Logo
আজঃ সোমবার ২৪ জুন 20২৪
শিরোনাম

চীন থেকে বাংলাদেশে আসা এক নাগরিকের বিএফ.৭ শনাক্ত

প্রকাশিত:রবিবার ০১ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৩২১জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক; দেশে করোনাভাইরাসের ওমিক্রনের নতুন উপধরন বিএফ.৭ শনাক্ত হয়েছে। চীন থেকে আসা কোয়ারেন্টিনে থাকা একজন চীনা নাগরিকের নমুনায় করোনার এই নতুন উপধরন শনাক্ত হয়েছে।

আজ রোববার দুপুরে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান আইইডিসিআরের পরিচালক ডা. তাহমিনা শিরীন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, তার (চীনা নাগরিক) নমুনার জিনোম সিকোয়েন্স করে এই নতুন ধরন চিহ্নিত করা হয়েছে। তবে আক্রান্ত নাগরিক সুস্থ আছেন

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সূত্র জানায়, মহাখালীর ডিএনসিসি হাসপাতালে কোয়ারেন্টিনে থাকা চার চীনা নাগরিকের নমুনার জিনোম সিকোয়েন্স করে একজনের শরীরে বিএফ.৭ শনাক্ত হয়েছে। বাকি তিনজনের মধ্যে দুজনের ওমিক্রন বিএ ৫.২ উপধরন এবং আরেকজনের বিএ ৫.২.১ উপধরন শনাক্ত হয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগ নিয়ন্ত্রণ শাখার পরিচালক অধ্যাপক ডা. নাজমুল ইসলাম জানান, বিএফ.৭ আক্রান্ত একজনসহ করোনা আক্রান্ত চীনা নাগরিকের প্রত্যেকেই সুস্থ আছেন।

নতুন ধরন প্রসঙ্গে নাজমুল ইসলাম বলেন, ‘নতুন উপধরন নিয়ে আমরা ভীত নই। আমরা চাই না কেউ করোনা সংক্রমণ নিয়ে প্যানিক হয়ে যাক, কারণ আমাদের সংক্রমণের হার বর্তমানে ১ শতাংশেরও কম। তবে নতুন উপধরনকে আমরা যথেষ্ট গুরুত্ব দিচ্ছি, সংক্রমণের হার যেন কোনোভাবেই বাড়তে না পারে, আমরা সেই চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।’

বিএফ.৭ না ছড়ানোর বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এখন কী করছে? এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘নতুন উপধরনকে আমরা খুব ক্লোজলি মনিটর করছি। সংক্রমিত দেশগুলো থেকে যারা আসছেন, তাদের নিয়মিত পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছি। পরীক্ষায় যাদের নমুনা পজিটিভ পাচ্ছি তাদের আইসোলেটেড করছি, আরটিপিসিআর করছি। এই কার্যক্রমগুলো আমাদের নিয়মিত চলছে।’


আরও খবর



মধুপুরে ভিজিএফ এর চাল বিতরণে বাঁধা ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানকে লাঞ্চিত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১৩৪জন দেখেছেন

Image

বিশেষ প্রতিনিধি মধুপুর টাঙ্গাইল:টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলাধীন শোলাকুড়ি ইউনিয়ন পরিষদে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার ভিজিএফএর চাল বিতরণকালে বহিরাগতদের বাঁধা এবং ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও মারধর  করার অভিযোগ করেছেন উক্ত পরিষদের সকল ইউপি সদস্যগন।

গত বৃহস্পতিবার (১৩জুন) দুপুরে শোলাকুড়ি ইউনিয়ন পরিষদে প্রধানমন্ত্রীর নিজ তহবিল থেকে ঈদ উপহার হিসেবে দুস্থ ও হতদরিদ্র মানুষের মাঝে চাল বিতরণ কালে এ ঘটনাটি ঘটে বলে তারা জানান। 

ভুক্তভোগী ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মো.রোস্তম আলী জানান, তিনি ১৩৫৪  জনের নামের তালিকা অনুযায়ী সাড়ে তের টন চাল পরিষদে নিয়ে আসেন এবং ওয়ার্ড ভিত্তিক তালিকা অনুযায়ী ইউপি সদস্যদের মাঝে বন্টন করে দেন।

ইউপি সদস্যগন চাল বিতরণ শুরু করলে শহিদুল ইসলাম শহিদ ফকির এবং পিয়াস মোহাম্মদ শামীম ফকির তাদের লোকজন নিয়ে এসে চাল বিতরণের মাস্টার রোলের তালিকা জোরপূর্বক কেড়ে নিয়ে তারা নিজেরাই চাল দেওয়া শুরু করেন। 

১ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আব্দুস সামাদ, ২নং ওয়ার্ডের সাইম সরকার, ৪নং ওয়ার্ডের আঃ কাদের, ৭নং ওয়ার্ডের তুহিন নকরেক, ৮ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য নাজির এবং ১,২,৩, নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা আসনের ইউপি সদস্য শ্যামা, ৪,৫,৬,নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা আসনের ইউপি সদস্য শেফালী বেগম ও ৭,৮,৯ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা আসনের ইউপি সদস্য কনা এ ঘটনার

সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আমরা সবাই মাস্টার রোলের তালিকা অনুযায়ী চাল বিতরণ শুরু করলে অভিযুক্তরা লোকজন নিয়ে এসে আমাদের তালিকা জোরপূর্বক ছিনিয়ে নেয় এবং তারা তাদের ইচ্ছে মতো চাল দেওয়া শুরু করে। আমরা বাঁধা দিলে তারা আমাদের হুমকি ধামকি দিয়া সরিয়ে দেয়। 

তারা আরও জানান, চেয়ারম্যান এসে প্রতিবাদ করলে তারা তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং মারধর করে। 

পরবর্তীতে ইউপি চেয়ারম্যান বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসার জুবায়ের হোসেনের নিকট জানালে তিনি চাল বিতরণ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন এবং পরের দিন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট ইয়াকুব আলীকে সঙ্গে নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

এ অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার জন্য উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট ইয়াকুব আলী দুঃখ প্রকাশ করেন এবং দু'পক্ষের সাথে  আলোচনা করে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার মিমাংসা করেন। নিয়মানুযায়ী ইউপি সদস্যদের মাধ্যমেই চাল বিতরণ হবে বলেও তিনি জানান।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ রাখাই চ্যালেঞ্জ : প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | ৯৪জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০২৪-২৫ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে রাখাকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে বর্ণনা করেছেন।

শুক্রবার (৭ জুন) বিকেলে তেজগাঁও জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে ঐতিহাসিক ৬ দফা উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সব থেকে বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে রাখা। বিশেষ করে খাদ্য মূল্য, সেখানে উৎপাদন এবং সরবরাহ বৃদ্ধি করতে হবে। বৃষ্টির কারণে যেমন আলুর বীজ নষ্ট হয়ে গেছে, তো এই রকম অনেক কিছুই আছে। আমরা এখনও উৎপাদনমুখী হলে খাদ্যে কোনো দিন অভাব হবে না। বিশ্ব পরিস্থিতি মাথায় রেখে আমাদের পরিকল্পনা নিয়ে চলতে হবে।

বাজেটে এবার মৌলিক চাহিদাকে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা বৃহস্পতিবার বাজেট দিয়েছি, বিএনপির আমলে সবশেষ বাজেট মাত্র ৬২ হাজার কোটি টাকার ছিল। আর তত্ত্বাবধায়ক সরকার দিয়েছিল ৬৮ হাজার কোটি টাকার, সেখানে আমরা ৭ লাখ ৯৮ হাজার কোটি টাকা বাজেট প্রস্তাব করেছি।

তিনি বলেন, এই বাজেটে মানুষের মৌলিক যে অধিকার, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, খাদ্য তারপর দেশীয় শিল্প, সেগুলো এবং সামাজিক নিরাপত্তা, এসব বিষয়কে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। যা মানুষের জীবনকে উন্নত করবে, নিশ্চয়তা দেবে। তার কারণ হচ্ছে, আমরা এগিয়ে যাচ্ছিলাম, কোভিড ১৯ এর অতিমারি দেখা দিয়েছিল, এই অতিমারির ফলে সারা বিশ্বে অর্থনৈতিক মন্দা হয়েছে, আমরাও সেই মন্দায় পড়ে গেলাম। সারা বিশ্বে প্রতিটি জিনিসের দাম বেড়ে গেল। এরপর আসল ইউক্রেন রাশিয়ার যুদ্ধ, এরপর স্যাংশন পাল্টা স্যাংশন, ফলে প্রত্যেকটা জিনিসের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে।

সরকারপ্রধান বলেন, আমাদের মানুষকে খাওয়াতে হবে আগে। রিজার্ভ কত আছে না আছে, সেটার চেয়ে বেশি দরকার আমার দেশের মানুষের চাহিদাটা পূরণ করা। সেদিকে লক্ষ্য রেখে আমরা পানির মতো টাকা খরচ করেছি। বাংলাদেশ একমাত্র দেশ যেটা কোনো উন্নত দেশ করেনি, বিনা পয়সায় কোভিড ১৯ এর ভ্যাকসিন দিয়েছি, বিনা পয়সায় টেস্ট করিয়েছি। সেটা করেছি কেন? মানুষকে বাঁচাতে।

মানুষের চাহিদা পূরণের ভাবনা থেকেই এই বাজেট দেওয়া হয়েছে উল্লেখ করে সরকারপ্রধান বলেন, অনেকে বসে বসে হিসাব কষে, আগে এত পার্সেন্ট বেড়েছে এবার কম পার্সেন্ট বাড়ল কেন? এখন সীমিতভাবে আমরা এগিয়ে যেতে চাই। যাতে আমাদের দেশের মানুষের কষ্ট না হয়। মানুষের যে চাহিদা সেটা যেন পূরণ করতে পারি, সেদিকে লক্ষ্য রেখেই আমরা বাজেট করেছি।

তিনি আরও বলেন, যেহেতু মূল্যস্ফীতি বেড়েছে, নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য আমরা পারিবারিক কার্ড করে দিয়েছি। যারা একেবারে হতদরিদ্র তাদের তো একেবারে বিনা পয়সায় খাবার দিচ্ছি। আর সামাজিক নিরাপত্তা তো বিনা পয়সায় দিয়ে যাচ্ছি।


আরও খবর



গোপালগঞ্জ টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করলেন পার্বত্য সচিব

প্রকাশিত:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১৬জন দেখেছেন

Image
জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব  এ কে এম শামিমুল হক ছিদ্দিকী আজ গোপালগঞ্জ জেলার টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে যথাযোগ্য মর্যাদায় শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। পরে সেখানে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ সকলের রুহের মাগফিরাত কামনা করে দোয়া ও মোনাজাতে যোগ দেন পার্বত্য মন্ত্রণালয়ের সচিব  এ কে এম শামিমুল হক ছিদ্দিকী। 

গোপালগঞ্জ টুংগী পাড়ায় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব জনাব এ কে এম শামিমুল হক ছিদ্দিকী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যকে সামনে রেখে সরকারের নীতি ও আদর্শ অনুযায়ী পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকার জনস্বার্থে তিন জেলায় উন্নয়ন কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। তিনি বলেন, আমরা দেশের উন্নয়নে কাজ করে যাবো। সরকারের দিক নির্দেশনা অনুযায়ী পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তনে আমরা সদা সোচ্চার থাকবো।

এসময় পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব সজল কান্তি বনিক, উপ-সচিব কাজী মোহাম্মদ চাহেল তস্তুরী, উপ-সচিব মোঙ্গল চন্দ্র পাল, উপ-সচিব (সচিবের পিএস) মো. শরিফুল ইসলাম, সিনিয়র সহকারী সচিব মো. আজিজুল হক, মন্ত্রণালয়ের সহকারী মেইনটেনেন্স ইন্জিনিয়ার হাবিবুল্লাহ নাহিদ উপস্থিত ছিলেন।

পার্বত্য মন্ত্রণালয়ের সচিব  এ কে এম শামিমুল হক ছিদ্দিকী  পিরোজপুর ও পটুয়াখালীর জেলা প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।তিনি যুগ্ম-সচিব এবং অতিরিক্ত সচিব হিসেবে স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগ, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এবং অতিরিক্ত সচিব হিসেবে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি শেখ হাসিনা জাতীয় যুব ইনস্টিটিউট-এর মহাপরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।পরবর্তীতে তিনি জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ এর চেয়ারম্যান পদে কর্মরত ছিলেন। গত ৩১.১২.২০২২ খ্রি: তারিখে সচিব পদে পদোন্নতি পেয়ে ০১.০১.২০২৩ খ্রি: তারিখ থেকে ভূমি আপীল বোর্ডের চেয়ারম্যান (সচিব) হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব  এ কে এম শামিমুল হক ছিদ্দিকী ১৩ম বিসিএস (প্রশাসন) ক্যাডারে যোগদানের মাধ্যমে ১৯৯৪ সালের ২৫ এপ্রিল কর্মজীবন শুরু করেন। চাকুরী জীবনের শুরুতে তিনি সহকারী কমিশনার হিসেবে খুলনা ও কুষ্টিয়া কালেক্টরেট এবং সিনিয়র সহকারী কমিশনার ও রেভিনিউ ডেপুটি কালেক্টর হিসেবে কুষ্টিয়া কলেক্টরেটে দায়িত্ব পালন করেন। পরবর্তীতে তিনি মেহেরপুর সদর এবং সাতক্ষীরা জেলার তালা উপজেলায় সহকারী কমিশনার (ভূমি) হিসেবে কাজ করেন। চাকরি জীবনে তিনি খুলনা  জেলার কয়রা উপজেলায়, সাতক্ষীরা জেলার কলারোয়া উপজেলায় এবং চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গা উপজেলায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার  হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক হিসেবে রাজবাড়ী জেলায় এবং উপপরিচালক হিসেবে বিপিএটিসি, সাভার-এ কাজ করেন। এছাড়া তিনি মংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ ও সমাজ সেবা অধিদপ্তর, খুলনা এর পরিচালক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন। 

আরও খবর



বাংলাদেশকে সাড়ে ১০ হাজার কোটি টাকা দিল বিশ্বব্যাংক

প্রকাশিত:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৪৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশের বিভিন্ন খাতের উন্নয়নে ৯০ কোটি ডলার বা প্রায় সাড়ে ১০ হাজার কোটি টাকার ঋণ অনুমোদন দিয়েছে। সংস্থাটির নির্বাহী পরিচালক বোর্ড এ অনুমোদন দিয়েছে। টেকসই জলবায়ু-সহনশীল প্রবৃদ্ধি নিশ্চিত করতে বাংলাদেশকে রাজস্ব ও আর্থিক খাতের নীতি শক্তিশালী করণ এবং শহরের অবকাঠামো ও ব্যবস্থাপনার উন্নতি করতে ঋণের এ অর্থ ব্যয় করা হবে।

শনিবার (২২ জুন) বিশ্বব্যাংকের ঢাকা অফিস থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানায় সংস্থাটি।

বিজ্ঞপ্তিতে বাংলাদেশ ও ভুটানে বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর আবদুলায়ে সেক বলেন, প্রয়োজনীয় সংস্কারগুলো বাংলাদেশকে প্রবৃদ্ধি ধরে রাখতে এবং জলবায়ু পরিবর্তন ও অন্যান্য সংকট মোকাবিলায় সহায়তা করবে। নতুন অর্থায়ন বাংলাদেশকে দুইটি গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্রে সহায়তা করবে একটি হচ্ছে আর্থিক খাত ও নগর ব্যবস্থাপনা এবং অন্যটি উচ্চ মধ্যম-আয়ের দেশের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন।

এতে আরও বলা হয়, দুই কিস্তি ঋণের শেষ কিস্তি হিসেবে ৫০০ মিলিয়ন ডলার দেওয়া হচ্ছে। এটি বাংলাদেশের আর্থিক খাতে সংষ্কারের পাশাপাশি টেকসই উন্নয়নের গতি বাড়াবে। এ ছাড়াও জলবায়ু পরিবর্তনসহ ভবিষ্যতে যেকোনো দুযোর্গ মোকাবিলায় সহায়তা করবে

বিশ্বব্যাংকের সিনিয়র ইকোনমিস্ট এবং এই প্রোগ্রামের টাস্ক টিম লিডার বার্নার্ড হ্যাভেন বার্তায় বলেন, বিনিয়োগ বাড়াতে এবং আনুষ্ঠানিক ব্যাংকিং ব্যবস্থা থেকে বাদ পড়াদের জন্য অর্থের অ্যাক্সেস উন্নত করতে বাংলাদেশের জন্য একটি ভালো কার্যকরী আর্থিক খাত গুরুত্বপূর্ণ।

সরকার বাহ্যিক ভারসাম্যহীনতা মোকাবিলায় শক্তিশালী সামষ্টিক অর্থনৈতিক সংস্কার এবং আর্থিক খাতকে শক্তিশালী করার জন্য একটি নতুন আইনি কাঠামো গ্রহণ করেছে। যা ব্যাংক পুনরুদ্ধার কাঠামোকে শক্তিশালী করতে সাহায্য করবে। কম মূলধনী ব্যাংকগুলোকে সমস্যা মোকাবিলা করার জন্য একটি দ্রুত সংশোধনমূলক কর্মকাঠামো বাস্তবায়ন করতে সহায়তা করবে। এটি অর্থনৈতিক মন্দা এবং প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময় সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণদের রক্ষা করে সামাজিক সুরক্ষা কর্মসূচিকেও শক্তিশালী করবে বলে জানান তিনি।


আরও খবর



পটুয়াখালী সদর উপজেলা নির্বাচনে ইশতেহার ঘোষনা করেন চেয়ারম্যান প্রার্থী সোয়েব

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১৩৭জন দেখেছেন

Image

পটুয়াখালী প্রতিনিধ:৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ সাধারন নির্বাচন-২০২৪ এর ৩য় ধাপে ২৯ মে অনুষ্ঠিতব্য পটুয়াখালী সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ঘোড়া প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দী প্রার্থী মো. রেজাউল করিম সোয়েব তার নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষনা করেন। শনিবার (২৫ মে) দুপুর ১২ টায় মল্লিকা পার্টি সেন্টারে ঘোড়া মার্কার প্রধান এজেন্ট জেলা আওয়ামী লীগের কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক একেএম খায়েরুল আহসানের সভাপতিত্বে ও চেম্বারের সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি ও সাবেক কাউন্সিলর খন্দকার ফরহাদ জামান বাদলের উপস্থাপনায় নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষনা অনুষ্ঠানে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ঘোড়া প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দী প্রার্থী মো.রেজাউল করিম সোয়েব।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট হাফিজুর রহমান হাফিজ, পটুয়াখালী পৌর মেয়র মহিউদ্দিন আহমেদ, চেম্বারের সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি ও সাবেক কাউন্সিলর খন্দকার ফরহাদ জামান বাদলসহ স্থানীয় প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ।

ইশতেহার পাঠ শেষে চেয়ারম্যান পদ প্রার্থী রেজাউল করিম সোয়েব, দালাল ও দুর্নীতি মুক্ত পটুয়াখালী সদর উপজেলা পরিষদ কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ভোটার সাধারণের কাছে তার ঘোড়া মার্কায় ভোট চেয়েছেন। অনুরূপভাবে ঘোড়া প্রতীকে ভোট চেয়েছেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এ্যাড. হাফিজুর রহমান ও পৌরসভার মেয়র মহিউদ্দিন আহমেদ।


আরও খবর