Logo
আজঃ বুধবার ১৯ জুন ২০২৪
শিরোনাম

নবীনগরে ভাইস চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের আত্মীয়ের ড্রেজার ও ভেকু মেশিন জব্দ

প্রকাশিত:বুধবার ১৭ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ২৩৬জন দেখেছেন

Image

মোহাম্মাদ হেদায়েতুল্লাহ্ ,নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি: ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগরের লাউরফতেহপুর ইউনিয়নের টানচারা আশ্রয়ণ ও গুচ্ছগ্রামের পাশে অবৈধভাবে ড্রেজার মেশিন ও ভেকু দিয়ে ফসলি জমি ও সরকারি খাল থেকে মাটি উত্তোলন করে বিক্রির অভিযোগে রাতের আধাঁরে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে সংশ্লিষ্ট কাজে ব্যবহৃত মালামাল জব্দ করা সহ মাটি খেকুদের জেল জরিমানা করেন উপজেলা নির্বাহী  অফিসার একরামুল ছিদ্দিক।  

১৬ মে মঙ্গলবার  বালুমহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইন ২০১০ অনুসারে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে ঘটনাস্থল থেকে ০৪ (চার) জনকে আটক করে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড প্রদান করা হয়। এঅভিযান পরিচালনায় উপস্থিত ছিলেন  নবীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ সাইফুদ্দিন আনোয়ার সহ থানা প্রশাসনের সঙ্গীয় ফোর্স  ও উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা কর্মচারিগণ।এসময় উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান জাকির হোসেন সাদেকের নির্দেশে কাজ করার কথা স্বীকার করা তার চাচাতো ভাই ঐ ইউনিয়ন বাশারুক গ্রামের আব্দুর রহমানের  ০৪ টি ড্রেজার, বিপুল সংখ্যক পাইপ ও সরঞ্জামাদি  এবং লাউরফতেহপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলমের ভাগিনা পরিচয় দেয়া মুরাদনগর উপজেলার গাঙ্গেরকোট গ্রামের মোমেনের ০২ টি এক্সকাভেটর মেশিন জব্দ করা হয়।

উল্লেখ্য ১৫ মে সোমবার বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় সরকারি খালের মাটি অর্ধকোটি টাকা অন্যত্রে বিক্রির অভিযোগে এলাকাবাসী ও মাটি খেকুদের মধ্যে সংঘর্ষের আশংকা শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ হওয়া সহ স্থানীয় ওয়াড মেম্বার ও এলাকাবাসী উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। 

এবিষয়ে নবীনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার একরামুল ছিদ্দিক জানান, ফসলি জমি ও সরকারি খাল থেকে অবৈধভাবে ড্রেজার ও ভেকু মেশিন দিয়ে মাটি কাটার অভিযোগে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে সংশ্লিষ্ট কাজে ব্যবহৃত মালামাল জব্দ করা সহ ৪ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে। কৃষিজমি ও কৃষকের স্বার্থ রক্ষার্থে এধরনের অভিযান চলমান থাকবে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর

ভোলায় "রাসেল ভাইপার" আতঙ্ক

বুধবার ১৯ জুন ২০২৪




বাল্য ও জোরপূর্বক বিবাহ বন্ধে কুড়িগ্রামের রৌমারী সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে

প্রকাশিত:সোমবার ২৭ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | ১০৭জন দেখেছেন

Image

মাজহারুল ইসলাম রৌমারী কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃজোরপূর্বক বাল্যবিবাহ বন্ধে রৌমারী উপজেলার যুব নেতাদের সাথে সুশীল সমাজের সংগঠনের সংযোগস্থাপন বিযয়ক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। স্থানীয় উপজেলা পরিষদ হলরুম রৌমারী কুড়িগ্রাম আলোচনা সভাটি উপজেলার সকল কাজিগনদের নিয়ে অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় রৌমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাহিদ হাসান খানের সভাপতিত্বে বাল্য জোরপূর্বক বিবাহ  বন্ধে উপস্থিতি ছিলেন রৌমারী উপজেলার ছয়টি ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যান, সমাজ সেবা কর্মকর্তা মিনহাজুল ইসলাম, প্রজেক্ট সমন্বয় কর্মকর্তা আব্দুল আল মামুন চাইল্ড ব্রাইড। পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা নুর আলম, সার্বিক সহযোগিতায় উপজেলা প্রশাসন রৌমারী কুড়িগ্রাম। আয়োজনে চাইল্ড,  নট,ব্রাইড প্রজেক্ট আরডিআরএস বাংলাদেশ, কারিগরি সহযোগিতায় প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ।

এসময় এনজিওর কর্মকর্তা কর্মচারীরা সকলেই উপস্থিতি থাকলেও রৌমারী উপজেলার স্থানীয় সাংবাদিকদের অবগত করেননি বাল্যবিবাহ বন্ধের আলোচনা সভার  সংশ্লিষ্টরা। এ নিয়েও সাংবাদিকদের মাঝে খোপের সৃষ্টি হয়েছে। আলোচনা ব্যানারে উল্লেখ রয়েছে সুশীল সমাজকে নিয়ে বাল্য ও জোরপূর্বক বিবাহ বন্ধে আলোচনা সভাটি করছেন দায়িত্বরত এনজিওর  আরডিআরএস বাংলাদেশ কিন্তু সুশীল সমাজের সাংবাদিকরা আজকের আলোচনা সম্পর্কে কেউই অবগত ছিলনা বলে আবেগ করেছেন সাংবাদিকবৃন্ধরা।

তবে কেন সাংবাদিকদেরকে অবগত করেননি সেটি জানা যায়নি। 

আরও খবর



বিরামপুরে জমি দখলের চেষ্টা: থানায় জিডি

প্রকাশিত:বুধবার ১২ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ৫৫জন দেখেছেন

Image

মিজান, বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃদিনাজপুর জেলার বিরামপুরে পৌর এলাকার দেবীপুর গ্রামে রেল বিভাগ থেকে লীজ নেওয়া জমি একটি সংঘবদ্ধ চক্র জবর দখলের চেষ্ঠা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এঘটনায় লীজ গ্রহীতা আবু সাঈদ থানায় সাধারণ ডাইরী করে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

বিরামপুর উপজেলার দেবীপুর গ্রামের বৃদ্ধ আবু সাঈদ জানান, ঐ মৌজায় রেল বিভাগের অনেক পতিত জমি রয়েছে। অন্যনা সে সকল জমি লীজ নিয়ে ভোগ দখল করছে। আবু সাঈদ তার বাড়ির সামনে ১৪ শতক জায়গা রেল বিভাগ থেকে লীজ নিয়ে র্দীদিন ধরে ভোগ দখল করে আসছেন। তিনি চলতি বছরও খাজনার টাকা দিয়ে লাইসেন্স নবায়ন করেছেন। কিন্তু ঐ গ্রামের একটি সংঘবদ্ধ চক্র বৃদ্ধ আবু সাইদের বাড়ির সামনের জমিটি জোর পূর্বক দখলে নেওয়ার চেষ্টা ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করছে।

এঘটনায় তিনি গত ৮ জুন বিরামপুর থানায় সাইম, ইদ্রিস, আর্জিনা ও হাছেন মিয়ার নামে একটি সাধারণ ডাইরী করেছেন। এতেও ক্ষান্ত না হয়ে ঐ চক্রটি ১২জুন সকালে আবারো জমিটি জবর দখলের চেষ্টা করেছে। বাড়ির সামনের জমি জবর দখলের হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য বৃদ্ধ আবু সাঈদ সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।


আরও খবর

ভোলায় "রাসেল ভাইপার" আতঙ্ক

বুধবার ১৯ জুন ২০২৪




রৌমারী জমে উঠেছে কোরবানির পশুর হাট যায়গা সংকটে ভোগান্তিতে ক্রেতাবিক্রেতারা

প্রকাশিত:শনিবার ০১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | ১৪০জন দেখেছেন

Image

মাজহারুল ইসলাম,রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধিঃকোরবানির সময় যত ঘুনিয়ে আসছে ততোই ক্রেতা-বিক্রেতারা তৎপর হয়ে বিভিন্ন হাটে পশু ক্রয়বিক্রয়ের চেষ্টা করছেন।

গরুর সাইজ ও দামে পছন্দ হলে, ক্রয় করে ফিরছেন বাড়িতে। অপরদিকে কাঙ্খিত দামের অপেক্ষা করছেন এঅঞ্চলের  খামারি ও ব্যবসায়ীরা। রৌমারী  প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, উপজেলায় স্থায়ী ২ টি পশুর হাট রয়েছে। এর মধ্যে সব থেকে বড় পশুর হাট দেশের উত্তর অঞ্চল কুড়িগ্রামের সীমান্ত ঘেষা রৌমারী সদর হাট। সপ্তাহে পশুর হাট বসে শুক্রবার এবং সোমবারসহ দুদিন। সকাল থেকেই দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে হাজার হাজার পশু ও ক্রেতা-বিক্রেতাদের হাক-ডাকে সরগরম হয়ে উঠে রৌমারীর পশুর হাট। বেলা বাড়ার সাথে সাথে বৃদ্ধি পেতে থাকে পশু ও ক্রেতা-বিক্রেতার সংখ্যা। বিভিন্ন জেলা উপজেলা থেকে আসা খামারি হামির উদ্দীন, মুছা মিয়া, জমের উদ্দীন বলেন, ৬ টি গরু নিয়ে আসছিলাম। ২টি বিক্রি করেছি দামেও ভাল পেয়েছেন বলে জানান তিনি। জামালপুর জেলার বকশিগঞ্জ উপজেলা থেকে রৌমারী হাটে গরু কিনতে এসে বলেন, গরুর দাম এবার অনেক বেশি। দেখতেছি, কিন্তু দামে হচ্ছে না। দামে হলেই কিনব। তিনি আরও বলেন খাবার ও অন্যান্য আনুসঙ্গিক পণ্যের দাম বাড়ায় গরুর দামও বৃদ্ধি পেয়েছে বলে দাবি করছেন ব্যবসায়ীরা। যে ভুষি কিনেছি ৩৫ টাকায় সেই ভুষি এখন ৬০ টাকা। ভুট্টার গুড়ি, খৈল, পালিশ সবকিছুরই দাম বেশি। যার ফলে গরুর দামও অনেক বেশি। দাম বেশি থাকায় গৃহস্থরা গরু ক্রয়ের ক্ষেত্রে অনেক হিসাব নিকাশ করছেন। শুধু হাট নয় খামারিরা নিজ বাড়িতে বসেও কোরবানির পশু বিক্রি করছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করেও অনেকেই গরু-ছাগল বিক্রি করছেন। তারপরও সরকারের হাট উন্নয়নে কাজ করছেন না কেন সেটি আমার এবং ক্রেতা বিক্রেতাদের প্রশ্ন,  উত্তর দেবেন কে। অপরদিকে বিশেষ সুত্রে জানা গেছে  ১৪৩০ বাংলা সনের হাটবাজারা ইজারা চুক্তি দলিলে রৌমারী হাটে রৌমারী মৌজায় ৬ একর ৯০ শতাংশ জমি ইজারাদারের অনুকুলে চুক্তিতে  দলিল প্রদান হয়েছিল। কিন্তু অদ্যাবধি তফশিল ভুক্ত ৬ একর-৯০ শতক জমি ইজারাদারকে বুঝিয়ে দেওয়া হয়নি। যায়গার অভাবে ক্রেতা বিক্রেতাদের ব্যবসা বানিজ্যে  সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে। হাটের সুষ্ঠ পরিবেশনে বিঘœন ঘটছে বলেও জানা গেছে। প্রায় সাত একর জমির উপর পশুর হাটটি থাকার কথা, কিন্তু সাত একরতো দূরের কথা দের একরের উপর দাড়িয়ে আছে সাড়ে তিন কোটি টাকার হাট। বাকি প্রায় সাড়ে পাচ একর ভূমি এখন কার দেয়ালের ভেতরে লুকিয়ে আছে জানতে চায় প্রবীনরা। 

এদিকে বর্তমান হাট ইজারাদার সাফায়াত বীন জাকির সৌরভ অভিযোগ করে বলেন রৌমারী এই হাটটিতে দূরদূরান্ত থেকে খামারিরা গরু মহিষ ক্রয় বিক্রয়ের জন্য এসে দাঁড়ানোর যায়গা পাচ্ছেন না ফলে হাটের ক্রেতা বিক্রতারা হাটে আসতে অনিহা প্রকাশ করছেন। তিনি আরও বলেন এভাবে হাট চলতে থাকলে একসময় এ হাটের রাজস্ব হারাবেন সরকার। হাটের জমি বিভিন্নভাবে  জবরদখলে নিয়ে স্থাপনা করে রাখলেও নজরে নিচ্ছেন না প্রশাসন, ফলে উর্ধ্বতন কতৃপক্ষের কাছে হাটের যায়গা উদ্ধারের জন্য জোর দাবী জানাচ্ছি। এবিষয় হাট ইজারাদার সৌরভ অভিযোগ করে বলেন রৌমারী পশুর হাটে যায়গা যেটি থাকার কথা সেটি বিভিন্নভাবে দখলে নিয়েছেন দখলদাররা ফলে পশু ক্রয় বিক্রয়ে ব্যঘাত ঘটছে। হাট ইজারাদার আরও বলেন হাটের যায়গা ছিলো প্রায় ৭ একর জমিতে, সেখানে পশুর হাট অবস্থান করছে মাত্র দের একর ভূমিতে। বাকি সাড়ে পাচ একর সরকারি পশুর হাটের যায়গা কোথায়। আমি প্রশাসনে দৃষ্টি এ্যাকশন করছি পশুর হাটের ৭ একর ভূমি উদ্ধারের জোর দাবী জানাচ্ছি। রৌমারী উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা.হাবিবুর রহমান হাবিব বলেন, কোরবানি উপলক্ষে উপজেলায় ২টি হাট রয়েছে। প্রতিটি হাটে আমাদের ভ্রাম্যমাণ মেডিকেল টিম রয়েছে। এছাড়া কোন অসাধু ব্যবসায়ী যাতে হরমন বা অন্য কোন খারাপ রাসয়নিক দিয়ে গরু বিক্রয় করতে না পারে সেজন্য প্রাণিসম্পদ বিভাগের নজরদারি রয়েছে বলে জানান তিনি।


আরও খবর



জাতীয় ঈদগাহে পাঁচ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা: ডিএমপি কমিশনার

প্রকাশিত:রবিবার ১৬ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | ৫৯জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে এবারের ঈদ জামাতে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) পক্ষ থেকে পাঁচ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে,বলেছেন ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার হাবিবুর রহমান। ঈদকেন্দ্রিক সুনির্দিষ্ট কোনো হুমকি নেই। তবে সবকিছু মাথায় রেখে নিরাপত্তা ব্যবস্থা সাজানো হয়েছে।

রোববার (১৬ জুন) সকালে জাতীয় ঈদগাহ ময়দানের নিরাপত্তা ব্যবস্থা পর্যবেক্ষণে এসে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, সারাদেশের মতো ঢাকা মহানগরীতেও যথাযথ ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপিত হবে। জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এ জামাতে রাষ্ট্রপতি, মন্ত্রিপরিষদের সদস্য এবং বিশিষ্ট ব্যক্তিরা নামাজ আদায় করবেন। জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে পাঁচটি জামাতের ব্যবস্থা করা হয়েছে। ঢাকা মহানগরীতে সব জামাতের জন্য পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, ট্রাফিক ব্যবস্থাপনার জন্য পার্কিং ও ডাইভারশন থাকবে। পোশাকধারী পুলিশ সদস্যদের পাশাপাশি সাদা পোশাকে পর্যাপ্ত সংখ্যক পুলিশ সদস্য মোতায়েন থাকবে। পেট্রলিং, সিসিটিভি ক্যামেরা মনিটরিংসহ নিরাপত্তা নিশ্চিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। শহরের বিভিন্ন জায়গায় পুলিশের পাশাপাশি র‍্যাবের পেট্রোল টিম দায়িত্ব পালন করবে। আশা করি ঈদের জামাত সুন্দরভাবে অনুষ্ঠিত হবে। সারাশহরে প্রায় ২৫ লাখ পশু কোরবানি হবে। পশু কোরবানি দেওয়ার ক্ষেত্রে সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে যে ব্যবস্থাপনা রাখা হয়েছে, নগরবাসীকে সেই নিয়মকানুন মেনে চলার বিনীত অনুরোধ জানাচ্ছি। বর্জ্য অপসারণে সিটি কর্পোরেশনকে সহায়তা করার অনুরোধ জানাচ্ছি।

ডিএমপি কমিশনার আরও বলেন, চামড়া ব্যবস্থাপনার জন্য এবার সরকারের পক্ষ থেকে বিশেষভাবে পুলিশ এবং সিটি কর্পোরেশন যৌথভাবে সেখানে কাজ করবে। কোনোভাবে যাতে চামড়া পাচার হতে না পারে, দালাল ফড়িয়া চক্র যাতে কোনো সমস্যা সৃষ্টি করতে না পারে সেজন্য পুলিশের পক্ষ থেকে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। সব থানা কেন্দ্রিক সেই ব্যবস্থাপনা থাকবে। যে কেউ এ ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হলে আমরা তাদেরকে সংশ্লিষ্ট থানায় যোগাযোগ করতে অনুরোধ জানাচ্ছি। যারা ঈদের জামাতে নামাজ পড়তে আসবেন তাদের প্রতি বিনীত অনুরোধ, আপনার কোনো ধরনের দাহ্য বস্তু, বিস্ফোরক জাতীয় বস্তু ও ধারালো কিছু নিয়ে আসবেন না। বাংলাদেশের চামড়া প্রসেসিং এলাকা ঢাকা জেলার সাভারে। ঢাকাকেন্দ্রিক যে চামড়া সেগুলো কালই সেখানে যাবে। আর ঢাকার বাইরেরগুলো সাত দিনের মধ্যে সেখানে আসবে। এ কাজ যাতে সুন্দরভাবে করা হয়, সেজন্য ডিএমপি সহায়তা করবে।

চাঁদাবাজির বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমরা এরইমধ্যে চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছি, অনেককেই গ্রেপ্তার করেছি। পরে এ ধরনের কাজ যারা করবেন, তারা সতর্ক হবেন এবং ভবিষ্যতে এসব থেকে তারা নিবৃত থাকবেন। আমরা সব ধরনের চ্যালেঞ্জ মাথায় রেখেই নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করে থাকি। আমরা সব সময় সর্বাত্মক এবং সর্বোচ্চ ব্যবস্থাটাই নিয়ে থাকি। এবারও সেটি করা হয়েছে। জঙ্গি হামলার সুনির্দিষ্ট কোনো থ্রেট নেই, তারপরেও আমরা সবকিছু মাথায় রেখেই আমাদের নিরাপত্তা পরিকল্পনা সাজিয়েছি।


আরও খবর



রাণীশংকৈলে ইটের ট্রাক্টর উল্টে এক শ্রমিক নিহত

প্রকাশিত:রবিবার ০৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | ৭৪জন দেখেছেন

Image
মাহাবুব আলম, রাণীশংকৈল(ঠাকুরগাঁও)প্রতিনিধিঃঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈলে ইটভর্তি ট্রাক্টর উল্টে ফারুক হোসাইন নামে এক শ্রমিক নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। শনিবার (৮জুন) উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের বটতলা এলাকায় এ দূর ঘটনা ঘটে। নিহত ফারুক একই ইউনিয়নের নুনতোর এলাকার আবুল হোসেনের ছেলে।

জানা গেছে, একতা ইটভাটা থেকে ট্রাকে করে ইট নিয়ে যাচ্ছিল কাশিপুর এলাকার ঝাবোরটলা এলাকায়। পথিমধ্যে কাশিপুর বটতলা এলাকায় পানির স্তুপের রাস্তায় গাড়ীর চাঁকা বসে পড়লে ট্রাক্টরটি পাল্টি খায়। ইটের উপরের বসে ছিল শ্রমিক ফারুক। ট্রাক্টর পাল্টি খাওয়ার সময় ইট ও ফারুক একসাথে গড়িয়ে পড়লে রক্তাক্ত হয়ে পড়ে। স্থানীয়রা উদ্ধার করে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।

রাণীশংকৈল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) জয়ন্ত কুমার সাহা মুঠোফোনে বলেন, ট্রাক্টর উল্টে একজন শ্রমিক নিহত হয়েছে। ওই শ্রমিকের মরদেহ বর্তমানে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রয়েছে। আইনী প্রক্রিয়া শেষে মরদেহ হস্তান্তর করা হবে।

আরও খবর

ভোলায় "রাসেল ভাইপার" আতঙ্ক

বুধবার ১৯ জুন ২০২৪