Logo
আজঃ সোমবার ২৪ জুন 20২৪
শিরোনাম
মতিউর ও তার স্ত্রী-সন্তানদের বিদেশ যেতে নিষেধাজ্ঞা তরুণরাই বদলে যাওয়া বাংলাদেশকে এগিয়ে নেবে: প্রধানমন্ত্রী নতুন সেনাপ্রধানের বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন ভূয়া সৈনিক পরিচয়ে বিয়ে করে শশুড় বাড়ী শিকলবন্দী জামাই! খাগড়াছড়িতে পুনাক কমপ্লেক্স এর উদ্বোধন করলেন: পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল এিপুরা হিজবুল্লাহর সঙ্গে যুদ্ধ বাধলে ইসরায়েলকে সমর্থন দেবে যুক্তরাষ্ট্র হজ চলাকালীন ১৩০১ জন হজযাত্রীর মৃত্যু: সৌদি আরব সেতু ভেঙ্গে নয়জন নিহতের ঘটনায় দুইটি তদন্ত কমিটি গঠন, মাইক্রোবাস উদ্ধার বর ও কনের বাড়ীতে শোকের মাতম রাশিয়ায় বন্দুকধারীদের ভয়াবহ হামলায় ১৫ পুলিশ সদস্য নিহত

অর্থনেতিক সংকটকালে এই বাজেট গণমুখী ও বাস্তবসম্মত: ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১৩৩জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের দাবি করেছেন,২০২৪-২৫ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট গণমুখী ও বাস্তবসম্মত হয়েছে।

শনিবার (৮ জুন) দুপুরে বঙ্গবন্ধু এভিনিউর আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে প্রস্তাবিত বাজেট নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি করেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, গত ৬ জুন জাতীয় সংসদে শেখ হাসিনা সরকারের অর্থমন্ত্রী ২০২৪-২৫ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট পেশ করেছেন। অর্থনেতিক সংকটকালে এই বাজেট গণমুখী, বাস্তবসম্মত।

তিনি বলেন, বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার ৪০ শতাংশ লোককে দারিদ্র্যসীমার নিচে রেখে গেছে। শেখ হাসিনা সরকার ১৮ শতাংশে আর অতিদরিদ্র ৬ শতাংশে নামিয়ে এনেছে। বাংলাদেশে এখন শুধু ডালে ভাতে নয়, পুষ্টি উন্নয়নে স্বয়ংসম্পূর্ণ।

সিপিডি, সুজন, টিআইবি কী বললো তাতে আমাদের মাথাব্যথা নেই জানিয়ে কাদের বলেন, অনেকের গোপন টাকা আছে। বাজেটের মাধ্যমে ওই কালোটাকা সাদা করার সুযোগ আছে, কিন্তু অন্যায়ের শাস্তি কমানোর সুযোগ নেই। ১৫ শতাংশ কর দিয়ে আমরা তাদের অর্থনীতির মূল ধারায় আনার চেষ্টা করেছি। ‘বাজেটের একটাই চ্যালেঞ্জ, তা বাস্তবায়ন করা। তা বাস্তবায়নে সরকার এরইমধ্যে কাজ শুরু করেছে। ডলার সংকট নিয়ন্ত্রণ, মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ, সংকট মোকাবিলা করার জন্য আমরা কাজ করছি’, যোগ করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

এসময় বিএনপিকে উদ্দেশ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, দুর্নীতিতে তারা পাঁচবার বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন। তারা বলছে, তারা দুর্নীতির বিরুদ্ধে কর্মসূচি দেবেন। যাদের নেতারা দুর্নীতিবাজ তারা দুর্নীতির বিরুদ্ধে কর্মসূচি দেবেন, এটা এই বছরের সেরা জোক।

আওয়ামী লীগের মধ্যে যারা দুর্নীতিবাজ আছেন, তাদের বিরুদ্ধে দল কী ব্যবস্থা নেবে-এমন প্রশ্নের জবাবে সাংবাদিকদের কাছে তালিকা চাইলেন কাদের। তিনি বলেন, আপনারা আমাদের তালিকা দেন, আমরা তা দুদককে দেব।


আরও খবর



কাঠের সেতুতে স্কুলগামী ছাত্র-ছাত্রীসহ এলাকাবাসীর স্বস্তি

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৯৫জন দেখেছেন

Image

রিয়াদ হোসাইন,গলাচিপা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি:পটুয়াখালীর গলাচিপায় কাঠের সেতুতে স্কুলগামী ছাত্রছাত্রীসহ এলাকাবাসীর স্বস্তি। গলাচিপা উপজেলার কলাগাছিয়া ইউনিয়নের কলাগাছিয়া গ্রাম আর সদর উপজেলার কমলাপুর ইউনিয়নের চর মইশাদি গ্রামে হাজারো মানুষের বাস। এসব মানুষের আত্মিক বন্ধন শত বছরের। কিন্তু দুই গ্রামের মাঝ দিয়ে উত্তর দক্ষিণে প্রবাহিত হচ্ছে ১৫০ মিটার প্রশস্ত নদী। যা পারাপারের একমাত্র উপায় ছিলো নড়বড়ে বাঁশের সাঁকো কিংবা ডিঙ্গি নৌকা। যা ছিলো ঝুঁকিপূর্ণ। এখানে সেতু নির্মাণের জন্য সরকারি দপ্তরে একাধিক আবেদনেও সাড়া মেলেনি। অবশেষে উপজেলা প্রশাসনের পরামর্শ ও পৃষ্ঠপোষকতায় এবং স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের সহযোগিতায় ১৫০ মিটার দীর্ঘ একটি কাঠের সেতু নির্মিত হয়েছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, গলাচিপা উপজেলার কলাগাছিয়া ইউনিয়নের কলাগাছিয়া গ্রাম ও সদর উপজেলার কমলাপুর ইউনিয়নের চর মইশাদি গ্রামের মাঝ দিয়ে বয়ে গেছে ধরান্দি খাল। খালের পূর্ব পাড়ে দুইটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, কলাগাছিয়া  ইউনিয়ন পরিষদ, ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ কেন্দ্র, একিিট দাখিল মাদ্রাসা, একিিট কলেজ রয়েছে। খালের পশ্চিম পাড়ের শত শত শিক্ষার্থী ও মানুষকে প্রতিদিন এই খাল পার হতে হতো। ঝুঁকিপূর্ণ সাঁকো কিংবা ডিঙ্গি নৌকা ছিলো একান্ত সম্বল। এছাড়া বর্ষা মৌসুমে প্রায় ৩ মাইল ঘুরে আসতে হতো। খরচ হতো কমপক্ষে ৫০ টাকা।

দুই গ্রামের মানুষের যোগাযোগ সহজ করতে এলাকাবাসী ধরান্দি খালের ওপর প্রথম একটি বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করেন। দীর্ঘদিন ধরে গ্রামবাসী মিলেই মেরামত করে সাঁকোটির ওপর দিয়ে চলাচলের উপযোগী করে রাখছিলেন। বিশেষ করে নারী ও বয়স্কদের এই নড়বড়ে সাঁকো পার হওয়া বেশ কষ্টকর ছিল। কালক্রমে এটাও বিলীন হয়ে যায়।

কয়েক মাস আগে নড়বড়ে সাঁকোটি খালে হেলে পড়ে গেলে চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নজরে আনলে তিনি একটি কাঠের সেতু স্থাপনের পরামর্শ দেন এবং কিছু অর্থ বরাদ্দ দেন। ইউপি চেয়ারম্যান প্রায় দুই মাস চেষ্টা করে ৩০০ ফুট দীর্ঘ এবং ৪ ফুট প্রস্থের একটি কাঠের সেতু নির্মাণ করে ফেলেন।

সরেজমিন দেখা গেছে, গাছের গুঁড়ি পুঁতে তার ওপরে কাঠের পাটাতন বিছিয়ে দেওয়া হয়েছে। সেতুর রেলিং দেওয়া হয়েছে কাঠ দিয়ে। সেতুর মাঝখানে করা হয়েছে সুদৃশ্য নৌকার প্রতিকৃতি। উদ্বোধন উপলক্ষে সাজানো হয়েছে বেলুন ও ফেস্টুন দিয়ে।

অবশেষে সেই দুর্ভোগ লাঘব হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৬ জুন) নির্মিত সেতুটি জনসাধারণের চলাচলের জন্য আনুষ্ঠানিকভাবে উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়। লাল ফিতা কেটে সেতুটির উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মহিউদ্দিন আল হেলাল। সে সময় থেকেই সেতু দিয়ে লোকজনের চলাচল শুরু হয়।

তাদের মধ্যে বই-খাতা নিয়ে সেতু পার হচ্ছিলেন চর মইশাদি গ্রামের সিনথিয়া। সে কলাগাছিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী। সিনথিয়া বলেন, ‘আগে তিন কিলোমিটার ঘুরে স্কুলে যেতাম। এখন এই সেতু হওয়ায় মাত্র ১৫ মিনিটে কলেজে যেতে পারবো। আমাদের কষ্ট দূর হয়েছে।’

কলাগাছিয়া বাজারের মুদি ব্যবসায়ী ইব্রাহিম বলেন, ‘নতুন কাঠের সেতু হওয়ার কারণে আমরা সবচেয়ে বেশি উপকৃত। এই সেতু না থাকলে আমাদের ব্যবসা-বাণিজ্যে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে।’

কলাগাছিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাঈনুল শিকদার বলেন, ‘উপজেলা নির্বাহী অফিসারের পরামর্শ ও তত্ত্বাবধানে এই কাঠের সেতু নির্মাণে ব্যয় হয়েছে প্রায় চার লাখ টাকা। এছাড়া স্বেচ্ছা শ্রম ও গাছের মাধ্যমে সহায়তা করেছেন এলাকাবাসী। দুই মাস সময় লেগেছে সেতুটি নির্মাণে।’

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মহিউদ্দিন আল হেলাল বলেন, ‘এ খাল পারাপার ঝুঁকিপূর্ণ ছিল। এই দুর্ভোগ লাঘবে উপজেলা প্রশাসন ও ইউনিয়ন পরিষদ কাজ করেছে। আশা করছি, ওখানে স্থায়ী সেতুও নির্মাণ করা হবে। সে বিষয়ে আমাদের প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।’


আরও খবর



সুন্দরগঞ্জে 'জাগো বাহে' ঈদ সংখ্যার মোড়ক উন্মোচন

প্রকাশিত:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৩৩জন দেখেছেন

Image
সুন্দরগঞ্জ(গাইবান্ধা)প্রতিনিধিঃগাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ সাহিত্য সংসদ'র ত্রৈমাসিক সাহিত্য পত্রিকা 'জাগো বাহে' ঈদ সংখ্যার মোড়ক উন্মোচন করা হয়েছে।

শনিবার (২২ জুন) বিকেলে সুন্দরগঞ্জ মহিলা ডিগ্রি কলেজের মিলনায়তনে এ উপলক্ষ্যে সাহিত্য আসর অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন সুন্দরগঞ্জ সাহিত্য সংসদ'র সভাপতি নাসরিন সুলতানা রেখা।

সুন্দরগঞ্জ সাহিত্য সংসদ'র সাধারণ সম্পাদক ও জাগো বাহে'র সম্পাদক কুশল রায়ের সঞ্চালনায় এসময় বক্তব্য রাখেন সংগঠনের উপদেষ্টা ড. শফিউল ইসলাম ভূঁইয়া, উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি শাহজাহান মিঞা, অধ্যক্ষ মুহা. একরামুল হক, সহকারী অধ্যাপক আব্দুল আজিজ, সাংবাদিক ও লেখক আবু নাসের সিদ্দিক তুহিন, সংগঠক ও লেখক ফয়সাল সাকিদার আরিফ, প্রভাষক আবু বকর সিদ্দিক, জাগো বাহে'র নির্বাহী সম্পাদক সুদীপ্ত শামীম, সংগঠক এরশাদুল আলম প্রমূখ।

কবিতা ও ছড়া পাঠ করেন সাহিত্য সংসদ'র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সরকার হোজায়ফা হাবিব, সাংগঠনিক সম্পাদক আল আমিন মোহ, সাংবাদিক আনিসুর রহমান আগুন, আব্দুর রাজ্জাক আল রোহান, সাবরিনা জাহান সুমি, ফাইয়াজ ইসলাম ফাহিম, সাইফুল ইসলাম তারাপুরী, আলমগীর আকন্দ কাব্যকীট, মোহাম্মদ হাসান, জান্নাতুল ফেরদৌসি জিনাত, মোরসালিন সুলতানা মিম প্রমূখ।

পরে সুন্দরগঞ্জ সাহিত্য সংসদ'র ত্রৈমাসিক প্রকাশনা 'জাগো বাহে' ঈদ সংখ্যার মোড়ক উন্মোচন করা হয়।

আরও খবর



ঝড়সহ বজ্রবৃষ্টির শঙ্কা দুপুরের মধ্যে

প্রকাশিত:শুক্রবার ৩১ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | ১২২জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:সর্বোচ্চ ৮০ কিলোমিটার বেগে দেশের কয়েক অঞ্চলের ওপর দিয়ে ঝড়সহ বজ্রবৃষ্টির আশঙ্কা করছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।সেই সঙ্গে হতে পারে বজ্রসহ বৃষ্টি।

শুক্রবার (৩১ মে) দুপুর ১টা পর্যন্ত দেশের অভ্যন্তরীণ নদীবন্দরগুলোর জন্য দেওয়া এক পূর্বাভাসে এ আশঙ্কার কথা জানানো হয়।

আবহাওয়াবিদ খো. হাফিজুর রহমান স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, রংপুর, দিনাজপুর, ময়মনসিংহ এবং সিলেট অঞ্চলের ওপর দিয়ে পশ্চিম অথবা উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৬০ থেকে ৮০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। সেইসঙ্গে বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। তাই এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে ২ নম্বর নৌ হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

পূর্বাভাসে আরও বলা হয়েছে, বগুড়া, টাঙ্গাইল, খুলনা, ফরিদপুর, ঢাকা, বরিশাল, পটুয়াখালী, নোয়াখালী, কুমিল্লা এবং চট্টগ্রাম অঞ্চলের ওপর দিয়ে একই দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এ সময় বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্কসংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।


আরও খবর



শেখ `ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হাসপাতালে প্রধানমন্ত্রীর স্বাস্থ্য পরীক্ষা

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৪ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | ৮১জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গাজীপুরের কাশিমপুরের শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মেমোরিয়াল কেপিজে বিশেষায়িত হাসপাতাল ও নার্সিং কলেজে নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষা করালেন।

শুক্রবার (১৪ জুন) সকালে বিশেষায়িত হাসপাতাল ও নার্সিং কলেজে যান তিনি। সেখানে কাউন্টারে নিজের হাতে পরীক্ষা-নিরীক্ষার বিল পরিশোধ করে নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষার করান তিনি।

পরে সরকারপ্রধান হাসপাতাল পরিদর্শন করেন। তিনি হাসপাতালের পরিচালনা পর্ষদ সদস্য, চিকিৎসক ও নার্সদের সঙ্গে কথা বলেন।

এ সময় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেন, যুব ও ক্রীড়ামন্ত্রী নাজমুল হাসান পাপন, সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী আফম রুহুল হকসহ বিভিন্ন কর্মকর্তারা।


আরও খবর



ভারী বৃষ্টিতে ডুবল সিলেট, ম্লান ঈদ আনন্দ

প্রকাশিত:সোমবার ১৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৯৯জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:ঈদের দিন ভোর থেকে সাড়ে ৪ ঘণ্টার ভারী বৃষ্টিতে তলিয়ে গেছে মহানগরসহ সিলেট জেলার বিভিন্ন উপজেলার ঈদগাহ ও সড়ক। পাহাড়ি ঢলে বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে সুরমা ও কুশিয়ারা নদীর পানি। প্রায় ৬ লাখ মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। এতে ঈদুল আজহার আনন্দ অনেকটাই মাটি হয়েছে। বৃষ্টির পানিতে ঈদগাহ ও মসজিদ ভেসে যাওয়ায় অনেকে ঈদের নামাজ আদায় করতে পারেননি। এমনকি পশু কোরবানি করা নিয়েও অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে।

সোমবার দেশের বিভিন্ন জেলায় ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস ছিল। এদিন সিলেটে ভোর ৪টা থেকে সকাল সাড়ে ৮টা পর্যন্ত টানা বর্ষণ চলে।

সরেজমিনে দেখা যায়, নগরীর প্রধান প্রধান সড়কের উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। অনেকের বাসাবাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে পানি ঢুকেছে। আবার শুকনা স্থান না পাওয়ার ফলে অনেকেই কোরবানির গরু-ছাগল পানির মধ্যে বেঁধে রেখেছেন। এ ছাড়া জেলার বিভিন্ন উপজেলায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে।

ইতোমধ্যে বন্যা আক্রান্তদের জন্য ৪৪৯টি আশ্রয়কেন্দ্র খোলা হয়েছে। জানা গেছে, আজ সকাল পর্যন্ত কোম্পানীগঞ্জ, গোয়ানঘাট, কানাইঘাটসহ কয়েকটি উপজেলায় ১০ হাজারের মতো মানুষ আশ্রয়কেন্দ্রে উঠেছেন।

এদিকে সকাল ৮টায় ভারী বৃষ্টি মাথায় নিয়েই শাহী ঈদগাহে সিলেটে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিবছর এই জামাতে লক্ষাধিক মুসল্লি অংশ নিলেও এবার ব্যতিক্রম ছিল। শুধু শাহী ঈদগাহ নয়, প্রতিটি মসজিদ ও ঈদগাহের একই অবস্থা ছিল। সকাল ৮টায় পুলিশ লাইন জামে মসজিদে পানি প্রবেশ করায় একাংশে নামাজ আদায় করতে দেখা গেছে মুসল্লিদের।

একইভাবে মেজরটিলা, কদমতলী, বিমানবন্দর সড়ক, উপশহর, সুবহানিঘাটসহ বেশ কয়েকটি এলাকার ঈদগাহ ও মসজিদে পানি প্রবেশ করায় নামাজ আদায়ে ব্যাঘাত ঘটে।


আরও খবর