Logo
আজঃ সোমবার ২৪ জুন 20২৪
শিরোনাম
গ্রীষ্মের রুক্ষ প্রকৃতিতে শোভা ছড়াচ্ছে সোনালু ফুল ঈদযাত্রায় সড়ক দুর্ঘটনায় ২৬২ জন নিহত মতিউর ও তার স্ত্রী-সন্তানদের বিদেশ যেতে নিষেধাজ্ঞা তরুণরাই বদলে যাওয়া বাংলাদেশকে এগিয়ে নেবে: প্রধানমন্ত্রী নতুন সেনাপ্রধানের বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন ভূয়া সৈনিক পরিচয়ে বিয়ে করে শশুড় বাড়ী শিকলবন্দী জামাই! খাগড়াছড়িতে পুনাক কমপ্লেক্স এর উদ্বোধন করলেন: পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল এিপুরা হিজবুল্লাহর সঙ্গে যুদ্ধ বাধলে ইসরায়েলকে সমর্থন দেবে যুক্তরাষ্ট্র হজ চলাকালীন ১৩০১ জন হজযাত্রীর মৃত্যু: সৌদি আরব সেতু ভেঙ্গে নয়জন নিহতের ঘটনায় দুইটি তদন্ত কমিটি গঠন, মাইক্রোবাস উদ্ধার

মধুপুর-ধনবাড়ি আসনে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী লিলি সরকার

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৫১৯জন দেখেছেন

Image

বাবুল রানা মধুপুর টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃ-টাঙ্গাইল ১ (মধুপুর-ধনবাড়ি) আসনে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী লিলি সরকার বিভিন্ন ইউনিয়নে পথসভা চালিয়ে যাচ্ছেন।

তিনি বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির মধুপুর উপজেলা শাখার সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও মধুপুর পৌরসভার তিন তিনবারের সাবেক সফল মেয়র মরহুম সরকার সহিদের সহধর্মিণী। সরকার সহিদের অকাল মৃত্যুতে মধুপুর ও ধনবাড়ি উপজেলা বিএনপির হাজার হাজার নেতাকর্মী ও সমর্থক যখন অভিভাবকহীন হয়ে পড়ে ঠিক সেই মুহূর্তে তাদের পাশে এসে দাঁড়ালেন সরকার সহিদের সহধর্মিণী লিলি সরকার। 


তার আবির্ভাবে মধুপুর ও ধনবাড়ি উপজেলা বিএনপির নেতাকর্মী ও সমর্থক গোষ্ঠীদের মনে পুনরায় স্বস্তির নিঃশ্বাস ফিরে এসেছে। লিলি সরকার বলেন, মরহুম সরকার সহিদের প্রতি মানুষের যে ভালোবাসা রয়েছে তা পূরণের সাধ্য আমাদের কারো নেই। তিনি ছিলেন সাধারণত মানুষের কাছে একজন সাদা মনের মানুষ। তিনি আরও বলেন, তার এতো জনপ্রিয়তা, তার জন্য সাধারণ মানুষের মনে এতো ভালোবাসা আর এই ভালোবাসাই প্রমান করে তিনি ছিলেন একজন নিস্কণ্ঠক রাজনীতিবিদ। তিনি নিজের জন্য কিছুই করেন নাই তার স্ত্রী সন্তান রেখে দিনরাত মানুষের সেবা করে গেছেন।  যেসকল নেতাকর্মী ও সমর্থকদের সাথে নিয়ে দীর্ঘ সময় রাজনীতির মাঠ দাপিয়ে বেড়িয়েছেন, মামলা হামলার শিকার হয়েছেন তারা আজ কোথায় যাবেন ? তাই আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি সরকার সহিদের ইচ্ছে পূরণে যারা দীর্ঘ সময় পাশে থেকে তার রাজনৈতিক পথচলা সুদৃঢ় করেছে  তাদেরকে সাথে নিয়ে আগামী যেকোনো আন্দোলনে অংশ গ্রহন করে বিএনপির হাতকে আরও শক্তিশালী করে তুলবো। তিনি আরও আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, দল যদি তাকে মধুপুর ধনবাড়ি থেকে মনোনয়ন দেন তাহলে বিপুল ভোটের ব্যবধানে জয়ী হয়ে এই আসনটি বিএনপিকে উপহার দিবেন।


ইতিমধ্যে তিনি প্রতিনিয়ত তার একমাত্র ছেলে আদিত্য সরকার ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দদের সাথে নিয়ে বিভিন্ন ইউনিয়নে পথসভা করে ব্যাপক আলোচনায় এসেছেন। তিনি মধুপুর এবং ধনবাড়ি উপজেলার জনসাধারণের উদ্দেশ্যে বলেন, আমি আপনাদের এলাকারই মেয়ে, আপনারা সরকার সহিদের পাশে যে ভাবে ছিলেন ঠিক সেই ভাবে আমার পাশে থেকে খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন ও সুষ্ঠু নিরপেক্ষ  তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনের আন্দোলনে পাশে থাকার জন্য সকলকে উদাত্ত আহ্বান জানান।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



জয়পুরহাটে টাকা লেনদেনও পারিবারিক কলোহের জেরে পৃথক ঘটনায় ২ নারী সহ নিহত ৩

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০24 | ১০০জন দেখেছেন

Image

এস এম শফিকুল ইসলাম,জয়পুরহাট প্রতিনিধিঃজয়পুরহাট সদর উপজেলায় টাকা পয়সা লেনদেনও আক্কেলপুর উপজেলায় পারিবারিক কলোহের জেরে  ২ জন নারীসহ তিনজন নিহত হয়েছেন।সোমবার দুপুরে আক্কেলপুর উপজেলার হলহলিয়া গ্রামে  স্ত্রী ও খালা শাশুড়িকে হত্যা করে পালিয়েছে  রুবেল হোসেন নামে এক পাষন্ড ঘর জামাই। নিহতরা হলেন - রুবেলের স্ত্রী মৌ আক্তার মিতু (২৫) ও তাঁর খালা আলেয়া বেগম (৬৫)। 

সৌদি প্রবাসী শ্বাশুরীর বিদেশ থেকে পাঠানো টাকা চেয়ে না পেয়ে স্ত্রী ও খালা শাশুড়িকে ছুরিকাঘাত করে  পালিয়েযান রুবেল। পরে এলাকাবাসী আহতদের উদ্ধার করে আক্কেলপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করিয়ে দেন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় আলেয়া বেগম সেখানেই মারা যান। আর মিতুকে বগুড়া নেওয়ার পথে পথিমধ্যেই মারা যান। 

এ ঘটনায় রুবেলের  শ্যালক নীরব বোন ও খালাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে তারাও আহত হন।

আক্কেলপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নয়ন হোসেন  বলেন,  স্ত্রী ও খালা শাশুড়ীকে ছুরিকাঘাত করে হত্যার পর ঘাতক জামাতা রুবেল হোসেন পালিয়েছে। পুলিশ তাঁকে ধরতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান শুরু করেছে।

অন্যদিকে :

চাকুরীর জন্য তদবিরের  টাকা ফেরত না দেওয়ায় বেধড়ক মারপিটে আহত তদবিরকারী  মারা গেছেন। নিহত আব্দুল মজিদ বুলু ( ৪৫)  জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার বৃদ্দীগ্রামের   আব্দুর রহমানের ছেলে । আজ সোমবার দুপুরে জেলা  হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।  

অভিযোগের সুত্র ধরে জয়পুরহাট সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা  (ওসি) হুমায়ুন  কবির জানান, আব্দুল মজিদ বুলু  চাকুরি দেওয়ার নাম করে বেশ কিছুদিন আগে তার ভাতিজী জামাই  সদর উপজেলার চক বরকত গ্রামের খাইরুল ইসলামের কাছ থেকে দেড় লাখ  টাকা নেন।  পরে চাকুরি  দিতে না পারায়  চাচা শশুর বুলুর কাছ থেকে টাকা ফেরত চান খাইরুল । 

এ নিয়ে  রোববার  বিকেলে বুলুকে  জয়পুরহাট শহরের কাশিয়াবাড়ী স্কুল এলাকায় ধরে নিয়ে  গিয়ে মারপিট করে খাইরুল সহ তার সহযোগীরা।  পরে আহত বুলুকে উদ্ধার করে জয়পুরহাট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে দেন স্থানীয়রা।   সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ সোমবার দুপুরে তিনি মারা যান। 

এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি সহ আসামিদের গ্রেফতারে  পুলিশী অভিযান চলছে বলেও জানান ওসি।


আরও খবর



রূপগঞ্জে সংখ্যালঘুর ও ব্যবসায়ীর বাড়িতে হামলা,অগ্নিসংযোগ, ৫লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুট

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৩ জুন ২০২৪ | ৮৩জন দেখেছেন

Image

আবু কাওছার মিঠু রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধিঃনারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার দক্ষিণবাগ গ্রামের সুখেন সরকারের ও ব্যবসায়ী জাকির হোসেনের বাড়িতে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে সন্ত্রাসীরা হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ করেছে।

গত ৬জুন বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায়, ২০/২১ সদস্যের একদল সন্ত্রাসী রামদা, চাপাতি, লোহার রড, লাঠিসোঁটাসহ দেশীও অস্ত্রে শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে দরজা ভেঙ্গে প্রথমে সুখেন সরকারের বসত ঘরে ও পরে তার পাশের বাড়ি ব্যবসায়ী জাকির হোসেনের বাড়িতে প্রবেশ করে হামলা চালায় । 

হামলাকারীরা তাদের বসত ঘরের আসবাপত্র ভাংচুর করে লুটপাট চালায়। এ সময় তাদের ডাক চিৎকারে আশপাশের লোকজন ও ৯৯৯এ ফোন করলে পুলিশ ঘটনাস্থলে আসলে সন্ত্রাসীরা তাদের ব্যবহৃত নম্বরপ্লেট বিহীন চারটি মোটরসাইকেল রেখে বাড়ির লোকজনদের প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে পালিয়ে যায়। 

হামলার ঘটনায় গৃহকর্তা জাকির হোসেন ভুঁইয়া(৪৬), তার স্ত্রী আফসানা আক্তার লাবনী(৩৫), ভাইয়ের স্ত্রী আরবিনাস আক্তার(৪৫) আহত হয়। আহতদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সন্ত্রাসীরা বাড়ির মহিলাদের শ্লীলতাহানী করে নগদ টাকা, স্বর্ণালঙ্কারসহ ৫লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুটপাট করে নিয়ে যায়।  

পুলিশ মোটরসাইকেল চারটি উদ্ধার করেছে। এ ঘটনায় সুখেন সরকার ও জাকির হোসেন বাদী হয়ে মোঃ রাশেদুল ইসলাম রাসেল(৩৪), ফালান মিয়া(৩৫), এরশাদ(৩৫), সুজন ভুঁইয়া(৩০), বাবু মিয়া(২৫), এনামুল(২১), আব্দুল্লাসহ(২৩) ১১জনকে নামীয় ও অজ্ঞাত আরো ১০/১২জনকে আসামী করে রূপগঞ্জ থানায় পৃথক দুইটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

রূপগঞ্জ থানার ওসি দীপক চন্দ্র সাহা বলেন, হামলা, ভাংচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় পৃথক দুইটি অভিযো পেয়েছি। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। সুষ্ঠু তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 

     -খবর প্রতিদিন/ সি.ব

আরও খবর



পোরশায় জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ে সচেতনতামূলক সভা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১০২জন দেখেছেন

Image

ডিএম রাশেদ পোরশা (নওগাঁ) প্রতিনিধি:"করবো ভূমি পুনরুদ্ধার, রুখবো মরুময়তা, অর্জন করতে হবে মোদের খরা সহনশীলতা" এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে নওগাঁর পোরশায় স্কুল পর্যায়ে ছাত্র-ছাত্রীদের জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ে সচেতনতামূলক সভা, চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগীতা ও বৃক্ষরোপন কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার দুপুরে উপজেলার ছাওড় বরেন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয়ে উক্ত কর্মসূচির আয়োজন করে বেসরকারী সংস্থা সিসিডিবি’র পিসিআরসিবি-২ প্রকল্প। সংস্থার প্রকল্প সমন্বয়কারী স্টিভ রায় রুপনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফ আদনান। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ছাওড় ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান। বরেন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মুকুল সরকার। পরে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের মধ্যে ৩জনের হাতে পুরস্কার হিসাবে শিক্ষা সামগ্রী তুলে দেয়া হয়। এবং সকল শিক্ষার্থীদের মাঝে ফলজ ও বনজ গাছের চারা বিতরণ করা হয়।


আরও খবর



চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে বসত ঘরে কুপিয়ে দাদী নতিকে হত্যা করেছে দুর্বত্তরা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১১১জন দেখেছেন

Image

চৌধুরী ইয়াসিন ইকরাম,  চাঁদপুর থেকে:রাহেলার প্রচন্ড ঝড়বৃষ্টির মধ্যে গভীর রাতে দুর্বত্তরা বসত ঘরে ডুকে  দাদি, নাতি ও নাতিনকে কুপিয়েছে।

পরে লোকজন খবর পেযে ওই ঘরে উপস্থিত হয়ে দাদি হামিদুনেছা  (৭০) মৃত ও নাতি আরাফাত (১২) ও নাতনি  হালিমা (১৫) গুরুতর আহত অবস্থায় দেখতে পায়। তবে ঘটনাস্থলে প্রান হারান দাদী।

এ ঘটনায়  মঙ্গলবার  সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে পিবিআই তদন্ত টিম ঘটনাস্থলে পোঁছেছে। এর পরেই হামিদুনেচার লাশ উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হবে।

এসময় আহতদের উদ্ধার করে হাজীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে নাতি আরাফাত হোসেনকে (১২) মৃত ঘোষণা করেন এবং নাতিন হালিমাকে (১৫) উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে রেপার করেন। হালিমার শারিরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক।

২৭ মে  দিবাগত রাতে চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ উপজেলার বাকিলা ইউনিয়ন পশ্চিম রাধাসার বকাউল বাড়ীতে এ ঘটনা ঘটে।

হত্যার শিকার হামিদুনেছা ঐ বাড়ির সিরাজ বকাউলের স্ত্রী  নিহত আরাফাত ও আহত হালিমা ওই বাড়ির প্রবাসী ইউসুফের সন্তান। আরাফাত শ্রীপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী এবং হালিমা একই বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী এবং নিহত হামিদা বেগম হলেন ইউসুফের মা।

পাশের খাঁন বাড়ির ইউসুফ জানান, রাত সাড়ে ১২টার দিকে নিহত আরাফাতের মা শাহিন আমাকে ফোন করে তাদের বাড়ীতে ডাকাত ডুকছে, অনেককে কুপিয়েছে বলে ফোন করে। পরে স্থানীয় মসজিদের মাইকে বকাউল বাড়ীর ডাকাত ডুকেছে বলে প্রচার করা হয়। পরে আমিসহ কয়েকজন ওই বাড়ীতে যাই।

তিনি  আরো বলেন ওই বাড়িতে গিয়ে দেখি প্রবাসি ইউসুফের মায়ের মৃতদেহ খাটের উপর পড়ে আছে। তার ছেলে আরাফাত ও মেয়ে হালিমা নিচে আহত অবস্থায় নিচে পড়ে আছে।

পরে মসজিদের ইমাম ও অন্যদের সহযোগিতায় আহতদের কাঁধে করে রাস্তায় এনে পাশের বাড়ী থেকে অটো নিয়ে হাসপাতালে আসি।

তিনি জানান, হাসপাতালে আসার পথেই আরাফাত মারা যায়। পরে হাসপাতাল এলে ডাক্তার আরাফাতকে মৃত ঘোষণা করেন এবং হালিমাকে কুমিল্লায় রেফার করা হয়। শুনেছি সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেলে রেফার করা হয়েছে। তার পিঠে ও বুকে কোপ দেয়া হয়েছে।

আহতদের বহনকারী অটো চালক জহির জানান, রাতে প্রচণ্ড বৃষ্টি হচ্ছিল। তখন রাত আনুমানিক সাড়ে ১২টার পরে হবে। আমার বাড়ীতে আহত আরাফাত ও তার বোন হালিমাকে নিয়ে আসে স্থানীয়রা। পরে আমার ব্যাটারী চালিত অটোরিকশায় করে তাদেরকে হাজীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসি।

একই বাড়ীর সাহাবুদ্দিন জানান, ডাকাতির ঘটনায় ফোন পেয়ে আমরা ওই বাড়ীতে যাই। আমার বড় ভাইয়ের স্ত্রী ফাতেমা জানান, ঘরের তালা ভেঙ্গে তার ঘরেও ডাকাত দল প্রবেশ করেছে। সে অন্য রুমের দরজা আটকিয়ে বিভিন্ন জনকে ফোন করে বাড়ীতে ডাকাতির খবর জানাচ্ছিল। ডাকাত দল কালো বোরকা পড়া ছিলো।

স্থানীয়রা জানান, বাড়ীতে ডাকাতির ঘটনা ঘটলেও ৩টি বিল্ডিং রেখে কেন ডাকাত দল টিনের ঘরে ডুকলো ? ডাকাত দল ডাকাতির উদ্দেশ্য ওই ঘরে প্রবেশ করলে, ঘর থেকে কোন স্বর্ণালংকার খোয়া যায়নি। এমনকি নিহত বৃদ্ধ মহিলা হামিদা বেগমের গলায়ও স্বর্ণের চেইন ও কানে স্বর্ণের দুল আছে। হামিদুনেছাকে জবাই করা হয়েছে আর আরাফাতকে গলায় কাটা দাগ রযেছে।

খবর পেয়ে হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ আবদুর রশিদসহ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে প্রচণ্ড ঝড় বৃষ্টিতে ডাকাতির খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থলে গিয়েছি। বিষয়টি গুরুত্বসহকারে দেখা হচ্ছে। পরে বিস্তারিত জানানো হবে।


আরও খবর



দীপ্ত প্লেতে ১০ জুন থেকে অরিজিনাল ফিল্ম ‘পয়জন‘

প্রকাশিত:রবিবার ০৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১০৩জন দেখেছেন

Image

বিনোদন ডেস্ক:তিন তিনটা ফ্লপ সিনেমার পর চার নম্বর সিনেমা সুপারহিট সাথে ন্যাশনাল এওয়ার্ড! নায়িকা রূপা মীর্জা এখন টক অব দ্য শো বিজ। এই সাকসেস সেলিব্রেট করতে সে একটা পার্টি থ্রো করে। আলোকোজ্জ্বল ঐ  পার্টিতে  শুন্য থেকে শিখরে ওঠা রূপা মীর্জার অন্ধকার  অতীত সামনে চলে আসে । আপন, পর, শত্রু, মিত্র, মুখ ও মুখোশ সব যেনো এক গোলক ধাঁধা! পুরনো ক্ষত, পাপ কিংবা লোভের গল্পে রাত বাড়তে থাকে আর বাড়তে থাকে লাশ!

পরিচালক সঞ্জয় সমদ্দার বলেন, প্রয়োজনের অতিরিক্ত যে কোনো কিছু বিষ ! কিন্তু জীবনের এমনই আয়রনি যে, প্রয়োজনীয়তার সীমা আমরা প্রায়শই নির্ধারণ করতে পারি না । সেখান থেকেই জন্ম নেয় বেঁচে থাকার নানা সমীকরণ । পরিশ্রম, মেধা, কিংবা প্রতারণা নানা ভাবে জীবনের সেই সমীকরণ মেলানোর চেষ্টা  চলে কিন্তু জীবনের গল্প তো আসলে লেখে অন্য কেউ ..

প্রধান চরিত্রের তানজিন তিশা বলেন, আগামী ১০ তারিখ দীপ্ত প্লেতে আসছে ওয়েব ফিল্ম পয়জন। আমি এখানে একটা নায়িকার জীবনের গল্প উপস্থাপন করতে যাচ্ছি। এই চরিত্রে অভিনয় করার আগে আমি একজন নায়িকার জীবন যাপনও রপ্ত করেছি । আমাকে জানতে হয়েছে একজন নায়িকাকে কাজ করতে গিয়ে কি ডিল করতে হয়। আমি অনেক সিনেমা দেখেছি। যেহেতু আমি সিনেমার নায়িকা না, তাই রূপা মির্জা হতে গিয়ে একজন সিনেমার নায়িকাকে স্টাডি করতে হয়েছে। ১২ দিন যখন শুটিং করেছি তখন মনে হয়েছে আমি রূপা মির্জা ছিলাম। আশা করছি দর্শক আমার কাজ দেখে হতাশ হবেন না।

ওয়েব ফিল্মটির প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন তানজিন তিশা। এছাড়াও আরো অভিনয় করেছেন আবু হুরায়রা তানভীর, টাইগার রবি, রওনক রিপন, আব্দুল্লাহ আল সেন্টু, এ কে আজাদ সেতু, এস এম সোহাগ প্রমুখ।


আরও খবর