Logo
আজঃ বুধবার ১৯ জুন ২০২৪
শিরোনাম

‘পাপী’ হয়ে আসছেন স্নিগ্ধা, সঙ্গী শ্যামল

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ জুন ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ২৩৬জন দেখেছেন

Image

মারুফ সরকার,স্টাফ রির্পোটার: নবাগত চিত্রনায়িকা জান্নাতুল ফেরদৌস স্নিগ্ধা। এখনো কোনো সিনেমা মুক্তি না পেলেও সম্প্রতি ক্যারিয়ারের তৃতীয় সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন তিনি। সিনেমার নাম ‘পাপী’। এটি পরিচালনা করছেন সুলতান মজুমদার।

সিনেমাটিতে তার সহশিল্পী হিসেবে আছেন টিভি ও ওটিটি পর্দার জনপ্রিয় অভিনেতা শ্যামল মাওলা। এ সিনেমার মাধ্যমে প্রথমবার শ্যামলের বিপরীতে কাজ করতে চলেছেন স্নিগ্ধা। নিজের তৃতীয় সিনেমা নিয়ে উচ্ছ্বসিত এ নায়িকা।

স্নিগ্ধা বলেন, ‘সিনেমাটিতে পাপড়ি চরিত্রে অভিনয় করছি। অ্যাকশন-থ্রিলার ঘরানার গল্পে এটি নির্মিত হবে। পাপড়ি সাহসী একটি মেয়ে। তার একটা অতীত আছে, যা সব সময় যন্ত্রণা দেয়। পাপড়ির জীবনটাই সংগ্রামী। মানুষের প্ররোচনায় একটা সময় খারাপ পথে পা বাড়ায়। গল্প মোড় নেয় ভিন্ন দিকে। বাকিটা জানতে প্রেক্ষাগৃহে যেতে হবে। তবে এতটুকু বলতে পারি গল্প ও চরিত্রে চমক আছে। আশা করছি, শ্যামল ভাইয়ের সঙ্গে আমার প্রথম এবং ক্যারিয়ারের তৃতীয় সিনেমাটি দর্শকরা ইতিবাচকভাবে গ্রহণ করবে। নিজের সেরাটা দিয়ে কাজটি করার চেষ্টা করব।’

জানা গেছে, আগামী ১৫ জুন থেকে লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে ‘পাপী’ সিনেমাটির শুটিং শুরু হবে। একটানা চলবে এর দৃশ্যধারণের কাজ। এতে আরও অভিনয় করছেন শতাব্দী ওয়াদুদ, মাফতুহা জান্নাত জিম প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ‘সোনার চর’ সিনেমার মাধ্যমে প্রথমবার বড় পর্দার জন্য ক্যামেরার সামনে দাঁড়ান স্নিগ্ধা। জাহিদ হোসেন পরিচালিত সিনেমাটিতে স্নিগ্ধার সহশিল্পী জায়েদ খান। এই সিনেমার কাজ শেষ করে একই নির্মাতার মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক গল্পের ‘সুবর্ণভূমি’ নামের আরেকটি সিনেমায় কাজ করেছেন নায়িকা। এতে তার সহশিল্পী ছোট পর্দার জনপ্রিয় অভিনেতা আব্দুন নূর সজল। বর্তমানে সিনেমা দুটি মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে।


আরও খবর



তাহিরপুর সীমান্তে গডফাদার ও সোর্সরা অধরা: ২ লড়ি অবৈধ কয়লা জব্দ

প্রকাশিত:শুক্রবার ৩১ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ১১০জন দেখেছেন

Image

মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া,সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:ঈদকে সামনে রেখে সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর উপজেলার বিভিন্ন সীমান্তে সরকারের কোটিকোটি টাকার রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে প্রতিদিন ভারত থেকে পাচাঁর করা হচ্ছে গরু, ঘোড়া, কয়লা, চিনি, সুপারী ও পেয়াজসহ মদ, গাঁজা, ইয়াবা ও নাসির উদ্দিন বিড়ি বিভিন্ন মালামাল। সীমান্ত চোরাকারবারীদের গডফাদার ও সোর্সদের নেতৃত্বে বিভিন্ন মালামাল পাচাঁর করতে গিয়ে প্রায়ই ঘটছে মৃত্যুসহ নানান অপ্রীতিকর ঘটনা।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে- আজ বৃহস্পতিবার (৩০শে মে) ভোররাত থেকে জেলার তাহিরপুর উপজেলার চারাগাঁও সীমান্তে সোর্স পরিচয়ধারী রফ মিয়া,আইনাল মিয়া,রিপন মিয়া,সাইফুল মিয়া,লেংড়া জামাল,বাবুল মিয়া, আনোয়ার হোসেন বাবলু,সোহেল মিয়াগং, অন্যদিকে বালিয়াঘাট সীমান্তে ইয়াবা কালাম,হোসেন আলী,জিয়াউর রহমান জিয়া,মনির মিয়া,রতন মহলদার ও কামরুল মিয়াগং, টেকেরঘাট সীমান্তে সোর্স আক্কল আলী,মহিবুর মিয়া, মিলন মিয়া,সাইদুল মিয়া,কামাল মিয়াগং, চাঁনপুর সীমান্তে সোর্স জামাল মিয়া, নজরুল মিয়াগং ও লাউড়গড় সীমান্তে সোর্স বায়েজিদ মিয়া, জসিম মিয়াগং ভারত থেকে অবৈধ ভাবে কয়লা,চুনাপাথর,গরু,ঘোড়া,চিনি,পেয়াজ,বল্ডার পাথর,নাসির উদ্দিন বিড়ি,মদ,গাঁজা ও ইয়াবাসহ বিভিন্ন মালামাল পাচাঁর শুরু করে। এই খবর পেয়ে সকাল ৬টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বালিয়াঘাট বিজিবি ক্যাম্প কমান্ডার রফিক অভিযান চালিয়ে গডফাদার তোতলা আজাদ, তার সোর্স ইয়াবা কালাম, রতন মহলদার ও জিয়াউর রহমান জিয়ার ২টি লড়ি বোঝাই ৩০মেঃটন চোরাই কয়লা জব্দ করেন। কিন্তু চাঁনপুর সীমান্ত থেকে সোর্স জামাল মিয়া ও নজরুল মিয়াগং মোটর সাইকেল দিয়ে ওপেন কয়লা পাচাঁর করাসহ টেকেরঘাট সীমান্তে সোর্স আক্কাল আলী, তার ছেলে রুবেল, শ্যালক মহিবুর মিয়া ও মিলন মিয়াগং চুনাপাথর ও কয়লা পাচাঁর করে বড়ছড়া শুল্কস্টেশনের কাঠের ব্রিজ সংলগ্ন শাহ পরানের খোলা জায়গায় ওপের মজুত করলে নেওয়া হয়নি কোন পদক্ষেপ। এছাড়াও চারাগাঁও সীমান্তে সোর্স রফ মিয়া,আইনাল মিয়া,বাবুল মিয়া ও আনোয়ার হোসেন বাবলুগং বিপুল পরিমান কয়লা পাচাঁর করে বিজিবি ক্যাম্পের আশেপাশে অবস্থিত একাধিক ডিপু ও বসতবাড়িতে মজুত করাসহ লাউড়গড় সীমান্ত দিয়ে সোর্স বায়েজিদ ও জসিম মিয়াগং পাথর,কয়লা,গরু ও বিভিন্ন প্রকার মাদকদ্রব্য পাচাঁর করলেও কেউ কোন পদক্ষেপ নেয়নি। জানা গেছে-গত ৫ বছরে চোরাচালান ও চাঁদাবাজি করে গডফাদার তোতলা আজাদ প্রায় ১৫কোটি, সোর্স আক্কল আলী ৩কোটি,সোর্স রতন মহলদার ২কোটি,কামরুল মিয়া  ১কোটি,ইয়াবা কালাম মিয়া ২কোটি,জিয়াউর রহমান জিয়া ৩কোটি,সোর্স বাবুল মিয়া দেড় কোটি, সোর্স রফ মিয়া ৫কোটি ও আইনাল মিয়া ৭কোটি টাকার মালিক হয়েছে। তারা এক সময় না খেয়ে থাকলেও বর্তমানে একাধিক বিলাস বহুল গাড়ি ও বাড়ি ক্রয় করাসহ সুনামগঞ্জ ও সিলেটে ক্রয় করেছে ফ্লাট বাসা।

এব্যাপারে তাহিরপুর উপজেলার উত্তর বড়দল ইউনিয়ন পরিষদ মেম্মার কফিল উদ্দিন বলেন- চাঁনপুর সীমান্ত দিয়ে ওপেন চোরাচালান হচ্ছে কিন্তু বিজিবি কোন পদক্ষেপ নেয়না। সুনামগঞ্জ জেলার সিনিয়র সাংবাদিক মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া বলেন- রাষ্ঠ্রীয় স্বার্থে চোরালানের বিষয়ে চাঁনপুর ক্যাম্পের মোবাইল নাম্বারে একাধিক বার কল করার পর কেউ ফোন রিসিভ না করে আমার মোবাইল নাম্বার ব্লক করে দেয় তারা। এছাড়া টেকেরঘাট ও চারাগাঁও সীমান্ত চোরাচালানের বিষয়ে বিজিবি ক্যাম্পে বারবার জানানোর পরও তারা কোন পদক্ষেপ নেয়না।  

এব্যাপারে উপজেলার চারাগাঁও বিজিবি ক্যাম্প কমান্ডার শফিকুল মোবাইলে বলেন- সীমান্ত এলাকা অনেক বড় সেই অনুযায়ী আমাদের লোক কম। বালিয়াঘাট ক্যাম্প কমান্ডার রফিক বলেন- আমার সীমান্ত এলাকা দিয়ে কয়লা পাচাঁর হচ্ছে জানতে পেরে অভিযান চালিয়ে ২লড়ি বোঝাই অবৈধ কয়লা জব্দ করে টেকেরঘাট কোম্পানীতে হস্তান্তর করেছি। আমাদের এই অভিযান অব্যাহত থাকবে।


আরও খবর



২২৪ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত ঢাকায়

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ১৪৬জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:সারাদেশে প্রবল বৃষ্টিপাত হয়েছে একদিনে ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে । রাজধানী ঢাকাসহ দেশের কয়েকটি জেলায় বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে দুইশর বেশি মিলিমিটার অধিক। ঢাকায় বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে ২২৪ মিলিমিটার। তবে ব্যাপক বৃষ্টি হয়েছে চাঁদপুরে। এখানে বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে ২৫৭ মিলিমিটার।

মঙ্গলবার (২৮ মে) সকালে দেওয়া এক বার্তায় এ তথ্য জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

এতে বলা হয়েছে, মানিকগঞ্জ ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত স্থল নিম্নচাপটি উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে বর্তমানে সিলেট ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। এটি আরও উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে ক্রমশ বৃষ্টি ঝরিয়ে দুর্বল হয়ে যেতে পারে। উত্তর বঙ্গোপসাগরে বায়ুচাপের তারতম্যের আধিক্য বিরাজ করছে।

আগামী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, ঢাকা, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায়; বরিশাল ও রংপুর বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং খুলনা ও রাজশাহী বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা বা ঝোড়ো হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের কোথাও কোথাও ভারী বর্ষণ হতে পারে।


আরও খবর



ঈদের পর থেকে শনিবার বন্ধ থাকবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান: শিক্ষামন্ত্রী

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ১৩৯জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আসন্ন ঈদুল আজহার ছুটির পর শনিবার ক্লাস বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।

শুক্রবার (২৪ মে) বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র শিক্ষক কেন্দ্র (টিএসসি) মিলনায়তনে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের ‘যোগাযোগ উৎসব’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে একথা বলেন তিনি।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আমাদের তো আসলে শিখনফল অর্জনের জন্য কিছু শিক্ষা কর্মদিবস সেটি নির্দিষ্ট করতে হয় বছরব্যাপী। যেহেতু আমাদের অনেকগুলো পড়াতে পারেনি সেজন্য বিশেষজ্ঞদের মতামত নিয়ে এখন পর্যন্ত শনিবার খোলা আছে। তবে সেটা আসলে সাময়িক একটি প্রক্রিয়া। সেই দিবসের বিষয়ে আমাদের যদি পরিপূর্ণ একটি চিত্র পাওয়া যায় তাহলে ঈদুল আজহা পরবর্তী সময়ে তখন হয়ত সেটা থাকবে না।

তিনি আরও বলেন, কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে যে ঘূর্ণিঝড়ের একটা প্রকোপ আছে এবং বন্যা এবং অন্যান্য অনেকগুলো চ্যালেঞ্জ যদি হয় তখন সে সময় কিন্তু স্কুল বন্ধ থাকবে। তখন বন্ধ থাকলে শিখনফল অর্জনটা অনেক বেশি কঠিন হয়ে যায়।

মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেন, শনিবার খোলা রাখাটা প্রত্যাশিত নয়। যেহেতু কিছু দিন নষ্ট হয়েছে, আমরা আশা করছি যে সেটা থাকবে না।

তিনি আরও বলেন, ২০২৬ সালের এসএসসি পরীক্ষা এখনকার নিয়মে হবে না। নতুন মূল্যায়ন পদ্ধতি নিয়ে বিশেষজ্ঞ কমিটির চূড়ান্ত মতামত আসেনি, মতামত আসলেন নতুন মূল্যায়ন নিয়ে কারিকুলাম চূড়ান্ত করা হবে।


আরও খবর



সারা‌ দেশে কঠোরভাবে বাজার মনিটরিংয়ের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | ১৬৮জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:সারা‌ দেশে কঠোরভাবে নিত‌্যপণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণে বাজার মনিটরিংয়ের নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হা‌সিনা।

সোমবার (২০ মে) সকালে তেজগাঁও প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত ম‌ন্ত্রিসভার বৈঠকে বা‌ণিজ‌্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টি‌টুকে এ নির্দেশনা দেন তি‌নি।

বৈঠক শেষে বিকেলে স‌চিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মো. মাহবুব হোসেন ব্রিফিংয়ে বলেন, আজকে নির্ধারিত ইস্যুর বাইরে দুইটি বিষয় ছিল। তার মধ্যে প্রধানমন্ত্রী আজকে বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রীকে কঠোরভাবে বলেছেন, বাজার মনিটরিং যেন জোড়ালোভাবে হয় এবং ভালোভাবে নজর দিতে বলেছেন। বাজারে সাপ্লাই যেন ঠিক থাকে।

তিনি  আরও বলেন, কিছু কিছু পণ্যে সরবরাহ ঠিক আছে, ক্রাইসিস না থাকার পরেও বাজারে কৃত্রিম মূল্যবৃদ্ধির প্রবণতা দেখা যাচ্ছে। সেজন্য কঠোরভাবে যাতে বাজার মনিটরিং শুরু করতে প্রধানমন্ত্রী সুনির্দিষ্টভাবে বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রীকে নির্দেশনা দিয়েছেন।


আরও খবর



বিদ্যুৎ অফিস কে না জানিয়ে মিটার স্থানান্তর থানায় মামলা

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৪ মে 20২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | ১৩৪জন দেখেছেন

Image
আব্দুস সবুর তানোর থেকে:রাজশাহীর তানোরে পল্লী বিদ্যুৎ অফিসকে না জানিয়ে মিটারের সিল কেটে স্থানান্তর করার ঘটনায় জাহাঙ্গীর নামের এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেন পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের ডিজিএম জহুরুল ইসলাম। মামলার আসামী জাহাঙ্গীরের বাড়ি উপজেলার কামারগাঁ ইউনিয়ন ইউপির মাদারিপুর গ্রামে। সে জয়মতুল্লাহর পুত্র। চলতি বছরের মার্চ মাসের ২৪ তারিখে  মামলা দায়ের হলেও রহস্য জনক কারনে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ না করে উল্টো গ্রাহককে মিমাংসা করার নির্দেশ দেন মামলার তদন্ত কারী কর্মকর্তা এসআই মজিবুর বলে অভিযোগ উঠেছে। এতে করে দুই গ্রাহক চরম বেকায়দায় পড়েছেন। ফলে দ্রুত সময়ের মধ্যে মামলার আসামীকে গ্রেফতারের জোর দাবি তুলেছেন ভুক্তভোগী দুই গ্রাহকসহ ডিজিএম।

এজহারে উল্লেখ,  রাজশাহী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির প্যাডে ১৯৬ নম্বর স্বারকের প্রেক্ষিতে জানানো যাচ্ছে যে, জাহাঙ্গীর পিতা জয়মতুল্লাহ সাং মাদারিপুর, উক্ত ব্যক্তি তানোর জোনাল অফিসের আওতাধীন বিভিন্ন এলাকায় অর্থের বিনিময়ে অবৈধ ভাবে বৈদ্যুতিক মিটার এক স্থান থেকে অন্য স্থানে স্থানান্তর করে দিচ্ছেন। যেমন হিসাব নম্বর ৪৬৪-২৬২০ গ্রাহকের নাম আব্দুর রশিদ পিতা বদের আলী ও হিসাব নম্বর  ৪৬৪-২৬৫০ গ্রাহক বদের আলী পিতা মাশি উভয়ের গ্রাম, ধানোরা। এদুজন গ্রাহকের আবাসিক মিটার অফিস কে অবহিত না করে অবৈধ ভাবে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে স্থানান্তর করে দিয়েছেন। যা বিদ্যুৎ আইন ২০১৮ অনুযায়ী কর্তৃপক্ষের অনুমোদন ব্যতিত বৈদ্যুতিক স্থাপনা/ইক্যুইপমেন্টে দন্ডনীয় অপরাধ।  

স্থানীয়রা জানান, উপজেলার কামারগাঁ ইউপির ধানোরা গ্রামের রশিদ ও তার পিতা বদের আলীর ঘর ওয়ারিং শেষে মিটারের সিল কেটে অন্যত্র স্থানান্তর করেন জাহাঙ্গীর। বিদ্যুৎ বিল দেয়ার জন্য মিটার রিডার এসে এঅবস্থা দেখে গ্রাহককে জিজ্ঞেস করেন কে করেছে মিটারের এঅবস্থা। গ্রাহকরা বলেন জাহাঙ্গীর। মিটার রিডার বিষয়টি পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের কর্তৃপক্ষ কে অবহিত করেন। বিষয়টি জানার পর ডিজিএম ওই দুজন গ্রাহককে অফিসে তলব করেন এবং মিটারের সিল কাটার বিষয়টি ডিজিএমকে খুলে বলেন। এসময় দুজন গ্রাহকক লিখিত অভিযোগ দেন ডিজিএম বরাবর। অভিযোগের প্রেক্ষিতে ডিজিএম থানায় এজহার দায়ের  বা মামলা করেন জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে।
এছাড়াও জাহাঙ্গীরের ছোট ভাই তানোর পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের ইলেক্ট্রিশিয়ান  লিটন অধিক টাকার বিনিময়ে এবং কর্তৃপক্ষের নাম করে আর্থিক সুবিধা নিয়ে বিদ্যুৎ লাইন পাইয়ে দিতেন। ঘটনা বুঝতে পেরে এবং টাকার বিষয়টি প্রমান পাওয়ায় তাকে পল্লী বিদ্যুৎ তানোর জোনাল অফিস থেকে বহিষ্কার করেন । লিটন এখনো বহিষ্কার অবস্থায় আছেন। সে সুযোগ কাজে লাগিয়ে তার বড় ভাই একই কায়দায় বৈদ্যুতিক মিটার টাকার বিনিময়ে স্থানান্তর করে থাকেন।

মামলার তদন্ত কারী এসআই মজিবুরের মোবাইলে একাধিকবার ফোন দেয়া হলেও তিনি রিসিভ করেন নি। থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি আব্দুর রহিম বলেন, মামলার তদন্ত কারী কর্মকর্তা কে বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 

আরও খবর