Logo
আজঃ সোমবার ২৪ জুন 20২৪
শিরোনাম
৯ সেতু ও ২ সড়ক

নভেম্বর থেকে বাধ্যতামূলক ই-টোল

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৩০৪জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:দেশের মোট ৯টি সেতু ও ২টি সড়কে নভেম্বর থেকে বাধ্যতামূলক ইলেকট্রনিক টোল বা ই-টোল চালুর ঘোষণা দিয়েছে সরকার। এই বছরের অক্টোবর মাসের পরে কোনো যানবাহন ই-টোল ছাড়া এসব সেতু ও মহাসড়কের টোল প্লাজা অতিক্রম করতে পারবে না। সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর (সওজ) সূত্রে জানা গেছে ই-টোল ব্যবহারে ১০ শতাংশ ছাড় পাওয়া যাবে।

সংশ্লিষ্ট সেতুগুলো হচ্ছে ১. কর্ণফুলী সেতু, চট্টগ্রাম, ২. মেঘনা সেতু, নারায়ণগঞ্জ, ৩. গোমতী সেতু, কুমিল্লা, ৪. ভৈরব সেতু, নরসিংদী, ৫. পায়রা সেতু, পটুয়াখালী, ৬. খান জাহান আলী (রূপসা) সেতু, খুলনা, ৭. চরসিন্দুর সেতু, নরসিংদী, ৮. শহীদ ময়েজউদ্দিন সেতু, নরসিংদী, ৯. লালন শাহ সেতু, পাবনা। এ ছাড়া নাটোরের আত্রাই টোল প্লাজা এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহাসড়ক পার হতেও কেবল ই-টোল ব্যবহার করতে হবে।

ই-টোল দেওয়ার পদ্ধতি : বর্তমানে প্রচলিত নেক্সাস পে, রকেট ও উপায় অ্যাপের মাধ্যমে ই-টোল দেওয়া যাবে। পর্যায়ক্রমে অন্যান্য মোবাইল ব্যাংক এবং ই-পেমেন্ট সিস্টেমের মাধ্যমেও এই সুবিধা পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছে সওজ। ই-টোল দিতে গুগলের প্লে স্টোর থেকে নেক্সাস পে বা উপায় অ্যাপ ডাউনলোড করতে হবে। নেক্সাস পের টোল কার্ডের ‘অ্যাড ভেহিকল’ অপশনে গাড়ির প্রয়োজনীয় তথ্য দিতে হবে। এর পর কার্ডে টাকা যোগ করতে হবে, আর তা ব্যবহার করে ই-টোল প্রদান করতে হবে। সেতু বা মহাসড়কের ফাস্ট ট্র্যাক লেন ব্যবহার করে ই-টোল দেওয়া যাবে। উপায় অ্যাপ ব্যবহারের ক্ষেত্রে টোল পেমেন্ট অপশন বেছে নিয়ে গাড়ির সব তথ্য দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। এর পর এই অ্যাপ দিয়ে ই-টোল দেওয়া যাবে। এ ছাড়া, *২৬৮# ডায়াল করে (গ্রামীণ, রবি ও বাংলালিংক থেকে) রেজিস্ট্রেশন করা যাবে। রকেট অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে গাড়ি রেজিস্ট্রেশন করতে রেজিস্ট্রেশন কার্ড বা ব্লু বুকের ছবি এবং রকেট অ্যাকাউন্ট নম্বর দিয়ে মেইল করতে হবে। রেজিস্ট্রেশন হয়ে গেলে মোবাইলে *৩২২# ডায়াল করে টোল কার্ড নির্বাচন করতে হবে এবং রকেট অ্যাকাউন্টের ব্যালেন্স থেকে প্রয়োজনীয় টাকা টোল কার্ডে স্থানান্তর করে ই-টোল দেওয়া যাবে। এর বাইরে ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের যে কোনো শাখা বা ফাস্ট ট্র্যাকে গিয়েও ই-টোল দেওয়ার জন্য রেজিস্ট্রেশন করা যাবে।


আরও খবর



কৃষ্ণচূড়ার আগুনে,লাগে রঙ ফাগুনে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ৩০ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১৪২জন দেখেছেন

Image

বিনোদন ডেস্ক:ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা পরীমণি।কাজের ফাঁকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও তার আনাগোনা রয়েছে বেশ। ছেলেকে নিয়ে কিংবা প্রকৃতির মাঝে হারিয়ে যেতে দেখা যায় পরীমণিকে। এবার কৃষ্ণচূড়ার মাঝে তাকে দেখা গেছে।

মঙ্গলবার (২৮ মে) নিজের ফেসবুকে বেশ কিছু ছবি পোস্ট করেছেন পরীমণি। আর ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘কৃষ্ণচূড়ার আগুনে, লাগে রঙ ফাগুনে এই মনে, এই বনে।

ছবিতে দেখা যায়, খোঁপায় কাঠগোলাপ, কানে কৃষ্ণচূড়া; নীল শাড়িতে পাহাড়ি নারীদের সাজে পরীমণি। চোখ বন্ধ করে নাক গুঁজে রেখেছেন কৃষ্ণচূড়ায়। দৃশ্যত লাল কৃষ্ণচূড়ার স্পর্শে রীতিমতো আগুনে জ্বলে উঠেছেন এই নায়িকা; ছড়িয়ে দিয়েছেন সৌন্দর্যের মুগ্ধতা।

ছবিটি সামাজিকমাধ্যমে শেয়ার করার পর ভক্তরা সেখানে তার রূপের প্রশংসা করতে শুরু করেন। কেউ কেউ লিখেছেন, ‘এত্ত মানিয়েছে, প্রকৃতির মাঝে মিশে গেছেন।’ কেউ লিখেছেন, ‘ফুলের মতোই সুন্দর তুমি। কারো মতে, পরীমণির ছোঁয়ায় কৃষ্ণচূড়াগুলো ধন্য

উল্লেখ্য, বর্তমানে পরীমণি ব্যস্ত রয়েছেন ওয়েব সিরিজ ‘রঙিলা কিতাব’-এর শুটিংয়ে। সিরিজটি নির্মাণ করছেন ‘দেবী’খ্যাত নির্মাতা অনম বিশ্বাস, যেখানে পরীমণিকে দেখা যাবে সুপ্তি নামের একটি চরিত্রে।


আরও খবর



৩৫ শতাংশের কম-বেশি ভোট পড়েছে : সিইসি

প্রকাশিত:বুধবার ২৯ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১৭৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:তৃতীয় ধাপে ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ৮৭ উপজেলায় ৩৫ শতাংশের কম-বেশি ভোট পড়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল। বুধবার (২৯ মে) বিকেলে আগারগাঁও নির্বাচন ভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই কথা বলেন।

এছাড়া ভোট পড়ার প্রকৃত তথ্য জানতে আরও কয়েক ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হবে বলে জানান প্রধান নির্বাচন কমিশন।

কাজী হাবিবুল আউয়াল বলেন, এক হাজার ১৫২ জন প্রার্থী ছিলেন। ইভিএমে ১৬ উপজেলায় বাকিগুলো ব্যালট পেপারে ভোট গ্রহণ করা হয়েছে। অবাধ নিরপেক্ষভাবে নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। এই লক্ষ্যে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী অনেক তৎপর ছিল।

তিনি বলেন, খুবই সীমিত পরিসরে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছে। ভোট কারচুপির চেষ্টায় ৩০ জনকে আটক করা হয়েছে। দুজনকে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। সংঘর্ষের ঘটনায় ৬ জন আহত হয়েছেন। একজন প্রিজাইডিং অফিসার অসুস্থ হয়ে মারা গেছেন বলে জানান কাজী হাবিবুল আউয়াল।


আরও খবর



ঘূর্ণিঝড় রেমালের তান্ডবে ভোলায় ৫ জনের মৃত্যু, পানিবন্দি লক্ষাধিক মানুষ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১২৭জন দেখেছেন

Image

শরীফ হোসাইন, ভোলা বিশেষ প্রতিনিধি:ঘূর্ণিঝড় রেমালের তান্ডবে ভোলায় গাছ চাঁপা পড়ে মারা গেছেন ৫ জন। পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন লক্ষাধিক মানুষ। শহর রক্ষা বাঁধ ধসে প্লাবিত হয়েছে গ্রামের পর গ্রাম। সদর উপজেলার রামদাসপুর, চটকিমারা, মাঝের চর, বোরহানউদ্দিন, মদনপুর, নেয়ামতপুর, চরফ্যাশনের ঢালচর, চরকুকরি-মুকরি, মনপুরাসহ অনেক এলাকায় বন্যার পানি বিপদ সীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ায় এ সব এালাকার প্রায় লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্ধি হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন। এখনো পর্যাপ্ত ত্রাণ পৌছেনি ঐ দুর্গত এলাকায়। এদিকে ঘূর্ণিঝর রিমালের প্রভাবে ভোলার ২০ লক্ষ মানুষ বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পরেছে। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে জেলা-উপজেলার শহর রক্ষা বাঁধ, ফসলের মাঠ, পুকুরের মাছ, গোয়ালের গবাদিপশু, পানিতে তলিয়ে গেছে বহু শিক্ষালয়। 

খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, ভোলা সদর উপজেলার ভেদুরিয়া ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের মাঝির হাট এলাকার তোফাজ্জল হাজারির ছেলে ওমর ফারুক (৪০) সোমবার বিকাল ৫টার সময় বসত ঘরে গাছ চাঁপায় মারা যান। দৌলতখাঁনে ঘরের ভেতর গাছ চাঁপায় মাইশা (৪) নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। সোমবার (২৭ মে) ভোর ৪টার দিকে পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে। নিহত মাইশা পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের মনির হোসেনের মেয়ে। একই উপজেলার চরপাতা ইউনিয়নের কাশেম নামের এক যুবক ঘর চাঁপায় নিহত হন। 

শিশুর বাবা মনির জানান, রবিবার রাতের খাবার খেয়ে ঘুমিয়ে পড়ি সবাই। ভোর ৪টার দিকে হঠাৎ একটি গাছ আমার ঘরের ওপর চাঁপা দেয়। এতে টিনের চাল আমাদের ওপর এসে পড়লে মাইশা মারা যায়। আমিও চাঁপা পড়েছিলাম, স্থানীয়রা এসে উদ্ধার করেছে।

এর আগে ভোরে ঘূর্ণিঝড় রিমালের প্রভাবে লালমোহনের চর উমেদ গ্রামের বাসিন্দা আব্দুল কাদেরের স্ত্রী মনেজা খাতুন (৫০) নামে এক নারীর মৃত্যু হয়। স্থানীয়রা জানান, মনেজা খাতুন গতকাল রাতে তার এক নাতিকে নিয়ে ঘরে ঘুমিয়ে ছিলেন। ভোরে ঝড়ো বাতাসের কারণে একটি গাছ তার বসত ঘরের উপর এসে পড়ে। ঘটনাস্থলেই মনেজা খাতুন মারা গেলেও অক্ষত আছে তার নাতি।

এছাড়া জেলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার সাচড়া ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের পঞ্চায়েত বাড়ির জাহাঙ্গীর পঞ্চায়েত (৪৮) এর শরীরের উপর একটি গাছের ডাল ভেঙ্গে পড়ে। এতে গাছের ডালটি ভেঙ্গে পেটের মধ্যে ঢুকে পড়লে হাসপাতালে নেয়ার পথে তিনি মারাযান। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জেলা ত্রাণ কর্মকর্তা দেলোয়ার হোসেন। তিনি আরো জানান ঝড়ো বাতাসের কারণে এখন সবদিক থেকে খবর নেয়া সম্ভব হচ্ছেনা। ঝড় থেমে গেলে প্রকৃত ক্ষয়ক্ষতির পরিমান নিরুপন করা সম্ভব হবে।

অপরদিকে, ঝড়, বৃষ্টি ও জোয়ারের পানিতে হয়েছে জেলার উপকূলীয় অঞ্চল। উপকূলের লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে প্রতিটি উপজেলার শহর রক্ষা বাঁধ, ফসলের মাঠ, পুকুরের মাছ, গোয়ালের গবাদিপশু ভেসে গেছে। বহু শিক্ষালয় পানিতে ডুবে গেছে।

মনপুরা উপজেলা হাজিরহাটের ইউপি চেয়ারম্যান নিজাম উদ্দিন হাওলাদার জানান, হাজিরহাটের পূর্ব পাশে চার কিলোমিটার বেড়িবাঁধের ক্ষয়ক্ষতি হওয়ায় জোয়ারের পানি ঢুকে পড়ে। পানি উন্নয়ন বোর্ডকে (পাউবো) জিও ব্যাগ ফেলে বাঁধ রক্ষার জন্য বলা হয়েছে।

চরফ্যাশন উপজেলার ঢালচর ইউনিয়নের ঢালচর ও চরনিজামে বন্যা-জলোচ্ছ্বাস নিয়ন্ত্রণ বাঁধ নেই। এ কারণে বাসিন্দারা ঘর ছেড়ে, গবাদিপশু রেখেই নিরাপদ আশ্রয়ে গেছে। ঢালচর ইউপির চেয়ারম্যান মো. আবদুস সালাম জানান, সকালের জোয়ারে ইউনিয়নের সব এলাকা পাঁচ ফুট পানির নিচে তলিয়ে গেছে। ওই পানি কমতে না কমতে আবার রাতের জোয়ার আসবে। এখানে প্রায় ১২ হাজার মানুষ পানিবন্দী রয়েছে। তাদের নিরাপদ আশ্রয়ে নিতে ইউনিয়নের গ্রাম পুলিশসহ ইউপি সদস্যদের মানুষের বাড়ি বাড়ি পাঠানো হচ্ছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড ডিভিশন-২-এর নির্বাহী প্রকৌশলী হাসান মাহমুদ জানান, ভোলা সদর, মনপুরা, লালমোহন, তজুমদ্দিন ও চরফ্যাশন উপজেলায় মোট ১০টি স্থানে বেড়িবাঁধ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আমরা অচিরেই ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধ সংরক্ষেনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। ভোলার জেলা প্রশাসন মোঃ আরিফুজ্জামান বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের জন্য আমরা জেলা প্রশাসন সবধরনের সহযোগিতার ব্যবস্থা করবো।


আরও খবর



ফায়ার সার্ভিসে চালু হলো ৩ ডিজিটের হটলাইন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৬ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১১৩জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:পরীক্ষামূলকভাবে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের ঢাকা কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রণ কক্ষে চালু হয়েছে ৩ ডিজিটের নতুন হটলাইন নম্বর ১০২। জরুরি সেবা গ্রহণের জন্য বাংলাদেশের যেকোনো প্রান্ত থেকে প্রাথমিকভাবে টিএন্ডটি ছাড়া অন্য সকল অপারেটর থেকে এই সেবা গ্রহণ করা যাচ্ছে। শিগগিরই টিএন্ডটি থেকেও এই সেবা পাওয়া যাবে।

বৃহস্পতিবার (৬ জুন) মিডিয়া সেলের কর্মকর্তা মো. শাহজাহান শিকদার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য তুলে ধরেন।

উল্লেখ্য, বর্তমানে নিয়ন্ত্রণ কক্ষে চালু থাকা ১১ ডিজিটের ফোন নম্বর ০২২২৩৩৫৫৫৫৫ এবং ৫ ডিজিটের হটলাইন ১৬১৬৩ নম্বরও সচল থাকবে। তবে আগামী ৩১ ডিসেম্বর ২০২৪-এর পর থেকে ১৬১৬৩ বন্ধ হয়ে যাবে; তখন থেকে শুধু ১০২ হটলাইন নম্বরই সচল থাকবে।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স তথ্য প্রাপ্তির ভিত্তিতে সেবা প্রদান করে থাকে। সেবা গ্রহীতাদের তথ্য দেয়ার একটি অন্যতম মাধ্যম হলো টেলিফোন। জরুরি সময় ১১ ডিজিটের টেলিফোন মনে রাখা কিছুটা কষ্টসাধ্য বিধায় ইতিপূর্বে ৫ ডিজিটের হটলাইন নম্বর ১৬১৬৩ চালু করা হয়েছিল; সেবা প্রাপ্তি আরো সহজ করতে ফায়ার সার্ভিস ৩ ডিজিটের ১০২ হটলাইন নম্বর চালুর উদ্যোগ গ্রহণ করে।

জরুরি সময়ে বিপদগ্রস্ত মানুষের দ্রুত সহযোগিতা নেয়ার সুবিধার্থে ফায়ার সার্ভিসের নতুন হটলাইন নম্বর ১০২ প্রচার করার জন্য সকল শ্রেণিপেশার মানুষকে অনুরোধ জানানো হলো।


আরও খবর



আমরা কখনোই বলিনি এমপি আনার চোরাচালানের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৭২জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনার চোরাচালানের সঙ্গে যুক্ত ছিল তা আমরা কখনোই বলিনি,বলেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।মঙ্গলবার (১১ জুন) দুপুরে রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সে হাইওয়ে পুলিশের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

এমপি আনারের হত্যাকাণ্ডের পর বিভিন্ন সময় বলা হয়েছিল তিনি চোরাচালানের সঙ্গে যুক্ত। এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, চোরাচালানের সঙ্গে যুক্ত ছিল এমপি আনার, তা আমরা কখনোই বলিনি। আমরা সব সময় বলে আসছি এমপির ওই এলাকা সন্ত্রাসপূর্ণ একটি এলাকা। ওখানে সত্যিকারে কী হয়েছে সেটা আমাদের জানতে হবে। আমরা তদন্ত করছি, তদন্তের পরে আপনাদের সব কিছু জানাব।

সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনারের মেয়ে ডরিন সন্দেহভাজনদের নাম বলেছে। কাদের নাম বলেছেন তিনি? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, যখন তদন্ত চলে তখন আমাদের মন্ত্রী, আইজিপি কিংবা তদন্তকারী কর্মকর্তার পক্ষ থেকে তদন্ত না করে কোনো কিছু বলা সম্ভব না। আমরা মনে করি তদন্ত শেষ হলে এগুলো নিয়ে কথা বলব।

পুলিশের গুলিতে পুলিশ সদস্য নিহতের ঘটনায় পুলিশ সদস্যদের কাউন্সেলিংয়ের বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, পুলিশের ট্রেনিংয়ের সময় মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে বিস্তারিতভাবে কয়েকদিন ট্রেনিং দেওয়া হয়। যাতে মেন্টাল স্ট্রেসটা তাদের কম থাকে। গুলিতে পুলিশ সদস্য নিহতের ঘটনার কারণ ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কী হবে, সেটি নিয়ে আইজিপি রিসার্চ করছেন।


আরও খবর