Logo
আজঃ বুধবার ১৯ জুন ২০২৪
শিরোনাম

মায়ের নাম অভিভাবক হিসেবে গ্রহণযোগ্য: হাইকোর্ট

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৪ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ৩২০জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক: শিক্ষাসহ প্রয়োজনীয় যে কোনো ফরম পূরণের ক্ষেত্রে অভিভাবকের আসনে বাবা, মা অথবা আইনগত অভিভাবককে রাখার নির্দেশ দিয়ে রায় দিয়েছেন হাইকোর্ট। এতদিন অভিভাবকের ক্ষেত্রে কেবলমাত্র বাবার নাম দেওয়ার সুযোগ ছিল। এ রায়ের ফলে বাবার অনুপস্থিতিতে বিকল্প হিসেবে অভিভাবকের আসনে মায়ের নাম গ্রহণযোগ্য হবে।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে মায়ের নামে ফরম পূরণ করে পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ চেয়ে করা এক রিটের চূড়ান্ত শুনানি নিয়ে আজ মঙ্গলবার হাইকোর্টের বিচারপতি নাঈমা হায়দার ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ রায় দেন।

আদালতে রিটের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট রেজাউল করিম, অ্যাডভোকেট আইনুন্নাহার লিপি ও অ্যাডভোকেট আয়েশা আক্তার। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত দাশগুপ্ত।

পরে অ্যাডভোকেট আয়েশা আক্তার বলেন, আজকের রায়ের ফলে এসএসসি, এইচএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণ, পাসপোর্টের ফরম পূরণসহ সব ফরম পূরণে বাবা অথবা মা অথবা আইনগত অভিভাবকের নাম লেখা যাবে। এই রায়ের ফলে বাবা-মায়ের উভয়ের নাম লেখার বাধ্যবাধকতা থাকল না। শুধু মায়ের নাম লিখেও ফরম পূরণ করা যাবে।

এর আগে গত ১৬ জানুয়ারি সন্তানের অভিভাবক হিসেবে মা স্বীকৃতি পাবেন কি না- এ বিষয়ে শুনানি শেষে রায়ের জন্য আজকের দিন ধার্য করা হয়।

রিটের পক্ষের আইনজীবীরা জানান, ২০০৭ সালের এপ্রিল মাসে বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত তথ্যের ভিত্তিতে জানা যায় যে, মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষায় অংশগ্রহণের পূর্বে শিক্ষার্থী তথ্য ফরমে অত্যাবশ্যকীয়ভাবে বাবার নাম পূরণ করতে না পারার কারণে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, রাজশাহী ঠাকুরগাঁওয়ের এক তরুণীকে এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের প্রবেশপত্র দিতে অস্বীকৃতি জানায়। উল্লেখ্য, মা ও সন্তানকে কোনোরূপ স্বীকৃতি না দিয়ে বাবার চলে যাওয়ার পর ওই তরুণী তার মায়ের একার আদর স্নেহে বড় হয়েছিলেন।

পরে এ ঘটনার যথাযথ অনুসন্ধানের ওপর প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে এবং সন্তানের অভিভাবক হিসেবে মায়ের স্বীকৃতি প্রতিষ্ঠার দাবিতে ২০০৯ সালের ২ আগস্ট তিনটি মানবাধিকার বিষয়ক সংগঠন- বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড অ্যান্ড সার্ভিসেস ট্রাস্ট (ব্লাস্ট), বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ এবং নারীপক্ষ যৌথভাবে জনস্বার্থে রিট দায়ের করে।

রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে ওই বছরের ৩ আগস্ট বিচারপতি সৈয়দ রেফাত আহম্মেদ এবং বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরীর সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ মানবাধিকার, সমতার পরিপন্থি ও বিশেষভাবে শিক্ষার অধিকারে প্রবেশগম্যতার বাধাস্বরূপ বিদ্যমান বৈষম্যমূলক এ বিধানকে কেন আইনের পরিপন্থি এবং অসাংবিধানিক হিসেবে ঘোষণা করা হবে না- এই মর্মে রুল জারি করেন।

একই সঙ্গে বর্তমানে কোন কোন শিক্ষা বোর্ডে এসএসসি পরীক্ষার রেজিস্ট্রেশন কার্ড পাওয়ার ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীর বাবা ও মা উভয়ের নাম সম্পর্কিত তথ্য বাধ্যতামূলকভাবে উল্লেখ করতে হয় তার একটি তালিকা এবং যেসব যোগ্য শিক্ষার্থী তাদের বাবার পরিচয় উল্লেখ করতে অপারগ তাদের পরীক্ষায় অংশগ্রহণের ক্ষেত্রে কি ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়, সে সম্পর্কে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেওয়া হয়।

পরে ২০২১ সালের ৬ জুন ব্লাস্ট আবেদনকারীদের পক্ষে একটি সম্পূরক হলফনামা আদালতে দাখিল করে। রিটের চূড়ান্ত শুনানি শেষে হাইকোর্ট রায় ঘোষণার জন্য ২৪ জানুয়ারি দিন ধার্য করেন।


আরও খবর



প্রকাশ্যে ডেনমার্কের প্রধানমন্ত্রীর ওপর হামলা

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ৮৩জন দেখেছেন

Image

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:ডেনমার্কের প্রধানমন্ত্রী মেটে ফ্রেডেরিকসেন এবার হামলার শিকার হয়েছেন। রাজধানী কোপেনহেগেনের রাস্তায় প্রকাশ্যেই তার ওপর হামলার এই ঘটনা ঘটে। এদিকে এই হামলার ঘটনায় একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শনিবার (৮ জুন) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি। এর আগে স্লোভাকিয়ার প্রধানমন্ত্রীর ওপরও প্রকাশ্যে হামলার ঘটনা ঘটেছিল।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রাজধানী কোপেনহেগেনের রাস্তায় প্রকাশ্যে হামলার শিকার হওয়ার পর ডেনমার্কের প্রধানমন্ত্রী মেটে ফ্রেডেরিকসেন ‘মর্মাহত’ হয়েছেন বলে তার কার্যালয় জানিয়েছে। শহরের কেন্দ্রস্থলে একটি চত্বরে তার ওপরে এই হামলার ঘটনা ঘটে।

মূলত একজন লোক প্রধানমন্ত্রী ফ্রেডেরিকসেন কাছে এগিয়ে গিয়ে তাকে আঘাত করে। ওই হামলাকারীকে ইতোমধ্যেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে।


ইউরোপীয় কমিশনের প্রধান উরসুলা ভন ডার লিয়েন এই হামলাকে ‘ঘৃণ্য কাজ’ বলে অভিহিত করেছেন। তার মতে, এই হামলা এমন একটি কাজ যা আমাদের বিশ্বাস এবং ইউরোপে আমরা যার বিরুদ্ধে লড়াই করছি তার বিরুদ্ধে যায়।

ডেনমার্কের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, প্রধানমন্ত্রী মেটে ফ্রেডেরিকসেনকে শুক্রবার সন্ধ্যায় কোপেনহেগেনের কুলটোরভেটে একজন ব্যক্তি আঘাত করেন, যাকে পরে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী এই ঘটনায় হতবাক হয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় অবশ্য এই ঘটনায় আরও বিস্তারিত কিছু জানায়নি। পুলিশ বলেছে, তারা একজনকে আটক করেছে এবং ঘটনার তদন্ত করছে, তবে এর বেশি কিছু বলতে তারাও রাজি হয়নি। হামলার উদ্দেশ্য ঠিক কী ছিল সে সম্পর্কে এখনও কিছু জানা যায়নি।

এদিকে মারি আদ্রিয়ান এবং আনা রাভন নামে দুজন প্রত্যক্ষদর্শী স্থানীয় সংবাদপত্র বিটিকে বলেছেন, তারা ওই হামলার ঘটনা দেখেছেন।

ওই দুই নারী সংবাদপত্রকে বলেছেন, ‘একজন লোক বিপরীত দিক দিয়ে এসে তার (প্রধানমন্ত্রী মেটে ফ্রেডেরিকসেনের) কাঁধে সজোরে ধাক্কা দেয়, যার ফলে তিনি একপাশে পড়ে যান।’

তারা আরও বলেন, ‘ধাক্কাটি বেশ জোরালো’ হলেও প্রধানমন্ত্রী মাটিতে পড়ে যাননি। এরপর তিনি একটি ক্যাফেতে বসেন।

বিবিসি বলছে, ইইউ পার্লামেন্ট নির্বাচনে ডেনমার্কের ভোটের দুই দিন আগে এই হামলার ঘটনা ঘটল। ডেনমার্কের সোশ্যাল ডেমোক্র্যাট নেতা মেটে ফ্রেডেরিকসেন এর আগে তার দলের প্রধান প্রার্থী ক্রিস্টেল শ্যালডেমোসের সাথে ইউরোপীয় নির্বাচনী ইভেন্টে অংশ নিয়েছিলেন।

ডেনমার্কের জোট সরকারের সবচেয়ে বড় দল সোশ্যাল ডেমোক্র্যাটরা। তারা এখনও নির্বাচনে নেতৃত্ব দিচ্ছে, কিন্তু সাম্প্রতিক মাসগুলোতে তাদের সমর্থন অনেকটাই কমে গেছে।

ডেনমার্কের পরিবেশ মন্ত্রী ম্যাগনাস হিউনিকে সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম এক্সে বলেছেন: ‘মেটে স্বাভাবিকভাবেই এই আক্রমণে হতবাক। আমি অবশ্যই বলতে চাই, আমরা যারা তার ঘনিষ্ঠ এই হামলা আমাদের সকলকে নাড়া দিয়েছে।

ইইউ প্রধান চার্লস মিশেল এক্স-এ বলেন, এই হামলার ঘটনায় তিনি ‘ক্ষুব্ধ’। তিনি বলেন, আমি এই কাপুরুষোচিত আগ্রাসনের তীব্র নিন্দা জানাই।

এর আগে স্লোভাকিয়ার প্রধানমন্ত্রী রবার্ট ফিকো সমর্থকদের অভ্যর্থনা জানানোর সময় হামলার শিকার হয়ে গুলিবিদ্ধ হন। সেই হামলার এক মাসেরও কম সময়ের মধ্যে এই হামলার ঘটনা ঘটল।

স্লোভাক প্রধানমন্ত্রী অবশ্য সেই হামলায় বেঁচে গেছেন এবং তাকে অস্ত্রোপচারও করতে হয়েছে।


আরও খবর



কুয়েতে ভবনে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড, নিহত ৩৫

প্রকাশিত:বুধবার ১২ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ৮৮জন দেখেছেন

Image

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:কুয়েতের দক্ষিণাঞ্চলে একটি ভবনে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে কমপক্ষে ৩৫ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও অনেক মানুষ।

বুধবার (১২ জুন) দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় মানগাফ শহরে এই অগ্নিকাণ্ড ও হতাহতের ঘটনা ঘটে। দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাতে এ খবর জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়, আহতদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা গুরুতর। তাদের নিকটবর্তী বিভিন্ন হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

কুয়েতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ভবনে অগ্নিকাণ্ডে আহতদের যথাযথ চিকিৎসা সেবা দেওয়ার জন্য মেডিকেল দলগুলো তাদের সর্বোচ্চ চেষ্টা করছে।

এছাড়া অগ্নিকাণ্ডে আহতদের যথাযথ চিকিৎসা সেবা দেওয়ার জন্য মেডিকেল দলগুলো তাদের সর্বোচ্চ চেষ্টা চালাচ্ছে বলেও মন্ত্রণালয় আশ্বস্ত করেছে।


আরও খবর



রূপগঞ্জে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারসহ এলাকাবাসীর বাড়িঘরে হামলা ভাংচুরের প্রতিবাদে মানববন্ধন

প্রকাশিত:বুধবার ০৫ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | ৯৫জন দেখেছেন

Image

মোঃআবু কাওছার মিঠু রূপগঞ্জ নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি:- নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার তারাবো পৌরসভার উত্তরপাড়া এলাকার বীরমুক্তিযোদ্ধা তাবেল মিয়া ও এলাকার নিরীহ মানুষের দেড় শতাধিক ঘর-বাড়িতে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করা হয়েছে।


৫ জুন বুধবার উপজেলার তারাবো বিশরোড-ডেমরা সড়কে এ মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেন এলাকাবাসী। মানববন্ধনে সহস্রাধিক নারী-পুরুষসহ এলাকাবাসী অংশ নেয়। 

মানববন্ধন পূর্বক তারাবো হাটিপাড়া এলাকায় আয়োজিত প্রতিবাদ সভায় সভাপতিত্ব করেন তারাবো পৌর আওয়ামীলীগ নেতা বকুল ভুঁইয়া। সভায় বক্তব্য রাখেন বীরমুক্তিযোদ্ধা তাবেল মিয়ার স্ত্রী জোসনা বেগম, আওয়ামীলীগ নেতা মনসুর আলী, বাদল ভুঁইয়া, আব্দুল্লাহ, নিরব ভুঁইয়া, সজীব ভুঁঁইয়া প্রমুখ। 


সভায় বক্তারা বলেন, তারাবো দক্ষিণপাড়ার আকবর বাহিনী ও শ্রাবণ বাহিনীর সদস্যরা মাদক ও কিশোরগ্যাংয়ের আধিপত্য নিয়ে কিছু দিন পরপর সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। বাড়িঘরে ও দোকানে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও লুটপাট করে। বসত ঘরে ও দোকানে থাকা টিভি, ফ্রিজ, স্বর্ণালংকার, নগদ টাকাসহ মালামাল লুটে নেয়। সন্ত্রাসীদের অবিলম্বে গ্রেফতার করতে হবে। 


উল্লেখ্য গত ৩০মে মাদক ব্যবসাকে কেন্দ্র করে কিশোরগ্যাংয়ের আকবর বাহিনী ও শ্রাবণ বাহিনী আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দফায় দফায় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, গুলি-ককটেল বিস্ফোরণ ও সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এ ঘটনায় রাকিব নামের একজন গুলিবিদ্ধসহ ২০ জন আহত হয়। 

      -খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর

ভোলায় "রাসেল ভাইপার" আতঙ্ক

বুধবার ১৯ জুন ২০২৪




রূপগঞ্জে ভুল চিকিৎসায় প্রসুতির মৃত্যু

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ৮৪জন দেখেছেন

Image

আবু কাওছার মিঠু রূপগঞ্জ নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধিঃনারায়ণগঞ্জে রূপগঞ্জে ভুলতা জেনারেল নামে এক বেসরকারী হাসপাতালে ভুল চিকিৎসায় লুবনা আক্তার(২৭) নামে এক প্রসুতির মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। এসময় ক্ষিপ্ত হয়ে নিহতের স্বজনরা হাসপাতাল ভাংচুর করে। ভয়ে লাশ রেখে হাসপাতাল থেকে চিকিৎসকসহ সকল কর্মকর্তা- কর্মচারীরা পালিয়ে যায়। 

নিহত লুবনা আক্তার আড়াইহাজার থানাধীন গিরদা এলাকার কাপড় ব্যবসায়ী তপন মিয়া স্ত্রী।

নিহতের স্বজনরা জানান, ব্যবসায়ী তপন তার স্ত্রী লুবনাকে সন্তান প্রসবের জন্য ভুলতা জেনারেল হাসপাতালে গাইনী চিকিৎসক ডাঃ সোনিয়া রহমানের পরামর্শে সোমবার বিকালে হাসপাতালে ভর্তি করান। রাত ৮ টার সময় অপারেশনের সময় দিলেও রাত ১১ টার সময় লুবনাকে অপারেশর থিয়েটারে নিয়ে যায় ডাঃ সোনিয়া রহমান।   চেতনানাশক এনেসথেশিয়া ইনজেকশন পুশ করার পর তার আর জ্ঞান ফিরেনি। ২ ঘন্টা পর পরিবারের কাউকে কিছু না বলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ অপারেশন থিয়েটার থেকে  লু্বনাকে তড়িগড়ি করে পার্শ্ববর্তি একটি হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানকার ডাক্তার তাকে মৃত বলে ঘোষনা দেন।


তখন সেই হাসপাতালে লাশ রেখেই পলায়ন করে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। পরে লাশ নিয়ে নিহতের স্বজন ভুলতা জেনারেল হাসপাতালে আসলে হাসপাতালে কাউকে পাওয়া যায়নি। সবাই  পালিয়ে গেছে। এসময় ক্ষিপ্ত হয়ে নিহতের স্বজনা উত্তেজিত হয়ে হাসপাতালে ভাংচুর করে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে। এব্যাপারে কথা বলার জন্য হাসপাতালে কাউকে পাওয়া যায়নি।

ভুলতা পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ জিল্লুর রহমান বলেন,  অপারেশনের সময় এক প্রসুতির মৃত্যুর খবরে হাসপাতালে ভাংচুরের খবর পেয়ে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এঘটনা এখনো কোন লিখি

 -খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্ম মিরপুর শাখার কমিটির পরিচিতি

প্রকাশিত:রবিবার ০২ জুন 2০২4 | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ১০৫জন দেখেছেন

Image

হাবিব কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি:মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্ম কুষ্টিয়া জেলার মিরপুর উপজেলা শাখার মেয়াদ উত্তীর্ণ কমিটি বিলুপ্ত করে নতুন কমিটি ঘোষনা হয় গত সপ্তাহে এবং আজ ১ জুন ২০২৪ইং শনিবার বিকেলে কমিটির পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত হয় মিরপুর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের ভবনে। মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্ম মিরপুর শাখার সভাপতি আবু হুরায়রা স্বপনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্ম কুষ্টিয়ার জেলা শাখার সভাপতি হাবিবুর রহমান। অনুষ্ঠানের উদ্বোধক ছিলেন, কুষ্টিয়া জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক শেখ শুভীন আক্তার। মিরপুর উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক আমিরুল ইসলামের পরিচালনায় এসময়ে সহ-সভাপতি ইলিয়াস হোসেন, রুবেল হোসেন, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক পারভীন, সাংগঠনিক সম্পাদক মাফরোজা আক্তার টুনি, অর্থ-সম্পাদক রনি ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক মমতাজ বেগম, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সুমন রেজা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর