়িতে সাধ্যানুযায়ী হালুয়া, পায়েস, রুটিসহ নানা উপাদেয় খাবার রান্না করা হয়। এসব খাবার আত্মীয়স্বজন, পাড়া-প্রতিবেশীর বাড়িতে পাঠানো এবং গরিব-দুঃখীর মধ্যে বিতরণ করা হয়। অনেকে মুক্ত হস্তে দান-খয়রাতও করে থাকেন। বরাবরের মতোই শবেবরাতের পরদিন অর্থাৎ কাল বুধবার সরকারি ছুটি থাকবে।

শবেবরাতের বরকত, ফজিলত ও মর্যাদা হাদিস দ্বারা প্রমাণিত। এ প্রসঙ্গে হাদিসে ইরশাদ হয়েছে, ‘আল্লাহতায়ালা মধ্য শাবানের রাতে তার সৃষ্টির প্রতি দৃষ্টিপাত করেন এবং মুশরেক ও বিদ্বেষ পোষণকারী ব্যতীত সবাইকে ক্ষমা করে দেন। 

আটজন সাহাবির সূত্রে বিভিন্ন সনদে এই হাদিসটি বর্ণিত হয়েছে। এ হাদিস থেকে প্রমাণ হয় যে, শবেবরাত ফজিলতময় এবং এ রাতে আল্লাহ তার বান্দাদের ক্ষমা করে থাকেন। তবে ক্ষমা পাওয়ার শর্ত হলো- শিরক ও বিদ্বেষ থেকে মুক্ত থাকা। এ দুটি বিষয় থেকে যারা মুক্ত থাকবেন তারা কোনো অতিরিক্ত আমল ছাড়াই এ রাতের বরকত ও ক্ষমা লাভ করবেন। কিন্তু শিরক ও বিদ্বেষ থেকে মুক্ত হতে না পারলে অন্য আমল দিয়ে ওই রাতের বরকত ও ক্ষমা লাভ করা যাবে না। দুঃখের বিষয় হলো, শবেবরাতে আমরা অনেক নফল আমল করলেও ওই দুটি শর্ত পূরণের চেষ্টা খুব কম মানুষই করে থাকি।

আল্লাহতায়ালা যে কোনো সময় তার বান্দার দোয়া-প্রার্থনা কবুল করতে পারেন। তার পরও বছরের এমন কিছু বিশেষ সময়-ক্ষণ রয়েছে, যে সময়গুলোর মর্যাদা ও ফজিলত অন্য সময়ের তুলনায় বেশি। সেসব দিন-ক্ষণে কৃত ইবাদত, দোয়া-মোনাজাতের মর্যাদা বেশি ও সওয়াবের মাত্রা অপরিসীম। এ বিষয়গুলো মুসলমানদের মনে শবেবরাতে ইবাদত-বন্দেগি ও বেশি বেশি নেক কাজ করার স্পৃহাকে জাগিয়ে তোলে। ফলে দেশব্যাপী শবেবরাত উপলক্ষে সৃষ্টি হয় এক ধর্মীয় আবহ। এ রাত কাতর ফরিয়াদ মিশ্রিত দোয়া-মোনাজাতসহ বিভিন্ন নফল ইবাদত-বন্দেগিতে কাটানোর রাত।


আরও খবর



শেখ `ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হাসপাতালে প্রধানমন্ত্রীর স্বাস্থ্য পরীক্ষা

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৪ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ৬৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গাজীপুরের কাশিমপুরের শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মেমোরিয়াল কেপিজে বিশেষায়িত হাসপাতাল ও নার্সিং কলেজে নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষা করালেন।

শুক্রবার (১৪ জুন) সকালে বিশেষায়িত হাসপাতাল ও নার্সিং কলেজে যান তিনি। সেখানে কাউন্টারে নিজের হাতে পরীক্ষা-নিরীক্ষার বিল পরিশোধ করে নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষার করান তিনি।

পরে সরকারপ্রধান হাসপাতাল পরিদর্শন করেন। তিনি হাসপাতালের পরিচালনা পর্ষদ সদস্য, চিকিৎসক ও নার্সদের সঙ্গে কথা বলেন।

এ সময় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেন, যুব ও ক্রীড়ামন্ত্রী নাজমুল হাসান পাপন, সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী আফম রুহুল হকসহ বিভিন্ন কর্মকর্তারা।


আরও খবর



‘বিএনপি দেশটাকে শ্রীলঙ্কা বানানোর চেষ্টা করছে’

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ৫৮জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের মন্তব্য করেছেন বিএনপিসহ তাদের সমর্থকরা দেশটাকে শ্রীলঙ্কা বানিয়ে ফেলার চেষ্টা করছে। 

মঙ্গলবার (১৮ জুন) রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

সেতুমন্ত্রী বলেন, মূল্যস্ফীতির মধ্য দিয়ে এক কোটি ৪০ লাখের বেশি কোরবানি হয়েছে। যা গতবারের তুলনায় বেশি। মূল্যস্ফীতির কারণে ঈদ ব্যাহত হয়েছে, বিএনপির এ তথ্য ঠিক নয়।

ওবায়দুল কাদের বলেন, মূল্যস্ফীতি আছে তবে এটা কমাতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ঈদের দিনেও সরকারের বিরুদ্ধে বিএনপির অপপ্রচার বন্ধ হয়নি। আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে তাদের বিরুদ্ধে কোনো বক্তব্য দেওয়া হয়নি।

মিয়ানমারের বিষয়ে মির্জা ফখরুলকে চ্যালেঞ্জ করে তিনি বলেন, সার্বভৌমত্বের কোথায় আঘাত হানা হচ্ছে। অনুপ্রবেশকারীরা চলে গেছে জাহাজও সরে গেছে।

মন্ত্রী আরও বলেন, দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি ঘোষণা দিয়েছে শেখ হাসিনা এবং দুদককেও স্বাধীন করেছেন তিনি। যতই প্রভাবশালী হোক দুর্নীতি করলে কারো ছাড় নেই। বিএনপি শাসনামলে এমন কোনো পদক্ষেপ দেখা যায়নি।


আরও খবর



রাফসান দ্য ছোট ভাইয়ের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ৯৯জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:ইউটিউবার ‘রাফসান দ্য ছোটো ভাই’ খ্যাত কন্টেন্ট ক্রিয়েটর ইফতেখার রাফসানের বিরুদ্ধে অনুমোদনহীন ব্লু ড্রিংকস উৎপাদন ও বাজারজাত করায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) বিশুদ্ধ খাদ্য আদালতের বিচারক আলাউল আকবর এ পরোয়ানা জারি করেছেন।

ব্লু ড্রিংকস পানীয়টি অনুমোদনহীন হওয়ায় নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের ক্ষমতাপ্রাপ্ত খাদ্য পরিদর্শক মো. কামরুল হোসেন একটি আবেদন করেন। যেখানে তিনি বলেন, ব্লু-এর কোনো অনুমোদন নেই। এমনকি ওষুধ প্রশাসনও জানে না এসব ওষুধ না পানীয়।

সেই প্রেক্ষিতে ইফতেখার রাফসানের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।

এর আগে গত ২৪ মে কুমিল্লা নগরীর বিসিক এলাকায় অবস্থিত রাফসানের ব্লু ড্রিংকস কারখানায় অভিযান চালায় ভ্রাম্যমাণ আদালত। সে সময় নোংরা পরিবেশে মান নিয়ন্ত্রণহীনভাবে ‘ব্লু’ ড্রিংকস তৈরি করায় তাকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

রাফসানের মেসার্স ড্রিংক ব্লু বেভারেজ, কুমিল্লা সদর উপজেলার সিটি করপোরেশন এলাকার বিসিক শিল্পনগরী বি-৩৩ ব্লকে অবস্থিত। প্রতিষ্ঠানটি মোড়কজাতকরণ নিবন্ধন সনদ গ্রহণ না করে ‘ইলেক্ট্রোলাইট ড্রিংক’ পণ্য প্রস্তুত করে আসছিল।


আরও খবর



মিয়ানমার সীমান্ত কঠোর নজরদারিতে রয়েছে: ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিত:রবিবার ১৬ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ৭৮জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের,বলেছেন মিয়ানমার সীমান্তে কঠোর নজরদারি করছে সরকার।

রোববার (১৬ জুন) রাজধানীর ধানমন্ডিতে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

সেতুমন্ত্রী বলেন, বিএনপি যে ব্যর্থ দল, তা তাদের কমিটি বিলুপ্ত করে নতুন কমিটি দেওয়ার মধ্যদিয়ে প্রমাণ হয়। যারা মাঠে ছিলেন, তাদের মূল্যায়ন করা হয় না বিএনপিতে। কারণ দলটির মধ্যে গণতন্ত্র নেই।

ওবায়দুল কাদের বলেন, কাউন্সিল ছাড়া দলীয় কাঠামোতে পরিবর্তন হয় না আওয়ামী লীগে। অথচ বিএনপিতে লন্ডনে বসে রিমোট কন্ট্রোলের মাধ্যমে কমিটি হয়।

তিনি বলেন, সেন্টমার্টিন পরিস্থিতি নিয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বক্তব্য দায়িত্বজ্ঞানহীন। এ পরিস্থিতি সম্পর্কে কোনো ধারণা নেই ফখরুলের।

কাদের বলেন, কয়েক দিন আগে মিয়ানমার সীমান্তরক্ষী বাহিনীর সদস্যরা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছিলেন। পরে তাদেরকে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে। এখন সেন্টমার্টিনে আমাদের খাদ্যবাহী জাহাজ নিয়মিত যাতায়াত করছে। আলোচনার মাধ্যমে আমরা সমস্যার সমাধান চাই।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপির প্ররোচনা দেওয়ার তো কোনো দরকার নেই। গায়ে পড়ে মিয়ানমারের সঙ্গে যুদ্ধ বাধানোর কোনো প্রয়োজন নেই বাংলাদেশের। সেন্টমার্টিন দখল হচ্ছে  এসব তথ্য সঠিক নয়; এসব গুজব ছড়ানো হচ্ছে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন- দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম, সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন, সুজিত রায় নন্দী, দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, উপ-দপ্তর সম্পাদক সায়েম খানসহ কেন্দ্রীয় নেতারা।


আরও খবর



মাদারবোর্ড রিপ্লেসমেন্টে রিয়েলমি গ্রাহকরা পাচ্ছেন ৬০% ছাড়

প্রকাশিত:সোমবার ২৭ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ১৩১জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:গ্রাহক ও ভক্তদের জন্য ‘মাদারবোর্ড ডিসকাউন্ট’ অফার নিয়ে হাজির হলো তরুণদের জনপ্রিয় স্মার্টফোন ব্র্যান্ড ‘রিয়েলমি’। রিয়েলমি’র অনুমোদিত সার্ভিস সেন্টারগুলো থেকে ব্র্যান্ডের গ্রাহকরা এ পরিষেবা গ্রহণ করতে পারবেন। স্মার্টফোনের নির্দিষ্ট কিছু মডেলের মাদারবোর্ড রিপ্লেসমেন্টের আকর্ষণীয় ছাড়ের সুবিধা রয়েছে এ অফারের মধ্যে।

স্মার্টফোন ব্যবহারকারীরা ডিভাইসের মাদারবোর্ড রিপ্লেসমেন্টের ক্ষেত্রে ৬০ শতাংশ পর্যন্ত ডিসকাউন্টের সুযোগ পাচ্ছেন। দেশে অবস্থিত রিয়েলমি’র যে কোনো অনুমোদিত সার্ভিস সেন্টারে গিয়ে গ্রাহকরা এ অফার উপভোগ করতে পারেন। তবে কোনো আউটলেটে গিয়ে সেবা গ্রহণের আগে, নির্দিষ্ট মডেলের ফোনটি ওই সার্ভিস সেন্টারে সহজলভ্য কী না তা যাচাই করে দেখার অনুরোধ করা হচ্ছে। আপনার নিকটস্থ রিয়েলমি’র সার্ভিস সেন্টারের অবস্থান সম্পর্কে জানতে https://www.realme.com/bd/support/services -এ ওয়েবসাইটে ভিজিট করুন।

অফারটি রিয়েলমি’র নির্দিষ্ট কয়েকটি ফোনের মডেলের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। মডেলগুলো হলো: রিয়েলমি সি১৫, রিয়েলমি সি১৭, রিয়েলমি ৮, রিয়েলমি সি৩১, রিয়েলমি নারজো ৫০আই, রিয়েলমি সি১১ ২০২১, রিয়েলমি সি২৫ওয়াই, রিয়েলমি সি২১ওয়াই এবং রিয়েলমি ৯আই। আগ্রহী গ্রাহকদের জানানো যাচ্ছে যে, শুধু রিয়েলমি’র অফিসিয়াল স্মার্টফোনের জন্য এ অফারটি তারা উপভোগ করতে পারবেন।

এসব ডিভাইসের মধ্যে রিয়েলমি সি১৫, রিয়েলমি সি১৭, রিয়েলমি ৮, রিয়েলমি সি৩১, রিয়েলমি নারজো ৫০আই, রিয়েলমি সি১১ ২০২১, রিয়েলমি সি২৫ওয়াই ও রিয়েলমি সি২১ওয়াই এর মাদারবোর্ড রিপ্লেসমেন্টে ব্যবহারকারীরা পাচ্ছেন ৬০ শতাংশ ছাড়। অন্যদিকে, রিয়েলমি ৯আই এর দুটি ভার্সনে গ্রাহকদের ৪০ শতাংশ ছাড় দেওয়া হচ্ছে।

চলতি মাসজুড়ে এ অফার দিচ্ছে জনপ্রিয় স্মার্টফোন ব্র্যান্ড রিয়েলমি। অফারটি সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানতে, রিয়েলমি ইউজাররা ফেসবুকে ব্র্যান্ডের অফিসিয়াল আফটার-সেল সার্ভিস পেজ “রিয়েলমি সার্ভিস বিডি” ফলো করতে পারেন।

তবে আর অপেক্ষা কেন? ফুরিয়ে যাওয়ার আগেই আপনার নিকটস্থ রিয়েলমি সার্ভিস সেন্টার যান এবং উপভোগ করুন এ দারুণ অফারটি।


আরও খবর