Logo
আজঃ Friday ১৯ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে আবাসিকের অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন ডেমরায় প্যাকেজিং কারখানায় ভয়বহ অগ্নিকান্ড রূপগঞ্জে পুলিশের ভুয়া সাব-ইন্সপেক্টর গ্রেফতার রূপগঞ্জে সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ॥ সভা সরাইলে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ৭৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত। নারায়ণগঞ্জে পারিবারিক কলহে স্ত্রীকে পুতা দিয়ে আঘাত করে হত্যা,,স্বামী গ্রেপ্তার রূপগঞ্জ ইউএনও’র বিদায় সংবর্ধনা নাসিরনগরে স্বামীর পরকিয়ার,বলি ননদ ভাবীর বুলেটপানে আত্মহত্যা নাসিরনগরে জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭ তম শাহাদত বার্ষিকী পালিত ডেমরায় জাতীয় শোক দিবসের কর্মসুচি পালিত
অসম প্রেমের কারণে সিরাজদিখানে যুবকের উপর বর্বরোচিত নির্যাতন

অসম প্রেমের কারণে সিরাজদিখানে যুবকের উপর বর্বরোচিত নির্যাতন

প্রকাশিত:Sunday ০৯ January ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ১২১৩জন দেখেছেন
Image


স্টাফ রিপোর্টারঃ

মুন্সীগঞ্জ জেলার সিরাজদিখানের বালুচর ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডে জয়নাল মেম্বারের বাড়িতে অসম প্রেম করার অপরাধে সাইফুল ইসলাম রাজন নামে এক যুবককে অমানুষিক নির্যাতন করায় দুদিন ধরে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে ঐ যুবক।


মোবাইল ফোনে গত ৭ জানুয়ারী বালুচর ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডে জয়নাল মেম্বারের বাড়িতে সাইফুলকে ডেকে নিয়ে চালানো হয় বর্বরোচিত নির্যাতন।বর্তমানে ছেলেটি ইছাপুরা হাসপাতালে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ভর্তি আছেন।


স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, বালুচর ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডে জয়নাল মেম্বারের বাড়ির মেয়ের সাথে  প্রেমের সম্পর্ক হয় সাইফুলের। ৩ বছরের প্রেমের সম্পর্ক যখন গভীরতর হলে তারা দুজনে পালিয়ে যায়। তখন বাধা হয়ে দাঁড়ায় প্রেমিকার পরিবার।সাইফুলের লেখাপড়া ও পরিবারিক অবস্থা ভালো না থাকায় আপত্তি ওঠে প্রেমিকার পরিবার থেকে।


গত ৮জানুয়ারি মোবাইল ফোনে ডেকে নেয় প্রেমিকার আত্মীয় আলমগীর হোসেন পিতা জয়নাল,মনির পিতা নুর আলি,জাহাঙ্গীর পিতা জামাল মিয়া। সরল বিশ্বাসে সাইফুল যায় ঐ বাড়িতে। পূর্বপরিকল্পনা মতো উপরোল্লিখিত ব্যাক্তিরা গাছের সাথে বেঁধে আদিযুগের বর্বরোচিত কায়দায় অমানুষিক বিচার  করা হলো তার প্রতি।


আরও খবর



তেলের দামে বেনাপোলে পণ্য পরিবহনে অচলাবস্থা

প্রকাশিত:Tuesday ০৯ August ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ২৫জন দেখেছেন
Image

জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধিতে বেনাপোল বন্দরে ট্রাক ভাড়া অস্বাভাবিক হারে বেড়েছে। পাশাপাশি ট্রাক ও কাভার্ডভ্যানের সংকটও দেখা দিয়েছে। হঠাৎ পণ্য পরিবহনের ভাড়া বৃদ্ধির কারণে ভারত থেকে আমদানিকৃত পণ্য দেশের বিভিন্ন স্থানে পাঠাতে গিয়ে আমদানিকারক, পরিবহন এজেন্ট ও সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টদের হিমশিম খেতে হচ্ছে। এত বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে পণ্য পরিবহনের ক্ষেত্রে এক অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

বিভিন্ন আমদানিকারকরা জানান, তেলের মূল্য বৃদ্ধির কারণে ট্রাক মালিকরা ভাড়া বাড়িয়ে দিয়েছেন। এতে ব্যবসায়ীরা চরম বিপাকে পড়েছেন। আগে বেনাপোল থেকে ঢাকা পর্যন্ত পণ্যবাহী ট্রাকের ভাড়া ছিল ১৮ হাজার থেকে সর্বোচ্চ ২২ হাজার টাকা। শনিবার থেকে সেই ভাড়া নেওয়া হচ্ছে ২৮ থেকে ৩০ হাজার টাকা। বর্তমানে ট্রাক সংকটে অনেকে আমদানি পণ্যের শুল্ক পরিশোধ করেও বন্দর থেকে পণ্য খালাস করতে পারছেন না।

ঢাকার কেরানীগঞ্জের রোজ ট্রেডিং নামের আমদানিকারক ফায়জুর রহমান বলেন, তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের প্রিন্টিং কালি ভারত থেকে আসে। তার কয়েকটি পণ্যের চালান গত সপ্তাহে বেনাপোল বন্দরে এসেছে। কাস্টমস বন্দরের সব কার্যক্রমও শেষ। সোমবার ট্রাক ভাড়া করতে গেলে ভাড়া এক লাফে ৮ থেকে ১০ হাজার টাকা বেশি চাওয়া হয়। অতিরিক্ত ট্রাকভাড়ার কারণে তিনি পণ্য বেনাপোল বন্দর থেকে ফ্যাক্টরিতে নিতে পারছেন না।

একই কথা জানালেন ঢাকার মগবাজারের মাইশা ট্রেডিং নামের আমদানিকারক নজরুল ইসলাম। তিনি বলেন, অতিরিক্ত ভাড়ায় আমদানি করা কেমিকেল ফ্যাক্টরিতে নিলে লাভ তো দূরে থাক, আসলও উঠবে না।

jagonews24

যশোরের আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান রিপন অটোর ব্যবস্থাপনা পরিচালক এজাজ উদ্দিন টিপু বলেন, গত মাসেও আমরা বেনাপোল থেকে যশোর পর্যন্ত সর্বোচ্চ ৭ হাজার টাকায় ট্রাকে করে পণ্য এনেছি। কিন্তু শনিবার থেকে সেই ট্রাক ভাড়া চাওয়া হচ্ছে ১২ হাজার টাকা। এতে করে লোকসানের শিকার হতে হবে। কেননা প্রতিযোগিতার বাজারে পণ্যের দাম বাড়ানো যায় না।

বেনাপোল ট্রান্সপোর্ট এজেন্সি মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আজিম উদ্দিন গাজী বলেন, তেলের দাম বাড়লেতো ট্রাকভাড়া বাড়বেই। সেটি শনিবার থেকেই নেওয়া হচ্ছে। বর্তমান বাড়তি দামে কমপক্ষে একটি ট্রাকে ১০ হাজার টাকা বেশি লাগবে। সে কারণে বেনাপোল বন্দর থেকে সারা দেশে পণ্য পরিবহনের ভাড়া বেড়েছে।

বেনাপোল ট্রান্সপোর্ট মালিক সমিতির সভাপতি আতিকুজ্জামান সনি বলেন, আগে বেনাপোল থেকে ঢাকার বিভিন্ন স্থানে পণ্য পরিবহনে প্রতি ট্রাকের ভাড়া ছিল সর্বনিম্ন ১৮ হাজার ও সর্বোচ্চ ২৩ হাজার টাকা। একই ট্রাকের ভাড়া এখন বেড়ে হয়েছে ২৮ থেকে ৩২ হাজার টাকা। একইভাবে কাভার্ডভ্যানের ভাড়া ২৫ হাজার থেকে বেড়ে হয়েছে ৩৫ হাজার টাকা। এত বেশি ভাড়া দেওয়া সত্ত্বেও ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান মিলছে না। ফলে পণ্য পরিবহন কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে।

বেনাপোল আমদানি-রফতানিকারক সমিতির সহসভাপতি আমিনুল হক বলেন, পরিবহন সংকটের জন্য ট্রাক ভাড়া এখন স্বাভাবিক সময়ের তুলনায় দ্বিগুণেরও বেশি হয়েছে। কাঁচাপণ্য নষ্ট হওয়ার আশঙ্কায় বাধ্য হয়ে অতিরিক্ত ভাড়া দিয়ে পণ্য খালাস করে নিয়ে যাচ্ছেন ব্যবসায়ীরা।

বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের যুগ্ম সম্পাদক নাসির উদ্দিন বলেন, বেনাপোল দিয়ে প্রতিদিন স্বাভাবিক সময়ে সাড়ে ৩শ ট্রাক পণ্য আমদানি ও আড়াইশ ট্রাক পণ্য রফতানি হয়ে থাকে। গেল ২০২১-২২ অর্থবছরে পণ্য আমদানি হয়েছে ২১ লাখ ১৪ হাজার মেট্রিক টন। এসব পণ্য ট্রাক বা কার্ভাডভ্যানে পরিবহন করা হয়। তেলের দাম বাড়ায় বেনাপোল থেকে ট্রাক ভাড়া ১২ হাজার থেকে ১৫ হাজার টাকা বেড়েছে। এতে সমস্যায় পড়তে হবে ব্যবসায়ীদের।

যশোর চেম্বার অব কমার্সের সাবেক সভাপতি মিজানুর রহমান খান বলেন, জ্বালানি তেলের সঙ্গে পরিবহনের সম্পর্ক। তেলের দাম অস্বাভাবিক বাড়ার কারণে ট্রাকের ভাড়াও বৃদ্ধি পেয়েছে। এতে শিল্পের ওপর চাপ পড়বে। খরচ বেড়ে যাবে। যা ভোক্তার ওপর গিয়ে পড়বে।


আরও খবর



গোপনাঙ্গ চেপে ধরে স্বামীকে হত্যা, কারাগারে তৃতীয় স্ত্রী

প্রকাশিত:Monday ২৫ July ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১৭ August ২০২২ | ৩৪জন দেখেছেন
Image

বগুড়ার ধুনটে কৃষক আব্দুর রহিম (৬৫) হত্যা মামলায় তার তৃতীয় স্ত্রী বিউটি খাতুনকে (৪০) আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

নামে এক কৃষককে হত্যার অভিযোগে তার তৃতীয় স্ত্রীর বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। সোমবার সকালের দিকে নিহতের মা বিলকিছ বেগম বাদি হয়ে এ মামলা করেন। মামলার একমাত্র আসামী নিহতের তৃতীয় স্ত্রী বিউটি খাতুন (৪০)।

সোমবার (২৫ জুলাই) দুপুর ১২টার দিকে তাকে ধুনট থানা থেকে আদালতের মাধ্যমে বগুড়া জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।

এরআগে সকালে নিহত আব্দুর রহিমের মা বিলকিছ বেগম বাদী হয়ে একটি মামলা করেন।

রোববার (২৪ জুলাই) দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার নিমগাছি ইউনিয়নের ধামাচামা গ্রামে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

নিহত আব্দুর রহিম একই গ্রামের মৃত জয়নাল আবেদীন প্রামাণিকের ছেলে।

মামলা ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বিউটি খাতুন শিয়ালী গ্রামের মৃত হাফিজার রহমানের মেয়ে। তিনি আব্দুর রহিমের তৃতীয় স্ত্রী। প্রায় ছয় বছর আগে তাদের বিয়ে হয়। রোববার সকালের দিকে পারিবারিক বিভিন্ন বিষয়াদি নিয়ে ঝগড়া হয়। একপর্যায়ে আব্দুর রহিম বিউটি খাতুনকে মারপিট করেন। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে বিউটি খাতুন স্বামীর গোপনাঙ্গ চেপে ধরেন। এতে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান আব্দুর রহিম। সংবাদ পেয়ে বিকেল ৩টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে বিউটি খাতুনকে আটক করে।

ধুনট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে বিউটি খাতুন তার স্বামীকে হত্যার কথা স্বীকার করেছেন। আইনি প্রক্রিয়া শেষে মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।


আরও খবর



বাংলাদেশের জয় নিয়ে একটি লেখা পড়েই বদলে যায় রাজার ভাবনা

প্রকাশিত:Saturday ০৬ August ২০২২ | হালনাগাদ:Thursday ১৮ August ২০২২ | ২৩জন দেখেছেন
Image

ইনিংসের মাঝপথে চোটে কাবু মনে হচ্ছিল। কিন্তু বারবার শুশ্রুষা নিয়ে ব্যাটিংটা চালিয়ে গেলেন সিকান্দার রাজা। জিম্বাবুইয়ান এই ব্যাটার দলকে জিতিয়েই তবে থামলেন। খেললেন ১৩৫ রানের হার না মানা ইনিংস।

দীর্ঘ ৯ বছর আর ১৯ ম্যাচ পর ওয়ানডেতে বাংলাদেশকে হারানোর সুযোগটা কিছুতেই হাতছাড়া করতে চাননি রাজা। জানালেন, ম্যাচের আগে একটি আর্টিকেল (লেখা) পড়েই ভাবনা বদলে গিয়েছিল। মনে মনে পণ করেছিলেন, এবার জিততেই হবে।

রাজা বলেন, ‘আপনারা জানেন, আমি এমন একজন মানুষ যে কিনা পরিসংখ্যান দেখতে পছন্দ করি। গতকাল একটি পরিসংখ্যান চোখে পড়ে। আমি একটি আর্টিকেল পড়ছিলাম, যেখানে বলা হয়েছে সম্ভবত বাংলাদেশের বিপক্ষে আমরা ২০ ম্যাচ (প্রকৃতপক্ষে ১৯ ম্যাচ) জয় পাইনি। আমি এটা দেখলাম। মনে হচ্ছিল যদি ম্যাচটা জিততে পারি দারুণ হবে।’

৩০৪ রানের বড় লক্ষ্য তাড়া করে জিততে পারবেন, ইনিংস বিরতির সময়ও কি এমনটা ভেবেছিলেন? রাজা জানালেন, তার বিশ্বাস ছিল ৩ ওভার হাতে রেখেই জিততে পারবেন।

জিম্বাবুইয়ান এই অলরাউন্ডার বলেন, ‘আমরা চেঞ্জিং রুমে একসাথে হলাম। ব্যাটারদের একসঙ্গে দাঁড় করিয়ে বললাম, ইনশাআল্লাহ আমরা এই ম্যাচটা তিন ওভার রেখেই জিতব।’


আরও খবর



অভিবাসন আইন সহজ করলো স্পেন

প্রকাশিত:Wednesday ২৭ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৬৩জন দেখেছেন
Image

পর্যটন ও কৃষি শিল্পের মতো কর্মী সংকটে থাকা খাতগুলোর চাহিদা মেটাতে বিদ্যমান অভিবাসন আইন সংস্কার করেছে দক্ষিণ-পশ্চিম ইউরোপের দেশ স্পেন। ফলে চাকরিদাতারা সহজে বিদেশ থেকে কর্মী আনার অনুমতি পাবে। পাশাপাশি স্পেনে এখন বসবাস করছেন এমন অভিবাসীদের নিয়োগ দিতে আলাদা করে আর কাজের অনুমতির প্রয়োজন হবে না।

দেশটির অভিবাসন মন্ত্রণালয়ের জানিয়েছে, আগের প্রক্রিয়াটি ধীর ও প্রয়োজনের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ না হওয়ায় স্পেন সামাজিক-অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছিল।

মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিলটি পাসের পর দেশটির সামাজিক নিরাপত্তা ও অভিবাসনমন্ত্রী হোসে লুইস এসক্রিভা সাংবাদিকদের বলেন, এই উদ্যোগের ফলে অভিবাসনের কারণে সৃষ্ট চ্যালেঞ্জগুলো আমরা ভালোভাবে মোকাবিলা করতে পারবে।

নতুন নিয়ম অনুযায়ী দুই বছর বা তার বেশি সময় ধরে দেশটিতে বসবাসরত বিদেশিরা এখন সাময়িক বসবাসের অনুমতিপত্র সংগ্রহ করতে পারবেন। এজন্য শর্ত হিসেবে কর্মী সংকট থাকা খাত সংশ্লিষ্ট কোনো প্রশিক্ষণে নিবন্ধন করতে হবে। তছাড়া যারা ছয়মাস ধরে কাগজবিহীনভাবে কাজ করেছেন, তারা প্রমাণ সাপেক্ষে বৈধভাবে কাজের অনুমতির আবেদন করতে পারবেন।

বিদেশি শিক্ষার্থীরা দেশটিতে পড়াশোনা শেষ করার সঙ্গে সঙ্গেই কাজে যোগ দিতে পারবেন। আগের নিয়ম অনুযায়ী, তাদের তিন বছর পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে না। এছাড়া পড়াশোনারত অবস্থায় তারা সপ্তাহে ৩০ ঘণ্টা পর্যন্ত কাজের অনুমতি পাবেন৷

আইনটির কারণে কর্মী সংকট থাকা খাতগুলোর জন্য বিদেশিদের কাজ ও ভিসা পাওয়ার উপায়ও সহজ হবে৷

এসক্রিভা জানিয়েছেন, যেসব খাতে কর্মী চাহিদা রয়েছে তার একটি হালনাগাদ তালিকা প্রকাশ করবে তার মন্ত্রণালয়৷ এতে শ্রমবাজার সম্পর্কে পরিস্কার চিত্র পাওয়া যাবে।


আরও খবর



রূপগঞ্জে প্রেমের ফাঁদে ফেলে এক প্রতিবন্ধী স্কুল শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ

প্রকাশিত:Wednesday ২০ July ২০22 | হালনাগাদ:Thursday ১৮ August ২০২২ | ৫০১জন দেখেছেন
Image

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ)  প্রতিনিধিঃ-মোঃআবু কাওছার মিঠু 


ভাগ্যের কি নির্মম পরিহাস। শারীরিক প্রতিবন্ধী হয়েও  আহাম্মেদ সানী নামে এক ধর্ষকের লালসা থেকে রেহায় পায়নি নবম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক স্কুল শিক্ষার্থী। একবার নয় দুবার নয় টানা তিন-চার বছর ধরে চলছে এ পাষবিক নির্যাতন।


বিচারের আশায় প্রহর গুণতে গুণতে মৃত্যুর পথও বেছে নিয়েছিল নির্যাতিতা ওই শিক্ষার্থী।তবুও কারো চোখের কোনে একফোটা জল ফুটেনি। পাষাণ হৃদয়ে বিচার পাইয়ে দেয়ার আশ্বাসটুকুও মেলেনি কারো। শুধু শারীরিক প্রতিবন্ধী ওই শিক্ষার্থীই নয় একাধীক মেয়ের সাথে এ অমানুষিক নির্যাতন চালিয়েছে লম্পট সানী। তবুও হয়না কোন মামলা, জিডি বা অভিযোগ। 


বার বার-ই টাকার বিনিময়ে উপর মহলের লোকজনদের ম্যানেজ করে পাড় পেয়ে যায় এ প্রতারক। সব শেষ ঘটনাটি নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের একটি বেসরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক শারীরিক প্রতিবন্ধীর সাথে ঘটে। মেয়েটির সরল বিশ্বাসকে পুঁজি করে প্রেমের ফাঁদে ফেলে বিভিন্ন জায়গায় ঘুরতে নিয়ে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। ওই ঘটনা সবাইকে জানিয়ে দেয়ার হুমকী দিয়ে টানা চার বছর ধরে চলে পাষবিক নির্যাতন। 


লম্পট আহাম্মেদ সানী উপজেলার কাঞ্চন পৌরসভার কেন্দুয়া পার্ক এলাকার সোলাইমানের ছেলে। প্রতিবন্ধী ওই শিক্ষার্থী ধর্ষনের ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে ভুক্তভোগী সহ স্থানীয় সাধারণত জনতা। ওই শিক্ষার্থীর পরিবার বিষয়টি আঁচ করতে পেরে ছেলের পরিবারের সাথে কথা বললে উল্টো তাদেরকে শাসিয়ে দেয় সানীর মা এবং এ বিষয় নিয়ে বেশি বাড়াবাড়ি করলে স্বপরিবারে হত্যার হুমকী দেয়ার কথাও স্থানীয়দের অজানা নয়।


গতকাল রাতে মেয়েটির বাড়িতে আবারও পাষবিক নির্যাতন চালায় লম্পট সানী। বিষয়টি বুঝতে পেরে স্থানীয়রা ছেলেটিকে আটক করে। 


পরে উভয় পরিবারের সাথে বোঝাপড়া করে ছেলেটির সাথে মেয়েটির বিয়ের দেয়ার কথা বলে ছেলে ও মেয়েকে প্রতারক সানীর বাড়িতে পাঠানো হয়। সেখানেই ঘটে বিপত্তি।


মোটা অংকের টাকায় উপর মহলকে ম্যানেজ করে ছেলের পরিবার। পরে মেয়েটির বয়স কম এ অজুহাতে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয় স্থানীয় ৩ নং ওয়ার্ল্ড কাউন্সিলর মাইন উদ্দিন। এ ঘটনায় ওই শিক্ষার্থীর বাবা রিক্সা চালক বলেন, আমরা গরিব। নিরিহ মানুষ।  আমরা আল্লাহর কাছেই এর বিচার দিলাম।


এ বিষয়ে কাউন্সিলর মাইন উদ্দিন জানান, মেয়েটির বয়স কম বলে বিয়ে দেয়া সম্ভব হয়নি। তাই মেয়ের বাবার কাছে তাকে বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে।


এ বিষয়ে রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এ এফ এম সায়েদ জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। প্রতিবন্ধী ওই শিক্ষার্থীর পরিবারের সাথে কথা বলে তাদেরকে আইনের সর্বোচ্চ সহযোগীতা দেওয়া হবে।


আরও খবর