Logo
আজঃ বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম
নিলয় কোটা আন্দোলনকারীদের পক্ষ নিয়ে কী বললেন স্থগিত ১৮ জুলাইয়ের এইচএসসি পরীক্ষা দেশের সব স্কুল-কলেজ বন্ধ ঘোষণা তিতাসের অভিযানে নারায়ণগঞ্জের ২ শিল্প কারখানার অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন হিলি দিয়ে কাঁচা মরিচ আমদানি বাড়ায় বন্দরের পাইকারী বাজারে কেজিতে দাম কমেছে ৩০ টাকা জয়পুরহাটে ডাকাতির পর প্রতুল হত্যা মামলায় ৬ জনের যাবজ্জীবন রিয়েলমি সার্ভিস ডে: ফোন রিপেয়ারে খরচ বাঁচান ৬০% পর্যন্ত, উপভোগ করুন ফ্রি সার্ভিস সুনামগঞ্জে ইয়াবাসহ ২জন গ্রেফতার: কোটিপতি সোর্স ও গডফাদার অধরা কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে ৩ দিনে ৩ খুন, আইনশৃংখলার অবনতি জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নরসিংদীতে বেক্সি-ফেব্রিক্সের মোড়কের আড়ালে নকল কাপড় জব্দ করেছে পুলিশ

প্রকাশিত:রবিবার ২৭ আগস্ট ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৩৯১জন দেখেছেন

Image

নাজমুল হাসানঃনরসিংদী শেখের চর বাজারে বেক্সিফেব্রিক্স নামক সুনামধন্য ব্রান্ডের নকল কাপড় বিক্রির দায়ে গতকাল একটি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে অভিযান চালিয়ে নকল সব পন্য জব্দ করে থানায় নিয়ে গেছে নরসিংদী মডেল থানার পুলিশ।

পুলিশ-সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, শেখের চর বাজারে অবস্থিত সাধন বস্ত্রালয় নামের প্রতিষ্ঠানটির মালিক কালী দাস সাহা দীর্ঘদিন ধরে নিম্নমানের কাপড়ের ওপর বেক্সিকো লোগো লাগিয়ে বিক্রি করে আসছিলেন। স্বনামধন্য বেক্সি ফেব্রিক্সের কাছাকাছি বেক্সিকো লোগো বসিয়ে কাপড় বাজারজাত করছিল প্রতিষ্ঠানটি।এ ধরনের কাজ মানুষের সাথে প্রতারণার শামিল। দীর্ঘদিন ধরে এই ধরনের নকল পণ্যের ব্যবসা চালিয়ে প্রতিষ্ঠানটি লক্ষ লক্ষ টাকা সাধারণ মানুষের কাছ থেকে হাতিয়ে নিচ্ছিল।এমন খবর পেয়ে ঐ স্থানে অভিযান পরিচালনা করে নরসিংদী মডেল থানার এসআই আফজাল । সাধন বস্ত্রালয়ের বিক্রয় কেন্দ্রে থরে থরে সাজানো বেক্সিকো নামে নকল কাপড় পাওয়া যায়। যা হুবহু দেখছি ফেব্রিফেব্রিক্স এর সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ।

দোকানের মালিক কালিদাস রায় কে এই বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে বিষয়টি তিনি অপরাধ বলে স্বীকার করেন। পরবর্তীতে এই ধরনের কাজ করবেন না বলে মুচলেকা দিয়ে নকল বেক্সিকো নামের কাপড় গুলো জব্দ করে থানায় নিয়ে আসা হয়। এবং ভবিষ্যতে এই ধরনের নকল পন্য বাজারজাত করলে তার বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও হুশিয়ারি দেওয়া হয়।।



আরও খবর



রূপগঞ্জে জঙ্গি আস্তানায় অভিযানে উদ্ধারকৃত তিনটি বোমা নিষ্ক্রিয়

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ জুলাই 2০২4 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১০১জন দেখেছেন

Image

মোঃআবু কাওছার মিঠু রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ)প্রতিনিধিঃ-

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার তারাবো পৌরসভার বরপা আড়িয়াবো এলাকার একটি চার তলা ভবনে অভিযান চালিয়ে উদ্ধারকৃত তিনটি বোমা নিষ্ক্রিয় করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। জঙ্গি আস্তানার খবর পেয়ে গতকাল ২জুলাই মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় আড়িয়াবো এলাকার জাকির হোসেনের বাড়িতে তারা এ অভিযান চালায়। অভিযানে পুলিশ, অ্যান্টি টেরোরিজম ও সোয়াদ ইউনিটের সদস্যরা অংশ নেয়। 


জানা গেছে, গত মার্চ মাসে রূপগঞ্জের তারাবো পৌরসভার আড়িয়াবো গ্রামের জাকির হোসেনের চার তলা বাড়ির তৃতীয় তলার একটি ফ্ল্যাট আনসারউল্লাহ বাংলা টিমের(এবিটি) সক্রিয় একজন সদস্য ভাড়া নেয়। সেখানে তিনি তার দুই সন্তান ও স্ত্রী নিয়ে বসবাস করেন। এলাকায় কিংবা আশপাশের কারো সঙ্গে যোগাযোগ না করেই তিনি তার মতো বসবাস করে আসছিলেন। বাড়ির মালিক জাকির হোসেনের গ্রামের বাড়ি ব্রা²ণবাড়িয়া জেলায়। তিনি সৌদী প্রবাসী।


তবে এবিটির সদস্যের নাম পরিচয় জানা যায়নি। অ্যান্টি টেরোরিজম ইউনিটের পুলিশ সুপার (মিডিয়া অ্যান্ড অ্যাওয়ারনেস) সানোয়ার হোসেন জানান, গতকাল ২জুলাই মঙ্গলবার সকাল থেকেই এটিইউর একটি দল নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের বরপা আড়িয়াবো এলাকায় জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে চারতলা একটি বাড়ি ঘেরাও করে রাখে। নেত্রকোণা জেলার জঙ্গি ঘটনায় জঙ্গি সংগঠনের সদস্য একজন নারীকে কক্সবাজার থেকে গ্রেফতার করা হয়। ওই নারীর দেয়া তথ্য অনুযায়ী এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। 


এলাকাবাসী জানায়, গত আট বছর আগে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সৌদি প্রবাসী জাকির হোসেন নামের এক ব্যক্তি চার তলা এই ভবনটি নির্মাণ করে ভাড়া দেন। অনেক সময় অপরিচিত লোকজনের এ বাড়িতে আসা-যাওয়া করতে দেখা গেছে। নেত্রকোণার জঙ্গির ঘটনার পর গত ৩/৪ দিন ধরে তাদেরকে এ বাড়িতে দেখা যায়নি। জাকির হোসেনের পাশাপাশি তার স্ত্রী বকুলী বেগমও এ বাড়িতে আসা যাওয়া করতেন। 


নারায়ণগঞ্জ জেলা সহকারী পুলিশ সুপার ('গ'-সার্কেল) হাবিবুর রহমান বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা এ অভিযান পরিচালনা করে। উদ্ধারকৃত তিনটি বোমার একটি বোমা বিষ্ফোরণের আশঙ্কায় ভবনের ভেতরেই তাদের ফ্ল্যাটে বিষ্ফোরিত করে নিষ্ক্রিয় করা হয়। অপর দু’টি বোমা ভবনের পাশে খালি মাঠে গর্ত করে বিশেষ প্রক্রিয়ায় বিষ্ফোরিত করে নিষ্ক্রিয় করা হয়।


সোয়াদের কমান্ডার শাহেদ আহমেদ বলেন, তিনটি ইমপ্রোভাইজড এক্সপ্লোসিভ ডিভাইস(আইইইডি) বোমা উদ্ধার করা হয়। এই বোমা তাৎক্ষণিক উদ্ভাবিত বোমা। তাৎক্ষণিক উদ্ভাবিত বিস্ফোরক বলতে প্রচলিত সামরিক পদ্ধতি অপেক্ষা অন্য কোনও উপায়ে নির্মিত বোমা হতে পারে। এটি একটি বিস্ফোরক ব্যবস্থার সাথে সংযুক্ত একটি আর্টিলারি শেলের মতো সামরিক বিস্ফোরক নির্মিতও হতে পারে। রূপগঞ্জ থানা ওসি দীপক চন্দ্র সাহা বলেন, এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। অভিযুক্তদের গ্রেফতারে পুলিশ তৎপর রয়েছে।  

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



জলঢাকা পুলিশের বিশেষ অভিযানে ৯ আসামী গ্রেফতার

প্রকাশিত:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১৪৪জন দেখেছেন

Image

লেলিন, (নীলফামারী), জলঢাকা,প্রতিনিধি:নীলফামারীর জলঢাকা  পুলিশের বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে বিভিন্ন নিয়মিত মামলা ও ওয়ারেন্টভূক্ত ৯ জন আসামি গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। তারা সবাই  জলঢাকা উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বাড়ি।

বুধবার (১৯ জুন) রাত ও ভোরে পুলিশের কয়েকটি টিম বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে উপজেলার শহর ও বিভিন্ন  এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। 

জলঢাকা থানার অফিসার ইনচার্জ নজরুল ইসলাম বলেন, পুলিশ সুপারের নির্দেশনায়  বুধবার রাত থেকে সকাল পর্যন্ত উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে পুলিশের কয়েকটি টিম বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। তারা বিভিন্ন নিয়মিত মামলা ও ওয়ারেন্টভূক্ত ৯ জন আসামি। তারা সবাই উপজেলায় বাসিন্দা। আজকে দুপুরে তাদের নীলফামারী বিজ্ঞ আদালতে প্রেরন করা হয়েছে। 


আরও খবর



জয়পুরহাটে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দ্বিতীয় দিনেও কর্মবিরতি পালন করছে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ জুলাই 2০২4 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ৯১জন দেখেছেন

Image

এস এম শফিকুল ইসলাম,জয়পুরহাট প্রতিনিধিঃবাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড (বিআরইবি) ও পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির (পবিস) মধ্যকার বৈষম্য দূরীকরণসহ অভিন্ন চাকরি স্থায়ী করণের দাবিতে অনির্দিষ্ট কালের কর্মবিরতির দ্বিতীয় দিনেও জয়পুরহাট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কর্মকর্তা- কর্মচারীরা পালন করছে।

সোমবার (১লা জুলাই) থেকে শুরু হওয়া আজ  মঙ্গলবার (২জুলাই) ও জয়পুরহাট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির  কার্যালয়ের সামনে কর্মসূচিতে ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার, সহকারী জেনারেল ম্যানেজার, জুনিয়র ইঞ্জিনিয়ার, হিসাব রক্ষক, লাইনম্যান, মিটার রিডারসহ কর্মকর্তা কর্মচারীরা অংশ নেয়। কর্মসুচী চলাকালে দাপ্তরিক কার্যক্রম বন্ধ আছে।

কর্মবিরতী চলাকালে বক্তারা বলেন,পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের দুই রকম নীতির কারণে বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা হতে বঞ্চিত হচ্ছে দেশের ৮০টি পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কর্মকর্তা- কর্মচারী। দেশের প্রত্যৗল্প এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহের কাজে নিয়োজিত কর্মীরা একই প্রতিষ্ঠানে চাকরি করলেও পদ-পদবি, বেতন-ভাতা, বোনাসসহ পদোন্নতির ক্ষেত্রে বৈষম্যের শিকার, শোষণ,  নির্যাতণ, নিপীড়ন অব্যাহত রাখা, গুণগত মানহীন মালামাল ক্রয় করে গ্রাহক ভোগান্তি করে আসছে। সমিতির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বিভিন্ন সময় গণ স্বাক্ষও সংগ্রহ, বোর্ডের চেয়ারম্যানের কাছে স্মারকলিপি প্রদানসহ নিয়মতান্ত্রিক ভাবেই তাদের দাবি দাওয়া বাস্তবায়নে চেষ্টা করে আসছে। কিন্তু সমিতির নিয়ন্ত্রকের

ভূমিকায় থাকা পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড (বিআরইবি) তাদের দাবি না মেনে বরং উল্টো প্রক্রিয়ার সাথে যুক্ত ভোলা পবিসের ২ জন এজিএমকে সাময়িক বরখাস্ত ২ জন এজিএমকে স্ট্যান্ড রিলিজ করে অন্য পিবিএসে বদলী এবং সিরাজগঞ্জ পবিস-২ এর ১ জন ডিজিএম এবং ১ জন এজিএমকে বোর্ডে সংযুক্ত করে। এতে ৮০টি পবিসের কর্মকর্তা ও কর্মচারী ক্ষুব্ধ হয়। তবে  আন্দোলনে থাকাকালীন জরুরি বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক রাখতে প্রতিটি উপকেন্দ্রে একজন করে জনবল কাজ করছে বলে জানান আন্দোলনকারীরা। সেই সাথে  সকল ধরনের গ্রাহক সেবা চালু থাকবে।

সংশ্লিষ্টরা জানায় পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি দেশের প্রায় ১২ কোটি মানুষকে সার্বক্ষণিক নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সেবা দিয়ে যাচ্ছে।  বিআরইবি দ্বারা নিয়মতান্ত্রিত এসব সমিতির কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা প্রতিনিয়ত নানান বৈষম্যেও শিকার হচ্ছেন।

পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির লাইন টেকনিশিয়ানরা বলেন, লাইনম্যান গ্রেড-১ ও লাইন টেকনিশিয়ান পদে দীর্ঘ অনেকে ১৫ থেকে ১৭ বছর পর্যন্ত একই পদে কর্মরত থাকার পরও পদোন্নতি হয়না। পল্লী বিদ্যুৎ সমিতিতে ওই পদ ফাঁকা থাকা সত্বেও পদোন্নতি না পাওয়াতে আন্দোলনে নামতে বাধ্য হয়েছি। তাদের দাবী গুলো না মেনে নেওয়া পর্যন্ত কর্মবিরতি চলবে।


আরও খবর



পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ২৬ বছর পূর্তি উদযাপন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৫৭জন দেখেছেন

Image

জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:রাজধানীর বেইলি রোডে শেখ হাসিনা পার্বত্য চট্টগ্রাম ঐতিহ্য সংরক্ষণ গবেষণা কেন্দ্রের সভাকক্ষে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক  মন্ত্রণালয়ের ২৬ বছর পূর্তি উদযাপন উপলক্ষ্যে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

সোমবার (১৫ জুলাই) পার্বত্য মন্ত্রণালয়ের ২৬বছর পূতি উদযাপন উপলক্ষে মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে আলোচনা সভা অনুষ্টিত হয় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে  পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের  প্রতিমন্ত্রী  কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি কেক কাটার মধ্য দিয়ে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ২৬ বছর পূর্তি অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেনন।

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী  কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুদক্ষ, সুদূরপ্রসারী ও প্রাজ্ঞ নেতৃত্বে ১৯৯৭ সালের ২রা ডিসেম্বর ঐতিহাসিক পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। এরই ধারাবাহিকতায় ১৯৯৮ সালের ১৫ জুলাই  পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় গঠিত হয়। প্রতিমন্ত্রী বলেন, সবাই শান্তিচুক্তির বাস্তবায়ন চায়। সরকার শান্তিচুক্তির সকল ধারা বাস্তবায়নে আন্তরিকতার সাথে কাজ করে যাচ্ছে। প্রতিমন্ত্রী বলেন, বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ থাকা সত্ত্বেও পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় পার্বত্য চট্টগ্রামের সার্বিক উন্নয়নে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ এবং শান্তিচুক্তির পূর্ণ বাস্তবায়নে অঙ্গিকারাবদ্ধ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি  আরও বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় গঠন হওয়ার পর থেকে বিগত ২৬ বছর যাবৎ পার্বত্য জেলা পরিষদ, পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড ও বিদেশী দাতা সংস্থার সাথে সমন্বয় করে পার্বত্য তিন জেলার মানুষের জীবন মান উন্নয়নে বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ এবং তার বাস্তবায়ন অব্যাহত রেখেছে। পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় পার্বত্য অঞ্চলের কৃষি, খাদ্য, শিক্ষা, স্বাস্থ্য-পুষ্টি, বাসস্থান ও সামাজিক নিরাপত্তা খাতে সরকারের সক্রিয় অংশগ্রহণ নিশ্চিতকরণসহ সার্বিক উন্নয়ন কার্যক্রম অত্যন্ত স্বার্থকতার সাথে পরিচালনা করে যাচ্ছে।

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব এ কে এম শামিমুল হক ছিদ্দিকী-এর সভাপতিত্বে এসময় অন্যান্যের মধ্যে মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব  মো. অামিনুল ইসলাম, অতিরিক্ত সচিব প্রদীপ কুমার মহোত্তম এনডিসি, যুগ্মসচিব সজল কান্তি বনিক, কে এস মং, সদস্য, পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা টীটন খীসা, তিন পার্বত্য জেলার বিশেষ প্রতিনিধি ও উন্নয়ন সহযোগী সংস্থার প্রতিনিধিগণ বক্তব্য রাখেন।

-খবর প্রতিদিন/ সি.


আরও খবর



নওগাঁয় কয়েলের আগুনে ঘরবাড়ি সহ গবাদিপশু পুড়ে ছাই, মালিক দগ্ধ

প্রকাশিত:শনিবার ২৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১৫ জুলাই ২০২৪ | ১১৫জন দেখেছেন

Image
নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি:নওগাঁয় কয়েলের আগুনে একটি গোয়ালঘর সহ বাড়ি পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। মারা গেছে একটি গরু। এতে অন্তত চার থেকে পাঁচ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে ধারণা করা হয়েছে।

শুক্রবার (২৮ জুন) রাত দেড়টায় বদলগাছি উপজেলার  মথুরাপুর ইউনিয়নের নালুকাবাড়ী গুচ্ছ গ্রামের আলেম উদ্দিনের বাড়িতে এই দুর্ঘটনা ঘটে। 

স্থানীয়দের সুত্রে জানা গেছে, আলেম উদ্দিন গোয়ালঘরে প্রতি রাতের মতো মশার কয়েল জ্বালান। গভীর রাতে মশার কয়েলের আগুন থেকে গোয়াল ঘরে আগুন ধরে। আগুন দ্রুত গোয়াল ঘর সহ বাড়িতে ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় আগুন থেকে গরু রক্ষা করতে গিয়ে আগুনে দগ্ধ হয় আলেম উদ্দিন। পরে স্থানীয়রা উদ্ধার করে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়।

স্থানীয় আনিস হোসেন বলেন, রাত ২টার সময় আমরা আলেম উদ্দিনের বাড়ীর লোজনের ডাকচিৎকারে ছুটে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করি। তবে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসার আগেই আলেম উদ্দিনের এক'টি গরু সহ বাড়ির আসবাবপত্র সব পুড়ে ছাই হয়ে যায়। এছাড়াও ২টি গরুর শরীরের অধিকাংশ পুড়ে যায়। তিনি আরো বলেন, এই দুর্ঘটনায় অন্তত ৪/৫ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে। গভীর রাতেই আগুন লাগায় এলাকাবাসী চেষ্টা করে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। আগুন নিয়ন্ত্রণে আসার কারণে ফায়ার সার্ভিসকে কোন খবর দেওয়া হয়নি।


উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কামরুল হাসান সোহাগ বলেন, আমি ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা তহবিল থেকে নগদ দুই হাজার টাকা ও কিছু শুকনো খাবার দিয়েছি। এছাড়াও তাদের সাহায্যর জন্য আবেদন করতে বলেছি। আবেদন পেলে উপজেলা প্রশাসন থেকে যথাসাধ্য সহযোগিতা করা হবে।

আরও খবর