Logo
আজঃ শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪
শিরোনাম

নির্বাচন ঘিরে মাঠে নামল ৮০২ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট

প্রকাশিত:বুধবার ২৯ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ১৯২জন দেখেছেন

Image

খবর প্রতিদিন ২৪ডেস্ক :দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আচরণ বিধিমালা নিশ্চিতে ৮০২ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে মাঠে নামিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। মঙ্গলবার (২৮ নভেম্বর) থেকে এসব নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাঠে নেমেছেন। ইসির নির্বাচন পরিচালনা শাখার উপসচিব মো. আতিয়ার রহমান এ তথ্য জানিয়েছেন।

আতিয়ার রহমান জানান, প্রতি উপজেলায় একজন করে ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োজিত থাকবেন। তবে ১৫টির বেশি ইউনিয়ন (পৌরসভাসহ) হলে উপজেলায় দুইজন ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োজিত থাকবেন। জেলা সদরের ‘এ’ ক্যাটাগরির পৌরসভায় একজন, তবে ৯ ওয়ার্ডের বেশি হলে দুইজন, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে ১১ জন, ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে ১৫ জন, চট্টগ্রাম সিটিতে ১০ জন, খুলনা সিটিতে ছয়জন, গাজীপুর সিটিতে চারজন ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োজিত থাকবেন। এ ছাড়া অন্যান্য সিটি করপোরেশনে তিনজন করে ম্যাজিস্ট্রেট মাঠে থাকবেন।

এর আগে, গত ২৩ নভেম্বর ইসির পক্ষ থেকে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো এক চিঠিতে ২৮ নভেম্বর থেকে ৪ জানুয়ারি পর্যন্ত ৩৯ দিনের জন্য নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের মাঠে থাকতে বলা হয়। আচরণবিধি লঙ্ঘন বা পরিস্থিতির অবনতি হলে তারা ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করবেন। ১৫টি পর্যন্ত ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত উপজেলায় একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোতায়েনের কথা বলা হয়েছে।

ইসির চিঠিতে কমবেশি ৮০২ জন ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগের জন্য বলা হয়েছে। এতে প্রতিটি উপজেলায় একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগের জন্য বলা হয়েছে। যেসব উপজেলায় ১৫টির বেশি ইউনিয়ন রয়েছে সেখানে দুজন ম্যাজিস্ট্রেট দিতে বলা হয়েছে।

চিঠিতে আরও উল্লেখ করা হয়েছে, স্থানীয় বাস্তবতা ও প্রয়োজনীয়তার নিরিখে বিভাগীয় কমিশনারের পরামর্শক্রমে জেলা প্রশাসকরা (ডিসি) উল্লিখিত ম্যাজিস্ট্রেটের সংখ্যার কমবেশি করতে পারবেন।

প্রসঙ্গত, ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী নির্বাচনের জন্য মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ৩০ নভেম্বর। মনোনয়নপত্র বাছাই হবে ১ থেকে ৪ ডিসেম্বর। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ১৭ ডিসেম্বর। প্রতীক বরাদ্দ ১৮ ডিসেম্বর। আর ভোট হবে আগামী ৭ জানুয়ারি।


আরও খবর



মাটিরাঙ্গায় যৌথ অভিযানে দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৮৮জন দেখেছেন

Image

জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:খাগড়াছড়ি জেলার মাটিরাঙ্গায়  পুলিশ ও সেনাবাহিনীর যৌথ অভিযানে দুই রাউন্ড কার্তুজসহ একটি পিস্তল উদ্ধার করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৩টার দিকে মাটিরাঙ্গা পৌরসভার মোহাম্মদপুর-বরঝালা এলাকা থেকে এসব উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মাটিরাঙ্গা পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের মোহাম্মদপুর-বরঝলা এলাকায় একটি সশস্ত্র সন্ত্রাসী দল চাঁদাবাজির উদ্দ্যেশ্যে অবস্থান করছে এমন গোপন তথ্যের ভিত্তিতে সেনাবাহিনী ও পুলিশ যৌথ অভিযান পরিচালনা করে। এসময় সেনাবাহিনী-পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা পালানোর সময় একটি ব্যাগ ফেলে যায়। পরে ব্যাগটি তল্লাশি করে দুই রাউন্ড কার্তুজসহ একটি দেশে তৈরি পিস্তল উদ্ধার করা হয়।

মাটিরাঙ্গা জোনের জোন অধিনায়ক লে. কর্ণেল কামরুল হাসান  জানান, উদ্ধার করা দুই রাউন্ড কার্তুজসহ পিস্তলটি মাটিরাঙ্গা থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারে মাটিরাঙ্গা জোনের এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

আরও খবর



নওগাঁয় গ্যাস ট্যাবলেট সেবনে নববিবাহিত দম্পতির আত্মহত্যা

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৭৬জন দেখেছেন

Image

নওগাঁ প্রতিনিধি:নওগাঁর মহাদেবপুরে পারিবারিক দ্বন্দ্বে গ্যাসবড়ি সেবনে আত্মহত্যা করেছেন এক নবদম্পতি। বুধবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে নওগাঁ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তারা মারা যান। এর আগে রাত ৯ টার দিকে তারা গ্যাসবড়ি সেবন করেন। নিহতরা হলেন, উপজেলার চেরাগপুর ইউনিয়নের বরাইল গ্রামের আবদুর রাজ্জাকের ছেলে সুমন (৪০) ও তার স্ত্রী গোলাপি (৩০)।

নিহতের পরিবার ও থানা সূত্রে জানা যায়, সুমনের প্রথম স্ত্রী খাতিজাকে না জানিয়ে গোপনে গত এক সপ্তাহ আগে গোলাপিকে বিয়ে করেন। গত মঙ্গলবার খাদিজা তার বাবার বাড়ি গেলে এ সুযোগে ছোট স্ত্রী গোলাপিকে বাড়িতে নিয়ে আসেন। বুধবার বিকেলে খাদিজা বাড়ি আসার পর থেকেই তাদের মাঝে ঝগড়া চলছিল। রাতেই তারা এক সাথে খাবার খাওয়ার পর সে দ্বন্দ্বে রাত ৯টার দিকে সুমন ও গোলাপি গ্যাসবড়ি সেবন করেন। প্রতিবেশীরা জানতে পেরে তাদের উদ্ধার করে রাত ১১টার দিকে নওগাঁ সদর হাসপাতালে ভর্তি করান। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১২টার দিকে গোলাপি ও রাত ২ টার দিকে সুমন মারা যায়।

নওগাঁ হাসপাতালের ডাঃ আবু আনসারি বলেন, হাসপাতালে নিয়ে আসার পর দুজনের অবস্থা খুবই গুরুতর ছিলো। তাদের অবস্থা আশংকা জনক হলে হাসপাতাল থেকে রেফার্ড করার প্রক্রিয়া করা হলেও রোগীর স্বজনরা অন্যত্র নিতে অপরগতা জানায়। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাতেই তারা মারা যায়।

মহাদেবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রুহুল আমিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পারিবারিক দ্বন্দ্বে গ্যাস ট্যাবলেট সেবনে আত্মহত্যা করেছেন। বিষয়টি আমরা তদন্ত করছি। ময়নাতদন্তের পর আইনানুক প্রক্রিয়া শেষে লাশ পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে।

আরও খবর



মিরসরাইয়ে বসন্ত উৎসবে ব্যতিক্রমী আয়োজন ক্যাফের বিক্রির টাকা খরচ হবে এতিমদের পড়াশোনায়

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৮৮জন দেখেছেন

Image

এম আনোয়ার হোসেন, মিরসরাই (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি:২০২২ সালের ১০ অক্টোবর মিরসরাইয়ে ব্যতিক্রমধর্মী ক্যাফে মিরসরাই ক্যাফে চালু হয়। ক্যাফেটি চালু হওয়ার পর থেকে নানা ব্যতিক্রমী আয়োজন করে উপজেলাজুড়ে সুনাম কুড়িয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় এবার বসন্ত উৎসবকে ঘিরে তরুণ উদ্যোক্তা মেলার আয়োজন করা হয়। উদ্যোক্তা মেলায় উদ্যোক্তরা পসরা সাজায় বাঙালির চিরায়ত রসনা অনুষঙ্গ পিঠা’র পাশাপাশি গ্রামীণ ঐতিহ্যের নানা পণ্য। ক্যাফে কর্তৃপক্ষ ইতিপূর্বেই ঘোষণা দেন বসন্ত উৎসরের দিন যত টাকা ক্যাফেতে বিক্রি হবে তার সবই খরচ করবে এতিমদের পড়াশোনায়। এমন উদ্যোগকে সাধুবাদ জানান ক্যাফেতে আসা দর্শনার্থী ও ক্রেতারা।

বুধবার দিনভর স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘মিরসরাইয়ান’র সার্বিক সহযোগিতায় মিরসরাই ক্যাফেতে সকাল ৯ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত আয়োজিত বসন্ত উৎসব ও তরুণ উদ্যোক্তা মেলা পরিদর্শন করেন মিরসরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহফুজা জেরিন, মিরসরাই প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি শারফুদ্দীন কাশ্মীর, মিরসরাই ক্যাফের সত্বাধিকারী সাফাত ইশতিয়াক, মিরসরাইয়ান’র অন্যতম পরিচালক কন্ঠশিল্পী মহিবুল আলম আরিফ।

বসন্ত উৎসবে ১১ টি স্টলে সর্বনিম্ন ৫ টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ৩০০ টাকা দামের পিঠা মিলে। উল্লেখযোগ্য পিঠার মধ্যে ছিল ডিম সুন্দরী, পদ্ম ফুল, তিচুর লাড্ডু, পানতোয়া, বেণী, মাছ পিঠা, নকশি, সূর্যমুখী পিঠা, ঝিনুক পিঠা, পাটিসাপ্টা, নারিকেল পুলি, শিমের ফুল, পাতা পিঠা, মধু ভাত, নকশি পিঠা, জালা পিঠা, ক্ষিরের নাড়ু, তিলের পিঠা, আনন্দ বিলাস, কলা পাতার টুই, লাউ ও গোলাপ পিঠাসহ প্রায় দেশ শতাধিক পিঠা। এছাড়া গ্রামীণ ঐতিহ্যের নানা ব্যবহৃত অনুষঙ্গও মিলে এই উৎসবে।

মিরসরাই ক্যাফের সত্বাধিকারী শাফাত ইশতিয়াক জানান, গ্রাম বাংলার ঘরে ঘরে একসময় যেসব পিঠা তৈরি করা হতো সেসব পিঠা কালের আবর্তে হারিয়ে গেছে। হারিয়ে যাওয়া সেসব পিঠাগুলো বর্তমান প্রজন্মকে পরিচয় করিয়ে দিতে এই আয়োজন করা। দ্বিতীয়বারের মতো আয়োজন করা হয় বসন্ত উৎসবের। এই উৎসব উপলক্ষে ক্যাফেতে বিক্রির সব টাকা এতিম শিক্ষার্থীদের মাঝে বিলিয়ে দেওয়া হবে।

মিরসরাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহফুজা জেরিন বলেন, ছোটবেলায় যেসব পিঠা খেয়েছিলাম, সময় সুযোগের কারণে এখন তা আর খাওয়া হয় না। এখানে এসে অনেকগুলো পিঠার পাশাপাশি গ্রামীণ অনেক কিছু দেখতে পেলাম। বসন্ত উৎসব ও তরুণ উদ্যোক্তা মেলা আয়োজন করার জন্য মিরসরাই ক্যাফে ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন মিরসরাইয়ান গ্রুপকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।


আরও খবর

বিনামূল্যে বই পেল ২৬৬ কলেজ শিক্ষার্থী

শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




ফকিরহাটে ভাড়া বাড়ি থেকে বিপুল পরিমাণ মাদকদ্রব্য উর্দ্ধার, আটক-২

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৫৮জন দেখেছেন

Image

ফকিরহাট(বাগেরহাট)সংবাদদাতা:বাগেরহাটের ফকিরহাটে ভাড়া বাড়ি থেকে ৯৪ কেজি গাঁজা, ইয়াবা ট্যাবলেট, ফেন্সিডিলসহ দু’টি মোটরসাইকেল জব্দ করেছে খুলনা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের একটি দল। এসময় ঘটনাস্থল থেকে দু’জনকে আটক করেছে তারা। বৃহস্পতিবার সকালে ফকিরহাট মডেল থানায় মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে একটি মামলা করা হয়েছে।

আটককৃত মাদককারবারিরা হলেন পিরোজপুর জেলার মঠবাড়িয়া উপজেলার পশ্চিম সেনের টিকিকাটা গ্রামের মোঃ আলী হোসেনের ছেলে মোঃ ফয়সাল হোসেন (২৩) এবং একই এলাকার লতিফ খলিফার ছেলে মোঃ সোহেল রানা (২৬)। এসময় লখপুর এলাকার বনিকপাড়া মোসাঃ বিথি খাতুনের ভাড়াটিয়া আক্তার মিয়া (৩৬) পালিয়ে গেছে। সে লখপুর বনিকপাড়া গ্রামের বাদশা মিয়ার ছেলে।

খুলনা মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর ও স্থানিয়রা জানান, বুধবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের খুলনা বিভাগীয় অতিরিক্ত পরিচালক মোঃ আহসানুর রহমানের নেতৃত্বে একটি দল ফকিরহাট উপজেলার লখপুর এলাকার বিথি বেগমের বাড়ির দুই তলার ভাড়াটিয়া আক্তার মিয়ার বাসায় অভিযান পরিচালনা করেন।

এসময় ওই ঘর থেকে ৯৪ কেজি গাঁজা, ১৫২০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট ও ৩৩ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করা হয়। এ অভিযানে পিরোজপুর জেলার মঠবাড়িয়া উপজেলার পশ্চিম সেনের টিকিকাটা গ্রামের মোঃ আলী হোসেনের ছেলে মোঃ ফয়সাল হোসেন (২৩) এবং একই এলাকার লতিফ খলিফার ছেলে মোঃ সোহেল রানা (২৬) কে আটক করে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তর। তবে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় মোসাঃ বিথি খাতুনের ভাড়াটিয়া আক্তার মিয়া (৩৬)। সে লখপুর বনিকপাড়া গ্রামের বাদশা মিয়ার ছেলে। এসময় তাদের ব্যবহৃত দু’টি মোটরসাইকেল জব্দ করা হয়েছে।

ফকিরহাট মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) জানান, বিপুল পরিমানে মাদকদ্রব্য উদ্ধারের ঘটনায় খুলনা মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের ‘ক’ সার্কেলের উপ-পরিদশর্ক মো. রাকিবুল ইসলাম রাসেল বাদী হয়ে মো. ফয়সাল হোসেন (২৩), সোহেল রানা (২৬) ও আক্তার মিয়ার (৩৫) মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে একটি মামলা করেছেন। আটককৃতদের বৃহস্পতিবার সকালে বাগেরহাট বিজ্ঞ আদালতে সোর্পদ করা হয়েছে।


আরও খবর



সুষ্ঠভাবে নির্বাচন সম্পূর্ণ হয়েছে: মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১৪১জন দেখেছেন

Image

সাগর আহম্মেদ,কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি:মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আলহাজ¦ এ্যাড. আ. ক. ম মোজাম্মেল হক এমপি বলেছেন, এ বছর একটা ব্যতিক্রম ধর্মী জাতীয় নির্বাচন হয়েছে। সারা পৃথিবীতে নির্বাচন কমিশন নির্বাচন পরিচালনা করে থাকে।

বিভিন্ন দল বা ব্যক্তিরা সেচ্ছায় নির্বাচন কমিশনের বিধান মতে নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করে। কিন্তু আমাদের দুর্ভাগ্য এই জাতির একটা চরম দুর্ভাগ্য যে, নির্বাচন আসলেই কেউ কেউ নির্বাচন না করার ঘোষণা ও নির্বাচন বানচালের ঘোষণা দিয়ে থাকেন। এ বছরও এমনই একটি পরিস্থিতি সৃষ্টি হওয়ায় এবং আন্তর্জাতিক শক্তি এদের মদদ দিয়েছে। বিদেশী প্রভুদের ইঙ্গিতে অনেকেই সেখানে তাল মেলানোর কারণে আমাদের মহান নেত্রী শেখ হাসিনা ব্যতিক্রম ধর্মী একটি সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। দলের থেকেও যদি কেউ নির্বাচন করতে চায় তাহলে নির্বাচন করতে পারবেন। সেই আলোকে নির্বাচনে আমাদের দলের লোকও সারা দেশে প্রতিদ্দন্দ্বিতা করেছে। সুষ্ঠভাবে নির্বাচন সম্পূর্ণ হয়েছে।

তিনি শুক্রবার সন্ধ্যায় কালিয়াকৈর উপজেলা আওয়ামীলীগের আয়োজনে উপজেলার পল্লীবিদ্যুৎ জোড়াপাম্প এলাকায় খেলার মাঠে গণ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন। উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মুরাদ কবীরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল উদ্দিন সিকদার। এসময় মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রীকে সংবর্ধনা জানায় উপজেলা, গাজীপুর জেলা আওয়ামীলীগ, উপজেলা পরিষদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা, কালিয়াকৈর মডেল প্রেসক্লাব, উপজেলা প্রেসক্লাবসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃ বৃন্দ।

তিনি শিল্পকারখানার কর্তৃপক্ষকে কঠোর হুসিয়ারী দিয়ে বলেন, কালিয়াকৈরবাসীর দুঃখ নদী-নালা, খাল বিলের পানি বিষাক্ত হয়ে গেছে।যেখানে মাছ ধরে মানুষ জীবিকা নির্বাহ করতো, সেখানে হেটেও যাওয়া যায় না। চাষের জমি নষ্ট হয়ে হচ্ছে। তাই সরকার কঠোর আইন প্রয়োগ করবে। এসময় শিল্পকারখানাকে দুষণ বন্ধের অনুরোধ জানান মন্ত্রী।

বন কর্তকর্তা-কর্মচারীদের উদ্দেশ্যে মন্ত্রী বলেন, বন আমাদের রক্ষা করতে হবে। কিন্তু বৈষম্য করে নয়। আপনারা অসহায় এর বিরুদ্ধে আইন প্রয়োগ করেন। কিন্তু ধনী প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে আপনারা সেটা করেন না, বৈষম্য আচরণ করেন। জনগনের হাটার রাস্তা দিবেন না, সেটা হয় না। যারা দোকানপাট করে ব্যবসা করেন, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেন। প্রিয় নেতৃ ভুমিহীন, গৃহহীনদের ঘর করে দিয়েছেন। আমাদের সরকার ঘর করে দেয়, ঘর ভেঙ্গে দেয় না। অযথা বৈষম্য সৃষ্টির মাধ্যমে বিরক্ত করলে জনগণ প্রতিহত করবে। এসময় নির্বাচনকালীন বেদাবেধ ভুলে সংগঠনের তৃণমুল পর্যায় থেকে উচ্চ পর্যায় পর্যন্ত সমস্ত নেতাকর্মীদেরও ঐক্যবদ্ধ ভাবে আওয়ামী পরিবারকে আদর্শের ভিত্তিকে গড়ে তোলার আহব্বান জানান মন্ত্রী।


আরও খবর