Logo
আজঃ শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪
শিরোনাম

মধুপুর পেঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণে দৈনিক ও পাইকারি বাজারে অভিযান

প্রকাশিত:সোমবার ১১ ডিসেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ২৩৬জন দেখেছেন

Image

বাবুল রানা মধুপুর টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃটাঙ্গাইলের মধুপুরে পেঁয়াজের বাজারে অস্থিরতা কমাতে অভিযানে নামে উপজেলা প্রশাসন। 

সোমবার(১১ডিসেম্বর) দুপুরের দিকে মধুপুর পৌরশহরের দৈনিক বাজার ও পাইকারী বাজারে অভিযানে নামে উপজেলা সহকারী কমিশনার ভুমি মো. জাকির হোসাইন।

উক্ত অভিযানে সহযোগিতা করেন মধুপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা  মোল্লা আজিজুর রহমান। 

এসময় জাকির হোসাইন বলেন,মূল্য কারসাজি করে যদি কোনো অসাধু ব্যবসায়ী বাজার অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করে তাহলে তার বিরুদ্ধে জরিমানাসহ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। তাছাড়া ব্যবসায়ীদের পেঁয়াজ ক্রয় বিক্রয়ের ভাউচার সংরক্ষণ রাখার জন্য বলা হয়েছে। তিনি ভোক্তাদের উদ্দেশ্যে বলেন, প্রয়োজনের অধিক পেঁয়াজ কিনবেন না।

আজ মধুপুরে নতুন পেঁয়াজ পাইকারী বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ১০৫ টাকা এবং খুচরা বিক্রি হচ্ছে ১১০টাকা। পাতা সহ পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৩৫/৪০ টাকায়।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা জি এম কাদের, উপনেতা আনিসুল ইসলাম

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১১৩জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা হয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জি এম কাদের এবং উপনেতা হয়েছেন আনিসুল ইসলাম মাহমুদ।

রোববার (২৮ জানুয়ারি) বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সিনিয়র সচিব কে. এম. আব্দুস সালাম স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, জাতীয় সংসদে সরকারি দলের বিরোধীতাকারী সর্বোচ্চ সংখ্যক সদস্য নিয়ে গঠিত ক্ষেত্রমতে দল বা অধিসঙ্ঘের নেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদেরকে জাতীয় সংসদের কার্যপ্রণালী বিধি অনুযায়ী বিরোধীদলের নেতা এবং ‘বিরোধীদলের নেতা এবং উপনেতা (পারিতোষিক ও বিশেষাধিকার) আইন-২০২১ মোতাবেক আনিসুল ইসলাম মাহমুদকে বিরোধীদলের উপনেতা হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছেন স্পিকার।

উল্লেখ্য, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে ছাড় পাওয়া ২৬ আসনের ১১টিতে জয় পেরেছেন জাপার প্রার্থীরা। সমঝোতার বাইরে কোনো আসনে দলের প্রার্থী জিততে পারেননি। ফলে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য কমেছে। এর আগে একাদশ সংসদে দলটির ২৩ জন নির্বাচিত সংসদ সদস্য ছিলেন। আর সংরক্ষিত নারী আসনে সংসদ সদস্য ছিলেন চারজন।


আরও খবর



আক্কেলপুরে চিড়ি নদীর দূষিত পানিতে মারা যাচ্ছে তুলসীগঙ্গা নদীর মাছ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৭৬জন দেখেছেন

Image
আক্কেলপুর(জয়পুরহাট) প্রতিনিধি:জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে জয়পুরহাট চিনিকল থেকে নিষ্কাশিত বর্জ্য চিড়ি নদীর মাধ্যমে এসে তুলসীগঙ্গা নদীর পানি দূষিত করার পাশাপাশি নদীর মাছ ও জলজ প্রাণী মারা যাচ্ছে এমন অভিযোগ ওঠেছে। নদীর মাছ মারা যাওয়ায় বিপাকে পড়েছে মৎস্যজীবীরা। তবে চিনিকলের বর্জ্য আসার অভিযোগ অস্বীকার করেছে জয়পুরহাট চিনিকল কর্তৃপক্ষ।স্থানীয়দের অভিযোগ, আখ মাড়াই মৌসুমে চিড়ি নদী দিয়ে জয়পুরহাট চিনিকলের দূষিত বর্জ্য এসে তুলসীগঙ্গা নদীর পানিতে মিশে। এতে দুইটি নদীর পানিই কালচে বর্ণ ধারণ করে। দূর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ে নদীর আশেপাশের এলাকায়। কৃষি কাজ ব্যহত হওয়ার পাশাপাশি মারা যায় নদীর মাছ ও জলজ প্রাণী। এই বছরও তার ব্যাতিক্রম ঘটেনি।

জয়পুরহাট সদর উপজেলার ভেতর দিয়ে চিড়ি নদী ও পাশর্^বর্তী ক্ষেতলাল উপজেলার ভেতর দিয়ে বয়ে আসা তুলসীগঙ্গা নদীর পানি প্রবাহিত হয় আক্কেলপুর উপজেলার মধ্য দিয়ে । দুটি নদীর পাশেই রয়েছে পর্যাপ্ত লোকালয় ও ফসলী কৃষি জমি। তুলসীগঙ্গা নদীতে রয়েছে মাছের একটি মাত্র অভয়াশ্রম। এছাড়াও নদীতে মাছ শিকাড় করে জীবিকা নির্বাহ করেন অনেক জেলে।সরেজমিন দেখা গেছে, উপজেলার রুকিন্দীপুর ইউনিয়নের আওয়ালগাড়ি গ্রামের মধ্য দিয়ে বয়ে যাওয়া চিড়ি নদীর কালো বর্ণের দূর্গন্ধযুক্ত এসে পড়ছে আক্কেলপুর পৌর সদরের সোনামুখী সেতু এলাকায় তুলশীগঙ্গা নদীতে। এতে উপজেলার জামালগঞ্জ পাঁচ মাথা থেকে সোনামুখী তুলশীগঙ্গা নদী পর্যন্ত চিড়ি নদী এবং উপজেলার মাদারতলী ব্রিজ এলাকা থেকে আক্কেলপুর পৌর এলাকার কলেজ বাজার পর্যন্ত তুলসীগঙ্গা নদীর পানি কালো বর্ণ ধারণ করেছে, মরে ভেসে ওঠছে নদীর মাছ। নদীতে মাছের অভয়াশ্রম সহ নদীর বিভিন্ন স্থানে মাছ শিকার করছে জেলে ও স্থানীয়রা। 

উলিপুর গ্রামের আব্দুল মন্ডল বলেন, চিনিকলের বিষাক্ত পানি নদীতে আসায় সকল মাছ মরে ভেসে উঠেছে। এতে করে মাছ শুন্য হয়েছে তুলসীগঙ্গা নদী। এখন থেকে তিন চার মাস নদীতে কোন মাছ পাওয়া যাবে না। চিড়ি নদীর পানি ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি আব্দুল মোত্তালেব বলেন, চিনিকলের বর্জ্যের দূষিত পানিতে চিরি ও তুলশীগঙ্গা নদীর পানি কালচে ও দুর্গন্ধ হয়েছে। এই পানি দিয়ে কৃষকরা জমিতে সেচ দিতে পারছেনা। দূষিত পানি নিষ্কাষন বন্ধে আমরা এর আগে অনেকবার আন্দোলন করে ব্যর্থ হয়েছি। 

উপজেলা মৎস্য সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মাশফেকুর রহমান বলেন, বিষাক্ত বর্জ্যমিশ্রিত পানি নদীতে প্রবেশের কারণে কার্বন-ডাই-অক্সাইডের পরিমাণ বেড়ে যাওয়াই নদীর মাছ মরে ভেসে উঠছে। এতে কোন জলজ প্রাণীই বাঁচতে পারবে না। আগামী তিন থেকে চার মাস নদী মৎস্য শুন্য হয়ে যাবে। বর্ষা কালে নতুন পানি আসলে আবার মাছ পাওয়া যাবে নদীতে। এই সময়গুলোতে জেলেরা অত্যন্ত কষ্টের মধ্যে দিন কাটায়। বিষয়টি নিয়ে জেলা সমন্বয় সভায় আলোচনা করা হবে।উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ইমরান হোসেন বলেন, নদীর দূষিত কালো পানি দিয়ে কৃষি জমিতে সেচ কাজ না করার জন্য কৃষকদের নিরুৎসাহী করছি। এতে ফসলের ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। জয়পুরহাট চিনিকলের ব্যবস্থাপক আখলাছুর রহমান মুঠোফোনে বলেন, চিনিকলে আমাদের ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট রয়েছে। সেখানে নিয়মিত দূষিত পানি শোধন করা হচ্ছে। নদীর পানি কেন দূষণ হচ্ছে তা আমার জানা নেই। নদীতে আসা দূষিত পানি তাদের কিনা এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, আমি সেটি বলছি না। আপনি এসে দেখে যান।জেলা পরিবেশ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক ফারুক হোসেন বলছেন, নদীর পানি বিভিন্ন কারণে দূষণ হতে পারে। সুগার মিলের ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্ট পরিদর্শন করে দূষণের দায় পাওয়া গেলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

জয়পুরহাট জেলা প্রশাসক সালেহীন তানভীর গাজী বলেন, এ বিষয়ে জেলা আইন-শৃঙ্খলা মিটিং-এ চিনিকল কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলা হবে। 

আরও খবর



ঢাকার বাতাস ঝুঁকিপূর্ণ

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৪৯জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:রাজধানী ঢাকা বিশ্বের দূষিত শহরের তালিকায় ৩৯৪ স্কোর নিয়ে শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে। যা ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে বিবেচিত।

রোববার (১৮ ফেব্রুয়ারি) শহরটির বাতাসে ভয়াবহ দূষণ রয়েছে বলে জানাচ্ছে আন্তর্জাতিক বায়ুমান প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান আইকিউএয়ার।

দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ভারতের দিল্লি। এ শহরটির স্কোর হচ্ছে ২৪৪ অর্থাৎ সেখানকার বায়ুর মানও ‘খুবই অস্বাস্থ্যকর’। এছাড়া তৃতীয় অবস্থানে থাকা ভারতের মুম্বাই শহরের স্কোর ২৩৩। ১৯২ স্কোর নিয়ে পরের অবস্থানে রয়েছে কিরগিজস্তানের বিশকেক শহর এবং ১৮৮ স্কোর নিয়ে পঞ্চম অবস্থানে রয়েছে ভারতের শহর কলকাতা।

২০১ থেকে ৩০০-এর মধ্যে থাকা একিউআই স্কোরকে ‘খুব অস্বাস্থ্যকর’ বলা হয়। এ অবস্থায় শিশু, প্রবীণ এবং অসুস্থ রোগীদের বাড়ির ভেতরে এবং অন্যদের বাড়ির বাইরের কার্যক্রম সীমাবদ্ধ রাখার পরামর্শ দেওয়া হয়ে থাকে।

এছাড়া ৩০১ থেকে ৪০০-এর মধ্যে থাকা একিউআই ‘ঝুঁকিপূর্ণ’ বলে বিবেচিত হয়, যা নগরের বাসিন্দাদের জন্য গুরুতর স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি করে।


আরও খবর



বাগেরহাটে কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরুস্কার বিতরণ

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | ৫০জন দেখেছেন

Image

বাগেরহাট প্রতিনিধি:বাগেরহাট বহুমুখী স্কুল এ্যান্ড কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া ও সাহিত্য-সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার পুরুস্কার বিতরনী অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার ( ১২ ফেব্রয়ারি) বিকেলে কলেজ প্রাঙ্গনে এই প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।

বহুমুখী স্কুল এ্যান্ড কলেজে অধ্যক্ষ মো: ফারহানা আক্তারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো: হাফিজ আল আসাদ। এসময় বক্তব্য দেন,মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ,খুলনা অঞ্চলের পরিচালক প্রফেসর শেখ হারুনর রশীদ,জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা এস.এম ছায়েদুর রহমান,সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান রেজাউল করিম, বাগেরহাট মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত মো.সাইদুর রহমানসহ প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা।অনুষ্ঠানে কলেজের শিক্ষক,শিক্ষার্থী, অভিভাবকগন ও স্থানীয়রা উপস্থিত ছিলেন।

এদিন বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ী শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরুস্কার বিতরণ করেন অতিথিগণ।১৮৭৮ সালে বাগেরহাট শহরের প্রানকেন্দ্রে বাগেরহাট বহুমুখী স্কুল এ্যান্ড কলেজটি প্রতিষ্ঠিত হয়। সোমবার ১৪৭ তম বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরুস্কার বিতরণ করা হয়।


আরও খবর

গাংনীতে বালাইনাশক ব্যবহারে উদাসিন কৃষকরা

শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




মেহেরপুরে বেড়েছে গমের আবাদ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১৮৯জন দেখেছেন

Image

মজনুর রহমান আকাশ, মেহেরপুরঃগত কয়েক বছর ধরে ব্লাস্ট রোগের কারণে গমের আবাদ কমেছিল মেহেরপুরে। চলতি বছরে ব্লাস্ট প্রতিরোধী ও জিংক সমৃদ্ধ উচ্চফলণশীল গমের নতুন নতুন জাত কৃষকদের হাতে আসায় এবার গমের আবাদ অনেকাংশে বৃদ্ধি পেয়েছে। অনুকুল আবহাওয়া ও গেল বছর গমের মুল্য বৃদ্ধির কারনে চাষিরা গম আবাদে আগ্রহী হয়েছেন বলে জানিয়েন তারা।তবে কৃষি অফিসের তদারকী একেবারই নেই বলে অভিযোগ চাষিদের। আর কৃষি বিভাগ বলছে- চাষিদেরকে প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।

মেহেরপুর অঞ্চলের মাটি ও আবহাওয়া গম চাষের জন্য উপযোগি। গত কয়েক বছর ব্লাস্ট রোগ দেখা দেয়ায় কৃষি বিভাগ থেকে চাষিদেরকে গম চাষে নিরুৎসাহিত করা হয়। গেল বছর ব্লাস্ট প্রতিরোধী ও জিংক সমৃদ্ধ উচ্চফলণশীল গমের নতুন নতুন জাত আবাদ করে কৃষকরা শংকামুক্ত হয়েছেন। গমের মূল্য বৃদ্ধি আর অনুকুল আবহাওয়ার কারণে চলতি মৌসুমে ১৩ হাজার ৬৫ একর জমিতে গম চাষ হয়েছে। বারি ৩০, ৩৩ ও বিডব্লিউ -৩ জাতের গম চাষ করছেন চাষিরা। বাজার দর ভালো থাকলে আগামীতে এ অঞ্চলে গমের আবাদ আরো বাড়বে। তবে কৃষি অফিসের কোন পরামর্শ পাওয়া যায় না বলে অভিযোগ করেছেন চাষিরা। গম ক্ষেতে রোগ বালাই দেখা দিলে কীটনাশক বিক্রেতা চাষিদের একমাত্র ভরসা।

গাংনীর পলাশীপাড়া গ্রামের গম চাষি ইমারুল ইসলাম জানান, তিনি চলতি মৌসুমে ৫ বিঘা জমিতে বারি-৩০ ও ৩৩ জাতের গম আবাদ করেছেন। এখন বুকে থোড় নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে গম গাছ। গেল বছর তিনি ৪ বিঘা জমিতে গম চাষ করেছিলেন।

গম চাষ বেশ লাভজনক। এক বিঘা গম আবাদে খরচ হয় মাত্র ৬ হাজার টাকা। আর পাওয়া যায় ২০ মন গম। তিনি আশা করছেন কোন প্রাকৃতিক দুূর্যোগ না হলে ভালো ফলন হবে এবং গমচাষীরা লাভবান হবে। তবে মাঠে কোন কৃষি অফিসের লোকজনের পরামর্শ পাননা বলে অভিযোগ করেছেন তেঁতুলবাড়িয়া গ্রামের চাষি সিরাজুল ইসলাম জানান, এবার তিনি ৮ বিঘা জমিতে গম চাষ করেছেন। গেল বছর আবাদ করেছিলেন ৬ বিঘা। ফলন ভাল ও দাম ভাল পাওয়ায় এবার বেশি করে গম চাষ করেছেন। তিনি আরো জানান, গমক্ষেতে কোন রোগ বালাই দেখা দিলে কীটনাশক বিক্রেতারা যা বলে তাই শুনতে হয়। কোন কৃষি অফিসের লোকজনকে পাওয়া যায় না। স্থানীয় ইউপি ভবনে কৃষি অফিসের লোকজনের বসা কথা থাকলেও তাদের দেখা মেলেনা।

মেহেরপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর উপ-পরিচালক বিজয়কৃষ্ণ হালদার জানান, তাপ, ক্ষরাসহিষ্ণু জমি গম আবাদের জন্য উপযোগী। ব্লাস্ট প্রতিরোধী ও জিংক সমৃদ্ধ উচ্চফলণশীল গমের নতুন নতুন জাত চাষীদের গম চাষে আগ্রহ বাড়াচ্ছে। এ বিষয়ে মাঠ পর্যায়ে পর্যবেক্ষণ অব্যাহত রয়েছে। দেশে গমের উৎপাদন বাড়াতে রোগ প্রতিরোধী ও জিংক সমৃদ্ধ উচ্চফলণশীল নতুন নতুন জাতের গম আবাদের চাষিদেরকে উৎসাহিত করা হচ্ছে। কৃষি অফিসের পরামর্শ পাওয়া যাচ্ছে না এ অভিযোগ সঠিক নয় বলেও দাবী করেন এই কৃষিবীদ।


আরও খবর

গাংনীতে বালাইনাশক ব্যবহারে উদাসিন কৃষকরা

শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪