Logo
আজঃ বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম
নিলয় কোটা আন্দোলনকারীদের পক্ষ নিয়ে কী বললেন স্থগিত ১৮ জুলাইয়ের এইচএসসি পরীক্ষা দেশের সব স্কুল-কলেজ বন্ধ ঘোষণা তিতাসের অভিযানে নারায়ণগঞ্জের ২ শিল্প কারখানার অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন হিলি দিয়ে কাঁচা মরিচ আমদানি বাড়ায় বন্দরের পাইকারী বাজারে কেজিতে দাম কমেছে ৩০ টাকা জয়পুরহাটে ডাকাতির পর প্রতুল হত্যা মামলায় ৬ জনের যাবজ্জীবন রিয়েলমি সার্ভিস ডে: ফোন রিপেয়ারে খরচ বাঁচান ৬০% পর্যন্ত, উপভোগ করুন ফ্রি সার্ভিস সুনামগঞ্জে ইয়াবাসহ ২জন গ্রেফতার: কোটিপতি সোর্স ও গডফাদার অধরা কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে ৩ দিনে ৩ খুন, আইনশৃংখলার অবনতি জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

মধুপুর বিদ্যুৎ অফিসের সংযোগ বিচ্ছিন্নকারী টিমের উপর গ্রাহকদের হামলা

প্রকাশিত:শনিবার ২৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ২৮৪জন দেখেছেন

Image

বাবুল রানা বিশেষ প্রতিনিধি মধুপুর টাঙ্গাইল:টাঙ্গাইলের মধুপুরে ময়মনসিংহ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর জোনাল অফিসের বকেয়া বিদ্যুৎ বিল আদায়ের লক্ষ্যে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করতে গিয়ে বিচ্ছিন্নকারী টিমের উপর গ্রাহকদের অতর্কিত হামলার ঘটনা ঘটেছে। 

এঘটনায় হারুন অর রশিদ নামের একজন লাইন ক্রু লেভেল-১ গুরুতর ভাবে আহত হয়ে মধুপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। গত বৃহস্পতিবার (২৭জুন) দুপুর ১২টার দিকে সরকারি রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যে মধুপুর জোনাল অফিসের মিটার টেস্টিং সুপারভাইজার শাহীনুর রহমানের নেতৃত্বে একটি সংযোগ বিচ্ছিন্নকারী টিম অরণখোলা ও বেরিবাইদ এলাকায় সংযোগ বিচ্ছিন্ন করতে গেলে উত্তেজিত গ্রাহক এই হামলার ঘটনাটি ঘটায় বলে জানা যায়। 

এঘটনায় আহত লাইন ক্রু হারুন অর রশিদ জানান, বকেয়া বিদ্যুৎ বিল আদায়ের লক্ষ্যে আমরা বেরিবাইদ এলাকায় সংযোগ বিচ্ছিন্ন করতে গেলে বেরিবাইদ গ্রামের আবাসিক গ্রাহক শ্রী গিরিশ চন্দ্র বৈষ্ণবের ছেলে শ্রী গনেশ চন্দ্র বৈষ্ণব এবং অরণখোলা এলাকার বানবের ছেলে পবিত্র ও প্রান কুমার সহ আরও ১০/১২ জন লোক একত্রিত হয়ে আমাদের সাথে কুরুচিপূর্ণ আচরণ করতে থাকে এবং সারাদিন বিদ্যুৎ না থাকার কারণ এবং বিদ্যুৎ ছাড়াই বেশি বিল কিভাবে আসে এসব বিষয় নিয়ে  আমাদেরকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ শুরু করে। 

কথা কাটাকাটির এক পর্ষায়ে তারা আমাদের উপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে এলোপাতাড়ি ভাবে কিল-ঘুষি মারতে থাকে। 

একপর্যায়ে আমাকে লাথি মেরে মাটিতে ফেলে বাঁশের লাঠি দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর ভাবে আহত করে। এমন ভয়াবহ পরিস্থিতিতে টিমের অন্যান্য সদস্যগন ভয়ে দৌড়ে ঘটনা স্থল ত্যাগ করেন। পরবর্তীতে স্থানীয় লোকজন এসে আমাকে উদ্ধার করে মধুপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এনে ভর্তি করে।

ঘটনাস্থলে গিয়ে জানা যায়, এই প্রচন্ড গরমে ঘন্টার পর ঘন্টা বিদ্যুৎ বিহীন থেকে এলাকার সাধারণ মানুষ অতিষ্ঠ হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে। 

তারা আরও জানান, এ প্রচন্ড তাপদাহে জনজীবনে স্বস্তির একমাত্র মাধ্যম হলো বিদ্যুৎ যা আমরা দিনরাত মিলিয়ে ৩/৪ ঘন্টাও পাইনা। 

উক্ত এলাকার মোদি দোকানদার কাজিম শেখ জানান, আগে দিনরাত ২০ ঘন্টা বিদ্যুৎ ব্যবহার করে যে বিল আসতো বর্তমানে ৪/৫ ঘন্টা বিদ্যুৎ চালিয়ে তার থেকে বেশি বিল আসে। এছাড়া যতটুকু পাওয়া যায় সেখানে ভোল্টেজ থাকে খুবই কম যে কারণে দুই দিনেও একটি মোবাইলের ব্যাটারী ফুল চার্জ করা সম্ভব হয়না। 

এসব বিষয় নিয়ে অনেক দিন ধরেই মানুষের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। এদিকে জুন মাস ব্যাপি উর্ধতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা অনুযায়ী বকেয়া বিদ্যুৎ বিল আদায়, অনাদায়ে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার অভিযান চলমান। 

এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৭জুন বৃহস্পতিবার অরণখোলা ও বেরিবাইদ এলাকায় সংযোগ বিচ্ছিন্ন করাকে কেন্দ্র করে এ হামলার ঘটনাটি ঘটে বলে এলাকাবাসি জানান। 

অত্র এলাকার বাসিন্দা শচীন চন্দ্র বৈষ্ণব জানান, কোরবানি ঈদের আগে থেকে শুরু করে টানা এক সপ্তাহ ১০মিনিটের জন্যও বিদ্যুৎ যায়নি তাহলে এখন সেই বিদ্যুৎ কোথায় গেলো। বিদ্যুতের জন্য ছেলে মেয়েরা পড়াশোনা করতে পারে না, ফ্রীজে রাখা মাছ মাংস এবং অন্যান্য খাবার নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। ঘন্টার পর ঘন্টা লোডশেডিং করার কারনে বয়স্ক লোকজন অসুস্থ হয়ে পড়ছে। ভুক্তভোগী এলাকাবাসী, বিদ্যুতের উর্ধতন কর্তৃপক্ষে নিকট অন্যান্য জেলা উপজেলার মতো নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুতের দাবি জানান।

ময়মনসিংহ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর আওতাধীন মধুপুর জোনাল অফিসের ডিপুটি জেনারেল ম্যানেজার (ডিজিএম) মোঃ নুরুল আমিন এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে হামলাকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেছেন।

     -খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



মাগুরায় জনগনের প্রচেষ্টায় মৃতপ্রায় খালের প্রান ফিরে পেল

প্রকাশিত:সোমবার ০১ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১১৩জন দেখেছেন

Image
স্টাফ রিপোর্টার মাগুরা থেকে:মাগুরার শালিখা উপজেলায় কানুদা খালের পানির প্রবাহ ফেরাতে কচুরিপানা পরিষ্কারের উদ্যোগ নেয় উপজেলা প্রশাসন। স্থানীয় জনগনকে সম্পৃক্ত করে  সম্প্রতি কয়েক শ স্বেচ্ছাসেবক ও নানা শ্রেণি-পেশার মানুষের অংশগ্রহণে কার্যক্রমটি বাস্তবায়িত হয়েছে। কর্মকর্তারা বলেন, কচুরিপানা সরিয়ে পানি প্রবাহ ফিরে এলে খালের পানি স্থানীয় লোকজন নানা কাজে ব্যবহার করতে পারবেন এ কারনেই এ উদ্যোগ নেয়া হয়। আর এ উদ্যোগ বাস্তবায়নের ফলে মৃতপ্রায় খালটি প্রান ফিরে পেয়েছে। প্রশাসনের এ উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছে এলাকাবাসী।


স্বেচ্ছাসেবকদের পাশাপাশি শ্রমিকদের নিয়ে কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে খালের দেড় কিলোমিটারের কচুরিপানা পরিষ্কার করা হয়েছে বলে জানায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হরে কৃঞ্চ অধিকারী।  সম্প্রতি উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আবু নাসের বেগ। এ সময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আবদুল কাদের, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াসুর রহমান, জেলা পরিষদ সদস্য মুন্সী আবু হানিফসহ বিভিন্ন শ্রেণি–পেশার লোকজন উপস্থিত ছিলেন। পরে খাল-সংলগ্ন ইকোপার্কে বৃক্ষ রোপণ করা হয়।  খালটি দীর্ঘদিন যাবত কচুরিপানায় পরিপূর্ণ হয়ে পানি প্রবাহ বন্ধ হয়েছিল। ফলে জনগনের কোন উপকারে আসছিল না।  কয়েক'শ স্বেচ্ছাসেবক ও স্থানীয় জনগন ঐক্যবদ্ধ হয়ে খালটির কচুরিপানা পরিস্কার করে খালের প্রান ফিরিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছে। বর্তমানে খালটির পানি প্রবাহ চালু হওয়ায় জনগন এর সুবিধা পাচ্ছে।


আরও খবর



মার্টিনেজের জয়সূচক গোলে শিরোপা আর্জেন্টিনার

প্রকাশিত:সোমবার ১৫ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৭৩জন দেখেছেন

Image

স্পোর্টস ডেস্ক:সোমবার (১৫ জুলাই) মায়ামির হার্ড রক স্টেডিয়ামে ২৩ বছর পর ফাইনালে ওঠা কলম্বিয়াকে ১-০ গোলে হারের তিক্ত স্বাদ দিলো আলবিসেলেস্তেরা। জয়সূচক একমাত্র গোলটি করেন লাউতারো মার্টিনেজ।

এর আগে, নির্ধারিত ৯০ মিনিটের খেলায় কোনো গোল আসেনি। এতে অতিরিক্ত সময়ে গড়ায় কোপা আমেরিকার ৪৮তম আসরের ফাইনাল।

বাংলাদেশ সময় সকাল ৬টায় শুরুর কথা থাকলেও কলম্বিয়ান দর্শক-সমর্থকদের সঙ্গে নিরাপত্তাকর্মীদের অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতির কারণে প্রায় এক ঘণ্টা ১৫ মিনিট পর মাঠে গড়ায় ফাইনাল।

এদিন ম্যাচের শুরু থেকেই আর্জেন্টিনাকে চাপে রাখে কলম্বিয়া। বলের দখল, লক্ষ্যে শট, কর্নার-সবদিক দিয়েই আধিপত্য বজায় রেখেছিল রদ্রিগেজরা।

তবে ম্যাচের প্রথম মিনিটে দুর্দান্ত এক সুযোগ পেয়েছিল আর্জেন্টিনা। মন্টিয়েলের ক্রস থেকে পা ছোঁয়ালেও কাঙ্ক্ষিত গোলের দেখা পাননি আলভারেজ।

ম্যাচের ষষ্ঠ মিনিটে প্রথমবার আক্রমণে উঠে কলম্বিয়ানরা। তবে লুইস ডিয়াজের মাটি কামড়ানো শট ঠেকিয়ে দেন এমিলিয়ানো মার্টিনেজ। পরের মিনিটেই বারের পাশ দিয়ে চলে যায় রদ্রিগেজের বাড়নো বলে করডোভা শট।

এরপর ম্যাচের ১৩তম মিনিটে ফের আক্রমণে যায় কলম্বিয়া। রদ্রিগেজের বাড়ানো বলে কুয়েস্টার হেড সহজেই মুঠোবন্দি করেন আর্জেন্টাইন কিপার।

ম্যাচের ৩৩তম মিনিটে দারুণ এক শট নিয়েছিলেন লারমা। তবে আর্জেন্টাইন বাজপাখির হাত ছুঁয়ে মাঠের বাইরে চলে যায় বল। ম্যাচের বাকি সময়ে আর তেমন কোনো সুযোগ তৈরি করতে না পারায় শেষমেষ গোলশূন্য বিরতি নিয়েই মাঠ ছাড়ে দল দুটি।

বিরতি থেকে ফিরেই আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণ চালায় দল দুটি। ম্যাচের ৪৮তম মিনিটে দারুণ এক সুযোগ পেয়েছিলেন ম্যাক অ্যালিস্টার। তবে তাকে হতাশ করেন কলম্বিয়ার রক্ষণভাগ।

ম্যাচের ৫৮তম মিনিটে ডি মারিয়াও সুযোগ পেয়েছিলেন। তবে তার দুর্দান্ত শট ঠেকিয়ে দেন কামিলো ভার্গাস।

৮ মিনিট পরই দুঃখে ভাসে পুরো হার্ড রক স্টেডিয়াম। চোটে পড়ে ছাড়েন লিওনেল মেসি। এরপর সাইডবেঞ্চে বসেইকান্নায় ভেঙে পড়েন বিশ্বকাপজয়ী এই অধিনায়ক।

২ম্যাচের ৭৫তম মিনিটে জালে বল জড়িয়েছিল আর্জেন্টিনা। জালের নাগাল পেয়েছিলেন মেসির বদলি নামা গঞ্জালেস। তবে অফসাইডের ফাঁদে পড়ে সেটি বাতিল হয়ে যায়।

এরপর ম্যাচের ৮৮তম মিনিটে আরও একটি বড় সুযোগ হাতছাড়া করে আর্জেন্টিনা। ডি মারিয়ার ক্রসে সামনে বাড়িয়েছিলেন গঞ্জালেস। তবে ঠিকঠাক টাইমিংয়ে সুযোগ লুফে নিতে পারেননি আলভারেজ। এতে নির্ধারিত সময়ে গোলশূন্য থাকে ম্যাচ। অতিরিক্ত সময়ে গড়ায় ম্যাচ।


আরও খবর



কোটা সংস্কারের দাবিতে সৈয়দপুরে শিক্ষার্থীদের মানবন্ধন

প্রকাশিত:শুক্রবার ১২ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ৬৫জন দেখেছেন

Image
জহুরুল ইসলাম খোকন সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:চলমান কোটা সংস্কার ও মেধাভিত্তিক নিয়োগে সরকারি পরিপত্র বহাল রাখার দাবির প্রতি একাত্মতা ঘোষনা করে নীলফামারীর সৈয়দপুরে মানববন্ধন করেছেন বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। শুক্রবার বেলা ৩ টায় শহীদ ডাক্তার জিকরুল হক সড়কের জিআরপি মোড়ে ছাত্র আন্দোলনের’ ব্যানারে এবং সাধারণ শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে মানববন্ধন করেন তারা।জুম্মার নামাজ শেষে বৈষম্য বিরোধী নানা ফেস্টুন ও ব্যনার নিয়ে উল্লেখিত স্থানে জড়ো হয় হতে থাকে শিক্ষার্থীরা। চলমান আন্দোলনের সাথে একাত্বতা প্রকাশ করে, সুযোগের সমতা নিশ্চিতের দাবি জানান তারা। এই সময় বক্তব্য দেন মো: রিফাত, মো: শান্ত, সুজন ইসলাম, সিয়াম হোসেন প্রমূখ।আন্দোলনে নিজেদের অবস্থান তুলে ধরে শিক্ষার্থীরা তাদের বক্তব্যে  বলেন, দেশ এখন স্মার্ট আধুনিক বাংলাদেশ গড়ার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। দেশ থেকে প্রতিনিয়ত মেধাবীরা আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে নিজেদের সামর্থ্যের প্রমাণ দিয়ে আসছে। আগামীর বাংলাদেশের কাণ্ডারি হবে দেশের মেধাবীরা। সেজন্য মেধার সর্বাত্মক সুযোগ বজায় রাখা কাম্য।
শিক্ষার্থীরা আরও বলেন, দেশের সর্বস্তরে কোটা সংস্কার বিষয়ক যেসব আন্দোলন হচ্ছে তা যৌক্তিক। মেধার মুল্যায়ন না হলে দেশে শিক্ষার কমে যাওয়ার আশংকা অনেক। তাই মেধার মুল্যায়ন করতে হবে।  সাধারণ শিক্ষার্থীরা কোটা সংস্কার আন্দোলনের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করছে। মেধার মূল্যায়নকে সর্বাধিক গুরুত্ব দেওয়ার জানান আন্দোলনকারীরা।

-খবর প্রতিদিন/ সি.

আরও খবর



স্বামীর সঙ্গে ঘুরতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার, প্রেমিকসহ গ্রেফতার ৭

প্রকাশিত:রবিবার ৩০ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১৪৫জন দেখেছেন

Image
মারুফ সরকার,স্টাফ রিপোর্টার:রাজধানীর খিলক্ষেতে স্বামীর সঙ্গে ঘুরতে যাওয়া এক নারীকে দলবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ভুক্তভোগীর প্রাক্তন প্রেমিকসহ ৭ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ঐ নারীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের ওয়ান-স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করা হয়েছে।

শনিবার খিলক্ষেত থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ৬ জনকে আসামি করে মামলা করেছেন ধর্ষণের শিকার নারী। এর আগে, শুক্রবার ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের বনরূপা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

ডিএমপির ক্যান্টনমেন্ট জোনের সহকারী কমিশনার (এসি) শেখ মুত্তাজুল ইসলাম এসব তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ঐ নারী শুক্রবার সন্ধ্যায় তার স্বামীর সঙ্গে খিলক্ষেত এলাকার ঢাকা–ময়মনসিংহ মহাসড়কের বনরূপা এলাকায় ঘুরতে যান। সেখানে তার প্রাক্তন প্রেমিক আবুল কাশেম ওরফে সুমনের নেতৃত্বে ৭ জনের একটি দল তাদের অপহরণ করে। এরপর ভুক্তভোগী নারী ও তার স্বামীকে বনরূপা এলাকার ঝোপঝাড়ের ভেতরে নিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। পরে তার স্বামীর কাছে ৭০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। তিনি মুক্তিপণের টাকা আনতে বেরিয়ে জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯-এ কল দেন।

এসি শেখ মুত্তাজুল ইসলাম বলেন, পুলিশ খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে বনরূপা এলাকায় যায়। পুলিশ সদস্যদের উপস্থিতি টের পেয়ে দুর্বৃত্তরা ঝোপঝাড়ের ভেতরে বারবার তাদের অবস্থান পরিবর্তন করতে থাকে। ভোর ৪টার দিকে পুলিশ সেখান থেকে ভুক্তভোগী নারীকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। কিন্তু দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যান। পরে ভুক্তভোগী নারীর সঙ্গে কথা বলে পুলিশ জানতে পারে  চারজন দুর্বৃত্ত তাকে ধর্ষণ করেছে।

ডিএমপির এ কর্মকর্তা বলেন, পুলিশ শনিবার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে প্রধান আসামি কাশেমসহ ৭ জনকে গ্রেফতার করে। জিজ্ঞাসাবাদে কাশেম জানান,ঐ নারীর সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক ছিল; তাকে বিয়ে না করায় পরিকল্পিতভাবে দলবল নিয়ে ঐ নারীকে তুলে এনে ধর্ষণ করা হয়েছে।

আরও খবর



নবীনগর ব্রাহ্মণহাতা গ্রামে মৌখিক অভিযোগের তদন্তে এসে পুলিশের হয়রানি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৩৯২জন দেখেছেন

Image

মোহাম্মদ হেদায়েতুল্লাহ  নবীনগর(ব্রাহ্মণবাড়িয়া)প্রতিনিধিঃ-

ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগর উপজেলার কাইতলা উত্তর ইউনিয়ন নারুই (ব্রাহ্মণহাতা) গ্রামে মৌখিক অভিযোগের তদন্ত করতে মো. সাব্বির ও সজিব মিয়ার বাড়িতে এসে অকথ্য ভাষায় গালাগালিসহ অর্থ লুটপাটের অভিযোগ উঠেছে নবীনগর থানার ওসি তদন্ত সজল কান্তি দাসসহ পাঁচ পুলিশের বিরুদ্ধে।সরেজমিনে গিয়ে জানাযায়, নারুই ব্রাহ্মণহাতা গ্রামের মো. অলি মুন্সী মিথ্যা মৌখিক অভিযোগ করেন শিল্পপতি রিপন মুন্সীসহ সাব্বির ও সজিব এর বিরুদ্ধে।


মঙ্গলবার সকালে সেই মৌখিক অভিযোগের তদন্ত করতে আসেন নবীনগর থানার ওসি তদন্ত সজল কান্তি দাসসহ পাঁচ পুলিশ সদস্য। ঐই সময় সাব্বির মিয়ার বাড়িতে গিয়ে বাড়ির গেইট ভেঙ্গে প্রবেশ করে সাব্বির কে বাড়িতে না পেয়ে অকথ্য ভাষায় গালাগালিসহ ঘরের ভিতরে প্রবেশ করে অর্থ লুটপাট করেন এবং সজিব মিয়ার বাড়িতে গিয়েও অকথ্য ভাষায় গালাগালি করেন।সাব্বির মিয়ার ভাই মো. শাহিন মিয়া বলেন, আমি সকালে ঘুমিয়ে ছিলাম। এমন সময় ৬ জন পুলিশ বাড়ির গেইট ভেঙ্গে ঘরের ভিতরে প্রবেশ করে আমার ভাইকে খোঁজাখুঁজি করেন৷


তাকে না পেয়ে আমার ভাইকে নিয়ে অশ্লিল ভাষায় গালাগালি করেন এবং ঘরে থাকা ৪ লাখ ৬৩ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায়।সজিবের আম্মা বলেন, সকালে নাস্তা করার সময় ২ জন পুলিশ ঘরে প্রবেশ করে আমার ছেলে সজিব কে খুঁজেন। তাকে না পেয়ে আমার ছেলেকে নিয়ে অশ্লিল ভাষায় গালাগালি করেন। আমার পরিবার পুলিশের এ কথা বলার পরও তারা আমাকে ও আমার মৃত স্বামীকে নিয়ে অশ্লিল ভাষায় গালাগালি করেন। আমরা কোন অপরাধ না করার পরও পুলিশ বাড়িতে এসে কেন হয়রানি করলো এর সঠিক বিচার চাই।


দোকানদারের ছেলে বাইজিদ বলেন, আমার বাবা দোকানে ছিল না, ঐ সময় ৬ জন পুলিশ আমাদের দোকানে ঢুকে ৬ প্যাকেট বেন্সন সিগারেট ও ৬ টি স্পিড কেন নিলে আমি টাকা চাওয়াতে তারা আমার বাবাকে হাত পা ভাঙ্গার হুমকি প্রধান করেন।গ্রাম পুলিশ একরামুল বলেন, সকালে নবীনগর থানা থেকে ৬ জন পুলিশ এসে আমাকে ফোন করলে আমি সাব্বির মিয়ার বাড়ির সামনে আসি। আমাকে নিয়ে সাব্বির ও সজিব মিয়ার বাড়িতে যায়। তাদের কে না পেয়ে পুলিশ সদস্যরা অশ্লিল ভাষায় গালাগালি করেছে, কেন করেছে তা আমি জানি না।


সাব্বির ও সজিব বলেন, আমাদের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ আনা হয়ছে তা মিথ্যে বানুয়াট। আমরা কেন তাদের কোরবানি দিতে বাধা দিব। এই মিথ্যা অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ আমাদের বাড়িতে এসে সকলকে গালাগালিসহ ও লুটপাট করেছে। আমরা এর সঠিক বিচার চাই।অভিযোগকারী অলি মুন্সী বলেন, আমার ভাগ্নে মোরশেদ আমার সাথে কোরবানি দিতে চাইলে তাকে বাঁধা প্রদান করেন সজিব ও সাব্বির।


তাই আমি থানায় মৌখিক অভিযোগ করেছি, তবে লিখিত কোন অভিযোগ করি নাই। তবে মঙ্গলবার সকাল ১০ টার দিকে কোরবানি দিয়েছি।নবীনগর থানার ওসি তদন্ত সজল কান্তি দাস বলেন, আমাদের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ গুলো আনা হয়ছে সেগুলো সম্পূর্ণ মিথ্যা বানুয়াট। যারা এ ধরনের মিথ্যা অভিযোগ করেছে উর্ধ্বতন কতৃপক্ষের সাথে কথা বলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর