Logo
আজঃ Friday ১৯ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে আবাসিকের অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন ডেমরায় প্যাকেজিং কারখানায় ভয়বহ অগ্নিকান্ড রূপগঞ্জে পুলিশের ভুয়া সাব-ইন্সপেক্টর গ্রেফতার রূপগঞ্জে সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ॥ সভা সরাইলে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ৭৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত। নারায়ণগঞ্জে পারিবারিক কলহে স্ত্রীকে পুতা দিয়ে আঘাত করে হত্যা,,স্বামী গ্রেপ্তার রূপগঞ্জ ইউএনও’র বিদায় সংবর্ধনা নাসিরনগরে স্বামীর পরকিয়ার,বলি ননদ ভাবীর বুলেটপানে আত্মহত্যা নাসিরনগরে জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭ তম শাহাদত বার্ষিকী পালিত ডেমরায় জাতীয় শোক দিবসের কর্মসুচি পালিত

নাসিরনগরে খেলনার প্রলোভনে শিশুকে যৌন নির্যাতনের ঘটনায় গ্রেপ্তার

প্রকাশিত:Friday ০৩ December ২০২১ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৩৯৪জন দেখেছেন
Image


মোঃ আব্দুল হান্নান,

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলার ভলাকূট ইউনিয়নে ৭ বছরের শিশুর সাথে যৌন নির্যাতনের ঘটনা ঘঠেছে।

ওই ঘটনায় শিশুর  মা সালেহা বেগম বাদী হয়ে নাসিরনগর থানায় একটি এজাহার দায়ের করলে। অভিযুক্ত হাকিম মিয়া (৩০)কে আটক করে পুলিশ। 

এজাহার ও ভুক্তভোগীর পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ২৯ নভেম্বর  সাড়ে ৪ ঘটিকার সময় ভলাকূট নদীর তীরে মেলায় ঘুরতে যায় ওই শিশু। এসময় একই গ্রামের হাকিম মিয়া শিশুকে খেলনা কিনে দেয়ার কথা বলে নৌকাতে করে নদীর অপর পাড়ে নিয়ে যায়।

সেখানে নিয়ে ওই শিশুকে যৌন নির্যাতনের পর মেলাতে রেখে পালিয়ে যায় হাকিম। 

পরে শিশুটির কান্নাকাটিতে আশেপাশের লোকজন এসে শিশুটিকে বাড়িতে নিয়ে যায়। তখন ওই শিশুর বায়ু পথে রক্তক্ষরণ হলে চিকিৎসার জন্য প্রথমে নাসিরনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে জেলা সদর হাসপতালে ভর্তি করা হয়।

বর্তমানে ওই শিশু জেলা সদর হাসপতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

মামলার বাদী ও ভিকটিমের মা সালেহা বেগম বলেন,, আমার ভিকটিম  বর্তমানে হাসপতালে ভর্তি আছে।

আমাদেন বিভিন্নভাবে চাপ প্রয়োগ করা হচ্ছে।

আমরা ওই ঘটনার সুষ্ঠ বিচার চাই।

নাসিরনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ  হাবিবুল্লা সরকার বলেন,আমরা  ১ জনকে গ্রেফতার করেছি।

তার বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা হবে বলে ও জানান এ কর্মকর্তা।


-খবর প্রতিদিন/ সি.বা 


আরও খবর



সংবাদ সংগ্রহে গিয়ে মারধরের শিকার সাংবাদিক, আটক ৮

প্রকাশিত:Tuesday ০২ August 2০২2 | হালনাগাদ:Sunday ১৪ August ২০২২ | ২৭জন দেখেছেন
Image

রাজধানীর তালতলা এলাকায় ভিক্টর ট্রেডিং কর্পোরেশনে মেডিকেলের যন্ত্রাংশ কেনাকাটায় অনিয়ম ও দুর্নীতির সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে মারধরের শিকার হয়েছেন বেসরকারি টেলিভিশন ডিবিসি নিউজের স্টাফ রিপোর্টার সাইফুল ইসলাম জুয়েল ও ভিডিওগ্রাফার আজাদ আহমেদ।

মঙ্গলবার (২ আগস্ট) দুপুরে তাদের ওপর এ হামলা চালানো হয়। এ সময় ক্যামেরা ভাঙচুর ও ফুটেজ ডিলিট করে দেয় হামলাকারীরা।

ওই প্রতিষ্ঠানের সত্ত্বাধিকারী কাওছার ভুইয়া ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী এই হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগীরা।

সংবাদ সংগ্রহে গিয়ে মারধরের শিকার সাংবাদিক

এ ঘটনায় শেরেবাংলা নগর পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে আট হামলাকারীকে আটক করে থানায় নিয়েছে।

এ বিষয়ে আহত সাংবাদিক সাইফুল জুয়েল বলেন, সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে প্রথমে ডিবিসির ক্যামেরাপারসন আজাদ আহমেদকে মারধর ও ক্যামেরা ভাঙচুর করে ভিডিও ফুটেজ ডিলিট করে দেওয়া হয়। পরে ক্যামেরা ফেরত চাইলে কাওছারের ১০-১২ জন সন্ত্রাসী আমার ও আজাদের ওপর এলোপাতাড়ি মারধর চালায়। এতে আমরা দুজনেই মারাত্মক আহত হই।

ডিবিসি নিউজের স্টাফ রিপোর্টার আবু দাউদ খান বলেন, হাসপাতালের সরঞ্জাম কেনাকেটার অনিয়মের অভিযোগের বিষয়ে রিপোর্ট করতে গেলে ডিবিসি নিউজের দুই সাংবাদিকের ওপর হামলা চালায় ভিক্টর ট্রেডিং কর্পোরেশনের সত্ত্বাধিকারী কাওসার ভূঁইয়া ও তার সহযোগীরা। এ সময় রিপোর্টার সাইফুল জুয়েল ও ভিডিওগ্রাফার আজাদকে রুমে আটকে রেখে মারধর করা হয়। এছাড়াও ক্যামেরার সব ছবি ডিলিট করতে বাধ্য করে প্রতিষ্ঠানটি।

সংবাদ সংগ্রহে গিয়ে মারধরের শিকার সাংবাদিক

ভিক্টর ট্রেডিং কর্পোরেশন জাতীয় নাক, কান ও গলা ইনস্টিটিউটের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। তাদের বিরুদ্ধে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ পাওয়ায় অনুসন্ধানে যায় ডিবিসি নিউজ।

শেরেবাংলা নগর থানার ভারপাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) উৎপল বড়ুয়া জাগো নিউজকে বলেন, এ ঘটনায় বেশ কয়েকজনকে আটক করে থানায় আনা হয়েছে। ভুক্তভোগী সাংবাদিক বাদী হয়ে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন। এ বিষয়ে পরবর্তীতে মামলা হবে।

এদিকে, বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের (ক্র্যাব) সভাপতি মির্জা মেহেদী তমাল ও সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান বিকুসহ কার্যনির্বাহী কমিটির নেতারা এক বিবৃতিতে সাংবাদিক জুয়েলের ওপর হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। পাশাপাশি সাংবাদিকদের পেশাগত কাজে বাধা দেওয়ায় সংশ্লিষ্টদের অবিলম্বে আইনের আওতায় আনা ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে সরকারের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তারা।


আরও খবর



ইন্টার্ন চিকিৎসক-শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ অব্যাহত, ভোগান্তি চরমে

প্রকাশিত:Wednesday ০৩ August ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ১৪ August ২০২২ | ২৭জন দেখেছেন
Image

সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের এক নারী ইন্টার্ন চিকিৎসককে উত্ত্যক্ত ও কলেজ ক্যাম্পাসে ঢুকে দুই শিক্ষার্থীর ওপর হামলার প্রতিবাদ ও দোষীদের গ্রেফতারের দাবিতে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছেন আন্দোলনকারীরা।

বুধবার (৩ আগস্ট) দুপুর ১টার দিকে আন্দোলনকারী ইন্টার্ন চিকিৎসক ও শিক্ষার্থীরা হাসপাতালের মূল ফটকের সামনের সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন। সড়ক অবরোধের কারণে চৌহাট্টা-রিকাবীবাজার-বাগবাড়ি-মদিনামার্কে সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এ সময় সড়কটির উভয় পাশে শত শত যানবাহন আটকা পড়ে।

অবরোধের কারণে হাসপাতালে রোগীবাহী অ্যাম্বুলেন্স পর্যন্ত ঢুকতে পারছে না। একইভাবে হাসপাতাল থেকে কোনো গাড়িও বের হতে পারছে না। অবস্থায় চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন রোগী ও তাদের স্বজনসহ সাধারণ লোকজন।

jagonews24

সহপাঠীদের ওপর হামলার ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার দাবিতে শিক্ষার্থীরা কলেজের ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন ও প্রশাসনিক ভবনে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছেন। কিন্তু আন্দোলনের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করলেও এখন পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন মিড লেভেল চিকিৎসকরা।

এদিকে ইন্টার্ন চিকিৎসকরা কর্মবিরতিতে থাকায় হাসপাতালে ভর্তি থাকা রোগীরা স্বাভাবিক চিকিৎসাসেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।

ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ইন্টার্ন চিকিৎসক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ডা. মতিউর রহমান বলেন, হামলাকারীদের গ্রেফতার এবং শিক্ষার্থী ও ইন্টার্ন চিকিৎসকদের নিরাপত্তায় দৃশ্যমান উদ্যোগ নেওয়ার আগ পর্যন্ত আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাবো। সময়ের ব্যবধানে আন্দোলন আরও কঠোর থেকে কঠোরতর করা হবে।

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থী শাহ অসিম ক্যানেডি বলেন, ‘সোমবার রাতে কলেজ ক্যাম্পাসের ভেতরে ঢুকে বহিরাগতরা আমাদের কয়েকজন শিক্ষার্থীকে মারধর করেন। এতে দুজন গুরুতর আহত হন। গুরুতর আহত শিক্ষার্থী রুদ্র নাথ ও নাইমুর রহমান ইমন বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। হামলাকারী সব আসামি গ্রেফতার না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে।’

হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার মাহবুবুর রহমান ভূইয়া জানান, ইন্টার্ন চিকিৎসকরা কর্মবিরতিতে থাকায় কিছুটা প্রভাব পড়লেও অন্য চিকিৎসকরা কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। রোগীদের চিকিৎসাসেবা অব্যাহত আছে। হাসপাতাল ও মেডিকেল কলেজের নিরাপত্তা জোরদার করতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

শনিবার (৩০ জুলাই) ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ১৪ নম্বর ওয়ার্ডে স্থানীয় কাজলশাহ এলাকার এক রোগীর স্বজনদের সঙ্গে নারী ইন্টার্ন চিকিৎসকের হাতাহাতি হয়। এরপর মেডিকেল কলেজ শিক্ষার্থীরা হামলাকারীদের পুলিশের হাতে হস্তান্তর করেন। পরে পুলিশ তাদের ছেড়ে দেয়।

jagonews24

এর জের ধরে সোমবার (১ আগস্ট) রাত ৯টার দিকে কলেজ ক্যাম্পাসে বহিরাগতরা ঢুকে অস্ত্র নিয়ে শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালায়। এতে মেডিকেল কলেজের দুই শিক্ষার্থী আহত হন।

এর প্রতিবাদে ওইদিন রাত ১০টায় কর্মবিরতিতে যান ইন্টার্ন চিকিৎসকরা। একই সময়ে হাসপাতালের সামনের সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীরা। এরপর রাত ১টার দিকে দুজনকে আটক করে পুলিশ। পরে মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা, পুলিশ, হাসপাতাল ও কলেজ কর্তৃপক্ষের আশ্বাসে রাত আড়াইটায় পরদিন মঙ্গলবার দুপুর ২টা পর্যন্ত আন্দোলন স্থগিত করেন তারা।

পরে মঙ্গলবার দুপুরে প্রশাসন ও কলেজ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠক হলেও দাবি আদায় হয়নি জানিয়ে বিকেল ৫টায় ফের আন্দোলন শুরু করেন ইন্টার্ন চিকিৎসক ও কলেজ শিক্ষার্থীরা।

দুই কলেজ ছাত্রের ওপর হামলা ও নারী ইন্টার্ন চিকিৎসককে দায়িত্বরত অবস্থায় উত্ত্যক্ত করার ঘটনায় সিলেট কোতোয়ালি মডেল থানায় ওসমানী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বাদী হয়ে পৃথক দুটি মামলা করে।

এ বিষয়ে সিলেট কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আলী মাহমুদ মিঞা বলেন, আন্দোলনকারীদের বুঝিয়ে সড়ক থেকে সরিয়ে দিতে পুলিশ চেষ্টা করছে। এছাড়া সোমবার রাতে আটক মোহিদ হাসান রাব্বি ও এহসান আহম্মদকে কলেজ প্রশাসনের করা মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। বাকিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।


আরও খবর



কোনো লোডশেডিং নেই ডিপিডিসি এলাকায়!

প্রকাশিত:Saturday ৩০ July ২০২২ | হালনাগাদ:Thursday ১৮ August ২০২২ | ৩১জন দেখেছেন
Image

দেশে বিদ্যুতের ঘাটতি কমাতে গত ১৯ জুলাই থেকে চলছে শিডিউল করে এলাকাভিত্তিক লোডশেডিং। প্রতিদিনই রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় সকাল থেকে রাত পর্যন্ত দফায় দফায় লোডশেডিং কার্যক্রম পরিচালনা হচ্ছে।

এদিকে টানা ১০ দিন শিডিউল করে লোডশেডিং করার পর লোডশেডিংয়ে বিরতি দিলো ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ডিপিডিসি)। শনিবার (৩০ জুলাই) এক বিজ্ঞপ্তিতে ডিপিডিসি এলাকায় কোনো লোডশেডিংয়ের শিডিউল রাখা হয়নি বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

কিন্তু একই সময়ে রাজধানীর অন্যসব এলাকায় সকাল ১০টা থেকে সেই ধারাবাহিকতায় শুরু হবে লোডশেডিং কার্যক্রম। চলবে রাত ১০টা পর্যন্ত।

রাজধানীর বিদ্যুৎ বিতরণ সংস্থা ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড (ডিপিডিসি) ও ঢাকা ইলেকট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেড (ডেসকো) কোথায় কখন লোডশেডিং করবে, সে তালিকাও জানিয়ে দিয়েছে।

ডিপিডিসি গ্রাহকরা শুক্রবারের লোডশেডিং শিডিউল দেখতে ক্লিক করুন এখানে এবং ডেসকোর গ্রাহকরা ক্লিক করুন এখানে।


আরও খবর



মন্দিরে যাওয়ার পথে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে ১০ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:Monday ০১ August ২০২২ | হালনাগাদ:Thursday ১৮ August ২০২২ | ৪৪জন দেখেছেন
Image

পাশ্চিমবঙ্গে জল্পেশের মন্দিরে শিবের মাথায় পানি ঢালতে যাওয়ার পথে গাড়িতেই বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ১০ জন পুণ্যার্থীর মৃত্যু হয়েছে। তাছাড়া আহত ১৬ জনকে জলপাইগুড়ি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। গাড়িতে থাকা জেনারেটর থেকে শর্ট সার্কিটের ফলে এই দুর্ঘটনা বলে প্রাথমিক অনুমান।

কোচবিহারের শীতলকুচি থেকে ২৭ জনের একটি পুণ্যার্থীদল একটি পিক-আপ ভ্যানে করে জলপাইগুড়ির জল্পেশের শিব মন্দিরের উদ্দেশে যাচ্ছিলেন। গাড়িতে ডিজেও চলছিল। পুণ্যর্থীদের গাড়িটি চ্যাংড়া বান্ধার ধরলা নদীর সেতু পার করার পর ওই ঘটনাটি ঘটে।

প্রথমে পুণ্যার্থীদের বেশ কয়েকজনকে অচেতন হয়ে পড়তে দেখে চালক পিক-আপ ভ্যানটি চ্যাংড়া বান্ধা হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানেই ১০ জনকে মৃত ঘোষণা করা হয়। আহত পুণ্যার্থীদের দাবি, গাড়ির জেনারেটর থেকে শর্ট সার্কিট হয়েই এই ঘটনা ঘটেছে।

মাথাভাঙার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অমিত বর্মা জানান, গাড়িতে থাকা জেনারেটরটি দিয়ে ডিজে বাজানো হচ্ছিল। সেই জেনারেটরটি কোনও ভাবে শর্ট সার্কিট হয়ে গিয়ে এই ঘটনাটি ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে। ওই ঘটনার পর সকলকে চ্যাংড়া বান্ধা হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে ১০ জনকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক। আহত ১৬ জনকে জলপাইগুড়ি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। গাড়িটিকে আটক করা হয়েছে। চালক পলাতক। দুর্ঘটনাগ্রস্ত সকলেই শীতলকুচির বাসিন্দা। সকলের পরিবারকেই খবর দেওয়া হয়েছে। পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে।


আরও খবর



আনারকলির বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ শাস্তির কথা ভাবছে মন্ত্রণালয়

প্রকাশিত:Wednesday ১০ August ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ১৬ August ২০২২ | ১৯জন দেখেছেন
Image

ইন্দোনেশিয়া থেকে ফিরিয়ে আনা বাংলাদেশি কূটনীতিক কাজী আনারকলির বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। ইন্দোনেশিয়ায় বাসায় মাদক রাখার বিষয়টি দেশের ভাবমূর্তির সঙ্গে জড়িত। তাই এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ প্রশাসনিক শাস্তির কথা বলেছে মন্ত্রণালয়। এরই মধ্যে ওএসডি (বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা) হওয়া এ কর্মকর্তাকে চাকরিচ্যুতের বিষয়ে ইঙ্গিত দিয়েছে মন্ত্রণালয়।

বুধবার (১০ আগস্ট) সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়। ফারুক খানের সভাপতিত্বে বৈঠকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন, নূরুল ইসলাম নাহিদ, গোলাম ফারুক খন্দকার প্রিন্স, মো. হাবিবে মিল্লাত, নাহিম রাজ্জাক ও নিজাম উদ্দিন জলিল (জন) অংশ নেন।

বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি মুহম্মদ ফারুক খান সাংবাদিকদের বলেন, বিষয়টি আমাদের দেশের ভাবমূর্তির সঙ্গে সম্পৃক্ত। তার বিষয়ে মন্ত্রণালয়ও কঠোর অবস্থানে। এরই মধ্যে তাকে ওএসডি করা হয়েছে। এছাড়া একটি কমিটি কাজ করছে। ওই কর্মকর্তার অপরাধ প্রমাণিত হলে সর্বোচ্চ প্রশাসনিক শাস্তি হতে পারে।

এ ধরনের অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের কারণে এর আগে বিভিন্ন দেশের বাংলাদেশ মিশনের কতজন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে কমিটির পক্ষ থেকে তা জানতে চাওয়া হলে উল্লেখ করে ফারুক খান বলেন, গত ১০ বছরে বিভিন্ন মিশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা কী ধরনের অপরাধের সঙ্গে জড়িত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে এবং তাদের বিরুদ্ধে কী ধরনের শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে তার তথ্য চাওয়া হবে। আমরা ওই তথ্য সব মিশনে পাঠানোর সুপারিশ করবো।

বাসায় নিষিদ্ধ মাদক মারিজুয়ানা রাখার অভিযোগে নাইজেরিয়ান বন্ধুসহ সম্প্রতি ইন্দোনেশিয়ায় আটক হন বাংলাদেশি কূটনীতিক কাজী আনারকলি। প্রায় ২৪ ঘণ্টা তিনি বন্দি ছিলেন ইন্দোনেশিয়ার মাদক নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের ডিটেনশন সেন্টারে। সেখানে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। পরে কূটনৈতিক প্রচেষ্টায় বিশেষত ইন্দোনেশিয়া সরকারের বদান্যতায় তিনি মুক্তি পান। পরে তাৎক্ষণিকভাবে ওই কর্মকর্তাকে ঢাকায় ফেরত আনা হয়।

জানা যায়, বৈঠকে প্রয়োজনীয় পণ্যসামগ্রী আমদানির ক্ষেত্রে অন্যান্য দেশকেও বিকল্প হিসেবে রাখার জন্য পরামর্শ দেওয়া হয়। সংসদ সদস্যদের বিভিন্ন দেশের ভিসা প্রাপ্তিতে জটিলতা নিয়ে আলোচনা হয় এবং দ্বিপাক্ষিক আলোচনার মাধ্যমে সমাধানের সুপারিশ করা হয়। এছাড়া বৈঠকে প্রবাসীদের জাতীয় পরিচয়পত্র প্রাপ্তি সহজীকরণের লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সুপারিশ করা হয়।


আরও খবর