Logo
আজঃ মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪
শিরোনাম

ন্যায্য মূল্য পাওয়ায় মহেশখালীর পানচাষীদের মাঝে আনন্দের বন্যা

প্রকাশিত:বুধবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪ | ৪২৮জন দেখেছেন

Image

মোঃআমান উল্লাহ, কক্সবাজার : কক্সবাজারের মহেশখালী দ্বীপের মিষ্টি পানে এখন সোনা ফলছে। মহেশখালীর মিষ্টি পান স্থানীয় ও দেশের সর্বত্র  মানুষের মাঝে স্থান  করে নিচ্ছে। ফলে মিষ্টি পান এক প্রকার এখন সোনার হরিণ। এছাড়া পান চাষিরা এক ঝুঁড়ি পান বিক্রি করে পাচ্ছেন লাখ টাকা। তাই পান চাষে জড়িয়ে পড়েছেন বিভিন্ন পেশার লোকজন।চট্টগ্রাম ও ঢাকায় এক বিরা বড় পান বিক্রি হচ্ছে ৫০০ থেকে ৬০০ টাকা পর্যন্ত। এতে মহেশখালীতে উৎপাদিত পানের চাহিদা দেশিয় বাজারে বেশি বলে জানালেন রপ্তানি কারকেরা। এই দিকে হঠাৎ মিষ্টি পানের দাম রেকর্ড পরিমান হওয়ায় চাষিদের মুখে হাসি ফুটেছে। এ সপ্তাহ ধরে পান বাজারে উৎপাদিত পানের দাম বেড়ে যাওয়ায় চাষীরা খুশি।

মহেশখালী উপজেলার বিভিন্ন বাজারে দুই সপ্তাহ আগে প্রতি বিরা পান বিক্রি হয়েছে ২০০ টাকা। তবে সপ্তাহ ধরে বেড়ে পানের দাম রেকর্ড হয়েছে। বর্তমানে মাঝারি ও বড় পান প্রতি বিরা পান বিক্রি হচ্ছে ৩৫০ থেকে ৪০০ টাকায়। আর ছোট পান বিক্রি হচ্ছে ১৫০ থেকে ২০০ টাকা পর্যন্ত।জানা গেছে, কয়েক যুগ ধরে মহেশখালী উপজেলার বড় মহেশখালী, হোয়ানক, কালারমারছড়া, ছোট মহেশখালী ও শাপলাপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন পাহাড়ী ঢালু ও আবাদি কৃষি জমিতে পান চাষ করে আসছে স্থানীয় পান চাষীরা।পাহাড়ী এলাকায় পান চাষ দুই-তিন বছর স্থায়ী হলে ও কৃষি জমিতে পান চাষ টিকে মাত্র ৫ থেকে ৬ মাস। তবে কৃষি জমিতে পান চাষ সেপ্টেম্বর-নভেম্বর মাস থেকে শুরু হয়ে তা মে মাসে শেষ হয়। আর পাহাড়ি এলাকায় পান চাষ যে কোনো সময়ে করা যায় বলে জানিয়েছেন শাপলাপুরের পান চাষিরা।পানের বরজ থেকে পান তুলে নিয়ে চাষীরা স্থানীয় হাট বাজারে নিয়ে তা বিক্রি করছে। উপজেলার গোরকঘাটা, বড় মহেশখালী নতুন বাজার, হোয়ানক ইউনিয়নের টাইম বাজার, পানিরছড়া বাজার, কালারমারছড়া ইউনিয়নের কালারমারছড়া বাজার, জনতাবাজার ও শাপলাপুর বাজারে পানের বাজার বসে। সপ্তাহে দুই দিন এসব পান বাজারের পান বিক্রি হচ্ছে।পানের হাট কালারমারছড়া চালিয়াতলী বাজারে পান বেচা-কেনা করতে দুই শতাধিক চাষী পান বাজারে বেচাকেনা করতে নিয়ে আসে ।

আর ওই বাজারে  দেশের বিভিন্ন জায়গা  থেকে আসা পান ব্যবসায়ীরা চাষীদের কাছ থেকে পান ক্রয় করে থাকে ।পরে এসব পান ট্রাক ভর্তি করে ব্যবসায়ীরা চট্টগ্রাম’সহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় নিয়ে যায়। উপজেলা কৃষি অফিসের তথ্যমতে, মহেশখালীর পাঁচ ইউনিয়নের পাহাড়ে ও বিলে ১ হাজার ৬০০ হেক্টর জমিতে পান চাষ হচ্ছে। এ পেশায় ৩৯ হাজার চাষির পাশাপাশি লক্ষাধিক মানুষ জড়িত।মহেশখালী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম জানান, বিগত সময়ের চেয়ে এখন পানের ন্যায্য মূল্য পাচ্ছেন পান চাষীরা। এতে ছোট-বড় মিলে হাটে এক বিরা পান ১৫০ টাকা থেকে শুরু করে ৪০০শ টাকার উপরে বিক্রি হচ্ছে। ফলে পান চাষীদের মাঝে আনন্দের বন্যা বয়ে যাচ্ছে।


আরও খবর



শার্শায় মাদকাসক্ত ছেলের ইটের আঘাতে বাবা নিহত

প্রকাশিত:সোমবার ২৫ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১৫ এপ্রিল ২০২৪ | ১০৫জন দেখেছেন

Image

ইয়ানূর রহমান শার্শা,যশোর প্রতিনিধি:যশোরের শার্শায় মাদকাসক্ত ছেলের ইটের আঘাতে মহিউদ্দিন (৬২) নামে এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছে। নিহত মহি উদ্দিন কাজিরবেড় গ্রামের মৃত দূর্লভ সরদারের ছেলে। রবিবার রাতে নিজ বাড়ীতে তিনি মৃত্যু বরণ করেন। সোমবার সকালে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে এবং মাদকাসক্ত ছেলে জনিকে আটক করেছে।

নিহত মহি উদ্দিনের বড় ছেলে জাহিদ জানান, গত ১৭ মার্চ রোববার আমার বাবার কাছে ছোট ভাই জনি নেশা করার জন্য টাকা চাই কিন্তু সে টাকা না দিলে দু’জনের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে জনি ইট দিয়ে আমার বাবার মাথায় আঘাত করে। গুরুতর আহত হলে হাসপাতালে ভর্তি করি। এক সপ্তাহ হাসপাতালে রাখার পর বাড়ীতে নিয়ে এলে গতকাল রবিবার  গভীর রাতে বাবা মারা যায়।

এ ব্যাপারে শার্শা থানার ওসি (তদন্ত) মিলন কুমার মন্ডল বলেন, এলাকাবাসীর কাছে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে নিহত ব্যক্তির মাথায় আঘাতের চিহ্ন দেখতে পায়। লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে এবং মাদকাসক্ত ছেলে জনিকে আটক করা হয়েছে।


আরও খবর



জমে উঠেছে আমতলীর ঈদ বাজার

প্রকাশিত:শনিবার ৩০ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪ | ৬৭জন দেখেছেন

Image

আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি:জমে উঠেছে আমতলীর ঈদ বাজার। শিশু, নারী-পুরুষের পদচারনায় সরগরম বিপণি বিতানগুলো। সবচেয়ে কদর বেশী ইন্ডিয়ান-পাকিস্তানী পোষাকের। ক্রেতারা তাদের পছন্দ মত জামা-জুতা পোশাক-প্রসাধনী ঈদপন্য কিনছেন। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চলছে কেনাবেচা। ঈদ যত ঘনিয়ে আসছে বাজারে ক্রেতাদের ভিড়ও তত বাড়ছে। এছাড়া পোশাক তৈরিতে ব্যস্ত টেইলার্স কারিগড়রা। রাত জেগে তারা কাজ করছে।

জানাগেছে, এ বছর ১৫ রোজা থেকে আমতলীর ঈদ বাজার জমে উঠেছে।সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত চলে বেচাকেনা। ঈদ বাজারে ইন্ডিয়ান ও পাকিস্তানী পোশাকের চাহিদা বেশী। ইন্ডিয়ান লং ফ্রোগের চাহিদা বেশী।

প্রতিপ্রিস ফ্রোগ চার হাজার থেকে ছয় হাজার পাচ’শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। অরগাঞ্চা ডিজিটাল প্রিন্ট শাড়ীর প্রতি গৃহবধুদের আকর্ষণ বেশী। এ শাড়ী ৪ হাজার পাচ’শ থেকে ১২ হাজার পাচ’শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া আমতলীর বাজারে ধুপিয়ানা, কাঞ্চিভরাম কাতান ও প্রিন্ট কাতান এবং ভিপুল, পাকিস্তানী তাওয়াক্কাল, আয়রা, মাসাল, তাওয়াক্কাল, দিল্লি বুটিক্স ও লরস থ্রি পিস বেশী বিক্রি হচ্ছে। প্রকার ভেদে এ সকল থ্রি পিস ও শাড়ী ২ হাজার ৫’শ থেকে ১২ হাজার ৫’শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

নিউ মাতৃছোয়া বস্ত্রালয়ের সেলসম্যান বাসু ও মোশাররফ হোসেন বলেন, ইন্ডিয়ান লং ফ্রোগের চাহিদা বেশী। প্রতিপ্রিস ফ্রোগ চার হাজার থেকে ছয় হাজার পাচ’শ টাকায় বিক্রি করছি। অরগাঞ্চা ডিজিটাল প্রিন্ট শাড়ীর প্রতি গৃহবধুদের আকর্ষণ বেশী। এ শাড়ী ৪ হাজার পাচ’শ থেকে ১২ হাজার পাচ’শ টাকায় বিক্রি করছি। তারা আরো বলেন, ধুপিয়ানা, কাঞ্চিভরাম কাতান ও প্রিন্ট কাতান এবং ভিপুল, পাকিস্তানী তাওয়াক্কাল, আয়রা, মাসাল, তাওয়াক্কাল, দিল্লি বুটিক্স ও লরস থ্রিপিস বেশী বিক্রি হচ্ছে।

বাজার ঘুরে দেখাগেছে, ইন্ডিয়ান লং ফ্রোগ চার হাজার থেকে ছয় হাজার পাচ’শ, অরগাঞ্চা ডিজিটাল প্রিন্ট শাড়ী ৪ হাজার পাচ’শ থেকে ১২ হাজার পাচ’শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ধুপিয়ান শাড়ী ৭ হাজার ৫’শ থেকে ৮ হাজার, কাঞ্চিভরাম কাতান ৩ হাজার ৫’শ থেকে ৭ হাজার ৫’শ ও প্রিন্ট কাতান শাড়ী ৬ হাজার ৫’শ থেকে ১০ হাজার ৫’শ এবং ভিপুল থ্রিপিস ২ হাজার ৫’শ থেকে ৫ হাজার ৫’শ, পাকিস্তানী তাওয়াক্কাল ৬ হাজার ৫’শ থেকে ১২ হাজার ৫’শ, আয়রা ৩ হাজার ৫’শ থেকে ৭ হাজার ৫’শ, মাসাল ৩ হাজার ২’শ থেকে ৫ হাজার ৫’শ, দিল্লি বুটিক্স ৬ হাজার থেকে ১৫ হাজার, তাওয়াক্কাল ৬ হাজার ৫’শ থেকে ১২ হাজার ও লরস ৬ হাজার ৫’শ থেকে ৮ হাজার ৫’শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

আমতলী পৌর শহরের তানিয়া বলেন, এ বছর পোশাকের ধরন বদলে গেছে এবং দামও একটু বেশী। ইন্ডিয়ান লং ফ্রোগ ৬ হাজার টাকায় ক্রয় করেছি। তিনি আরো বলেন, দাম একটু বেশী হলেও ভালো মানের পোশাক পাওয়া যাচ্ছে। ক্রেতা মরিয়াম ও পূর্ণতা বলেন, নিউ মাতৃছোয়া বস্ত্রালয় থেকে পোশাক ক্রয় করেছি। চাহিদামত মালামাল পাওয়া যায়। নিউ মাতৃছোয়া বস্ত্রালয়ের পরিচালক জিএম মুছা বলেন, ঈদকে সামনে রেখে বিক্রি অনেক ভালো। সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত চলে বেচাকেনা। সেলসম্যানদের ক্রেতাদের সামলাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার আমতলী পৌর শহরের আকন বস্ত্রালয়, মদনমোহন বস্ত্রালয়, সিরাজ উদ্দিন মৃধা বস্ত্রালয়,ইসলামিয়া বস্ত্রালয়, আকন টাওয়ার, সাকিব প্লাজা, আব্দুল্লাহ মার্কেট ও সুমাইয়া কমপ্লেক্স, ঘুরে দেখা গেছে ক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড়। নারী ও পুরুষরা মিলে পছন্দের পোশাক ক্রয় করছে।

আমতলী থানার ওসি কাজী সাখাওয়াত হোসেন তপু বলেন, ঈদকে সামনে রেখে বাজারে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোড়দার করা হয়েছে। গভীর রাত পর্যন্ত কেনাকাটা করে মানুষের বাড়ী ফিরে যেতে যেন সমস্যা না হয়।


আরও খবর



মেট্রো রেলে হাফ পাস চালু করার সুযোগ নেই

প্রকাশিত:রবিবার ১৭ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪ | ১২৭জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:মেট্রোরেলে শিশু ও শিক্ষার্থীদের জন্য অর্ধেক ভাড়ার সুবিধা চালু হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরী।

রোববার (১৭ মার্চ) জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে সুবিধাবঞ্চিতদের নিয়ে মেট্রোরেলে আনন্দ ভ্রমণে যুক্ত হয়ে তিনি এ কথা বলেন।

এদিন ৫০ জন সুবিধাবঞ্চিত শিশু নিয়ে মেট্রোরেলে আনন্দ ভ্রমণের আয়োজন করে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর। এদের সবাইকে নিয়ে মতিঝিল মেট্রোস্টেশন থেকে বেলা ১১টা ২০মিনিটে উত্তরা উত্তর স্টেশনের উদ্দেশে ট্রেনটি ছেড়ে গেছে।

আমিন উল্লাহ নুরী বলেন, শিশু বা শিক্ষার্থী তাদের জন্যই মেট্রো রেলে হাফ পাস চালু করার সুযোগ নেই। তবে যাদের এমআরটি পাস রয়েছে, তারা সবাই টিকিটের মূল্য থেকে ১০ শতাংশ ছাড় পাবেন। শিক্ষার্থীরা যেন এই সুবিধাটা নেন।

তিনি বলেন, মেট্রোরেলে টিকিট মূলত কার্ড সিস্টেম। সেটি মেশিনের সাহায্যে ব্যবহৃত হয়। ফলে কে ছাত্র আর কে ছাত্র না মেশিনের পক্ষে সেটি বোঝা সম্ভব না। এ জন্য মেট্রো রেলে হাফ পাস চালু করার সুযোগ নেই।


আরও খবর



বগুড়ায় ন্যায্যমূল্যে গাভীর দুধ বিক্রয় উদ্বোধন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ এপ্রিল 2০২4 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪ | ১০৪জন দেখেছেন

Image

(বগুড়া) প্রতিনিধিঃপবিত্র মাহে রমজান উপলক্ষে ৩১মে মার্চ২৪ রবিবার বগুড়া জেলা প্রাণিসম্পদ বিভাগের উদ্যোগে জেলা স্কুল গেটে ন্যায্য মূল্যে গাভীর খাঁটি দুধ বিক্রয় উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি জেলা প্রাণিসম্পদ অফিসার ড. মোঃ আনিছুর রহমান।এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রাণিসম্পদ অফিসার ডাঃ মোছাঃ নাছরীন পারভীন, বগুড়া সদর উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসার ডাঃ এ কে এম ফরহাদ নোমান সহ জেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তরের কর্মকর্তা ও কর্মচারীগন। (রবিবার) প্রতি লিটার গাভীর খাঁটি দুধ ৬০টাকা মূল্যে ৬০জন ক্রেতার মধ্যে ন্যায্য মূল্যে বিক্রয় করা হয়। এছাড়াও গত ১৫ মার্চ২৪ হতে জেলা প্রাণিসম্পদ বিভাগ বগুড়ার উদ্যোগে ন্যায্য মূল্যে গরুর মাংস ও ভ্রাম্যমান ডিম বিক্রয় করা হয়েছে।


আরও খবর



জলঢাকায় সাংবাদিকদের সম্মানে জামায়াতের ইফতার মাহফিল

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৫ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪ | ৬৭জন দেখেছেন

Image

(নিলফামারী) জলঢাকা, প্রতিনিধি:নীলফামারীর জলঢাকায় সাংবাদিকদের সন্মানে জামায়াতে ইসলামী বাংলাদেশ এর ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।বৃস্হপতিবার বিকেলে পৌর সভার পেট্রোল পাম্পে  বিসমিল্লাহ হোটেলে এ ইফতার মাহফিলের আয়োজন করেন সংগঠনটি।এ উপলক্ষে সাংবাদিকদের সাথে অনুষ্ঠিতব্য মতবিনিময়ে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, রংপুর মহানগর জামায়াতের সেক্রেটারি ওবায়দুল্লাহ সালাফি, উপজেলা জামায়াতের আমীর ও উপজেলা চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মোকলেছুর রহমান, পৌরসভার উপ নির্বাচনে মেয়র পদপ্রাথী প্রভাষক ছাদের হোসেন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মুজাহিদ মাসুম, উপজেলা জামায়াতের সেক্রেটারি মোয়াম্মার আল হাসান, নায়বে আমীর কামরুজ্জামান, পৌর আমীর মকবুল হোসেন, আইন ও মানবাধিকার সেক্রেটারি ওমর ফারুক ও এ‍্যাডভোকেট রবিউল ইসলাম প্রমূখ।

এসময় জামায়াত নেতারা সাংবাদিকদের বলেন, আমরা পৌরসভার উপ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছি এবং আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনেও প্রার্থী ঘোষণা দিয়েছি।আপনারা সমাজের দর্পণ ও জাতির বিবেক, আশা করি ভালমন্দ যাচাই বাচাই করে সঠিক তথ্যগুলোই আপনারা তুলে ধরবেন এটাই আপনাদের কাছে আমাদের প্রত্যাশা। এসময় উপজেলাটিতে কর্মরত বিভিন্ন  প্রিন্ট ও ইলেকট্রিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

আরও খবর