Logo
আজঃ শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪
শিরোনাম

মেটলাইফের বিমা সুবিধা পাবেন হোটেল হলিডে ইন ঢাকার কর্মীরা

প্রকাশিত:সোমবার ২৭ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ১৪৫জন দেখেছেন

Image

খবর প্রতিদিন ২৪ডেস্ক :[ঢাকা, ২৭ নভেম্বর ২০২৩] হলিডে ইন ঢাকা সিটি সেন্টার বাংলাদেশে তাদের কর্মীদের বিমা সুবিধা প্রদান করতে সম্প্রতি মেটলাইফের সাথে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে।চুক্তির অংশ হিসেবে হোটেলটির সকল কর্মী ও তাদের ওপর নির্ভরশীলরা চিকিৎসা, জীবনহানি ও অক্ষমতার ক্ষেত্রে বিমা সুরক্ষার আওতায় থাকবেন। কাস্টমাইজড সল্যুশন, অনলাইন বিমা নিষ্পত্তি সেবা, বিমা দাবির দ্রুত পেমেন্ট ও আর্থিক সক্ষমতার কারণে নিজেদের কর্মীদের বিমা সেবা দেয়ার ক্ষেত্রে মেটলাইফকে নির্বাচন করে প্রতিষ্ঠানটি। হাবিব হোটেল ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড -এর মালিকানাধীন হলিডে ইন ঢাকা সিটি সেন্টার বিশ্বের সুপরিচিত হোটেল ব্র্যান্ডগুলোর মধ্যে অন্যতম, যারা ব্রিটিশ বহুজাতিক হসপিট্যালিটি প্রতিষ্ঠান

ইন্টারকন্টিনেন্টাল হোটেলস গ্রুপ (আইএইচজি)-এর অংশ। বাংলাদেশে মেটলাইফ ৯শ’টিরও বেশি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত ৩,৮৫,০০০-এরও বেশি কর্মী এবং তাদের ওপর নির্ভরশীলদের বিমা সেবা প্রদান করছে। ২০২২ সালে মেটলাইফ এর পলিসি হোল্ডারদের প্রায় ৩,২২৯ কোটি টাকার বিমা দাবি নিষ্পত্তি করেছে।

হলিডে ইন ঢাকা সিটি সেন্টারের জেনারেল ম্যানেজার নুরিজান বিনতি ইয়াকুব বলেন, “হলিডে ইন ঢাকা সিটি সেন্টারে আমরা আমাদের গ্রাহক ও তাদের পরিবারের জন্য বিশ্বমানের বাসস্থান ও সেরা অভিজ্ঞতা নিশ্চিত করি। আমরা আমাদের কর্মীদের জন্যও সেরা সুবিধা নিশ্চিত করতে চাই।

মেটলাইফের সাথে সহযোগিতার মধ্য দিয়ে এটা করা সম্ভব হবে বলে আমরা আশাবাদী।” মেটলাইফ বাংলাদেশের চিফ কর্পোরেট বিজনেস অফিসার নাফিস আখতার আহমেদ বলেন, “যে সকল প্রতিষ্ঠান তাদের কর্মীদের প্রতি যত্নশীল তাদেরকে সেবা দিতে পেরে আমরা গর্বিত। আমাদের চাহিদা-ভিত্তিক সমাধান হলিডে ইন ঢাকা সিটি সেন্টার হোটেলের কর্মীদের প্রয়োজন পূরণে সক্ষম হবে।”

চুক্তিস্বাক্ষর অনুষ্ঠানে হলিডে ইন ঢাকা সিটি সেন্টারের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন ডিরেক্টর অব অপারেশনস মো. শহিদুস সাদেক তালুকদার, অ্যাসিসটেন্ট ডিরেক্টর অব ফাইন্যান্স তানভীর আহমেদ শ্যামল ও হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজার সেন্টু মারমা। মেটলাইফ বাংলাদেশের এমপ্লয়ি বেনিফিটসের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ভাইস প্রেসিডেন্ট মো. মনিরুল ইসলাম, ম্যানেজার এস এম শাহরিয়াজ আরাফাত, ম্যানেজার নাফিস ইসলাম এবং ইউনিট ম্যানেজার আমির।


আরও খবর

আজ রংপুরের স্থপতি আফিফার সাথে ফারাজের বিয়ে

শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ চিকিৎসার অভাবে ভ্যান চালকের মৃত্যু

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৯৮জন দেখেছেন

Image

ফুলবাড়ী, দিনাজপুর প্রতিনিধি:ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ চিকিৎসার অভাবে ভ্যান চালকের মৃত্যু। ফুলবাড়ী উপজেলা শিবনগর ইউপির ঘাটপাড়া গ্রামের মৃত্যু মোস্তাব এর পুত্র মোঃ দুলাল (৩৫) বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৬টায় অসুস্থ অবস্থায় ফুলবাড়ী হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি হয়। ভর্তি হওয়ার পর সে চিকিৎসার জন্য ছটপট করে। এ সময় কর্তব্যরত নার্স সাবিনা ইয়াসমিন কে অক্সিজেন দেওয়ার জন্য অনুরোধ করেন দুলাল।

কিন্তু কর্তব্যরত নার্স তার কোন কথা কর্ণপাত না করে চলে যান। সকাল সাড়ে ১০টায় দুলাল চিকিৎসার অভাবে হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন। কর্তব্যরত দায়িত্বে ছিলেন, আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা: আলমগীর, নার্স সাবিনা ইয়ামিন, মোছা: সুরাইয়া বেগম ও মিনারা বেগম। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এলাকাবাসী বিনা চিকিৎসায় দুলাল এর মৃত্যু হওয়ায় ন্যায় বিচারের দাবী জানান।

ঐ ঘটনায় প্রত্যক্ষদর্শী ও রোগীরা জানান, সে অক্সিজেন ও চিকিৎসা পাওয়ার জন্য কর্তব্যরত নার্সদেরকে বার বার অনুরোধ করছিলেন কিন্তু তার কোন কথা কেউ কর্ণপাত করেন নি।

এদিকে ফুলবাড়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ অপ্রিতিকর ঘটনা যাতে না ঘটে এ জন্য ফুলবাড়ী পৌর সভার মেয়র আলহাজ্ব মাহমুদ আলম লিটন স্থানীয় জনগণকে শান্ত হওয়ার জন্য অনুরোধ করেন। তিনি জানান, এই ঘটনার সাথে যারা জড়িত কমিটি করে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। যারা অপরাধী তারা অবশ্যই শাস্তি পাবে।

অপর দিকে ফুলবাড়ী পৌর সভার প্যানেল মেয়র মামুনুর রশিদ চৌধুরী মানুন জানান,ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নার্স এর দায়িত্বে যারা রয়েছেন তারা রোগীদের প্রতি কোন গুরুত্ব দেন না। গুরুত্ব না দেওয়ার কারণে এবং প্রশাসনের গুরুত্ব না থাকায় এই ধরনের ঘটনা দুঃখ জনক। যারা অপরাধী তাদের বিরুদ্ধে অবশ্যই ব্যবস্থা নিতে হবে।

ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর স্বাস্থ্য ও প.প. কর্মকর্তা ডা: মশিউর রহমান জানান, যে ঘটনা ঘটেছে তা অত্যন্ত দুঃখ জনক। তদন্ত কমিটি গঠন করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আইন শৃঙ্খরা রক্ষার্থে ফুলবাড়ী থানা পুলিশ ঘটনা শোনার সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। বিচারের অসস্থ হওয়ায় দুলাল এর আত্মীয় স্বজনেরা লাশ নিজ বাড়ীতে নিয়ে যায়। এ রিপোট লেখা পর্যন্ত ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ থমথমে অবস্থা বিরাজ করছিল।


আরও খবর



পুনম পাণ্ডে মারা গেছেন!

প্রকাশিত:শুক্রবার ০২ ফেব্রুয়ারী 2০২4 | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১৩১জন দেখেছেন

Image

বিনোদন ডেস্ক:ভারতীয় অভিনেত্রী পুনম পাণ্ডে মারা গেছেন। তার ইনস্টাগ্রামে খবরটি নিশ্চিত করা হয়েছে। সেখানে জানানো হয়েছে, জরায়ু ক্যানসারে মৃত্যু হয় অভিনেত্রীর।

ইনস্টাগ্রামে লেখা হয়েছে, ‘আজ সকালটা আমাদের জন্য কঠিন। আপনাদের গভীর দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি যে, আমরা আমাদের প্রিয় পুনমকে সার্ভিকাল ক্যানসারে হারিয়েছি। দুঃখের এই সময়ে, আমরা আপনাদের কাছে সবরকম গোপনীয়তার জন্য অনুরোধ করব। আমরা স্নেহের সঙ্গে ওকে স্মরণ করব।’

কখন-কোথায় মারা গেছেন, সে বিষয়ে কোনো তথ্য দেওয়া হয়নি ওই লেখায়। তবে হঠাৎ এমন খবরে বিস্মিত নেটিজেনরা। এর সত্যতা নিয়েও সন্দিহান তারা। ধারণা করা হচ্ছে, অভনেত্রী ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট হ্যাক করা হয়েছে।

বর্ণময় জীবন পুনমের। বরাবরই গোপন উন্মাদনা তাকে নিয়ে। পোশাক থেকে অঙ্গভঙ্গি বিভিন্ন কারণে বার বার তিনি উঠে এসেছেন শিরোনামে। সাহসী পোশাকে লাইভে আসা, কিংবা মধুচন্দ্রিমায় গিয়ে স্বামীর নামে নির্যাতনের অভিযোগ আনায়, সবসময় চর্চায় ছিলেন পুনম। এবার অভিনেত্রীর মৃত্যু খবরেও তোলপাড় নেটদুনিয়া।

কয়েক সপ্তাহ আগে, পুনম পাণ্ডে হঠাৎ করে মালদ্বীপের একটি শুটিং বাতিল করে শিরোনামে এসেছিলেন। তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটের স্ক্রিনশট শেয়ার করেছিলেন, যেখানে তিনি দেশটির প্রতি নিজের ভালোবাসা জাহির করেছিলেন। সঙ্গে জানান, সেখানে আর শুটিং করতে যেতে চান না তিনি। বরং যেতে চান লাক্ষাদ্বীপে, দেশের প্রতি নিজের ভালোবাসার কারণে।

২০১৩ সালে ‘নাশা’ দিয়ে বলিউডে পা রেখেছিলেন পুনম পাণ্ডে। তবে সাহসী, খোলামেলা অভিনয়ের কারণে কিছুদিনের মধ্যেই তার গায়ে সেঁটে যায় ‘অ্যাডাল্ট স্টার’র তকমা।


আরও খবর



আমরা মাথা উঁচু করে বিশ্বের বুকে মর্যাদা নিয়ে চলব: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৬৩জন দেখেছেন

Image

২১ ফেব্রুয়ারি আমাদের শিখিয়েছে মাথানত না করা। আমরা মাথা উঁচু করেই চলব। বিশ্বের বুকে মর্যাদা নিয়ে চলব। উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ে তুলব, বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ।

মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে একুশে পদক ২০২৪ প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ২১ ফেব্রুয়ারি মাতৃভাষা আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত। সারা পৃথিবী আন্তর্জাতিক ভাষা দিবস পালন করে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের হারিয়ে যাওয়া মাতৃভাষা সংরক্ষণ ও গবেষণার জন্য একটি ইনস্টিটিউট করে দিয়েছি। আজকে বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের জন্য কয়েকজনকে আমরা একুশে পদক দিতে পেরে আনন্দিত, গর্বিত। সমাজে আরও অনেক গুণী আছেন। একসঙ্গে তো সবাইকে দেওয়া সম্ভব নয়। তবে, ত্যাগী এই মানুষদের খুঁজে বের করা সমাজের উচ্চ শ্রেণির দায়িত্ব।

পদকপ্রাপ্ত জিয়াউল হকের কথা তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, দরিদ্র একজন মানুষ সমাজকে নিয়ে ভেবেছেন। কাজ করেছেন। তিনি দই বিক্রি করে পাঠাগার করেছেন। আমাকে অনেকেই বলেছেন, ওই পাঠাগারের স্থায়ী জমি দরকার। তার স্কুলটিও সরকারি করার জন্য বলেছেন অনেকে। জাতির পিতার কন্যা হিসেবে বলছি। আমি খোঁজ নেব। তাদের জন্য করব।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা মাতৃভাষার অধিকার আদায়ের সংগ্রাম গড়ে তুলেছিলেন, তার পথ বেঁয়ে আসছে আমাদের স্বাধীকার। দুঃখের বিষয় ভাষা আন্দোলনে জাতির পিতার অবদান মুছে ফেলার চেষ্টা হয়েছে। আমরা সে সময়কার গোয়েন্দাদের প্রতিবেদন নিয়ে বই বের করেছি। সেসব গোয়েন্দা প্রতিবেদনে ভাষা আন্দোলনে বঙ্গবন্ধুর অবদান উঠে এসেছে।


আরও খবর



কুড়িগ্রামের রৌমারীর চালককে হত্যা করে অটোবাইক ছিতাই গ্রেফতারের দাবীতে মানববন্ধন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৫১জন দেখেছেন

Image

মাজহারুল ইসলাম,রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি:ইজিবাইক চালককে হত্যা ঘটনার অপরাধিদের গ্রেফতারের দাবীতে মানববন্ধন করেছেন ইজিবাইক সংগঠনের চালকরা। বাংলাদেশ অটোবাইক শ্রমিক কল্যান সোসাইটি রৌমারীর ডাকে বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার দিকে উপজেলা চত্তরে ঘন্টা ব্যাপী এই মানববন্ধন করেন শ্রমীকরা।

বানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, ইয়াকুব আলী সভাপতি দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়ন অটোবাইক শ্রমীক সংগঠন, জাহাঙ্গীর আলম সভাপতি যাদুরচর ইউনিয়ন অটোবাইক শ্রমীক সংগঠন, রুস্তম আলী সহ-সভাপতি রিক্সা-ভ্যান শ্রমীক ইউনিয়ন, নুরুজ্জামান সভাপতি উপজেলা রিক্সা-ভ্যান শ্রমীক ইউনিয়ন, নুরুল ইসলাম সাধারণ সম্পাদক ট্রাক লড়ি শ্রমীক সংগঠন, এনামুলের বন্ধু এসএমএ মোমেন, মহির উদ্দিন শ্রমীক নেতা ও প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি বাংলাদেশ অটোবাইক শ্রমিক কল্যান সোসাইটি রৌমারী, হারুন অর রশিদ উপদেষ্টা বাংলাদেশ অটোবাইক শ্রমিক কল্যান সোসাইটি রৌমারী, ওমর ফারুক ইছা কার্যকরি পরিচালনা কমিটি সভাপতি বাংলাদেশ অটোবাইক শ্রমিক কল্যান সোসাইটি রৌমারী ও নুরুল আজম বাবু সভাপতি বাংলাদেশ অটোবাইক শ্রমিক কল্যান সোসাইটি রৌমারী, স্ত্রী আয়শা খাতুনসহ অন্যান শ্রমীকবৃন্দ।

বক্তাগণ বলেন, ইজিবাইক চালকের হত্যার এবং থানায় মামলার ১১ দিন পার হলেও আজ পর্যন্ত একটি আসামীকে সনাক্তসহ গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। বক্তাগন আরো বলেন, পুলিশ পারে না, এমন কিছু কাজ নাই পারে না। পানির নিচে থেকে হলেও আসামী গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। তবে একজন গরীব সাধারণ মানুষ হেতু তার কোন গুরুত্ব নাই। একজন ধনী ব্যাক্তি হলে দ্রুত আসামীকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হতো। তবে আমরা আসা করি দ্রুত আসামীকে সনাক্ত ও গ্রেফতার করে আইনের আওতায় দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তির ব্যবস্থা করা হউক। ৭ দিনের আল্টিম্যাটাম দিয়ে তারা আরো বলেন, ৭ দিনের মধ্যে আসামীদেরকে গ্রেফতারের আওতায় আনতে না পারলে শ্রমীক সংগঠন বাধ্য হবে দুর্বার আন্দোলন ও পরিবহন বন্ধ রাখা।

উল্লেখ্য যে, কুড়িগ্রামের রাজিবপুরে ছিনতাইকারিরা চালককে হত্যা করে ব্যাটারি চালিত অটো রিকশা ছিনতাই করেছে। হত্যার শিকার এনামুল হক (৫০) রৌমারী সদরের মধ্য ইছাকুড়ি গ্রামের মিছির আলীর ছেলে। ২৯ জানুয়ারী মঙ্গলবার রাজিবপুর সদর ইউনিয়নের স্লুইজগেট এলাকার ধানক্ষেত থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। স্থানীয়রা জানান, মঙ্গলবার সকালে সাড়ে ৭টার দিকে কয়েকজন কৃষক ধান রোপন করতে এসে ক্ষেতে এনামুলকে পড়ে থাকতে দেখে। পরে অজ্ঞান অবস্থায় তাকে তুলে আগুন জালিয়ে শরীর গরম করার চেষ্টা করতে থাকে। এমন অবস্থায় সাথে সাথে রাজিবপুর ফায়ার সার্ভিসে খবর দেয়। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এসে তাকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন। মৃত এনামূলের কাছে থাকা ইজিবাইকটিও হত্যাকারীরা ছিনতাই করে নিয়ে যায়। এ হত্যাকান্ডে রাজিবপুর থানায় একটি হত্যা মামলা হয়েছে। 


আরও খবর



বেগম রওশন এরশাদের ঘোষণা আমরা আমলে নিচ্ছি না: মোঃ মুজিবুল হক চুন্নু এমপি

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১০২জন দেখেছেন

Image
মারুফ সরকার, স্টাফ রিপোর্টার:জাতীয় পার্টি মহাসচিব মোঃ মুজিবুল হক চুন্নু এমপি সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেছেন, জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান হচ্ছেন জনবন্ধু গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপি। জাতীয় পার্টির নিবন্ধন নম্বর ১২। নির্বাচন কমিশনের নিয়ম অনুযায়ী গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপিই জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এবং আমি (মুজিবুল হক চুন্নু এমপি) মহাসচিব। জাতীয় পার্টির গঠনতন্ত্রে এমন কোন ধারা নেই, যে ধারার ক্ষমতায় পার্টির প্রধান পৃষ্ঠপোষক জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান, মহাসচিব বা অন্য কাউকে পদ থেকে বাদ দিতে পারে। এমন কিছু আমাদের গঠনতন্ত্রে নেই। তিনি বলেন, এই নিয়ে তৃতীয় বারের মত তিনি আমাদের বাদ দিয়েছেন। এর আগেও দুইবার আমাদের বাদ দিয়ে তিনি সেই চিঠি প্রত্যাহার করেছেন। তাই পার্টির মহাসচিব হিসেবে বেগম রওশন এরশাদের ঘোষণা নলেজে নিচ্ছি না। এই সিদ্ধান্তের কোন ভিত্তি নেই, এটি অগঠনতান্ত্রিক। বেগম রওশন এরশাদের ঘোষণা আমরা আমলে নিচ্ছি না। অনিয়ম বা গঠনতন্ত্রের বাইরে মনের মাধুরী মিশিয়ে যে কেউ যা খুশি বলতে পারে, এনিয়ে আমাদের মাঝে কোন প্রতিক্রিয়া নেই। 

আজ বেলা ২টায় জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যানের বনানীস্থ কার্যালয় মিলনায়তনে গণমাধ্যম কর্মীদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন মোঃ মুজিবুল হক চুন্নু এমপি। 

অপর এক প্রশ্নে জবাবে জাতীয় পার্টি মহাসচিব মোঃ মুজিবুল হক চুন্নু এমপি আরো বলেন, বেগম রওশন এরশাদ হচ্ছেন জাতীয় পার্টি প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যানের স্ত্রী, আমরা তাকে শ্রদ্ধা করি। সে কারণেই তাকে জাতীয় পার্টির প্রধান পৃষ্ঠপোষক করা হয়েছে। তার দলীয় বিষয়ে কোন সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষমতা নেই। প্রধান পৃষ্ঠপোষক পদটি হচ্ছে অলংকারিক পদ। এই পদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়ার দরকার নেই। যারা দলের সাথে নেই, পদ-পদবী নেই তাদের কোন কথার গুরুত্ব আছে বলে মনে করি না। দলের কোন বিষয়ে কিছু বলার সুযোগ নেই প্রধান পৃষ্ঠপোষকের। 

মুজিবুল হক চুন্নু এ সময় আরো বলেন, আমাদের দলের প্রেসিডিয়াম ও নির্বাহী কমিটির মিটিং ডাকা হবে, সেখানে বিশ্লেষণ করা হবে আমাদের রাজনীতি ও নির্বাচন নিয়ে। জাতীয় পার্টি গোলাম মোহাম্মদ কাদের এর নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ আছে। জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম, নির্বাহী কমিটি, জেলা কমিটি এবং অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনগুলো জাতীয় পার্টির নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ আছে।   

আরও খবর